X
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

যুবলীগ নেতাকে রাজাকারের সন্তান আখ্যা দিয়ে বহিষ্কার দাবি

আপডেট : ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৩৬

নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক এবং পৌর আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক বিহারী দিলনেওয়াজ খানকে রাজাকারের সন্তান আখ্যা দিয়ে দল থেকে বহিষ্কারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

রবিবার (৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শহরের শহীদ তুলশিরাম সড়কে অবস্থিত আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে যৌথভাবে সংবাদ সম্মেলনটির আয়োজন করে দলটির উপজেলা ও পৌর কমিটি। এ সংক্রান্ত একটি স্মারকলিপিও প্রধানমন্ত্রী বরাবর দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উপজেলা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক বলেন, ‘দিলনেওয়াজ খান কুখ্যাত রাজাকার ও যুদ্ধাপরাধী নঈম গুন্ডার ছেলে। যুদ্ধাপরাধী হিসেবে ১৯৭৩ সালে রংপুর আদালতে একটি মামলা করা হয়। ওই মামলায় সাজা হয়েছিল নঈম গুন্ডার। তার ছেলে দিলনেওয়াজ খান দলে অনুপ্রবেশ করে উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়কের পদ দখল করেন। সুকৌশলে তিনি আওয়ামী লীগের পৌর কমিটিতে যুব ও ক্রীড়া সম্পাদকের পদেও বসেন। তার বিরুদ্ধে হিন্দু মাড়োয়ারি বাড়ি দখল করে সাইনবোর্ড লাগানো ও চাঁদাবাজির অভিযোগে একটি মামলা বিচারাধীন রয়েছে। চলতি বছরের ২০ মে তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র প্রয়াত আখতার হোসেন বাদলের ছোট বোনকে লাঞ্ছিত করেন। এ নিয়ে থানায় মামলা হয়েছে।’

এছাড়াও তার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা, রেলের একাধিক জমি দখল করে ভবন নির্মাণ এবং গত পাঁচ বছরে ২০ কোটি টাকার চাঁদাবাজির অভিযোগ করা হয় সংবাদ সম্মেলনে। আওয়ামী লীগের এ নেতা আরও বলেন, ‘এসবের কারণে ইতোপূর্বে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। কিন্তু অজ্ঞাত খুঁটির জোরে স্বপদে ফিরে আসেন। আমরা তাকে পুনরায় বহিষ্কারে দলগতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

এ বিষয়ে একটি স্মারকলিপি প্রধানমন্ত্রী ও দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক বরাবরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে পাঠানো হয়। স্মারকলিপিটি পেয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শামিম হুসেইন।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মহসিনুল হক, পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম বাবু, আওয়ামী লীগ নেতা সাখাওয়াত হোসেন খোকন প্রমুখ।

তবে দিলনেওয়াজ সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। আমি বঙ্গবন্ধুর সৈনিক হিসেবে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

জেলা প্রশাসনের বিজ্ঞপ্তি ফেসবুকে ভাইরাল

জেলা প্রশাসনের বিজ্ঞপ্তি ফেসবুকে ভাইরাল

থানার জানালা ভেঙে পালালেন আসামি, ২ পুলিশ প্রত্যাহার

থানার জানালা ভেঙে পালালেন আসামি, ২ পুলিশ প্রত্যাহার

সিরাজগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে ৬ চেয়ারম্যান

সিরাজগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে ৬ চেয়ারম্যান

গাইবান্ধায় রিকশাচালক হত্যার ঘটনায় দুই ভাই কারাগারে

গাইবান্ধায় রিকশাচালক হত্যার ঘটনায় দুই ভাই কারাগারে

সাতক্ষীরায় ১০ সাংবাদিক পেলেন মিডিয়া ফেলোশিপ

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৯

সাতক্ষীরায় অ্যাকশন ফর ইমপ্যাক্ট প্রকল্পের আওতায় ১০ সাংবাদিককে 'মিডিয়া ফেলোশিপ- ২০২১ দেওয়া হয়েছে। এ উপলক্ষে দৈনিক পত্রদূত ও এনজিও সংস্থা হেডের আয়োজনে অ্যাডভোকেসি সভা ও সনদ বিতরণ করা হয়।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে দৈনিক পত্রদূতের উপদেষ্টা মন্ডলীর সভাপতি সাবেক অধ্যক্ষ মো. আনিসুর রহিমের সভাপতিত্বে সভা ও সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির।

