X
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৩ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

আনন্দমুখর শিক্ষালয়, শ্রেণিপাঠ অব্যাহত রাখার আশা

আপডেট : ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৫২

পৃথিবীজুড়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ বন্ধ হয়েছিল দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। দেড় বছর বন্ধ থেকে রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) থেকে খুলেছে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এদিন সকাল থেকেই রাজধানীসহ দেশের অধিকাংশ বিদ্যালয়ে ফিরেছে শিক্ষার্থীরা।

শহর থেকে গ্রাম, গঞ্জ থেকে পল্লী—করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে ছেলেমেয়েদের এই ফেরা ছিল একেবারেই নতুনত্বে ঘেরা। পাঠ্য সামগ্রীর সঙ্গে মুখে মাস্ক, হাতে স্যানিটাইজার, আর সামাজিক দূরত্ব রক্ষা করতে হয়েছে জোরালোভাবে।

শিক্ষাজীবনের ‘নিও নরমাল’ এই পরিস্থিতিতেও শিক্ষার্থীরা সহপাঠীদের সঙ্গে ক্লাসে ফেরার আনন্দ বিনিময় করেছে উল্লাসে। শিক্ষার্থীদের প্রিয়প্রাঙ্গণে ফেরার এই আনন্দ যেন ছুঁয়ে গেছে অভিভাবকদেরও। তবু করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়ে সতর্ক তারা।

সরকারের পক্ষ থেকেও করোনা সংক্রমণ রোধে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানানো হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শ্রেণিপাঠ অব্যাহত রাখা ও শিক্ষার্থীদের নিরাপদ রাখতে মানুষের সহযোগিতাও জরুরি বলে জানিয়েছেন দায়িত্বশীলরা। 

রবিবার স্কুল খুলবে—এমন খবর আগেই দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। খুশির এই খবরে শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে ফেরার প্রস্তুতিও যেন পাল্লা দিয়ে বেড়েছে। দেড় বছর বন্ধ থাকায় পরিবর্তন এসেছে ইউনিফর্মে, কেউ কেউ কিনেছে নতুন জুতো। আর শ্রেণিকক্ষে ফেরার এই আনন্দ শিক্ষকদের সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছে কর্তৃপক্ষও। স্কুলে-স্কুলে ফুল, চকোলেট দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়েছে শিক্ষার্থীদের। রঙিন বেলুন আর সতেজ বাহারি ফুলে সেজেছে শ্রেণিকক্ষ আর বিদ্যাঙ্গন।

রাজধানীর মোহাম্মদপুর, ধানমন্ডি, সোবহানবাগ, মিরপুর, ইস্কাটন, পুরান ঢাকার স্কুলগুলোতে সরেজমিন দেখা গেছে নানা চিত্র।

দেড় বছর পর সকালে প্রিয় প্রতিষ্ঠানে মুখে মাস্ক পরা অবস্থায় প্রতিষ্ঠানে পৌঁছে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে কিংবা স্যানিটাইজার ব্যবহার করে শিক্ষার্থীরা পৌঁছে যান শ্রেণিকক্ষে। শিক্ষার্থীদের বসার ব্যবস্থা করা হয়েছে শারীরিক দূরত্ব রেখে। স্বাস্থ্যবিধি মানাতে ব্যস্ত ছিলেন শিক্ষকরা।

দেড় বছর ধরে অনলাইনে ক্লাস করে শিক্ষার্থীদের অনেকের জন্য সরাসরি প্রথম ক্লাস। অনেক প্রতিষ্ঠানে দেখা গেছে ক্ষণে ক্ষণেই শারীরিক দূরত্ব ভুলে যাচ্ছিল শিক্ষার্থীরা। দেড় বছর পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শ্রেণি কার্যক্রমে ফেরা শিক্ষার্থীদের অনেকেই সহপাঠীদের দেখে আবেগ ধরে রাখতে পারেনি। প্রতিষ্ঠানের গেট পেরিয়েই নিয়মের বেড়াজাল ভুলে দৌড়ে একে অন্যকে জড়িয়ে ধরেছে। আর এমন পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খেয়েছেন শিক্ষকরা।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার প্রথম দিন সকালে আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে শিক্ষার্থীদের এমন উচ্ছ্বাস দেখা গেছে। এ সময় উপস্থিত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন খানিকটা থমকে গিয়ে সাংবাদিকদের জানালেন, ‘প্রথম দিন এমনটা ঠেকানো কঠিন। শিক্ষার্থীরা আবেগ ধরে রাখতে পারছে না।’

