X
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৬ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

নারায়ণগঞ্জে ১৮ কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতি হয়েছিল যেভাবে

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:১২

পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছিল ২০১৯ সালের ২৪ মে। কেউ কেউ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির এক মাস পর, কেউ কেউ দুই মাস পর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে একখণ্ড জমি কিনেছেন। একজন-দুজন নয়, একই দাগ-খতিয়ানে একখণ্ড জমি কিনেছেন একাধিক ব্যক্তি। এদের কেউই ওই এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা নন, তবু জেলা কোটায় নিয়োগ পেয়েছিলেন কনস্টেবল হিসেবে। পুলিশ সদর দফতরের অনুসন্ধানে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের এই জালিয়াতির বিষয়টি ধরা পড়ার পর নিয়োগ বাতিল করা হয়েছে সেই ১৮ কনস্টেবলের। কিন্তু জালিয়াতির সঙ্গে যুক্ত ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের এখনও কিছুই হয়নি। তারা সবাই আছেন বহাল তবিয়তে। নিয়োগে ভেরিফিকেশনের দায়িত্ব পালনকারী ছয় উপ-পরিদর্শকদের (এসআই) বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করেছে পুলিশ সদর দফতর।

সম্প্রতি এই জালিয়াতির ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল অব বাংলাদেশ-টিআইবি এক বিবৃতিতে ঘুষ লেনদেনের মাধ্যমে নিয়োগের ঘটনায় উচ্চপদস্থ সবার বিরুদ্ধে নিরপেক্ষ, সুষ্ঠু ও পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করার আহ্বান জানিয়েছে।

জানা গেছে, ২০১৯ সালের ২৪ মে পুলিশ সদর দফতর ৯ হাজার ৬৮০ জন ট্রেইনি পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেয়। জেলা কোটা অনুযায়ী নারায়ণগঞ্জের নতুন পদের জন্য বরাদ্দ ছিল ৪৭টি, আর বিশেষ কোটায় অপূরণীয় পদ সংখ্যা ছিল ৩১০টি। সব মিলিয়ে ২০১৯ সালে নারায়ণগঞ্জ জেলা থেকে ৩৫৭ জন পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছিল।

পুলিশ সদর দফতর সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালের কনস্টেবল নিয়োগে সারা দেশের বিভিন্ন জেলায় জালিয়াতির তথ্য জানার পর পুলিশ সদর দফতর অনুসন্ধান শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় নারায়ণগঞ্জে ১৮ জন কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির বিষয়টি ওঠে আসে পুলিশ সদর দফতরের অনুসন্ধানে। ওই ১৮ কনস্টেবল হলেন, হুমায়ূন কবীর, আকরাম হোসেন, রিপন হোসেন, সজীব, সবুজ হোসেন, রাসেল, সোহেল রানা, মানিক মিয়া, সাদরুল, রাসেল শেখ, রিপন সরকার, আপিরুল ইসলাম, তোফায়েল খান, সুমন আহম্মেদ, রায়হান আলী, কবির মিয়া, ফিরোজ আলী ও সুজন আহম্মেদ।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ১৮ জন কনস্টেবলের বেশিরভাগেরই স্থায়ী ঠিকানা সিরাজগঞ্জ জেলায়। এছাড়া কয়েকজন বগুড়া, নেত্রকোনা, টাঙ্গাইল, জামালপুরসহ অন্যান্য জেলারও স্থায়ী বাসিন্দা। অন্য জেলার বাসিন্দা হওয়ার পরও অবৈধ ঘুষ লেনদেনের মাধ্যমে জেলা কোটায় নিয়োগ পেয়েছিল তারা। আবেদনের আগে তারা সবাই নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থানাধীন পুটিনার বাগলা, আড়াইহাজার থানাধীন সাহেববাজারের পূর্বকান্দি, ফতুল্লা থানাধীন বক্তাবলী এলাকার মধ্যনগর এলাকায় এক খণ্ড করে জমি কেনেন। পরে তদন্ত করে ১৮ কনস্টেবল নিয়োগের বিষয়ে জালিয়াতির প্রমাণ পাওয়ার পর তাদের সবাইকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়।

