X
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

সিনহা হত্যা: সাক্ষ্যগ্রহণে থেমে আছে বিচারকাজ

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ০৩:০২

মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যার এক বছর পূর্ণ হলো। ২০২০ সালের ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজারের টেকনাফের বাহারছড়ায় গুলিতে নিহত হন তিনি। এ ঘটনায় করা হত্যা মামলায় গত ২৬, ২৭ ও ২৮ জুলাই বাদীপক্ষের সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু কঠোর লকডাউনের কারণে আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় সাক্ষ্যগ্রহণে থেমে আছে বিচারকাজ।

সিনহা হত্যার দুই দিন পর চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে আহ্বায়ক করেছিল চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ। কমিটি সরেজমিনে তদন্ত করে ঘটনার কারণ ও উৎস অনুসন্ধানের প্রতিবেদন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সুপারিশসহ জমা দেয়।

হত্যাকাণ্ডের পাঁচ দিনের মাথায় সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের বরখাস্ত হওয়া সাবেক পরিদর্শক লিয়াকত আলী, টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ নয় জনকে আসামি করে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হত্যা মামলা করেন। মামলার পরদিন ৬ আগস্ট প্রধান আসামি লিয়াকত আলী ও প্রদীপ কুমার দাশসহ সাত পুলিশ সদস্য আদালতে আত্মসমর্পণ করেন।

প্রথমে মামলাটি র‌্যাব-১৫ এর সহকারী পুলিশ সুপার জামিল আহমদকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়। পরে তার পরিবর্তে র‍্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. খায়রুল ইসলামকে তদন্তের দায়িত্ব দেন আদালত।

হত্যায় সংশ্লিষ্টতা পেয়ে পুলিশের করা মামলার তিন সাক্ষী এবং শামলাপুর চেকপোস্টে দায়িত্বরত আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) তিন সদস্যকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। পরে মামলার আরেক আসামি টেকনাফ থানা পুলিশের সাবেক সদস্য কনস্টেবল রুবেল শর্মাকেও গ্রেফতার করা হয়। পর্যায়ক্রমে আদালত আসামিদের কারাগারে পাঠানোর পর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা খায়রুল ইসলাম তাদের রিমান্ডে নেন। 

রিমান্ডের আসামিদের স্বীকারোক্তিতে আরও চার আসামিকে মামলায় যুক্ত করা হয়। এরপর ১৪ আসামিকে র‌্যাবের তদন্ত কর্মকর্তা বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এদের মধ্যে ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও কনস্টেবল রুবেল শর্মা ছাড়া ১২ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

চার মাস তদন্ত শেষে ১৩ ডিসেম্বর ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। অভিযোগপত্রে সিনহা হত্যাকাণ্ডকে পরিকল্পিত ঘটনা হিসেবে উল্লেখ করা হয়।

২০২১ সালের ২৪ জুন আত্মসমর্পণ করেন এই মামলার একমাত্র পলাতক আসামি কনস্টেবল সাগর দেব। চলতি বছরের ২৭ জুন মামলায় অভিযুক্ত ওসি প্রদীপসহ ১৫ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠনপূর্বক সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করেন আদালত।

মামলায় কারাগারে থাকা ১৫ আসামি হলো- বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির তৎকালীন পরিদর্শক লিয়াকত আলী, সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, এসআই নন্দ দুলাল রক্ষিত, এএসআই লিটন মিয়া, কনস্টেবল সাফানুল করিম, সাগর দেব, রুবেল শর্মা, কামাল হোসেন, আব্দুল্লাহ আল মামুন, এপিবিএনের এসআই মো. শাহজাহান, কনস্টেবল মো. রাজীব, মো. আবদুল্লাহ এবং সাক্ষী টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর মারিশবুনিয়া গ্রামের নুরুল আমিন, মো. নিজামুদ্দিন ও আয়াজ উদ্দিন।

চলতি বছরের ২৭ জুন সব আসামির উপস্থিতিতে মামলার অভিযোগ গঠন করেন কক্সবাজারের জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল। এর আগে মামলা তদন্তকালীন সময়ে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার ও কনস্টেবলসহ এক হাজার ৫০৫ পুলিশকে বদলি করা হয়।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর ফরিদুল আলম চৌধুরী বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনের কারণে সারা দেশের মতো কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে স্বাভাবিক কার্যক্রম না চলায় নির্ধারিত দিনে মেজর সিনহা হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ করা সম্ভব হয়নি। 