শিশু শিক্ষার্থীদের উচ্ছলতা ছিল নয়ন জুড়ানো। রবিবার রাজধানীর ইস্কাটনের টুইট টিউটোরিয়াল স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী দেবলীনা দত্ত। দেড় বছর পর স্কুলে এসে দেবলীনা স্কুলের ছোট্ট একটু খোলা মাঠে চরকির মতো ঘুরলো। দুই হাত ছড়িয়ে ঘুরে ঘুরে বললো, ‘খুব মজা লাগছে, খুব ভালো লাগছে।’

‘করোনা মহামারিতে এই দীর্ঘ সময়ে বিশেষ করে ছোট্ট শিশুরা বাইরে বের হওয়ার তেমন কোনও সুযোগ পায়নি’- বলছিলেন রাজধানীর উত্তরার চার নম্বর সেক্টরে চাইল্ড হ্যাভেন স্কুলের অধ্যক্ষ মঞ্জুরুল ইসলাম। তিনি বলেন, তাদের ঘরের ভেতরেই বন্দি থাকতে হয়েছে। দীর্ঘ প্রায় দেড় বছর পর আজ স্কুল খোলায় শিক্ষক হিসেবে আমরা যেমন খুশি, তেমনি শিক্ষার্থীদের মধ্যেও ছিল উৎসব আনন্দের আমেজ।

সরেজমিন বিদ্যালয়গুলোর দৃশ্য বলছে, বিদ্যালয়ে ফিরে শিক্ষার্থীদের উচ্ছ্বাস নিয়ে যতটা না আশঙ্কার, তার চেয়ে বেশি ‘ভয়ের’ কারণ ভাবা হচ্ছে অভিভাবকদের জটলায়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের পৌঁছে দিয়ে অভিভাবকরা গেটের বাইরে জটলা করে দাঁড়িয়ে বা বসে থাকছেন।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার প্রথম দিন আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের গেটেও অভিভাবকদের জটলা প্রসঙ্গে আকস্মিক পরিদর্শনে গিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ‘অভিভাবকরা যদি বাইরে ভিড় করেন, তাহলে সমস্যার কারণ হবে। শিক্ষার্থীদের পৌঁছে দিয়ে যদি চলে যেতে পারেন তাহলে ভালো। আর যদি চলে যেতে না পারেন, তাহলে স্বাস্থ্যবিধি যেন মেনে চলেন। যদি সংক্রমণ বাড়ে তাহলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আবারও বন্ধ করা হবে।’

এ সময় শিক্ষক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করার পাশাপাশি ডেঙ্গু মশার বিষয়ে সচেতন থাকার নির্দেশ দেন মন্ত্রী। প্রতিষ্ঠান প্রধানসহ সংশ্লিষ্টদের করোনাভাইরাস বিস্তার রোধসহ ডেঙ্গু মশার বিস্তার রোধের কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানান দীপু মনি।

উল্লেখ্য, স্কুল খোলার প্রথম দিনেই পরিদর্শনে গিয়ে আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে  একটি কক্ষ অপরিচ্ছন্ন দেখে অধ্যক্ষসহ মনিটরিংয়ের দায়িত্বে থাকা সবাইকে সাময়িক বরখাস্তের নির্দেশ দেন শিক্ষামন্ত্রী। পরে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘অধ্যক্ষের আর চাকরি রয়েছে ১৩ দিন। সে কারণে তাকে শোকজ করার নির্দেশ দিয়েছি।  শোকজের জবাব পাওয়ার পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আর মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের যে কর্মকর্তা মনিটরিংয়ের দায়িত্বে ছিলেন তাকে সাময়িক বরখাস্ত করার নির্দেশ দিয়েছি।’