জালিয়াতি হয়েছিল যেভাবে

বরখাস্ত হওয়া ১৮ পুলিশ কনস্টেবলের একজন স্বজন জানান, তারা মোট ১৪ লাখ টাকায় পুলিশ কনস্টেবল হিসেবে নিয়োগের জন্য চুক্তি করেছিলেন। চুক্তির অন্যতম শর্ত ছিল নিজেদের টাকায় তাদের নারায়ণগঞ্জের কোথাও এক খণ্ড জমি কিনতে হবে। একজন দালালের মাধ্যমে এই চুক্তি করেন তারা। সেই দালালের সঙ্গে জেলার ঊর্ধ্বতন এক পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ ছিল। তিনিই নিয়োগের পুরো বিষয়টি ব্যবস্থা করে দেওয়ার কথা বলেছিলেন।

পুলিশ সদর দফতরের অনুসন্ধান বলছে, ওই ১৮ জন কনস্টেবলের মধ্যে রিপন হোসেন, সজিব, সবুজ হোসেন, রাসেল ও কবির মিয়া নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ২৩ দিন পর ২০১৯ সালের ১৬ জুন রূপগঞ্জের বাগলায় একসঙ্গে একখণ্ড জমি কেনেন। যার সাবকবলা দলিল নং-৭৫০৮/১৯। এছাড়া হুমায়ুন কবির, রাসেল শেখ ও সুজন আহম্মেদ একই তারিখে একসঙ্গে একখণ্ড জমি কেনেন। যার দলিল নম্বর-৭৪৯১/১৯। বরখাস্তকৃত কনস্টেবল আকরাম হোসেন, রিপন সরকার ও ফিরোজ আলীর একসঙ্গে কেনা জমির দলিল নম্বর-৭৪৯২/১৯।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বরখাস্তকৃত কনস্টেবল সোহেল রানা ও সাদরুলের স্থায়ী ঠিকানার সপক্ষে কোনও প্রমাণই ছিল না। মানিক মিয়া নামে আরেকজন কনস্টেবল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ২৬ দিন পর ফতুল্লার মধ্যনগরে একখণ্ড জমি কেনেন। যার দলিল নম্বর-৫৭২৩/১৯। আপিরুল ইসলাম ও রায়হান আলী একসঙ্গে একখণ্ড জমি কেনেন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের এক মাস পর। তাদের দুজনের জমির দলিল নম্বর-৭৯৯৫/১৯। তোফায়েল খান রূপগঞ্জের বাগলায় জমি কেনেন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ৬১ দিন পর। দলিল নম্বর-৯৪৭৪/১৯। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ৬৫ দিন পর সুমন আহম্মেদ জমি কেনেন। তার দলিল নম্বর-৯৪৮৮/১৯।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, নিয়োগের জন্য জমি কেনার পুরো বিষয়টি পরিকল্পিত। দালাল ধরে ঘুষ লেনদেনের মাধ্যমে নিয়োগের জন্য প্রার্থীরা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ, ফতুল্লা ও আড়াইহাজার গিয়ে জমি কিনেছেন। জমি কেনার পুরো বিষয়টি দেখভাল করেছে দালাল চক্রটি।

নিম্নপদস্থ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা, ঊর্ধ্বতনরা বহাল তবিয়তে

আলোচিত ১৮ কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির বিষয়ে স্থায়ী ঠিকানা ভেরিফিকেশনে অবহেলা ও গাফিলতির অভিযোগে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ, আড়াইহাজার ও ফতুল্লা থানার তৎকালীন ৬ উপ-পরিদর্শকের (এসআই) বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করেছে পুলিশ সদর দফতর। অভিযুক্ত ৬ এসআই হলেন, ফরিদ উদ্দিন, শাজাহান খান, শামীম আল মামুন, খায়রুল ইসলাম, বিজয় কৃষ্ণ কর্মকার ও আরিফুর রহমান। তারা ওই ১৮ জন পুলিশ কনস্টেবলের নিয়োগের জন্য স্থায়ী ঠিকানা যাচাই-বাছাই করেছেন। তারা প্রতিবেদনে প্রার্থীদের পূর্ববর্তী স্থায়ী ঠিকানার কথা উল্লেখ করলেও সংশ্লিষ্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিয়োগের জন্য সুপারিশ করে তা জেলা ডিএসবি কার্যালয়ে পাঠিয়েছেন।

