X
মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

চাঁদাবাজির মামলায় ছাত্রলীগ নেতা রিমান্ডে

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ২১:২০

চাঁদাবাজি ও মারধরের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের উপ-দফতর সম্পাদক আকতারুল করিম রুবেলের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আশেক ইমামের আদালত এ আদেশ দেন। আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার সাধারণ নিবন্ধন (জিআর) শাখা থেকে এ তথ্য জানা যায়।

এ দিন শাহবাগ থানার মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ রইচ হোসেন আসামি আকতারুলকে আদালতে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তার এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, ভুক্তভোগী মনির হোসেন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের ওয়ার্ড বয় হিসেবে কর্মরত। ২৬ জুলাই সকাল ৯টার দিকে মনির ও তার সহকর্মী মো. সোহেল ও হারুন নাস্তা করতে হাসপাতাল থেকে হোটেলে যাচ্ছিলেন। এ সময় আসামি আকতারুলসহ অজ্ঞাতনামা আরও দুই-তিন জন ভুক্তভোগীর পথরোধ করে তার কাছে পাঁচ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে আসামিরা বাদীকে হত্যার উদ্দেশে কাঠের লাঠি ও রড দিয়ে গুরুতর যখম করে। তখন তাকে তার সহকর্মীরা বাঁচাতে এগিয়ে এলে তাদেরও আসামিসহ অন্যরা কাঠ ও রড দিয়ে পিটিয়ে জখম করে। একপর্যায়ে তাদের চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে  আকতারুলকে আটক করলেও তার সঙ্গে থাকা অন্য আসামিরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় কর্মচারী মনির হোসেন বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় চাঁদাবাজি ও মারধরের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন।

 

/এমএইচজে/আইএ/

সম্পর্কিত

যেসব উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন মুফতি ইব্রাহীম

যেসব উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন মুফতি ইব্রাহীম

ই-কমার্স নিয়ে সরকারের পদক্ষেপসহ ৩টি বিষয় জানতে চায় হাইকোর্ট

ই-কমার্স নিয়ে সরকারের পদক্ষেপসহ ৩টি বিষয় জানতে চায় হাইকোর্ট

সৌদি আরবে না খেয়ে নারী: ঢাকায় গ্রেফতার ৪ ‘পাচারকারী’

সৌদি আরবে না খেয়ে নারী: ঢাকায় গ্রেফতার ৪ ‘পাচারকারী’

উসকানিমূলক বক্তব্যের ব্যাখ্যা জানতে মুফতি ইব্রাহীম আটক: ডিবি

উসকানিমূলক বক্তব্যের ব্যাখ্যা জানতে মুফতি ইব্রাহীম আটক: ডিবি

জাতীয় অর্থনীতি পর্যন্ত নারীদের সম্পৃক্ত করতে হবে: স্পিকার 

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৪৬

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, কর্মক্ষম জনশক্তির অংশ নারীদের বাদ দিয়ে ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ডের সুবিধা অর্জন সম্ভব নয়। গার্হস্থ্য অর্থনীতি থেকে জাতীয় অর্থনীতি পর্যন্ত নারীদের সম্পৃক্ত করতে হবে। আন্তর্জাতিক শ্রমবাজারেও নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি করতে হবে।

এসপিসিপিডি প্রকল্পের আওতায় মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সংসদ ভবনস্থ শপথকক্ষে আয়োজিত  ‘পলিসি ডায়ালগ অন এসিলারেটিং ফিমেল লেবার ফোর্স পার্টিসিপেশন টু রিপ ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ড ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে স্পিকার এসব কথা বলেন।

স্পিকার বলেন, নারী উন্নয়নে সরকার ব্যাপক পরিকল্পনা গ্রহণ করলেও শ্রমবাজারে অংশগ্রহণে নারীরা এখনও পিছিয়ে আছে। প্রতিবন্ধকতাগুলো চিহ্নিত করে তা দূরীকরণে উদ্ভাবনী সমাধান খুঁজতে হবে। শ্রমবাজারে নারীদের জন্য আরও সুযোগ তৈরিতে সকলের সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন। 