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিস্থিতি পরিদর্শন করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর জানায়, রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) থেকে প্রাথমিকের পঞ্চম ও তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতিমূলক ক্লাস অনুষ্ঠিত হয়। এক শিফটের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সর্বোচ্চ তিন ঘণ্টা চলে শ্রেণি কার্যক্রম।

মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ২০২১ ও ২০২২ সালের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থী এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের রুটিন অনুযায়ী অন্যান্য ক্লাসের শিক্ষার্থীরাও প্রতিষ্ঠানে আসেন। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সর্বোচ্চ চার ঘণ্টা শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালিত হয়।

করোনাকালেই রাজধানীর কবি নজরুল সরকারি কলেজে অধ্যক্ষ হিসেবে যোগ দিয়েছেন অধ্যাপক আমেনা বেগম। যোগদানের পর এখনও শ্রেণিকক্ষে এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের পাননি তিনি। দীর্ঘদিন পরে হলেও কলেজ খোলার বিষয়ে তার ভাষ্য, শিক্ষার্থীরা হচ্ছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রাণ। দীর্ঘদিন পর কলেজ খুলেছে, আমরা শিক্ষার্থীদের দেখেছি, ক্লাস নিয়েছি। এ এক অন্যরকম আনন্দ।

দেড় বছর শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীদের ফিরে আসার পর এই যাত্রা যেন সুন্দরভাবে অব্যাহত থাকে, সে জন্য মানুষের সহযোগিতা প্রত্যাশা করে শিক্ষা-উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, ‘করোনাভাইরাসের সংক্রমণের যেন না বাড়ে। শিক্ষার্থীদের কল্যাণে এই বিবেচনা রেখে সবাই যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেন, এই অনুরোধ করবো।’

/এসটিএস/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

নতুন শিক্ষাক্রমে হিজড়াদের জন্য যা থাকছে

নতুন শিক্ষাক্রমে হিজড়াদের জন্য যা থাকছে

প্রাথমিকে জরুরি নির্দেশনা

প্রাথমিকে জরুরি নির্দেশনা

রবিবার থেকে মাধ্যমিকে নতুন রুটিন

রবিবার থেকে মাধ্যমিকে নতুন রুটিন

স্কুল-কলেজে সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন হচ্ছে

স্কুল-কলেজে সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন হচ্ছে

যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে দেশে ফিরলেন সেনাপ্রধান

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:২৩

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সরকারি সফর শেষে শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দেশে ফিরেছেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ। সফরকালে তিনি মার্কিন সেনাবাহিনী এবং পাপুয়া নিউ গিনি ডিফেন্স ফোর্স কর্তৃক যৌথভাবে আয়োজিত ইন্দো-প্যাসিফিক আর্মি চিফস কনফারেন্সে অংশ নেন।

শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাতে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের (আইএসপিআর) সহকারী পরিচালক রাশেদুল আলম খান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৩ দিনব্যাপী আয়োজিত এই কনফারেন্সের অংশ হিসেবে প্রথম দিনে তিনি মার্কিন সেনাবাহিনীর ২৫তম ইনফ্যান্ট্রি ডিভিশনের সক্ষমতা এবং মার্কিন আর্মি প্যাসিফিক কমান্ড কর্তৃক পরিচালিত একটি লাইভ ফায়ার মহড়া অবলোকন করেন । 

আর্মি চিফস কনফারেন্সের দ্বিতীয় দিনে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ ‘দ্যা চেঞ্জিং ফিজিক্যাল এনভায়রনমেন্ট অফ ল্যান্ড অপারেশন’ এবং ‘দ্যা ইভলবিং হিউম্যান এনভায়রনমেন্ট অফ ল্যান্ড অপারেশন’ বিষয়বস্তু দুটির ওপর অনুষ্ঠিত প্লেনারিতে অংশ নেন। 

কনফারেন্সের শেষ দিনে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ মার্কিন আর্মি প্যাসিফিক কমান্ডের কমান্ডিং জেনারেল, জেনারেল চার্লস্ এ. ফ্লিনের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন। এছাড়াও ইন্দোনেশিয়ান সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আন্দিকা পেরকাসা; দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল নাম ইয়ং শিনসহ বেশ কয়েকটি দেশের উচ্চপদস্থ সামরিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

