X
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

মানবিক কারণে পোশাকশ্রমিকদের জন্য বাস-ট্রাক চালু!

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ২২:২৯

বিক্ষোভের মুখে রংপুরের পোশাকশ্রমিকদের ঢাকায় কর্মস্থলে যাওয়ার জন্য ট্রাক ও বাস চালুর অনুমতি দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। এরপর সড়ক অবরোধ প্রত্যাহার করে নেন শ্রমিকরা।

শনিবার (৩১ জুলাই) বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে সড়ক অবরোধ প্রত্যাহার করা হয়। বিকাল সাড়ে ৫টা থেকে ট্রাকে, বিআরটিসি বাসসহ বিভিন্ন যানবাহনে ঢাকায় যাচ্ছেন পোশাকশ্রমিকরা।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) আবু মারুফ হোসেন বলেন, যেহেতু লকডাউন চলছে সেহেতু সবকিছু মেনেই আমরা কাজ করছি। শ্রমিকদের মানবিক দিক বিবেচনা করে যানবাহন চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তা না হলে তারা এখানে আটকে থাকেবন। অনেকেই অনেক দূর থেকে এসেছেন। কর্মস্থলে তো যেতেই হবে।

ট্রাকে, বিআরটিসি বাসসহ বিভিন্ন যানবাহনে ঢাকায় যাচ্ছেন পোশাকশ্রমিকরা

সন্ধ্যায় নগরীর মডার্ন মোড়ে দেখা গেছে, পোশাকশ্রমিকরা খালি ট্রাক, বাস পেলেই থামিয়ে চড়ে বসছেন। আবার কয়েকজন একসঙ্গে মিনি ট্রাক ভাড়া করে গাদাগাদি করে ঢাকায় যাচ্ছেন। 

কুড়িগ্রাম থেকে আসা পোশাকশ্রমিক নাহিদা ইয়াসমিন ও মমতাজ বেগমসহ কয়েকজন জানান, রবিবার থেকে কারখানা খোলা। কর্মস্থলে যোগ না দিলে চাকরি থাকবে না বলে জানানো হয়েছে।

পোশাক শ্রমিকনেতা সাহাবুল আলম বলেন, সকাল থেকে নগরীর মডার্ন মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ করছিলেন শ্রমিকরা। আমরা প্রশাসনের কাছে ঢাকায় যাওয়ার পরিবহনের ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়েছিলাম। পুলিশ ও প্রশাসনের কয়েকজন কর্মকর্তা এসে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছেন। এরপর খালি ট্রাক, বিআরটিসি বাসসহ বিভিন্ন গাড়ি ভাড়া করে শ্রমিকরা ঢাকায় যাচ্ছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) আবু মারুফ বলেন, মানবিক কারণে শ্রমিকদের বিষয়টি সহানুভূতির সঙ্গে দেখা হচ্ছে। সেই সঙ্গে লকডাউন কঠোরভাবে বাস্তবায়নের চেষ্টা করছি।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সকাল থেকে রংপুর ও আশপাশের জেলার পোশাকশ্রমিকরা ঢাকায় কারখানায় কাজে যোগ দেওয়ার জন্য রংপুর নগরীর মডার্ন মোড়ে আসেন। দীর্ঘক্ষণ রাস্তায় দাঁড়িয়ে থেকেও যানবাহন পাননি। পণ্যবাহী ও খালি ট্রাকে গন্তব্যে যেতে চাইলে বাধা দেয় পুলিশ। দুপুর ১২টার দিকে মডার্ন মোড় ও আশপাশের এলাকা লোকে লোকারণ্য হয়ে যায়। এ সময় হাজার হাজার পোশাকশ্রমিক পরিবহনের ব্যবস্থা করার দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করেন। এতে মহাসড়কের দুই পাশে শত শত ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহন আটকাপড়ে।

