X
শুক্রবার, ০৬ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

স্পাইওয়্যার রফতানি শুধু বৈধ ব্যবহারের জন্য: ইসরায়েল

আপডেট : ২০ জুলাই ২০২১, ০১:১৩

ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এনএসও গ্রুপের বিক্রি করা স্পাইওয়্যারের মতো সাইবার পণ্যগুলো রফতানি করা হয়েছে আইনসম্মত ব্যবহারের জন্য এবং এর একমাত্র লক্ষ্য ছিল অপরাধ ও সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলা করা। সোমবার মন্ত্রণালয় এই তথ্য জানায়। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এখবর জানিয়েছে।

২০১৯ সাল থেকে ১৭টি দেশের সংবাদমাধ্যম মিলে ‘দ্য পেগাসাস প্রজেক্ট’ নামের একটি প্ল্যাটফর্ম থেকে ইসরায়েলি স্পাইওয়্যার ব্যবহার করে ফোনে নজরদারির বিষয়ে অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছে। রবিবার এই অনুসন্ধানের ভিত্তিতে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। এতে উঠে এসেছে দুনিয়াজুড়ে নজরদারির শিকার হয়েছেন মানবাধিকার কর্মী, রাজনীতিক, সাংবাদিক, আইনজীবীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সদস্যরা। বিশ্বজুড়ে ৫০ হাজার ফোন হ্যাক করে সেগুলোতে নজরদারি চালানোর বিষয়টি। সিএনএন, আল জাজিরা এবং নিউইয়র্ক টাইমসসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের ১৮০ জনেরও বেশি সাংবাদিকের নাম এই তালিকায় রয়েছে।

স্পাইওয়্যারটির বিক্রেতা ইসরায়েলি প্রতিষ্ঠান এনএসও-র দাবি, এই হ্যাকিংয়ের সঙ্গে তারা যুক্ত নয়। তারা শুধু আইনশৃঙ্খলাবাহিনী এবং বাছাইকৃত সরকারের গোয়েন্দা সংস্থার কাছে এই প্রযুক্তি বিক্রি করে।

ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় নিজেদের বিবৃতিতে বলেছে, শুধু সরকারি সংস্থা, আইনসম্মত ব্যবহার এবং অপরাধ ও সন্ত্রাস দমন ঠেকাতে ও অনুসন্ধানের জন্য ইসরায়েল সাইবার পণ্য রফতানির অনুমোদন দেয়।

এর আগে ইসরায়েলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী নিটজান হরোউইৎজ সাংবাদিকদের বলেছিলেন, এনএসও গ্রুপের রফতানির বিষয়টি নিয়ে তিনি বৃহস্পতিবার প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্তজের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।  

/এএ/

সম্পর্কিত

শপথ নিলেন ইরানের নতুন প্রেসিডেন্ট

শপথ নিলেন ইরানের নতুন প্রেসিডেন্ট

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

করোনা কেড়ে নিয়েছে ৪২ লাখ ৭৭ হাজার মানুষের প্রাণ

আপডেট : ০৬ আগস্ট ২০২১, ০৩:৪৮

করোনার ছোবলে বিপর্যস্ত বিশ্ব। প্রতিদিনই শনাক্ত হচ্ছে বিপুল সংখ্যক মানুষ। আরও বড় হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল। দুনিয়াজুড়ে এখন পর্যন্ত ৪২ লাখ ৭৭ হাজারেরও বেশি মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে সর্বনাশা এই মহামারি।

আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারস জানিয়েছে, করোনাভাইরাস বৈশ্বিক মহামারিতে এ পর্যন্ত বিশ্বের ২২০টি দেশ ও অঞ্চল আক্রান্ত হয়েছে। বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার দিবাগত মধ্যরাতে প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, এ পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে মোট শনাক্তের সংখ্যা ২০ কোটি ১৫ লাখ ৬৩ হাজার ৫০১। এর মধ্যে ৪২ লাখ ৭৭ হাজার ৯৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছে ১৮ কোটি ১৩ লাখ ২৮ হাজার ৪৭৯ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস। এক পর্যায়ে উৎপত্তিস্থল চীনে ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব কমলেও বিশ্বের অন্যান্য দেশে এর প্রকোপ বাড়তে শুরু করে। চীনের বাইরে করোনাভাইরাসের প্রকোপ ১৩ গুণ বৃদ্ধি পাওয়ার প্রেক্ষাপটে ২০২০ সালের ১১ মার্চ দুনিয়াজুড়ে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। তবে আশার কথা হচ্ছে, এরইমধ্যে করোনার একাধিক টিকা আবিষ্কৃত হয়েছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারস-এর তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে মোট শনাক্তের সংখ্যা তিন কোটি ৬২ লাখ ৭০ হাজার ১৫৪। মৃত্যু হয়েছে ছয় লাখ ৩১ হাজার ৭৭২ জনের।

আক্রান্তের হিসাবে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে মোট শনাক্তের সংখ্যা তিন কোটি ১৮ লাখ ৫৫ হাজার ৭৮৩। এর মধ্যে চার লাখ ২৬ হাজার ৭৮৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। ব্রাজিলে শনাক্তের সংখ্যা দুই কোটি ৬৬ হাজার ৫৮৭। এর মধ্যে পাঁচ লাখ ৬০ হাজার ৭০৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বাংলাদেশে শনাক্তের সংখ্যা ১৩ লাখ ২২ হাজার ৬৫৪। এর মধ্যে ২১ হাজার ৯০২ জনের মৃত্যু হয়েছে। উৎপত্তিস্থল চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৩ হাজার ৩৭৪। এর মধ্যে চার হাজার ৬৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। যদিও দেশটির বিরুদ্ধে প্রকৃত পরিস্থিতি গোপন করার অভিযোগ রয়েছে। উহানের একজন স্বেচ্ছাসেবী বলেন, ‘বুদ্ধি-বিবেচনাসম্পন্ন যেকোনও মানুষ এই সংখ্যা (সরকারি পরিসংখ্যান) নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করবেন।’

মহামারির শুরু থেকেই যুক্তরাষ্ট্র দাবি করে আসছিল, করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পেছনে চীনের ভূমিকা রয়েছে। ট্রাম্প প্রশাসনের সেই দাবিকে আরও জোরালো করে চীনের উহানের ল্যাবের এক ভাইরোলজিস্ট লি মেং ইয়ানের বক্তব্য। লি মেং ইয়ান বলেন, চীনের ল্যাবেই তৈরি করা হয়েছে করোনাভাইরাস। এটি মানুষের তৈরি বলে তার কাছে শতভাগ প্রমাণ রয়েছে।

হংকংয়ে জন্ম নেওয়া ভাইরোলজিস্ট লি মেং ইয়ান পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে। তার দাবি, চীন হত্যা করতে চেয়েছিল বলে ভয়ে মার্কিন মুলুকে পালিয়ে যান তিনি।

/এমপি/

সম্পর্কিত

ছয় মাসের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে সর্বোচ্চ শনাক্ত

ছয় মাসের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে সর্বোচ্চ শনাক্ত

ডেল্টার প্রকোপে লকডাউন কৌশল পাল্টাচ্ছে চীন?

ডেল্টার প্রকোপে লকডাউন কৌশল পাল্টাচ্ছে চীন?

জাপানে জরুরি অবস্থা জারির পরামর্শ

জাপানে জরুরি অবস্থা জারির পরামর্শ

ত্রিপুরার পর আসাম-কেরালাকে টার্গেট তৃণমূলের

আপডেট : ০৬ আগস্ট ২০২১, ০১:৫০

বিজেপি শাসিত ত্রিপুরার পর এবার তৃণমূলের লক্ষ্য আসাম ও কেরালা। দেশজুড়ে সিএএ বিরোধী মুখ হিসেবে পরিচিত তৃণমূল এবার আসামের সিএএ বিরোধী আন্দোলনের নেতা অখিল গৈগকে দলে টেনে বিজেপিকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলতে চাইছে। চব্বিশের ভারতের লোকসভা ভোটের লড়াইয়ে আসামের মোদি বিরোধী লড়াইয়ে তৃণমূলের অন্যতম হাতিয়ার হয়ে উঠতে পারেন এই অখিল গৈগ। এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। এর পাশাপাশি বামশাসিত রাজ্য কেরালাতেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে পোস্টার লাগিয়েছে তৃণমূল।