তিনি বলেন, মামলার সাক্ষী ৮৩ জন। আদালতের কার্যক্রম শুরু হলে সাক্ষ্যগ্রহণসহ অন্যান্য বিচারপ্রক্রিয়া স্বাভাবিক নিয়মে চলবে। ২৬, ২৭ ও ২৮ জুলাই মামলায় বাদী পক্ষের সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করেন আদালত। কিন্তু কঠোর লকডাউনের কারণে আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় পিছিয়ে নেওয়া হয় সাক্ষ্যগ্রহণের দিন।

মামলার চার্জশিট:

র‌্যাবের দেওয়া চার্জশিটে উল্লেখ করা হয়, ২০২০ সালের ৭ জুলাই মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান, সহকর্মী শিপ্রা দেবনাথ, সাহেদুল ইসলাম সিফাত ও রুফতি কক্সবাজারের নীলিমা রিসোর্টে অবস্থান করেন। ইউটিউবে একটি ভিডিও চ্যানেল নিয়ে কাজ করার সময় স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক হয়। সাধারণ মানুষ পুলিশের মাধ্যমে তাদের জিম্মি দশা, অত্যাচারের ঘটনা মেজর সিনহাকে জানান। এসব জেনে সিনহা পীড়িত হন। নীলিমা রিসোর্ট থেকে টেকনাফে রওনা হন সিনহা ও সহকর্মী সিফাত। সন্ধ্যায় মারিশবুনিয়া গ্রামের টুইন্যা পাহাড়ে যান সিনহা। পরে একটি মসজিদ থেকে মাইকে এলাকায় ডাকাত ঢুকেছে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়। 

ঘোষণার নেপথ্যে ছিলেন স্থানীয় আয়াজ উদ্দিন ও নুরুল আমিন। তারা পুলিশের সোর্স হিসেবে পরিচিত। ওই দিন সকাল থেকে সিনহার গতিবিধি নজরে রাখা হয়। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বৃক্ষরোপণ অনুষ্ঠানে ওসি প্রদীপকে জানানো হয়, মেজর সিনহা প্রাইভেটকার নিয়ে শামলাপুর পাহাড়ে গেছেন। এ সময় সোর্সের মাধ্যমে সিনহার প্রতি নজর রাখেন পরিদর্শক লিয়াকত আলী। 

শামলাপুর আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) চেকপোস্টে তল্লাশির নামে গাড়ি থেকে নামিয়ে সিনহাকে চারটি গুলি করেন লিয়াকত আলী। কিছুক্ষণ পর ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ঘটনাস্থলে যান, তখনও সিনহা জীবিত ছিলেন। এ সময় ওসি প্রদীপ সিনহার মুখমণ্ডল ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় পা দিয়ে আঘাত করেন। এরপর সিনহার মৃত্যু হয়। পরে তাকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয় বলে আদালতে দেওয়া অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়।

এদিকে, সিনহা হত্যা মামলাটি বেআইনি ও অবৈধ দাবি করে ৪ অক্টোবর মামলার প্রধান আসামি লিয়াকতের আইনজীবী মাসুদ সালাহ উদ্দিন কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে একটি মামলা করেন। কিন্তু ওই মামলার বিশেষ কোনও অগ্রগতি এখনও পর্যন্ত দেখা যায়নি।

/এএম/

সম্পর্কিত

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৪২

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে এক কিশোরীকে সংঘগবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় তিন জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে চট্টগ্রাম নগরী ও সীতাকুণ্ডে অভিযান চালিয়ে ডবলমুরিং থানা পুলিশ তাদের করে। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকালে আদালতে তোলা হলে ১৬৪ ধারায় দেওয়া জবানবন্দিতে ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করেন তারা।

ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাশেম ভূইয়াঁ বৃহস্পতিবার রাতে এসব তথ্য জানান। 

বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, গ্রেফতার তিন জন হলেন লরির হেলপার মো. মেহেদী হাসান মুন্না (১৯), নৈশপ্রহরী মো. সাকিব (২১) ও মো. হাসান তারেক রনি (৪০)। 

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ভিকটিম কিশোরী গত ৫ সেপ্টেম্বর তার ফুফাতো ভাইয়ের স্ত্রীর সঙ্গে ডাক্তার দেখানোর জন্য আগ্রাবাদ যায়। আগ্রাবাদ যাওয়ার পর মানুষের জটলায় ওই কিশোরী ভাবিকে হারিয়ে ফেলে। এরপর আগ্রাবাদ সিঅ্যান্ডএফ টাওয়ারের সামনে কান্না করতে থাকলে আসামি মুন্না তাকে বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে সিএনজিতে উঠিয়ে নেয়। পরে বাসায় পৌঁছে না দিয়ে নগরীর সাগরিকা, অলঙ্কারসহ বিভিন্ন জায়গায় সন্ধ্যা পর্যন্ত তাকে ঘোরাতে থাকে। এরপর রাত ১০টার দিকে বাসে করে কিশোরীকে সীতাকুণ্ড থানাধীন কালুশাহ মাজার এলাকায় নিয়ে যায় মুন্না। সেখানে আসামি শাকিবের ভাড়া বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে ওই কিশোরীকে তিন জন মিলে রাতভর ধর্ষণ করে।