সংসদ সচিবালয়ের সচিব কে এম আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ান বক্তব্য রাখেন।

/ইএইচএস/এমআর/

সম্পর্কিত

যেসব উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন মুফতি ইব্রাহীম

যেসব উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন মুফতি ইব্রাহীম

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য ৪ দফা জরুরি নির্দেশনা

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য ৪ দফা জরুরি নির্দেশনা

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তথ্য পাঠাতে হবে নতুন নির্দেশনা অনুসারে

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তথ্য পাঠাতে হবে নতুন নির্দেশনা অনুসারে

চাল উৎপাদনে রেকর্ডের পরও আমদানি করতে হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী

চাল উৎপাদনে রেকর্ডের পরও আমদানি করতে হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী

যেসব উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন মুফতি ইব্রাহীম

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৪৪

হিন্দুস্তানের দালাল, ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা র’র এজেন্ট, করোনা টিকা নিয়ে অপপ্রচার, জন্মনিয়ন্ত্রণ হারাম, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ডাকাত বলাসহ বিভিন্ন সময় উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে আলোচনায় আসেন মুফতি কাজী ইব্রাহীম। তার বিরুদ্ধে চ্যানেল আই’র উপস্থাপক মাওলানা ফারুকী খুনের পরিকল্পনারও অভিযোগ রয়েছে। ওই সময়ে তাকে আসামি করে একটি নালিশি মামলা হয়েছিল।  

কয়েক বছর ধরে মুফতি ইব্রাহীম বিতর্কিত এমন সব বক্তব্য দিয়ে মানুষের কাছে পরিচিতি লাভ করেন। ধর্মীয় বক্তা হলেও তার এসব বক্তব্যের ধর্মীয় ও বৈজ্ঞানিক কোনও দালিলিক প্রমাণ নেই। তার এসব বক্তব্যে জনমনে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়।

সবশেষ সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাতে ফেসবুক লাইভে আসেন মুফতি ইব্রাহীম। ২০ মিনিটের লাইভে তিনি বলেন, “আমার বাসার সামনে ডাকাত এসেছে। হিন্দুস্তানের দালাল, র’র এজেন্টরা আমাকে নিয়ে যেতে চায়।”

তার লাইভের পর মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকালে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ জানায়, মুফতি ইব্রাহীমকে উসকানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার কারণে আটক করা হয়েছে। তার কাছে এসব বক্তব্যের ব্যাখ্যা চাওয়া হবে। পুলিশ তার সব উসকানিমূলক বক্তব্যের ভিডিও ক্লিপস ও প্রমাণ সংগ্রহ করেছে।

হিন্দুস্তানের দালাল

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (উত্তর) যুগ্ম কমিশনার হারুন অর রশীদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিভিন্ন মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষকে হিন্দুস্তানের দালাল ও র’-এর এজেন্ট বলছেন মুফতি ইব্রাহীম। কারা এই দালাল বা র’-এর এজেন্ট, তাদের পরিচয়সহ বিভিন্ন বিষয় জানতেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য গোয়েন্দা পুলিশের হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।’

জিজ্ঞাসাবাদে সন্তোষজনক উত্তর দিতে না পারলে তার বিরুদ্ধে মামলাসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

আটকের বিষয়ে হারুন অর রশীদ সাংবাদিকদের বলেন, “করোনা নিয়ে মিথ্যা তথ্য প্রচার করছেন কাজী ইব্রাহীম। সম্প্রতি করোনাভাইরাসের টিকা নিয়ে তার বক্তব্য ভাইরাল হয়। মুফতি ইব্রাহীম ফেসবুক, ইউটিউবসহ তার ওয়াজে উল্টাপাল্টা কথা বলে আসছেন। গতরাতেও ফেসবুক লাইভে তিনি বাংলাদেশের মানুষকে হিন্দুস্তানের দালাল ও র’-এর এজেন্ট বলেছেন। তিনি বিভিন্ন সময়ে করোনা নিয়ে মিথ্যা তথ্য প্রচার ও ধর্মীয় উসকানিমূলক বক্তব্য প্রচার করেছেন। এসব  নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা, বিতর্ক হচ্ছে। তাকে এসব বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে ডিবি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।’

করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে তথ্য পাচার হবে

২০২০ সালের ডিসেম্বর এক খুতবায় মুফতি ইব্রাহীম একটি অপপ্রচার চালায়। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, ‘ভ্যাকসিন আবিষ্কারে বিলগেটস ও ইসরায়েলের চক্রান্ত ফাঁস হয়েছে। ভ্যাকসিনের মাধ্যমে শরীরে মাইক্রোচিপ প্রবেশ করানো হবে। এতে মানুষের ব্যক্তিগত তথ্য বেহাত হয়ে যেতে পারে। অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন গ্রহীতা অসুস্থ হয়ে গেছেন, ভারতের ভ্যাকসিন যিনি প্রথম নিয়েছেন তিনিও অসুস্থ। আরেক দেশে ভ্যাকসিন গ্রহীতাকে খুঁজেই পাওয়া যাচ্ছে না।’

এছাড়া ব্রাজিলের প্রেসিডেন্টের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, ‘ব্রাজিলে ভ্যাকসিন দেওয়ায় নারীদের দাড়িগোঁফ হচ্ছে, পুরুষের কণ্ঠ নারীতে বদলে যাচ্ছে।’

বেশি সন্তান জন্ম দিয়ে ইউরোপ দখল করতে হবে

গত বছর এক মাহফিলে মুফতি কাজী ইব্রাহিম জন্মনিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা নিয়ে বিতর্কিত বক্তব্য দেন। তিনি এ ব্যবস্থাকে সন্তান খুন করার সঙ্গে তুলনা করেন। তিনি ১১টি সন্তান নিয়েছেন, অন্যদেরও তাকে অনুসরণ করতে বলেন।

ওই বক্তব্যে বেশি সন্তান জন্ম দিয়ে ইউরোপ দখল করে নেওয়ার স্বপ্নের কথাও বলেন তিনি।  

শিশুদের টিকা দিলে এইডস হয়

কাজী ইব্রাহিম আরেকটি ওয়াজে বলেছিলেন, টিকা দিলে এইডস হয়, শিশুদের টিকা দেবেন না। একজন তাকে প্রশ্ন করেছিলেন, গর্ভবতী নারী ও শিশুদের রোগ প্রতিরোধে টিকা দেওয়া জায়েজ কিনা?

তিনি জবাব দেন, ‘আমার ১১টি সন্তানের একজনকেও টিকা দিইনি। আমার সন্দেহ হয়, কী না কী আছে এই টিকার মধ্যে! আফ্রিকান জাতির এইডসের জন্য টিকা দায়ী। কোটি কোটি আফ্রিকান মুসলমানকে এইডসে আক্রান্ত করে দেওয়া হয়েছে এই টিকার মাধ্যমে। মুসলমানের সন্তানদের জন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা হলো আকিকা (নাম রাখার জন্য পশু উৎসর্গের প্রক্রিয়া)। আকিকা দিলে শিশু থাকবে নিরাপদ। তিনি সহিহ হাদিস থেকে ব্যাখ্যা করেন, আকিকার পশুর প্রতিটি অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের মাধ্যমে আল্লাহ শিশুর নিরাপত্তা দেন।’

চ্যানেল আই’র উপস্থাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম ফারুকী হত্যার পরিকল্পনার অভিযোগ

আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত নেতা ও চ্যানেল আইর জনপ্রিয় উপস্থাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম ফারুকী হত্যার ঘটনায় ৪টি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের ধর্মীয় অনুষ্ঠানের ৬ জন উপস্থাপককে আসামি করে পিটিশন মামলা দায়ের করা হয়েছিল। ওই মামলায় পিসটিভির উপস্থাপক কাজী ইব্রাহিমের নামও রয়েছে। এই ৬ জনকে হত্যার পরিকল্পনাকারী হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে মাওলানা ফারুকীর পরিবারের আর্জিতে। ওই মামলাটি তদন্তাধীন।