প্রধান অতিথি বলেন, আমাদের সমাজে নারী ও শিশু শ্রমিকরা কর্মক্ষেত্রে ন্যায্য মজুরি পায় না। সে জন্য মালিকপক্ষকে শ্রমিকদের নিয়োগপত্র ও কর্মশোভন পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে বলেও মনে করেন তিনি।

দৈনিক পত্রদূতের উপদেষ্টা সম্পাদক আবুল কালাম আজাদের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিনিয়র সাংবাদিক সুভাষ চৌধুরী, শরিফুল্লাহ কায়সার সুমন, দৈনিক পত্রদূতের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক লায়লা পারভীন সেঁজুতি, হেড সংস্থার নির্বাহী পরিচালক লুইস রানা গাইন ও পত্রদূতের বার্তা সম্পাদক এস এম শহিদুল ইসলাম।

উপযুক্ত কাজের পরিবেশ, নারী ও শিশু শ্রমিকদের মজুরি বৈষম্যসহ নানা বিষয় উঠে আসে রিপোর্টিংয়ের মাধ্যমে। এর আগে সাতক্ষীরায় কর্মরত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকরা দুই দিন প্রশিক্ষণ নিয়ে মাসব্যাপী রিপোর্টিংয়ে অংশ নেন।  

ফেলোশিপ পাওয়া ১০ সাংবাদিক হলেন দৈনিক যুগান্তর ও এনটিভির জেলা প্রতিনিধি সুভাস চৌধুরী, জনকণ্ঠের মিজানুর রহমান, সময়ের খবরের রুহুল কুদ্দুস, পত্রদূতের বার্তা সম্পাদক এস এম শহিদুল ইসলাম, মোহনা টিভির মো. আব্দুল জলিল, খোলা কাগজের ইব্রাহিম খলিল, চ্যানেল নাইনের কৃষ্ণ মোহন ব্যানার্জী, বাংলা ট্রিবিউনের আসাদুজ্জামান সরদার, পত্রদূতের নাজমুল শাহাদাৎ জাকির ও ইব্রাহিম খলিল।

তাদের ফেলোশিপের জন্য মনোনীত করে আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়। এর মধ্যে থেকে তিনজনকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। এতে প্রথম হন বাংলা ট্রিবিউনের জেলা প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান সরদার, দ্বিতীয় হন দৈনিক বাংলার এসএম শহীদুল ইসলাম এবং তৃতীয়  মোহনা টিভির মো. আব্দুল জলিল।

/এএম/এলকে/

সম্পর্কিত

মাংস খাওয়া নিয়ে সংঘর্ষে নববধূকে তালাক, পরদিন ফের বিয়ে

মাংস খাওয়া নিয়ে সংঘর্ষে নববধূকে তালাক, পরদিন ফের বিয়ে

পুকুরে বাবা-মা-মেয়ের লাশ: পুলিশ হেফাজতে ৪ জন

পুকুরে বাবা-মা-মেয়ের লাশ: পুলিশ হেফাজতে ৪ জন

দুবলার চরে যাচ্ছেন জেলেরা 

দুবলার চরে যাচ্ছেন জেলেরা 

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

বুয়েটে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০২:০৯

চলতি সেশনে বুয়েটে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ময়মনসিংহ মহানগরীর বাঘমারা এলাকার চিত্ত করের কন্যা রিয়া কর (১৮) এর মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার সময় বাসা থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরিবারের দাবি, বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষায় প্রাথমিক বাছাইয়ে উত্তীর্ণ হতে না পেরে রাগ ও ক্ষোভে রিয়া ঘরের ফ্যানের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে।

