X
শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

এবারও কিছু চামড়া নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা

আপডেট : ২১ জুলাই ২০২১, ২২:৪৬

টানা তিন বছরের বিপর্যয় থেকে কাঁচা চামড়ার বাজারকে রক্ষা করার সর্বাত্মক চেষ্টা ছিল এবার। কোরবানির পশুর চামড়া কেনাবেচায় তার ফলও পাওয়া যাচ্ছিল। বিশেষ করে গত দুই বছর কোরবানির পশুর চামড়া নিয়ে যে হযবরল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছিল, এবার তার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। সরকার গরুর চামড়ার দাম প্রতি বর্গফুটে ৫ টাকা করে বাড়ানোর ফলে বাজারে কাঁচা চামড়ার দাম কিছুটা বেড়েছে।

বুধবার (২১ জুলাই) ঈদুল আজহার দিনে রাজধানীর পোস্তা এলাকার আড়তদারদের সঙ্গে কথা বলে এমন চিত্র পাওয়া গেছে। অবশ্য কিছু সাধারণ ও মৌসুমি ব্যবসায়ী লোকসানের মুখে পড়ছেন বলে অভিযোগ করলেও আড়তদারদের মতে চামড়ার দাম তেমন কমেনি।

তবে রাজধানীর সায়েন্সল্যাব এলাকায় বসানো অস্থায়ী কাঁচা চামড়ার হাটটি উচ্ছেদ করায় চামড়া বেচা-বিক্রিতে সমস্যা তৈরি হয়েছে বলে জানান বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত উল্লাহ। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, সরকারের পাশাপাশি সবার প্রচেষ্টায় এবার চামড়ার বাজারে কিছুটা উন্নতি হয়েছে। গত বছরের চেয়ে প্রতি পিসে দেড় থেকে ২০০ টাকা বেশি দিয়ে আমরা চামড়া কিনছি।

কিন্তু কোনও ঘোষণা না দিয়ে হঠাৎ করে সায়েন্সল্যাব এলাকায় বসানো অস্থায়ী কাঁচা চামড়ার হাটটি উচ্ছেদ করায় চামড়া নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। শুনেছি, কিছু মৌসুমি ব্যবসায়ী চামড়া বিক্রি না করে ফেরত নিয়ে গেছে। তিনি উল্লেখ করেন, কোরবানি ঈদের দিন সায়েন্সল্যাব এলাকায় কাঁচা চামড়ার হাট দীর্ঘদিনের রেওয়াজে পরিণত হয়েছে। কোনও নোটিশ ছাড়া এই হাট উচ্ছেদ করায় কাঁচা চামড়া নিয়ে মৌসুমি ব্যবসায়ী, আড়তদার ও ট্যানারি মালিক সবাই কিছুটা ভোগান্তিতে পড়েছে।

উল্লেখ্য, পশু কোরবানি শুরু হওয়ার পর প্রতিটি মহল্লা ও পাড়া থেকে চামড়া সংগ্রহে নেমে পড়েন মৌসুমি ব্যবসায়ী ও ছোট ব্যাপারীরা। তারা কাঁচা চামড়া ২০০ থেকে ৩০০ টাকায়  সংগ্রহ করে সায়েন্সল্যাব এলাকায় বসানো অস্থায়ী কাঁচা চামড়ার হাটে গড়ে ৪০০ টাকা করে বিক্রি করেছেন। কিন্তু বিকালে হাটটি উচ্ছেদের পর সবাইকে যেতে হচ্ছে পোস্তায়।

পোস্তার মৌসুমি ব্যবসায়ীরা বলছেন, তারা প্রতিটি গরুর চামড়া গড়ে ৭০০ টাকা করে কিনছেন। এর সঙ্গে লবণ যোগ করা, শ্রমিকের মজুরি ও ভ্যান ভাড়ায় প্রতিটিতে আরও ৩০০ টাকা করে খরচ হবে। সেই হিসাবে তারা লবণযুক্ত চামড়া এক হাজার টাকায় বিক্রি করতে চান।

