X
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

রণক্ষেত্র আসাম-মিজোরাম, কেন্দ্রের হস্তক্ষেপের আহ্বান

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ০০:০৪

সীমান্ত বিরোধের জেরে ভারতের আসাম ও মিজোরামের সাধারণ মানুষের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষে কমপক্ষে ৬ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। ছয়জনই আসামের নিরাপত্তা সদস্য। দুই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে এ নিয়ে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে কেন্দ্রের সহায়তা কামনা করেছেন তারা।

সোমবার আসামের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্ব শর্মা জানিয়েছেন, তার রাজ্যের ৬ পুলিশ সদস্য সংঘর্ষে নিহত হয়েছেন। ‘আসামের ৬ পুলিশ সদস্য মিজোরাম সীমান্তে নিহতে দুঃখ পেয়েছি। পুলিশ জওয়ানরা তাদের সাংবিধানিক সীমানা রক্ষার জন্য জীবন দিয়েছেন। নিহতদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি’।

অন্যদিকে এ ঘটনায় শোক ও নিন্দা জানিয়েছেন মিজোরামের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লালচামলিয়ানা। পুরো ঘটনায় তিনি প্রতিবেশী রাজ্য সরকারকে দায়ী করে বলেন, আসাম সরকারের অযৌক্তিক আচরণের বিরুদ্ধে নিন্দা জানাচ্ছে তার রাজ্য সরকার। মিজোরামের মুখ্যমন্ত্রী জোরামথাঙ্গাও সমালোচনা করেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিভি জানিয়েছে, সম্প্রতি ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক হয় উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের। সেখানে নানা বিষয় নিয়ে অমতি শাহের সঙ্গে তাদের আলাপ হয়। এরপরই স্থানীয় সময় সোমবার মিজোরাম এবং আসামের সীমান্ত এলাকায় বিবাদে জড়ান দুই রাজ্যের মানুষ। আসামের চাচর জেলা ও মিজোরামের কোলাসিব জেলার স্থানীয় লোকজন ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে মোতায়েন করা হয় বাড়তি নিরাপত্তা সদস্য। কিন্তু তাতেও নিয়ন্ত্রণে আসেনি। সেখানে গোলাগুলির ঘটনাও ঘটে। রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ৬ পুলিশ সদস্য প্রাণ হারান। তবে সাধারণ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এ নিয়ে দুই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। হতাহতের ঘটনায় একে অপরকে দায়ী করে অমিত শাহকে ট্যাগ করছেন তারা। এমনকি দোষীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে আহ্বান জানান।

মিজোরামের আইজল, কোলাসিব ও মামিতে জেলার সঙ্গে আসামের চাচর, হাইলাকান্দি ও করিমগঞ্জ জেলার ১৬৪ কিলোমিটারের বেশি সীমান্ত রয়েছে। সীমান্ত এলাকা নিয়েই দুই রাজ্যের বাসিন্দাদের মধ্যে বিরোধ রয়েছে দীর্ঘদিনের।

/এলকে/

সম্পর্কিত

আফগানদের ঠেকাতে ১০ ফুট উঁচু কংক্রিটের দেয়াল তুরস্কের

আফগানদের ঠেকাতে ১০ ফুট উঁচু কংক্রিটের দেয়াল তুরস্কের

উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে রণক্ষেত্র আসাম, পুলিশের গুলিতে নিহত ২

উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে রণক্ষেত্র আসাম, পুলিশের গুলিতে নিহত ২

সম্পর্কের উন্নতি চাইলে সীমান্তের সেনা প্রত্যাহার করুন: চীনকে ভারত

সম্পর্কের উন্নতি চাইলে সীমান্তের সেনা প্রত্যাহার করুন: চীনকে ভারত

ভারতে নৌকাডুবির পর তল্লাশি অভিযানে সেনাবাহিনী

আসামে নৌকাডুবি: উদ্ধার তৎপরতায় সেনাবাহিনী

মিয়ানমার জান্তার বিরুদ্ধে রাজপথে গণতন্ত্রপন্থী বৌদ্ধ ভিক্ষুরা

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৩০

মিয়ানমারে সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে রাজপথে মিছিল করেছেন গণতন্ত্রপন্থী বৌদ্ধ ভিক্ষুরা। শনিবার দেশটির দ্বিতীয় বৃহত্তম শহরে মিছিল করেন। ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি এখবর জানিয়েছে।

