X
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

একটি সেতুর দাবিতে কেটে গেছে ৪৯ বছর

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৫৫

দেশ স্বাধীনের পর থেকেই একটি সেতুর অপেক্ষায় রয়েছেন সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার দশশিকা-ধুনচি এলাকার হাজার হাজার মানুষ। দেশে যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হলেও এই এলাকার মানুষ এখনও অবহেলিত অবস্থায় আছেন। স্থানীয়রা জানান, গ্রাম দুটির ভেতর দিয়ে বয়ে যাওয়া ফুলজোড় নদীর ওপর একটি সেতুর দাবি পূরণ হয়নি দীর্ঘ ৪৯ বছরেও। জনপ্রতিনিধিরা বিভিন্ন সময় সেতুটি নির্মাণের আশ্বাস দিলেও তা কার্যকর হয়নি।

প্রতিদিন হাজারো মানুষের যাতায়াত ফুলজোড় নদীর এই খেয়াঘাট দিয়ে। ঝুঁকি নিয়েই তারা পার হচ্ছেন নদী। বিভিন্ন স্কুল-কলেজ, হাসপাতাল, হাট-বাজারে প্রতিনিয়ত যাতায়াতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে বেশি।

সর্বশেষ স্থানীয় সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্নার কাছেও সেতুটি নির্মাণের দাবি জানান ভুক্তভোগীরা। তার আশ্বাসে এখনও অপেক্ষমাণ ফুলজোড় নদীর দশশিকা-ধুনচি খেয়াঘাটের উভয় পাড়ের হাজার হাজার মানুষ।

খেয়াঘাটের মাঝি হাসান জানান, নদীর দু’দিকে দুর্গাপুর তেতুলিয়া, ধুনচি, দশশিকা, পেচরপাড়া, সড়াবাড়ি, বড়কুড়া, ছোটকুড়া, মুগবেলাই, ঝাঁটিবেলাই, গাড়াবাড়ীসহ বেশ কয়েকটি গ্রামের হাজার হাজার মানুষের বসবাস। অথচ স্বাধীনতার পর অর্ধশতাব্দী পার হয়ে গেলেও আজও তাদের যাতায়াত ব্যবস্থার উন্নয়ন হয়নি।

কামারখন্দ উপজেলার জামতৈল ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন শেখ বলেন, ‘এ এলাকার জনগণ খুবই অবহেলিত। একজন ইউপি চেয়ারম্যানের পক্ষে পাকা সড়ক ও সেতু নির্মাণ আদৌ কি সম্ভব? আমি বারবার সেতু নির্মাণের বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নজরে এনেছি। এ কারণে কর্তৃপক্ষ বিষয়টি আমলে নিয়েছে এবং সেতু নির্মাণের জন্য সয়েল টেস্ট হয়েছে।’

এ বিষয়ে কামারখন্দ উপজেলা চেয়ারম্যান শহীদুল্লাহ্ সবুজ বলেন, ‘স্বাধীনতার আগে থেকেই এই এলাকার মানুষ বর্ষা মৌসুমে নৌকায় পারাপার হচ্ছেন। এখানে একটি সেতু নির্মাণের বিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্যের সঙ্গে কথা বলেছি। তিনিসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ দ্রুততম সময়ে একটি সেতু নির্মাণের আশ্বাস দিয়েছেন।’

কামারখন্দ উপজেলা প্রকৌশলী এস এম সানজিদ আহমেদ বলেন, ‘সেতুটি নির্মাণের জন্য ইতোমধ্যেই সয়েল টেস্ট হয়েছে। অল্পদিনের মধ্যেই টেন্ডার প্রক্রিয়া হবে বলে আমি আশাবাদী।’ সেতুটি নির্মাণ করা হলে এ এলাকার হাজার হাজার মানুষের দুর্ভোগ লাঘব হবে বলে তিনি জানান।