উত্তর-পূর্ব ভারতের ত্রিপুরা, আসামসহ বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলোতে সংগঠন বিস্তার করতে অন্য দলের কট্টর গেরুয়া বিরোধীদের দলে টেনে সংগঠন বিস্তারে নজর দিয়েছে তৃণমূল। সূত্রের খবর, আসামের শিবসাগরের বিধায়ক রাইজোর দলের প্রধান অখিল গৈগকে সরাসরি তৃণমূলে যোগদানের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। জানা গেছে, ইতোমধ্যেই রাইজোর দলের প্রতিনিধিরা দুই বার কালিঘাটে এসে মমতার দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করে গেছেন। বৈঠকে তৃণমূলের শীর্ষ নেতাদের পক্ষ থেকে আসামে বিজেপি বিরোধিতাকে তীব্র করতে তাদের দলে যোগদানের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। আর একান্তই যদি তা না হয় তাহলে জোটবদ্ধ হয়ে লড়াই করারও প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

বিষয়টি স্বীকার করেছেন রাইজোর দলের অখিল-ঘনিষ্ঠ নেতা অম্লানজ্যোতি গগৈ। তিনি জানিয়েছেন, বিষয়টি নিয়ে কলকাতায় তাদের দলের সঙ্গে দুই বার তৃণমূলের শীর্ষ নেতাদের বৈঠক হয়েছে। তবে এ নিয়ে আলোচনা চলছে। এখনও চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

সিএএ পার্লামেন্টে পাস হলেও তৃণমূল সব সময় এর বিরোধিতা করে এসেছে। পার্লামেন্টেও তারা এর বিরুদ্ধে সরব হয়েছিল। একইভাবে আসামে অখিল গৈগও এই বিলের বিরুদ্ধে ব্যাপক আন্দোলন করেন। এই আন্দোলনের জেরে তাকে জেলে পর্যন্ত যেতে হয়। কারামুক্তির পরও অখিল তার পুরনো অবস্থানেই আছেন। যদিও ২০২১ সালে আসামের বিধানসভা নির্বাচনে রাইজোর দলের বেশকিছু প্রার্থী লড়াইয়ে নামলেও একমাত্র শিবসাগর কেন্দ্র থেকে অখিল নিজে জিতলেও বাকি কোনও কেন্দ্রেই তার দলের কোনও প্রার্থী জয়লাভ করতে পারেনি। দল গঠনের আগে রাজনীতিতে দুর্নীতি রুখতে ‘ইন্ডিয়া এগেইনস্ট করাপশন’ নামের সংগঠন তৈরি করেও আন্দোলন করেছেন তিনি। রাজ্যের কৃষকদের দাবি আদায়ের জন্য ‘কৃষক মুক্তিসংগ্রাম সমিতি’র হিসেবেও অখিল রাজ্যজুড়ে ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছেন। এ ধরণের জনপ্রিয় নেতাকে দলে টানতে পারলে নিঃসন্দেহে আসামের রাজনীতিতে ভালো মাইলেজ পাওয়ার পাশাপাশি রাজ্যজুড়ে সংগঠন বিস্তারেও সুবিধা হবে তৃণমূলের। এমনটাই আশা করছেন দলটির শীর্ষ নেতারা।

এদিকে, ভারতের দক্ষিণের রাজ্য তামিলনাড়ুর পর এবার বামশাসিত কেরালার জেলায় জেলায় পোস্টার পড়েছে ‘দিদি’র নামে। ত্রিপুরা ও আসামের মতো উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলোর পাশাপাশি দক্ষিণের রাজ্য কেরালাতেও নজর পড়েছে তৃণমূলের। এই পোস্টার তারই প্রমাণ। মমতার নামে স্লোগান দিয়েই বামশাসিত কেরালায় সংগঠন বিস্তারের কাজ শুরু করেছে তারা।

