X
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

পানিতে ডুবলো ঝুলন্ত সেতু, পর্যটক চলাচলে নিষেধাজ্ঞা

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৩৫

গত কয়েক দিনের বৃষ্টিতে ও উজানের ঢলে পানি বাড়ায় ডুবে গেছে রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদের ওপর নির্মিত সবচেয়ে আকর্ষণীয় স্থাপনা ঝুলন্ত সেতুটি। রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) থেকে সেতুটি দিয়ে পর্যটকদের চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে পর্যটন কর্তৃপক্ষ।

সেতুটি পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন রাঙামাটিতে বেড়াতে আসা পর্যটকরা। এতে আবারও ক্ষতির মুখে পড়ার শঙ্কায় ব্যবসায়ীরা।

তবে পর্যটন কর্তৃপক্ষের আশা, শিগগিরই পানি কমবে এবং সংস্কার শেষে সেতুটি ফের চালু করা যাবে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশেই সেতু এলাকায় পর্যটক প্রবেশ বন্ধ করা হয়েছে বলেও জানান তারা।

রাঙামাটি পর্যটন করপোরেশনের ব্যবস্থাপক সৃজন বড়ুয়া বলেন, ‘কাপ্তাই হ্রদের পানি বৃদ্ধির কারণে ব্রিজের পাটাতন ডুবে গেছে। তাই কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে আমরা ব্রিজের ওপর দর্শনার্থীদের চলাচল আপাতত বন্ধ করে দিয়েছি। পানি কমলে পুনরায় ব্রিজের ওপর চলাচল খুলে দেওয়া হবে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’ এর সদস্য গ্রেফতার

মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’ এর সদস্য গ্রেফতার

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

রোহিঙ্গাদের অভিযোগে আরসা, পুলিশ বললো অস্তিত্ব নেই

রোহিঙ্গাদের অভিযোগে আরসা, পুলিশ বললো অস্তিত্ব নেই

পূজামণ্ডপে হামলার চেষ্টা: যুব পরিষদের ৭ নেতাকর্মী রিমান্ডে 

পূজামণ্ডপে হামলার চেষ্টা: যুব পরিষদের ৭ নেতাকর্মী রিমান্ডে 

মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’ এর সদস্য গ্রেফতার

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১১:৪১

কক্সবাজার কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় জড়িত ‘কিলিং স্কোয়াড’-এর এক সদস্যকে গ্রেফতারের দাবি করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন)। হত্যাকাণ্ডের ৩০ দিনের মাথায় ঘটনায় সরাসরি জড়িত কোনও সদস্যকে আটক করতে সক্ষম হয়েছেন এপিবিএনের সদস্যরা। 

শনিবার (২৩ অক্টোবর) সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ১৪ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এসপি নাইমুল হক। তিনি বলেন, আমরা মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় ‘কিলিং স্কোয়াড’-এর একজনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। এ বিষয়ে দুপুরে নিজ কার্যালয়ে বিস্তারিত জানাবেন বলে জানান তিনি।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে উখিয়ার শরণার্থী শিবিরে নিজ কার্যালয়ে অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের হাতে খুন হন আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের (এআরএসপিএইচ) চেয়ারম্যান মুহিবুল্লাহ। এই হত্যাকাণ্ডের জন্য আরসা দায়ী বলে অভিযোগ করেছিল নিহতের পরিবার। তবে পরবর্তীতে মুহিবুল্লাহ হত্যায় তারা জড়িত নয় বলে এক বিবৃতিতে দাবি করে আরসা। 

এছাড়া পুলিশও মুহিব হত্যাকাণ্ডে আরসার সম্পৃক্ততার বিষয়টি নাকচ করে দেয়। 

পুলিশ জানায়, মুহিবুল্লাহ খুনের ঘটনায় এ পর্যন্ত পাঁচ রোহিঙ্গাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদের একজন মোহাম্মদ ইলিয়াছ কক্সবাজার আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দিয়েছেন। ওই ঘটনার ২৩ দিনের মাথায় ঘটলো শরণার্থী ক্যাম্পে ছয় রোহিঙ্গা হত্যাকাণ্ড। 