বক্তব্য দিয়ে ট্রলের শিকার মুফতি ইব্রাহীম

মুফতি ইব্রাহিম এক বক্তৃতায় করোনাভাইরাসের টিকা আবিষ্কারের গাণিতিক ‘সূত্র’ও দিয়েছিলেন। সেটি হচ্ছে 1.q7+6=13 । তার এমন বক্তব্য নিয়ে সামাজিকমাধ্যমে হাস্যরস হয়েছে। এভাবে কাজী ইব্রাহীম জুমার খুতবায় বিভিন্ন সময় করোনার চিকিৎসা, করোনায় মুসলিমরা আক্রান্ত হবে না, পৃথিবীর সৃষ্টি ও ভৌগোলিক বিভিন্ন বিষয় মতবাদ দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ট্রল হয়েছেন। এমনকি ‘এক প্রবাসীর স্বপ্ন দেখা করোনার সঙ্গে কথোপকথনের’ বর্ণনা করেও তিনি হাস্যরসের পাত্র হন।

তার পুরুষদের টেস্টোস্টেরন উৎপাদন হয় পায়ের গোড়ালি থেকে, রাত ৯টার পর ঘরে লাইট জ্বালানো থাকলে ক্যান্সার হয়, মাটির নিচে আরও ৭টা পৃথিবী আছে, যেখানে হিটলার লুকিয়ে আছে ইত্যাদি বক্তব্য ব্যাপক হাস্যরস সৃষ্টি করে।

অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশ নিয়ে রহস্যজনক এক মতবাদ দিতে গিয়ে তিনি এটিকে ‘এন্টারকটিক’ মহাদেশ বলেও ট্রলের শিকার হন। তার ‘হিটলার মারা যাননি’, ‘শেক্সপিয়ারের প্রকৃত নাম শেখ যুবায়ের’ প্রভৃতি বক্তব্য বিভিন্ন সময় ভাইরাল হয়েছে।

পুলিশের বক্তব্য

পিসটিভির একসময়ের উপস্থাপক মুফতি ইব্রাহীমকে এসব বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন হারুন অর রশীদ। তিনি বলেন, ‘প্রতিটি বিষয়ে তার কাছে জানতে চাওয়া হবে। উত্তর দিতে না পারলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ই-কমার্স নিয়ে সরকারের পদক্ষেপসহ ৩টি বিষয় জানতে চায় হাইকোর্ট

ই-কমার্স নিয়ে সরকারের পদক্ষেপসহ ৩টি বিষয় জানতে চায় হাইকোর্ট

সৌদি আরবে না খেয়ে নারী: ঢাকায় গ্রেফতার ৪ ‘পাচারকারী’

সৌদি আরবে না খেয়ে নারী: ঢাকায় গ্রেফতার ৪ ‘পাচারকারী’

উসকানিমূলক বক্তব্যের ব্যাখ্যা জানতে মুফতি ইব্রাহীম আটক: ডিবি

উসকানিমূলক বক্তব্যের ব্যাখ্যা জানতে মুফতি ইব্রাহীম আটক: ডিবি

পরীমণির গাড়ি-পাসপোর্টসহ জব্দ করা আলামত ফেরত দেওয়ার নির্দেশ

পরীমণির গাড়ি-পাসপোর্টসহ জব্দ করা আলামত ফেরত দেওয়ার নির্দেশ

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য ৪ দফা জরুরি নির্দেশনা

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৩২

করোনা আক্রান্ত ও করোনার লক্ষণ পাওয়া শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের বিষয়ে করণীয় নির্ধারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য আরও চার দফা জরুরি নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের গত রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত আদেশ মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) প্রকাশ করা হয়।  

আদেশে জানানো হয়, সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে গত ১২ সেপ্টেম্বর থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের আওতাধীন সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পুনরায় শ্রেণি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পুনরায় চালুর জন্য একটি গাইডলাইন, নির্দেশিকা এবং স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি) জারি করা হয়েছে। এছাড়াও মনিটরিং চেকলিস্টের মাধ্যমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে দৈনিক ভিত্তিতে তথ্য সংগ্রহ করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবর পাঠানো হচ্ছে। করোনা সংক্রমণ রোধে আরও কিছু পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি।

