X
শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ইসরায়েলি বাহিনীতে বাড়ছে মুসলিম সেনাদের সংখ্যা

আপডেট : ১৮ জুলাই ২০২১, ১৮:১৭

গাজায় হামাসবিরোধী টানা ১১ দিনের বিমান হামলা এবং বিভিন্ন শহরে সহিংস দাঙ্গার পরও ইসরায়েলের সেনাবাহিনীতে মুসলিমদের যোগদানের সংখ্যা বাড়ছে। ইসরায়েলি ডিফেন্স ফোর্স বা আইডিএফ-এর তথ্য অনুসারে, ২০২০ সালে ৬০৬ জন আরব মুসলিম বাহিনীতে যোগ দিয়েছেন। ইসরায়েলি সংবাদমাধ্যম জেরুজালেম পোস্ট এখবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালের ৪৮৯ জন ও ২০১৮ সালের ৪৩৬ জনের তুলনায় গত বছর মুসলিমদের আইডিএফ-এ যোগদানের সংখ্যা বেশি। সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়া অর্ধেকেরও বেশি যুদ্ধের ভূমিকায় রয়েছেন।

আইডিএফ-এর বেদুইন রেকনেসান্স ইউনিটের সদস্য সংখ্যা দুই বছরে দ্বিগুণ রয়েছে। ২০১৮ সালে ৮৪ জন থাকলেও ২০২০ সালে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৭১ জনে। ২০১৭ সালে মাত্র ৪৫ জন যোগ দিয়েছিলেন। সদস্য সংখ্যা বাড়তে থাকায় আইডিএফ মৌলিক প্রশিক্ষণের জন্য দুটি প্লাটুন চালু করেছে।

এবারের গাজা যুদ্ধের সময় আইডিএফ থেকে ২০ মুসলিম সেনা দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়ার আবেদন করেছিলেন। তবে কমান্ডারদের সঙ্গে আলোচনার পর ১৮ জন দায়িত্ব পালন করে যেতে সম্মত হয়। বাকিরা চাকরি ছেড়ে দেয়।

আইডিএফ বলছে, অপারেশন গার্ডিয়ান অব দ্য ওয়ালস (গাজায় হামাসবিরোধী হামলা) এবং বিভিন্ন শহরে সহিংস দাঙ্গার পরও ইসরায়েলি বাহিনীতে মুসলিমদের নিয়োগ দেওয়ার প্রবণতা বেড়েই চলবে।

/এএ/

সম্পর্কিত

ওমান উপকূলে হামলার শিকার ইসরায়েলি ধনকুবেরের জাহাজ

ওমান উপকূলে হামলার শিকার ইসরায়েলি ধনকুবেরের জাহাজ

কাতারে খেজুর উৎসবের পর্দা নামছে আজ

কাতারে খেজুর উৎসবের পর্দা নামছে আজ

ফিলিস্তিনি শিশুর জানাজায় টিয়ার গ্যাস ছুড়েছে ইসরায়েল

ফিলিস্তিনি শিশুর জানাজায় টিয়ার গ্যাস ছুড়েছে ইসরায়েল

ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে তুরস্ক

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ০১:২০

স্মরণকালের ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে তুরস্ক। মাইলের পর মাইল বনভূমি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। আগুনে পুড়ে মারা গেছেন কমপক্ষে ৪ জন। তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান জানিয়েছেন, দাবানল নিয়ন্ত্রণে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দমকল বাহিনী।

গত কয়েকদিন ধরেই দাবানলে পুড়ছে তুরস্কে বিভিন্ন জায়গায়। তীব্র দাবদাহে অনেক বনে আগুন ধরে গেছে। হেক্টরের পর হেক্টর বনভূমি জ্বলছে। দেশটির এক হাজারের বেশি স্থানে এখনও আগুন অব্যাহত রয়েছে। দমকা বাতাসে পরিস্থিতি অনুকূলে আনতে ভুগতে হচ্ছে দমকল কর্মীদের। প্রায় ৬০টি বনে গত দু’দিনে আগুন ছড়িয়ে গেছে। এর মধ্যে ৪৫টি বনের আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে।