/এএম/

সম্পর্কিত

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

বাড়ির সামনে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

বাড়ির সামনে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন

যুবদলের পকেট কমিটি বাতিলের দাবিতে ঝাড়ু ও জুতা মিছিল

যুবদলের পকেট কমিটি বাতিলের দাবিতে ঝাড়ু ও জুতা মিছিল

বিকৃত জাতীয় পতাকা প্রদর্শন

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৫৮

বিজয় দিবসে বিকৃত জাতীয় পতাকা প্রদর্শনের ঘটনায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিযুক্ত ১৯ শিক্ষক ও কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দীর্ঘ ৯ মাসেও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এমনকি শিক্ষা মন্ত্রণালয় চিঠি দিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ দীর্ঘ ৭ মাসেও কোনও জবাব দেয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। এদিকে জাতীয় পতাকা অবমাননা মামলার ১৮ শিক্ষক ও এক কর্মকর্তাসহ ১৯ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ গঠনের পরেও আসামিদের সাময়িক বরখাস্ত না করার অভিযোগ উঠেছে।

আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ২০১৮ সালের সরকারি চাকরি আইনের ৩৯ (২) ধারা অনুযায়ী কোনও কর্মকর্তা কর্মচারী গ্রেফতার, আটক অথবা তার বিরুদ্ধে আদালত কর্তৃক অভিযোগ গঠনের দিন থেকে আসামিদের বরখাস্ত করতে হবে কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কোনও পদক্ষেপ নেয়নি।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে ২০২০ সালের ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয়ে দিবসের সকালে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের স্বাধীনতা স্মারকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮ শিক্ষক ও এক কর্মকর্তা বিকৃত জাতীয় পতাকা প্রদর্শন করেন। সেই ছবি আবার ফেসবুকে দেন তারা। এ ঘটনার পরেও তৎকালীন উপাচার্য অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিম উল্লাহ জাতীয় পতাকা অবমাননাকারীদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেননি। 

এ ঘটনায় রংপুর জেলা প্রশাসন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্ত কমিটি সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উপস্থিত সাধারণ শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ অভিযুক্তদের সাক্ষ্যগ্রহণ করে। পরে জাতীয় পতাকা অবমাননার দায়ে ১৯ জন শিক্ষক কর্মকর্তাকে অভিযুক্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।

অভিযুক্তরা হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের অধ্যাপক আর এম হাফিজুর রহমান, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তাবিউর রহমান প্রধান, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক পরিমল চন্দ্র বর্মণ, মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাসুদ উল হাসান, সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রাম প্রসাদ বর্মণ, পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রশিদুল ইসলাম, ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক শামীম হোসেন, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক রহমতউল্লাহ, রসায়ন বিভাগের প্রভাষক মোস্তফা কাইয়ুম শারাফাত, ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের প্রভাষক সোহাগ আলী, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক আবু সায়েদ, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কামরুজ্জামান, ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সদরুল ইসলাম সরকার, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক প্রদীপ কুমার সরকার, পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক শাহ জামান, অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক মোরশেদ হোসেন, পরিসংখ্যান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক চার্লস ডারউন, ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক নুর আলম সিদ্দিক এবং পরিসংখ্যান বিভাগের সেকশন অফিসার (গ্রেড-১) শুভঙ্কর। 

পরে এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক মাহমদুল হক ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান বাদী হয়ে নগরীর তাজহাট থানায় জাতীয় পতাকা অবমাননার অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় তদন্ত শেষে পুলিশ ১৯ শিক্ষক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

এদিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে (স্মারক নম্বর ৬৩ তারিখ ৪/২/২১) উপসচিব নুর-ই আলম স্বাক্ষরিত একটি চিঠি দেওয়া হয়। চিঠিতে জাতীয় পতাকা বিকৃত করে প্রদর্শনকারী শিক্ষক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসন কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের আলোকে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা জানতে চাওয়া হয়। তবে সাবেক উপাচার্য কলিম উল্লাহ কোনও ব্যবস্থা নেননি। বরং অভিযুক্তদের বেশ কয়েকজনকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে পদায়ন করেন বলে মামলার বাদী শিক্ষক মাহমুদুল হক অভিযোগ করেন। 

