X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

টাকা হারানোর ঘটনায় সন্দেহ করায় পালিয়ে যায় ৩ ছাত্রী

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:১৬

নিখোঁজের পাঁচ দিন পর জামালপুরের ইসলামপুরের আবাসিক মাদ্রাসা থেকে নিখোঁজ তিন ছাত্রীকে ঢাকায় উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারের পর জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানিয়েছে, মাদ্রাসার পরিচালকের স্ত্রীর এক হাজার টাকা হারানোর ঘটনায় তাদেরকে সন্দেহ করা হচ্ছিলো। টাকা ফেরত দিতেও চাপ দেওয়া হয়। এই ভয়ে মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে যায় ওই তিন ছাত্রী।

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকালে জামালপুরের পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানানো হয়। পুলিশ সুপার নাছির উদ্দিন আহমেদ, জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার (ইসলামপুর সার্কেল) সুমন মিয়া, জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল ইসলাম খান, ইসলামপুর থানার ওসি মোহাম্মদ মাজেদুর রহমানও  মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসান প্রমুখ। সুমন মিয়া উদ্ধার অভিযানে নেতৃত্ব দেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে রাজধানীর মুগদা থানার মান্ডা এলাকার একটি বস্তি থেকে ইসলামপুর উপজেলার গোয়ালেরচর দারুত তাক্কওয়া আবাসিক মহিলা মাদ্রাসার ওই তিন ছাত্রীকে উদ্ধার করে পুলিশ। তারা মাদ্রাসার দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে।

তিন ছাত্রীকে উদ্ধারের পর শুক্রবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে পুলিশ

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়েছে, সম্প্রতি গোয়ালেরচর দারুত তাক্কওয়া আবাসিক মহিলা মাদ্রাসার মোহতামিম আসাদুজ্জামানের স্ত্রীর এক হাজার টাকা হারিয়ে যায়। ওই তিন ছাত্রী টাকা সরিয়েছে বলে সন্দেহ করে মাদ্রাসার সব শিক্ষক ও অন্য শিক্ষার্থীরা। টাকা ফেরত দিতেও তাদেরকে চাপ প্রয়োগ করা হয়। এ ঘটনায় অন্যরা তাদের সম্পর্কে নানান কিছু কথা বলতে থাকে। এর থেকে মুক্তি পেতে পালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করে তিন ছাত্রী।

পরিকল্পনা অনুযায়ী গত রবিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে মাদ্রাসার একটি কক্ষের জানালা দিয়ে বাইরে বের হয়।এরপর হেঁটে ইসলামপুর রেল স্টেশনে পৌঁছায়। তিন জনের কাছে মোট ৩৪০ টাকা ছিল। সেই টাকা দিয়ে কমিউটার ট্রেনের টিকিট কাটে। তাদের ট্রেন ছাড়ে সোমবার ভোরে। ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশনে পৌঁছালে ট্রেন থেকে নেমে পড়ে তিন ছাত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা পুলিশ সুপার নাছির উদ্দিন আহমেদ জানান, তিন ছাত্রীর সন্ধানে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় পুলিশ। অভিযানের অংশ হিসেবে রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের সিসিটিভি ফুটেজ দেখে তাদেরকে শনাক্ত করা হয়। পরে স্থানীয় রিকশাওয়ালাদের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে মুগদা থানার মান্ডা এলাকায় রাজা মিয়া (১৪) নামে এক রিকশাওয়ালার মাধ্যমে তাদেরকে উদ্ধার করা হয়। রাজা ওই তিন ছাত্রীকে নিজের বোন পরিচয় দিয়ে বস্তির একটি ঘরে দেড় হাজার টাকায় ভাড়া নিয়ে দেয়।

গত শনিবার রাতে মাদ্রাসার আবাসিক কক্ষে ঘুমিয়ে পড়ে ওই তিন ছাত্রী। রবিবার ভোরে ফজরের নামাজের জন্য ছাত্রীদের ঘুম থেকে ডেকে তোলেন বলে দাবি করেন শিক্ষকরা। অন্য ছাত্রীদের মতোই ওই তিনজনও নামাজের প্রস্তুতি নেয়। নামাজের পর থেকে তারা নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের পর এক ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ইসলামপুর থানায় একটি মানবপাচার মামলা করেন। এ ঘটনায় পুলিশ মাদরাসাটির পরিচালক মো. আসাদুজ্জামানসহ আরও তিন শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

নির্মাণের ১৫ দিনে হেলে পড়া সেতুটি ৪ বছরেও ‌‘সোজা’ হয়নি

নির্মাণের ১৫ দিনে হেলে পড়া সেতুটি ৪ বছরেও ‌‘সোজা’ হয়নি

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

বাংলাদেশ ছাড়ছে মুহিবুল্লাহর পরিবার?