জরুরি পদক্ষেপ:

১) শিক্ষকরা শ্রেণিকক্ষে প্রবেশের পর প্রথমেই শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সম্বন্ধে খোঁজ-খবর নেবেন।

২. শিক্ষার্থীর পরিবারের কেউ করোনা আক্রান্ত বা করোনার লক্ষণ (জ্বর, সর্দি, কাশি ইত্যাদি) আছে কিনা তার খোঁজ নেবেন।

৩) কোনও শিক্ষার্থী বা তার পরিবারের কারও করোনা বা করোনার লক্ষণ দেখা দিলে দ্রুত সেই শিক্ষার্থীকে আইসোলেশনে রেখে বাড়িতে পাঠানোর ব্যবস্থা করবেন।

৪. প্রতিষ্ঠান প্রধান ওই শ্রেণিকক্ষের শিক্ষক এবং সব শিক্ষার্থীর দ্রুততম সময়ের মধ্যে করোনা টেস্ট করার ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

আদেশে বলা হয়, পরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা (সব অঞ্চল); উপ-পরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা সব অঞ্চল, সব জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এবং সব উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তাদের আওতাধীন সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে বিষয়টি অবহিত ও বাস্তবায়নে তত্ত্বাবধান করবেন। সর্বোচ্চ গুরুত্বের সঙ্গে তদারকি ও প্রয়োজনীয় সহযোগিতা নিশ্চিত করার অনুরোধ করা হয় নির্দেশনায়।

 

 

/এসএমএ/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তথ্য পাঠাতে হবে নতুন নির্দেশনা অনুসারে

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তথ্য পাঠাতে হবে নতুন নির্দেশনা অনুসারে

চাল উৎপাদনে রেকর্ডের পরও আমদানি করতে হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী

চাল উৎপাদনে রেকর্ডের পরও আমদানি করতে হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী

দেশ আজ উন্নয়নে বিশ্বের বিস্ময়: শ্রম প্রতিমন্ত্রী

দেশ আজ উন্নয়নে বিশ্বের বিস্ময়: শ্রম প্রতিমন্ত্রী

সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছেন বিমান প্রতিমন্ত্রী

সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছেন বিমান প্রতিমন্ত্রী

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তথ্য পাঠাতে হবে নতুন নির্দেশনা অনুসারে

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৩৭

সরকারি-বেসরকারি সব বিদ্যালয় থেকে করোনা বিষয়ক তথ্য নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী পাঠাতে বলেছে সরকার। দৈনিক ভিত্তিতে পাঠানো তথ্য আগের ছকের পরিবর্তে নতুন ছকে পাঠাতে বলা হয়েছে। রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) স্বাক্ষরিত মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের জরুরি নির্দেশনাটি মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) প্রকাশ করা হয়েছে।  

এতে বলা হয়, সরকারি ও বেসরকারি সব বিদ্যালয় থেকে করোনা বিষয়ে পাওয়া তথ্য দৈনিক ভিত্তিতে আগের ছকের পরিবর্তে সংযুক্ত নতুন ছক মোতাবেক মনিটরিং অ্যান্ড ইভ্যালুয়েশান উইংয়ের ই-মেইলে ([email protected]) পাঠাতে হবে।

নির্দেশনায় জানানো হয়, গত ১২ সেপ্টেম্বর স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পুনরায় চালুর পর উদ্ভূত সমস্যা সম্পর্কে মনিটরিং ছক অনুযায়ী দৈনিক তথ্য পাঠনো সংক্রান্ত বিষয়ে দুটি নির্দেশনাপত্র জারি করা হয়েছে।