ফেব্রুয়ারিতে অং সান সু চি’র নেতৃত্বাধীন নির্বাচিত সরকারকে উৎখাতের মধ্য দিয়ে সামরিক সরকার গঠনের পর থেকেই মিয়ানমারে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। গণতন্ত্রপন্থীদের বিক্ষোভ দমনে শক্তি ও গুলি প্রদর্শনের অভিযোগে আন্তর্জাতিকভাবে নিন্দা ও সমালোচনার মুখে পড়েছে জান্তা সরকার।

ঐতিহাসিকভাবে বৌদ্ধ ভিক্ষুদের দেশটির সর্বোচ্চ নৈতিক কর্তৃপক্ষ হিসেবে বিবেচনা করা হয় মিয়ানমারে। অতীতে সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সম্প্রদায়কে সংগঠিত করেছে তারা। কিন্তু এবার এই ধারায় ফাটল ধরেছে। কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় ভিক্ষু জেনারেলদের আশীর্বাদ দিয়েছেন। বাকিরা বিক্ষোভকারীদের সমর্থন করছেন।

শনিবার বেশ কয়েকজন ভিক্ষু তাদের কমলা ও লালচে রঙের পোশাক পরে মান্দালয়ে মিছিল করেন। এসময় তারা বিভিন্ন পতাকা, ব্যানার প্রদর্শন করেন। সামরিক সরকার কর্তৃক বন্দি বেসামরিক নেতা সু চি’র মুক্তির দাবিতেও স্লোগান দেন তারা।

এক নেতা বলেন, সত্য ও জনগণের পক্ষে দাঁড়াতে ভালোবাসে ভিক্ষুরা।

কয়েকজন ভিক্ষু বাটি হাতে মিছিলে অংশ গ্রহণ করেন। সাধারণত মানুষের কাছ থেকে দান হিসেবে খাবার সংগ্রহ করা হয় এসব বাটি দিয়ে। এর মাধ্যমে প্রতীকীভাবে জান্তা সরকারকে প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে।

৩৫ বছর বয়সী এক ভিক্ষু বলেন, যে কোনও মুহূর্তে গ্রেফতার বা গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঝুঁকি আমাদের নিতে হবে। আমরা নিজেদের ধর্মালয়ে বাস করতে এখন আর নিরাপদ না।

২০০৭ সালে মিয়ানমারজুড়ে তৎকালীন সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছিল বৌদ্ধ ভিক্ষুরা। জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে এই বিক্ষোভ শুরু হয়েছিল।

 

/এএ/

সম্পর্কিত

রাস্তার মোড়ে ক্রেনে মরদেহ ঝুলালো তালেবান

রাস্তার মোড়ে ক্রেনে মরদেহ ঝুলালো তালেবান

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

মিয়ানমারে দ্রুত গণতন্ত্র ফেরাতে মোদি-বাইডেনের বিবৃতি

মিয়ানমারে দ্রুত গণতন্ত্র ফেরাতে মোদি-বাইডেনের বিবৃতি

নিজেদের যোদ্ধাদের তিরস্কার করলো তালেবান

নিজেদের যোদ্ধাদের তিরস্কার করলো তালেবান

রাস্তার মোড়ে ক্রেনে মরদেহ ঝুলালো তালেবান

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:০০

বারবার মানবাধিকারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার আশ্বাস দিলেও তালেবান একটি মরদেহ রাস্তার মোড়ে ক্রেনে ঝুলিয়ে রাখে। আফগানিস্তানের হেরাত শহরের প্রধান মোড়ে এই মরদেহ ঝুলিয়ে রাখা হয়। প্রত্যক্ষদর্শীকে উদ্ধৃত করে শনিবার মার্কিন বার্তা সংস্থা এসোসিয়েটেড প্রেস (এপি) এখবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, সুন্নি পশতুন যোদ্ধারা দেশটির তৃতীয় বৃহত্তম শহর হেরাতের প্রধান মোড়ে চারটি মরদেহ নিয়ে আসে। চারটির মধ্যে তিনটি মরদেহ অন্যান্য মোড়ে মানুষের দেখার জন ঝুলিয়ে রাখে।

