X
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

করোনার 'সুপার স্প্রেডার' রাষ্ট্র হওয়ার পথে মিয়ানমার

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২১:৪৩

সংক্রমণ বৃদ্ধির পাশাপাশি জান্তা বিরোধী বিক্ষোভসহ নানা কারণে মিয়ানমার কোভিডের ‘সুপার স্প্রেডার’ রাষ্ট্রে পরিণত হতে পারে। এ অবস্থায় দেশটিতে অবিলম্বে যুদ্ধবিরতি কার্যকর করতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে আহ্বান জানিয়েছেন সংস্থাটির বিশেষ দূত টম অ্যান্ড্রুজ।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এই দেশেটিতে করোনার সংক্রমণ হু হু করে বাড়ছে, এমন খবর দিচ্ছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়র্টাসহ কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ থেকেই সংক্রমণ আরও ছড়াচ্ছে।

খবরে বলা হয়েছে, মিয়ানমারে রাজনৈতিক সংকটের ফলে দেখা দিয়েছে অর্থনৈতিক মন্দা। প্রয়োজনের তুলনায় স্বল্প পরিসরে চলছে ভ্যাকসিন কার্যক্রম। কিন্তু করোনার পরীক্ষা কার্যক্রমেও ধসে নেমেছে। একইসঙ্গে হাসপাতালগুলোতে আছে চিকিৎসকের সংকট।

এ বিষয়ে জাতিসংঘের বিশেষ দূত জানান, সেনা সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ কর্মসূচির অংশ হিসেবে সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা দায়িত্ব পালন বন্ধ রেখেছেন। সরকারের সহিংস কর্মকাণ্ড ও গ্রেপ্তারের হুমকির কারণে তারা গোপনে ব্যক্তিগতভাবে রোগীদের চিকিৎসা দিচ্ছেন। তবে কিন্তু এটি সামান্য।

টম অ্যান্ড্রুজ বলেন, মিয়ানমারজুড়ে বিভিন্ন শহরে অক্সিজেন, মেডিকেল সরঞ্জাম ও ওষুধের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। বাড়ির সামনে হলুদ ও সাদা পতাকা ঝুলিয়ে রাখছে অনেকে। এর অর্থ, তাদের খাবার অথবা ওষুধের প্রয়োজন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমজুড়ে সাহায্যের জন্যে হাহাকার চলছে। সরকারের বিরুদ্ধে অক্সিজেনের সংকট তৈরি করার অভিযোগ তুলেছেন বাসিন্দরা।

তার মতে, দেশটির প্রকৃত পরিস্থিতি কেমন তার সঠিক তথ্য পাওয়া কঠিন। সামরিক শাসনের কারণে খবর পাওয়া জটিল। এমনকি করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর হার কেমন তার সঠিক পরিসংখ্যানও নেই। ফলে রাজনৈতিক ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ভয়াবহ সংকটের পথে রয়েছে মিয়ানমার। তিনি আশঙ্কা করছেন, সুপার-স্প্রেডার রাষ্ট্রে পরিণত হলে এই অঞ্চলে আরও বেশি দুর্ভোগ সৃষ্টি হতে পারে। 

এদিকে জান্তা সরকার বলছে, গত পহেলা জুন থেকে দেশটিতে সাড়ে চার হাজারের বেশি মানুষ করোনায় মারা গেছেন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

মিয়ানমারে সাধারণ মানুষের বাড়ি-ঘরে ফের অগ্নিসংযোগ, প্রতিরোধ যোদ্ধাদের সঙ্গে সংঘর্ষ

মিয়ানমারে প্রতিরোধ যোদ্ধাদের সঙ্গে নতুন করে সংঘর্ষ জান্তার, নিহত ২০

মিয়ানমারে মুসলিমবিদ্বেষী বৌদ্ধ সন্ন্যাসীকে মুক্তি দিলো জান্তা সরকার

মুক্তি পেলেন মিয়ানমারের মুসলিমবিদ্বেষী বৌদ্ধ সন্ন্যাসী

মিয়ানমারে জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে ‘প্রতিরোধ যুদ্ধ’ ঘোষণা

মিয়ানমারে জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে ‘প্রতিরোধ যুদ্ধ’ ঘোষণা