তিনি আরও অভিযোগ করেন, জাতীয় পতাকা অবমাননা মামলার প্রধান আসামি তাবিউর রহমানকে সহকারী অধ্যাপক পদ থেকে পদোন্নতী দিয়ে সহযোগী অধ্যাপক করা হয়েছে। শুধু তাই নয় তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু হলের প্রভোস্ট হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের শিক্ষক হাফিজুর রহমান সেলিমকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ ও হিসাব দফতরের পরিচালক করা হয়েছে। একইভাবে শিক্ষক মাসুদুল হাসানকে শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক, রাম প্রসাদকে শহীদ মুখতার এলাহী হলের সহকারী প্রভোস্ট, রহমত উল্লাহকে বঙ্গবন্ধু হলের সহকারী প্রভোস্ট, প্রদীপ কুমার সরকারকে সাইবার সেন্টারের পরিচালক, শাহ জামানকে পরিসংখ্যান বিভাগের প্রধান, ড. রশিদুলকে শহীদ মুখতার এলাহী হলের প্রভোস্টের দায়িত্ব দেওয়া হয়।

এদিকে গত ২১ সেপ্টেম্বর জাতীয় পতাকা অবমাননা মামলায় রংপুরের মেট্রোপলিটান আমলী আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট আল মেহমুদ মামলার আসামি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯ শিক্ষক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে ২৩ নভেম্বর সাক্ষ্যগ্রহনের দিন ধার্য করেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট রফিক হাসনাইন।

তবে আসামিদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের হওয়া এবং অভিযোগপত্র দাখিল এবং অভিযোগ গঠনের পরেও আসামিদের সাময়িক বরখাস্ত না করায় আইনের ব্যত্যয় হয়েছে বলে জানান রংপুরের সিনিয়র আইনজীবী রইছ উদ্দিন বাদশা। 

সরকারি কর্মচারী আইন-২০১৮ সালের ৩৯(২) ধারা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, কোনও সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী ফৌজদারি মামলায় আটক গ্রেফতার হলে অথবা তার বিরুদ্ধে আদালত কর্তৃক অভিযোগ গঠন করা হলে সেই দিন থেকে আসামিকে চাকরি থেকে সাসপেন্ড করার কথা। কিন্তু পাঁচ দিন অতিবাহিত হবার পরেও আসামিদের সাসপেন্ড না করা আইনের প্রতি কর্তৃপক্ষের অবজ্ঞা বলে মনে করছি।

মামলার বাদী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মাহমুদুল হক বলেন, আইন অনুযায়ী আসামিদের সাসপেন্ড করার কথা। আশাকরি, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেবে। 

সার্বিক বিষয় জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান আইন কর্মকর্তা রেহেনা আখতার মনির মোবাইলফোনে একাধিকাবর কল করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি। তাকে এসএমএস করেও কোনও জবাব মেলেনি। 

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক হাসিবুর রশীদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

বাড়ির সামনে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

বাড়ির সামনে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

মোবাইলফোনে তালাক দিলেন স্বামী, শিশুপুত্রকে গলা কেটে হত্যা

মোবাইলফোনে তালাক দিলেন স্বামী, শিশুপুত্রকে গলা কেটে হত্যা

সচেতন সেবায় পর্যটনের ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার চেষ্টা 

সচেতন সেবায় পর্যটনের ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার চেষ্টা 

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন

বগি লাইনচ্যুত, বিকল্প লাইনে ঢাকায় গেলো সুন্দরবন এক্সপ্রেস

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৪৭

পাবনার ঈশ্বরদীতে খুলনা থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেসের দুটি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত পৌনে ৩টার দিকে ঈশ্বরদী জংশন স্টেশনের অদূরে এ ঘটনা ঘটে।

পরে ঈশ্বরদী-রূপপুর প্রকল্পের নতুন রেল রুট দিয়ে ট্রেনটি ঢাকা অভিমুখে যাত্রা করে। এ ঘটনায় পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে পাকশি বিভাগীয় রেলওয়ের পরিবহন কর্মকর্তা (ডিটিও) আনোয়ার হোসেনকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এ ঘটনায় আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন—পাকশি বিভাগীয় রেলওয়ে প্রকৌশলী-২ আব্দুর রহিম, পাকশি বিভাগীয় রেলওয়ে সংকেত ও টেলিযোগাযোগ প্রকৌশলী রাজিব বিল্লাহ, পাকশি বিভাগীয় রেলওয়ে যান্ত্রিক প্রকৌশলী (লোকো) আশিষ কুমার মণ্ডল।