ওসি আরও বলেন, ঘটনার পর মেয়েটি ভয়ে পরিবারের সদস্যদের কিছু জানায়নি। বুধবার সন্ধ্যায় মুন্না কিশোরীর বাসার আশপাশে এসে ঘোরাঘুরি করতে থাকে। এসময় মেয়েটি তাকে দেখে ভয়ে চিৎকার দিয়ে ওঠে। ঘটনা সবাইকে খুলে বললে স্থানীয়রা মুন্নাকে ধাওয়া দিয়ে আটক করে। পরে ৯৯৯-এ ফোন দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মুন্নাকে গ্রেফতার করে। এরপর তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাতে অভিযান চালিয়ে সীতাকুণ্ড বেড়িবাঁধ এলাকা থেকে সাকিব ও হাসানকে গ্রেফতার করা হয়। ধর্ষণের শিকার কিশোরীর বড় বোন থানায় মামলা দায়ের করেন বলে জানান তিনি। 

/টিটি/

সম্পর্কিত

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

১০ টাকা বেশি চাওয়ায় রিকশাচালককে কুপিয়ে হত্যা

১০ টাকা বেশি চাওয়ায় রিকশাচালককে কুপিয়ে হত্যা

সাগরে ডুবলো মিয়ানমার থেকে আসা কফি-আচারবাহী জাহাজ

সাগরে ডুবলো মিয়ানমার থেকে আসা কফি-আচারবাহী জাহাজ

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো বাজারটি

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৪৫

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীর তীর দখল করে গড়ে ওঠা বেলদী বাজারের দুইটি তিনতলা, সাতটি দোতলা ও ছয়টি একতলা ভবনসহ অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটি ভেকু দিয়ে এই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত হয়।

বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শোভন রাংসার নেতৃত্বে উচ্ছেদ অভিযানটি পরিচালিত হয়। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিএ ঘোড়াশাল নদী বন্দরের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক নূর হোসেন স্বপন।

নূর হোসেন স্বপন জানান, উচ্ছেদ অভিযানের দ্বিতীয় দিনে আজ দুইটি তিনতলা, সাতটি পাকা দোতলা, ছয়টি একতলা ভবন, ইটভাটার স্থাপনা, একটি ব্যাটারি কারখানার দেয়ালসহ অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ইতোপূর্বে অবৈধ দখলদারদের নোটিশ দিলেও তারা কর্ণপাত করেনি। যে কারণে গত দুই দিনে প্রায় ১০০ অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন নির্দেশনা

শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন নির্দেশনা

জাতীয় উদ্যানে তরুণীর হাতের রগ কাটা লাশ

জাতীয় উদ্যানে তরুণীর হাতের রগ কাটা লাশ

সুদিনের মৌমাছিদের কমিটিতে স্থান নেই: কৃষিমন্ত্রী

সুদিনের মৌমাছিদের কমিটিতে স্থান নেই: কৃষিমন্ত্রী

গাজীপুরে একদিনে ৩ জনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

গাজীপুরে একদিনে ৩ জনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

নওগাঁ পৌর মেয়র সনিসহ বিএনপির ৩ নেতা কারাগারে

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:২৯

নওগাঁয় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ানোর একটি মামলায় পৌর মেয়র ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি নজমুল হক সনিসহ তিন নেতাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নওগাঁর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত আসামিদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, মামলায় হাইকোর্ট থেকে তিন মাস মেয়াদের জামিন নিয়েছিলেন আসামিরা। সেই মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নিম্ন আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন তারা। আদালতের বিচারক আশরাফুল ইসলাম সেই আবেদন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

অপর দুই আসামি হলেন জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম ধলু ও নওগাঁ পৌর বিএনপির সদস্য সচিব মিজানুর রহমান। 