জানতে চাইলে রূপগঞ্জ থানার তৎকালীন এসআই (বর্তমানে নরসিংদীর মাধবদী থানায় কর্মরত) ফরিদ উদ্দিন বলেন, ‘আমরা প্রার্থীদের সবকিছু উল্লেখ করে প্রতিবেদন দিয়েছিলাম। প্রার্থীরা রূপগঞ্জে যে জমি কিনেছে সেই তথ্যের সঙ্গে তাদের পূর্বের স্থায়ী ঠিকানার তথ্যও প্রতিবেদনে উল্লেখ করি। কিন্তু কনস্টেবলদের চাকরির নিয়োগকর্তা হলেন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। নিয়োগের বিষয়টি তারাই দেখভাল করেছেন। এখানে আমাদের করার কিছুই ছিল না। আমাদের বিরুদ্ধে অহেতুক বিভাগীয় মামলা করা হয়েছে।’

একই কথা বলেছেন রূপগঞ্জ থানার তৎকালীন এসআই শাজাহান খান (বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ লাইন্সে কর্মরত)। তিনি বলেন, ‘আমি যে কয়জনের প্রতিবেদন দিয়েছি, তাদের প্রত্যেকের আগের স্থায়ী ঠিকানার বিষয়টি উল্লেখ করেছি। আমরা তো নিয়োগের সুপারিশ করা বা বাতিল করার বিষয়টি উল্লেখ করতে পারি না। এটি করেন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। আমাদের বিরুদ্ধে অকারণে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, যেকোনও প্রার্থীর নিয়োগের জন্য স্থায়ী ঠিকানা যাচাই-বাছাই প্রতিবেদনে সুপারিশ করেন থানার অফিসার ইনচার্জরা (ওসি)। ওই ১৮ পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগের জন্য রূপগঞ্জ থানার তৎকালীন ওসি মাহমুদুল হাসান, আড়াইহাজার থানার তৎকালীন ওসি নজরুল ইসলাম ও ফতুল্লা থানার তৎকালীন ওসি আসলাম হোসেন ভি-রোল প্রতিবেদনের ১৯ নম্বর কলামে নিয়োগযোগ্য বলে মতামত দেন। জেলা পুলিশ সুপারের কাছে পুরো প্রতিবেদনে নিয়োগযোগ্য বলে মতামত দিয়েছিলেন তৎকালীন জেলা ডিআইও-১ মোমিনুল ইসলামও। তবে পুলিশের পরিদর্শক (ইন্সপেক্টর) পদমর্যাদার এই চার কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কোনও বিভাগীয় মামলা হয়নি। পুলিশ সদর দফতর থেকে তাদের কাছে ব্যাখ্যা তলব করে একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে। সেই চিঠির উত্তরও দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

যোগাযোগ করা হলে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থানার তৎকালীন ওসি (বর্তমানে ডিএমপি সদর দফতরের অপরাধ বিভাগে কর্মরত) মাহমুদুল হাসান বলেন, ‘আমরা শুধু প্রতিবেদন অগ্রগামী করেছিলাম। প্রতিবেদনে তাদের আগের স্থায়ী ঠিকানা উল্লেখ করা ছিল। জমি কেনার দলিল এবং কেনার তারিখও উল্লেখ করা ছিল। আমরা ছাড়াও বিষয়টি জেলা ডিএসবিও প্রকাশ্যে ও গোপনে অনুসন্ধান করেছে। এখানে নিয়োগের বিষয়ে আমাদের কোনও হাত ছিল না।’

এক প্রশ্নের জবাবে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, আমরা বিষয়টি এসপি মহোদয়কে মৌখিকভাবে বলেছি। এসপি মহোদয় বলেছেন, যার যতটুকু জায়গা আছে এটুকু উল্লেখ করে দাও। আমরা সেভাবেই করেছি।’

নাম প্রকাশে পুলিশ সুপার (এসপি) পদমর্যাদার এক কর্মকর্তা জানান, চলতি বছর থেকে কনস্টেবল নিয়োগের পুরো বিষয়টি দেখভাল করবে পুলিশ সদর দফতর। আগে এই নিয়োগের পুরো ক্ষমতা ছিল জেলার পুলিশ সুপারের হাতে। নিয়োগের ক্ষেত্রে যাচাই-বাছাই বা সকল কার্যক্রম জেলার পুলিশ সুপারের নির্দেশেই হতো। এক্ষেত্রে পুরো দায়ভার আসে পুলিশ সুপারের ওপর। কারণ, প্রশাসনে মৌখিক নির্দেশনাও অনেক সময় পালন করতে হয় অধস্তনদের। তা না হলে সেই অধস্তনের সেখানে চাকরি করাটা কঠিন হয়ে পড়ে।

