X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

রহিমার ডিম বিক্রির টাকাও আত্মসাৎ করেছে এহসান গ্রুপ

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:১৭

এহসান গ্রুপের এমডি রাগীব আহসানকে গ্রেফতারের পর বেরিয়ে আসছে তাদের নানা ধরনের প্রতারণার খবর। গ্রুপে বেশি লাভের আশায় বিনিয়োগ করে অনেক গ্রাহক আজ পথে বসেছে। অনেকেই পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে হয়েছেন মারধরের শিকার। মানুষের ডিম ও মুরগি বিক্রির জমানো টাকাও আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে এহসান গ্রুপের বিরুদ্ধে।

পরকালে মুক্তির দোহাই দিয়ে গ্রাহক সংগ্রহ করতো এহসান গ্রুপ

এহসান গ্রুপের প্রতারণা শিকার শিক্ষক মো. ইয়াহিয়া ওরফে রাব্বী। তার বাড়ি পিরোজপুর পৌরসভার ছোট খলিশাখালী এলাকায়। রাব্বী জানান, ২০১২ সাল থেকে এহসানের বিভিন্ন প্রকল্পে (মাসিক সঞ্চয়, বাৎসরিক সঞ্চয়, এককালীন সঞ্চয়) পাঁচ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেন তিনি। মেয়াদ শেষে লভ্যাংশসহ টাকা চাইতে গিয়ে কপালে মার জুটেছে তার। মার খেয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিয়ে এখন তিনি কিছুটা সুস্থ। তবে শরীরে এখনও মারের ধকল রয়েছে। ইমামতি, প্রাইভেট পড়ানো ও মাদ্রাসায় ব্যাচ পড়িয়ে যা আয় হয়েছে তা থেকে জমিয়ে তিনি এহসান গ্রুপে বিনিয়োগ করেন। এখন সব হারিয়ে নিঃস্ব হয়েছেন রাব্বী।

ভুক্তভোগী মাদ্রাসা শিক্ষক আরও বলেন, আমি মাদ্রাসায় অধ্যয়নরত অবস্থায় প্রাইভেট পড়িয়েছি, পিরোজপুর শহরতলির কুমারখালী মসজিদে ইমামতি করেছি। এরপর আমি পড়াশোনা শেষ করে সদর উপজেলার চলপুখরিয়া মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করেছি। এসব থেকে আমি সব মিলিয়ে প্রতিমাসে ১০-১৫ হাজার আবার কখনও ১৭ হাজার টাকার মতো পেতাম। সেসব টাকা থেকে জমিয়ে আমি এহসানে রেখেছি।  

রাগীব আহসান ও তার ভাইদের মারধরে আহত মাদ্রাসা শিক্ষক রাব্বী রাব্বী বলেন, এহসানের এমডি রাগীব আহসান ও তার  শ্বশুর পিরোজপুর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা শাহ আলম আমাদের বলেছেন, এহসানে বিনিয়োগ শরিয়া সম্মত। এখানে সুদের কোনও কারবার নেই। আমি তাদের কথা বিশ্বাস করে এহসানে বিনিয়োগ করেছি। আমার কথামতো খলিশাখালী এলাকার মানিক নামে এক পানের বরজ ব্যবসায়ী দেড় লাখ টাকা রেখেছেন। বাৎসরিক প্রকল্পে ২৫ হাজার টাকা রেখেছিলাম, তা থেকে শুধু প্রতিমাসে ৫০৬ টাকা করে পেয়েছি। কষ্টের টাকা এহসানে রেখে আজ আমি প্রতারিত। আমাকে মারও খেতে হয়েছে রাগীব ও তার ভাইদের হাতে।  

রাগীবের কথার যাদুতে এহসানে জড়িয়ে নিঃস্ব শিক্ষক

এহসানের প্রতারণার বিষয়ে শিক্ষক রাব্বী বলেন, জমা রাখা টাকার মেয়াদ শেষ হওয়ার পর করোনার প্রথম ঢেউয়ের আগে থেকে আমি জমানো টাকার লভ্যাংশ ফেরত চাই। এরপর তারা টালবাহানা করতে থাকে। আমি আমার টাকার জন্য এহসানের নির্ধারিত ফরম ১০০ টাকা দিয়ে নিয়ে আবেদন করলে তিন মাস পর যেতে বলে। আমি তিন মাস পরে গেলে আবার নতুন করে আবেদন করতে বলে। যতবার আমি টাকার জন্য আবেদন করেছি ততবারই ফরমের জন্য নতুন করে টাকা দিতে হয়েছে। কিন্তু এহসানে আমার জমা রাখা টাকা আর পাইনি।