/আরটি/এমআর/

সম্পর্কিত

মেক্সিকোর স্বাধীনতার ২০০ বছর উদযাপনে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর প্যারেড

মেক্সিকোর স্বাধীনতার ২০০ বছর উদযাপনে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর প্যারেড

পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করলেন সেনাপ্রধান

পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করলেন সেনাপ্রধান

কঙ্গোলিজ সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ দিলো বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীরা

কঙ্গোলিজ সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ দিলো বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীরা

সেনাবাহিনী-সন্ত্রাসী গুলিবিনিময়, আটক ৪

সেনাবাহিনী-সন্ত্রাসী গুলিবিনিময়, আটক ৪

৫ লাখেরও বেশি টিকা দেওয়া হয়েছে আজ 

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:২০

দেশে এখন পর্যন্ত টিকা এসেছে ৪ কোটি ৯৫ লাখ ৮৫ হাজার ৮০ ডোজ। এর মধ্যে ৩ কোটি ৬৭ লাখ ৪ হাজার ৩২ ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ এই মুহূর্তে ১ কোটি ২৮ লাখ ৪১ হাজার ২৪ ডোজ টিকা মজুত  আছে। এখন পর্যন্ত প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ২ কোটি ২১ লাখ ৫১ হাজার ৬০৫ জনকে এবং দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন ১ কোটি ৪৫ লাখ ৯৫ হাজার ৪২৭ জন। আজ মোট দেওয়া হয়েছে ৫ লাখ ১ হাজার ৪১ ডোজ টিকা। 

এগুলো দেওয়া হয়েছে অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকা, চীনের তৈরি সিনোফার্ম, ফাইজার এবং মডার্নার ভ্যাকসিন। শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো টিকাদান বিষয়ক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের দেওয়া তথ্য মতে, আজ অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ৬ হাজার ২২৭ জনকে এবং দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ১ হাজার ২২০ জনকে। 

পাশাপাশি আজ ফাইজারের প্রথম ডোজ এবং দ্বিতীয় ডোজ কাউকে দেওয়া হয়নি।

এছাড়া সিনোফার্মের টিকা আজ প্রথম ডোজ নিয়েছেন দুই লাখ ৮৬ হাজার ৫৪২ জন এবং দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ১ লাখ ৯০ হাজার ৫১৬ জন।  

মডার্নার টিকা আজ প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৪ হাজার ২৪৮ জন এবং দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ১২ হাজার ২৮৮ জনকে।

এছাড়া এখন পর্যন্ত নিবন্ধন করেছেন ৪ কোটি ২৩ লাখ ৭১ হাজার ৫৪১ জন। 

 

/এসও/এমআর/

সম্পর্কিত

আজও করোনায় নারীমৃত্যু বেশি

আজও করোনায় নারীমৃত্যু বেশি

চলতি মাসেই ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ৫ হাজার ছাড়ালো  

চলতি মাসেই ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ৫ হাজার ছাড়ালো  

ফাইজার-মডার্নার টিকা না পাওয়ায় প্রবাসীদের বিক্ষোভ

ফাইজার-মডার্নার টিকা না পাওয়ায় প্রবাসীদের বিক্ষোভ

দেশে এলো সিনোফার্মের আরও ৫০ লাখ টিকা

দেশে এলো সিনোফার্মের আরও ৫০ লাখ টিকা

ওয়াকিটকি-মোটরবাইকসহ ভুয়া ইন্সপেক্টর গ্রেফতার

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৪৬

রাজধানীর দারুস সালাম থানা এলাকা থেকে সিআইডির ভুয়া ইন্সপেক্টর পরিচয় দেওয়া একজনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) দারুস সালাম থানা পুলিশ। শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতারকৃতের নাম মো. হাবিবুল্লাহ তালুকদার অভি। তার বাড়ি ঢাকার সাভারে।

এ সময় তার কাছ থেকে স্পেশাল ডিশন সিবি হরনেট-১৬০আর মোটরবাইক, একটি ওয়াকিটকি, একটি পাসপোর্ট একটি পোকো মোবাইল সেট জব্দ করা হয়।