পুলিশ সদর দফতরের অনুসন্ধানে এই জালিয়াতির বিষয়ে অনুসন্ধানের পর ৬ জন এসআই ও ৪ জন ইন্সপেক্টরের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বললেও ঊর্ধ্বতন কোনও কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কোনও মন্তব্য করেননি। তবে অনুসন্ধানের বিস্তারিত বর্ণনায় প্রত্যেক কনস্টেবল নিয়োগে ভি-রোল যাচাই-বাছাই প্রতিবেদনে অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা, সংশ্লিষ্ট থানার ওসি ও জেলা পুলিশ সুপার সব জেনেও নিয়োগে সুপারিশ করেছেন বলে উল্লেখ রয়েছে।

নারায়ণগঞ্জে জালিয়াতির মাধ্যমে ১৮ কনস্টেবল নিয়োগের সময় জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) ছিলেন হারুণ অর রশিদ। পরবর্তীকালে তিনি বদলি হয়ে ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে অতিরিক্ত উপ-মহাপরিদর্শক (অতিরিক্ত ডিআইজি) হিসেবে পদোন্নতি পেয়ে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার (ডিবি-উত্তর বিভাগ) হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন। 

যুগ্ম কমিশনার হারুন অর রশিদ বাংলা ট্রিবিউনকে  বলেন, ‘মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা তাদের জমির দলিল যাচাই ও স্থানীয় চেয়ারম্যানের দেওয়া সনদ যাচাই করে যে প্রতিবেদন দিয়েছেন, তার ভিত্তিতেই নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। পরে অনুসন্ধানে জানার পর তাদের চাকরি চলে গেছে। এক্ষেত্রে যাচাই করার দায়িত্ব ছিল যাদের, তাদেরই তো এর দায় নেওয়া উচিত। পুলিশ সুপার তো আর মাঠপর্যায়ে গিয়ে অনুসন্ধান করতে পারেন না।’

জালিয়াত চক্র শনাক্তে কোনও উদ্যোগ নেই

আলোচিত এ ঘটনায় পুলিশ সদর দফতরের অনুসন্ধানে পুরো জালিয়াতির ঘটনাটি বের হয়ে এলেও জালিয়াত চক্রকে শনাক্ত করতে কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। নিয়োগের পর বরখাস্ত হওয়া ১৮ কনস্টেবল কার মাধ্যমে অর্থ দিয়ে নিয়োগ পেয়েছিলেন তাকে শনাক্ত করা হয়নি। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নিয়োগে জালিয়াতি বা অবৈধ লেনদেন বন্ধ করতে এই চক্রটিকে শনাক্ত করতে পারলে পুলিশের ভাবমূর্তি আরও বেশি উজ্জ্বল হতো। এছাড়া সরকারি চাকরির আশায় ঘুষদাতা পরিবারগুলোও কিছুটা উপকৃত হতো।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কনস্টেবলের স্বজন জানান, তারা প্রায় ১৪ লাখ টাকা ধরা খেয়ে আছেন। সেই টাকাও তারা ফেরত পাননি। এমনকি ফেরত চাওয়ার সাহসও পাচ্ছেন না। কারণ, ওই দালালের নেপথ্যে একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি রয়েছেন। তাদের আশঙ্কা, টাকা চাইতে গেলে তারা আরও বিপদে পড়তে পারেন।

সার্বিক বিষয়ে জানতে পুলিশ সদর দফতরের ডিআইজি (মিডিয়া অ্যান্ড প্ল্যানিং) হায়দার আলী খানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি জেনে জানাতে পারবেন বলে মন্তব্য করেন। পরে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি খুদেবার্তা পাঠাতে বলেন। খুদেবার্তায় পুরো বিষয়টি জানালেও তিনি আর কোনও মন্তব্য করেননি।