টাকা চেয়ে নির্যাতনের শিকার হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, গেলো ৭ সেপ্টেম্বর এহসান এমডি রাগীব আহসান আমাকে ফোন করে বলেন, আসো তোমার টাকা দেওয়ার বিষয়ে কথা আছে। আমি যখন খলিশাখালী মাদ্রাসায় পড়েছি রাগীব আহসান তখন সেখানকার শিক্ষক। আমি সরল বিশ্বাসে সেদিন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নূর-ই মদিনার গেটে গিয়ে রাগীব আহসানকে মোবাইলে মেসেজ পাঠাই। তাতে লিখি স্যার আজকে টাকা দেবেন, না হলে চলে যাই। একটু পর দারোয়ান কবির গেট খুলে দেয়। আমি গেটের ভেতরে গেলে রাগীব আহসান আমাকে একটা গালি দিয়ে বলে, ওরে ধর। তখন আমি দৌড়ে গেটের বাইরে যেতে চাইলে দারোয়ান কবির আমাকে ধরে ফেলে। পরে রাগীব ও দারোয়ান কবির মিলে আমাকে বেদম মারধর করে।

রাগীব আহসান পরিচালিত নূর-ই মদিনা মাদ্রাসা ভুক্তভোগী শিক্ষক বলেন, মার খেয়ে চিৎকার শুরু করলে আমার গলা ধরে নূর-ই মদিনা ভবনের ভেতরে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে নেওয়ার পর রাগীব আহসানের ভাই আবুল বাসার ও শামীম এসে আমাকে কিল-ঘুসি মারতে থাকে। এতে আমি একপর্যায়ে জ্ঞান হারাই। তাদের মারধরে আমার গায়ের জামাও ছিঁড়ে যায়। পরে জ্ঞান ফিরলে আমার জামা পাল্টিয়ে অন্য এক ছাত্রের পাঞ্জাবি পরিয়ে গেটের বাইরে নিয়ে ফেলে আসে। এরপর আমি বাবাকে ফোন দিলে তিনি সেখান থেকে আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করান। 

ছাত্র ধর্ষণে ইমামতি থেকে বহিষ্কার হয়ে এমএলএম শুরু রাগীবের

মারধরের বিষয়ে মামলা করবেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, রাগীর ও তার সহযোগীরা আমাকে এ বিষয়ে বাড়াবাড়ি না করার জন্য হুমকি দিয়েছে। বর্তমানে আমি চরম নিরাপত্তাহীনতার ভুগছি।

এহসান গ্রুপে টাকা বিনিয়োগ করে প্রতারণার শিকার হয়েছেন দিনমজুর আব্দুর রাজ্জাক। পিরোজপুর শহরের পিটিআই এলাকার বাসিন্দা রাজ্জাক শ্রম আর ঘাম ঝরিয়ে আয় করা টাকা জমা রেখেছিলেন এহসান গ্রুপে। তার মায়ের ডিম ও মুরগি বিক্রির টাকাও এহসান গ্রুপ আত্মসাৎ করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

দিনমজুর আব্দুর রাজ্জাকের মা ডিম বিক্রির টাকা বিনিয়োগ করেছিলেন এহসান গ্রুপে রাজ্জাক বলেন, এহসানের কার্যক্রম সুদমুক্ত এ কথা জেনে ৫০ হাজার টাকা রেখেছিলাম। আমার বাবাও বিভিন্ন উপায়ে ও মূল্যবান দ্রব্যাদি বিক্রি করে এক লাখ টাকা বিনিয়োগ করেছিলেন। পিরোজপুরে এহসানের কার্যক্রম শুরু থেকেই আমরা টাকা রেখেছিলাম। 

এ সময় প্রতারণা কথা বলতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন রাজ্জাক। বলেন, আমার মা রহিমা বেগম বাড়িতে দেশি মুরগি পালতেন। ডিম ও মুরগি বিক্রি করে ৫০ হাজার টাকা জমিয়েছিলেন। সেই টাকাও এহসানে জমা দেওয়া হয়। মেয়াদ শেষ হওয়ার পর সে টাকা ভাঙিয়ে আবার এককালীন পদ্ধতিতে টাকা রাখা হয়। সেই টাকাও আর ফেরত পাওয়া যাচ্ছে না। 

