X
মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

কর্মহীনদের সহায়তায় খাদ্যসামগ্রী অঙ্কুর ফাউন্ডেশনের

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:৩৩

চলমান কঠোর লকডাউনের কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া দেশের চারটি জেলায় অসহায়-দরিদ্র মানুষদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে অঙ্কুর ফাউন্ডেশন নামের একটি সমাজিক সংগঠন।

বুধবার (২৮ জুলাই) সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, ফরিদপুর ও রাজবাড়িতে একযোগে ২০০টি পরিবারের মাঝে সংগঠনটির পক্ষ থেকে এই খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

খাদ্যসামগ্রী হিসেবে প্রতিটি পরিবারকে দেওয়া হয়— ৮ কেজি চাল, ১ কেজি পেঁয়াজ, ২ কেজি আলু, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি লবণ ও ১ লিটার তেল।

অঙ্কুর ফাউন্ডেশনের  সিরাজগঞ্জ জেলা অ্যাম্বাসেডর মো. হেদায়েতুল ইসলাম বলেন, ‘অঙ্কুর ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে সিরাজগঞ্জ জেলার সলংগা থানায়  ৫০টি অসহায়দের পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।’

সংগঠনের বিশেষ অ্যাম্বাসেডর নিলয় কুমার বিশ্বাস বলেন, ‘অঙ্কুর ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠার পর থেকেই অসহায় মানুষদের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় আজকে ২০০ অসহায় পরিবারকে সাহায্য করা হলো।’

উল্ল্যেখ্য, অঙ্কুর ফাউন্ডেশনের  প্রেসিডেন্ট  বুয়েটের সাবেক শিক্ষক ও ইন্টেল করপোরেশনের প্রিন্সিপাল  ইঞ্জিনিয়ার (আমেরিকা প্রবাসী)  ড.  শায়েস্তাগীর চৌধুরী ২০০৭ সাল থেকে দেশে অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, কর্মসংস্থান,  চিকিৎসা, কৃষি, নিরাপদ  পানির জন্য গভীর নলকূপ  স্থাপন, গৃহহীনদের জন্য ঘর নির্মাণ ইত্যাদি জন-গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে কাজ করে আসছেন। এছাড়াও তিনি ২০২০ সালে ‘সাড়া টেলিমেডিসিন’ নামে  ফ্রি  চিকিৎসা সেবা চালু করেন, যা এখনও চলমান।

 

/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

করোনার বন্ধে চবির আপ্যায়ন খরচ ৩৭ লাখ 

করোনার বন্ধে চবির আপ্যায়ন খরচ ৩৭ লাখ 

১৮ মাস পর খুললো ঢাবির কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি

১৮ মাস পর খুললো ঢাবির কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি

জাপানে ‘তরুণ বিজ্ঞানী’র স্বীকৃতি পেলেন বাংলাদেশি শিক্ষক

জাপানে ‘তরুণ বিজ্ঞানী’র স্বীকৃতি পেলেন বাংলাদেশি শিক্ষক

কৃষ্ণচূড়া গাছ কাটায় ঢাবি শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ

কৃষ্ণচূড়া গাছ কাটায় ঢাবি শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের বিরুদ্ধে ১৪ শিক্ষার্থীর চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:১৯

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪ ছাত্রের মাথার চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যয়ন বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী প্রক্টর ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনের বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট দিলে তা মুহূর্তে ভাইরাল হয়। এছাড়াও এ ঘটনায় সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে নাজমুল নামে ১ম বর্ষের এক শিক্ষার্থী লজ্জায় ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে বলেও জানা গেছে। বর্তমানে সে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

চুল কেটে দেওয়ার ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৬ সেপ্টেম্বর দুপুরে সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যয়ন বিভাগের প্রথম বর্ষের রাষ্ট্র বিজ্ঞান পরিচিতি বিষয়ের ফাইনাল পরীক্ষার হলে প্রবেশের সময়। এসময় একই বিভাগের সহকারী প্রক্টর রাজিব অধিকারি ও জান্নাতুল ফেরদৌস মুনি উপস্থিত ছিলেন বলেও জানা গেছে। তবে তারা এ ঘটনার প্রতিবাদ না করে সেখানে দর্শকের মতো দাঁড়িয়ে ছিলেন বলেও অভিযোগ উঠেছে।