এদিকে সায়েন্সল্যাব এলাকায় বসানো অস্থায়ী কাঁচা চামড়ার হাটটি উচ্ছেদ করাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফিনিশড লেদার, লেদারগুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএফএলএলএফইএ) চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন আহমেদ মাহিন। তিনি বলেন, মহামারি করোনার সময়ে খোলা ময়দানে কোনও হাট বসা ঠিক না। কাঁচা চামড়ার নির্ধারিত জায়গা পোস্তায় চলে যাবে।

তার মতে, পশু জবাই হওয়ার চার ঘণ্টার মধ্যে চামড়ায় লবণ লাগানোর কথা। কিন্তু ৮ ঘণ্টা পরও মৌসুমি ব্যবসায়ীরা চামড়ায় লবণ লাগায়নি। লবণ না লাগিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা রাস্তার উপর স্তূপ করে রেখেছে। এ কারণে এবারও চামড়া নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা আছে। তিনি বলেন, এবার প্রায় এক কোটি পিস চামড়া পাওয়া যাবে। এরমধ্যে দুই -এক হাজার পিস চামড়া নষ্ট হলে এটাকে তেমন কিছু বলা যাবে না।

আজকের আবহাওয়া ভালো ছিল উল্লেখ করে  তিনি বলেন, আজ সারাদিন যদি রোদ থাকতো, তাহলে সব চামড়াই নষ্ট হয়ে যেত। তিনি উল্লেখ করেন, গতবারের চেয়ে এবার কাঁচা চামড়ার বাজার ভালো।

প্রসঙ্গত, রাস্তা ও ফুটপাত দখলসহ পরিবেশ বিনষ্ট করে রাজধানীর সায়েন্সল্যাব এলাকায় বসানো অস্থায়ী কাঁচা চামড়ার হাটটি উচ্ছেদ করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)।

এদিকে পোস্তায় কয়েকজন মৌসুমি ব্যবসায়ী ও বিক্রেতার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ২৫–৩০ বর্গফুটের কাঁচা চামড়া গড়ে ৭০০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। তবে এর নিচের ১৪–২০ বর্গফুটের কাঁচা চামড়া গড়ে ৪০০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত দুই বছর কাঁচা চামড়ার দরে বিপর্যয় নেমেছিল। কোনও কোনও জায়গায় গরুর চামড়ার দাম দেড় শ টাকায় নেমে এসেছিল। দাম না পেয়ে অনেকে কাঁচা চামড়া রাস্তায় ফেলে দিয়েছিলেন, কেউ কেউ মাটিতে পুঁতে ফেলেছিলেন।

/এমএস/

সম্পর্কিত

হঠাৎ বেড়েছে লবণের দাম

হঠাৎ বেড়েছে লবণের দাম

সায়েন্সল্যাবে বসেছে কাঁচা চামড়ার হাট, শুরু হয়েছে বেচাকেনা

সায়েন্সল্যাবে বসেছে কাঁচা চামড়ার হাট, শুরু হয়েছে বেচাকেনা

কাঁচা চামড়ায় মন্দা কাটবে এবার?

কাঁচা চামড়ায় মন্দা কাটবে এবার?

পোশাক কারখানা খোলার সিদ্ধান্ত

মালিকদের উদ্দেশে যা বললেন বিজিএমইএ সভাপতি

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ২২:৫৮

পূর্বের মতো সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে কারখানা খোলা রাখার জন্য সব সদস্যকে অনুরোধ করেছেন বিজিএমইএ’র সভাপতি ফারুক হাসান। শুক্রবার (৩০ জুলাই) রাতে গার্মেন্টস মালিকদের উদ্দেশে লেখা এক চিঠিতে তিনি এই অনুরোধ করেন।

ফারুক হাসান বলেন, ‘আমরা অবগত আছি যে, দেশে করোনা সংক্রমণ উদ্বেগজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে এবং সরকারি সর্বশেষ প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত দেশে সর্বাত্মক লকডাউন রাখার নির্দেশনা জারি রয়েছে। আমি বিগত ১৯ জুলাই সম্মানিত সব সদস্যদের জানাই যে “১ অগাস্ট থেকে পোশাক কারখানা পরিচালনার প্রস্তুতি রাখার আশা রাখি”।’