সেতুটি নির্মাণের বিষয়ে জানতে চাইলে কামারখন্দ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মেরিনা সুলতানা বলেন, ‘বিষয়টি আমি জেনেছি। সরেজমিনে দেখে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

/এমএএ/

সম্পর্কিত

ব্যবসায়ীর গুদামে গরিবের ১০ হাজার ৭০০ কেজি চাল

ব্যবসায়ীর গুদামে গরিবের ১০ হাজার ৭০০ কেজি চাল

আর্থিক ক্ষমতা পেলেন দুপচাঁচিয়ার ভারপ্রাপ্ত মেয়র

আর্থিক ক্ষমতা পেলেন দুপচাঁচিয়ার ভারপ্রাপ্ত মেয়র

৩১৯০ কেজি সরকারি চালসহ ট্রাকচালক গ্রেফতার

৩১৯০ কেজি সরকারি চালসহ ট্রাকচালক গ্রেফতার

ঘটনার বর্ণনা দিলেন চুল কেটে দেওয়া ভুক্তভোগী ১৪ শিক্ষার্থী

ঘটনার বর্ণনা দিলেন চুল কেটে দেওয়া ভুক্তভোগী ১৪ শিক্ষার্থী

হত্যা মামলার আসামিকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ায় ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:৩৪

ইউপি নির্বাচনে নবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নে উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা হেভেন হত্যা মামলার প্রধান আসামি হাবিবুর রহমান হাবিবকে মনোনয়ন দেওয়ায় বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে নবীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ। বুধবার (২৭ অক্টোবর) সন্ধ্যায় নবীগঞ্জ শহরের নতুন বাজার মোড়ে উপজেলা ছাত্রলীগের ব্যানারে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান রাজুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও যুবলীগের আহ্বায়ক ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- নিহত হেভেনের দাদা প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা সাজ্জাদুর রহমান চৌধুরী, চুনু মিয়া, মো. নুরুজ্জামান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু ছালেহ জীবন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান, ছাত্রলীগ নেতা আবিদ হাসান তালুকদার, মিজান খান প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ২০১৪ সালে হাবিবুর রহমান হাবিবের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের ত্যাগী নেতা হেভেন চৌধুরীকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। তার রক্তের দাগ এখনও শুকায়নি, মা-বাবার চোখের পানি এখনও ঝরছে, অবিলম্বে হত্যাকারী হাবিবের আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বাতিল করে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এতে একাত্মতা পোষণ করতে মানববন্ধনে যোগ দেন নিহত ছাত্রলীগ নেতা হেভেন চৌধুরীর দাদা সাজ্জাদুর রহমান চৌধুরী, নুরুজ্জামান, সাবেক ইউপি সদস্য মো. চুনু মিয়া।

এ সময় কান্না বিজড়িত কণ্ঠে হেভেনের দাদা সাজ্জাদুর রহমান বলেন, ‘ছাত্রলীগের অন্যতম নেতা হেভেন চৌধুরীকে নির্মমভাবে হত্যা করে হাবিবসহ সন্ত্রাসীরা। ওই খুনি হাবিবকে ইউপি নির্বাচনে মনোনয়ন দেওয়ায় হেভেন হত্যা মামলার বিচারকার্য নিয়ে সংশয় রয়েছে।’ স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার কাছে খুনি হাবিবের মনোনয়নপত্র বাতিলসহ তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

হত্যা মামলার বাদী হেভেনের বাবা মকবুল হোসেন চৌধুরী বলেন, ‘হেভেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত ও অনুপ্রাণিত হয়ে ছাত্রলীগের একনিষ্ঠ কর্মী হিসেবে কাজ করেছে। ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সক্রিয় থাকায় হেভেনকে হত্যার ঘটনায় যেখানে আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে নির্দেশ দেওয়ার কথা ছিল, সেখানে হাবিবুর রহমান হাবিবকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দিয়ে পুরস্কৃত করা হলো- এটি সত্যি বিষয়টি দুঃখজনক।’