গত সোমবার দুপুরে ওই বিভাগের বাংলাদেশের ইতিহাস বিষয়ে পরীক্ষা শুরুর আগে লাঞ্ছিত পরীক্ষার্থী ও তাদের সহপাঠীরা এ ঘটনার প্রতিবাদে পরীক্ষা বর্জন করে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করার জন্য বিসিক বাসস্ট্যান্ড এলাকার রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী ক্যাম্পাস-১ এর ফটকে জড়ো হন। এসময় একটি পক্ষ তাদের পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেওয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে ও চাপ দিয়ে সবাইকে পরীক্ষার হলে যেতে বাধ্য করে।

জানা গেছে, কয়েকদিন আগে ক্লাস চলাকালে ওই শিক্ষক চুল বড় রাখার বিষয়ে ছাত্রদের সতর্ক করেন। তার ভয়ে সবাই পরদিনই চুল ছোট করে। পরীক্ষার হলে ঢোকার সময় আগে থেকেই দরজার সামনে ওই শিক্ষক কাচি হাতে দাড়িয়ে ছিলেন। যাদের চুল মুঠোর মধ্যে ধরা গেছে, তাদের মাথার সামনের বেশ খানিকটা চুল তিনি কেটে দেন।  সবার সামনে এভাবে তাদের লাঞ্ছিত করার পর ওই শিক্ষক জোর করে তাদের পরীক্ষা দিতেও বাধ্য করেছেন।

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্র অধ্যয়ন বিভাগের চেয়ারম্যান লায়লা ফেরদৌস হিমেল বলেন, ঘটনাটি গতকাল ঘটেছিল। তারপরে আবার সমাধানও নাকি করা হয়েছিল। কিন্তু ওই শিক্ষক ক্লাস রুমে শিক্ষার্থীদের নাকি আবারও বকাবকি করেন। এ ঘটনায় আজ রাতে একজন শিক্ষার্থী আত্মহত্যার চেষ্টা করে। বর্তমানে সে এনায়েতপুর খাজা ইউনুস আলী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে বলে শুনেছি।

এবিষয়ে সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যয়ন বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী প্রক্টর ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনের সঙ্গে কথা বলার জন্য তার মুঠোফোনে একাধিকবার কল করলেও সাড়া মেলেনি।

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার ও ভিসির অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত আব্দুল লতিফ বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। কোনও লিখিত অভিযোগও পাইনি। অভিযোগ পেলে অবশ্যই তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

/এমআর/

ধূপখোলা মাঠ নিয়ে আইনি লড়াইয়ের কথা ভাবছে জবি

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:০৫

পুরান ঢাকার ধূপখোলায় অবস্থিত খেলার মাঠ রক্ষায় সিটি করপোরেশনের বিরুদ্ধে আইনি লড়াইয়ে যাওয়ার কথা ভাবছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি)। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের রুটিন উপাচার্যের দায়িত্বে থাকা ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দিন আহমেদ।

তিনি বলেন, রবিবার রাতে তারা সীমানাপ্রাচীর তুলে ফেলেছে দুপুরে জেনেছি। আইনি লড়াইয়ের বিষয়ে আমরা ভাবছি। উপাচার্য ৯ অক্টোবর দেশে আসবেন, তার সঙ্গে আমার ফোনে কথা হয়েছে। রাতে তার সঙ্গে আবার কথা বলবো আইনি বিষয়ে। আমাদের লিগ্যাল অ্যাডভাইজার আছে, তার সঙ্গে পরামর্শ করবো।