ওয়াজির আহমদ সিদ্দিকী জানান, প্রধান মোড়ে মরদেহ আনার পর তালেবান ঘোষণা দেয় অপহরণের চেষ্টার সময় তাদের আটক করা হয় এবং পুলিশ হত্যা করেছে।

তালেবান এখনও প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও ঘোষণা দেয়নি। তবে তাদের আগের শাসনামলে শরিয়াহ আইন বাস্তবায়নে দায়িত্ব প্রাপ্ত মোল্লা নুরুদ্দিন তুরাবি এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, অঙ্গ কর্তন ও মৃত্যুদণ্ড ফিরিয়ে আনা হবে।

সম্প্রতি মার্কিন সংবাদ মাধ্যম নিউ ইয়র্ক পোস্টকে অপর এক তালেবান কর্মকর্তা জানিয়েছেন, অপরাধীদের ইসলামি শাস্তি দেওয়া হবে। তিনি জানান, চোরের হাত কেটে ফেলা হবে, বেআইনি যৌন সম্পর্কে জড়িতদের পাথর নিক্ষেপ করা হবে। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

/এএ/

সম্পর্কিত

মিয়ানমার জান্তার বিরুদ্ধে রাজপথে গণতন্ত্রপন্থী বৌদ্ধ ভিক্ষুরা

মিয়ানমার জান্তার বিরুদ্ধে রাজপথে গণতন্ত্রপন্থী বৌদ্ধ ভিক্ষুরা

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:১১

আফগানিস্তানের তালেবান নেতৃত্বাধীন সরকারের মনোনীত প্রতিনিধি জাতিসংঘের চলমান সাধারণ অধিবেশনে ভাষণ দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন না। তবে উৎখাত হওয়ার সরকারের মনোনীত আফগান দূত সোমবার ভাষণ দেবেন। শুক্রবার জাতিসংঘের এক মুখপাত্র এই তথ্য জানিয়েছেন।

জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টেফানি দুজারিক বলেন, আপাতত আফগানিস্তানের প্রতনিধি হিসেবে গুলাম এম. ইসাকজাইয়ের নাম তালিকাভুক্ত রয়েছে।

তালেবান দ্বারা উৎখাত হওয়া আফগান সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে ইসাকজাই জাতিসংঘে নিযুক্ত ছিলেন।

তালেবান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি গত সোমবার জাতিসংঘে বিশ্বনেতাদের সামনে তাদের মনোনীত প্রার্থীকে ভাষণ দেওয়ার সুযোগ দিতে আহ্বান জানান। এজন্য তালেবান তাদের দোহাভিত্তিক মুখপাত্র সুহাইল শাহীনকে আফগানিস্তানের জাতিসংঘ দূত হিসেবে মনোনয়ন দেয়।  

জাতিসংঘের অ্যাক্রিডিটেশন নয় সদস্যের একটি কমিটি দেখাশোনা করে। এতে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, চীন ও রাশিয়া। সাধারণত এই কমিটি অক্টোবর বা নভেম্বরে বৈঠকে বসে। আগামী বৈঠকে জাতিসংঘের বিভিন্ন উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে মুত্তাকিকে ভাষণ দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে কিনা তা সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সাধারণ অধিবেশনের নিয়ম অনুসারে, নতুন সিদ্ধান্তের আগ পর্যন্ত আফগানিস্তানের প্রতিনিধি হিসেবে ইসাকজাই বহাল থাকবেন।

 

/এএ/

সম্পর্কিত

রাস্তার মোড়ে ক্রেনে মরদেহ ঝুলালো তালেবান

রাস্তার মোড়ে ক্রেনে মরদেহ ঝুলালো তালেবান

ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড ছাড়তে ইসরায়েলকে আল্টিমেটাম আব্বাসের

ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড ছাড়তে ইসরায়েলকে আল্টিমেটাম আব্বাসের

মিয়ানমারে দ্রুত গণতন্ত্র ফেরাতে মোদি-বাইডেনের বিবৃতি

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৫৮

মিয়ানমারের অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে দেশটিতে দ্রুত গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনা, রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি এবং সহিংসতা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারত। শুক্রবার হোয়াইট হাউসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে পর যৌথ বিবৃতিতে আসিয়ানের পাঁচ দফা বাস্তবায়নেরও তাগিদ দেয় এই দুই দেশ।

বিবৃতিতে মিয়ানমারে যেকোনও মূল্যে সহিংসতা বন্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ওপর জোর দিয়েছেন মোদি ও বাইডেন। চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি ভোরে মিয়ানমারের সু চি সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখলে নেয় জান্তা সরকার। এরপরই মিয়ানমারের অধিকাংশ রাজনৈতিক নেতাদের গৃহবন্দি করে সামরিক সরকার। দেশজুড়ে অনর্দিষ্টকালের জন্য জারি করে জরুরি অবস্থা।

প্রতিবাদে রাজপথে আন্দোলন করে আসছে সাধারণ মানুষ। এতে নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে এ পর্যন্ত এক হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন। জান্তাবিরোধী আন্দোলনের কারণে আটক হয়েছেন সাড়ে তিন হাজারের বেশি মানুষ।   

এদিকে, মিয়ানমারে শান্তি ফেরাতে ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় আসিয়ান দেশগুলোর বৈঠকে দেশটিতে রক্তপাত বন্ধে পাঁচ দফা ঘোষণা করে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট আসিয়ান।

/এলকে/

সম্পর্কিত

কমলা হ্যারিসে মুগ্ধ নরেন্দ্র মোদি

কমলা হ্যারিসে মুগ্ধ নরেন্দ্র মোদি

মোদি-কমলার বৈঠক, পাকিস্তানকে সন্ত্রাসীদের সমর্থন বন্ধ করা উচিত: কমলা

মোদি-কমলার বৈঠক, পাকিস্তানকে সন্ত্রাসীদের সমর্থন বন্ধ করা উচিত: কমলা

ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড ছাড়তে ইসরায়েলকে আল্টিমেটাম আব্বাসের

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:১৭

ফিলিস্তিনের ভূখণ্ড ছাড়তে ইসরায়েলকে এক বছরের সময় দিলেন ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস। অন্যথায় ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ ১৯৬৭ সালের সীমানা মানবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

শুক্রবার জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে দেওয়া ভাষণে আব্বাস ইসরায়েলের বিরুদ্ধে বর্ণবৈষ্যম ও জাতিগত নির্মূলকরণেরও অভিযোগ আনেন। ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড থেকে না সড়ে গেলে রাষ্ট্রের স্বীকৃতিও প্রত্যাহারের হুমকি দেন তিনি।  

প্রেসিডেন্ট আব্বাস বলেন, এক বছরের মধ্যে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড থেকে ইসরাইলকে চলে যেতে হবে অন্যথায় ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের ভূমি দখলের বৈধতা প্রশ্নে ফিলিস্তিনিরা আন্তর্জাতিক আদালতে যাবে। অধিকৃত ফিলিস্তিনের রামাল্লাহ শহর থেকে ভিডিও লিংকের মাধ্যমে মাহমুদ আব্বাস জাতিসংঘ অধিবেশনে তার ভাষণ তুলে ধরেন।

ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট বলেন, আগামী এক বছরের মধ্যে পশ্চিম তীর, পূর্ব জেরুজালেম শহর এবং গাজা উপত্যকায় যদি দখলদারিত্বের অবসান না হয় তাহলে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ ১৯৬৭ সালের সীমানা মানবে না। জাতিসংঘের প্রস্তাব অনুযায়ী ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের চূড়ান্ত মর্যাদা দেওয়া নিয়ে যে সমস্যা চলছে তা সমাধানে কাজ করতে প্রস্তুত ফিলিস্তিনিরা। 

