X
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

উপহারের ঘর ছাড়ছে মানুষ: জানে না প্রশাসন

আপডেট : ১৬ জুলাই ২০২১, ০১:৫০

মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার হিসেবে গৃহহীন ও ভূমিহীনদের জন্য সারাদেশের মতো হবিগঞ্জেও খাস জমিতে সরকারি টাকায় বানানো হয়েছে সারি সারি ঘর। পাকা দেয়াল আর নীল টিনের ছাউনির ঘরগুলো এলাকার সৌন্দর্য বাড়ালেও, এসব ঘরে থাকতে মানুষের অনীহা বাড়ছে।

সুযোগ-সুবিধা এবং নিরাপত্তার অভাব ছাড়াও কর্মসংস্থানের সুযোগ না থাকায় বেশ কষ্টেই আছে ঘর পাওয়া ২৬টি পরিবার। বাকি ৪৮টি পরিবারের কোনও খোঁজই নেই। ইতোমধ্যে ছয়টি পরিবার তাদের ঘর ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছেন।

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটের ইকরতলী আশ্রয়ণ এলাকায় কয়েকটি পরিবারের সঙ্গে আলাপ করে এসব তথ্য জানা গেছে। একইসঙ্গে ইকরতলী গ্রামে আশ্রয়ণ প্রকল্পের অধিকাংশ ঘরের দরজায় তালা ঝুলতে দেখা গেছে।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, দুই একর ছয় শতাংশ খাস জমিতে ৭৪ জন ভূমি ও গৃহহীনকে সরকারি অর্থে বাড়ি বানিয়ে দেওয়া হয়েছিলো। একেকটি বাড়ি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে এক লাখ ৭৫ টাকা। প্রতিটি ঘরে রয়েছে দুইটি কক্ষ, রান্নাঘর ও একটি বাথরুম। মুজিববর্ষ উপলক্ষে ২৩ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাড়িগুলো উপহার হিসেবে উপকারভোগীদের মধ্যে হস্তান্তর করেন।

ইকরতলী আশ্রয়ণ কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে, ছয় সারিতে ৭৪টির মধ্যে ২৬টি ঘরে লোকজন বসবাস করছেন। বাকি ৪৮টি খালি পড়ে আছে।

উপকারভোগী ইউনুছ মিয়া জানান, তিনি মূলত উপজেলার বঘাডুবি গ্রামের বাসিন্দা। একসময় রিকশা চালাতেন। কয়েক বছর আগে নিজের পাঁচ শতক ভূমিতে ঘর বানানোর জন্য সরকারের কাছে আবেদন করেছিলেন। গত বছরের শেষ দিকে আমুরোড ভূমি অফিস থেকে জানানো হয়, তার নামে ঘরসহ ভূমি বরাদ্দ করেছে সরকার। তাই পাঁচ ছেলেকে সাত শতক জমি দিয়ে নিজে বাড়ি ছেড়ে সরকারি ঘরে আছেন। পরিবারের সদস্যরা বঘাডুবি বাড়িতেই বসবাস করছে।

আরেক বাসিন্দা আমিনুল ইসলাম (২৫) জানান, আগে কালেঙ্গা ফরেস্ট এলাকায় থাকতেন। কাজ করতেন লেবু বাগানে। সারা বছর কৃষি ছাড়া কোনও না কোনও কাজে ব্যস্ত থাকতেন। ইকরতলীর সরকারি ঘরে এসে মাসে পাঁচ দিনও কাজ পান না। কীভাবে দিন পার করবেন ভেবে পাচ্ছেন না বলে জানালেন আমিনুল।

তিনি বলেন, ‘বিদ্যুতের লাইন ঘর পর্যন্ত টেনে আনা হয়েছে।  আবেদনের জন্য ১১৫ টাকা দিতে হয়েছে। দুই হাজার টাকা ফিস দিতে না পারায় সংযোগ পাচ্ছেন না। ঘরে ওঠার আগে বলা হয়েছিলো বিদ্যুৎ সংযোগ ফ্রি পাবো। টাকার অভাবে হতদরিদ্র মানুষ বিদ্যুৎ নিতে না পারায় প্রচণ্ড গরম সহ্য করতে হচ্ছে। রাত হলে ভর করে গভীর অন্ধকার। ভয় করে মা-বোনদেরকে নিয়ে। চার পরিবারের জন্য একটি টিউবওয়েল থাকার কথা। সেখানে ১২টি পরিবার একটি টিউবওয়েলের ওপর নির্ভর করতে হচ্ছে। পানি সংকট এখানে চরম। কিছু কিছু ঘরের দেয়ালে ফাটল ধরেছে। যদিও মেরামত করা হয়। বৃষ্টির সময় পানি পড়ে।’