মামলার সূত্রে জানা গেছে, আসামিদের বিরুদ্ধে সরকারি কাজে বাধা, পুলিশের ওপর হামলা ও সরকারি সম্পত্তিসহ ও জনসাধারণের জানমালের নিরাপত্তা বিঘ্নিত করায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে গত ৩০ মার্চ নওগাঁ সদর থানায় মামলা হয়। পৃথক দুই মামলায় ৫৭ জনের নাম উল্লেখ ও আরও অজ্ঞাত আসামি করা হয়। আসামিপক্ষের আইনজীবীরা জানান, মামলার অন্যসব আসামি জামিনে আছেন। নজমুল হক সনি, জাহিদুল ইসলাম ধলু ও মিজানুর রহমানের জামিনের জন্য উচ্চ আদালতে আবেদন করার প্রস্তুতি চলছে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ৩০ মার্চ দুপুরে নওগাঁ শহরের কেডির মোড়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। হেফাজত কর্মী নিহতের ঘটনায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ওইদিন তাদের দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করছিল বিএনপি নেতাকর্মীরা। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সংঘর্ষ বাধে। ওই ঘটনায় থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়।

/টিটি/

সম্পর্কিত

মায়ের ওষুধ নিয়ে ফেরা হলো না

মায়ের ওষুধ নিয়ে ফেরা হলো না

ঘুষ চাওয়ায় স্যানিটারি পরিদর্শককে পিটুনি, তদন্তে কমিটি

ঘুষ চাওয়ায় স্যানিটারি পরিদর্শককে পিটুনি, তদন্তে কমিটি

রামেকের করোনা ইউনিটে ১৬ দিনে ১০৩ জনের মৃত্যু

রামেকের করোনা ইউনিটে ১৬ দিনে ১০৩ জনের মৃত্যু

রূপপুর প্রকল্পে কর্মরত রুশ নাগরিকের লাশ উদ্ধার

রূপপুর প্রকল্পে কর্মরত রুশ নাগরিকের লাশ উদ্ধার

ভুয়া বিলে টাকা উত্তোলন, টিটিসির সেই অধ্যক্ষ বরখাস্ত

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:২৫

আর্থিক দুর্নীতিসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে দিনাজপুর কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের (টিটিসি) অধ্যক্ষ প্রকৌশলী মো. আইনুল হককে সাময়িক বরখাস্ত করেছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে বিষয়টি জানানো হয়। ইতোমধ্যেই ওই প্রজ্ঞাপনটি মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়াধীন জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর অধীনের দিনাজপুরের কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী মো. আইনুল হকের বিরুদ্ধে গুরুতর আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ প্রাথমিকভাবে তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে। সরকারি কর্মচারী বিধি অনুযায়ী তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো। এ সময়ে তিনি প্রচলিত বিধি অনুযায়ী খোরাকি ভাতা পাবেন। এ আদেশ জনস্বার্থে জারি করা হলো এবং অবিলম্বে তা কার্যকর হবে।

জানা গেছে, দিনাজপুর টিটিসির একাডেমিক ভবনের সামনে বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যাল স্থাপন, একাডেমিক ভবনে বঙ্গবন্ধু কর্নারের আধুনিকায়নসহ বিভিন্ন কাজের প্রস্তাবনার বরাদ্দ অর্থ দিয়ে বাথরুম নির্মাণ ও ইলেকট্রিক্যাল সাব-স্টেশন সংস্কারসহ বিভিন্ন কাজ করেন অধ্যক্ষ। ভুয়া বিল তৈরি করে, সেমিনার না করেই, সভায় অনুপস্থিতদেরকেও উপস্থিত দেখিয়ে এবং ব্যক্তিগত প্রয়োজনে প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসাব থেকে টাকা উত্তোলনসহ বিভিন্ন অর্থনৈতিক দুর্নীতিমূলক কর্মকাণ্ডের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

এবার আগেভাগেই দেখা দিয়েছে কাঞ্চনজঙ্ঘা

এবার আগেভাগেই দেখা দিয়েছে কাঞ্চনজঙ্ঘা

কয়লা খনির পাঁচ কর্মকর্তা বরখাস্ত, ১০ জনের নামে মামলা

কয়লা খনির পাঁচ কর্মকর্তা বরখাস্ত, ১০ জনের নামে মামলা

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:১০

মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে চীন থেকে আমদানি করা এক কোটি ১৩ লাখ শলাকার বিদেশি সিগারেটের চালান জব্দ করেছে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউস। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) পরীক্ষায় কাপড় ও কাপড়ের সরঞ্জাম ঘোষণা দিয়ে আনা দুটি কন্টেইনার খুলে বিদেশি সিগারেট পাওয়া যায়। যার আনুমানিক আমদানি মূল্য সাড়ে ৭ কোটি টাকা।  