২০১৪ সালের লোকসভা ভোটে কেরালায় পাঁচটি আসনে প্রার্থী দিয়েছিল তৃণমূল। সেবার আশানুরূপ ফল করতে না পারলেও এবার চব্বিশের লোকসভা ভোটের কথা মাথায় রেখে সংগঠন বিস্তারে মন দিয়েছে দলটি।

পশ্চিমবঙ্গে একুশের বিধানসভা ভোটের পরই গত জুন মাসে কেরালা তৃণমূলের নেতারা কলকাতায় এসে তৃণমূলের একজন শীর্ষ নেতার সঙ্গে বৈঠক করে গেছেন। ওই  নেতার কাছ থেকে সবুজ সংকেত পাওয়ার পরই রাজ্যে সাংগঠনিক কাজে গতি এনেছেন তারা। গত মঙ্গলবার এর্নাকুলামে দলের সাংগঠনিক বৈঠক হয়। সেই বৈঠকেই ৫১ জনের কমিটি গঠন করা হয়েছে। এরপর জেলা ও ব্লক স্তরের কমিটি গঠন করা হবে।

এর্নাকুলামের অনুষ্ঠানে তৃণমূলের পতাকা হাতে নিয়ে যোগদান করেন রাজনৈতিক কর্মীরা। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে, বামফ্রন্ট শাসিত রাজ্যটিতে পশ্চিমবঙ্গে মমতা সরকারের জনমুখী কাজের প্রচার করবে তৃণমূল। তুলে ধরা হবে পশ্চিমবঙ্গে সিপিএম নেতৃত্বাধীন বামফ্রন্টের বিরুদ্ধে তার তিন দশকের লড়াইয়ের কথাও।

কেরালার মোট ১৪টি জেলাতেই সংগঠন তৈরি করতে চাইছে তৃণমূল। তাই জেলায় জেলায় নতুন স্লোগান ‘কল দিদি, সেভ ইন্ডিয়া, দিল্লি চলো’ পোস্টার সাঁটানো হয়েছে। এই পোস্টারে কেরালা তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি মনোজ শঙ্করেন্নালু নিজের ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি এবং সঙ্গে নিজের মোবাইল নম্বর দিয়েছেন।

মনোজ বলেন, ‘আগামী তিন বছরে আমাদের দল গড়ে তুলতে হবে। তাই দিদিকে দিল্লি পৌঁছে দেওয়ার স্লোগান দিয়ে, আমরা দল বিস্তারের কাজে জোর দিয়েছি। এখন যোগাযোগের যুগ। কেরালার মতো রাজ্যে এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে দল তৈরি করতে গেলে প্রযুক্তির ব্যবহার করতেই হবে। তাই আমি প্রত্যেক হোর্ডিংয়ে নিজের মোবাইল নম্বর ব্যবহার করেছি।’

/এমপি/

সম্পর্কিত

বিশ্বকে ২০০ কোটি ডোজ টিকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি চীনের

বিশ্বকে ২০০ কোটি ডোজ টিকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি চীনের

কৌশল পাল্টে প্রাদেশিক শহরে হামলা চালাচ্ছে তালেবান

কৌশল পাল্টে প্রাদেশিক শহরে হামলা চালাচ্ছে তালেবান

ডেল্টার প্রকোপে লকডাউন কৌশল পাল্টাচ্ছে চীন?

ডেল্টার প্রকোপে লকডাউন কৌশল পাল্টাচ্ছে চীন?