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর দমনপীড়নের মুখে ২০১৭ সালের ২৫ আগস্টের পর দেশটির রাখাইন রাজ্য থেকে বাংলাদেশে আশ্রয় নেন প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা। বর্তমানে নতুন ও পুরনো মিলে কক্সবাজারের ৩৪টি রোহিঙ্গা শিবির এবং নোয়াখালীর ভাসানচরে বসবাস করছেন প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১১:২৭

ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ডেডিকেটেড করোনা ইউনিটে দায়িত্বপ্রাপ্ত করোনা যোদ্ধাদের মধ্যে ৩৪ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স প্রণোদনার টাকা পেয়েছেন। এখন ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স করোনাকালে দায়িত্ব পালন করলেও প্রণোদনার বরাদ্দ থেকে বঞ্চিত রয়েছেন। এ নিয়ে করোনার সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে খ্যাত চিকিৎসক ও নার্সদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল অফিস সূত্র মতে, ডেডিকেটেড করোনা ইউনিটে দায়িত্বপ্রাপ্ত ৩৬২ চিকিৎসকের মধ্যে ১৪৯ জন প্রণোদনার বরাদ্দ হিসেবে মূল বেতনের সমপরিমাণ দুই মাসের টাকা পেয়েছেন। ১০২৮ জন সিনিয়র স্টাফ নার্সদের মধ্যে ৩৪০ জন একই হারে প্রণোদনার টাকা পেয়েছেন। গত অর্থবছরে প্রণোদনার বরাদ্দকৃত টাকার পরিমাণ ছিল ২ কোটি ২৯ লক্ষ ৫৮ হাজার ১৪০ টাকা। এই হিসেবে ৩৪ দশমিক ৪৬ শতাংশ চিকিৎসক নার্স প্রণোদনার বরাদ্দের টাকা পেয়েছেন। এখনও ২১৩ জন চিকিৎসক ও ৬৮৮ জন সিনিয়র স্টাফ নার্স প্রণোদনার বরাদ্দের টাকা পাননি। এছাড়া করোনাকালে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে ১৪৬ জন চিকিৎসক, ৪৫০ জন সিনিয়র স্টাফ নার্স ও ৯৫ কর্মচারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। এদের মধ্যে শাখাল বেগম নামে একজন সিনিয়র স্টাফ নার্স  করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন।

এখনও প্রণোদনার বরাদ্দের টাকা না পাওয়ায় চিকিৎসক ও নার্সদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের রেসপিরেটরি মেডিসিন বিভাগের প্রধান ও সহকারী অধ্যাপক ডাক্তার আনিসুর রহমান জানান, ডেডিকেটেড করোনা ইউনিটে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালন করলেও সহকারী অধ্যাপক ও সহযোগী অধ্যাপক পর্যায়ের চিকিৎসকদের প্রণোদনার বরাদ্দ থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। এটা সম্পূর্ণ অমানবিক এবং দ্বৈতনীতির বাস্তবায়ন করা হয়েছে। দীর্ঘদিন পার হয়ে গেলেও অনেক চিকিৎসক এখনও প্রণোদনার বরাদ্দের টাকা পায়নি। এ নিয়ে চিকিৎসকদের মধ্যে  ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে দাবি করে তিনি আরও জানান, যারা এখনও পায়নি এবং সহকারী অধ্যাপক ও সহযোগী অধ্যাপক পদমর্যাদার চিকিৎসকদের দ্রুতই বরাদ্দের আওতায় এনে টাকা পাওয়ার ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন।