কাস্টমস হাউসের অডিট, ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড রিসার্চ (এআইআর) শাখার সহকারী কমিশনার রেজাউল করিম চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, চালানটিতে ঘোষণা বহির্ভূত পণ্য আনা হয়েছে এমন গোপন সংবাদ থাকায় চালানটি লক করা হয়। পরে চট্টগ্রাম বন্দরের ভেতরে সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের প্রতিনিধি, বন্দর নিরাপত্তা কর্মকর্তা ও অন্যান্য সংস্থার সদস্য ও প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে পণ্য চালানটির শতভাগ পরীক্ষায় দেখা যায় প্রতিষ্ঠানটি সিগারেটের পরিবর্তে বিদেশি সিগারেট নিয়ে এসেছে। কন্টেইনার দুটি খুলে তাতে এক কোটি ১৩ লাখ শলাকা বিদেশি সিগারেট পাওয়া যায়। যার আনুমানিক আমদানি মূল্য সাড়ে ৭ কোটি টাকা।  

তিনি আরও বলেন, চালানটির মাধ্যমে আমদানিকারক ২৭ কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকির অপচেষ্টা চালিয়েছে। আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কমিশনার স্যার এই ঘটনায় দোষী ব্যক্তিদের দ্রুত চিহ্নিত করে কঠোর ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছেন।

কাস্টমস হাউজের এআইআর সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা রফতানি প্রক্রিয়াজাতকরণ অঞ্চলের বাংলাদেশ টেক্সটাইল অ্যান্ড কেমিক্যাল ফাইবার লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠান চীন থেকে কাপড় ও কাপড়ের সরঞ্জাম ঘোষণায় বন্ড সুবিধার আওতায় দুই কন্টেইনার পণ্য আমদানি করে। গত ১১ সেপ্টেম্বর চীনের সাংহাই বন্দর থেকে পণ্যবাহী কন্টেইনার দুটি চট্টগ্রাম বন্দরে এসে পৌঁছে। এরপর গত ১৩ সেপ্টেম্বর আমদানিকারকের মনোনীত সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট-আলমগীর অ্যান্ড সন্স বিল অব এন্ট্রি দাখিল করেন। আজ পরীক্ষায় কন্টেইনার দুটি থেকে সব পণ্য বের করে আনার পর দেখা যায়, ৫৬৫টি কার্টনের প্রতিটিতে সিগারেটের দুটি ইনার কার্টন রয়েছে। 

/টিটি/

সম্পর্কিত

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

১০ টাকা বেশি চাওয়ায় রিকশাচালককে কুপিয়ে হত্যা

১০ টাকা বেশি চাওয়ায় রিকশাচালককে কুপিয়ে হত্যা

সাগরে ডুবলো মিয়ানমার থেকে আসা কফি-আচারবাহী জাহাজ

সাগরে ডুবলো মিয়ানমার থেকে আসা কফি-আচারবাহী জাহাজ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

১০ টাকা বেশি চাওয়ায় রিকশাচালককে কুপিয়ে হত্যা

১০ টাকা বেশি চাওয়ায় রিকশাচালককে কুপিয়ে হত্যা

সাগরে ডুবলো মিয়ানমার থেকে আসা কফি-আচারবাহী জাহাজ

সাগরে ডুবলো মিয়ানমার থেকে আসা কফি-আচারবাহী জাহাজ

শুভ্রার ঘরে এলো নতুন অতিথি

শুভ্রার ঘরে এলো নতুন অতিথি

কয়লা খনির পাঁচ কর্মকর্তা বরখাস্ত, ১০ জনের নামে মামলা

কয়লা খনির পাঁচ কর্মকর্তা বরখাস্ত, ১০ জনের নামে মামলা

ফেনীর দাদনার খালের দখল-দূষণ তদন্তের নির্দেশ 

ফেনীর দাদনার খালের দখল-দূষণ তদন্তের নির্দেশ 

সর্বশেষ

মোদির ঘুম কেড়ে নেওয়ার হুঁশিয়ারি এসএফজে-র

মোদির ঘুম কেড়ে নেওয়ার হুঁশিয়ারি এসএফজে-র

তালেবানকে হঠাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

তালেবানকে হঠাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

কাবুলে রকেট হামলা

কাবুলে রকেট হামলা

ছিনতাইকারীকে ধরতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে আহত দিনমজুরের মৃত্যু

ছিনতাইকারীকে ধরতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে আহত দিনমজুরের মৃত্যু

ইভ্যালিতে প্রতারিতরা কি টাকা ফেরত পাবেন?

ইভ্যালিতে প্রতারিতরা কি টাকা ফেরত পাবেন?

© 2021 Bangla Tribune