এমন পরিস্থিতি নিয়ে শুক্রবার প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান বলেন, ‘দাবানল সামাল দিতে অগ্নিনির্বাপণ বিমান বাড়ানো হয়েছে। বিশেষ করে রাশিয়া এবং ইউক্রেন থেকে পাঁচ থেকে ছয়টি বিমান যোগ দিয়েছে। এই বিপদে আজারবাইজানও সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছে'। তিনি আরও জানান, ‘এক হাজারের বেশি পয়েন্টে দাবানল অব্যাহত রয়েছে। পরিস্থিতি পুরোপুরি পর্যবেক্ষণে রয়েছে আমাদের’।

অবকাশযাপনের জন্য আকর্ষণীয় স্থান মুওলা প্রদেশের মারমারিসেও দাবানলের খবর পাওয়া গেছে। তুর্কি সরকারের তথ্যমতে, ১ হাজার ৮০টি পানির ট্রাক, ২৮০টি জলবাহী ট্যাংকার এবং ১০ হাজার ৫৫০ জন দমকল কর্মী কাজ করে যাচ্ছেন। এছাড়া চার হাজারের বেশি প্রযুক্তি কর্মীও নিরলসভাবে পরিশ্রম করছেন।

যাদের ঘর-বাড়ি, পশু পুড়ে গেছে তাদের সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন এরদোয়ান। দাবানলের কারণ অনুসন্ধানের কথা জানিয়েছেন তিনি।

/এলকে/

সম্পর্কিত

তিউনিসিয়ায় রাজনৈতিক অস্থিরতায় বিশ্বের প্রতিক্রিয়া

তিউনিসিয়ায় রাজনৈতিক অস্থিরতায় বিশ্বের প্রতিক্রিয়া

ঈদ বার্তায় এরদোয়ানের ‘ঘুমিয়ে পড়া’র ভিডিও ভাইরাল

ঈদ বার্তায় এরদোয়ানের ‘ঘুমিয়ে পড়া’র ভিডিও ভাইরাল

চীনে আগুনে পুড়ে ১৪ জনের মৃত্যু

চীনে আগুনে পুড়ে ১৪ জনের মৃত্যু

সিএএ বাস্তবায়নে বিলম্বে হতাশ উদ্বাস্তু-মতুয়ারা

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ০০:২৪
image

ভারত জুড়ে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) বাস্তবায়ন আরও ছয় মাস পিছিয়ে গেছে। দেড়বছর আগে সিএএ আইন তৈরি হলেও এ সংক্রান্ত নিয়ম-নীতি এখনও ঠিক হয়নি। তার জন্য আরও ছয় মাস সময় চেয়েছে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। গত মঙ্গলবার কংগ্রেসের আইন প্রণেতা গৌরব গগৈ-এর প্রশ্নের উত্তরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই জানান আইনটির নিয়ম-নীতি ঠিক করার জন্য লোকসভা এবং রাজ্যসভার কমিটির কাছে ২০২২ সালের ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত সময় চাওয়া হয়েছে।

গত দেড় বছর ধরে বার বার সময়সীমা পিছিয়ে দেওয়ার এই সিদ্ধান্ত ক্ষুব্ধ পশ্চিমবঙ্গের উদ্বাস্তু-মতুয়া সম্প্রদায়ের মানুষরা। এভাবে চলতে থাকলে ২০২৪ এর লোকসভা ভোটের আগে সিএএ চালু না হলে পশ্চিমবঙ্গে উদ্বাস্তু ও মতুয়া ভোট বিজেপির হাতছাড়া হতে পারে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

বনঁগা লোকসভার প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ মমতা বালা ঠাকুর প্রশ্ন তুলে বলেছেন, ‘বিজেপি কেন সিএএ বাস্তবায়নে ব্যর্থ হয়েছে তা ব্যাখ্যা করা উচিত। আর মতুয়ারা ইতিমধ্যে ভারতীয় নাগরিক।’