তিনি উল্লেখ করেন, ‘আমি অতি আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, পোশাক শিল্পের সার্বিক দিক বিবেচনা করে সরকার আগামী ১ আগস্ট সকাল ৬টা থেকে পোশাক শিল্পসহ সব রপ্তানিমুখী শিল্প কারখানা খোলা রাখার জন্য আজকে একটি নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।’

চিঠিতে তিনি আরও বলেন, ‘আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিশেষভাবে কৃতজ্ঞ যে, এই করোনা ক্রান্তিকালে পোশাক শিল্পের প্রয়োজনীয়তা এবং রপ্তানিমুখী শিল্পসমূহ অর্থনীতির উন্নয়নের স্বার্থে খুলে দেওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। এই সিদ্ধান্তে আমরা শ্রদ্ধাশীল থেকে পূর্বের মতো সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে কারখানা খোলা রাখার জন্য সদস্যগণকে অনুরোধ করছি। তাছাড়া পোশাক শিল্পে কর্মরত সম্মুখ সারির যোদ্ধাদের জন্য করোনা টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু করার জন্য আবারও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি এবং এই কার্যক্রম ত্বরান্বিত হবে বলে আশাবাদী।’

ফারুক হাসান বলেন, ‘পোশাক শিল্পের সম্মানিত সক সদস্য আমার এবং বর্তমান পর্ষদের ওপর এই ক্রান্তিলগ্নে আস্থা ও ধৈর্য্য নিয়ে সঙ্গে থাকার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি।’

 

/জিএম/আইএ/

সম্পর্কিত

আশপাশের শ্রমিক দিয়েই কারখানা চালু হবে

আশপাশের শ্রমিক দিয়েই কারখানা চালু হবে

পুঁজিবাজার বন্ধ থাকবে ১ ও ৪ আগস্ট

পুঁজিবাজার বন্ধ থাকবে ১ ও ৪ আগস্ট

আগামী রবি ও বুধবার ব্যাংক বন্ধ 

আগামী রবি ও বুধবার ব্যাংক বন্ধ 

আশপাশের শ্রমিক দিয়েই কারখানা চালু হবে

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ২১:৩৩

সরকারি বিধিনিষেধের মধ্যেই আগামী রবিবার (১ আগস্ট) থেকে চালু হচ্ছে দেশের সব রফতানিমুখী শিল্প-কারখানা। তবে বিধিনিষেধের কারণে শ্রমিকদের একটি বড় অংশ এখনও তাদের গ্রামের বাড়িতে রয়েছেন। ফলে সব শ্রমিকের পক্ষে ১ আগস্ট কাজে যোগ দেওয়া সম্ভব হবে না। এ অবস্থায় কারখানার আশপাশের শ্রমিক দিয়েই কারখানা চালু হবে বলে জানিয়েছেন গার্মেন্টস মালিকরা।

গার্মেন্টস মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান জানান, আশপাশে বসবাসকারী শ্রমিকদের দিয়েই ১ আগস্ট রফতানিমুখী শিল্প-কারখানার উৎপাদন কার্যক্রম চালু করা হবে। তিনি উল্লেখ করেন, এবার শ্রমিকদের একটা বড় অংশ কারখানার আশপাশেই থেকে গেছে। তবে ঈদে যারা বাড়ি গেছে, তারা বিধিনিষেধ শেষ হলে পর্যায়ক্রমে যোগ দেবে। যেসব শ্রমিক ১ আগস্ট কাজে যোগ দিতে পারবেন না তাদের চাকরি থেকে ছাঁটাই করা হবে না।

বিজিএমইএ সভাপতি আরও জানান, ২৬ জুলাইয়ের পর থেকে এরই মধ্যে অধিকাংশ শ্রমিক গ্রাম থেকে ফিরেছেন। মানিকগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ এবং গাজীপুর-এ তিন এলাকায় শ্রমিকরা এখন কারখানার আশপাশে বসবাস করছেন। ১ আগস্ট থেকে কারখানার আশপাশের এলাকায় বসবাসকারী শ্রমিকদের দিয়ে কারখানা চালু করা হবে।