আমিনুল আরও জানান, ভূমি রেজিস্ট্রারের সময় এক হাজার ৬৬০ টাকা নেওয়া হয়েছিলো। অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার খবর জানাজানি হলে সরকারি কর্মকর্তা এসে পরবর্তী সময়ে ২২০ টাকা ফেরত দেয়।

উপহার হিসেবে পাওয়া ঘরে একা থাকেন গার্মেন্টকর্মী তাজ নাহার। ঘরে টিভি ফ্রিজ আছে জানিয়ে বলেন, ‘এক মাস আগে দুর্বৃত্তরা তার ঘরের দেয়াল ভাঙার চেষ্টা করে।’ আশপাশের ঘরগুলো খালি পড়ে থাকায় নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলেও জানান এক সন্তানের এই জননী।

একই কথা জানালেন কামরুন্নাহার। তার স্বামী ঢাকায় ট্রাকের হেলপার। বাড়িতে একা থাকতে হচ্ছে। রাত হলে ভয় করে।

আশ্রয়ণ প্রকল্পে বসবাসকারীরা আরও জানান, কর্মসংস্থানের অভাব এবং হাটবাজার দূরে থাকায় উপহারের বসত ঘরটি বিক্রি করারও চিন্তা করছেন কেউ কেউ।

ইতোমধ্যে বসবাসকারী জবা আক্তার, রহিম মিয়া, সলিমা খাতুন, মাহফুজ মিয়া, মনফর মিয়া ও আবু মিয়া ঘর ছেড়ে চলে গেছেন।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, অনেকে ঘরে এক রাত থেকেই চলে গেছেন। কিন্তু ৪১ নম্বর ঘরের ছপিনা খাতুন, ৪৫ নম্বরের নূরুল হক স্বপন, ৫৮ নম্বরের মো. শামসুল হক, ৬৪ নম্বর ঘরের মালিক আব্দুল মোত্তালিব পাঁচ মাস আগে ঘর বরাদ্দ পেলেও একবারও আসেননি।

এ প্রসঙ্গে চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সত্যজিত রায় দাশ বলেন, ‘বিভিন্ন মিডিয়ায় মিথ্যা তথ্য দিয়ে চুনারুঘাটের সম্মান ক্ষুণ্ন করা হচ্ছে। আশ্রয়ণ প্রকল্পে সুবিধাভোগীরা ঘর ছেড়েছেন, এমন তথ্য আমাদের কাছে নেই।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

সিলেটে এটিএম বুথের টাকা লুটের ঘটনায় ৪ জন রিমান্ডে

সিলেটে এটিএম বুথের টাকা লুটের ঘটনায় ৪ জন রিমান্ডে

বিদেশে বন্ধুত্ব, দেশে এসে এটিএম বুথের টাকা লুট

বিদেশে বন্ধুত্ব, দেশে এসে এটিএম বুথের টাকা লুট

বিয়ের কথা বলে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ৪

বিয়ের কথা বলে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ৪

জলবায়ু সংকট: প্রতীকী ফাঁসিতে ঝুলে প্রতিবাদ

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:১৬

বিশ্বব্যাপী জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিবাদে আন্দোলন ‌‘গ্লোবাল ক্লাইমেট স্ট্রাইক‌’র সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে সাতক্ষীরায় ধর্মঘট ও প্রতীকী ফাঁসি কর্মসূচি পালন করেছেন তরুণরা।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কের শহীদ মিনারে বিশ্ব জলবায়ু ধর্মঘট দিবস উপলক্ষে সুইডিশ পরিবেশ আন্দোলনকর্মী গ্রেটা থুনবার্গের আহ্বানে সাড়া দিয়ে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

পরিবেশবাদী সংগঠন ইয়ুথনেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিস, লিডার্স, কোস্টাল ইয়ুথ অ্যাকশন হাব, বাংলাদেশ মডেল ইয়ুথ পার্লামেন্ট, ফ্রাইডেস ফর ফিউচার বাংলাদেশ, ভিবিডি সাতক্ষীরা, সামাজিক ও রক্তদান সেবায় আমরা সহ জেলার বিভিন্ন পরিবেশবাদী ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এই কর্মসূচি পালন করে।

কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে জলবায়ুকর্মীরা আসন্ন জাতিসংঘ জলবায়ু সম্মেলন (কপ-২৬) এবং যুব সম্মেলনকে সামনে রেখে বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধির হার ১.৫ ডিগ্রিতে সীমিত রাখতে উন্নত দেশগুলোকে চাপে রাখাসহ প্যারিস চুক্তি বাস্তবায়ন, পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় ও জলবায়ু ন্যায্যতার দাবি জানান। এ সময় প্রতীকী ফাঁসিতে ঝুলে জলবায়ু সংকটকে তুলে ধরেন ইয়ুথনেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিসের স্বেচ্ছাসেবক শাহিন সিরাজ।

ইয়ুথনেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিসের সাতক্ষীরা ইউনিটের সমন্বয়ক এস এম শাহিন আলমের সভাপতিত্বে ও সাতক্ষীরা স্টুডেন্ট সোসাইটির সভাপতি শেখ শাকিল হোসেনের সঞ্চালনায় কর্মসূচিতে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন- দৈনিক দক্ষিণের মশালের সম্পাদক আশেক-ই-এলাহী, স্বদেশের নির্বাহী সম্পাদক মাধব চন্দ্র দত্ত, সাতক্ষীরা নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক আনিসুর রহিম, ভিবিডি সাতক্ষীরার সভাপতি সুব্রত হালদার, তামান্না তানজিম প্রমুখ।

তারা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে গোটা বিশ্ব ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। বাংলাদেশের উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরায় এই ঝুঁকির মাত্রা সবচেয়ে বেশি। বিশ্ব নেতারা বিষয়টি আমলে নিচ্ছেন না। জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি হ্রাস করতে এসব দেশের ভূমিকা সংকীর্ণ। প্যারিস চুক্তি প্রণয়নের প্রায় পাঁচ বছর অতিক্রান্ত হলেও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় এখনও কার্যকর কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। তারা আমাদের ভবিষ্যৎ ও বর্তমান নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে।

বক্তারা আরও বলেন, আমরা আশার বাণী শুনতে চাই না। ২০২৫ সালের মধ্যেই গ্রিন হাউস গ্যাস নিঃসরণের মাত্রা শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য দায়ী রাষ্ট্রসমূহের কাছ থেকে ক্ষতিপূরণ আদায় ও এর পরিবর্তনের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য আদায় করা অর্থ যথাযথভাবে ব্যয় করতে হবে।

উল্লেখ্য, সুইডেনের সংসদের সামনে দেশটির স্কুলপড়ুয়া ছাত্রী গ্রেটা থুনবার্গ একটি প্ল্যাকার্ড হাতে অবস্থান নেন। সেখানে লেখা ছিল- ‘স্কুল স্ট্রাইক ফর ক্লাইমেট’। তার এই উদ্যোগের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে বিশ্বের নানান প্রান্তের শিক্ষার্থী ও তরুণরা ধর্মঘট পালন করেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

বসতঘরে মিললো ১৬ বিষধর সাপ

বসতঘরে মিললো ১৬ বিষধর সাপ

প্রাইভেট পড়তে গিয়ে নিখোঁজ, পরদিন মিললো স্কুলছাত্রীর লাশ

প্রাইভেট পড়তে গিয়ে নিখোঁজ, পরদিন মিললো স্কুলছাত্রীর লাশ

নিজ ঘরে রাবি শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ

নিজ ঘরে রাবি শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ

বিয়ে বার্ষিকীতে স্ত্রীকে চাঁদের জমি উপহার, দাবি স্বামীর

বিয়ে বার্ষিকীতে স্ত্রীকে চাঁদের জমি উপহার, দাবি স্বামীর

একই ব্যানারে গাজীপুরে আ.লীগের পাল্টাপাল্টি সমাবেশ

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:০২

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের শাস্তি দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের ডাক দিয়েছে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকালে বোর্ড বাজার এলাকায় এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসডিজি অগ্রগতিতে ‌‘জাতিসংঘের সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট সলিউশনস নেটওয়ার্ক (এসডিএসএন)’ পুরস্কার পাওয়ায় তাকে অভিনন্দন জানিয়ে বোর্ড বাজার ইউটিসি চত্বর এলাকায় আনন্দ মিছিলের ডাক দিয়েছেন মেয়র জাহাঙ্গীর। দুই কর্মসূচিই গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের ব্যানারে আয়োজন করা হয়েছে। 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করার একটি ভিডিও সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এ নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে নিয়ে মহানগরের বিভিন্ন মহলে আলোচনা-সমালোচনা চলছে। এরই প্রেক্ষিতে টঙ্গী পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের ব্যানারে একদল বিক্ষোভকারী বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) মহানগরের হোসেন মার্কেট, বোর্ড বাজার, চেরাগআলী ও সন্ধ্যায় টঙ্গীর স্টেশন রোড এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে। এ সময় টঙ্গী রেলস্টেশন এলাকায় অগ্নিসংযোগ করে তারা। 