সু চি’র সাক্ষাৎ চান আসিয়ান দূত

সু চি’র সাক্ষাৎ চান আসিয়ান দূত

তালেবানকে হঠাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:২৩

আফগানিস্তানের মসনদ থেকে তালেবানকে সরাতে যুক্তরাষ্ট্রের দ্বারস্থ হয়েছেন দেশটির নর্দার্ন অ্যালায়েন্সের অন্যতম নেতা আহমেদ মাসুদ। তালেবান-বিরোধী জোটে ওয়াশিংটনকে পাশে পেতে রবার্ট স্ট্রিক নামের একজন লবিস্টের সঙ্গে চুক্তি করেছেন তিনি।

নিউ ইয়র্ক টাইমস-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উত্তরের জোটের হাতে অত্যাধুনিক মার্কিন অস্ত্রভাণ্ডার তুলে দিতে বাইডেন প্রশাসনকে ‘প্রভাবিত’ করাই হবে ওই লবিস্টের কাজ।

ওয়াশিংটনে মাসুদের পক্ষে সওয়াল করবে স্ট্রিক। অতীতে কঙ্গোর সাবেক প্রেসিডেন্ট জোসেফ কাবিলা থেকে শুরু করে ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর লবিস্ট হিসেবে কাজ করেছেন তিনি। তার সঙ্গে মাসুদের চুক্তির কথা স্বীকার করেছেন নর্দার্ন অ্যালায়েন্সের মুখপাত্র আলি নাজারি।

তিনি জানিয়েছেন, শুধু অস্ত্র সাহায্য নিয়ে আলোচনাই নয়, তালেবান সরকারকে জো বাইডেন প্রশাসন যাতে কোনও পরিস্থিতিতেই স্বীকৃতি না দেয়, তা নিয়েও ওয়াশিংটনের সঙ্গে কথা বলবেন স্ট্রিক। সূত্র: আনন্দবাজার।

/এমপি/

সম্পর্কিত

কাবুলে রকেট হামলা

কাবুলে রকেট হামলা

নিয়ন্ত্রণ নয়, তালেবানকে ‘উৎসাহিত’ করার কথা বললেন ইমরান খান

তালেবানকে ‘উৎসাহিত’ করার কথা বললেন ইমরান খান

অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে ফ্রান্স

অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে ফ্রান্স

কাবুলে রকেট হামলা

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:২৬

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের একটি জেলায় বৃহস্পতিবার রকেট হামলার খবর পাওয়া গেছে। আফগান সংবাদমাধ্যম টোলো নিউজের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে রুশ সংবাদমাধ্যম স্পুটনিক।

প্রতিবেদনে বলা হয়, কাবুলের একটি বিদ্যুৎকেন্দ্রের কাছেই এই রকেট হামলার ঘটনা ঘটে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনার বিস্তারিত জানা যায়নি। কোনও হতাহতেরও খবর পাওয়া যায়নি।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের মোস্ট ওয়ান্টেড সন্ত্রাসী তালিকায় থাকা তালেবান সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সিরাজুদ্দিন হাক্কানির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন জাতিসংঘের দূত দেবোরাহ লিওনস। তালেবানের মুখপাত্র সুহাইল শাহিন জানান, আফগান জনগণের জন্য জরুরিভিত্তিতে মানবিক সহায়তা দেওয়ার বিষয়ে কাবুলে নিযুক্ত জাতিসংঘ মিশনের প্রধান দেবোরাহ লিওনস ও সিরাজউদ্দিন হাক্কানির মধ্যে বৈঠক হয়।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) উভয় পক্ষের আলোচনায় হাক্কানি জাতিসংঘ দূতকে নিশ্চিত করেন, ‘কোনও বাধা ও ভয়ভীতি ছাড়াই জাতিসংঘের কর্মীরা আফগানিস্তানে কাজ করতে পারবেন। আফগান জনগণকে সহায়তা করতে পারবে জাতিসংঘ‌‌।‌‌’

/এমপি/

সম্পর্কিত

তালেবানকে হঠাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

তালেবানকে হঠাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

নিয়ন্ত্রণ নয়, তালেবানকে ‘উৎসাহিত’ করার কথা বললেন ইমরান খান

তালেবানকে ‘উৎসাহিত’ করার কথা বললেন ইমরান খান

তালেবানে বাস্তববাদী ও কট্টরপন্থীদের বিরোধ বাড়ছে

তালেবান নেতাদের বিরোধ শুধুই কি জল্পনা?