এদিকে বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল শাখার সভাপতি লুৎফর রহমান জানান, করোনা ইউনিটে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে সাড়ে চারশ সিনিয়র স্টাফ নার্স করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রোগীদের সেবা করলেও এখন পর্যন্ত বেশিরভাগ নার্স প্রণোদনার বরাদ্দের টাকা পায়নি। যারা এখনও টাকা পায়নি তাদের মাঝে চাপা ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। চাপা ক্ষোভ নিয়ে এখনও এসব নার্সরা করোনা ইউনিটে রোগীদের সেবা করে যাচ্ছে। বিষয়টা বিবেচনায় এনে দ্রুতই এখনও যারা প্রণোদনার বরাদ্দের টাকা পায়নি তাদের টাকা পাওয়ার ব্যাপারে দ্রুতই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নেবে এমনটাই দাবি জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাক্তার ওয়ায়েজ উদ্দিন ফরাজী বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, চলতি অর্থবছরে প্রণোদনার বরাদ্দের জন্য দ্বিতীয় দফায় ১৭৯ জন চিকিৎসক ও ৫৮০ জন সিনিয়র স্টাফ নার্সের নামের তালিকা স্বাস্থ্য অধিদফতরে পাঠানো হয়েছে। বরাদ্দ এলে তারা প্রণোদনার টাকা পেয়ে যাবেন। তিনি আরও জানান, তৃতীয় দফায় যারা বাকি আছেন তাদের নামের তালিকা  স্বাস্থ্য অধিদফতরে পাঠানোর কাজ প্রক্রিয়াধীন। ডেডিকেটেড করোনা ইউনিটে দায়িত্ব পালন করেছেন চিকিৎসক নার্স প্রত্যেকেই প্রণোদনার বরাদ্দের টাকা পাবেন এমনটাই জানিয়েছেন উপ-পরিচালক।

এদিকে জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার নজরুল ইসলাম জানান, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত চিকিৎসক নার্সরা করোনা রোগীদের সেবার কাজ করে থাকলেও স্বাস্থ্য অধিদফতর তাদের প্রণোদনার বরাদ্দের আওতায় আনেনি। শুধুমাত্র মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ডেডিকেটেড করোনা ইউনিটে যারা দায়িত্ব পালন করছেন তাদেরকে এই প্রণোদনার বরাদ্দের আওতায় আনা হয়েছে।

/এমআর/

সম্পর্কিত

মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’ এর সদস্য গ্রেফতার

মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’ এর সদস্য গ্রেফতার

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

চুল কেটে দেওয়া শিক্ষিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত না আসায় ফের অনশন 

চুল কেটে দেওয়া শিক্ষিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত না আসায় ফের অনশন 

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে বিজিবি সদস্যের আত্মহত্যা

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে বিজিবি সদস্যের আত্মহত্যা

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫১

কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী ১৮ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবস্থিত ‘দারুল উলুম নাদওয়াতুল ওলামা আল-ইসলামিয়াহ মাদ্রাসা’য় ট্রেনিং সেন্টার করতে চেয়েছিল একটি সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপ। একইসঙ্গে ওই গ্রুপটিতে মাদ্রাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের যোগ দেওয়ারও চাপ ছিল সন্ত্রাসীদের। এ জন্য প্রতিনিয়ত প্রাণনাশের হুমকিতে আতংকে ছিলেন মাদ্রাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। এমনটি অভিযোগ করছেন সন্ত্রাসীদের হাতে নিহতের স্বজন ও সাধারণ রোহিঙ্গারা।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় হয়েছিল হামলা, নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বিভিন্ন সূত্র জানায়, রোহিঙ্গাদের শীর্ষ নেতা মুহিবুল্লাহকে হত্যার পর ক্যাম্প জুড়ে বিরাজ করছে অস্থিরতা। কয়েকটি সন্ত্রাসী গ্রুপ রাত হলেই ক্যাম্পের নিয়ন্ত্রণ নেয়। এতে সাধারণ রোহিঙ্গাদের মধ্যে আতংক দেখা দিয়েছে। রাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন না থাকায় সন্ত্রাসীদের তৎপরতা বেড়ে যায় বলে অভিযোগ করেছেন রোহিঙ্গারা। তবে সন্ত্রাসীদের ভয়ে ক্যাম্পের বাসিন্দারা এ বিষয়ে কথা বলতে চান না, দেন না কোনও অভিযোগ।  

মুহিবুল্লাহ হত্যা: তিন মিনিটে শেষ হয় কিলিং মিশন


​শুক্রবার (২২ অক্টোবর) দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষে লাশ নিতে আসা নিহত রোহিঙ্গাদের কয়েকজন স্বজনের সঙ্গে কথা হয়। তারা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন- কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী ১৮ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবস্থিত ‌‘দারুল উলুম নাদওয়াতুল ওলামা আল-ইসলামিয়াহ মাদ্রাসা’টিতে ‘আরসা’র পরিচয়ে কিছু সন্ত্রাসী ট্রেনিং সেন্টার করতে মাদ্রাসা সুপারকে চাপ দিচ্ছিল। কিন্তু, মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ এতে রাজি না হওয়ায় রাতে হামলা চালানো হয়। এ সময় এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মাদ্রাসা শিক্ষক, ছাত্র ও স্বেচ্ছাসেবীসহ ছয় জন রোহিঙ্গাকে হত্যা করা হয়। হামলায় আহত হন ১০-১২ জন। 