তিনি আরও বলেন, মাঠ নিয়ে মেয়রের সঙ্গে দেখা করেছি, প্রধানমন্ত্রীর দফতর, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠিয়েছি। মেয়রকে বলেছিলাম, কেরানীগঞ্জে যাওয়া পর্যন্ত আমরা মাঠ ব্যবহার করি। তিনি না করেছেন। আমাদের ডকুমেন্টস না থাকায় পাত্তাই দিচ্ছেন না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রীড়া কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে বিকল্প চিন্তা আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেরানীগঞ্জে জেলখানার বিপরীতে আমাদের জায়াগা আছে। এ ছাড়া কেরানীগঞ্জে নতুন ক্যাম্পাসের জায়গায় মাটি ভরাটের সমস্যা নেই। ওখানে মাঠ করা যাবে সহজে। যাতে শিক্ষার্থীদের ক্রীড়া কার্যক্রম ব্যাহত না হয়।

এর আগে রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে ধূপখোলা মাঠের জবি অংশে সীমানাপ্রাচীর তুলে ফেলে মাঠের সংস্কারের দায়িত্বে থাকা ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ১৯৮২ সাল থেকে মাঠটি ব্যবহার করছে তারা। বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়াও তিন ভাগে বিভক্ত মাঠটির অপর দুই অংশের একটি ইস্ট অ্যান্ড ক্লাব ও অপর অংশটি স্থানীয়দের জন্য উন্মুক্ত হিসেবে ব্যবহার হচ্ছিল।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা যায়, ধূপখোলা মাঠ মেগা প্রজেক্টের মধ্যে রয়েছে। একটি বহুতল মার্কেট, খেলার মাঠ, হাঁটার ব্যবস্থা, ক্যাফেটেরিয়া ও পার্কিং স্থান করা হবে। 

একমাত্র খেলার মাঠ বেহাত হওয়ার ক্ষুব্ধ জবির সাবেক-বর্তমান শিক্ষার্থীরাও। এই মাঠেই ২০২০ সালের ১১ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন। মাঠ রক্ষায় কয়েক দফা মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে শিক্ষার্থীরাও।

/এএম/

সম্পর্কিত

পূজায় বন্ধ থাকবে জবির পরীক্ষা 

পূজায় বন্ধ থাকবে জবির পরীক্ষা 

জবির প্রক্টরিয়াল টিমে নতুন তিন মুখ

জবির প্রক্টরিয়াল টিমে নতুন তিন মুখ

জ্বরে আক্রান্ত জবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু

জ্বরে আক্রান্ত জবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু

জবিতে ৭ অক্টোবর থেকে সশরীরে পরীক্ষা 

জবিতে ৭ অক্টোবর থেকে সশরীরে পরীক্ষা 

কবে খুলবে হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়?

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:১৫

দীর্ঘ ১৭ মাস ২৫ দিন বন্ধ থাকার পর ১২ সেপ্টেম্বর খুলেছে দেশের প্রাথমিক মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলতেও তোড়জোড় শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি) প্রশাসন শিক্ষার্থীদের থেকে কয়েক ধাপে টিকা গ্রহণ সংক্রান্ত তথ্য চেয়েছে। তবে তথ্য দেওয়ার ক্ষেত্রে কিছু সংখ্যক শিক্ষার্থীর অনীহা লক্ষ্য করা গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন বলছে, শিক্ষার্থীদের তথ্য দিতে অনীহার কারণে বিশ্ববিদ্যালয় খুলতে বিলম্ব হতে পারে। কারণ টিকা গ্রহণের তথ্যের ওপর নির্ভর করে বিশ্ববিদ্যালয় খোলা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগ বলছে, করোনার টিকা সংক্রান্ত তথ্যের জন্য অনলাইনে লিঙ্ক তৈরির মাধ্যমে কয়েক ধাপে শিক্ষার্থীদের কাছে তথ্য চেয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কিন্তু কয়েক দফা সময় বাড়ানোর পর এক-তৃতীয়াংশ শিক্ষার্থী তথ্য দেয়নি। রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত প্রশাসনের কাছে তথ্য এসেছে সাত হাজার ৫০০ শিক্ষার্থীর। অথচ শিক্ষার্থী সংখ্যা প্রায় ১১ হাজার।