এবার নারী মন্ত্রণালয়ে নারীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করলো তালেবান

এবার নারী মন্ত্রণালয়ে নারীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করলো তালেবান

কয়েদিদের প্রেমের সম্পর্কে জড়ানো নিষিদ্ধ করলো ডেনমার্ক

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৫২

ডেনমার্ক সরকার একটি আইন পাস করেছে যাতে যাবজ্জীবন সাজা ভোগকারী কয়েদিদের নতুন প্রেমের সম্পর্কে জড়ানো নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এই নিষেধাজ্ঞার ফলে অপরাধী গোষ্ঠীদের উত্থান ঠেকানো সম্ভব মনে করছেন দেশটির মন্ত্রীরা। 

এমন আইনের পেছনে কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, সম্প্রতি ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরী ক্যামিলা কারস্টাইন এক খুনী পিটার ম্যাডসনের প্রেমে পড়েছিলেন। ম্যাডসন সাংবাদিক কিম ওয়ালকে হত্যার দায়ে দোষী সাব্যস্ত হন। পরে সাংবাদিকের মরদেহ টুকরো টুকরো করে সাগরে ফেলে দেন। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত ২০১৮ সালে তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেন।

ক্যামিলা কারস্টাইন স্বীকার করেছেন যে তিনি দুই বছর ধরে চিঠি বিনিময় ও ফোনে কথা বলার পর ম্যাডসেনের প্রেমে পড়েন। কিন্তু ২০২০ সালে কারাবন্দি অবস্থায় জেনিন কার্পেন (৩৯) নামের এক রুশ নারীকে বিয়ে করেন ম্যাডসন। আর ঘটনাটি জানতে পারেন কিশোরী ক্যামিলা। 

এমন ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে ডেনামার্ক প্রশাসন। দেশটির বিচারমন্ত্রী নিক হেককারুপ এক বিবৃতিতে বলেন, ‘এই ধরনের সম্পর্ক অবশ্যই বন্ধ করা উচিত। অপরাধীরা আমাদের কারাগারগুলোকে ডেটিং সেন্টার কিংবা মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন না’।

মন্ত্রী আরও যোগ করে বলেন, ‘কারাগারে বন্দি অপরাধীরা সহানুভূতি পেতে তরুণদের সঙ্গে যোগাযোগ করে গুরুতর অপরাধ করেছেন’। 

এ অবস্থায় নতুন আইনের ফলে কারাগারের দীর্ঘমেয়াদি বন্দিদের অপরাধ বন্ধ হবে মনে করছেন অনেকে। নতুন বিলে ড্যানিশ পার্লামেন্টের ডানপন্থী বিরোধী দল সমর্থনের ইঙ্গিত দিয়েছে। সব ঠিক থাকলে আগামী বছরের শুরুতেই নতুন আইন কার্যকর হতে পারে।

/এলকে/

সম্পর্কিত

টিকাদানের হার ৮০ শতাংশ, সব বিধিনিষেধ তুললো ডেনমার্ক

করোনা সংক্রান্ত সব বিধিনিষেধ তুললো ডেনমার্ক

কারাগারে অগ্নিকাণ্ডে ইন্দোনেশিয়ায় অন্তত ৪১ জনের মৃত্যু

ইন্দোনেশিয়ার কারাগারে আগুন, অন্তত ৪১ জনের মৃত্যু

পৃথিবীর সর্ব উত্তরের দ্বীপের সন্ধান পেলেন বিজ্ঞানীরা

পৃথিবীর সর্ব উত্তরের দ্বীপের সন্ধান পেলেন বিজ্ঞানীরা

আফগানিস্তানে দূতাবাস বন্ধের ঘোষণা ইউরোপের একাধিক দেশের

আফগানিস্তানে দূতাবাস বন্ধের ঘোষণা ইউরোপের একাধিক দেশের

নিয়ন্ত্রণ নয়, তালেবানকে ‘উৎসাহিত’ করার কথা বললেন ইমরান খান

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:২৪

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, আফগানিস্তানে শান্তি ও স্থিতিশীলতার সবচেয়ে ভালো উপায় তালেবানকে নারীর অধিকার ও অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার ইস্যুতে ‘উৎসাহ’ দিয়ে তাদের সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়া। বুধবার ইসলামাবাদে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই মন্তব্য করেন। কাবুলে তালেবানদের ক্ষমতা দখল ও মার্কিন সেনাদের আফগানিস্তান ত্যাগের পর কোনও আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া ইমরান খানের এটাই প্রথম সাক্ষাৎকার।