সিএএ চালু না হলে তার প্রভাব ২০২৪ লোকসভার ভোটে পড়বে বলেই মনে করেন রাণাঘাটের বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার। তিনি বলেন, ‘অবশ্যই এর প্রভাব ভোটে পড়বে। গত লোকসভা ভোট শুধু নয়, একুশের ভোটেও উত্তর ২৪ পরগণা এবং নদীয়া জেলায় মতুয়া এবং উদ্বাস্তুরা বিজেপিকে দুহাত ভরে ভোট দিয়েছেন। তারা বিশ্বাস করেন বিজেপি সিএএ বাস্তবায়ন করবেই। আমিও তাই মনে করি।’

অল ইন্ডিয়া মতুয়া মহাসংঘের সাধারণ সম্পাদক মহিতোষ বৈদ্য বলেন, ‘বার বার এই সময়সীমা পিছিয়ে যাওয়ায় হতাশ হচ্ছেন আমাদের সম্প্রদায়ের মানুষরা। তারা বিভিন্ন কথা বলছেন। আমরা ভেবেছিলাম পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা ভোটের পরই এই আইন চালু হয়ে যাবে। গত মার্চ মাসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আমাদের তীর্থস্থান বাংলাদেশের ওড়াকান্দিতে যাওয়ায় আমরা আরও আশাবাদী হয়ে পড়েছিলাম। মতুয়ারা প্রশ্ন করছেন, করোনা কারণেই যদি হয় তাহলে সংসদ অধিবেশন হচ্ছে, বিভিন্ন রাজ্যে ভোট হচ্ছে, অন্য আইন প্রণয়ন হচ্ছে কিন্তু সিএএ কেন লাল ফিতার ফাঁসে আটকে যাচ্ছে? এর কোনও উত্তর আমরা দিতে পারছি না।’

মহিতোষ বৈদ্য আরও বলেন, ‘আমি যা শুনছি তা হলো, নিয়ম তৈরি হয়ে গেলে এবং অফিসিয়াল কাজ শুরু হওয়ার পরে ভারতীয় নাগরিকত্ব প্রমাণ করতে হবে পিতামাতার এবং নিজের নথির মাধ্যমে। কিন্তু আমাদের দাবি পরিষ্কার। আমরা নিঃশর্ত নাগরিকত্ব চাই।’

শিক্ষাবিদ ড.অচিন্ত্য বিশ্বাসের মতে, ‘সিএএ চালু না হওয়া মতুয়াদের মধ্যে হতাশা আসাটা স্বাভাবিক। এটা সবদিক গুছিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের দ্রুত চালু করা উচিত। এটা না হলে মতুয়া সহ উদ্বাস্তুরা ব্যাপক আশাহত হয়ে পড়বেন বিজেপির প্রতি।’

বিজেপি তপশিলি মোর্চার নদীয়া জেলার সভাপতি অনুপ কুমার মন্ডলের সাফ কথা, ‘পূর্ববঙ্গ থেকে আসা তপশিলি সম্প্রদায়ের মানুষদের মধ্যে অবশ্যই ক্ষোভ আছে। এটা তাড়াতাড়ি চালু হোক। আর তা না হলে বিজেপির ভোটের ফল আরও খারাপ হবে। আগামী দিনে মানুষ এটাকে ভালোভাবে নেবে না।’

ঠাকুর পরিবাদের সদস্য তথা গাইঘাটার বিজেপি বিধায়ক সুব্রত ঠাকুর বলেন, ‘ভোটের আগে বলা হয়েছিল ৬ মাস পরে হবে তাতে আমরা আশাবাদী ছিলাম। কিন্তু আবার ৬ মাস পিছিয়ে গেল, করোনা আবহের কারণে। আমরা কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আবেদন জানাই দ্রুত সিএএ-কে চালু করা হোক।’

/জেজে/

সম্পর্কিত

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

গাড়ি চাপায় বিচারক হত্যায় ভারতে তোলপাড়!