এ ছাড়া যেসব শিক্ষার্থীর জাতীয় পরিচয়পত্র নেই তাদের জন্মনিবন্ধন সনদের তথ্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে চাওয়া হয়েছিল। সেখানে তথ্য দিয়েছে ৪৬৮ জন। তাদের তথ্য ইতোমধ্যে ইউজিসির কাছে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে, এখনও টিকা পাননি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিদেশি শিক্ষার্থীরা। কয়েক দফা তথ্য দিয়েও নিবন্ধন করতে পারেননি তারা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল হলের সুপার সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. জামাল উদ্দীন বলেন, বর্তমানে ৪০ বিদেশি শিক্ষার্থী হলে অবস্থান করছেন। বিদেশি শিক্ষার্থীদের এনআইডি কার্ড না থাকায় একটু জটিলতা আছে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগ ইউজিসির সঙ্গে যোগাযোগ করছে। সব বিদেশি শিক্ষার্থীর পাসপোর্ট নম্বর, শিক্ষার্থীর নাম ও ফোন নম্বরসহ প্রয়োজনীয় সব তথ্য সংশ্লিষ্ট বিভাগকে দিয়েছি।

ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক ড. ইমরান পারভেজ বলেন, বিদেশি শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনীয় সব তথ্য আমরা ইউজিসিতে পাঠিয়েছি। করোনার টিকার রেজিস্ট্রেশনের জন্য তৈরি সুরক্ষা অ্যাপে বিদেশি শিক্ষার্থীদের অপশন না থাকায় প্রাথমিকভাবে আবেদন করতে পারেননি। তবে খুব দ্রুতই বিদেশি শিক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হবে বলে আশা করছি। 

বিশ্ববিদ্যালয় খোলার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার একার পক্ষে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেওয়া সম্ভব নয়। খুব শিগগিরই ৫৮তম একাডেমিক কাউন্সিল বসবে। সংগৃহীত সব তথ্যের ওপর ভিত্তি করেই একাডেমিক কাউন্সিল এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। 

গত ১৪ সেপ্টেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয় আয়োজিত বৈঠক শেষে জানানো হয়, আগামী ২৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকা গ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশন কাজ শেষ করা হবে। এরপর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ একাডেমিক কাউন্সিলের অনুমোদন নিয়ে পাঠদান কার্যক্রম শুরু ও আবাসিক হল খুলতে পারবে। ওই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

বৈঠকে বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ, কোভিড-১৯ সম্পর্কিত কারিগরি উপদেষ্টা কমিটি, ফেডারেশন অব বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় সমিতি, স্বাস্থ্য অধিদফতরসহ সংশ্লিষ্ট অধিদফতরের কর্মকর্তারা।

/এএম/

সম্পর্কিত

টিকা পায়নি বেশিরভাগ শিক্ষার্থী, কুবি খোলা নিয়ে অনিশ্চয়তা

টিকা পায়নি বেশিরভাগ শিক্ষার্থী, কুবি খোলা নিয়ে অনিশ্চয়তা

করোনায় ঘরবন্দি সময় কাজে লাগিয়ে সফল উদ্যোক্তা এলিজা

করোনায় ঘরবন্দি সময় কাজে লাগিয়ে সফল উদ্যোক্তা এলিজা

সব শিক্ষার্থীকে টিকা নিতে হবে: শাবি উপাচার্য

সব শিক্ষার্থীকে টিকা নিতে হবে: শাবি উপাচার্য

বিশ্ববিদ্যালয় খোলার দাবিতে জাবিতে আবার প্রতীকী ক্লাস

বিশ্ববিদ্যালয় খোলার দাবিতে জাবিতে আবার প্রতীকী ক্লাস

টিকা পায়নি বেশিরভাগ শিক্ষার্থী, কুবি খোলা নিয়ে অনিশ্চয়তা

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৫২

করোনাকালে দীর্ঘ বন্ধের পর দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা শুরু হয়েছে। কিন্তু শিক্ষার্থীদের একটি বড় অংশ করোনা টিকার প্রথম ডোজ না পাওয়ায় দ্রুততম সময়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) খোলা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের জানান, এ পর্যন্ত পাওয়া তথ্যমতে, আমাদের ১০ শতাংশ শিক্ষার্থীও টিকা নেয়নি। টিকার প্রথম ডোজ নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয় খুলতে হবে।

খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, টিকা নেওয়ার ক্ষেত্রে অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকেই পিছিয়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। তারা বলছেন, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া শুরুর সময়ে কুবি প্রশাসন শিক্ষার্থীদের তালিকা পাঠানোতে দেরি করেছে। এ কারণে টিকা নেওয়ায় পিছিয়ে পড়েছেন তারা।

তবে, সম্প্রতি আবারও টিকার নিবন্ধন করতে না পারা শিক্ষার্থীদের তালিকা সংগ্রহ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এবার দ্রুতই টিকা পেয়ে যাবেন শিক্ষার্থীরা। টিকা পাওয়া সহজ করতে বিশ্ববিদ্যালয়ে বুথ স্থাপনের পরিকল্পনাও চলছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের স্নাতকোত্তরের এক শিক্ষার্থী বলেন, শুরুতে আমাদের প্রশাসন তালিকা পাঠানোতে দেরি করায় টিকা নেওয়ার হার কম। তবে এখন আবার নতুন করে তথ্য নিয়েছে। অনেকেই টিকা নিচ্ছে।

রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আবু তাহের বলেন, টিকার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে আজ রাত ৮টায় একটা মিটিং আছে। আগামীকাল শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে উপাচার্যদের সভা। ওই সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। আবার আগামী ৭ অক্টোবর আমাদের একাডেমিক কাউন্সিলের সভা আছে। সেখান থেকে সিদ্ধান্ত আসবে।

কুবি উপাচার্য প্রফেসর ড. এমরান কবির চৌধুরী বলেন, আমরা বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দিতে চাই। আজকে রাতে সভা থেকে টিকার ব্যাপারে তথ্য জানতে পারবো। এরপর আগামী ১১ অক্টোবর সিন্ডিকেট সভা আছে। এর আগে একাডেমিক কাউন্সিলের সভা আছে। সেখানে একটা সিদ্ধান্ত হবে। আমার শিক্ষার্থীদের বলবো, তারা যেন দ্রুত নিবন্ধন করে ফেলে। নিবন্ধন করে ফেললে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়েই বুথ স্থাপন করে তাদের টিকা দিতে পারবো।

উল্লেখ্য, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে স্নাতকোত্তর ও স্নাতকের চূড়ান্ত বর্ষের সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা চলছে। অনেক শিক্ষার্থীই হলে থেকে পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

কবে খুলবে হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়?

কবে খুলবে হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়?

দেড় বছর পর ক্যাম্পাসে ফিরে উৎফুল্ল বাকৃবি শিক্ষার্থীরা

দেড় বছর পর ক্যাম্পাসে ফিরে উৎফুল্ল বাকৃবি শিক্ষার্থীরা

পরিবহন ফি নিয়ে বিভ্রান্তি, ভোগান্তিতে কুবি শিক্ষার্থীরা

পরিবহন ফি নিয়ে বিভ্রান্তি, ভোগান্তিতে কুবি শিক্ষার্থীরা

কুবিতে একসঙ্গে ৪০ শিক্ষার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ

কুবিতে একসঙ্গে ৪০ শিক্ষার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ

অবৈধ পন্থায় ভর্তি হওয়ায় ঢাবির দুই শিক্ষার্থীকে স্থায়ী বহিষ্কার

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:২৯

ডিজিটাল জালিয়াতি ও অবৈধভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া সাময়িকভাবে বহিষ্কৃত দুই শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) শৃঙ্খলা পরিষদের এক সভায় বহিষ্কারের এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় জনসংযোগ দফতর থেকে প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

স্থায়ীভাবে বহিষ্কৃতরা হলেন একাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থী মো. রাকিব হাসান এবং ভূতত্ত্ব বিভাগের ২০১৭-১৮সেশনের শিক্ষার্থী ইশরাক হোসেন রাফি। বিষয়টি পরবর্তী সময়ে সিন্ডিকেট সভায় উপস্থাপন করা হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, সভায় আইনশৃঙ্খলা পরিপন্থী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ঢাবির বাংলা বিভাগের ২০১৪-২০১৫ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র মো. আকতারুল করিম রুবেলকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ‘আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দিয়ে কেন তাকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না'-এই মর্মে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এছাড়া পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে ৭২ জন শিক্ষার্থীর বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি দেওয়া হয়েছে।