দারুস সালাম থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জামাল হোসেন বলেন, শুক্রবার দারুস সালাম থানার গাবতলি তিন রাস্তার মোড়ে ট্রাফিক পুলিশ বক্সের পাশে পুলিশ সার্জেন্ট ও টহল পুলিশের সমন্বিত তল্লাশি চৌকিতে একজন মোটর আরোহীকে থামার সিগন্যাল দেওয়া হয়। চালক মোটরবাইক থামালে কর্তব্যরত অফিসার গাড়ির কাগজপত্র দেখতে চাইলে সে নিজেকে সিআইডির পুলিশ ইন্সপেক্টর হিসেবে পরিচয় দেন। তখন পরিচয়পত্র দেখতে চাইলে বাইক নিয়ে দ্রুত চলে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

/আরটি/এনএইচ/

সম্পর্কিত

সবজির আড়ালে সৌদিতে ইয়াবা পাচারের চেষ্টা 

সবজির আড়ালে সৌদিতে ইয়াবা পাচারের চেষ্টা 

‘পারিবারিক নির্যাতন কমাতে মোটিভেশন চলছে’

‘পারিবারিক নির্যাতন কমাতে মোটিভেশন চলছে’

ফেসবুকে বন্ধুত্ব, অতঃপর প্রতারণা

ফেসবুকে বন্ধুত্ব, অতঃপর প্রতারণা

ইসলামি বক্তা মুফতি রিজওয়ান রফিকী গ্রেফতার

ইসলামি বক্তা মুফতি রিজওয়ান রফিকী গ্রেফতার

সবজির আড়ালে সৌদিতে ইয়াবা পাচারের চেষ্টা 

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:১১

কাঁধের একটি ব্যাগ আর একটি কার্টন নিয়ে বিমানবন্দরে এসেছিলের  স্বপন মাতব্বর। তিনি যাবেন সৌদি আরবের দাম্মামে। তবে তার সৌদি আরব যাওয়া হয়নি।  শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিমানবন্দরে ব্যাগেজ স্ক্যানিংয়ের সময় তার কার্টনে ধরা পড়ে ইয়াবা। তাকে ইয়াবাসহ আটক করা হয়।

জানা গেছে, সৌদিগামী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-৪০৪৯ ফ্লাইটের যাত্রী ছিলেন স্বপন। বোর্ডিং শেষে চেক ইন ব্যাগেজ স্ক্যানিং এর সময় তার সঙ্গে থাকা একটি কার্টনে ইয়াবা শনাক্ত হয়। কার্টনের কার্বন পেপারে মুড়িয়ে আলাদা লেয়ার করে ২২ হাজার ৪৯০ পিস ইয়াবা লুকানো ছিল।

সূত্র জানায়, জিজ্ঞাসাবাদে স্বপন মাতব্বর জানিয়েছেন, তার বাড়ি মাদারীপুরে। সৌদি আরবে থাকা পরিচিত একজন তাকে অনুরোধ জানিয়েছিলেন তার ভাইয়ের কাছ থেকে একটি সবজিসহ কার্টন নিয়ে আসার জন্য। 

বিমানবন্দরের নির্বাহী পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন তৌহিদ-উল আহসান বলেন, বিমানবন্দরে ডি সারিতে স্ক্রিনার নুরুজ্জামান ও ইউনুস আলী ওই যাত্রীর ব্যাগ স্ক্যানিং করেন। এরপর তার ব্যাগ তল্লাশি করে ইয়াবা আটক করেন তারা। আটক যাত্রীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

/সিএ/এমআর/

সম্পর্কিত

ওয়াকিটকি-মোটরবাইকসহ ভুয়া ইন্সপেক্টর গ্রেফতার

ওয়াকিটকি-মোটরবাইকসহ ভুয়া ইন্সপেক্টর গ্রেফতার

‘পারিবারিক নির্যাতন কমাতে মোটিভেশন চলছে’

‘পারিবারিক নির্যাতন কমাতে মোটিভেশন চলছে’