অভিযোগ রয়েছে, নির্মম এই ঘটনার পরও হামলাকারীরা ক্যাম্পের আশপাশেই বীরদর্পে ঘুরে বেড়াচ্ছে। কিন্তু সাধারণ রোহিঙ্গারা ভয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের তা জানাতে পারছেন না। কারণ দিনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে থাকলেও রাত হলে ক্যাম্পের নিয়ন্ত্রণ চলে যায় সন্ত্রাসীদের হাতে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে নিহত রোহিঙ্গার আরেক স্বজন অভিযোগ করেন, ‘ক্যাম্পে রাতের অবস্থা খুব ভয়াবহ। দিন শেষে সন্ধ্যা হলেই নিয়ন্ত্রণে নেয় সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপ। এই গ্রুপটি মিয়ানমারের রাখাইনে সাধারণ রোহিঙ্গাদের যে জুলুম-নির্যাতন করে আসছিল, ঠিক একই কায়দায় ক্যাম্পগুলোতে রোহিঙ্গাদের নির্যাতন চালাচ্ছে। ক্যাম্পগুলো তাদের নিয়ন্ত্রণে নিতে চায়। রাত হলেই এসব সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপের বিচরণে ভয়ে রাত কাটে রোহিঙ্গাদের।’

রোহিঙ্গাদের ভাষ্যমতে, ‘আরসা’র নামধারী মৌলভী আবু বক্কর, মৌলভী নুর হোছন, খালেক, ফজলুল কবির, ইকবালসহ অনেকেই উখিয়ার বালুখালী ২ নম্বর ক্যাম্পটি নিয়ন্ত্রণে নিতে চায়। এর জের ধরেই মাদ্রাসায় হামলার ঘটনা ঘটেছে।

জানতে চাইলে ক্যাম্পে নিয়োজিত ১৪ নম্বর আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন ‘এপিবিএন’র অধিনায়ক (পুলিশ সুপার) মো. নাঈমুল হক জানান- রাতে ক্যাম্পগুলোতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। এরপরও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ যদি মনে করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও কঠোর হবে। নিহত ছয় জনের হত্যাকারীদের ধরতে পুলিশি অভিযান জোরদার করা হয়েছে বলে জানান তিনি। 

কক্সবাজার জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় হামলার ঘটনায় এই পর্যন্ত ছয় জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশগুলোর ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ঘটনার পর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অভিযান জোরদার করা হয়েছে বলে জানান তিনি। 

শুক্রবার (২২ অক্টোবর) ভোর ৪টার সন্ত্রাসীদের হামলায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প-১২, ব্লক-জে-৫ এর বাসিন্দা হাফেজ ও মাদ্রাসা শিক্ষক মো. ইদ্রীস (৩২), ক্যাম্প-৯ ব্লক-১৯ এর মৃত মুফতি হাবিবুল্লাহর ছেলে  ইব্রাহিম হোসেন (২৪), ক্যাম্প-১৮, ব্লক-এইচ -৫২ এর নুরুল ইসলামের ছেলে মাদ্রাসার ছাত্র আজিজুল হক (২২), একই ক্যাম্পের স্বেচ্ছাসেবী আবুল হোসেনের ছেলে মো. আমীন (৩২)। ‘এফডিএমএন’ ক্যাম্প-১৮, ব্লক-এফ-২২ এর মোহাম্মদ নবীর ছেলে মাদ্রাসা শিক্ষক নুর আলম ওরফে হালিম (৪৫), এফডিএমএন ক্যাম্প-২৪-এর রহিম উল্লাহর ছেলে মাদ্রাসা শিক্ষক হামিদুল্লাহ (৫৫) নিহত হন। পুলিশ হামলাকারীদের সদস্য মুজিবুর নামের একজনকে দেশীয় লোডেড ওয়ান শ্যুটারগান, ছয় রাউন্ড গুলি ও একটি ছুরিসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করে। সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির পর নিহতদের লাশ কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। পরে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিহতদের দাফন করা হয়।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর রোহিঙ্গাদের শীর্ষনেতা মুহিবুল্লাহকে গুলি করে হত্যার পর ক্যাম্পজুড়ে বিরাজ করছে অস্থিরতা। সৃষ্টি হয়েছে ভীতিকর পরিস্থিতি। ক্যাম্পে কয়েকটি সশস্ত্র গ্রুপ মাদক ও অস্ত্রের ব্যবসা করছে। এছাড়া অবৈধ দখলের মাধ্যমেও তারা বিভিন্ন দোকান পরিচালনা করছে। মানুষ হত্যা ও জিম্মির ঘটনাও ঘটছে। তাই, সরকার ও জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক এজেন্সি একত্রে কাজ করছে। 