রাজ্জাকের দাবি, এহসান গ্রুপের কাছে আমাদের বর্তমান পাওনা পাঁচ লাখ টাকা। আমার বাবা, মা ও অপর দুই ভাইয়েরও টাকা জমা আছে এহসানে। টাকা ফেরত পেতে প্রশাসনের সহায়তা চান তিনি।  

 

/টিটি/এমওএফ/

সম্পর্কিত

প্রকল্পের ঘর দিতে অর্থ আদায়, একজনের কারাদণ্ড

প্রকল্পের ঘর দিতে অর্থ আদায়, একজনের কারাদণ্ড

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

আইনের আওতায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩৯

বিশেষ ক্ষমতাসহ এ জাতীয় আইনের আওতায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে চিহ্নিত করে অনতিবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবির জানিয়েছেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারে বিভিন্ন মণ্ডপ-মন্দিরে হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত জায়গা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এই দাবি জানান।

রানা দাশগুপ্ত বলেন, বিভিন্ন জায়গায় হামলার মাধ্যমে তারা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে। তাদের উদ্দেশ্য হলো, দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করে মুক্তিযুদ্ধের দেশে যে উন্নয়ন হয়েছে, সেই উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করা। সেই সঙ্গে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি বিদেশে বিনষ্ট এবং এই জাতীয় হামলার মধ্য দিয়ে সংখ্যালঘুদের দেশত্যাগে বাধ্য করা তাদের উদ্দেশ্য।

এ সময় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ, আহতদের চিকিৎসা ব্যবস্থার জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানান তিনি।সেই সঙ্গে হামলার ঘটনার প্রতিবাদে আগামী ২৩ অক্টোবর সারাদেশে সকাল ৬টা থেকে ১২টা পর্যন্ত গণ-অনশন ও অবস্থান কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল ইসলামের পাঠানো এক বার্তায় জানানো হয়, চৌমুহনীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় ইসকনের পক্ষ থেকে প্রাপ্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তিনি জানান, হামলার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা করে এবং ইসকনের মামলায় ১৫ জনসহ মোট ৪৪ জনকে গ্রেফতার করে। অন্যান্য ঘটনায় মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩৩

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নার্সরা। সেই সঙ্গে হাসপাতালের পরিচালককে অবরুদ্ধ করে আগামী সাত দিনের মধ্যে প্রণোদনার টাকা না দিলে কর্মবিরতিতে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তারা। স্বাস্থ্যসেবা বন্ধ রেখে কর্মসূচি পালন করায় চিকিৎসাবঞ্চিত হয়েছেন রোগীরা।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত আড়াই ঘণ্টা এ কর্মসূচি পালন করেন নার্সরা। এর আগে একই দাবিতে বিক্ষোভ করেছিলেন তারা।

আন্দোলনরত নার্সদের নেত্রী আফরোজা আখতার বলেন, সারাদেশের মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফ্রন্টলাইনার হিসেবে নার্স, ওয়ার্ডবয়সহ স্বাস্থ্যকর্মীরা করোনাকালীন প্রণোদনা পেলেও রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক প্রায় এক বছর ধরে নানা অজুহাতে প্রণোদনা দিচ্ছেন না।

তিনি বলেন, পরিচালক মনে হয় নিজের টাকা দেবেন। করোনাকালীন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রোগীদের সেবা করতে গিয়ে অনেক নার্স জীবন দিয়েছেন, করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। অথচ আমাদের প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে না। পরিচালকের সঙ্গে এর আগে কয়েকবার দেখা করে আমাদের দাবি উত্থাপন করেছি। প্রণোদনা দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছি। শুধু আশ্বাস দিয়েছেন, কোনও পদক্ষেপ নেননি। এ জন্য বিক্ষোভ করে পরিচালকের কার্যালয় ঘেরাও করেছি আমরা।

হাসপাতালের পরিচালক ডা. রেজাউল ইসলাম বলেন, হাসপাতালে ২৩১ নার্সের মধ্যে যারা করোনাকালে দায়িত্বরত ছিলেন, তারাই প্রণোদনা পাবেন। প্রণোদনা ও ভাতাসহ যাবতীয় বকেয়া পরিশোধের চেষ্টা করছি। কবে নাগাদ তারা প্রণোদনা পাবেন জানতে চাইলে নিশ্চিত করে বলতে পারেননি ডা. রেজাউল।

