X
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

সু চি’র সাক্ষাৎ চান আসিয়ান দূত

আপডেট : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:১৫

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক সংস্থা আসিয়ানের মিয়ানমারবিষয়ক বিশেষ দূত জানিয়েছেন, উৎখাত হওয়া নেত্রী অং সান সু চি’র সাক্ষাৎ পাওয়ার জন্য জান্তার সঙ্গে আলোচনা করছেন। শনিবার তিনি ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে একথা জানিয়েছেন।

দ্য অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট এশিয়ান ন্যাশন্স (আসিয়ান) মিয়ানমারে সহিংসতা বন্ধের চেষ্টা করে যাচ্ছে। ফেব্রুয়ারিতে অভ্যুত্থানের পর সামরিক জান্তা ও জান্তাবিরোধীদের সঙ্গে আলোচনা শুরু করেছে। আলোচনা এগিয়ে নিতে আসিয়ান ব্রুনেইয়ের দ্বিতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এরিওয়ান ইউসফকে দায়িত্ব দিয়েছে।

শনিবার তিনি রয়টার্সকে বলেন, মিয়ানমার পরিদর্শনের জরুরি তাগাদ রয়েছে। কিন্তু এর আগে আমার আশ্বাসের প্রয়োজন। আমার কী করার সুযোগ আছে তা স্পষ্ট জানতে হবে। আমি সেখানে যাওয়ার পর তারা আমাকে কী কী করার অনুমতি দেবে তা জানা দরকার।

এরিওয়ান জানান, অক্টোবর মাসের দিকে তিনি মিয়ানমার সফর করতে চান। কিন্তু এখনও কোনও তারিখ নির্দিষ্ট করা হয়নি।

তিনি বলেন, জান্তার পক্ষ থেকে এখনও কোনও শর্তারোপ করা হয়নি। কিন্তু তারা এই বিষয়ে কোনও স্পষ্ট কিছুই বলেনি। জান্তা প্রধান মিন অং হ্লাইংয়ের কাছে সু চি’র সঙ্গে সাক্ষাতের অনুরোধ জানানো হয়েছে। যদিও এপ্রিলে সামরিক সরকারের সঙ্গে আসিয়ানে পাঁচ দফা সমঝোতায় সু চি’র সঙ্গে দেখা করার বিষয়টি আবশ্যক রাখা হয়নি।

/এএ/

সম্পর্কিত

বাংলাদেশসহ ৬ দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সিঙ্গাপুরের

বাংলাদেশসহ ৬ দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সিঙ্গাপুরের

যুক্তরাষ্ট্রসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতদের বহিষ্কারের ঘোষণা এরদোয়ানের

যুক্তরাষ্ট্রসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতদের বহিষ্কারের ঘোষণা এরদোয়ানের

আরএসএস’র অনেক আদর্শই বামপন্থী, চাঞ্চল্যকর দাবি সাধারণ সম্পাদকের

আরএসএস’র অনেক আদর্শই বামপন্থী, চাঞ্চল্যকর দাবি সাধারণ সম্পাদকের

স্কুলশিশুদের হোমওয়ার্কের চাপ কমাচ্ছে চীন

স্কুলশিশুদের হোমওয়ার্কের চাপ কমাচ্ছে চীন

বাংলাদেশসহ ৬ দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সিঙ্গাপুরের

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ২২:০২

বাংলাদেশসহ ছয়টি দেশের ওপর থেকে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নিয়েছে সিঙ্গাপুর। বুধবার (২৭ অক্টোবর) থেকে এসব দেশের থেকে যাত্রীরা সিঙ্গাপুরে প্রবেশ করতে পারবে। শনিবার দেশটির সংবাদমাধ্যম স্ট্রেইট টাইমস এখবর জানিয়েছে।

বাংলাদেশ ছাড়া অপর দেশগুলো হলো ভারত, মিয়ানমার, নেপাল, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা।

সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, স্বল্প মেয়াদের পর্যটক ছাড়া এই ছয়টি দেশে ১৪ দিনের ভ্রমণ থাকলেও দেশটিতে ভ্রমণ বা ট্রানজিট হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন।

মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়াসহ বেশ কয়েকটি দেশের জন্যও ভ্রমণ বিধিনিষেধ শিথিল করা হবে।

মন্ত্রণালয় আরও জানিয়েছে, এসব দেশের ভ্রমণকারীদের সিঙ্গাপুরের কঠোর সীমান্ত পদক্ষেপ মেনে চলতে হবে অর্থাৎ নির্ধারিত স্থানে দশ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এসব দেশের করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনায় দেখা গেছে কিছু দিন ধরে স্থিতিশীল আছে। তাই এসব দেশের ভ্রমণকারীদের এখানে আসা ঠেকাতে কঠোর বিধিনিষেধের প্রয়োজন নেই।

/এএ/

সম্পর্কিত

যুক্তরাষ্ট্রসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতদের বহিষ্কারের ঘোষণা এরদোয়ানের

যুক্তরাষ্ট্রসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতদের বহিষ্কারের ঘোষণা এরদোয়ানের

আরএসএস’র অনেক আদর্শই বামপন্থী, চাঞ্চল্যকর দাবি সাধারণ সম্পাদকের

আরএসএস’র অনেক আদর্শই বামপন্থী, চাঞ্চল্যকর দাবি সাধারণ সম্পাদকের

স্কুলশিশুদের হোমওয়ার্কের চাপ কমাচ্ছে চীন

স্কুলশিশুদের হোমওয়ার্কের চাপ কমাচ্ছে চীন

আফগানিস্তানে অভিযান, আকাশসীমা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র-পাকিস্তান সমঝোতার ইঙ্গিত

আফগানিস্তানে অভিযান, আকাশসীমা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র-পাকিস্তান সমঝোতার ইঙ্গিত

যুক্তরাষ্ট্রসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতদের বহিষ্কারের ঘোষণা এরদোয়ানের

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ২১:৫৮

তুরস্কে নিযুক্ত ১০ পশ্চিমা দেশের রাষ্ট্রদূতদের বহিষ্কারের ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান। মানবপ্রেমী হিসেবে পরিচিত কারাবন্দি ওসমান কাভালার মুক্তির দাবি তোলায় তাদের বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দেন তিনি। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

শনিবার এরদোয়ান জানান, ওসমান কাভালার মুক্তির দাবি তোলায় তিনি ১০ পশ্চিমা দেশের রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারের জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন।

এই ১০টি দেশ হচ্ছে কানাডা, ডেনমার্ক, ফ্রান্স, জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, নরওয়ে, সুইডেন, ফিনল্যান্ড, নিউ জিল্যান্ড ও যুক্তরাষ্ট্র। গত ১৮ অক্টোবার এক যৌথ বিবৃতিতে কাভালার মুক্তি নিশ্চিত করতে তুরস্কের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন আঙ্কারায় নিযুক্ত এই দেশগুলোর রাষ্ট্রদূতরা।

এর পরপরই রাষ্ট্রদূতদের এমন আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করেন এরদোয়ান। তিনি বলেন, এসব রাষ্ট্রদূতদের তুরস্কে জায়গা দেওয়া উচিত নয়।

গত মঙ্গলবার বিবৃতিদাতা রাষ্ট্রদূতদের তলব করে তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বিদেশি কূটনীতিকদের এমন আচরণকে দায়িত্বজ্ঞানহীন বলে অভিহিত করা হয়।

দোষী সাব্যস্ত না হলেও ২০১৭ সাল থেকে কারাগারে রয়েছেন মানবপ্রেমী কাভালা। ২০১৩ সালে তুরস্কজুড়ে বিক্ষোভের মামলায় গত বছর বেকসুর খালাস পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু এই বছর আগের রায়টি খারিজ করে দেওয়া হয়েছে এবং ২০১৬ সালের অভ্যুত্থান চেষ্টার মামলায় এটিকে অঙ্গীভূত করা হয়েছে। তবে কোনও অন্যায় করার কথা অস্বীকার করে আসছেন কাভালা। 

তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র তাঞ্জু বিলজিক বলেন, যেখানে নিয়োগ পেয়েছেন সেই দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলানো রাষ্ট্রদূতদের কাজ নয়। তাই স্বাধীন দেশ হিসেবে উপযুক্ত মনে করলে যে কোনও পদক্ষেপ নিতে পারে তুরস্ক।

/এমপি/

সম্পর্কিত

বাংলাদেশসহ ৬ দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সিঙ্গাপুরের

বাংলাদেশসহ ৬ দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সিঙ্গাপুরের

আরএসএস’র অনেক আদর্শই বামপন্থী, চাঞ্চল্যকর দাবি সাধারণ সম্পাদকের

আরএসএস’র অনেক আদর্শই বামপন্থী, চাঞ্চল্যকর দাবি সাধারণ সম্পাদকের

স্কুলশিশুদের হোমওয়ার্কের চাপ কমাচ্ছে চীন

স্কুলশিশুদের হোমওয়ার্কের চাপ কমাচ্ছে চীন

ন্যাটোর জন্য ক্ষতিকর জোট নিয়ে তুরস্কের হুঁশিয়ারি

ন্যাটোর জন্য ক্ষতিকর জোট নিয়ে তুরস্কের হুঁশিয়ারি

শুধু সম্মেলন নয়, আমাদের প্রয়োজন জনগণের চাপ: গ্রেটা থুনবার্গ

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ২১:২০

জলবায়ুকর্মী গ্রেটা থুনবার্গ বলেছেন, জনগণের পক্ষ থেকে চাপ না থাকলে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে পদক্ষেপ গ্রহণ শুধু সম্মেলন দিয়ে হবে না। শনিবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি একথা বলেন।

কপ২৬ জলবায়ু সম্মেলনের আগে থুনবার্গ বলেছেন, জনগণের উচিত ব্যবস্থাকে সমূলে উৎপাটন করা। তার কথায়, মানুষ যখন চাইবে তখন পরিবর্তন হবে। তাই এসব সম্মেলন দিয়ে কিছু হবে বলে আমরা প্রত্যাশা করি না।

রাজনীতিকরা অজুহাত হাজির করছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

৩১ অক্টোবর থেকে ১২ নভেম্বর স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে কপ২৬ জলবায়ু সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। ২০১৫ সালে প্যারিস চুক্তি স্বাক্ষরের পর এটিই বৃহত্তম জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক শীর্ষ সম্মেলন। প্রায় ২০০টি দেশকে গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমণ কমানোর পরিকল্পনা হাজির করতে বলা হয়েছে। বৈশ্বিক উষ্ণতার প্রধান কারণ এই গ্যাস।

থুনবার্গ সম্প্রদি জলবায়ু পরিবর্তনকে কেন্দ্রে রেখে একটি বৈশ্বিক সিরিজ কনসার্ট শুরু করেছেন ক্লাইমেট লাইভ শিরোনাম। তিনি বিবিসিকে জানিয়েছেন, কপ২৬ সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন। বিশ্বনেতাদের প্রতি তার বার্তা হলো সৎ থাকার জন্য।

থুনবার্গ বলেন, আমার মতে মানুষ যখন পরিস্থিতির গুরুত্ব এবং যে সংকটের মুখোমুখি আমরা তা বুজতে পারবে তখন সফলতা আসতে শুরু করবে। আমাদের বড় পরিবর্তন প্রয়োজন, আমাদের এই ব্যবস্থাকে উৎখাত করতে হবে কারণ তখনই কেবল পরিবর্তন আসবে।

তিনি বিশ্বাস করেন না ২০৫০ সালের মধ্যে যুক্তরাজ্যের গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমণ শূন্যে কমিয়ে আনার লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে। এমনকি যুক্তরাজ্য জলবায়ু নেতা হিসেবেও মানতে রাজি নন তিনি।