 /এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

রাজনৈতিক দলগুলো পুরনো অভ্যাসে লিপ্ত, বিবৃতিতে ৪৭ নাগরিক

রাজনৈতিক দলগুলো পুরনো অভ্যাসে লিপ্ত, বিবৃতিতে ৪৭ নাগরিক

হিন্দু পরিষদের শাহবাগ অবরোধ

হিন্দু পরিষদের শাহবাগ অবরোধ

আরও ১২৩ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

আরও ১২৩ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

সহিংসতার বিরুদ্ধে সংগীত 

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ২২:২৪

গান, কবিতা, মুকাভিনয় ও নৃত্যসহ নানা শৈল্পক পরিবেশনায় সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) বেলা ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ‘সহিংসতার বিরুদ্ধে কনসার্ট’ শিরোনামে এ প্রতিবাদ জানানো হয়। কনসার্টে দেশের নামকরা ব্যান্ডসমূহের পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

রাজু ভাস্কর্যের সামনে সাজানো হয়েছে মঞ্চ কনসার্টে গান পরিবেশ করে দেশের শীর্ষ স্থানীয় ব্যান্ড দল ‘শিরোনামহীন’, ‘মেঘদল’, ‘সহজিয়া’, ‘শহরতলী’, ‘বাংলা ফাইভ’, ‘গানপোকা’, ‘গানকবি’, ‘কৃষ্ণপক্ষ’, ‘কাল’, ‘অবলিক’, ‘অসৃক’, ‘অর্জন’ ও ‘বুনোফুল’ । একক সংগীত পরিবেশন করেন জয় শাহরিয়ার, তুহিন কান্তি দাস, সাহস মোস্তাফিজ, লালন মাহমুদ, নাঈম মাহমুদ, প্রিয়াংকা পাণ্ডে, যশ নমুদার, তাবিব মাহমুদ, রানা, উদয়, অপু, উপায় ও অনিন্দ্য। নৃত্য পরিবেশন করেন উম্মে হাবিবা ও আবু ইবনে রাফি।

ঢাকা ইউনিভার্সিটি মাইম অ্যাকশন সোসাইটির শিল্পীরা মুকাভিনয় পরিবেশন করেন।

রাজু ভাস্কর্যের সামনে সাজানো হয়েছে মঞ্চ ব্যতিক্রমধর্মী এই আয়োজনের উদ্যোক্তা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ কল্যাণ ইনস্টিটিউটের সাবেক শিক্ষার্থী তুহিন কান্তি দাস বলেন, ‘এ আয়োজনের মূল উদ্দেশ্য দেশব্যাপী চলমান সহিংসতার বিরুদ্ধে একাত্ম হয়ে সাংস্কৃতিক প্রতিবাদ জানানো। মিছিল, বক্তৃতা,  সভা ও সেমিনারের চেয়ে শিল্প অনেক শক্তিশালী প্রতিবাদের মাধ্যম। তাই আমরা এই মাধ্যমকেই বেছে নিয়েছি। আমরা চাই, এ দেশের মানুষ হিন্দু-মুসলিম পরিচয়ের চেয়ে ‘আমরা সবাই বাংলাদেশি’ পরিচয়ে পরিচিত হোক। এটাই আজকের আয়োজনের অন্যতম লক্ষ্য।’

 

 /আইএ/

সম্পর্কিত

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের বিপরীতে প্রায় ৭৪ শিক্ষার্থী

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের বিপরীতে প্রায় ৭৪ শিক্ষার্থী

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

হিন্দু পরিষদের শাহবাগ অবরোধ

হিন্দু পরিষদের শাহবাগ অবরোধ

ডেমরায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে রঙমিস্ত্রির মৃত্যু

ডেমরায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে রঙমিস্ত্রির মৃত্যু

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের বিপরীতে প্রায় ৭৪ শিক্ষার্থী

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ২২:১৩

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ২০২০-২১ সেশনের ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের বিপরীতে লড়বেন ৭৩ দশমিক ৮১ জন। এবার এই ইউনিটে ১ হাজার ৫৭০টি আসনের বিপরীতে মোট আবেদন জমা পড়েছে ১ লাখ ১৫ হাজার ৮৮১টি।

আগামীকাল (২৩ অক্টোবর) সকাল ১১টা থেকে পরীক্ষা দেবেন শিক্ষার্থীরা। তবে আবেদনকারী সবার আসন ঢাবিতে পড়েনি। দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে তাদের ভর্তি পরীক্ষা দিতে হবে।