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৮:১৮

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালংয়ে রোহিঙ্গাদের শীর্ষস্থানীয় নেতা মো. মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের পর নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছিল তার পরিবারের সদস্যরা। মুহিবুল্লাহর পরিবারসহ ৯ পরিবারকে অন্যত্র একটি সেন্টারে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তবে ইতোমধ্যে তারা বাংলাদেশ-মিয়ানমার ছাড়া ছাড়া অন্য কোনও দেশে (থার্ড কান্ট্রি) আশ্রয়ের আবেদন করেছেন। জাতিসংঘ এবং অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার মাধ্যমে সম্প্রতি সংশ্লিষ্টদের কাছে এই আবেদন করেছেন তারা। তবে তারা কোন দেশে যাচ্ছেন যা যেতে চান—সে বিষয়ে বিস্তারিত জানা যায়নি।

মুহিবুল্লাহর পরিবার ছাড়াও আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের (এআরএসপিএইচ) অন্যতম সদস্য মোহাম্মদ নওখিমসহ সংগঠনের কিছু সদস্য এবং মুহিবুল্লাহর ঘনিষ্ঠসহ মোট ১১টি পরিবার বাংলাদেশ-মিয়ানমারের বাইরে অন্য কোনও দেশের আশ্রয় নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছেন।

এ বিষয়ে রবিবার (১৭ অক্টোবর) শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) শাহ রেজওয়ান হায়াত বলেন, আমাদের কাছে মুহিবুল্লাহর পরিবার কোনও আবেদন করেনি। তাছাড়া বিষয়টি আমাদের এখতিয়ারের বাইরে। তবে যদি তারা কোনও দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করে সেখানে যেতে চায় সেক্ষেত্রে সেদেশের সঙ্গে সকল প্রক্রিয়া শেষে কাগজপত্রগুলো পররাষ্ট্র দফতর থেকে আমাদের কাছে আসবে। তারপরই বলা সম্ভব, তারা অন্য কোনও দেশে যাচ্ছেন কিনা।

এদিকে মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় মামলা দায়ের করার পর থেকে তার ছোট ভাই হাবিব উল্লাহ, স্ত্রী নাসিমা খাতুনসহ অন্যান্য আত্মীয়স্বজনদের অপরিচিত নম্বর থেকে মোবাইলে টেক্সট ও ভয়েজ মেসেজ পাঠিয়ে প্রতিনিয়ত হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অপরদিকে পুলিশ বলছে, এসব হুমকির ঘটনা কেন এবং কারা ঘটাচ্ছে তা নিয়েও কাজ করছেন মামলাটির তদন্তকারীরা।

মুহিবুল্লাহর পরিবার ও এআরএসপিএইচ সংগঠনে নেতারা জানান, মুহিবুল্লাহ হত্যার পর তারা সবাই ক্যাম্পের খুব ভয়ভীতির মধ্য ছিলেন। এরপর তারা নিরাপত্তার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। এরপরও মুহিবুল্লাহর পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি দিয়ে আসছিল। সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার তাদের ক্যাম্প থেকে সরিয়ে অন্য একটি জায়গায় নেওয়া হয়েছে।

এর মধ্যেই মুহিবুল্লাহ পরিবার, আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের (এআরএসপিএইচ) সংগঠনের কিছু সদস্যসহ মোট ১১টি পরিবার বাংলাদেশ-মিয়ানমার ছাড়া ছাড়া অন্য কোনও দেশে বসতি স্থাপন করতে চেয়ে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয়, জাতিসংঘ শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার এবং যুক্তরাষ্ট্র বরাবর আবেদন করেন। আবেদনে তারা যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া বা কানাডা নাম উল্লেখ করেছেন। এসব বিষয়ে আলোচনায় লিড করছেন এআরএসপিএইচ-এর অন্যতম সদস্য মোহাম্মদ নওখিম। তবে এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।