/টিটি/

সম্পর্কিত

মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’ এর সদস্য গ্রেফতার

মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’ এর সদস্য গ্রেফতার

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

চুল কেটে দেওয়া শিক্ষিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত না আসায় ফের অনশন 

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৩৮

সিরাজগঞ্জের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪ শিক্ষার্থীর মাথার চুল কেটে দেওয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিনের স্থায়ী বহিষ্কার চেয়ে আবারও আমরণ অনশনে বসেছেন শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের ফের অনশনে ক্যাম্পাস আবারও উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। 

শিক্ষার্থীরা ​বলছেন, বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার পর শুক্রবার (২২ অক্টোবর) বিকালে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য সিন্ডিকেট সভা বসে। তবে অভিযুক্ত শিক্ষিকার বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি এমনটাই জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।  

অভিযুক্ত শিক্ষিকার বিরুদ্ধে কোনও সিদ্ধান্ত না নেওয়ায় শিক্ষার্থীরা ফের অনশন শুরু করেছেন বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্র অধ্যয়ন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়া আবু জাফর হোসাইন। 

শিক্ষার্থী আবু জাফর বলেন, শুক্রবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে আমাদেরকে ফোন দিয়ে জানানো হয় কোনও সিদ্ধান্ত ছাড়াই রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভা মুলতবি করা হয়েছে। বিষয়টি জানার পর আমরা ভারপ্রাপ্ত ভিসি স্যারকে ফোন দেই। তখন তিনি বলেন, আজ এ বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্তে আসা যায়নি। তোমরা ক্লাস-পরীক্ষাতে ফেরো। আমরা আবার সিন্ডিকেট সভায় বসে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবো। তখন আমরা আগামীকালকেই সিন্ডিকেট সভা বসবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আপাতত একমাসের মধ্যে এই সভা বসার সম্ভাবনা নেই। 

ওই শিক্ষার্থী আরও বলেন, আমরা শিক্ষকদের প্রতি সম্মান দেখিয়ে সব ধরনের আন্দোলন স্থগিত করেছিলাম। কিন্তু যেহেতু আমরা সমাধান পাচ্ছি না, তাই গতকাল শুক্রবার রাত ৮টা থেকে আবারও আমরণ অনশন শুরু করেছি। 

তবে এ বিষয়ে কথা বলার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য ও ট্রেজারার আব্দুল লতিফকে একাধিকবার মোবাইলফোনে কল দিয়েও কথা বলা সম্ভব হয়নি। 

এর আগে, বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টায় এ ঘটনায় গঠিত পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. সোহরাব আলীর কাছে প্রতিবেদন জমা দেন। শুক্রবার বিকাল ৪টার দিকে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢাকার ধানমন্ডিস্থ আবাসিক ভবন অফিসে সিন্ডিকেট বৈঠক শুরু হয়। টানা ৩ ঘণ্টা বৈঠক চলার পর কোনও সিদ্ধান্ত ছাড়াই রাত সাড়ে ৭টার দিকে এ বৈঠক শেষ হয় বলে জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে বিজিবি সদস্যের আত্মহত্যা