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ৩ মার্চ নবীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা হেভেন চৌধুরীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় করা মামলার প্রধান আসামি হাবিবুর রহমান হাবিব। মামলাটি বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে। ২০১০ সালের ৭ মার্চ জলমহাল ইজারা নিয়ে তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (বর্তমানে সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব) সুলতানা ইয়াসমীনকে লাঞ্ছিত করেন হাবিবুর রহমান হাবিব। এ ঘটনায় ইউএনও বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে মামলা করেন। এছাড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জের ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলামের কাছ থেকে ব্যবসার কথা বলে ২০ লাখ টাকা এনে আত্মসাৎ করেন। এ ঘটনায় সাইফুল ইসলাম ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাবিবের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা করেন। এই মামলায় আদালত তার বিরুদ্ধে (সিআর ৬৩/২১) গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

সিলেটে জ্বালানি তেলের সংকট, আন্দোলনের হুঁশিয়ারি 

সিলেটে জ্বালানি তেলের সংকট, আন্দোলনের হুঁশিয়ারি 

বরাদ্দের আগেই প্রতীক নিয়ে প্রার্থীদের প্রচারণা

বরাদ্দের আগেই প্রতীক নিয়ে প্রার্থীদের প্রচারণা

ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় কুষ্টিয়ায় গ্রেফতার সিলেটের সাদি  

ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় কুষ্টিয়ায় গ্রেফতার সিলেটের সাদি  

চেয়ারম্যান প্রার্থীর ভাতিজার বিরুদ্ধে প্রতিপক্ষের সমর্থককে গুলির অভিযোগ

চেয়ারম্যান প্রার্থীর ভাতিজার বিরুদ্ধে প্রতিপক্ষের সমর্থককে গুলির অভিযোগ

বেতনভাতার দাবিতে পোশাকশ্রমিকদের মহাসড়ক অবরোধ

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:২৩

গাজীপুর মহানগরের দক্ষিণ সালনা এলাকায় বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে শ্যামলী পোশাক কারখানার শ্রমিকরা কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছেন। বুধবার (২৭ অক্টোবর) বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ৩ ঘণ্টা তারা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন। বিক্ষোভকারীরা কয়েকটি গাড়ির কাচ ভাঙচুর করে। সন্ধ্যায় পুলিশ টিয়ারশেল ছুড়ে আন্দোলনরত শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

সড়ক অবরোধের কারণে ওই মহাসড়কের উভয় পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে ঢাকা ও ময়মনসিংহগামী যাত্রীদের দুর্ভোগ পড়তে হয়েছে। জরুরি প্রয়োজনে যাত্রীরা কেউ কেউ হেঁটে গন্তব্য রওনা দিয়েছেন।

সেলিম হোসেন, রাবেয়া আক্তার, জহিরুল ইসলামসহ আন্দোলনরত শ্রমিকরা জানান, তারা কয়েক মাসের বেতনভাতা পাওনা রয়েছেন। কর্তৃপক্ষ একাধিকবার আশ্বাস দিয়ে তারিখ নির্ধারণ করলেও পাওনাদি পরিশোধ করেনি। ২৫ অক্টোবর শ্রমিক-কর্মচারীদের সেপ্টেম্বর মাসের বকেয়া বেতনভাতা পরিশোধের নির্ধারিত তারিখ ছিল। কিন্তু কারখানা কর্তৃপক্ষ ওই দিন শ্রমিকদের পাওনাদি না দিয়ে মঙ্গলবার (২৬ সেপ্টেম্বর) পরিশোধের আশ্বাস দেয়। ওই দিনও বেতনভাতা পরিশোধ না করে ফের বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) পরিশোধের তারিখ নির্ধারণ করে। দুপুরের খাবারের বিরতির পর আড়াইটা পর্যন্ত অপেক্ষা করার পরও বকেয়া বেতনভাতা পরিশোধ না করায় শ্রমিকদের মাঝে অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে তারা বিকাল ৩টার দিকে সেপ্টেম্বর মাসের বকেয়াসহ চলতি মাসের বেতনভাতা পরিশোধের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করেন।