রিয়া করের মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতোয়ালী মডেল থানার পুলিশ ইন্সপেক্টর ফারুক হোসেন জানান, মহানগরীর বাঘামারা এলাকার ব্যবসায়ী চিত্ত করের কন্যা রিয়া কর এবার বুয়েটে ভর্তির জন্য প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষায় অংশ নেয়। মঙ্গলবার বিকেল ৪টার সময় ফলাফল বের হলে তাতে রিয়া কৃতকার্য হতে পারেনি। ফলাফল দেখে কাউকে কিছু না বলে নিজ কক্ষে চলে যায়। সন্ধ্যার দিকে দরজা বন্ধ দেখে পরিবারের লোকজন ডাকাডাকি করেও কোনও সাড়া পায় না। একপর্যায়ে ঘরের দরজা ভেঙ্গে দেখতে পায় ফ্যানের সাথে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলে আছে রিয়া।

পরিবারের লোকজন ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ বিষয়ে থানায় অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে। ময়না তদন্তের জন্য মরদেহ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

রিয়ার স্বজন ঐশী জানান, রিয়া কর ক্যান্টমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এসএসসি ও এইচএসসিতে গোল্ডেন এ প্লাস পেয়ে বুয়েটে ভর্তির জন্য কোচিংয়ে লেখাপড়া করে আসছিল। ভর্তির জন্য প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষায় অংশ নেয়। তিনি আরও জানান, পরিবারের বাসায় অনেক লোক একসাথে থাকার কারণে পাশেই একটি রুম ভাড়া করে একা থেকে লেখাপড়া চালিয়ে যাচ্ছিল রিয়া। তার মৃত্যুতে তার বাবা চিত্ত কর ও মা ভেঙ্গে পড়েছেন।

রিয়ার পিতা চিত্ত করের গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনার মদন থানায়। বাঘমারায় তিনি দীর্ঘ দিন ধরে বসবাস করে আসছেন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

একটি সেতুর জন্য পাঁচ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

একটি সেতুর জন্য পাঁচ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা সেজে কোটিপতি, নিয়েছেন সরকারি ফ্ল্যাট

যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা সেজে কোটিপতি, নিয়েছেন সরকারি ফ্ল্যাট

কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে একজন গ্রেফতার

কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে একজন গ্রেফতার

চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, আটক ৩

চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, আটক ৩

কুমিল্লায় মন্দিরে হামলা মামলায় ১৬ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০০:১৩

কুমিল্লা শহরের কাপড়িয়াপট্টি চাঁন্দমনি রক্ষাকালী মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলায় গ্রেফতার ১৭ আসামির ১৬ জনকে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে দুই দিন করে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার কুমিল্লার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ১ নম্বর আমলি আদালতের বিচারক নুসরাত জাহান উর্মি এ আদেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ১৭ আসামির একজন শিশু হওয়ায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ (জেলা ও দায়রা জজ) আদালত জামিন দেন। বাকি ১৬ আসামিকে দুই দিন করে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেওয়া হয়। কোতোয়ালি মডেল থানার উপ-পরিদর্শক ও মামলার বাদী আলিম খান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত ১৩ অক্টোবর নগরীর নানুয়াদিঘির পাড় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখার ঘটনায় নগরের কয়েকটি পূজামণ্ডপে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এর জেরে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ, নোয়াখালীর চৌমুহনী, রংপুরের পীরগঞ্জসহ কয়েক স্থানে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে সিসিটিভির ফুটেজের মাধ্যমে পূজামণ্ডপে কোরআন রাখায় প্রধান অভিযুক্ত ইকবালকে শনাক্ত করে পুলিশ।

গত ২১ অক্টোবর ইকবালকে কক্সবাজার থেকে গ্রেফতার করা হয়। ২২ অক্টোবর তাকে কুমিল্লায় এনে ২৩ অক্টোবর আদালতে হাজির করা হলে ইকবাল, মাজারের দুই খাদেম ও ৯৯৯-এ কল করা ইকরামের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক।

/এএম/এলকে/

সম্পর্কিত

৫ ইউনিয়নের কোনও পদেই প্রতিদ্বন্দ্বী নেই

৫ ইউনিয়নের কোনও পদেই প্রতিদ্বন্দ্বী নেই

সেতুর অপেক্ষায় তিন যুগ লক্ষাধিক মানুষ

সেতুর অপেক্ষায় তিন যুগ লক্ষাধিক মানুষ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে দুজনের মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে দুজনের মৃত্যু