মহানগর আ.লীগের ব্যানারে গাজীপুরে পাল্টাপাল্টি সমাবেশের ডাক

এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার মেয়র জাহাঙ্গীর আলম তার ফেসবুক আইডি থেকে ‘ভিডিওটি সাজানো ও এডিট’ করা উল্লেখ করে প্রতিবাদ করেন।

গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খান বলেন, উনি (মেয়র জাহাঙ্গীর আলম) বলেছেন ওই ভিডিও অসত্য। কিন্তু তার কথা ভাষা ও সুর সবাই চেনেন। এটা যে তার বক্তব্য নয় তা তাকে প্রমাণ করতে হবে। যে ভিডিও ভাইরাল হয়েছে তা থেকে উনি (মেয়র) কোনোভাবেই পার পাবেন না।

গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মজিবুর রহমান বলেন, একটি বড় দলে কিছু ছোট-খাটো ঘটনা ঘটে থাকে। এর আগে একজন মন্ত্রীকে নিয়েও এমন ঘটনা ঘটেছিল। প্রধানমন্ত্রী দেশের বাইরে রয়েছেন, তাছাড়া গাজীপুরের অভিভাবক মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হকও দেশের বাইরে রয়েছেন। তারা দেশে ফিরলেই সমস্যার সমাধান হবে।

সমাবেশ ঘিরে সতর্ক অবস্থানে পুলিশ

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) কমিশনার খন্দকার লুৎফুল কবীর জানান, একই এলাকায় একই ব্যানারে পৃথক দুটি কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে। তবে কোনও পক্ষ অনুমতি নিয়েছে কিনা তা আমার মনে পড়ছে না। আর অনুমতি সংক্রান্ত কাজটি করে সিটিএসবি। তবে যেকোনও ধরনের উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবিলায় গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ প্রস্তুত রয়েছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

‘অক্টোবরে রংপুরে থানা-ওয়ার্ড কমিটি গঠনে আ.লীগের বর্ধিত সভা’

‘অক্টোবরে রংপুরে থানা-ওয়ার্ড কমিটি গঠনে আ.লীগের বর্ধিত সভা’

টাকা নিয়ে দ্বন্দ্ব, মারধরের ৮ দিন পর ছাত্রলীগকর্মীর মৃত্যু

টাকা নিয়ে দ্বন্দ্ব, মারধরের ৮ দিন পর ছাত্রলীগকর্মীর মৃত্যু

গাজীপুরের মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

গাজীপুরের মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

‘বিদ্যালয়ে এসে করোনা আক্রান্তের প্রমাণ পাওয়া যায়নি’

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:১৮

শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, বিদ্যালয়ে এসেই যে শিক্ষার্থীরা করোনা আক্রান্ত হয়েছে, তার প্রমাণ পাওয়া যায়নি। বন্ধের সময় বিদ্যালয়ে না গেলেও আত্মীয়-স্বজনের বাসায় বা বিনোদনের জায়গায় সবখানেই যাচ্ছিলো তারা।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলীর ইউরোপিয়ান ক্লাবে বীরকন্যা প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের প্রতিকৃতিতে ফুলেল শ্রদ্ধা জানানো শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

শিক্ষা উপমন্ত্রী বলেন, সুনির্দিষ্ট কিছু জায়গায় দেখেছি, শিক্ষার্থীরা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। সেসব জায়গায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।  

তিনি আরও বলেন, আগামী দিনে অপরাজনীতি ও সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে বিপ্লবীদের জীবনাদর্শ অনুসরণ করে আমাদের লড়াই-সংগ্রাম করতে হবে। এক সময় আমরা দেখেছি, আওয়ামী লীগের নেতা পুলিন দে, আতাউর রহমান খান কায়সার, এম এ মান্নান দেখেছি, বিপ্লবীদের জন্ম ও মৃত্যুদিবসে জে এম সেন হলে গিয়ে তাদের আবক্ষ ভাস্কর্যে শ্রদ্ধা জানাতেন। সেখানে আমাদের দলের শত শত নেতাকর্মী অংশ নিতেন। আওয়ামী লীগ দীর্ঘসময় ধরে বিপ্লবীদের শ্রদ্ধা জানিয়ে এসেছে। আমরা আবারও সেই ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনবো।