এই অ্যাক্টিভিস্ট বলেন, দুর্ভাগ্যবশত বর্তমানে আমাদের কোনও জলবায়ু নেতা নেই। কিন্তু এর মানে এই নয় যে তার আকস্মিক কোনও সিদ্ধান্ত পারবে না।

তিনি নিজের বিষয়ে বলেন, আমি নিজেকে জলবায়ু সেলিব্রেটি হিসেবে বিবেচনা করি না। আমি নিজেকে একজন জলবায়ু অ্যাক্টিভিস্ট হিসেবে দেখি। আমার কৃতজ্ঞ থাকা উচিত কারণ অনেক মানুষের কোনও প্ল্যাটফর্ম নেই এবং যাদের কথা কেউ শুনছে না, অনেকের কণ্ঠ স্তব্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

থুনবার্গের কথায়, ঘরোয়া জীবনে আমি একেবারে ভিন্ন মানুষ। ব্যক্তিজীবনে আমাদের অনেকেই চিনতে পারবে না। মিডিয়ায় আমি খুব রাগী কিন্তু ব্যক্তিজীবনে নিরীহ।

/এএ/

সম্পর্কিত

কোভিড প্রতিরোধের সর্বোত্তম উপায় হতে পারে হোম অফিস: বলছেন বিজ্ঞানীরা

কোভিড প্রতিরোধের সর্বোত্তম উপায় হতে পারে হোম অফিস: বলছেন বিজ্ঞানীরা

ন্যাটোর জন্য ক্ষতিকর জোট নিয়ে তুরস্কের হুঁশিয়ারি

ন্যাটোর জন্য ক্ষতিকর জোট নিয়ে তুরস্কের হুঁশিয়ারি

ইরানের বিরুদ্ধে পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘনের অভিযোগ ফ্রান্সের

ইরানের বিরুদ্ধে পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘনের অভিযোগ ফ্রান্সের

‘শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য ন্যাটো তৈরি হয়নি’

‘শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য ন্যাটো তৈরি হয়নি’

আরএসএস’র অনেক আদর্শই বামপন্থী, চাঞ্চল্যকর দাবি সাধারণ সম্পাদকের

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ২০:৪৬

ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপি’র মতাদর্শিক সংগঠন রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘ (আরএসএস)-এর অনেক আদর্শই বামপন্থী। এমন চাঞ্চল্যকার দাবি করেছেন হিন্দুত্ববাদী সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক দত্তত্রেয় হোসাবলে। শুক্রবার আরএসএস নেতা রাম মাধবের লেখা ‘দ্য হিন্দুত্ব প্যারাডাইম: ইন্টিগ্রাল হিউম্যানিজম অ্যান্ড দ্য কোয়েস্ট ফর দ্য নন-ওয়েস্টার্ন ওয়ার্ল্ড ভিউ’ নামে একটি বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

দত্তত্রেয় হোসাবলে বলেন, ‘হিন্দুত্বের কোনও ডানপন্থা বা বামপন্থা নেই। আমি আরএসএস থেকে এসেছি। সংঘের প্রশিক্ষণ শিবিরে আমাদের বক্তৃতায় কখনও বলিনি যে আমরা ডানপন্থী। আমাদের অনেক ধারণাই বামপন্থী ধারণার মতো এবং অনেকগুলো নিশ্চিতভাবেই এই তথাকথিত ডানপন্থী।’

অনুষ্ঠানে হোসাবলে বলেন, “পৃথিবী বাম দিকে চলে গিয়েছিল, বা বামদিকে যেতে বাধ্য হয়েছিল এবং এখন পরিস্থিতি এমন যে, পৃথিবী ডানদিকে চলে যাচ্ছে, যাতে এটি মধ্যবর্তী স্থানে থাকে। সেটাই হিন্দুত্বের কথা, না বাম, না ডান। হিন্দুত্বের সারমর্ম হলো, প্রতিটি ক্ষেত্র থেকে সেরা বিষয়টি গ্রহণ করা এবং আপনার প্রয়োজন, পারিপার্শ্বিকতা এবং জীবন অনুসারে সেটিকে একটি ধাঁচে ফেলা। বাম ও ডান উভয় পক্ষের ধারণার জন্যই স্থান রয়েছে, যেহেতু এগুলো ‘মানব অভিজ্ঞতা’ থেকে উঠে এসেছে।”