তবে মুহিবুল্লাহর ভাগনে এবং আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটস (এআরএসপিএইচ)-এর মুখপাত্র রশিদ উল্লাহ বলেন, জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে দুই দফায় ১১টি পরিবার থার্ড কান্ট্রি যেতে চেয়ে ত্রাণ শরণার্থী ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয়, জাতিসংঘ শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার এবং যুক্তরাষ্ট্রে আবেদন করেছি। তার মধ্য আমরা তিন দেশের কথা উল্লেখ করেছি। এসব দেশের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হচ্ছে। তবে এখনও কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। তাছাড়া ইতোমধ্য আমাদের ক্যাম্প থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। সেখানে আমরা ক্যাম্প থেকে ভালো আছি।

‘থার্ড কান্ট্রি’-তে  যাবার বিষয়টি আমাদের জানা নেই উল্লেখ করে ১৪ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক পুলিশ সুপার নাঈমুল হক বলেন, মুহিবুল্লাহর পরিবারসহ কয়েকজনকে ক্যাম্পের ভেতরে একটি সেন্টারে সরিয়ে রাখা হয়েছে। বিষয়টি এমন-না যে, নিরাপত্তাজনিত কারণে তাদের সরিয়ে রাখা হয়েছে। মূলত মুহিবুল্লাহ হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থল থেকে তাদের সরিয়ে রাখা হয়। যেহেতু ‘ক্রাইম সিন’ এলাকায় লোকজন যাওয়া আসা নিষিদ্ধ। তাদের সেখানে আমরা পূর্ণ-নিরাপত্তা দিয়ে যাচ্ছি।

/এমআর/

সম্পর্কিত

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

কাঠের গুঁড়া ও বিষাক্ত কেমিক্যালে হচ্ছে ‘শ্রীমঙ্গলের চা পাতা’

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৮:০৯

নিম্নমানের চা পাতার সঙ্গে কাঠের গুঁড়া ও বিষাক্ত কেমিক্যাল মিশিয়ে ‘শ্রীমঙ্গলের বিখ্যাত চা পাতা’ তৈরি করা হচ্ছে। এই চা পাতা কিনে ঠকছেন দেশ-বিদেশ থেকে আসা পর্যটকরা। এতে বিপাকে পড়েছেন প্রকৃত চা ব্যবসায়ীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শ্রীমঙ্গল উপজেলায় একটি চক্র চা গাছের পরিত্যক্ত শুকনো পাতা, অন্যান্য গাছের পাতা, কাঠের গুঁড়া ও চা কারখানার ময়লা সংগ্রহ করে। এসব উপকরণের সঙ্গে কেমিক্যাল মিশিয়ে বিষাক্ত চা পাতা তৈরি করা হয়। ওই চা শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর।

এ অবস্থায় ভেজাল চা পাতার ব্যবসায়ীদের ধরতে শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত সিন্দুরখান ইউনিয়নের ভারতীয় সীমান্তবর্তী ১৯৪৫ পিলার এম সংলগ্ন সিক্কা গ্রামে অভিযান চালান ৫৫ বিজিবির সদস্যরা। অভিযানে বিপুল পরিমাণ ভেজাল চা পাতা উদ্ধার হয়।

শ্রীমঙ্গল ৫৫-বিজিবির অধিনায়ক এস এন এম সামীউন্নবী চৌধুরী বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সীমান্তবর্তী সিক্কা গ্রামের মৃত আব্দুল করিমের ছেলে মো. নুরু মিয়া ও মৃত আব্দুল বারীর ছেলে আব্দুর রহিম এবং একই গ্রামের আব্দুল মজিদের বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ পরিত্যক্ত চা পাতা উদ্ধার করা হয়। তারা দীর্ঘদিন ধরে ভেজাল চা পাতা দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করছিলেন। অভিযানের সময় বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে ওই চক্রের সদস্যরা পালিয়ে যান।