তারা কর্তৃপক্ষের সাড়া না পেয়ে কারখানা থেকে বের হয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন। এ সময় তারা মহাসড়কে বসে এবং গাছ ও ইট ফেলে অবরোধ সৃষ্টি করে। এতে মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। উভয় পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

গাজীপুর শিল্প পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল মোনায়েম জানান, শ্রমিক অসন্তোষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি সমাধানের জন্য কারখানা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদেরকে পাওয়া যায়নি। পুলিশ সদস্যরা অবরোধকারী শ্রমিকদের বুঝিয়ে মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেও শ্রমিকরা সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত অবরোধ তুলে নেয়নি। প্রায় তিন ঘণ্টা অবরোধ অব্যাহত থাকায় মহাসড়কের উভয় দিকে যানবাহন আটকা পড়ে যানজটের সৃষ্টি হয় এবং যাত্রীদের ভোগান্তি পোহাতে হয়। সন্ধ্যায় আন্দোলনকারীরা অন্তত ৩৫/৪০টি গাড়ির কাচ ভাঙচুর করে। তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়লে পুলিশের কয়েকজন সদস্য আহত হন। এক পর্যায়ে পুলিশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারশেল ছুড়ে আন্দোলনরতদের ছত্রভঙ্গ করলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে এবং মহাসড়কে পুনরায় যানবাহন চলাচল শুরু হয়। শ্যামলী পোশাক কারখানায় প্রায় আড়াই হাজার শ্রমিক-কর্মচারী রয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

স্কুলছাত্রীকে গলা কেটে হত্যা, সাবেক প্রেমিককে সন্দেহ পুলিশের

স্কুলছাত্রীকে গলা কেটে হত্যা, সাবেক প্রেমিককে সন্দেহ পুলিশের

প্রকাশ্যে হকার হত্যার প্রধান আসামি গ্রেফতার

প্রকাশ্যে হকার হত্যার প্রধান আসামি গ্রেফতার

নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে শ্রীনগর থানার ওসি প্রত্যাহার

নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে শ্রীনগর থানার ওসি প্রত্যাহার

ডোবার পানিতে বাবার মরদেহ, ২ ছেলে আহত

ডোবার পানিতে বাবার মরদেহ, ২ ছেলে আহত

কুমিল্লায় মণ্ডপ ভাঙচুরের ঘটনায় আরও এক মামলা 

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:২৩

কুমিল্লা নগরীর নানুয়াদিঘির পাড়ে পূজামণ্ডপে ভাঙচুরের ঘটনায় আরও এক মামলা করা হয়েছে। পাশাপাশি হনুমানের কোলে কোরআন রেখে সাম্প্রদায়িক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির ঘটনায় করা মামলাটি বুধবার (২৭ অক্টোবর) দুপুরে সিআইডির কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সহিংসতার ঘটনায় মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) গভীর রাতে পূজামণ্ডপ কমিটির পক্ষ থেকে ২৫০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে কোতোয়ালি মডেল থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করা হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনওয়ারুল আজিম।

পুলিশ জানায়, কুমিল্লায় কোরআন অবমাননা, পূজামণ্ডপ ভাঙচুর ও মন্দিরে হামলার ঘটনায় কোতোয়ালি, সদর দক্ষিণ, দাউদকান্দি ও দেবিদ্বার থানায় ১২টি মামলা হয়েছে। ১২ মামলায় এজাহারনামীয় ৯২ জনসহ ১১০২ জনকে আসামি করা হয়েছে। এর মধ্যে গ্রেফতার হয়েছেন ৭২ জন। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে দলীয় পরিচয়ে বিএনপির ৩৬ জন এবং জামায়াত ও শিবিরের ১৬ নেতাকর্মী।