হোসাবলের দাবি, ‘বর্তমান সময়ের নিরিখে অপ্রাসঙ্গিক হওয়া সত্ত্বেও বহু ঔপনিবেশিক বিষয় অব্যাহত রয়েছে দেশে।’ নিজের যুক্তির স্বপক্ষে তিনি আরও বলেন, ‘ভারতের প্রধান বিচারপতির সম্প্রতি মন্তব্য করেছেন যে ভারতীয় বিচার ব্যবস্থা দেশের জন্য উপযুক্ত নয়।’

হোসাবলে ভারতীয়দের দীর্ঘায়ুর জন্য সাংস্কৃতিক সংহতির গুরুত্বের কথা বলেছেন। তিনি বলেন, ‘বার্লিন প্রাচীরের পতনের সেই ঘটনায় জার্মানিকে পুনরায় একত্রিত করেছিল।’  

সোভিয়েত ইউনিয়নের ভেঙে যাওয়ার কথা তুলে ধরে তিনি আরও বলেন, ‘কোনও জোরপূর্বক বিভাজন বা সংযুক্তিকরণ টিকে থাকে না। সংস্কৃতিই এর ভিত্তি।’

ভারতের রাজনীতিতে বামপন্থা এবং হিন্দুত্ববাদ দু’টি পরস্পরবিরোধী ধারা হিসেবে পরিচিত। একে অপরের কট্টর সমলোচকও বটে। আরএসএস নিজেকে একটি অরাজনৈতিক সংগঠন বললেও এই মুহূর্তে বিজেপির মাধ্যমে ভারতীয় রাজনীতির প্রধান চালিকা শক্তি তারাই। অপরদিকে, বামপন্থীরা বর্তমানে দেশের মধ্যে ক্ষয়িষ্ণু শক্তি হিসেবে পরিচিত। ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটের পর তৃণমূলকে হারাতে ‘বাম ভোট রামে’ চলে গিয়েছে এমন দাবি উঠেছিল রাজনৈতিক মহলে। এবার ২০২৪ লোকসভা ভোটের আগে, হিন্দুত্ববাদের মধ্যে বামপন্থাকে হাজির করা হচ্ছে!  আরএসএস’র এই দাবির মধ্য দিয়ে দেশের অবশিষ্ট বামভোটকে বিজেপির দিকে টেনে আনার পরিকল্পনা কিনা, তা নিয়ে চর্চা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

/এএ/

সম্পর্কিত

বাংলাদেশসহ ৬ দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সিঙ্গাপুরের

বাংলাদেশসহ ৬ দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সিঙ্গাপুরের

যুক্তরাষ্ট্রসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতদের বহিষ্কারের ঘোষণা এরদোয়ানের

যুক্তরাষ্ট্রসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতদের বহিষ্কারের ঘোষণা এরদোয়ানের

স্কুলশিশুদের হোমওয়ার্কের চাপ কমাচ্ছে চীন

স্কুলশিশুদের হোমওয়ার্কের চাপ কমাচ্ছে চীন

আফগানিস্তানে অভিযান, আকাশসীমা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র-পাকিস্তান সমঝোতার ইঙ্গিত

আফগানিস্তানে অভিযান, আকাশসীমা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র-পাকিস্তান সমঝোতার ইঙ্গিত