এক. বর্তমান পরিস্থিতিতে করোনা সংক্রান্ত তথ্য আরও দ্রুত এবং নির্ভুলভাবে পাওয়ার জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের আওতাধীন সব আঞ্চলিক পরিচালকের অধীন সরকারি ও বেসরকারি কলেজ এবং উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে নিজ উপজেলা/থানার মাধ্যমিক পর্যায়ের সব সরকারি ও বেসরকারি বিদ্যালয় থেকে করোনা সংক্রান্ত তথ্য দৈনিক ভিত্তিতে সংযুক্ত নতুন ছক মোতাবেক মনিটরিং অ্যান্ড ইভ্যালুয়েশান উইংয়ের মেইলে পাঠাতে হবে।

দুই. উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তারা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এবং আঞ্চলিক উপ-পরিচালক (মাধ্যমিক) বরাবর তথ্যের অনুলিপি পাঠাবেন।

নির্দেশনায় আরও জানানো হয়, করোনা আক্রান্ত বা সংক্রমিত শিক্ষার্থী, শিক্ষক বা কর্মচারী থাকলেই কেবল তার তথ্য মইলে পাঠাবেন, অন্যথায় মেইল পাঠনোর প্রয়োজন নেই। প্রয়োজনে জরুরি ভিত্তিতে ০১৭১৬-৫৯৪৫২৭ নম্বরে যোগাযোগ করে তথ্য জানিয়ে দেওয়া যাবে।

 

 

/এসএমএ/আইএ/

সম্পর্কিত

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য ৪ দফা জরুরি নির্দেশনা

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য ৪ দফা জরুরি নির্দেশনা

মেয়ে শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে সরকার

মেয়ে শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে সরকার

২০২১ সালের এসএসসি-এইচএসসি’র অ্যাসাইনমেন্টের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

২০২১ সালের এসএসসি-এইচএসসি’র অ্যাসাইনমেন্টের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

সৃজনশীলতার ভিত্তিতে নম্বর দেওয়া হবে

সৃজনশীলতার ভিত্তিতে নম্বর দেওয়া হবে

চাল উৎপাদনে রেকর্ডের পরও আমদানি করতে হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:১৬

উৎপাদনে এত সাফল্যের পরও চাল আমদানি করতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ের নিজ দফতর থেকে অনলাইনে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় মন্ত্রী এ কথা বলেন।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সভায় মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও সংস্থা প্রধানসহ প্রকল্প পরিচালকরা উপস্থিত ছিলেন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘দেশে চালের রেকর্ড উৎপাদন হয়েছে। মোট উৎপাদন ও উৎপাদনশীলতা দুটোই বেড়েছে। এত সব সাফল্যের পরও চাল আমদানি করতে হচ্ছে। জনসংখ্যা বাড়ছে। অপরদিকে আবাদের জমি কমছে। এ অবস্থায়, উৎপাদনের পরিমাণ কীভাবে আরও বাড়ানো যায়, তা দেখতে হবে।’

মন্ত্রী আরও  বলেন, ‘এ বছর পেঁয়াজের উৎপাদন ভালো হয়েছে। দাম স্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছে। আগামী বছর উৎপাদন আরও বাড়াতে হবে। একইসঙ্গে কৃষক যাতে পেঁয়াজের ভালো দাম পান, সেই দিকে খেয়াল রাখতে হবে।’

সভায় জানানো হয়, চলমান ২০২১-২২ অর্থবছরে কৃষি মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পের সংখ্যা ৭০টি। মোট বরাদ্দ দুই হাজার ৯৫৮ কোটি টাকা। আগস্ট ২০২১ পর্যন্ত বাস্তবায়ন অগ্রগতি হয়েছে ৫ দশমিক ৫০ শতাংশ। জাতীয় গড় অগ্রগতি হয়েছে ৩ দশমিক ৮২ শতাংশ।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মেসবাহুল ইসলাম বলেন, ‘প্রকল্পের আর্থিক অগ্রগতির সঙ্গে বাস্তব অগ্রগতির দিকেও নজর দিতে হবে। প্রকল্প বাস্তবায়নের ফলে কী প্রভাব পড়েছে ও কী ফলাফল এসেছে, তা খতিয়ে দেখতে হবে। ফলাফল ভালো না হলে প্রজেক্ট করে লাভ হবে না।’

