X
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

তালেবান শাসনে ভারতের যত শঙ্কা

আপডেট : ২৯ আগস্ট ২০২১, ২৩:১৭

আফগানিস্তানে ক্ষমতার পালাবদলে বড় ধরনের অস্বস্তিতে পড়েছে ভারত। একদিকে তালেবানের ওপর পাকিস্তানের প্রভাব, অন্যদিকে আফগানিস্তানে দিল্লির বিপুল অঙ্কের বিনিয়োগ এখন হুমকির মুখে। অর্থাৎ, শুধু রাজনৈতিক নয়, বরং অর্থনৈতিকভাবেও উদ্বেগ বেড়েছে দিল্লির।

আফগানিস্তানে শান্তি ও স্থিতাবস্থা ফেরাতে দেশটিতে অন্তত তিন বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে ভারত। যে অর্থ দিয়ে তৈরি হয়েছে বাঁধ, রাস্তাঘাট থেকে শুরু করে আফগান পার্লামেন্ট ভবন পর্যন্ত। এর মধ্য দিয়ে পাকিস্তানকে পাশ কাটিয়ে কৌশলগত কারণে দেশটিতে নিজের প্রভাব বাড়িয়েছিল দিল্লি। তবে কাবুলের ক্ষমতার পালাবদলে নতুন করে ভাবতে হচ্ছে মোদি সরকারকে। শঙ্কা দেখা দিয়েছে দেশটিতে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় বিনিয়োগের ভবিষ্যৎ নিয়ে।

২০২১ সালের ১৫ আগস্ট কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয় তালেবান। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন সরকার গঠনের আগেই ভারতের সঙ্গে যাবতীয় আমদানি-রফতানি বন্ধ করে দেয় দলটি। ভারতের ফেডারেশন অব এক্সপোর্ট অর্গানাইজেশনের মহাপরিচালক অজয় সহায় জানান, পাকিস্তান হয়ে যে পথ ধরে ভারতে পণ্য আসে এবং এখান থেকে যায়, সেই পথ বন্ধ করে দিয়েছে তালেবান। এর প্রতিক্রিয়ায় ভারতে আফগানিস্তান থেকে শুকনো ফলের দাম এরইমধ্যে বেড়ে গেছে।

দীর্ঘদিন ধরে দিল্লির কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ পোশাক সামগ্রী, চিকিৎসা সরঞ্জাম এবং অটো যন্ত্রাংশ আমদানি করে আসছিল কাবুল। তবে তালেবানের উত্থানে হুট করেই সে প্রক্রিয়ায় ধাক্কা লাগে। দিল্লির চেম্বার অব ট্রেড অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির চেয়ারম্যান ব্রিজেশ গোয়াল বলেন, চালান আটকে আছে এবং পেমেন্ট বড় আকারে আটকে যেতে পারে। ফলে ভারত সরকারের অবিলম্বে বিষয়টি  সম্পর্কে সজাগ হওয়া প্রয়োজন। তাদের কিছু উপায় খুঁজে বের করা উচিত।

২০১১ সালে দুই দেশের মধ্যে কৌশলগত সমঝোতা স্বাক্ষরিত হয়। তারপর থেকে পরিকাঠামো, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বাঁধ নির্মাণে অর্থ-সহায়তা দিতে শুরু করে ভারত। ২০২০ সালে নভেম্বরে জেনেভা শীর্ষ সম্মেলনে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর জানান, আফগানিস্তানের এমনও কোনও অংশ নেই যেখানে ভারত নেই। ৩৪টি প্রদেশে চলছে ৪০০-টিরও বেশি প্রকল্প।

এর বেশিরভাগই অবকাঠামো সংক্রান্ত। কাবুলে ৯০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ করে পার্লামেন্ট ভবন নির্মাণ করেছে দিল্লি। ২০১৫ সালে সেটির উদ্বোধন করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আফগানিস্তানের গণতন্ত্রের প্রতি এটা দিল্লির শ্রদ্ধার্ঘ বলে মন্তব্য করেন তিনি। সেই পার্লামেন্ট ভবনের একটি ব্লকের নামকরণ হয় ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর নামে।