কোভিড প্রতিরোধের সর্বোত্তম উপায় হতে পারে হোম অফিস: বলছেন বিজ্ঞানীরা

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ২০:৩১

দুনিয়া ক্রমেই অগ্রসর হচ্ছে হোম অফিস বা ঘরে বসে কাজ করার দিকে। কোভিড মহামারি সেই প্রবণতায় অনুঘটকের কাজ করেছে। প্রথম সারির বহু সংস্থাই কর্মীদের দীর্ঘকালীন ওয়ার্ক ফ্রম হোমের ব্যবস্থা করছে। এতে যাতায়াতের কষ্ট ও সময় বাঁচছে। কাজ শেষে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে পারছেন কর্মীরা। যাতায়াতের স্ট্রেস না থাকায় কাজও ভালো হচ্ছে। এবার যুক্তরাজ্যের একদল বিজ্ঞানীও হোম অফিসের পক্ষে জোরালো মতামত দিয়েছেন।

সরকারের প্রতি তাদের পরামর্শ, এই শীতে কোভিডের বিস্তার থামাতে লোকজনকে বাসা থেকে কাজ করার পরামর্শ দেওয়া যেতে পারে। করোনা মোকাবিলায় এটি হতে পারে সবচেয়ে ইতিবাচক পদক্ষেপ।

সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইজরি গ্রুপ ফর ইমার্জেন্সি (এসএজিই) নামের বিজ্ঞানীদের একটি সংস্থা থেকে ব্রিটিশ সরকারের প্রতি এই আহ্বান জানানো হয়েছে। এই সংস্থাটি জরুরি পরিস্থিতিতে সরকারের সিদ্ধান্ত গ্রহণকারীদের সহায়তার জন্য বৈজ্ঞানিক ও প্রযুক্তিগত পরামর্শ দিয়ে থাকে।

এসএজিই বলছে, কর্মক্ষেত্রে উপস্থিতি কিংবা কাজে যোগ দেওয়ার চাপ থেকে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। তাই সরকারের দ্রুত প্রয়োগের মতো কঠোর করোনাবিধি প্রস্তুত রাখা উচিত।

সম্প্রতি যুক্তরাজ্যজুড়ে কোভিড হাসপাতালগুলোতে ভর্তি এবং করোনায় মৃতের সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়তে শুরু করেছে। দেশটিতে গত ১০ দিন ধরে প্রতিদিন ৪০ হাজারেরও বেশি নতুন সংক্রমণ রেকর্ড করা হয়েছে। শুক্রবার নতুন করে আরও ৪৯ হাজার ২৯৮ জনের কোভিড শনাক্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ১৮০ জনের।

আসন্ন শীতে নতুন করে সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। সরকারের আশঙ্কা, দৈনিক সংক্রমণ এক লাখে উন্নীত হতে পারে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় লকডাউনের বদলে সচেতনতা ও অধিক সংখ্যায় টিকাদানের ওপর জোর দিচ্ছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। তবে বিজ্ঞানীদের পরামর্শ, শীতে সংক্রমণ মোকাবিলায় নাগরিকদের বাসায় অবস্থান করার নির্দেশনা দেওয়া উচিত সরকারের। এতে ভাইরাসের বিস্তার অনেকাংশেই কমে আসবে। আর এমন পরিস্থিতিতে বাসা থেকে কাজ করাই সর্বোত্তম উপায়।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন-ও বাসা থেকে কাজ করার বিষয়ে তার অবস্থান স্পষ্ট করেছেন। বিবিসি-কে তিনি জানিয়েছেন, বিষয়টি সরকারের বিবেচনাধীন রয়েছে। বিজ্ঞানীদের পরামর্শ অনুযায়ী, সামগ্রিক বিষয়াদি পর্যালোচনা করা হচ্ছে। জনসাধারণের সুরক্ষার জন্য যা প্রয়োজন সরকার সেটিই করে থাকে।

জনসন সরকারের মন্ত্রীরা অবশ্য বিজ্ঞানীদের প্রস্তাবের সঙ্গে পুরোপুরি একমত নন। সুনির্দিষ্ট কিছু ক্ষেত্রে মুখ ঢেকে রাখা বাধ্যতামূলক করার করার পরামর্শ দিয়েছেন তারা।