 

/এসআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য ৪ দফা জরুরি নির্দেশনা

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য ৪ দফা জরুরি নির্দেশনা

দেশ আজ উন্নয়নে বিশ্বের বিস্ময়: শ্রম প্রতিমন্ত্রী

দেশ আজ উন্নয়নে বিশ্বের বিস্ময়: শ্রম প্রতিমন্ত্রী

সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছেন বিমান প্রতিমন্ত্রী

সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছেন বিমান প্রতিমন্ত্রী

‘প্রধানমন্ত্রী বিশ্বে বাঙালি জাতিকে আলোকিত করেছেন’

‘প্রধানমন্ত্রী বিশ্বে বাঙালি জাতিকে আলোকিত করেছেন’

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

যেসব উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন মুফতি ইব্রাহীম

যেসব উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন মুফতি ইব্রাহীম

ই-কমার্স নিয়ে সরকারের পদক্ষেপসহ ৩টি বিষয় জানতে চায় হাইকোর্ট

ই-কমার্স নিয়ে সরকারের পদক্ষেপসহ ৩টি বিষয় জানতে চায় হাইকোর্ট

সৌদি আরবে না খেয়ে নারী: ঢাকায় গ্রেফতার ৪ ‘পাচারকারী’

সৌদি আরবে না খেয়ে নারী: ঢাকায় গ্রেফতার ৪ ‘পাচারকারী’

উসকানিমূলক বক্তব্যের ব্যাখ্যা জানতে মুফতি ইব্রাহীম আটক: ডিবি

উসকানিমূলক বক্তব্যের ব্যাখ্যা জানতে মুফতি ইব্রাহীম আটক: ডিবি

পরীমণির গাড়ি-পাসপোর্টসহ জব্দ করা আলামত ফেরত দেওয়ার নির্দেশ

পরীমণির গাড়ি-পাসপোর্টসহ জব্দ করা আলামত ফেরত দেওয়ার নির্দেশ

গাড়ি-পাসপোর্টসহ জব্দকৃত আলামত ফিরে পেতে আদালতে পরীমণি

গাড়ি-পাসপোর্টসহ জব্দকৃত আলামত ফিরে পেতে আদালতে পরীমণি

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নথি জালিয়াতি ঘৃণ্য অপরাধ, জড়িতদের ছাড় নয়: হাইকোর্ট

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নথি জালিয়াতি ঘৃণ্য অপরাধ, জড়িতদের ছাড় নয়: হাইকোর্ট

পাঁচ মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ বাড়লো এক বছর

পাঁচ মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ বাড়লো এক বছর

মুফতি ইব্রাহীম আটক

মুফতি ইব্রাহীম আটক

বেশি মুনাফা পেতে মানহীন চিকিৎসা সামগ্রী বিক্রয় করতো মুন্না

বেশি মুনাফা পেতে মানহীন চিকিৎসা সামগ্রী বিক্রয় করতো মুন্না

সর্বশেষ

জাতীয় অর্থনীতি পর্যন্ত নারীদের সম্পৃক্ত করতে হবে: স্পিকার 

জাতীয় অর্থনীতি পর্যন্ত নারীদের সম্পৃক্ত করতে হবে: স্পিকার 

নির্বাচনে পরাজয়, দলেই সমর্থন হারাচ্ছেন লাশেট

নির্বাচনে পরাজয়, দলেই সমর্থন হারাচ্ছেন লাশেট

যেসব উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন মুফতি ইব্রাহীম

যেসব উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন মুফতি ইব্রাহীম

টি-টোয়েন্টিতে রেকর্ড গড়েই চলেছেন পোলার্ড

টি-টোয়েন্টিতে রেকর্ড গড়েই চলেছেন পোলার্ড

টাঙ্গাইলে কেটে গেছে রেল লাইনের সিগন্যাল ক্যাবল

টাঙ্গাইলে কেটে গেছে রেল লাইনের সিগন্যাল ক্যাবল

© 2021 Bangla Tribune