/এএম/

সম্পর্কিত

পঞ্চগড়ে চায়ের অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনা

পঞ্চগড়ে চায়ের অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনা

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার আজ থেকেই কার্যকর

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার আজ থেকেই কার্যকর

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

পঞ্চগড়ে চায়ের অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনা

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:০৯

সরকার পঞ্চগড়ে চায়ের অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনা করছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ চা বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মো. আশরাফুল ইসলাম। রবিবার (১৭ অক্টোবর) তেঁতুলিয়া উপজেলার চায়ের গ্রাম পেদিয়াগজে ক্ষুদ্র চা-চাষিদের জন্য হাতে-কলমে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে চা আবাদ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালায় এসব কথা বলেন তিনি। 

উন্নত জ্ঞান উন্নত চা প্রতিপাদ্য নিয়ে বিভিন্ন এলাকায় ‘ক্যামেলিয়া খোলা আকাশ স্কুল’ শিরোনামে এই প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করছে বাংলাদেশ চা বোর্ডের পঞ্চগড় আঞ্চলিক কার্যালয়। 

কর্মশালায় চা বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, ‘আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে দেশে ১৪০ মিলিয়ন মেট্রিক টন চা উৎপাদনের পরিকল্পনা করেছে সরকার। দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে রফতানির জন্য নানা উদ্যোগও নেওয়া হয়েছে। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম চা অঞ্চল পঞ্চগড়ে অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনাও করছে সরকার। চা উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য ক্ষুদ্র চা-চাষিদের সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়া হচ্ছে। তাদের প্রশিক্ষণের আওতায়ও আনা হয়েছে।’

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বাংলাদেশ চা বোর্ডের পরিচালক ড. এ কে এম রফিকুল হক, পঞ্চগড় স্মল টি গার্ডেন অনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আমিরুল ইসলাম খোকন, বাংলাদেশ চা বোর্ড পঞ্চগড় আঞ্চলিক কার্যালয়ের প্রকল্প পরিচালক এবং মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. শামিম আল মামুন, উন্নয়ন কর্মকর্তা আমির হোসেন, পেদিয়াগজ গ্রাম চা সমিতির সাধারণ সম্পাদক ঈমান আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 
কর্মশালায় শতাধিক চা-চাষিকে নিয়ে দিনব্যাপী হাতে-কলমে চা চাষ সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। পরে পঞ্চগড় সার্কিট হাউজে চা-চাষিদের সঙ্গে এক মত বিনিময় অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি। 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার আজ থেকেই কার্যকর

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার আজ থেকেই কার্যকর

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

ছবি তোলার কথা বলে প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে কাশবনে ধর্ষণ 

ছবি তোলার কথা বলে প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে কাশবনে ধর্ষণ 

প্রকল্পের ঘর দিতে অর্থ আদায়, একজনের কারাদণ্ড

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৪৮

বরিশাল সদর উপজেলা‌য়র ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের ঘর দেওয়ার কথা বলে অর্থ আত্মসাতের অপরাধে খলিলুর রহমান নামে একজনকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে আটক করে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। খলিলুর রহমানসদর উপজেলার রায়পাশা-কড়াপুর ইউনিয়নের রায়পাশা গ্রামের ফারুক হাওলাদারের ছেলে।

ভুক্তভোগী রিয়াজ হোসেন বলেন, বরিশাল সদর উপজেলার টুঙ্গিবাড়িয়া ইউনিয়নের বারইকান্দি ও পতাং গ্রামে গিয়ে একটি কমিটি গঠন করেন খলিল। এরপর ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প থেকে যাদের বাড়ি প্রয়োজন তাদের কাছ থেকে ২৫ হাজার টাকা নেন। এরপর ঘর না দিয়ে টাকা উত্তোলনকারীদের ঘোরাতে থাকেন। সর্বশেষ ইউএনওকে ম্যানেজ করার কথা বলে প্রত্যেকের কাছ থেকে আরও ১০ হাজার টাকা করে দাবি করেন। ঘর না পাওয়ায় টাকা ফেরত চান ভুক্তভোগীরা। কিন্তু তিনি ঘোরাতে থাকেন। এর মধ্যে একজনকে চেক দেন। ওই চেক নিয়ে ব্যাংকে গেলে সেখান থেকে তা প্রত্যাখ্যাত হয়। তখন তারা প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পারেন।

রবিবার টাকা দেওয়ার কথা বলে খলিলকে বরিশাল কেন্দ্রীয় বাসস্ট্যান্ড নথুল্লাবাদে আনা হয়। সেখান থেকে আটক করে ইউটএনও মুনিবুর রহমানের কাছে সোপর্দ করেন ভুক্তভোগীরা।