এদিকে রফতানিমুখী সব শিল্প কারখানাকে কঠোর বিধিনিষেধের আওতাবহির্ভূত রাখায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন নিটওয়্যার মালিকদের সংগঠন বিকেএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম। তিনি বলেন, ‘শুরু হবে আশপাশের এলাকায় বসবাসকারী শ্রমিকদের দিয়েই। কারখানা খোলা হলেই বোঝা যাবে কত শ্রমিক এখনও কর্মস্থলে পৌঁছাতে পারেননি।’ তিনি বলেন, ‘এখন কাজের প্রচুর চাপ, আমাদের উৎপাদন দরকার। সুতরাং কারখানা চালু করাটাই প্রধান লক্ষ্য।’

 প্রসঙ্গত, শুক্রবার (৩০ জুলাই)  মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব মো. রেজাউল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ১ আগস্ট থেকে গার্মেন্টসসহ রফতানিমুখী শিল্প-কারখানা স্বাস্থ্যবিধি মেনে খোলা থাকবে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় ১ আগস্ট সকাল ৬টা থেকে রফতানিমুখী সব শিল্প-কারখানা বিধিনিষেধের আওতাবহির্ভূত রাখা হলো।

 

/জিএম/আইএ/

সম্পর্কিত

মালিকদের উদ্দেশে যা বললেন বিজিএমইএ সভাপতি

মালিকদের উদ্দেশে যা বললেন বিজিএমইএ সভাপতি

পুঁজিবাজার বন্ধ থাকবে ১ ও ৪ আগস্ট

পুঁজিবাজার বন্ধ থাকবে ১ ও ৪ আগস্ট

আগামী রবি ও বুধবার ব্যাংক বন্ধ 

আগামী রবি ও বুধবার ব্যাংক বন্ধ 

করোনার টিকা ও কিট চেয়ে দুই রাষ্ট্রদূতকে বিজিএমইএ সভাপতির চিঠি

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৯:২৪

করোনাভাইরাস থেকে শ্রমিকদের সুরক্ষিত রাখতে টিকা ও র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট কিট চেয়ে ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) রাষ্ট্রদূত এবং যুক্তরাজ্যের ব্র্যান্ড মার্কস অ্যান্ড স্পেনসারের (এমঅ্যান্ডএস) বাংলাদেশ প্রধানকে চিঠি দিয়েছেন তৈরি পোশাকশিল্প মালিকদের সংগঠন-বিজিএমইএ’র সভাপতি ফারুক হাসান। গত মঙ্গলবার পৃথকভাবে মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলার, ইইউ রাষ্ট্রদূত রেনসে টেরিঙ্ক এবং এমঅ্যান্ডএসের বাংলাদেশ প্রধান স্বপ্না ভৌমিককে চিঠি দেন তিনি।

বিজিএমইএ’র সভাপতি মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলারকে বিশেষভাবে লিখেছেন, ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র সরকার বাংলাদেশকে টিকা উপহার হিসেবে পাঠিয়েছে। নতুন করে যদি আরও টিকা দেওয়ার মতো সুযোগ থাকে, তাহলে পোশাক খাত ও বাংলাদেশ বিশেষভাবে উপকৃত হবে। করোনা শনাক্তের মাধ্যমে আক্রান্ত ব্যক্তিদের আইসোলেশনে রেখে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের কাছে র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট কিটও চেয়ে অনুরোধ করেন তিনি।

এ ছাড়া ইইউ রাষ্ট্রদূত রেনসে টেরিঙ্ককে পোশাক শ্রমিকদের জন্য করোনার টিকাপ্রাপ্তিতে এবং এমঅ্যান্ডএসের বাংলাদেশ প্রধান স্বপ্না ভৌমিককে র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট কিট প্রদানে সহযোগী চেয়ে অনুরোধ করেন ফারুক হাসান।

বিজিএমইএ’র সভাপতি লিখেছেন, করোনার মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পোশাক কারখানা চালানোর কারণে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলোর ক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলো সময়মতো পণ্য পেয়েছে।