উপস্থিত দলীয় নেতা-কর্মীদের বিপ্লবীদের জীবনী পাঠ করার আহ্বান জানিয়ে মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ ও ‘কারাগারের রোজনামচা’ বইয়ে ব্রিটিশবিরোধী বিপ্লবীদের কথা লিখে গেছেন। তিনি লিখেছেন, বিপ্লবীদের জীবনী থেকে তিনি পাকিস্তানের বিরুদ্ধে লড়াই-সংগ্রামের অনুপ্রেরণা ও শক্তি পেয়েছেন। সূর্যসেন, প্রীতিলতাসহ যারা সেদিন যুব বিদ্রোহে অংশ নিয়েছিলেন, তাদের সম্পর্কে আমরা জানবো ও স্মৃতি ধরে রাখবো।

এ সময় চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চুসহ আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

গণমাধ্যম নিয়ে যা বললেন নওফেল

গণমাধ্যম নিয়ে যা বললেন নওফেল

‘জিনের বাদশার’ কথায় ২৮ লাখ টাকা হারালেন প্রবাসী

‘জিনের বাদশার’ কথায় ২৮ লাখ টাকা হারালেন প্রবাসী

উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

সব শিক্ষার্থীর ২ বছরের বেতন মওকুফ করলো বিদ্যালয়টি

সব শিক্ষার্থীর ২ বছরের বেতন মওকুফ করলো বিদ্যালয়টি

‘দেশকে কীভাবে এগিয়ে নেওয়া যায় সেই সাংবাদিকতা করতে হবে’

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:৫৭

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, সাংবাদিকেরা জাতির বিবেক। সঠিক ও বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা দেশকে এগিয়ে নিতে সাহায্য করে। সমাজ ও রাষ্ট্রের চোখ খুলে দেয়। তাই দেশকে কীভাবে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়, সেই বিষয়ে সাংবাদিকতা করতে হবে।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকালে নওগাঁয় কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে প্রেস ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ (পিআইবি) আয়োজিত তিন দিনব্যাপী সাংবাদিকতায় অনুসন্ধানমূলক রিপোর্টিং প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, কে আগে তথ্য পাবে কে আগে সংবাদ প্রকাশ করবে সেটা নিয়ে সাংবাদিকদের মধ্যে প্রতিযোগিতা থাকবে। উন্নয়নমূলক সংবাদ প্রচার তথা ব্র্যান্ডিং করে নওগাঁকে সামনে এগিয়ে নিতে সাংবাদিকরা ভূমিকা রাখবেন।

তিনি আরও বলেন, করোনাকালে সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে কাজ করেছেন সাংবাদিকরা। মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে উদ্বুদ্ধ করেছেন, যা সত্যিকার অর্থে প্রশংসার দাবি রাখে। 

মাদকের বিরুদ্ধে সরকার জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে উল্লেখ করে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, মাদক ব্যবসায়ী ও সেবীদের পক্ষে কেউ সুপারিশ করতে আসলে, মামলার চার্জশিটে সেই ব্যক্তির নাম ঢুকিয়ে দেবেন। তা সে যে দলেরই লোক হোক না কেন।

এ সময় জেলা প্রশাসক মো. হারুন-অর-রশীদ, পিআইবির পরিচালক (প্রশাসন) আফরাজুর রহমান, প্রশিক্ষক পারভীন সুলতানা, নওগাঁ কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ ওহিদুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। পরে ৩৫ জন অংশগ্রহণকারী সাংবাদিকের মাঝে সনদ তুলে দেন খাদ্যমন্ত্রী।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

‘শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দেওয়া অর্থনৈতিক সামর্থ্যের প্রমাণ’

‘শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দেওয়া অর্থনৈতিক সামর্থ্যের প্রমাণ’

করোনাকালে একজনও না খেয়ে মারা যায়নি: খাদ্যমন্ত্রী

করোনাকালে একজনও না খেয়ে মারা যায়নি: খাদ্যমন্ত্রী

বঙ্গোপসাগরে সাড়ে চার লাখ ইয়াবাসহ আটক ৫

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:৩০

বঙ্গোপসাগরের কক্সবাজার উপকূল থেকে সাড়ে চার লাখ ইয়াবাসহ পাঁচজনকে আটক করেছে র‍্যাব-১৫। এ সময় পাচার কাজে ব্যবহৃত একটি ট্রলার জব্দ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) মধ্যরাতে গভীর সমুদ্র এলাকা থেকে ইয়াবাসহ তাদেরকে আটক করা হয়। আটককৃতারা হলেন-রশিদ উল্লাহ, আমানত করিম, নাছির উদ্দিন ও ছৈয়দুর রহমান।