সিআইডি কুমিল্লা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, সাত দিনের রিমান্ডে থাকা ইকবাল হোসেন, ৯৯৯-এ পুলিশকে ফোন করা ইকরাম এবং দারোগাবাড়ি মাজারের সহকারী খাদেম হুমায়ুন কবির ও ফয়সাল আহমেদকে সিআইডি হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। 

রিমান্ডে থাকা চার আসামি মণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখা এবং হনুমানের মূর্তি থেকে নেওয়া গদা উদ্ধারের বাইরে নতুন তথ্য দিয়েছেন কিনা এই বিষয়ে কিছুই জানায়নি সিআইডি।

ওসি আনওয়ারুল আজিম বলেন, ১৩ অক্টোবর নানুয়াদিঘির উত্তর পাড়ের অস্থায়ী পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখা ও পরবর্তীতে ভাঙচুরসহ সহিংসতার ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে পূজামণ্ডপ কমিটির পক্ষ থেকে স্থানীয় যুবক কান্তি মদন মিঠুন বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেছেন। এই মামলায় ২৫০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

কুমিল্লা সিআইডির পুলিশ সুপার খান মোহাম্মদ রেজওয়ান বলেন, বুধবার দুপুরে মামলার সব ডকুমেন্টস আমাদের বুঝিয়ে দেয় পুলিশ। মামলাটি স্পর্শকাতর হওয়ায় সতর্কতার সঙ্গে তদন্তকাজ চলছে।

গত ১৩ অক্টোবর নগরীর নানুয়াদিঘির পাড় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখার ঘটনায় নগরের কয়েকটি পূজামণ্ডপে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এর জেরে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ, নোয়াখালীর চৌমুহনী, রংপুরের পীরগঞ্জে বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশের সংগ্রহ করা সিসিটিভি ফুটেজের মাধ্যমে পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা প্রধান অভিযুক্ত ইকবালকে শনাক্ত করে। ২১ অক্টোবর ইকবালকে কক্সবাজার থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ২২ অক্টোবর তাকে কুমিল্লায় এনে ২৩ অক্টোবর আদালতে হাজির করা হয়। আদালত ইকবাল, মাজারের দুই খাদেম ও ৯৯৯-এ কল করা ইকরামের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

/এএম/

সম্পর্কিত

তেলের ড্রাম তুলতে নেমে স্রোতে ভেসে গেলেন শ্রমিক

তেলের ড্রাম তুলতে নেমে স্রোতে ভেসে গেলেন শ্রমিক

ফ্লাইওভারের র‍্যাম্পের পিলারে ফাটল পায়নি বিশেষজ্ঞ দল

ফ্লাইওভারের র‍্যাম্পের পিলারে ফাটল পায়নি বিশেষজ্ঞ দল

প্রকাশ্যে হকার হত্যার প্রধান আসামি গ্রেফতার

প্রকাশ্যে হকার হত্যার প্রধান আসামি গ্রেফতার

নোয়াখালীতে সাম্প্রদায়িক বিশৃঙ্খলার ঘটনায় ৮ আসামির রিমান্ড

নোয়াখালীতে সাম্প্রদায়িক বিশৃঙ্খলার ঘটনায় ৮ আসামির রিমান্ড

সিলেটে জ্বালানি তেলের সংকট, আন্দোলনের হুঁশিয়ারি 

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৪২

আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সিলেটে জ্বালানি তেলের সংকট নিরসন না হলে কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার চণ্ডীপুলে একটি কনভেনশন হলে সভা করে এই হুঁশিয়ারি দেন বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম ডিলারস ডিস্ট্রিবিউটরস এজেন্ট অ্যান্ড পেট্রোলিয়াম ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সিলেট বিভাগীয় শাখার নেতারা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের আহমদ চৌধুরী।