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে বিজিবি সদস্যের আত্মহত্যা

সিরাজগঞ্জে মনসুর আলীর নাতির ওপর হামলা

সিরাজগঞ্জে মনসুর আলীর নাতির ওপর হামলা

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে বিজিবি সদস্যের আত্মহত্যা

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৯:২২

ময়মনসিংহে নিজের কাছে থাকা অস্ত্রের গুলিতে এক বিজিবি সিপাহী আত্মহত্যা করেছেন। নিহতের নাম সোহরাব হোসাইন চৌধুরী (২৩)। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) দিবাগত রাতে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ার পর রাত ৯টায় ময়মনসিংহের খাগডহর এলাকায় অবস্থিত ৩৯ বিজিবি ব্যাটালিয়ন ক্যাম্পে তিনি আত্মহত্যা করেন। 
 
ওই বিজিবি সদস্য ফেনীর পরশুরাম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন। তবে এ বিষয়ে শনিবার আনুষ্ঠানিকভাবে তথ্য দেওয়ার কথা জানিয়েছেন বিজিবি ৩৯ ব্যাটালিয়নের সিইও লেফটেন্যান্ট কর্নেল তৌফিকুর রহমান।

জানা যায়, নিজ বেতনের টাকায় সংসার চালানো কষ্টসাধ্য হওয়ায় ক্ষোভে ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। পোস্টে আত্মহত্যার পথ বেছে নেওয়ার জন্য সবার কাছে ক্ষমা চেয়ে লিখেন, ‘সাতটা বছর মানসিক যন্ত্রণা আর অভাবের সঙ্গে যুদ্ধ করতে করতে সত্যি বড় ক্লান্ত হয়ে পড়েছি। এইবার একটু রেস্ট দরকার। আমার পরিবার, সহকর্মী সিনিয়র-জুনিয়র, আমার বন্ধুদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। এই নিকৃষ্ট কাজের জন্য পারলে ক্ষমা করবেন, এছাড়া বিকল্প কোনও পথ আমার ছিল না।’  

/টিটি/

সম্পর্কিত

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

চুল কেটে দেওয়া শিক্ষিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত না আসায় ফের অনশন 

চুল কেটে দেওয়া শিক্ষিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত না আসায় ফের অনশন 

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’ এর সদস্য গ্রেফতার

মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’ এর সদস্য গ্রেফতার

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

রোহিঙ্গাদের অভিযোগে আরসা, পুলিশ বললো অস্তিত্ব নেই

রোহিঙ্গাদের অভিযোগে আরসা, পুলিশ বললো অস্তিত্ব নেই

পূজামণ্ডপে হামলার চেষ্টা: যুব পরিষদের ৭ নেতাকর্মী রিমান্ডে 

পূজামণ্ডপে হামলার চেষ্টা: যুব পরিষদের ৭ নেতাকর্মী রিমান্ডে 

‘সাম্প্রদায়িকতা উসকে দিতে’ কুমিল্লার ঘটনা লাইভে প্রচারের স্বীকারোক্তি

‘সাম্প্রদায়িকতা উসকে দিতে’ কুমিল্লার ঘটনা লাইভে প্রচারের স্বীকারোক্তি

কুমিল্লার সহিংসতার ঘটনায় আহত বৃদ্ধের মৃত্যু

কুমিল্লার সহিংসতার ঘটনায় আহত বৃদ্ধের মৃত্যু

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার কথা ‘স্বীকার করেছেন’ ইকবাল

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার কথা ‘স্বীকার করেছেন’ ইকবাল

যেভাবে ধরা পড়লো ইকবাল

যেভাবে ধরা পড়লো ইকবাল

মণ্ডপে হামলা: নুরের যুব সংগঠনের চার নেতাসহ গ্রেফতার ৯

মণ্ডপে হামলা: নুরের যুব সংগঠনের চার নেতাসহ গ্রেফতার ৯

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছে পিকআপভ্যানের ধাক্কা, নিহত ৩

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছে পিকআপভ্যানের ধাক্কা, নিহত ৩

সর্বশেষ

মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’ এর সদস্য গ্রেফতার

মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’ এর সদস্য গ্রেফতার

মার্কিন ড্রোন হামলায় আল-কায়েদার শীর্ষ নেতা নিহত

মার্কিন ড্রোন হামলায় আল-কায়েদার শীর্ষ নেতা নিহত

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজএখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় ‘ট্রেনিং সেন্টার’ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা 

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বাংলাদেশকে সহায়তা দেবে সুইডেন : রাষ্ট্রদূত

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বাংলাদেশকে সহায়তা দেবে সুইডেন : রাষ্ট্রদূত

© 2021 Bangla Tribune