তবে শ্রমিকদের সুরক্ষার জন্য টিকার বিকল্প নেই। ইতোমধ্যে নিবন্ধন ছাড়াই পোশাক কারখানার শ্রমিকদের টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে। সরকারও বিপুলসংখ্যক পোশাক শ্রমিককে টিকা দেওয়ার বিষয়ে আন্তরিক। তবে সবকিছু নির্ভর করছে টিকার প্রাপ্যতার ওপর। এ কারণে পোশাক কারখানার উৎপাদন নিরবচ্ছিন্ন রাখতে যার যার অবস্থান থেকে টিকা ও র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট কিট পাঠিয়ে সহায়তা করলে কাজটি সহজ হয়।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গাজীপুরের চারটি তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকদের গত ১৮ জুলাই করোনার প্রতিষেধক টিকাদান শুরু হয়। পোশাক শ্রমিকদের দ্রুত টিকার আওতায় আনতে নিবন্ধন ছাড়াই টিকা দেওয়া হচ্ছে।

 

/জিএম/আইএ/

সম্পর্কিত

আগামী লকডাউনেও কারখানা খোলা থাকবে, আশা গার্মেন্ট মালিকদের

আগামী লকডাউনেও কারখানা খোলা থাকবে, আশা গার্মেন্ট মালিকদের

কনটেইনার ও ভেসেল সংকট নিরসনে সরকারের হস্তক্ষেপ চায় বিজিএমইএ

কনটেইনার ও ভেসেল সংকট নিরসনে সরকারের হস্তক্ষেপ চায় বিজিএমইএ

বাংলাদেশ থেকে আবারও পোশাক কিনবে ওয়াল্ট ডিজনি

বাংলাদেশ থেকে আবারও পোশাক কিনবে ওয়াল্ট ডিজনি

কারখানা খোলা রাখা নিয়ে যা বললেন বিজিএমইএ'র সভাপতি

কারখানা খোলা রাখা নিয়ে যা বললেন বিজিএমইএ'র সভাপতি

১ আগস্ট থেকে শিল্প-কারখানা খোলা

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ২০:১৬

আগামী ১ আগস্ট থেকে গার্মেন্টসসহ রফতানিমুখী শিল্প-কারখানা স্বাস্থ্যবিধি মেনে খোলা থাকবে বলে জানিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। 

শুক্রবার (৩০ জুলাই) বিকালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব মো. রেজাউল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় ১ আগস্ট সকাল ৬টা থেকে রফতানিমুখী সব শিল্প ও কলকারখানা বিধিনিষেধের আওতা-বহির্ভূত রাখা হলো।

উল্লেখ্য, গত ২৩ জুলাই কঠোর বিধিনিষেধ জারি হওয়ার পর থেকে বন্ধ রয়েছে দেশের সব শিল্প-কারখানা। তবে ঈদের পর থেকেই কারখানা খোলার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়ে আসছিলেন শিল্প-কারখানার মালিকরা।

 

