X
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

অসময়ে মাচায় তরমুজ চাষ, কৃষক দম্পতির অনন্য দৃষ্টান্ত

আপডেট : ১০ আগস্ট ২০২১, ১২:২০

এক সময় বর্গা চাষ করতেন বরগুনা সদর উপজেলার ৮নং সদর ইউনিয়নের কালিরতবক গ্রামের কৃষক আব্দুল মান্নান। তাতে কোনোরকমে সংসার চলতো। চলতি বছরের শুরুর দিকে বাড়ির সামনে ৮০ শতাংশ জমিতে পুকুর কেটে মাছ চাষ শুরু করেন আব্দুল মান্নান ও তার স্ত্রী রোফেজা আক্তার। এরপর দুই পাড়ে মাচা করে গ্রীষ্মকালীন তরমুজ চাষ করেন। আর্থিকভাবে সফলতার পাশাপাশি তরমুজ চাষ করে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন এই দম্পতি।

প্রতিদিনই বিভিন্ন জায়গা থেকে কৃষক ও সাধারণ মানুষ আব্দুল মান্নান দম্পতির কৃষি খামার দেখতে আসছেন। তাদের মতো গ্রীষ্মকালীন তরমুজ চাষে আকৃষ্ট হচ্ছেন অনেকে। 

আব্দুল মন্নান বলেন, ‘আমি কৃষি কাজ করি। তেমন পুঁজি না থাকায় এক সময় মানুষের জমিতে বর্গা চাষ করতাম। তা দিয়ে যে আয় হতো তাতে সংসার চালানো খুব কঠিন ছিল। এরপর নিজের যেটুকু সম্পদ ছিল তা দিয়ে বাড়ির সামনে সবজি বাগান এবং ছোট মাছের ঘের করি বছর তিনেক আগে। বছর খানেক পর অল্প জায়গায় হ্যাচারি করে পোনা উৎপাদন শুরু করি। এতে ব্যাপক সাফল্য পাই। বিভিন্ন এলাকা থেকে পাইকাররা এসে আমার হ্যাচারি থেকে পোনা সংগ্রহ করেন।’

মাচা করে গ্রীষ্মকালীন তরমুজ চাষ করেন আব্দুল মান্নান

তিনি আরও বলেন, ‘সম্প্রতি বাড়ির পাশে ৮০ শতাংশ জমিতে মাছ চাষের জন্য একটি ঘের তৈরি করি। ঘেরের পাশে মাচা করে শুরু করি গ্রীষ্মকালীন তরমুজ চাষ। এ বছর যে ফলন আশা করেছিলাম তার চেয়ে অনেক বেশি হয়েছে। বাজারে তরমুজের চাহিদা থাকায় দামও পাচ্ছি ভালো।’

আব্দুল মান্নান চাষের জন্য তরমুজের প্রজাতি হিসেবে উচ্চ ফলনশীল বেঙ্গল টাইগার, জাপানের কারিশমা, থাইল্যান্ডের তানিয়া বাছাই করেন। আশানুরূপ ফলনও পেয়েছেন।

এই কৃষক বলেন, ‘প্রথম যখন তরমুজ চাষ শুরু করেছিলাম, তখন অনেকেই আমাকে পাগল বলতো। কিন্তু এখন আমি সফলতা পাওয়ায় অনেকেই অসময়ে তরমুজ চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছে। এ বছর অন্যান্য ফসল বাদ দিয়ে শুধু তরমুজে আড়াই থেকে তিন লাখ টাকা আয় হবে ইনশাআল্লাহ।’

বাজারে এখন তরমুজের চাহিদা থাকায় দামও ভালো

রোফেজা আক্তার বলেন, ‘আমরাে দুজন মিলেই নিজেদের কৃষি খামারে কাজ শুরু করি। কিন্তু এখন আমাদের খামারে অনেকেই অস্থায়ী ভিত্তিতে কাজ করছে। তরমুজ চাষের ব্যাপারে যখন সে (আব্দুল মান্নান) আমাকে বলেছিলো, আমি কোনও দ্বিধা না করে রাজি হয়ে যাই। তারপর থেকে দুজনের অক্লান্ত পরিশ্রমে আজ আমরা সফলতা পেয়েছি। আমাদের সফলতা দেখে এখন অনেকেই তরমুজ চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছে।’

স্থানীয় কৃষক আয়নাল বলেন, ‘প্রথমে আমরা ভেবেছিলাম গ্রীষ্মকালীন তরমুজ চাষ প্রায় অসম্ভব। কিন্তু মান্নানের তরমুজ চাষ আমাদের অবাক করে দিয়েছে। আমরা পড়াশোনা শেষ করে কৃষি কাজ করছি। তবুও অসময়ে তরমুজ চাষে আগ্রহী ছিলাম না। কিন্তু তার সফলতা আমাদের আগ্রহী করে তুলছে। আমিও আগামীতে এই প্রক্রিয়ায় তরমুজ চাষ করবো।’

বরগুনা কাঁচাবাজারে দেখা যায়, বেশ কয়েকটি দোকানে তরমুজ রয়েছে। পরিমাণে অল্প হলেও সাধারণত এর আগের বছরের এই সময় বরগুনার বাজারে কোনও তরমুজই চোখে পড়েনি। কয়েকজন দোকানি জানান, এখন যে তরমুজ পাওয়া যাচ্ছে তা কালিরতবক গ্রামের কৃষক দম্পতির ক্ষেতের।