৫ ইউনিয়নের কোনও পদেই প্রতিদ্বন্দ্বী নেই

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ২২:৪৫

দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে কুমিল্লার তিন উপজেলার ২২ ইউনিয়নে আগামী ১১ নভেম্বর ভোটগ্রহণ হবে। এর মধ্যে সাতটিতেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হতে যাচ্ছেন নৌকার প্রার্থীরা।

এমনকি জেলার লাকসাম উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্যের সবকয়টি পদেও একক প্রার্থীর কারণে সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হচ্ছেন। এ প্রার্থীদের সবাই সরকার দলীয়। স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের নির্বাচনি আসন হলো লাকসাম (কুমিল্লা-৯)। ইউনিয়নগুলো হলো- গোবিন্দপুর, উত্তরদা, লাকসাম পূর্ব, কান্দিরপাড় ও আজগরা।

জেলা নির্বাচন অফিস জানিয়েছে, ২২ ইউনিয়নের মধ্যে লাকসাম ছাড়া মেঘনা ও তিতাস উপজেলার ১৫ ইউপিতে চেয়ারম্যান এবং ১৭টি সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

জেলার তিতাস উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে কড়িকান্দি ইউনিয়নে সাইফুল আলম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ের পথে। তিনি উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক। তবে এই উপজেলার বাকি আট ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী, স্বতন্ত্র ও জাতীয় পার্টির একাধিক প্রার্থী রয়েছেন।

অপরদিকে, মেঘনা উপজেলায় আট ইউনিয়নের মধ্যে চন্দনপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আসাদুল্লাহ মাস্টার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ের পথে। তিনি ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সভাপতি। বাকি সাত ইউনিয়নে দলীয় প্রার্থীর বিপরীতে সাত জন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। পাশাপাশি এই উপজেলার তিন ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থীরা নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন।

এসব তথ্য নিশ্চিত করে কুমিল্লা জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মঞ্জুরুল আলম জানান, তিন উপজেলার ২২ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৯৪ বৈধ প্রার্থীর মধ্যে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন ১৪ জন। সাধারণ ওয়ার্ডে সদস্য পদে বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা ৪৭৪। আর সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে বৈধ প্রার্থী ১৪৫ জন। এর মধ্যে সাধারণ সদস্য পদে ৬১ এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১৯ প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হচ্ছেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

কুমিল্লায় মন্দিরে হামলা মামলায় ১৬ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

কুমিল্লায় মন্দিরে হামলা মামলায় ১৬ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

সেতুর অপেক্ষায় তিন যুগ লক্ষাধিক মানুষ

সেতুর অপেক্ষায় তিন যুগ লক্ষাধিক মানুষ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে দুজনের মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে দুজনের মৃত্যু

সেতুর অপেক্ষায় তিন যুগ লক্ষাধিক মানুষ

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ২২:৩৩

চন্দ্রঘোনায় কর্ণফুলী নদীতে একটি সেতুর দাবি দীর্ঘদিনের। এই সড়কে চলাচলকারী লক্ষাধিক মানুষের দুর্ভোগ গত ৩৮ বছরের। বান্দরবান জেলার সঙ্গে রাঙামাটি ও খাগড়াছড়িতে যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম ফেরি। দীর্ঘ তিন যুগ পরও চন্দ্রঘোনায় কর্ণফুলী নদীতে একটি সেতুর অভাবে রাঙ্গুনিয়া, রাঙামাটি-রাজস্থলী-বান্দরবান সড়কের লিচুবাগান ফেরিঘাট এলাকায় যানবাহন ও মানুষের চলাচলে ভোগান্তি বেড়েই চলছে। 

এই সড়কে প্রতিদিন ছোটবড় হাজার খানেক যানবাহন চলাচল করে। গাড়ি কম কিংবা বেশি হলেই ফেরির জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা দুই পাড়ের মানুষকে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষায় থাকতে হয়। যুগের পর যুগ দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন তারা।