এদিকে কোভিডের ডেল্টা প্লাস ধরন নিয়ে ঝুঁকি বাড়ছে। সংক্রমণের দৌড়ে এরইমধ্যে এটি অতি সংক্রামক হিসেবে বিবেচিত ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টকে পেছনে ফেলতে সক্ষম হয়েছে। যুক্তরাজ্যে বর্তমানে করোনা রোগীদের ছয় শতাংশই ডেল্টা প্লাসে আক্রান্ত। কর্তৃপক্ষের আশঙ্কা, অদূর ভবিষ্যতে এটি আরও বাড়বে।

/এমপি/

সম্পর্কিত

শুধু সম্মেলন নয়, আমাদের প্রয়োজন জনগণের চাপ: গ্রেটা থুনবার্গ

শুধু সম্মেলন নয়, আমাদের প্রয়োজন জনগণের চাপ: গ্রেটা থুনবার্গ

ন্যাটোর জন্য ক্ষতিকর জোট নিয়ে তুরস্কের হুঁশিয়ারি

ন্যাটোর জন্য ক্ষতিকর জোট নিয়ে তুরস্কের হুঁশিয়ারি

ইরানের বিরুদ্ধে পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘনের অভিযোগ ফ্রান্সের

ইরানের বিরুদ্ধে পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘনের অভিযোগ ফ্রান্সের

‘শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য ন্যাটো তৈরি হয়নি’

‘শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য ন্যাটো তৈরি হয়নি’

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বাংলাদেশসহ ৬ দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সিঙ্গাপুরের

বাংলাদেশসহ ৬ দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সিঙ্গাপুরের

যুক্তরাষ্ট্রসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতদের বহিষ্কারের ঘোষণা এরদোয়ানের

যুক্তরাষ্ট্রসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতদের বহিষ্কারের ঘোষণা এরদোয়ানের

আরএসএস’র অনেক আদর্শই বামপন্থী, চাঞ্চল্যকর দাবি সাধারণ সম্পাদকের

আরএসএস’র অনেক আদর্শই বামপন্থী, চাঞ্চল্যকর দাবি সাধারণ সম্পাদকের

স্কুলশিশুদের হোমওয়ার্কের চাপ কমাচ্ছে চীন

স্কুলশিশুদের হোমওয়ার্কের চাপ কমাচ্ছে চীন

আফগানিস্তানে অভিযান, আকাশসীমা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র-পাকিস্তান সমঝোতার ইঙ্গিত

আফগানিস্তানে অভিযান, আকাশসীমা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র-পাকিস্তান সমঝোতার ইঙ্গিত

স্মার্টফোন কিনতে বিয়ের এক মাসের মধ্যেই স্ত্রীকে বিক্রি

স্মার্টফোন কিনতে বিয়ের এক মাসের মধ্যেই স্ত্রীকে বিক্রি

ইরানের বিরুদ্ধে পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘনের অভিযোগ ফ্রান্সের

ইরানের বিরুদ্ধে পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘনের অভিযোগ ফ্রান্সের

দেশজুড়ে সামরিক মহড়া জাপানের

দেশজুড়ে সামরিক মহড়া জাপানের

আসিয়ান সম্মেলনে অরাজনৈতিক প্রতিনিধিকে আমন্ত্রণে ক্ষুব্ধ মিয়ানমার

আসিয়ান সম্মেলনে অরাজনৈতিক প্রতিনিধিকে আমন্ত্রণে ক্ষুব্ধ মিয়ানমার

সর্বশেষ

ধর্মীয় সম্প্রীতিতে বাংলাদেশ বিশ্বে নাম্বার ওয়ান: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ধর্মীয় সম্প্রীতিতে বাংলাদেশ বিশ্বে নাম্বার ওয়ান: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনা সাজানো: ইনু

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনা সাজানো: ইনু

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

অন্তর্ভুক্তিমূলক জাতিসংঘ গড়ে তুলতে সম্মিলিত প্রচেষ্টার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

অন্তর্ভুক্তিমূলক জাতিসংঘ গড়ে তুলতে সম্মিলিত প্রচেষ্টার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

© 2021 Bangla Tribune