কাস্টমস পোস্টের দখল নিচ্ছে তালেবান, আয় কমছে আফগান সরকারের

কাস্টমস পোস্টের দখল নিচ্ছে তালেবান, আয় কমছে আফগান সরকারের

হংকংয়ের বাসিন্দাদের যুক্তরাষ্ট্রে ‘সেফ হেভেন’ দিলেন বাইডেন

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ২৩:৩৮
image

যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত হংকংয়ের বাসিন্দাদের অস্থায়ী নিরাপদ আশ্রয় বা সেফ হেভেন দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। হংকংয়ে গণতন্ত্রপন্থীদের উপর চীনা নিপীড়নের প্রেক্ষাপটে বৃহস্পতিবার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। এর ফলে অঞ্চলটির হাজার হাজার বাসিন্দার যুক্তরাষ্ট্রে নিজেদের অবস্থানের মেয়াদ বাড়ার সুযোগ তৈরি হবে। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার স্বাক্ষরিত এক মেমোতে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন মার্কিন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে হংকংয়ের বাসিন্দাদের যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও তাদের ১৮ মাস পর্যন্ত নির্বিঘ্নে অবস্থানের সুযোগ দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন। এই নির্দেশনার কারণ হিসেবে বাধ্যতামূলক পররাষ্ট্র নীতির কথা উল্লেখ করেছেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ওই মেমোতে দাবি করেন, বিগত বছর জুড়ে চীন হংকংয়ের স্বায়ত্তশাসনের উপর আঘাত হেনেছে, সেখানকার গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া ও প্রতিষ্ঠানকে খাটো করেছে, এবং সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার উপর নিপীড়ন চালিয়েছে। বাইডেন বলেন, হংকংয়ের বাসিন্দাদের উপর থেকে সমর্থন সরিয়ে নেবে না যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন প্রশাসনের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত হংকংয়ের বাসিন্দাদের বেশিরভাগই এই সেফ হেভেন পাওয়ার যোগ্য হবেন। তবে কিছু আইনি শর্ত অনুসরণ করতে হবে। যেমন অপরাধে জড়িত ব্যক্তিরা এই সুযোগ পাবেন না।

/জেজে/

সম্পর্কিত

ছয় মাসের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে সর্বোচ্চ শনাক্ত

ছয় মাসের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে সর্বোচ্চ শনাক্ত

বিশ্বকে ২০০ কোটি ডোজ টিকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি চীনের

বিশ্বকে ২০০ কোটি ডোজ টিকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি চীনের

দুনিয়ার সবচেয়ে বড় মুখের নারীর সন্ধান

দুনিয়ার সবচেয়ে বড় মুখের নারীর সন্ধান

ডেল্টার প্রকোপে লকডাউন কৌশল পাল্টাচ্ছে চীন?

ডেল্টার প্রকোপে লকডাউন কৌশল পাল্টাচ্ছে চীন?

ছয় মাসের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে সর্বোচ্চ শনাক্ত

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ২৩:২৬

যুক্তরাষ্ট্রে গত ছয় মাসের মধ্যে করোনাভাইরাসে সর্বোচ্চ আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে। বুধবার দেশটিতে প্রায় এক লাখের মতো নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের পরিসংখ্যানে এ তথ্য জানা গেছে। করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে টিকা না নেওয়া মানুষেরা আক্রান্ত হওয়ার ফলে যুক্তরাষ্ট্রের সংক্রমণের নতুন ঢেউ দেখা দিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রে গত সাত দিনে গড়ে প্রতিদিন শনাক্তের সংখ্যা ৯৪ হাজার ৮১৯ জন। এক মাসের আগের তুলনায় পাঁচ অঙ্কের বেশি এই সংখ্যা।

অতি সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের কারণে আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

দেশটির শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্থনি ফাউচি বলেন, যদি আরেকটি ঢেউ আসে এবং এজন্য অতিসংক্রামক ভ্যারিয়েন্ট দায়ী হয় তাহলে আমাদের সত্যিকার সংকটে পড়তে হবে। যারা টিকা নিচ্ছেন না তারা ভুল করে ভাবছেন বিষয়টি শুধু তাদের, আসলে তা নয়। এটি সবার জন্যই।

ভারতে প্রথম শনাক্ত হওয়া ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট যুক্তরাষ্ট্রের নতুন শনাক্তের ৮৩ শতাংশের জন্য দায়ী। যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) এই তথ্য জানিয়েছে।

দেশটির কোভিড-১৯ রেসপন্স টিমের তথ্য অনুসারে, করোনায় গুরুতর আক্রান্তদের মধ্যে ৯৭ শতাংশই টিকা না নেওয়া।