তিনি বলেন, সিলেটে জ্বালানি তেল সংকট প্রকট আকার ধারণ করছে। তেল সংকটের কারণে দিনে দিনে স্থবির হয়ে পড়ছে এর সঙ্গে জড়িত বিভিন্ন খাতের মানুষের জীবনযাত্রা। সংকটের জন্য সংশ্লিষ্টরা রেলের ওয়াগন সংকটকে দায়ী করছেন। এ ছাড়া স্থানীয় পর্যায়ে জ্বালানি তেল উৎপাদন বন্ধ থাকার কারণে সংকট আরও তীব্র আকার ধারণ করেছে বলেও জানান তিনি।

জুবায়ের আহমদ চৌধুরী বলেন, সিলেটে প্রতিদিন প্রায় ১০ লাখ লিটার জ্বালানি তেলের চাহিদা রয়েছে। এর মধ্যে বর্তমানে সরবরাহ আছে এক থেকে সোয়া এক লাখ লিটারের মতো। বর্তমানে যে তেল সরবরাহ হচ্ছে তা সিলেটের চারটি ডিপোর মধ্যে ভাগ করে নিতে হয়। এ জন্য কোনও কোম্পানি তাদের গ্রাহকের চাহিদা পূরণ করতে পারে না।

সংগঠনের সভাপতি মো. মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের আহমদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য দেন খান মো. ফরিদ উদ্দিন, নুরুল ওয়াছেহ আলতাফী, হুমায়ুন আহমেদ, সায়েম আহমেদ, জুবের আহমেদ চৌধুরী, রিয়াশাদ আজিম হক, সিরাজুল হোসেন আহমদ, সাহেদ আহমদ চৌধুরী, এনামুল হক রুবেল ও রিয়াদ উদ্দিন।

/এএম/ 

সম্পর্কিত

হত্যা মামলার আসামিকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ায় ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

হত্যা মামলার আসামিকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ায় ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় কুষ্টিয়ায় গ্রেফতার সিলেটের সাদি  

ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় কুষ্টিয়ায় গ্রেফতার সিলেটের সাদি  

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

‘জুড়ীতে সাফারি পার্ক হলে পাহাড়-জীববৈচিত্র্য রক্ষা পাবে’

‘জুড়ীতে সাফারি পার্ক হলে পাহাড়-জীববৈচিত্র্য রক্ষা পাবে’

ব্যবসায়ীর গুদামে গরিবের ১০ হাজার ৭০০ কেজি চাল

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৪৭

বগুড়ার আদমদীঘির নশরতপুর বাজারে আল মামুন (৪৫) নামে এক চাল ব্যবসায়ীর গুদাম থেকে দরিদ্রদের জন্য সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১০ হাজার ৭০০ কেজি (১০.৭০ মেট্রিক টন) চাল জব্দ করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) রাতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবণী রায় অভিযান চালিয়ে এই চাল জব্দ করেন। এ ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। বুধবার সন্ধ্যায় আদমদীঘি থানার ওসি জালাল উদ্দিন এ তথ্য জানান।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, আদমদীঘি উপজেলার পূর্ব ডালম্বা গ্রামের একরাম আলীর ছেলে আল মামুন চাল ব্যবসায়ী। তিনি উপজেলার নশতরপুর বাজারে ইসমাইল হোসেনের চালকলের গুদাম ভাড়া নিয়ে সেখানে সরকারি কর্মসূচির এবং বেসরকারি চাল কেনাবেচা করেন। তিনি সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১০ টাকা কেজি দরের বিপুল পরিমাণ চাল কিনে ওই গুদামে রেখে রিপ্যাকিং করছিলেন। মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে গোপনে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবণী রায় গুদামে অভিযান চালান। আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে গুদাম মালিক আল মামুন ও তার লোকজন পালিয়ে যান। সেখানে খাদ্য অধিদফতরের ছাপানো ২১৪ চটের বস্তায় থাকা ১০ হাজার ৭০০ কেজি চাল ঢেলে প্লাস্টিকের বস্তায় তোলা হচ্ছিল। রাতেই চালগুলো জব্দ করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শ্রাবণী রায় জানান, অবৈধভাবে সরকারি চাল মজুতকারীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