ইমরান খান দাবি করেছেন, সংকট এড়াতে তালেবানরা আন্তর্জাতিক ত্রাণের সন্ধানে রয়েছে। যেটিকে কাজে লাগিয়ে তাদের বৈধ পথের সঠিক দিশায় নিয়ে যাওয়া সম্ভব। তবে তিনি সতর্ক করে বলেছেন, বাইরের শক্তি দ্বারা আফগানিস্তানকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব না।

তার কথায়, কোনও পুতুল সরকার আফগান জনগণের সমর্থন পায়নি। তাই তাদেরকে নিয়ন্ত্রণ করার কথা বসে বসে চিন্তা করার চেয়ে আমাদের উচিত উৎসাহিত করা। কারণ, আফগানিস্তানের বর্তমান সরকার স্পষ্টভাবে অনুভব করে যে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা ও ত্রাণ ছাড়া তারা এই সংকট এড়াতে পারবে না। তাই আমাদের উচিত তাদেরকে সঠিক পথে ঠেলে নিয়ে যাওয়া।

তালেবান সরকারকে সময় দেওয়া উচিত উল্লেখ করে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখান থেকে আফগানিস্তান কোথায় যাবে আমরা কেউ তা ধারণা করতে পারি না। আমরা আশা করি এবং প্রার্থনা করি যে, ৪০ বছর পর দেশটিতে শান্তি প্রতিষ্ঠা হবে।

ইমরান খান বলেন, তালেবান আগেই বলেছে, তারা অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠন করবে। তারা তাদের প্রেক্ষাপট থেকে নারীর অধিকার দিতে চায়। তারা মানবাধিকার চায়, তারা সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছে। এখন পর্যন্ত তারা যা বলেছে তাতে পরিষ্কার ইঙ্গিত পাওয়া যায়, তারা আন্তর্জাতিক গ্রহণযোগ্যতা চাইছে। কিন্তু যদি ভুল হয়, তাহলে সত্যিই আমরা চিন্তিত আফগানিস্তানে আবার গোলযোগ ও বিশৃঙ্খলা দেখা দেবে। বৃহত্তম মানবিক সংকট সৃষ্টি হবে, বিশাল আকারের উদ্বাস্তু সমস্যা তৈরি হবে।

আফগানিস্তান আবার অস্থিতিশীল হবে এবং আফগান ভূখণ্ডে সন্ত্রাসবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারে বলেও সতর্ক করেন ইমরান খান।

 

/এএ/

সম্পর্কিত

তালেবানকে হঠাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

তালেবানকে হঠাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

কাবুলে রকেট হামলা

কাবুলে রকেট হামলা

তালেবানে বাস্তববাদী ও কট্টরপন্থীদের বিরোধ বাড়ছে

তালেবান নেতাদের বিরোধ শুধুই কি জল্পনা?

অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে ফ্রান্স

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৪২

সাবমেরিন চুক্তি লঙ্ঘনের দায়ে অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে ফ্রান্স। প্যারিসের সঙ্গে হওয়া চুক্তি থেকে সরে এসে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের সঙ্গে পারমাণবিক সাবমেরিন চুক্তি স্বাক্ষর করেছে অস্ট্রেলিয়া। এমন অবস্থায় ক্যানভেরার বিরুদ্ধে ক্ষতিপূরণের আভাস দিয়েছেন ফরাসি প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

ফ্লোরেন্স পার্লি বৃহস্পতিবার বলেছেন, অস্ট্রেলিয়া সাবমেরিন চুক্তি থেকে সরে আসায় নেভাল গ্রুপের আর্থিক ক্ষতি নিশ্চিত করার জন্য ফ্রান্স চেষ্টা চালাবে। এ বিষয়ে প্যারিস খতিয়ে দেখছে বলেও জানান তিনি।

ফ্রান্সের নেভাল গ্রুপের জাহাজ নির্মাতার সঙ্গে সাবমেরিন চুক্তি থেকে সরে আসে অস্ট্রেলিয়া। যে চুক্তির আওতায় অস্ট্রেলিয়াকে পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন সরবরাহ করার ছিল প্যারিসের। কিন্তু বুধবারের চুক্তির ফলে ফ্রান্সের কাছ থেকে আর সাবমেরিন নেবে না অস্ট্রেলিয়া। আর এতেই ক্ষুব্ধ এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর প্রশাসন। 