৫৫ বিজিবির সহকারী পরিচালক মো. নাসির উদ্দিন চৌধুরী বলেন, পচা পাতা, চা পাতার গুঁড়া ও কয়লার গুঁড়াসহ বিভিন্ন ক্ষতিকর কেমিক্যাল মিশিয়ে চা পাতা তৈরি করা হয়। এসব চা পাতা হকার ও দেশের বিভিন্ন এলাকার কিছু চা ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করা হচ্ছে।

শ্রীমঙ্গলের ফিনলে টি কোম্পানির পরিবেশক ফাহিম এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর কারণে স্বনামধন্য কোম্পানির প্যাকেটজাত ফিনলে চাসহ বিভিন্ন চা বাগানের মানসম্মত চা বিক্রি করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। ক্রেতারা ভেজাল চা পাতা কিনে প্রতারিত হওয়ার কারণে দ্বিতীয়বার চা কিনতে দ্বিধা করেন।

উল্লেখ্য, গত ২৭ জুন শ্রীমঙ্গল সেক্টরের নিয়ন্ত্রণাধীন ৫৫ বিজিবির সদস্যরা উপজেলার সিন্দুরখান ইউনিয়নের হামিদপুরের মৃত ছাবু মিয়ার ছেলে ভুটু মিয়ার বাড়িতে ও একই গ্রামের আবু ছায়েদ মিয়ার ছেলে সুহেল মিয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ছোট-বড় ২৪টি বস্তায় প্রায় ৫০০ কেজি ভেজাল চা ও ২০০ কেজি কাঠের গুঁড়া জব্দ করেছিলেন।

/টিটি/

সম্পর্কিত

ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী বদলালেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি

ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী বদলালেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি

২৬ বই-লিফলেটসহ শিবিরের ২ নেতা আটক

২৬ বই-লিফলেটসহ শিবিরের ২ নেতা আটক

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৬

চুয়াডাঙ্গায় ৭৩ বস্তা ভেজাল টিএসপি সার জব্দ করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে সদর উপজেলার দত্তাইল এলাকায় একটি দোকানে অভিযান চালিয়ে এসব ভেজাল সার জব্দ করা হয়। এ সময় ওই দোকানি নয়ন আহমেদকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

নয়ন দত্তাইল গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে। 

জানা গেছে, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে দত্তাইল বাজারের নয়ন ট্রেডার্সে অভিযান চালায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর এবং সদর উপজেলা কৃষি বিভাগের যৌথ একটি দল। এ সময় ওই দোকান থেকে ভেজাল টিএসপি সার জব্দ করা হয়। 

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের চুয়াডাঙ্গা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সজল আহমেদ জানান, ঝিনাইদহের শৈলকুপা এলাকার জনৈক নাজমুলের কাছ থেকে এসব সার সংগ্রহ করেছেন নয়ন। এগুলো সংরক্ষণের দায়ে দোকান মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই সঙ্গে ভেজাল সার ধ্বংস ও দোকানের সার বিক্রির লাইসেন্স জব্দ করা হয়েছে।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৪

কুষ্টিয়ায় স্বর্ণ চোরাচালানের মামলায় নির্মল দত্ত (৬৪) নামে একজনকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সেই সঙ্গে তিন লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এই রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। দণ্ডপ্রাপ্ত নির্মল দত্ত কুষ্টিয়া শহরের আমলাপাড়া এলাকার মৃত মনিন্দ্র নাথ দত্তের ছেলে। 

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১ মার্চ বিকালে আমলাপাড়া এলাকার নুরুল ইসলাম লেনের বাসায় তল্লাশি করে সোনার বারসহ নির্মল দত্তকে গ্রেফতার করে র‍্যাব-১২। সে সময় তল্লাশি করে র‍্যাব তিনটি বড় ও আটটি ছোট স্বর্ণের বার উদ্ধার করে। উদ্ধার ওই স্বর্ণের ওজন ছিল ৩৮৭ দশমিক ৬৫ গ্রাম। 