খাদ্য নিয়ন্ত্রক কেএম গোলাম রব্বানী জানান, জব্দ করা চালগুলো পুলিশের হেফাজতে দেওয়া হয়েছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে তিনি বাদী হয়ে থানায় মামলা করবেন।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

আর্থিক ক্ষমতা পেলেন দুপচাঁচিয়ার ভারপ্রাপ্ত মেয়র

আর্থিক ক্ষমতা পেলেন দুপচাঁচিয়ার ভারপ্রাপ্ত মেয়র

৩১৯০ কেজি সরকারি চালসহ ট্রাকচালক গ্রেফতার

৩১৯০ কেজি সরকারি চালসহ ট্রাকচালক গ্রেফতার

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ব্যবসায়ীর গুদামে গরিবের ১০ হাজার ৭০০ কেজি চাল

ব্যবসায়ীর গুদামে গরিবের ১০ হাজার ৭০০ কেজি চাল

আর্থিক ক্ষমতা পেলেন দুপচাঁচিয়ার ভারপ্রাপ্ত মেয়র

আর্থিক ক্ষমতা পেলেন দুপচাঁচিয়ার ভারপ্রাপ্ত মেয়র

৩১৯০ কেজি সরকারি চালসহ ট্রাকচালক গ্রেফতার

৩১৯০ কেজি সরকারি চালসহ ট্রাকচালক গ্রেফতার

ঘটনার বর্ণনা দিলেন চুল কেটে দেওয়া ভুক্তভোগী ১৪ শিক্ষার্থী

ঘটনার বর্ণনা দিলেন চুল কেটে দেওয়া ভুক্তভোগী ১৪ শিক্ষার্থী

চলন্ত ট্রাক থেকে মাল চুরির চেষ্টা, প্রাণ গেলো যুবকের

চলন্ত ট্রাক থেকে মাল চুরির চেষ্টা, প্রাণ গেলো যুবকের

সিরাজগঞ্জে পুলিশ-যুবদল সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

সিরাজগঞ্জে পুলিশ-যুবদল সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে ইউজিসির প্রতিনিধিরা, ডাকা হয়েছে সেই শিক্ষিকাকে

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে ইউজিসির প্রতিনিধিরা, ডাকা হয়েছে সেই শিক্ষিকাকে

সর্বশেষ

বৃহস্পতিবার থেকে সচিবালয়ে দর্শনার্থী পাস ইস্যুর সিদ্ধান্ত

বৃহস্পতিবার থেকে সচিবালয়ে দর্শনার্থী পাস ইস্যুর সিদ্ধান্ত

আরব আমিরাতের ফ্লাইট নিয়ে নাজেহাল বিমানবন্দর

আরব আমিরাতের ফ্লাইট নিয়ে নাজেহাল বিমানবন্দর

২০২২ সালে জাপানি বিনিয়োগে নতুন ঢেউয়ের আশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

২০২২ সালে জাপানি বিনিয়োগে নতুন ঢেউয়ের আশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

২ বছরের কম সময়ে দেশের সেরা বিটুবি ই-কমার্স  ‘মোকাম’ 

২ বছরের কম সময়ে দেশের সেরা বিটুবি ই-কমার্স ‘মোকাম’ 

নারী উদ্যোক্তাদের স্টার্ট-আপ ইকোসিস্টেম প্রক্রিয়া শেখালো সরকারের আইডিয়া প্রকল্প

নারী উদ্যোক্তাদের স্টার্ট-আপ ইকোসিস্টেম প্রক্রিয়া শেখালো সরকারের আইডিয়া প্রকল্প

© 2021 Bangla Tribune