খবরে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলীয় অঙ্গরাজ্যগুলোতে টিকাদানের হার কম। এসব রাজ্যেই বেশিরভাগ রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। গত সপ্তাহে টেক্সাস, ফ্লোরিডা ও লুইজিয়ানাতে নতুন শনাক্ত ছিল সর্বোচ্চ।

ফ্লোরিডায় বৃহস্পতিবার ১২ হাজার ৩৭৩ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। অন্যান্য অঙ্গরাজ্যের তুলনায় এখানে শিশুদের হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সংখ্যাও বেশি।

লুইজিয়ানা ও আরকানসাসেও প্রায় রেকর্ড সংখ্যা করোনা রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

 

 

/এএ/

সম্পর্কিত

হংকংয়ের বাসিন্দাদের যুক্তরাষ্ট্রে ‘সেফ হেভেন’ দিলেন বাইডেন

হংকংয়ের বাসিন্দাদের যুক্তরাষ্ট্রে ‘সেফ হেভেন’ দিলেন বাইডেন

দুনিয়ার সবচেয়ে বড় মুখের নারীর সন্ধান

দুনিয়ার সবচেয়ে বড় মুখের নারীর সন্ধান

ডেল্টার প্রকোপে লকডাউন কৌশল পাল্টাচ্ছে চীন?

ডেল্টার প্রকোপে লকডাউন কৌশল পাল্টাচ্ছে চীন?

আফগান ইস্যুতে আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র, চীন, পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ রাশিয়ার, বাদ ভারত

আফগান ইস্যুতে আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র, চীন, পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ রাশিয়ার, বাদ ভারত

সিংহের থাবায় প্রাণ গেলো ৩ শিশুর

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ২২:৫০
image

তানজানিয়ার একটি বিশ্বখ্যাত বণ্যপ্রাণী অভয়াশ্রমের কাছে গবাদি পশু খুঁজতে গিয়ে সিংহের থাবায় প্রাণ হারিয়েছে তিন শিশু। স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, গত সোমবার স্কুল থেকে ফিরে নয় থেকে ১১ বছর বয়সী এই শিশুরা হারিয়ে যাওয়া গবাদি পশু খুঁজতে যায়। বৃহস্পতিবার আরুশা পুলিশ প্রধান জাস্টিন মাসেজো জানান, এনগোরঙ্গো অভয়াশ্রমের কাছে সিংহের কবলে পড়ে তিন শিশু নিহত এবং আরও একজন আহত হয়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

তানজানিয়ার উত্তরাঞ্চলে অবস্থিত এনগোরঙ্গো অভয়াশ্রম একটি বিশ্ব ঐতিহ্য। সিংহ, চিতাবাঘসহ নানা বণ্যপ্রাণীর বাস এই অভয়াশ্রমে।

পুলিশ প্রধান জাস্টিন মাসেজো বলেন, ‘আমি স্থানীয় নোমাডিক জনগোষ্ঠীকে সংরক্ষিত এলাকার হিংস্র প্রাণীর বিষয়ে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি, বিশেষ করে যখন শিশুদের গবাদি পশুর খেয়াল রাখার জন্য পাঠানো হয়। এর মাধ্যমে তারা শিশু ও নিজেদের পরিবারকে সুরক্ষিত রাখতে পারবে।’

মাসাই জনগোষ্ঠীর মতো বেশ কিছু সম্প্রদায়কে ন্যাশনাল পার্কের অভ্যন্তরে বসবাসের অনুমতি দিয়েছে তানজানিয়া। এসব জনগোষ্ঠী পার্কে বণ্যপ্রাণীর পাশাপাশি গবাদি পশুও পালন করে থাকে। তবে সিংহ, হাতির মতো নানা প্রাণীর সঙ্গে তাদের সংঘাতের ঘটনা ঘটে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