জানা গেছে- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬১ হাজার ৮৫০ জনের, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ১২ হাজার জনের, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ৯ হাজার ৮৯৮ জনের, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭ হাজার ৭৯৮ জনের, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৮ হাজার ১২৪ জনের, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২ হাজার ১৭৮ জনের, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩ হাজার ১৩ জনের এবং বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ১১ হাজার ২০ জনের আসন পড়েছে।

/জেএইচ/

সম্পর্কিত

সহিংসতার বিরুদ্ধে সংগীত 

সহিংসতার বিরুদ্ধে সংগীত 

জবি ছাত্রীর আত্মহত্যা, শিক্ষককে দায়ী করছেন স্বজন ও সহপাঠীরা

জবি ছাত্রীর আত্মহত্যা, শিক্ষককে দায়ী করছেন স্বজন ও সহপাঠীরা

সব শিক্ষা অফিসের ইন্টারনেট সেবা সংক্রান্ত তথ্য চেয়েছে সরকার

সব শিক্ষা অফিসের ইন্টারনেট সেবা সংক্রান্ত তথ্য চেয়েছে সরকার

প্রাথমিকের অফিসে ই-ফাইলিং শুরু ৩১ অক্টোবর

প্রাথমিকের অফিসে ই-ফাইলিং শুরু ৩১ অক্টোবর

উপ-রাষ্ট্রপতি ও উপ-প্রধানমন্ত্রীর পদ সৃষ্টির দাবি হিন্দু পরিষদের

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ২১:১৮

জাতীয় সংসদে সংখ্যালঘুদের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিতকরণে ৬০টি সংরক্ষিত আসন বরাদ্দ এবং একজন উপ-রাষ্ট্রপতি ও একজন উপ-প্রধানমন্ত্রীর পদ সৃষ্টির দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ। একইসঙ্গে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সার্বিক নিরাপত্তার লক্ষ্যে সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রণয়ন এবং জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন গঠনের দাবি তুলেছে সংগঠনটি। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) বিকাল থেকে পাঁচটি দাবি নিয়ে রাজধানীর শাহবাগ মোড়ে সড়ক অবরোধ করেন এর নেতাকর্মীরা।

কর্মসূচিতে পেশ করা সংগঠনের বাকি তিনটি দাবি হলো-শারদীয় দুর্গাপূজায় তিন দিনের সরকারি ছুটি ও নিম্ন মাধ্যমিক পর্যায়ে সংস্কৃত শিক্ষা পুনরায় চালু করা, সরকারি চাকরিতে ২০ শতাংশ কোটা পদ্ধতি চালুসহ হিন্দু ধর্মীয় শিক্ষার্থীদের জন্য সব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে হিন্দু ধর্মীয় শিক্ষক নিয়োগ নিশ্চিত করা এবং বেদখলকৃত সব দেবোত্তর সম্পত্তি স্ব স্ব মঠ-মন্দিরে হস্তান্তরসহ বন্ধ জাদুঘরের পরিবর্তে উদ্ধারকৃত হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রতিমা মঠ-মন্দিরের কাছে ফেরত দেওয়া।

শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নেয় বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ। দেশের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের বিচার এবং সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা চেয়ে রাজধানীর শাহবাগে সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ করেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা। ট্রাইব্যুনাল গঠন করে দ্রুত সাম্প্রদায়িক হামলার বিচার, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে ৫০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ, সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রণয়ন এবং জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন গঠনের দাবি জানান তারা। অবরোধ পরবর্তী সময়ে সন্ধ্যা ৬টার দিকে মশাল মিছিল নিয়ে জাতীয় প্রেসক্লাব অভিমুখে রওনা দেন আন্দোলনকারীরা।

রাজধানীর শাহবাগে সড়ক অবরোধ করে বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ

অবরোধ কর্মসূচিতে বাংলাদেশ হিন্দু আইনজীবী পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুমন কুমার রায় বলেন, ‘আপনারা জানেন দেশব্যাপী সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ওপর কী নারকীয় হামলা চালানো হয়েছে। প্রশাসন এক্ষেত্রে তাদের দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ। রাষ্ট্র সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ। সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতরা বারবার পার পেয়ে যাচ্ছে। এর আগেও সাম্প্রদায়িক হামলায় সংখ্যালঘুরা বিচার পায়নি। হামলার কুশীলবরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যায়। আমরা চাই, হামলার নেপথ্যে যারা জড়িত তাদেরও যেন বিচারের আওতায় আনা হয়।’