আনোয়ার হোসেন জানান, রবিবার দিবাগত রাত পৌনে ৩টার দিকে ঈশ্বরদী জংশন স্টেশনের অদূরে লোকোসেড ইয়ার্ডে ইঞ্জিনের দুটি বগি লাইনচ্যুত হয়। তবে এতে কোনও হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। রাত সোয়া ৪টার দিকে ঈশ্বরদী লোকোমোটিভ কারখানা লোকোসেড থেকে রিলিফ ট্রেনের উদ্ধারকর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুর্ঘটনাকবলিত বগি উদ্ধার করে। এরপর ভোর ৫টা ৫৫ মিনিটে ঈশ্বরদী-রূপপুর প্রকল্পের নতুন রেল রুট দিয়ে ট্রেনটি ঢাকা অভিমুখে যাত্রা করে। দুর্ঘটনাকবলিত বগি দুটি রেললাইন থেকে সরিয়ে প্রধান রেললাইন সচল করা হয়েছে। রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক রয়েছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

কালভার্ট আছে রাস্তা নেই, দুর্ভোগে শিক্ষার্থীরা

কালভার্ট আছে রাস্তা নেই, দুর্ভোগে শিক্ষার্থীরা

রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের ছাত্র করোনায় আক্রান্ত

রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের ছাত্র করোনায় আক্রান্ত

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির তিন শীর্ষ নেতার জামিন

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির তিন শীর্ষ নেতার জামিন

৪ ঘণ্টা পর পাবনা-রাজশাহী রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক

৪ ঘণ্টা পর পাবনা-রাজশাহী রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক

বাড়ির সামনে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৬

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তা ব্যারাজ এলাকায় আব্দুল মালেক (৪২) নামে এক কৃষককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিস্তা ব্যারাজের পাশে দোয়ানী এলাকায় নিজ বাড়ির সামনে তাকে কুপিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা।

আব্দুল মালেক গড্ডিমারী ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের দোয়ানী এলাকার আব্দুল বারেকের ছেলে। পরিবারের দাবি, জমি সংক্রান্ত মামলার জের ধরেই তাকে হত্যা করা হয়েছে।

লালমনিরহাট সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) তাপস সরকার জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাড়ির সামনে একা বসেছিলেন আব্দুল মালেক। এ সময় পেছন থেকে তাকে কুপিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে। সেই সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানান তাপস সরকার। 

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা: বিমানবন্দরে নেমেই আসামি গ্রেফতার 

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা: বিমানবন্দরে নেমেই আসামি গ্রেফতার 

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন

মোবাইলফোনে তালাক দিলেন স্বামী, শিশুপুত্রকে গলা কেটে হত্যা

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:১৪

লক্ষ্মীপুরে মায়ের বিরুদ্ধে আয়ানুর রহমান আয়ান নামে সাড়ে তিন বছর বয়সী এক শিশুপুত্রকে জবাই করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। রবিবার দিবাগত রাতে (২৭ সেপ্টেম্বর) সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের পূর্ব চাঁদখালী গ্রামের হাফেজ চেয়ারম্যানের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মা সাবিনা ইয়াসমিনকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন লক্ষ্মীপুর মডেল থানার ওসি জসিম উদ্দিন। তিনি বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত মা সাবিনা জানিয়েছেন রাতে মোবাইলফোনে প্রবাসী স্বামী তালাক দেওয়া তিনি শিশুপুত্রকে গলা কেটে হত্যা করেছেন।

নিহত শিশু সৌদী প্রবাসী আজিমুর রহমানের ছেলে। তাদের বাড়ি সদর উপজেলার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়নের হোসেনপুর গ্রামে। চাঁদখালী গ্রামের ওই বাড়িতে তারা ভাড়া থাকতো।
 
এদিকে, মায়ের হাতে নির্মমভাবে শিশু হত্যার ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। স্বজনদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। 