ইউএনও’র নির্দেশে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন বরিশাল সদর ভূমি কর্মকর্তা নিশাত তামান্না। তিনি বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালতে প্রতারক খলিল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে। তিনি ১৫ জনের কাছ থেকে তিন লাখ ৭৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এই অপরাধে তাকে এক বছরের সাজা দিয়ে কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের মাধ্যমে বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

স্বামীর নির্যাতনে গলায় ফাঁস দিলেন গৃহবধূ

স্বামীর নির্যাতনে গলায় ফাঁস দিলেন গৃহবধূ

ছবি তোলার কথা বলে প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে কাশবনে ধর্ষণ 

ছবি তোলার কথা বলে প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে কাশবনে ধর্ষণ 

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৪১

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজে করোনার নমুনা পরীক্ষার পিসিআর ল্যাব অচল হয়ে পড়েছে। এ কারণে শনিবার বিকাল থেকে নমুনা সংগ্রহ করে ভোলা জেলা হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পরীক্ষা করা হচ্ছে।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মেডিক্যাল কলেজের ভাইরোলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও পিসিআর ল্যাব প্রধান ডা. একেএম আকবর কবির।

তিনি বলেন, পিসিআর মাদার বোর্ড অচল হওয়ায় শনিবার বিকাল থেকে পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে। ইতোমধ্যে ঢাকার সংশ্লিষ্ট দফতরকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তারা আশ্বস্ত করেছেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে সমস্যার সমাধান দেবেন।

ডা. একেএম আকবর কবির বলেন, নমুনা দিতে আসা কাউকে ফেরত দেওয়া হচ্ছে না। নমুনা সংগ্রহ সচল রাখা হয়েছে। প্রতিদিন কমপক্ষে ১৮৮-২৮২ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। ওসব নমুনা পরীক্ষার জন্য ভোলা হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে ফলাফল সংগ্রহ করা হচ্ছে। তবে এতে কিছুটা সমস্যায় পড়তে হয়।

২০২০ সালের ৯ এপ্রিল বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থাপিত পিসিআর ল্যাবে এ পর্যন্ত ৯৪ হাজার ৬৮১ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে ১৬ হাজার ৮২০ নমুনা পজিটিভ হয়। শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৭ শতাংশ।

/এএম/

সম্পর্কিত

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

প্রকল্পের ঘর দিতে অর্থ আদায়, একজনের কারাদণ্ড

প্রকল্পের ঘর দিতে অর্থ আদায়, একজনের কারাদণ্ড

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

স্বামীর নির্যাতনে গলায় ফাঁস দিলেন গৃহবধূ

স্বামীর নির্যাতনে গলায় ফাঁস দিলেন গৃহবধূ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

প্রকল্পের ঘর দিতে অর্থ আদায়, একজনের কারাদণ্ড

প্রকল্পের ঘর দিতে অর্থ আদায়, একজনের কারাদণ্ড

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

স্বামীর নির্যাতনে গলায় ফাঁস দিলেন গৃহবধূ

স্বামীর নির্যাতনে গলায় ফাঁস দিলেন গৃহবধূ

লোকালয় থেকে অসুস্থ ঈগল উদ্ধার

লোকালয় থেকে অসুস্থ ঈগল উদ্ধার

৪২ টাকার নিচে নামছে না পেঁয়াজের দাম

৪২ টাকার নিচে নামছে না পেঁয়াজের দাম

শুধু বাহবায় বড় ক্রিকেটার হওয়া যায় না, সাদিদ প্রসঙ্গে তার মা 

শুধু বাহবায় বড় ক্রিকেটার হওয়া যায় না, সাদিদ প্রসঙ্গে তার মা 

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

সর্বশেষ

আইনের আওতায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

আইনের আওতায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

আসিয়ান সম্মেলনে বাদ পড়ায় ‘চরম হতাশ’ মিয়ানমার জান্তা

আসিয়ান সম্মেলনে বাদ পড়ায় ‘চরম হতাশ’ মিয়ানমার জান্তা

সাফা কবিরের অন্তর্জাল সিনেমা ‘কুহেলিকা’ 

সাফা কবিরের অন্তর্জাল সিনেমা ‘কুহেলিকা’ 

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

যাত্রাবাড়ীতে হেরোইনসহ গ্রেফতার ১

যাত্রাবাড়ীতে হেরোইনসহ গ্রেফতার ১

© 2021 Bangla Tribune