২০১৭ সালে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের চন্দ্রঘোনা ফেরিঘাট পরিদর্শন শেষে সেতু অথবা টানেল নির্মাণের আশ্বাস দেন। ওই আশ্বাসের বাস্তবায়ন চান স্থানীয় বাসিন্দা ও জনপ্রতিনিধিরা। তবে সেতু নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের পর সিদ্ধান্তের কথা জানায় সড়ক ও জনপথ বিভাগ।

লক্ষাধিক মানুষের দুর্ভোগ গত ৩৮ বছরের

আবার কর্ণফুলী নদীতে অস্বাভাবিক জোয়ার এবং কাপ্তাই লেক থেকে পানি ছাড়ার কারণে ফেরির পাটাতন নদীতে ডুবে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে জনদুর্ভোগ বেড়ে যায়। মাঝেমধ্যে ফেরি বিকল হয়। এতে দুই পাড়ের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। দুই পাড়ে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে বড় ধরনের যানজট সৃষ্টি হয়। সময় বাঁচাতে অনেকে ঝুঁকি নিয়ে ছোট ছোট সাম্পান দিয়ে পার হয় নদী। কর্ণফুলী নদীতে যোগাযোগের জন্য রাঙামাটি সড়ক ও জনপথ বিভাগ ১৯৮৪ সালে ফেরি চলাচল শুরু করে। সেতুর অভাবে ভোগান্তিতে আছে এখানের প্রায় দেড় লাখ মানুষ।

একটি মাত্র ফেরি প্রতিদিন ভোর ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত চলাচল করে। বাকি সময়ে সম্পানই ভরসা। ফেরি স্বল্পতায় কৃষিপণ্য, মৌসুমি ফল, জরুরি রোগী নিয়ে বিপাকে পড়তে হয় দুই পাড়ের বাসিন্দাদের।

ফেরিযাত্রী মো. মিজানুর রহমান ও আক্তার হোসেন জানান, তাদের বাড়ি বান্দরবানে। প্রতি সপ্তাহে বাড়ি যান একসঙ্গে। ফেরি পারাপারে দুর্ভোগের শেষ নেই। পাঁচ মিনিটের পথে ৩০ মিনিট লেগে যায়। কোনও কোনও সময় এক ঘণ্টা লাগে। এই দুর্ভোগ কবে শেষ হবে জানা নেই তাদের।

সুমন চাকমা বলেন, আমার বাড়ি রাজস্থলী উপজেলায়। জরুরি কাজে রাঙামাটি যাই। এই পথে সেতু নির্মাণ হলে লক্ষাধিক মানুষের উপকার হবে। রাতে মানুষ চলাচল কম, তাই ফেরি বন্ধ থাকে। তখন হাসপাতাল নিতে না পেরে অনেক রোগী পথেই মারা যায়।

ফেরিঘাট এলাকায় যানবাহন ও মানুষের চলাচলে ভোগান্তি বেড়েই চলছে

ট্রাকচালক মো. মাহিন মিয়া বলেন, পচনশীল অনেক কৃষিপণ্য সঠিক সময়ে চট্টগ্রাম-ঢাকায় পৌঁছাতে না পারলে পচে যায়। ফেরির অপেক্ষায় দীর্ঘসময় ঘাটে কেটে যায়। সেতু হলে কৃষিপণ্যের ভালো দাম পাবেন এখানের কৃষকরা।

ফেরিচালক মিলন মারমা বলেন, আগের চেয়ে গাড়ির সংখ্যা বেড়েছে। আমরা সাধ্যমতো দ্রুতসময়ে যানবাহন পারের চেষ্টা করি। আমাদের মোবাইল নম্বর চেষ্টা করি সবার কাছে দিয়ে রাখতে। কারণ রাতে জরুরি প্রয়োজন হলে যেন আমাদের জানায়। এখানে আরও ফেরির প্রয়োজন। একটি সেতু হলে সবচেয়ে ভালো হয়।