ফেসবুকে বন্ধুত্ব, অতঃপর প্রতারণা

ফেসবুকে বন্ধুত্ব, অতঃপর প্রতারণা

ইসলামি বক্তা মুফতি রিজওয়ান রফিকী গ্রেফতার

ইসলামি বক্তা মুফতি রিজওয়ান রফিকী গ্রেফতার

ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ প্রবিধানমালা চূড়ান্তকরণে বিলম্ব নয়

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:০৩

ট্রান্সফ্যাটের ক্ষতিকর প্রভাব এবং ট্রান্সফ্যাটমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে প্রক্রিয়াধীন ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ প্রবিধানমালা দ্রুততম সময়ের মধ্যে চূড়ান্ত করার তাগিদ দিয়েছেন সাংবাদিকরা।

শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) গ্লোবাল হেলথ অ্যাডভোকেসি ইনকিউবেটর (জিএইচএআই)-এর সহায়তায় বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) ভবনের শহীদ ডাক্তার শামসুল আলম খান মিলন সভাকক্ষে ‘ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ প্রবিধানমালা: অগ্রগতি ও করণীয়’ শীর্ষক সাংবাদিক  কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী সাংবাদিকরা এ তাগিদ দেন। 

অ্যাডভোকেসি ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রজ্ঞা (প্রগতির জন্য জ্ঞান) আয়োজিত কর্মশালায় প্রিন্ট এবং অনলাইন মিডিয়ায় কর্মরত ২৯ জন সাংবাদিক অংশগ্রহণ করেন। কর্মশালায় প্রজ্ঞা’র পক্ষ থেকে মূল উপস্থাপনা তুলে ধরেন ট্রান্সফ্যাট নির্মূল প্রকল্পের টিমলিডার হাসান শাহরিয়ার এবং প্রকল্প সমন্বয়ক মাহমুদ আল ইসলাম শিহাব।

এ সময় প্রজ্ঞার নির্বাহী পরিচালক এবিএম জুবায়ের, ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের ইপিডেমিওলজি অ্যান্ড রিসার্চ বিভাগের অধ্যাপক ডা. সোহেল রেজা চৌধুরী, ব্রাক ইউনিভার্সিটির অ্যাসোসিয়েট সায়েন্টিস্ট আবু আহমেদ শামীম, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ’র (বিএফএসএ) সদস্য মঞ্জুর মোর্শেদ, জিএইচএআই’র বাংলাদেশ কান্ট্রি লিড রূহুল কুদ্দুস উপস্থিত ছিলেন।

প্রজ্ঞার পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে প্রজ্ঞা জানিয়েছে, খাদ্যে উচ্চমাত্রার শিল্পোৎপাদিত ট্রান্সফ্যাটের কারণে প্রতিবছর পৃথিবীতে প্রায় পাঁচ লাখ মানুষ হৃদরোগে মৃত্যুবরণ করেন। ডব্লিওএইচও’র প্রতিবেদন অনুযায়ী ট্রান্সফ্যাটঘটিত হৃদরোগে মৃত্যুর সর্বাধিক ঝুঁকিপূর্ণ ১৫টি দেশের তালিকায় বাংলাদেশের নাম থাকলেও ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণের খসড়া নীতিমালাটি এখনো চূড়ান্ত করতে পারেনি সরকার। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ২০২৩ সালের মধ্যে বিশ্বের খাদ্য সরবরাহ শৃঙ্খল থেকে ট্রান্সফ্যাট নির্মূলের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে এবং এলক্ষ্যে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ (বিএফএসএ) ‘খাদ্যদ্রব্যে ট্রান্স ফ্যাটি এসিড নিয়ন্ত্রণ প্রবিধানমালা, ২০২১’ প্রণয়নে কাজ করছে।

কর্মশালায় আবু আহমেদ শামীম বলেন, ডালডা বা বনস্পতি ঘি এবং তা দিয়ে তৈরি বিভিন্ন খাবার, ফাস্টফুড ও বেকারি পণ্যে ট্রান্সফ্যাট থাকে। অধ্যাপক ডা. সোহেল রেজা চৌধুরী বলেন, “আমাদের গবেষকদল ঢাকার ডালডা নমুনার ৯২ শতাংশে ডব্লিউএইচও সুপারিশকৃত ২% মাত্রার চেয়ে বেশি ট্রান্সফ্যাট (ট্রান্স ফ্যাটি এসিড) পেয়েছেন, যা অত্যন্ত উদ্বেগজনক।