বিভিন্ন জায়গা থেকে আব্দুল মান্নান দম্পতির কৃষি খামার দেখতে আসছে মানুষ

অসময়ে তরমুজের চাহিদা কেমন জানতে চাইলে দোকানি সুব্রত বলেন, ‘এখন যে তরমুজ বিক্রি করি সেগুলো মৌসুমির চেয়ে আলাদা। এগুলোর মধ্যে একটার রঙ হলুদ, আরেকটার লাল। দুই রঙের তরমুজেরই চাহিদা রয়েছে ব্যাপক। তবে ক্রেতার চাহিদা অনুযায়ী আমাদের কাছে পর্যাপ্ত মজুত নেই।’

ক্রেতা এ এইচ হৃদয় বলেন, ‘এই সময় তরমুজ দেখে লোভ সামলাতে পারলাম না। তাই দুই ধরনের তরমুজ থেকে দুটি কিনলাম। দামও আগের তুলনায় তেমন একটা বেশি না। ২০০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যে তরমুজ বিক্রি হচ্ছে। আমি এর আগেও এই হলুদ তরমুজ কিনেছি। খেতে অনেক মজা।’

বরগুনা সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, কৃষক দম্পতির গ্রীষ্মকালীন তরমুজ চাষে সাফল্য দেখে অনেকের আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে। আমরা কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে সমন্বিত কৃষিতে উৎসাহ দিচ্ছি। করোনাকালীন সার্বক্ষণিক মাঠ পর্যায়ে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা কৃষকদের পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। 

ঘেরের পাশে মাচা করে তরমুজ চাষ করেন আব্দুল মান্নান

অসময়ে তরমুজ চাষের বিষয়টি জানতে পেরে সম্প্রতি বরগুনার জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান সস্ত্রীক এই কৃষক দম্পতির খামার পরিদর্শন করেছেন। সেই সঙ্গে সহযোগিতার আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি। 

হাবিবুর রহমান বলেন, ‘এটা সত্যি একটি চমৎকার উদ্যোগ। অসময়ে তরমুজ চাষ করে আব্দুল মান্নান ও তার স্ত্রী যেভাবে সফল হয়েছেন, এটা অনেক কৃষকদের জন্যই অনুকরণীয়। আমরা জেলা প্রশাসন ও কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে তাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা করবো।’

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

কলাপাড়ায় ৬ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল 

কলাপাড়ায় ৬ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল 

বরগুনার ৪ ইউনিয়নে নৌকার জয়

বরগুনার ৪ ইউনিয়নে নৌকার জয়

গলাচিপার মেয়র পদে নৌকার প্রার্থীর জয়

গলাচিপার মেয়র পদে নৌকার প্রার্থীর জয়

ভোটকে‌ন্দ্রে হামলার জন্য মজুত করা দুই শতা‌ধিক লা‌ঠি উদ্ধার

ভোটকে‌ন্দ্রে হামলার জন্য মজুত করা দুই শতা‌ধিক লা‌ঠি উদ্ধার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

কলাপাড়ায় ৬ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল 

কলাপাড়ায় ৬ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল 

বরগুনার ৪ ইউনিয়নে নৌকার জয়

বরগুনার ৪ ইউনিয়নে নৌকার জয়

গলাচিপার মেয়র পদে নৌকার প্রার্থীর জয়

গলাচিপার মেয়র পদে নৌকার প্রার্থীর জয়

ভোটকে‌ন্দ্রে হামলার জন্য মজুত করা দুই শতা‌ধিক লা‌ঠি উদ্ধার

ভোটকে‌ন্দ্রে হামলার জন্য মজুত করা দুই শতা‌ধিক লা‌ঠি উদ্ধার

বরগুনায় ভোটের সকালে কেন্দ্রে পৌঁছালো ব্যালট

বরগুনায় ভোটের সকালে কেন্দ্রে পৌঁছালো ব্যালট

ভোটের সরঞ্জাম নিয়ে কেন্দ্রে যাওয়ার পথে সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তার মৃত্যু

ভোটের সরঞ্জাম নিয়ে কেন্দ্রে যাওয়ার পথে সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তার মৃত্যু

জন্মের পরপরই নবজাতককে ফেলে দেওয়া হয় নদীতে

জন্মের পরপরই নবজাতককে ফেলে দেওয়া হয় নদীতে

গণপরিবহন থেকে নামানো হলো ৫৪০ কেজি জাটকা 

গণপরিবহন থেকে নামানো হলো ৫৪০ কেজি জাটকা 

বাড়িতে চুরি, দুই পরিবারের ৭ জন হাসপাতালে

বাড়িতে চুরি, দুই পরিবারের ৭ জন হাসপাতালে

পটুয়াখালীতে ১৪শ’ কেজি জাটকা জব্দ

পটুয়াখালীতে ১৪শ’ কেজি জাটকা জব্দ

সর্বশেষ

১২শ’ কোটি টাকা ঋণ দিচ্ছে এডিবি

১২শ’ কোটি টাকা ঋণ দিচ্ছে এডিবি

সেনাপ্রধানের সঙ্গে জাপানের রাষ্ট্রদূত ও তুরস্কের নৌ প্রধানের সাক্ষাৎ

সেনাপ্রধানের সঙ্গে জাপানের রাষ্ট্রদূত ও তুরস্কের নৌ প্রধানের সাক্ষাৎ

বাড়ছে মূল্যস্ফীতি

বাড়ছে মূল্যস্ফীতি

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল

ভারতকে তাদের মাঠেই হারিয়ে দিলো বাংলাদেশের যুবারা

ভারতকে তাদের মাঠেই হারিয়ে দিলো বাংলাদেশের যুবারা

© 2021 Bangla Tribune