রাঙামাটি কাপ্তাই ২ নম্বর রাইখালী ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মো. এনামুল হক বলেন, ২০১৭ সালে এই এলাকা পরিদর্শনে এসে  সেতুমন্ত্রী স্থানীয়দের দাবির মুখে সেতু অথবা টানেল নির্মাণের আশ্বাস দেন। অথচ দীর্ঘদিনেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। আমরা সেতুমন্ত্রীর আশ্বাসের বাস্তবায়ন দেখতে চাই।

তিনি বলেন, প্রচুর কৃষিপণ্য উৎপাদন হলেও যোগাযোগের সমস্যার কারণে কৃষকরা ন্যায্য দাম পান না। সেতু হলে সবার উপকার হবে।

রাঙামাটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শাহ আরেফিন বলেন, ভোগান্তি লাঘবে প্রাথমিকভাবে বড় ফেরি যুক্ত করা হয়েছে। কর্ণফুলী নদীতে সেতু নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের পর সেতু নির্মাণের কাজ শুরু হবে।

/এএম/

সম্পর্কিত

কুমিল্লায় মন্দিরে হামলা মামলায় ১৬ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

কুমিল্লায় মন্দিরে হামলা মামলায় ১৬ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

৫ ইউনিয়নের কোনও পদেই প্রতিদ্বন্দ্বী নেই

৫ ইউনিয়নের কোনও পদেই প্রতিদ্বন্দ্বী নেই

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে দুজনের মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে দুজনের মৃত্যু

মীরসরাইয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিসে ভাঙচুরের অভিযোগ

মীরসরাইয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিসে ভাঙচুরের অভিযোগ

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

জেলা প্রশাসনের বিজ্ঞপ্তি ফেসবুকে ভাইরাল

জেলা প্রশাসনের বিজ্ঞপ্তি ফেসবুকে ভাইরাল

থানার জানালা ভেঙে পালালেন আসামি, ২ পুলিশ প্রত্যাহার

থানার জানালা ভেঙে পালালেন আসামি, ২ পুলিশ প্রত্যাহার

সিরাজগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে ৬ চেয়ারম্যান

সিরাজগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে ৬ চেয়ারম্যান

গাইবান্ধায় রিকশাচালক হত্যার ঘটনায় দুই ভাই কারাগারে

গাইবান্ধায় রিকশাচালক হত্যার ঘটনায় দুই ভাই কারাগারে

আ.লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ হারুনের

আ.লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ হারুনের

চাহিদা থাকায় হিলি দিয়ে আসছে শুকনা মরিচ

চাহিদা থাকায় হিলি দিয়ে আসছে শুকনা মরিচ

অবৈধভাবে ভারত থেকে প্রবেশকালে বাংলাদেশি আটক

অবৈধভাবে ভারত থেকে প্রবেশকালে বাংলাদেশি আটক

পীরগঞ্জে হামলা: আরও ২ জন গ্রেফতার, রিমান্ডে ১৩

পীরগঞ্জে হামলা: আরও ২ জন গ্রেফতার, রিমান্ডে ১৩

অপহরণের নামে ৮ বছর আত্মগোপনে, অবশেষে কারাগারে বৃদ্ধ

অপহরণের নামে ৮ বছর আত্মগোপনে, অবশেষে কারাগারে বৃদ্ধ

নিম-মেহগনি বীজের তেলে মরছে ফসলের ক্ষতিকর পোকা

নিম-মেহগনি বীজের তেলে মরছে ফসলের ক্ষতিকর পোকা

সর্বশেষ

সাতক্ষীরায় ১০ সাংবাদিক পেলেন মিডিয়া ফেলোশিপ

সাতক্ষীরায় ১০ সাংবাদিক পেলেন মিডিয়া ফেলোশিপ

বুয়েটে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

বুয়েটে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

বিশ্বকাপ শেষ সাইফউদ্দিনের, মূল দলে রুবেল

বিশ্বকাপ শেষ সাইফউদ্দিনের, মূল দলে রুবেল

আর কত সুযোগ পাবেন লিটন?

আর কত সুযোগ পাবেন লিটন?

কারখানা থেকে ফেরার পথে ছিনতাইকারীর কবলে পোশাক শ্রমিক

কারখানা থেকে ফেরার পথে ছিনতাইকারীর কবলে পোশাক শ্রমিক

© 2021 Bangla Tribune