২০১৬ সালে অস্ট্রেলিয়ার নৌবাহিনীর জন্য ১২টি সাবমেরিন নির্মাণে ৫ হাজার কোটি অস্ট্রেলিয়ান ডলারের চুক্তি করে ফ্রান্স।

বুধবার অত্যাধুনিক প্রতিরক্ষা প্রযুক্তি ভাগাভাগি করে চীনকে মোকাবিলায় বিশেষ নিরাপত্তা চুক্তি স্বাক্ষরের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র,যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়া। এই চুক্তির ফলে প্রথমবারের মতো পারমাণবিক ক্ষমতাসম্পন্ন সাবমেরিন তৈরি করতে পারবে অস্ট্রেলিয়া।

/এলকে/

সম্পর্কিত

তালেবানকে হঠাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

তালেবানকে হঠাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

সাবমেরিন চুক্তি ‘পিঠে ছুরিকাঘাত’: ক্ষুব্ধ ফ্রান্স

সাবমেরিন চুক্তি ‘পিঠে ছুরিকাঘাত’: ক্ষুব্ধ ফ্রান্স

ফ্রান্সে টিকা না নেওয়ায় ৩ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী বরখাস্ত, প্রতিবাদে অনশন

টিকা না নেওয়ায় ফ্রান্সে ৩ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী বরখাস্ত

গ্রেটার সাহারায় আইএস প্রধানকে হত্যা, বড় সাফল্য বলছে ফ্রান্স

গ্রেটার সাহারায় আইএস প্রধানকে হত্যা করেছে ফ্রান্স

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মিয়ানমারে সাধারণ মানুষের বাড়ি-ঘরে ফের অগ্নিসংযোগ, প্রতিরোধ যোদ্ধাদের সঙ্গে সংঘর্ষ

মিয়ানমারে প্রতিরোধ যোদ্ধাদের সঙ্গে নতুন করে সংঘর্ষ জান্তার, নিহত ২০

মিয়ানমারে মুসলিমবিদ্বেষী বৌদ্ধ সন্ন্যাসীকে মুক্তি দিলো জান্তা সরকার

মুক্তি পেলেন মিয়ানমারের মুসলিমবিদ্বেষী বৌদ্ধ সন্ন্যাসী

মিয়ানমারে জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে ‘প্রতিরোধ যুদ্ধ’ ঘোষণা

মিয়ানমারে জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে ‘প্রতিরোধ যুদ্ধ’ ঘোষণা

সু চি’র সাক্ষাৎ চান আসিয়ান দূত

সু চি’র সাক্ষাৎ চান আসিয়ান দূত

এমইউ ভ্যারিয়েন্ট যুক্তরাষ্ট্রের জন্য হুমকি নয়: ফাউচি

এমইউ ভ্যারিয়েন্ট যুক্তরাষ্ট্রের জন্য হুমকি নয়: ফাউচি

বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে

বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে যুক্তরাজ্যের নতুন নিষেধাজ্ঞা

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে যুক্তরাজ্যের নতুন নিষেধাজ্ঞা

করোনার উৎস, মার্কিন প্রতিবেদনের নিন্দায় যা বললো চীন

করোনার উৎস, মার্কিন প্রতিবেদনের নিন্দায় যা বললো চীন

করোনাভাইরাস 'জৈব অস্ত্র' হিসেবে বানানো হয়নি: যুক্তরাষ্ট্র

করোনাভাইরাস 'জৈব অস্ত্র' হিসেবে বানানো হয়নি: যুক্তরাষ্ট্র

ডেল্টায় ধূলিসাৎ ‘হার্ড ইমিউনিটি’র স্বপ্ন?

ডেল্টায় ধূলিসাৎ ‘হার্ড ইমিউনিটি’র স্বপ্ন?

সর্বশেষ

তালেবানকে হঠাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

তালেবানকে হঠাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

কাবুলে রকেট হামলা

কাবুলে রকেট হামলা

ছিনতাইকারীকে ধরতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে আহত দিনমজুরের মৃত্যু

ছিনতাইকারীকে ধরতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে আহত দিনমজুরের মৃত্যু

ইভ্যালিতে প্রতারিতরা কি টাকা ফেরত পাবেন?

ইভ্যালিতে প্রতারিতরা কি টাকা ফেরত পাবেন?

এক দশক পর ভেলভেট উইংস (ভিডিও)

এক দশক পর ভেলভেট উইংস (ভিডিও)

© 2021 Bangla Tribune