গাড়ি চাপায় বিচারক হত্যায় ভারতে তোলপাড়!

'ইতিহাসের চরম বিতর্কিত অধ্যায় শেষ হোক': অস্ট্রেলিয়া

'ইতিহাসের চরম বিতর্কিত অধ্যায় শেষ হোক': অস্ট্রেলিয়া

শুধু শুধু বিরক্ত করায় যুবককে পিষে দিলো হাতি (ভিডিও)

শুধু শুধু বিরক্ত করায় যুবককে পিষে দিলো হাতি (ভিডিও)

নি‌র্দোষ প্রমা‌ণিত হলেন এম‌পি আপসানা

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ২২:২২
image

সরকারি আবাসন নি‌য়ে প্রতারণার মামলায় নি‌র্দোষ প্রমাণিত হ‌য়ে‌ছেন লন্ড‌নের বাঙালিপাড়া পপলার ও লাইমহাউস আসনের বাংলা‌দেশি বং‌শোদ্ভূত এম‌পি আপসানা বেগ‌ম । শুক্রবার (৩০জুলাই) লন্ড‌নের স্নেয়ার্সব্রুক ক্রাউন কোর্ট এ রায় দিয়েছেন।

মামলার শুরু থে‌কেই আপসানা নি‌জের বিরু‌দ্ধে আনা অভি‌যোগ অস্বীকার ক‌রে‌ ব‌লে আস‌ছি‌লেন, তি‌নি ষড়য‌ন্ত্রের শিকার।

আপসানা ব্রিটে‌নের সর্বশেষ জাতীয় নির্বাচ‌নে লন্ড‌নের সব‌চে‌য়ে বে‌শি বাংলা‌দেশি বহুল এলাকা পপলার লাইমহাউস এলাকা থে‌কে লেবা‌র পা‌র্টির  ম‌নোনয়ন পে‌য়ে চম‌কের সৃ‌ষ্টি ক‌রেন। লেবার পা‌র্টির নিরাপদ এ আসন‌টি থে‌কে ম‌নোনয়ন পাওয়া মা‌নেই অনেকটা নি‌শ্চিত বিজয়। য‌দিও সে ম‌নোনয়ন যু‌দ্ধে খোদ বাঙালি‌দেরও বি‌রোধিতার মু‌খোমু‌খি হ‌তে হয় আপসানা‌কে।

৩১ বছর বয়সী আপসানার বিরুদ্ধে আদাল‌তে হাউজিং ফ্রডের তিনটি অভিযোগ আনা হ‌য়। তিন লাখ পাউন্ড মূল‌্যমা‌নের ইসল অব ডগ‌সের যে ফ্লাট‌টি নি‌য়ে তার বিরু‌দ্ধে প্রতারণার অভি‌যোগ তোলা হ‌য়ে‌ছে সে‌টি টাওয়ার হ‌্যাম‌লেট‌স কাউন্সিলের অর্ন্তগত।

গত নির্বাচনে কনজারভেটিভ প্রার্থী শিউন ওককে প্রায় ২৯ হাজার ভোটে হারিয়ে এমপি নির্বাচিত হন লেবার পার্টির প্রার্থী আপসানা। তার জন্ম ও বেড়ে ওঠা টাওয়ার হ্যামলেটসে হলেও বাংলাদেশে তার বাবার বাড়ি সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে। আপসানার বাবা মনির উদ্দিন টাওয়ার হ্যামলেটসের কাউন্সিলর ছিলেন।

/জেজে/

সম্পর্কিত

ওমান উপকূলে হামলার শিকার ইসরায়েলি ধনকুবেরের জাহাজ

ওমান উপকূলে হামলার শিকার ইসরায়েলি ধনকুবেরের জাহাজ

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

ছাতার সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর লড়াই! (ভিডিও)

ছাতার সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর লড়াই! (ভিডিও)