/এলকে/

সম্পর্কিত

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণের সুযোগ পাচ্ছেন না তালেবান প্রতিনিধি

শান্তির বার্তা ইমরান খানের মুখে মানায় না: স্নেহা দুবে

শান্তির বার্তা ইমরান খানের মুখে মানায় না: স্নেহা দুবে

তালেবান সরকারের বিশ্ব সমর্থন জরুরি: জাতিসংঘে ইমরান খান

তালেবান সরকারের বিশ্ব সমর্থন জরুরি: জাতিসংঘে ইমরান খান

বর্ণবাদবিরোধী সম্মেলনে জায়নবাদকে নিশ্চিহ্নের অঙ্গীকার ইরানের

বর্ণবাদবিরোধী সম্মেলনে জায়নবাদকে নিশ্চিহ্নের অঙ্গীকার ইরানের

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

আফগানদের ঠেকাতে ১০ ফুট উঁচু কংক্রিটের দেয়াল তুরস্কের

আফগানদের ঠেকাতে ১০ ফুট উঁচু কংক্রিটের দেয়াল তুরস্কের

উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে রণক্ষেত্র আসাম, পুলিশের গুলিতে নিহত ২

উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে রণক্ষেত্র আসাম, পুলিশের গুলিতে নিহত ২

সম্পর্কের উন্নতি চাইলে সীমান্তের সেনা প্রত্যাহার করুন: চীনকে ভারত

সম্পর্কের উন্নতি চাইলে সীমান্তের সেনা প্রত্যাহার করুন: চীনকে ভারত

ভারতে নৌকাডুবির পর তল্লাশি অভিযানে সেনাবাহিনী

আসামে নৌকাডুবি: উদ্ধার তৎপরতায় সেনাবাহিনী

‘বন্ধু বাঁচাও’, পাচারকারীদের হাত থেকে বিজিবি সদস্যদের উদ্ধার করলো বিএসএফ

‘বন্ধু বাঁচাও’, পাচারকারীদের হাত থেকে বিজিবি সদস্যদের উদ্ধার করলো বিএসএফ

আফগান শরণার্থীদের ঢল থামাতে সীমান্তে দেয়াল তুলছে গ্রিস

আফগান শরণার্থীদের ঢল থামাতে সীমান্তে দেয়াল তুলছে গ্রিস

ভারতের সঙ্গে পণ্য পরিবহন বন্ধ করলো তালেবান

ভারতের সঙ্গে পণ্য পরিবহন বন্ধ করলো তালেবান

ব্রহ্মপুত্রের তলদেশে টানেল বানাতে চায় ভারতীয় সেনাবাহিনী

ব্রহ্মপুত্রের তলদেশে টানেল বানাতে চায় ভারতীয় সেনাবাহিনী

পাকিস্তান বর্ডার ক্রসিং নিয়ে তালেবান ও আফগান সরকারের পাল্টাপাল্টি দাবি

পাকিস্তান বর্ডার ক্রসিং নিয়ে তালেবান ও আফগান সরকারের পাল্টাপাল্টি দাবি

ভারত-চীনের মধ্যে পারমাণবিক অস্ত্র প্রতিযোগিতা নেই: জয়শঙ্কর

ভারত-চীনের মধ্যে পারমাণবিক অস্ত্র প্রতিযোগিতা নেই: জয়শঙ্কর

সর্বশেষ

মিয়ানমার জান্তার বিরুদ্ধে রাজপথে গণতন্ত্রপন্থী বৌদ্ধ ভিক্ষুরা

মিয়ানমার জান্তার বিরুদ্ধে রাজপথে গণতন্ত্রপন্থী বৌদ্ধ ভিক্ষুরা

বার্সেলোনার জন্য আরও দুঃসংবাদ

বার্সেলোনার জন্য আরও দুঃসংবাদ

কলার মোচার যত গুণ

কলার মোচার যত গুণ

২৫ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এডিবি

২৫ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এডিবি

ভারতে গেলো আরও ১৮৬ মেট্রিক টন ইলিশ

ভারতে গেলো আরও ১৮৬ মেট্রিক টন ইলিশ

© 2021 Bangla Tribune