/জিএম/এনএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

মালিকদের উদ্দেশে যা বললেন বিজিএমইএ সভাপতি

মালিকদের উদ্দেশে যা বললেন বিজিএমইএ সভাপতি

আশপাশের শ্রমিক দিয়েই কারখানা চালু হবে

আশপাশের শ্রমিক দিয়েই কারখানা চালু হবে

করোনার টিকা ও কিট চেয়ে দুই রাষ্ট্রদূতকে বিজিএমইএ সভাপতির চিঠি

করোনার টিকা ও কিট চেয়ে দুই রাষ্ট্রদূতকে বিজিএমইএ সভাপতির চিঠি

নাগালের বাইরে চলে গেছে যেসব পণ্যের দাম

নাগালের বাইরে চলে গেছে যেসব পণ্যের দাম

নাগালের বাইরে চলে গেছে যেসব পণ্যের দাম

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ২১:৫৭

করোনা মহামারির মধ্যে গত এক বছর ধরে মানুষের আয় না বাড়লেও নিত্যপণ্যের দাম ঠিকই বেড়েছে। বিশেষ করে ভোজ্যতেল, পেঁয়াজ, রসুন ও হলুদের দাম ক্রেতাদের নাগালের বাইরে চলে গেছে। গত এক বছরে এই পণ্যগুলোর দাম বেড়েছে ৫০ শতাংশেরও বেশি।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) গবেষক ড. জায়েদ বখত বলেন, জিনিসপত্রের দাম বাড়লে সবচেয়ে অসুবিধায় পড়ে সীমিত আয়ের মানুষজন। এজন্য বাজার মনিটরিংয়ের পাশাপাশি  মুনাফাখোরদের বিরুদ্ধে সরকারের কঠোর অবস্থান থাকা জরুরি।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, গত বছরের এই সময়ে আমদানি করা রসুনের দাম ছিল ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি। সেই রসুনের দাম এখন প্রায় দ্বিগুণ বেড়ে হয়েছে ১২০ থেকে ১৩০ টাকা কেজি। সরকারি বিপণন সংস্থা টিসিবি বলছে, গত এক বছরে আমদানি করা রসুনের দাম বেড়েছে ৬৬ শতাংশের বেশি। একইভাবে গত বছরের এই সময়ে দেশি হলুদের দাম ছিল ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা। এখন সেই হলুদ বিক্রি হচ্ছে ১৬০ থেকে ২৮০ টাকা কেজি দরে। অর্থাৎ এক বছরের ব্যবধানে এই পণ্যটির দাম বেড়েছে  ৫১ শতাংশেরও বেশি।

এছাড়া ২০২০ সালের এই সময়ে ৬৫ থেকে ৭০ টাকায় এক লিটার খোলা পাম অয়েল পাওয়া যেত।  এখন সেই পাম অয়েল বিক্রি হচ্ছে  ১০৫ থেকে ১০৮ টাকা দরে। অর্থাৎ এক বছরে পণ্যটির দাম বেড়েছে ৫৭ শতাংশের বেশি। একইভাবে গত বছরে যে পাম অয়েল সুপারের দাম ছিল ৭০ থেকে ৭৫ টাকা। সেই পাম অয়েল এখন বিক্রি হচ্ছে ১২২ থেকে ১১৬ টাকা লিটার দরে। এই পণ্যটির দাম বেড়েছে ৫৭ শতাংশের বেশি।

এক বছরের ব্যবধানে আমদানি করা পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ৫৪ শতাংশ। গত বছরের এই সময়ে আমদানি করা পেঁয়াজের দাম ছিল ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকা। এখন সেই পেঁয়াজের দাম ৪০ থেকে ৪৫ টাকা কেজি।

এ প্রসঙ্গে রাজধানীর গোপীবাগ এলাকার বাসিন্দা রাকিবুল ইসলাম বলেন, মানুষের যেভাবে আয় বাড়ার কথা, সেভাবে বাড়েনি। কিন্তু জিনিসপত্রের দাম ঠিকই বেড়েছে। বিশেষ করে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় সীমিত আয়ের মানুষদের কিছুটা সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে।

এদিকে গত সপ্তাহের তুলনায় এই সপ্তাহে নতুন করে বেড়েছে চাল, সয়াবিন তেল, আদা, লবঙ্গ, চিনি ও তেজপাতার দাম। তবে গত সপ্তাহের তুলনায় এই সপ্তাহে কিছুটা দাম কমেছে ব্রয়লার মুরগি ও ডিমের।

এছাড়া সবজির দাম রয়েছে আগের মতোই। শুক্রবার (৩০ জুলাই) রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সবজি ও মাছের বাজার প্রায় স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। প্রতিটি বাজারেই ব্যবসায়ীর সংখ্যা বাড়ার পাশাপাশি পণ্যের সরবরাহ বেড়েছে। যদিও গত সপ্তাহে বেশিরভাগ দোকান বন্ধ ছিল।

ব্যবসায়ীদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, আগের মতো এখনও সব থেকে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে গাজর ও টমেটো। মানভেদে গাজর বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১১০ টাকা কেজি। আর পাকা টমেটো বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ১২০ টাকার মধ্যে। এছাড়া ঝিঙে বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি, করলা ৫০ থেকে ৬০ টাকা, চিচিঙ্গা ৩০ থেকে ৪০ টাকা, পটল ২০ থেকে ৩০ টাকা, কাঁচা পেঁপে ২৫ থেকে ৩০ টাকা এবং কাঁচকলার হালি বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ৩০ টাকার মধ্যে।