ভারতকে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়া হয়নি: মরিশাস

ভারতকে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়া হয়নি: মরিশাস

আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে যোগ দিচ্ছে সুদান

আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে যোগ দিচ্ছে সুদান

টাইগ্রে-সুদান সীমান্তের নদীতে ভাসছে মরদেহ

টাইগ্রে-সুদান সীমান্তের নদীতে ভাসছে মরদেহ

মাদাগাস্কারে সেনা কর্মকর্তা আটক, প্রেসিডেন্ট হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

মাদাগাস্কারে সেনা কর্মকর্তা আটক, প্রেসিডেন্ট হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

সর্বশেষ

করোনা কেড়ে নিয়েছে ৪২ লাখ ৭৭ হাজার মানুষের প্রাণ

করোনা কেড়ে নিয়েছে ৪২ লাখ ৭৭ হাজার মানুষের প্রাণ

ত্রিপুরার পর আসাম-কেরালাকে টার্গেট তৃণমূলের

ত্রিপুরার পর আসাম-কেরালাকে টার্গেট তৃণমূলের

বাংলাদেশের রাব্বি পেলেন রূপা

বাংলাদেশের রাব্বি পেলেন রূপা

গাজীপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মাসুদ সম্পাদক রাহিম

গাজীপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মাসুদ সম্পাদক রাহিম

সিটি করপোরেশন এলাকায় ৭-৯ আগস্ট ভ্যাকসিন ক্যাম্পেইন চালানো যাবে

সিটি করপোরেশন এলাকায় ৭-৯ আগস্ট ভ্যাকসিন ক্যাম্পেইন চালানো যাবে

কওমি মাদ্রাসা খোলার ঘোষণা সত্য নয়: বেফাক

কওমি মাদ্রাসা খোলার ঘোষণা সত্য নয়: বেফাক

রবীন্দ্রনাথের পারস্য মুগ্ধতা

রবীন্দ্রনাথের পারস্য মুগ্ধতা

বার্সেলোনার ঘোষণা, মেসি থাকছেন না

বার্সেলোনার ঘোষণা, মেসি থাকছেন না

পরীমণির সঙ্গে আমার পবিত্র সম্পর্ক: চয়নিকা চৌধুরী

পরীমণির সঙ্গে আমার পবিত্র সম্পর্ক: চয়নিকা চৌধুরী

মরদেহ সংরক্ষণে দুর্ভোগে ঢামেক

মরদেহ সংরক্ষণে দুর্ভোগে ঢামেক

রবীন্দ্র প্রয়াণ দিবসে ‘পয়লা নম্বর’

রবীন্দ্র প্রয়াণ দিবসে ‘পয়লা নম্বর’

যাত্রাবাড়ীতে ৭০ কেজি গাঁজাসহ দুজন গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৭০ কেজি গাঁজাসহ দুজন গ্রেফতার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

শপথ নিলেন ইরানের নতুন প্রেসিডেন্ট

শপথ নিলেন ইরানের নতুন প্রেসিডেন্ট

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

পাল্টাপাল্টি হামলায় ইসরায়েল-লেবানন সীমান্তে উত্তেজনা

পাল্টাপাল্টি হামলায় ইসরায়েল-লেবানন সীমান্তে উত্তেজনা

চীনা টিকা গ্রহণকারীদের শর্ত সাপেক্ষে প্রবেশ করতে দেবে সৌদি আরব

চীনা টিকা গ্রহণকারীদের শর্ত সাপেক্ষে প্রবেশ করতে দেবে সৌদি আরব

আমিরাতি জাহাজ ছিনতাই, অভিযোগ ইরানের বিরুদ্ধে  

আমিরাতি জাহাজ ছিনতাই, অভিযোগ ইরানের বিরুদ্ধে  

৩ থেকে ১৭ বছর বয়সীদেরও টিকা দেবে আমিরাত

৩ থেকে ১৭ বছর বয়সীদেরও টিকা দেবে আমিরাত

ইরানের প্রেসিডেন্ট হিসেবে আনুষ্ঠানিক অনুমোদন পেলেন রায়িসি

ইরানের প্রেসিডেন্ট হিসেবে আনুষ্ঠানিক অনুমোদন পেলেন রায়িসি

© 2021 Bangla Tribune