র‍্যাব জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে গভীর সমুদ্র এলাকায় কক্সবাজার র‍্যাব-১৫ উপ অধিনায়ক স্কোয়াড্রন লিডার তানভীর হাসান ও মেজর শেখ মোহাম্মদ ইউসূফের নেতৃত্বে একটি মাছ ধরার ট্রলার চিহ্নিত করা হয়। তারপর ধাওয়া করে সেই ট্রলারে সাড়ে চার লাখ ইয়াবা পাওয়া যায়।

তানভীর হাসান বলেন, গত এক সপ্তাহ আগে থেকে ইয়াবা পাচারকারী চক্রের ওপর নজর রাখছিল র‍্যাব। সেই চক্রের একটি চালান আসার খবরে গভীর সমুদ্রে অভিযান চালানো হয়। অভিযান চালিয়ে সাড়ে চার লাখ ইয়াবাসহ পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনী ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

উখিয়ায় র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধ’, নিহত ১

উখিয়ায় র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধ’, নিহত ১

টেকনাফে ১০ কোটি টাকার আইস উদ্ধার

টেকনাফে ১০ কোটি টাকার আইস উদ্ধার

এক জালেই ১৫ মণ লাল কোরাল

এক জালেই ১৫ মণ লাল কোরাল

সিনহা হত্যা: গোয়েন্দা সংস্থার তদন্ত প্রতিবেদন চায় আসামিপক্ষ

সিনহা হত্যা: গোয়েন্দা সংস্থার তদন্ত প্রতিবেদন চায় আসামিপক্ষ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সিলেটে এটিএম বুথের টাকা লুটের ঘটনায় ৪ জন রিমান্ডে

সিলেটে এটিএম বুথের টাকা লুটের ঘটনায় ৪ জন রিমান্ডে

বিদেশে বন্ধুত্ব, দেশে এসে এটিএম বুথের টাকা লুট

বিদেশে বন্ধুত্ব, দেশে এসে এটিএম বুথের টাকা লুট

বিয়ের কথা বলে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ৪

বিয়ের কথা বলে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ৪

জমি নিয়ে বিরোধে ভাবিকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

জমি নিয়ে বিরোধে ভাবিকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

২ বোনের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় মায়ের মামলা

২ বোনের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় মায়ের মামলা

বড় ভাইদের মারধরে আনসার সদস্য নিহত 

বড় ভাইদের মারধরে আনসার সদস্য নিহত 

ছাদের পিলারে ঝুলছিল দুই বোনের লাশ

ছাদের পিলারে ঝুলছিল দুই বোনের লাশ

সুনামগঞ্জ থেকে আন্তজেলা বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা

সুনামগঞ্জ থেকে আন্তজেলা বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা

লন্ডনে ছুরিকাঘাতে সিলেটের যুবক নিহত

লন্ডনে ছুরিকাঘাতে সিলেটের যুবক নিহত

সর্বশেষ

জলবায়ু সংকট: প্রতীকী ফাঁসিতে ঝুলে প্রতিবাদ

জলবায়ু সংকট: প্রতীকী ফাঁসিতে ঝুলে প্রতিবাদ

ব্যক্তিগত ছবি-ভিডিও’র নিরাপত্তায় গুগল ফটোজে নতুন ফিচার

ব্যক্তিগত ছবি-ভিডিও’র নিরাপত্তায় গুগল ফটোজে নতুন ফিচার

একই ব্যানারে গাজীপুরে আ.লীগের পাল্টাপাল্টি সমাবেশ

একই ব্যানারে গাজীপুরে আ.লীগের পাল্টাপাল্টি সমাবেশ

একটি হাত ব্যাগ ও সৌদি আরব প্রবাসীর কান্না-হাসি

একটি হাত ব্যাগ ও সৌদি আরব প্রবাসীর কান্না-হাসি

ইলিশ রফতানি: বাংলাদেশের শর্তকে অবাস্তব বললো ভারত

ইলিশ রফতানি: বাংলাদেশের শর্তকে অবাস্তব বললো ভারত

© 2021 Bangla Tribune