সালমা বাঁধ নামে পরিচিত আফগান-ইন্ডিয়া ফ্রেন্ডশিপ ডেমেও বড় অঙ্কের তহবিল দিয়েছিল দিল্লি। ১৫ আগস্ট তালেবান যখন ক্ষমতা দখল করে তখনও আফগানিস্তানের কৃষি, গ্রামীণ উন্নয়ন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসহ বিভিন্ন খাতের ১৫০টি প্রকল্পের কাজ করছিল ভারত। তবে তালেবানের ক্ষমতা দখলে এসব প্রকল্পের ভবিষ্যৎও এখন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। সূত্র:  এশিয়া টাইমস, জি নিউজ।

/এমপি/

সম্পর্কিত

আন্তর্জাতিক সহায়তা চাইলেন আফগান প্রধানমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক সহায়তা চাইলেন আফগান প্রধানমন্ত্রী

ইরানের পারমাণবিক চুক্তি: কূটনীতি ব্যর্থ হলে বিকল্প উপায় ব্যবহারে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র

ইরানের পারমাণবিক চুক্তি: কূটনীতি ব্যর্থ হলে বিকল্প উপায় ব্যবহারে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র

জান্তার আদালতে প্রথম রায়ের অপেক্ষায় সু চি

জান্তার আদালতে প্রথম রায়ের অপেক্ষায় সু চি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

আন্তর্জাতিক সহায়তা চাইলেন আফগান প্রধানমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক সহায়তা চাইলেন আফগান প্রধানমন্ত্রী

ইরানের পারমাণবিক চুক্তি: কূটনীতি ব্যর্থ হলে বিকল্প উপায় ব্যবহারে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র

ইরানের পারমাণবিক চুক্তি: কূটনীতি ব্যর্থ হলে বিকল্প উপায় ব্যবহারে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র

জান্তার আদালতে প্রথম রায়ের অপেক্ষায় সু চি

জান্তার আদালতে প্রথম রায়ের অপেক্ষায় সু চি

ইসরায়েলকে তার প্রকৃত সামর্থ্য বিবেচনার আহ্বান

ইসরায়েলকে তার প্রকৃত সামর্থ্য বিবেচনার আহ্বান

ইসরায়েলের সঙ্গে পানি-বিদ্যুৎ চুক্তির বিরোধিতায় জর্ডানে বিক্ষোভ

ইসরায়েলের সঙ্গে পানি-বিদ্যুৎ চুক্তির বিরোধিতায় জর্ডানে বিক্ষোভ

ফের আফগান কর্মকর্তাদের সঙ্গে বসছে যুক্তরাষ্ট্র

ফের আফগান কর্মকর্তাদের সঙ্গে বসছে যুক্তরাষ্ট্র

ভারতে আসলেই পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যা বেশি?

ভারতে আসলেই পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যা বেশি?

মিয়ানমার জান্তার বিরুদ্ধে নতুন অভিযোগ

মিয়ানমার জান্তার বিরুদ্ধে নতুন অভিযোগ

সর্বশেষ

ইউল্যাবের ষষ্ঠ সমাবর্তন আজ

ইউল্যাবের ষষ্ঠ সমাবর্তন আজ

তিয়াত্তরের ১৬ ডিসেম্বর: পালন হবে ‘জাতীয় দিবস’

তিয়াত্তরের ১৬ ডিসেম্বর: পালন হবে ‘জাতীয় দিবস’

অবিলম্বে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে: দ. আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট

অবিলম্বে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে: দ. আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট

৩ বছরে তৃতীয়বার লটারি জয়

৩ বছরে তৃতীয়বার লটারি জয়

যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ‘গুরুতর’ আলোচনা চায় ফ্রান্স

যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ‘গুরুতর’ আলোচনা চায় ফ্রান্স

© 2021 Bangla Tribune