/ইউএস/

সম্পর্কিত

ঢাবিতে পদার্থ বিজ্ঞানে এমএস কোর্সে ভর্তির আবেদন আহ্বান

ঢাবিতে পদার্থ বিজ্ঞানে এমএস কোর্সে ভর্তির আবেদন আহ্বান

জুমে পরীক্ষা চলাকালেই পরীক্ষার্থী জানালেন- ‘মা আর নেই’

জুমে পরীক্ষা চলাকালেই পরীক্ষার্থী জানালেন- ‘মা আর নেই’

১৮ মাস পর খুললো ঢাবির কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি

১৮ মাস পর খুললো ঢাবির কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি

ঢাকায় আন্তর্জাতিক আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্বল্পদৈর্ঘ চলচ্চিত্র উৎসব শুরু হচ্ছে আজ

ঢাকায় আন্তর্জাতিক আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্বল্পদৈর্ঘ চলচ্চিত্র উৎসব শুরু হচ্ছে আজ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

করোনার বন্ধে চবির আপ্যায়ন খরচ ৩৭ লাখ 

করোনার বন্ধে চবির আপ্যায়ন খরচ ৩৭ লাখ 

১৮ মাস পর খুললো ঢাবির কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি

১৮ মাস পর খুললো ঢাবির কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি

জাপানে ‘তরুণ বিজ্ঞানী’র স্বীকৃতি পেলেন বাংলাদেশি শিক্ষক

জাপানে ‘তরুণ বিজ্ঞানী’র স্বীকৃতি পেলেন বাংলাদেশি শিক্ষক

কৃষ্ণচূড়া গাছ কাটায় ঢাবি শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ

কৃষ্ণচূড়া গাছ কাটায় ঢাবি শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ

দুই সপ্তাহের মধ্যে চূড়ান্ত হতে পারে ঢাবি'র ডোপ টেস্ট নীতিমালা

দুই সপ্তাহের মধ্যে চূড়ান্ত হতে পারে ঢাবি'র ডোপ টেস্ট নীতিমালা

সেশনজট কমাতে ঢাবির শরৎ ও শীতের ছুটি বাতিল

সেশনজট কমাতে ঢাবির শরৎ ও শীতের ছুটি বাতিল

চলতি মাসেই ঢাবির হল খোলার দাবি ছাত্র সংগঠনগুলোর

চলতি মাসেই ঢাবির হল খোলার দাবি ছাত্র সংগঠনগুলোর

বিশ্ববিদ্যালয় খোলা নিয়ে যা বলছে কর্তৃপক্ষ

বিশ্ববিদ্যালয় খোলা নিয়ে যা বলছে কর্তৃপক্ষ

শিক্ষার্থীদের টিকা না দিয়েই শুরু হচ্ছে ৭ কলেজের পরীক্ষা

শিক্ষার্থীদের টিকা না দিয়েই শুরু হচ্ছে ৭ কলেজের পরীক্ষা

সর্বশেষ

‘নিবন্ধন-এসএমএসের ঝামেলা না থাকায় গণটিকায় খুশি’

‘নিবন্ধন-এসএমএসের ঝামেলা না থাকায় গণটিকায় খুশি’

সাংবাদিক হামিদুজ্জামান রবি মারা গেছেন

সাংবাদিক হামিদুজ্জামান রবি মারা গেছেন

২৮ কোটি টাকার চেক চুরি করা আইনজীবীর বিরুদ্ধে সমন

২৮ কোটি টাকার চেক চুরি করা আইনজীবীর বিরুদ্ধে সমন

হাসপাতালে গৃহবধূর লাশ ফেলে স্বামীর পরিবার উধাও

হাসপাতালে গৃহবধূর লাশ ফেলে স্বামীর পরিবার উধাও

প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিনে ৭৫ লাখ টিকা দেওয়ার কার্যক্রম শুরু 

প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিনে ৭৫ লাখ টিকা দেওয়ার কার্যক্রম শুরু 

© 2021 Bangla Tribune