মঞ্জুর মোর্শেদ জানিয়েছেন, খাদ্য মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যেই খসড়া প্রবিধানমালাটি চূড়ান্ত করতে ভেটিংয়ের জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। আমরা আশা করছি দ্রুততম সময়ের মধ্যে এটি চূড়ান্ত হবে।

রূহুল কুদ্দুস বলেন, ‘ট্রান্সফ্যাট নির্মূলের অর্থনৈতিক গুরুত্বও অনেক। আমাদের প্রক্রিয়াজাত খাদ্যপণ্যের রফতানি বাজার দিন দিন বাড়ছে। ট্রান্সফ্যাটমুক্ত পণ্য তৈরি করতে না পারলে আমরা আন্তর্জাতিক বাজার হারাবো এবং দেশ অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

 

/এসআই/এফএএন/

সম্পর্কিত

ঢাকার কূটনৈতিক এলাকায় জঙ্গি হামলার চেষ্টা

ঢাকার কূটনৈতিক এলাকায় জঙ্গি হামলার চেষ্টা

মাস্ক ব্যবহারে অনীহা বেড়েছে

মাস্ক ব্যবহারে অনীহা বেড়েছে

রাসেলের মুক্তি দাবি

রাসেলের মুক্তি দাবি

নির্বাচন কমিশন গঠনে আইনের দাবি

নির্বাচন কমিশন গঠনে আইনের দাবি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

নতুন শিক্ষাক্রমে হিজড়াদের জন্য যা থাকছে

নতুন শিক্ষাক্রমে হিজড়াদের জন্য যা থাকছে

প্রাথমিকে জরুরি নির্দেশনা

প্রাথমিকে জরুরি নির্দেশনা

রবিবার থেকে মাধ্যমিকে নতুন রুটিন

রবিবার থেকে মাধ্যমিকে নতুন রুটিন

স্কুল-কলেজে সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন হচ্ছে

স্কুল-কলেজে সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন হচ্ছে

৪৭১ জন ট্রেড ইনস্ট্রাক্টর নিয়োগের সুপারিশ

৪৭১ জন ট্রেড ইনস্ট্রাক্টর নিয়োগের সুপারিশ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সারপ্রাইজ ভিজিট শুরু আগামী সপ্তাহে

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সারপ্রাইজ ভিজিট শুরু আগামী সপ্তাহে

দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে আইনি নোটিশ

দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে আইনি নোটিশ

স্কুল গেটে অভিভাবকদের জটলা, স্বাস্থ্যবিধিতে অনীহা!

স্কুল গেটে অভিভাবকদের জটলা, স্বাস্থ্যবিধিতে অনীহা!

কমপক্ষে এক ডোজ টিকা নেওয়ার শর্তে ঢাবির হল  খুলে দেওয়ার সুপারিশ 

কমপক্ষে এক ডোজ টিকা নেওয়ার শর্তে ঢাবির হল খুলে দেওয়ার সুপারিশ 

শিক্ষক দিবসে ঐচ্ছিক ছুটির দাবি

শিক্ষক দিবসে ঐচ্ছিক ছুটির দাবি

সর্বশেষ

আফগান মেয়েদের স্কুল থেকে বাদ দেওয়া উচিত না: ইউনিসেফ

আফগান মেয়েদের স্কুল থেকে বাদ দেওয়া উচিত না: ইউনিসেফ

পুতিনের সঙ্গে বসছেন এরদোয়ান

পুতিনের সঙ্গে বসছেন এরদোয়ান

যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে দেশে ফিরলেন সেনাপ্রধান

যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে দেশে ফিরলেন সেনাপ্রধান

শত কোটি টাকা ঋণ নিয়ে আত্মগোপনের ১০ বছর পর গ্রেফতার

শত কোটি টাকা ঋণ নিয়ে আত্মগোপনের ১০ বছর পর গ্রেফতার

চবিতে দুই শিক্ষার্থীকে হেনস্তার অভিযোগ

চবিতে দুই শিক্ষার্থীকে হেনস্তার অভিযোগ

© 2021 Bangla Tribune