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

আফগানিস্তানে জাতিসংঘ কার্যালয়ে হামলা, রক্ষী নিহত

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ২১:৫১
image

আফগানিস্তানের পশ্চিমাঞ্চলীয় হেরাত প্রদেশে জাতিসংঘের প্রধান কার্যালয়ে হামলা হয়েছে। শুক্রবার সরকারবিরোধীরা এই হামলা চালিয়েছে বলে জানানো হয়েছে। হামলায় অন্তত এক জন নিরাপত্তা রক্ষী নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে আফগানিস্তানে জাতিসংঘের সহায়তা মিশন (ইউএনএএমএ)।

জাতিসংঘ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, হেরাত শহরে তালেবানদের প্রবেশ ঠেকাতে আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর লড়াই শুরুর কয়েক ঘণ্টা পর আক্রান্ত হয় তাদের আঞ্চলিক কার্যালয়। হামলায় রকেট চালিত গ্রেনেড ও বন্দুক ব্যবহৃত হয়েছে।

জাতিসংঘের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জরুরি ভিত্তিতে হামলার পুরো চিত্র জানতে চায় তারা। এছাড়া সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর সঙ্গেও যোগাযোগ রাখা হচ্ছে।

জাতিসংঘ কার্যালয়ে হামলা কারা চালিয়েছে তা এখন পর্যন্ত জানা যায়নি। তবে পশ্চিমা নিরাপত্তা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, হেরাতের সব কূটনৈতিক এলাকাকে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বিগত ২৪ ঘণ্টায় তালেবানরা যে দুইটি প্রাদেশিক রাজধানীতে নতুন করে প্রবেশ করেছে তার একটি হেরাত। একদিন আগে বিদ্রোহীরা হেলমান্দ প্রদেশের রাজধানীতে প্রবেশ করে। আর সেখানে এখনও লড়াই চলছে। বেসামরিক নাগরিকেরা শহর ছেড়ে পালাচ্ছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

আফগান দোভাষীদের যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া শুরু

আফগান দোভাষীদের যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া শুরু

ইথিওপিয়ায় এক লাখ শিশুর মৃত্যুর আশঙ্কা

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ২০:৪৮
image

জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা জানিয়েছে, ইথিওপিয়ার সংঘাত কবলিত টাইগ্রে অঞ্চলের এক লাখেরও বেশি শিশু আগামী এক বছরের মধ্যে ক্ষুধার কারণে মারা যেতে পারে। সংস্থাটির মুখপাত্র মারজিয়ে মারকাদো জানিয়েছেন, টাইগ্রে এলাকায় প্রতি দুই জন গর্ভবতী বা দুধ পান করানো মায়ের মধ্যে একজনই মারাত্মক অপুষ্টির শিকার। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

ইউনিসেফ মুখপাত্র মারজিয়ে মারকাদো জেনেভায় এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘আমাদের সবচেয়ে খারাপ আশঙ্কা হলো শিশুদের স্বাস্থ্য এবং মঙ্গল নিশ্চিত করা।’ ইউনিসেফের এই বিবৃতি নিয়ে ইথিওপিয়ার সরকারি কর্তৃপক্ষ বা টাইগ্রে অঞ্চলের বিদ্রোহীদের তরফ থেকে তাৎক্ষণিক কোনও প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি।

২০ মাস বয়সী আমানুয়েল মেরহাওয়ের মতো শিশুরাই সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়েছে। টাইগ্রে অঞ্চলের এই শিশুটির ওজন স্বাভাবিকের চেয়ে এক তৃতীয়াংশ কম। মারাত্মক অপুষ্টির শিকার শিশুটিকে এখন নাকের ছিদ্র দিয়ে সাপ্লিমেন্টারি খাবার দিলেও তার বমি হয়ে যাচ্ছে। তার পুরো শরীরে মারাত্মক অপুষ্টির লক্ষণ রয়েছে। তার মা ব্রিকতি জেবরিওয়েত জানান, তার বুকের দুধ শুকিয়ে গেছে।

দাতা সংস্থাগুলো জানিয়েছে, প্রতিমাসে মারাত্মক অপুষ্টিতে আক্রান্ত চার হাজার শিশুকে চিকিৎসা দিতে ব্যবহৃত সামগ্রী শেষ হয়ে আসছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করলেন প্রেসিডেন্ট

তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করলেন প্রেসিডেন্ট

ঈদের নামাজ চলাকালীন মালির প্রেসিডেন্টকে হত্যা চেষ্টা

ঈদের নামাজ চলাকালীন মালির প্রেসিডেন্টকে হত্যা চেষ্টা

সর্বশেষ

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

ঈদে বিক্রি না হওয়া ‘কালো মানিক’কে নিয়ে বিপাকে খামারি

ঈদে বিক্রি না হওয়া ‘কালো মানিক’কে নিয়ে বিপাকে খামারি

অটোরিকশা থেকে চাঁদা আদায় নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১৩

অটোরিকশা থেকে চাঁদা আদায় নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১৩

ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর বিয়ের আয়োজন করায় বাবার জরিমানা

ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর বিয়ের আয়োজন করায় বাবার জরিমানা

ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে তুরস্ক

ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে তুরস্ক

খুলনায় বৃষ্টিতে ভেসে গেছে ১০৮ কোটি টাকার মাছ

খুলনায় বৃষ্টিতে ভেসে গেছে ১০৮ কোটি টাকার মাছ

হেফাজতের হরতালে সহিংসতা মামলার আসামি গ্রেফতার

হেফাজতের হরতালে সহিংসতা মামলার আসামি গ্রেফতার

করোনা রোগীর চাপ ঢাকা মেডিক্যালে

করোনা রোগীর চাপ ঢাকা মেডিক্যালে

প্রতি শনিবার ১০ মিনিট সময় চান মেয়র আতিক

প্রতি শনিবার ১০ মিনিট সময় চান মেয়র আতিক

করোনায় প্রথম র‌্যাবের নারী সদস্যের মৃত্যু, মহাপরিচালকের শোক

করোনায় প্রথম র‌্যাবের নারী সদস্যের মৃত্যু, মহাপরিচালকের শোক

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব রটানোর অভিযোগে একজন গ্রেফতার

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব রটানোর অভিযোগে একজন গ্রেফতার

ফুটবল খেলায় ও রাস্তায় ঘোরাঘুরি করায় আটক ৪৪

ফুটবল খেলায় ও রাস্তায় ঘোরাঘুরি করায় আটক ৪৪

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ওমান উপকূলে হামলার শিকার ইসরায়েলি ধনকুবেরের জাহাজ

ওমান উপকূলে হামলার শিকার ইসরায়েলি ধনকুবেরের জাহাজ

কাতারে খেজুর উৎসবের পর্দা নামছে আজ

কাতারে খেজুর উৎসবের পর্দা নামছে আজ

ফিলিস্তিনি শিশুর জানাজায় টিয়ার গ্যাস ছুড়েছে ইসরায়েল

ফিলিস্তিনি শিশুর জানাজায় টিয়ার গ্যাস ছুড়েছে ইসরায়েল

অনির্দিষ্টকাল ইরানের সঙ্গে আলোচনা চলতে পারে না: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনির্দিষ্টকাল ইরানের সঙ্গে আলোচনা চলতে পারে না: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসের কাছে রকেট হামলা

বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসের কাছে রকেট হামলা

প্রথমবারের মতো কাতারে অনুষ্ঠিত হবে আইনসভার নির্বাচন

প্রথমবারের মতো কাতারে অনুষ্ঠিত হবে আইনসভার নির্বাচন

চুরি হওয়া প্রত্ন নিদর্শন ইরাককে ফিরিয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

চুরি হওয়া প্রত্ন নিদর্শন ইরাককে ফিরিয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

গাজা সংঘাতে হামাস ও ইসরায়েল যুদ্ধাপরাধ করেছে: হিউম্যান রাইটস ওয়াচ

গাজা সংঘাতে হামাস ও ইসরায়েল যুদ্ধাপরাধ করেছে: হিউম্যান রাইটস ওয়াচ

© 2021 Bangla Tribune