আগের মতো ঢেঁড়স বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকার মধ্যে। বরবটি ৫০ থেকে ৬০ টাকায়। এক পোয়া (২৫০ গ্রাম) কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ২০ টাকা। আলু বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকা কেজি। রুই মাছ বিক্রি হচ্ছে ২৮০ থেকে ৩৮০ টাকা কেজি, মৃগেল ২২০ থেকে ২৫০ টাকা, তেলাপিয়া ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা আর পাবদা বিক্রি হচ্ছে ৪৫০ থেকে ৬০০ টাকা কেজিতে।

গরুর মাংস আগের মতোই ৫৮০ থেকে ৬০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৮০০ থেকে ৯৫০ টাকা কেজিতে। ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৩০ থেকে ১৪০ টাকা কেজি, লেয়ার মুরগি ২৩০ থেকে ২৪০ টাকা। আর সোনালি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২০০ থেকে ২৪০ টাকা কেজিতে।

/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকারের কোনও উদ্যোগই কাজে আসেনি

চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকারের কোনও উদ্যোগই কাজে আসেনি

চালের বাজার দেখবে কে?

চালের বাজার দেখবে কে?

সয়াবিন তেলের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত

সয়াবিন তেলের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত

ভোজ্যতেলের দামের লাগাম টানতে নতুন উদ্যোগ

ভোজ্যতেলের দামের লাগাম টানতে নতুন উদ্যোগ

সম্পর্কিত

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

পাইকার না আসায় চামড়া নিয়ে বিপাকে হিলির ব্যবসায়ীরা

পাইকার না আসায় চামড়া নিয়ে বিপাকে হিলির ব্যবসায়ীরা

পোস্তার রাস্তায় পচা চামড়ার স্তূপ

পোস্তার রাস্তায় পচা চামড়ার স্তূপ

দাম নেই, বগুড়ায় চামড়া গেছে ভাগাড়ে

দাম নেই, বগুড়ায় চামড়া গেছে ভাগাড়ে

ময়লার ভাগাড় ও রাস্তায় পড়ে আছে চামড়া

ময়লার ভাগাড় ও রাস্তায় পড়ে আছে চামড়া

ঈদে মামার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ভাই-বোনের মৃত্যু

ঈদে মামার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ভাই-বোনের মৃত্যু

হিলি সীমান্তে দর্শনার্থীদের ভিড়, স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই নেই

হিলি সীমান্তে দর্শনার্থীদের ভিড়, স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই নেই

সর্বশেষ

রুশ সমর্থিত আসাদ বাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় সিরিয়ায় নিহত ১৮

রুশ সমর্থিত আসাদ বাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় সিরিয়ায় নিহত ১৮

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

ঈদে বিক্রি না হওয়া ‘কালো মানিক’কে নিয়ে বিপাকে খামারি

ঈদে বিক্রি না হওয়া ‘কালো মানিক’কে নিয়ে বিপাকে খামারি

অটোরিকশা থেকে চাঁদা আদায় নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১৩

অটোরিকশা থেকে চাঁদা আদায় নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১৩

ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর বিয়ের আয়োজন করায় বাবার জরিমানা

ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর বিয়ের আয়োজন করায় বাবার জরিমানা

ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে তুরস্ক

ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে তুরস্ক

খুলনায় বৃষ্টিতে ভেসে গেছে ১০৮ কোটি টাকার মাছ

খুলনায় বৃষ্টিতে ভেসে গেছে ১০৮ কোটি টাকার মাছ

হেফাজতের হরতালে সহিংসতা মামলার আসামি গ্রেফতার

হেফাজতের হরতালে সহিংসতা মামলার আসামি গ্রেফতার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

হঠাৎ বেড়েছে লবণের দাম

হঠাৎ বেড়েছে লবণের দাম

সায়েন্সল্যাবে বসেছে কাঁচা চামড়ার হাট, শুরু হয়েছে বেচাকেনা

সায়েন্সল্যাবে বসেছে কাঁচা চামড়ার হাট, শুরু হয়েছে বেচাকেনা

কাঁচা চামড়ায় মন্দা কাটবে এবার?

কাঁচা চামড়ায় মন্দা কাটবে এবার?

ঈদে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহে যত উদ্যোগ

ঈদে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহে যত উদ্যোগ

© 2021 Bangla Tribune