এ ঘটনায় কুষ্টিয়া র‍্যাব-১২ বাদি হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় তার বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেন। পরে মামলার তদন্ত শেষে পুলিশ আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। তদন্ত শেষে ২০১৯ সালের ১৩ মার্চ অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। আদালত সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে ১৭ অক্টোবর রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পর দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি নির্মল দত্তকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকার পক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী বলেন, মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় নির্মল দত্তকে ১৪ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন বিচারক।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫২

বিশেষ ক্ষমতাসহ এ জাতীয় আইনের আওতায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে চিহ্নিত করে অনতিবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবির জানিয়েছেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারে বিভিন্ন মণ্ডপ-মন্দিরে হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত জায়গা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এই দাবি জানান।

রানা দাশগুপ্ত বলেন, বিভিন্ন জায়গায় হামলার মাধ্যমে তারা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে। তাদের উদ্দেশ্য হলো, দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করে মুক্তিযুদ্ধের দেশে যে উন্নয়ন হয়েছে, সেই উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করা। সেই সঙ্গে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি বিদেশে বিনষ্ট এবং এই জাতীয় হামলার মধ্য দিয়ে সংখ্যালঘুদের দেশত্যাগে বাধ্য করা তাদের উদ্দেশ্য।

এ সময় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ, আহতদের চিকিৎসা ব্যবস্থার জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানান তিনি।সেই সঙ্গে হামলার ঘটনার প্রতিবাদে আগামী ২৩ অক্টোবর সারাদেশে সকাল ৬টা থেকে ১২টা পর্যন্ত গণ-অনশন ও অবস্থান কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল ইসলামের পাঠানো এক বার্তায় জানানো হয়, চৌমুহনীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় ইসকনের পক্ষ থেকে প্রাপ্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তিনি জানান, হামলার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা করে এবং ইসকনের মামলায় ১৫ জনসহ মোট ৪৪ জনকে গ্রেফতার করে। অন্যান্য ঘটনায় মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

বাংলাদেশ ছাড়ছে মুহিবুল্লাহর পরিবার?

বাংলাদেশ ছাড়ছে মুহিবুল্লাহর পরিবার?

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

নির্মাণের ১৫ দিনে হেলে পড়া সেতুটি ৪ বছরেও ‌‘সোজা’ হয়নি

নির্মাণের ১৫ দিনে হেলে পড়া সেতুটি ৪ বছরেও ‌‘সোজা’ হয়নি

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

ত্রিশালে সড়ক দুর্ঘটনাপরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৬

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৬

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও চার জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও চার জনের মৃত্যু

হাসপাতালে চিকিৎসক পরিচয়ে রোগীর মোবাইলফোন চুরি

হাসপাতালে চিকিৎসক পরিচয়ে রোগীর মোবাইলফোন চুরি

জিয়া ও এরশাদ সরকার রেলপথ ধ্বংস করেছে: রেলমন্ত্রী

জিয়া ও এরশাদ সরকার রেলপথ ধ্বংস করেছে: রেলমন্ত্রী

যাত্রীবেশে অটোরিকশা চুরি করতো তারা

যাত্রীবেশে অটোরিকশা চুরি করতো তারা

ঘরের মেঝে খুঁড়ে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় আটক ১

ঘরের মেঝে খুঁড়ে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় আটক ১

সর্বশেষ

করোনা টিকা দিতে ৯ কোটি সিরিঞ্জ কিনছে সরকার

করোনা টিকা দিতে ৯ কোটি সিরিঞ্জ কিনছে সরকার

ভারতের আইএসএল থেকে ডাক পেলেন তপু বর্মণ

ভারতের আইএসএল থেকে ডাক পেলেন তপু বর্মণ

বাংলাদেশ ছাড়ছে মুহিবুল্লাহর পরিবার?

বাংলাদেশ ছাড়ছে মুহিবুল্লাহর পরিবার?

করোনার গেম চেঞ্জার হবে 'মলনুপিরাভির'

করোনার গেম চেঞ্জার হবে 'মলনুপিরাভির'

আইয়ুব বাচ্চু স্মরণে পিয়ানো ইন্সট্রুমেন্টাল (ভিডিও)

আইয়ুব বাচ্চু স্মরণে পিয়ানো ইন্সট্রুমেন্টাল (ভিডিও)

© 2021 Bangla Tribune