জাতীয় হিন্দু সমাজ সংস্কার সমিতির সভাপতি অধ্যাপক নীরেন্দ্রনাথ বিশ্বাসের মন্তব্য, ‘দেশে সংখ্যালঘুদের ওপর এতো হামলা হলেও কোনও বিচার হয় না। বিচার হয় না বলে এর স্থায়ী প্রতিকার দেখা যায় না। হামলাকারীকে বের করে গ্রেফতার করা চূড়ান্ত সমাধান নয়। মূলহোতাকে গ্রেফতার করা হোক এবং শাস্তি দেওয়া হোক।’

হিন্দু-মুসলিম সম্প্রীতি আবারও ফিরিয়ে আনতে সরকারকে মুখ্য ভূমিকা পালনের আহ্বান জানায় জাতীয় হিন্দু সমাজ সংস্কার সমিতি।

/জেএইচ/

সম্পর্কিত

সহিংসতার বিরুদ্ধে সংগীত 

সহিংসতার বিরুদ্ধে সংগীত 

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের বিপরীতে প্রায় ৭৪ শিক্ষার্থী

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের বিপরীতে প্রায় ৭৪ শিক্ষার্থী

ক্যান্সার আক্রান্তদের চিকিৎসার ব্যয়ভার সরকারিভাবে বহনের দাবি

ক্যান্সার আক্রান্তদের চিকিৎসার ব্যয়ভার সরকারিভাবে বহনের দাবি

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

ক্যান্সার আক্রান্তদের চিকিৎসার ব্যয়ভার সরকারিভাবে বহনের দাবি

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ২০:০১

ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার ব্যয় সরকারিভাবে বহনের দাবি জানিয়েছে রোগী কল্যাণ সোসাইটি।

শুক্রবার (২২ অক্টোবর) রাজধানীর মগবাজার এলাকায় বাংলাদেশ রোগী কল্যাণ সোসাইটির উদ্যোগে অসহায় ও দুস্থ মানুষের মাঝে বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ কর্মসূচিতে এ দাবি জানানো হয়।

এ সময় সংগঠনের পক্ষ থেকে তুলে ধরা প্রস্তাবনায় বলা হয়- বায়ু দূষণ বন্ধ ও মেডিক্যালের বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় আধুনিকায়ন ব্যবস্থা জোরদার করতে হবে। বিভাগীয়ভাবে ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা এবং সরকারি হাসপাতালে শূন্যপদে ডাক্তার নিয়োগ সম্পন্ন করতে হবে। স্বাস্থ্য বিমা বাধ্যতামূলক করার জন্য রাষ্ট্রীয়ভাবে উদ্যোগ এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করার কথাও এসময় বলা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বাপ্পি সরদার তার বক্তব্যে বলেন, বর্তমান সময়ে উদ্বেগজনকহারে ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। যদিও প্রথম ও দ্বিতীয় স্তরে ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসার গবেষণা সারা পৃথিবীজুড়ে অনেকটা সফল হলেও শেষ স্তরের চিকিৎসা এখনও আলোর মুখ দেখেনি। এই ক্ষেত্রে সম্প্রতি বর্তমান সরকার ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট চালু করতে যাচ্ছে। তবে ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসার ব্যয়ভার সরকারিভাবে বহন করলে সাধারণ মানুষ উপকৃত হবে।

ডা. মাহতাব হোসাইন মাজেদ বলেন, চিকিৎসা খাতে আরও বেশি গবেষণা জোরদার করা দরকার। উন্নত গবেষণার মাধ্যমে টেকসই চিকিৎসা ব্যবস্থা বাস্তবায়ন করা সম্ভব। পাশাপাশি সরকারি হাসপাতালগুলো দুর্নীতি বন্ধ ও চিকিৎসার মান উন্নত করতে পারলে রোগীরা সঠিক সেবা পাবে।

নুরুল আফসার বিএসসির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সবুজ আন্দোলনের পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান বাপ্পি সরদার। কর্মসূচি উদ্বোধন করেন গণআজাদী লীগের মহাসচিব মুহাম্মদআতা উল্লাহ খান। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ রোগী কল্যাণ সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা ও কো-চেয়ারম্যান ডা. মুহাম্মদ মাহতাব হোসাইন মাজেদ, কুটির শিল্প ও কারিগরি প্রকল্পের নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ শফিউল আলম, রোগী কল্যাণ সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মো. সাইফুল ইসলাম, এইচএম সালাউদ্দিন কাদের।