ওই বাড়ির বাসিন্দা রাসেল খাঁ জানান, প্রবাসী স্বামী আজিমুর রহমানের সঙ্গে সাবিনা ইয়াসমিনের মোবাইলফোনে ঝগড়া হয়। রাতে সে শিশুপুত্রকে নিয়ে শুতে যায়। রাত পৌনে ১২টার দিকে সে তার ঘুমন্ত শিশুকে ধারালো বটি দিয়ে জবাই করে হত্যা করে। ঘরের অন্য লোকজন শব্দ শুনে তার কক্ষে গিয়ে শিশুর লাশ ও তার মাকে রক্তমাখা বটি হাতে দেখতে পায়। পরে বাড়ির লোকজন তাকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মোহাব্বত বলেন, সাবিনা তার শ্বশুর-শাশুড়ি, দেবর ও শিশু সন্তানকে নিয়ে ভাড়া থাকতো। কয়েকদিন আগে সে তার বোনের বাড়িতে চলে যায়। রবিবার সন্ধ্যায় সে আবার ফিরে আসে। রাতেই তার শিশুকে জবাই করে হত্যা করেছে বলে শুনেছি।  

/টিটি/

সম্পর্কিত

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

সচেতন সেবায় পর্যটনের ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার চেষ্টা 

সচেতন সেবায় পর্যটনের ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার চেষ্টা 

৭৭ বছর বয়সে ভোটার হলেন সন্তু লারমা

৭৭ বছর বয়সে ভোটার হলেন সন্তু লারমা

আজ বিশ্ব পর্যটন দিবস

সচেতন সেবায় পর্যটনের ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার চেষ্টা 

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৬

করোনায় বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত একটি খাত পর্যটন। করোনা সংক্রমণরোধে দীর্ঘদিন দর্শনীয় স্থানগুলোতে সাধারণ মানুষের চলাচল নিষিদ্ধ ছিল। এতে পর্যটন সংশ্লিষ্টরা বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়েন। তবে সংক্রমণ কমে আসায় পুনরায় পর্যটনস্পটগুলো খুলে দেওয়া হয়েছে। ভিড় জমাচ্ছেন দেশ-বিদেশের পর্যটকরা। এ অবস্থায় বিভিন্ন নির্দেশনা মেনে সচেতনভাবে সেবা দিয়ে ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার চেষ্টা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে ‘অন্তর্ভুক্তিমূলক প্রবৃদ্ধির জন্য পর্যটন’ স্লোগানকে ধারণ করে প্রতিবছরের মতো এবারও বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন ও বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডসহ বিভিন্ন সংস্থা পালন করছে বিশ্ব পর্যটন দিবস। এ উপলক্ষে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এদিকে লকডাউনের পর কক্সবাজার সৈকতে প্রতিদিন বাড়ছে পর্যটকদের সংখ্যা। লাখো পর্যটকে মুখরিত এখন সমুদ্র সৈকত।

 দিবসটি উপলক্ষে কক্সবাজারে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। এছাড়া করোনার ক্ষতি কাটিয়ে ভালো সেবা দিয়ে পর্যটক আকর্ষণের চেষ্টা করছে এ খাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা। পর্যটন দিবসে তাই সৈকতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান, হোটেল-মোটেলগুলোতে ৫০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হয়েছে। সেবার মান বাড়ানোর জন্য সচেতনতা বৃদ্ধি, সৈকতে লাইফগার্ড সদস্য বৃদ্ধি, করোনায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ নানা কাজ চলছে। 

ট্যুরিস্ট পুলিশের কক্সবাজার জোনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহিউদ্দিন আহমদ বলেন, পর্যটনের সুফল এবং সচেতনভাবে ঘুরে বেড়ানোর বিষয়ে লাখো পর্যটকের মধ্যে বার্তা পৌঁছে দিতে কাজ করছে ট্যুরিস্ট পুলিশ।

কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কউক) চেয়ারম্যান লে. কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমদ বলেন, কক্সবাজারকে আধুনিক পর্যটন নগরী হিসাবে গড়ে তোলার জন্য কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কাজ করছে। এ জন্য মহা পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে সরকার।

 করোনা সংক্রমণরোধে লকডাউনের কারণে দীর্ঘদিন অনেকটা অবরুদ্ধ ছিল মানুষ। করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসায় জীবন ও জীবিকার প্রয়োজনে এবং পর্যটন শিল্পকে অগ্রসর করতে বিনোদন কেন্দ্র খুলে দেয় সরকার। পর্যটন শিল্পের সঙ্গে জড়িত সবাইকে ৫০ শতাংশ ব্যবহার ও স্বাস্থ্যবিধি মানার শর্তে ১৯ আগস্ট থেকে খুলে দেওয়া হয় সমুদ্র সৈকতসহ পর্যটন ও বিনোদন কেন্দ্র। সমুদ্র সৈকত ছাড়াও মেরিনড্রাইভ, ইনানি, হিমছড়ি, মহেশখালী আদীনাথ মন্দির, বৌদ্ধ মন্দিরসহ বিনোদনকেন্দ্রগুলো এখন পর্যটকদের পদচারণায় মুখরিত।

প্রসঙ্গত, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর বিশ্বজুড়ে পর্যটন শিল্পের বিকাশ ঘটলে ১৯৭০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর বিশ্ব পর্যটন সংস্থা গঠনের প্রস্তাবে অনুমোদন দেয় জাতিসংঘ। তবে সংস্থাটি পূর্ণাঙ্গ কার্যক্রম শুরু করে ১৯৭৪ সালে। সংস্থার বার্ষিক সম্মেলনে ১৯৮০ সালে বিশ্ব পর্যটন দিবস পালনের প্রস্তাবে সর্বসম্মতভাবে গৃহীত হয়।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

মোবাইলফোনে তালাক দিলেন স্বামী, শিশুপুত্রকে গলা কেটে হত্যা

মোবাইলফোনে তালাক দিলেন স্বামী, শিশুপুত্রকে গলা কেটে হত্যা

৭৭ বছর বয়সে ভোটার হলেন সন্তু লারমা

৭৭ বছর বয়সে ভোটার হলেন সন্তু লারমা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

বিকৃত জাতীয় পতাকা প্রদর্শন১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

বাড়ির সামনে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

বাড়ির সামনে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ২ জনের যাবজ্জীবন

যুবদলের পকেট কমিটি বাতিলের দাবিতে ঝাড়ু ও জুতা মিছিল

যুবদলের পকেট কমিটি বাতিলের দাবিতে ঝাড়ু ও জুতা মিছিল

দেড় মাস পর হিলি দিয়ে এলো কাঁচা মরিচ

দেড় মাস পর হিলি দিয়ে এলো কাঁচা মরিচ

ঝাঁজ বেড়েছে কাঁচা মরিচের

ঝাঁজ বেড়েছে কাঁচা মরিচের

কুড়িগ্রাম সদরে ৪ শতাধিক স্কুলছাত্রীর বিয়ে

কুড়িগ্রাম সদরে ৪ শতাধিক স্কুলছাত্রীর বিয়ে

প্রাণ দিয়েছেন, তবু মাদক ব্যবসায়ীকে ছাড়েননি এএসআই পেয়ারুল

প্রাণ দিয়েছেন, তবু মাদক ব্যবসায়ীকে ছাড়েননি এএসআই পেয়ারুল

একদিনেই হিলি বন্দর দিয়ে এলো ৩৭৬৩ টন চাল

একদিনেই হিলি বন্দর দিয়ে এলো ৩৭৬৩ টন চাল

স্ত্রীর তালাকের পর স্বামীর আত্মহত্যা

স্ত্রীর তালাকের পর স্বামীর আত্মহত্যা

সর্বশেষ

এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ

এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

বিকৃত জাতীয় পতাকা প্রদর্শন১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

এসেনসিয়ান ড্রাগসে চাকরি, বয়স ৩০ থেকে ৩৫ বছর

এসেনসিয়ান ড্রাগসে চাকরি, বয়স ৩০ থেকে ৩৫ বছর

বিদেশগমনে দুদক নিষেধাজ্ঞা দিতে পারবে কি না- সিদ্ধান্তের অপেক্ষা বাড়লো

বিদেশগমনে দুদক নিষেধাজ্ঞা দিতে পারবে কি না- সিদ্ধান্তের অপেক্ষা বাড়লো

কোপ-২৬ জলবায়ু সম্মেলনে অংশ নিতে চায় না অস্ট্রেলিয়া!

কোপ-২৬ জলবায়ু সম্মেলনে অংশ নিতে চায় না অস্ট্রেলিয়া!

© 2021 Bangla Tribune