/এসএস/এমএস/

সম্পর্কিত

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

রবিবার দেশে জলবায়ু ধর্মঘট পালন করবেন পরিবেশবাদীরা

রবিবার দেশে জলবায়ু ধর্মঘট পালন করবেন পরিবেশবাদীরা

রাজধানীতে ট্রেন লাইনচ্যুত: সাড়ে তিন ঘণ্টা পর চলাচল স্বাভাবিক

রাজধানীতে ট্রেন লাইনচ্যুত: সাড়ে তিন ঘণ্টা পর চলাচল স্বাভাবিক

কাওরান বাজারে মালবাহী ট্রেন লাইনচ্যুত

কাওরান বাজারে মালবাহী ট্রেন লাইনচ্যুত

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৩৩

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে কাওরান বাজার এলাকায় দুইজন এবং বনানীর সৈনিক ক্লাব এলাকায় একজন প্রাণ হারিয়েছেন। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) দিনের বিভিন্ন সময়ে এসব দুর্ঘটনা দেখা দেয়। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহগুলো আইনি প্রক্রিয়া শেষে ঢামেক মর্গে পাঠিয়েছে ঢাকা রেলওয়ে পুলিশ।

রেলওয়ে পুলিশের এএসআই সাকলাইন জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে সৈনিক ক্লাব এলাকা থেকে জিন্স প্যান্ট ও শার্ট পরা এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তার বয়স আনুমানিক ২৪ বছর। তবে পরিচয় জানা যায়নি। রেলওয়ে পুলিশের তথ্যানুযায়ী, কমলাপুরগামী সোনার বাংলা এক্সপ্রেস ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু হয়েছে তার।

তেজগাঁও থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রিয়াজ মাহমুদ জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার রাতে তেজগাঁও রেলস্টেশন ও কাওরান বাজারের মাঝামাঝি রেলগেট এলাকায় কমলাপুরগামী ট্রেনে কাটা পড়ে প্রাণ হারায় সবুজ শার্ট ও কালো প্যান্ট পরা এক ব্যক্তি। তার বয়স আনুমানিক ৪০ বছর। তবে পরিচয় জানা যায়নি।

এসআই রিয়াজ মাহমুদ জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে কাওরান বাজার কাঠপট্টি এলাকায় একটি মোবাইল ফোন দেখে আরেকটি মোবাইল ফোনে নম্বর তোলার সময় টঙ্গীগামী ট্রেনের ধাক্কায় মনসুর হেলাল (২৫) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। আশেপাশের লোকজন ট্রেন আসছে দেখে তাকে ডাকলেও তিনি বুঝতে পারেননি।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত তরুণ একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন। তার গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলে। মিরপুরের একটি মেসে থাকতেন তিনি।

/এআইবি/আরটি/জেএইচ/

সম্পর্কিত

সহিংসতার বিরুদ্ধে সংগীত 

সহিংসতার বিরুদ্ধে সংগীত 

ক্যান্সার আক্রান্তদের চিকিৎসার ব্যয়ভার সরকারিভাবে বহনের দাবি

ক্যান্সার আক্রান্তদের চিকিৎসার ব্যয়ভার সরকারিভাবে বহনের দাবি

রাজনৈতিক দলগুলো পুরনো অভ্যাসে লিপ্ত, বিবৃতিতে ৪৭ নাগরিক

রাজনৈতিক দলগুলো পুরনো অভ্যাসে লিপ্ত, বিবৃতিতে ৪৭ নাগরিক

রবিবার দেশে জলবায়ু ধর্মঘট পালন করবেন পরিবেশবাদীরা

রবিবার দেশে জলবায়ু ধর্মঘট পালন করবেন পরিবেশবাদীরা

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

রাজনৈতিক দলগুলো পুরনো অভ্যাসে লিপ্ত, বিবৃতিতে ৪৭ নাগরিক

রাজনৈতিক দলগুলো পুরনো অভ্যাসে লিপ্ত, বিবৃতিতে ৪৭ নাগরিক

হিন্দু পরিষদের শাহবাগ অবরোধ

হিন্দু পরিষদের শাহবাগ অবরোধ

আরও ১২৩ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

আরও ১২৩ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

জলবায়ু পরিবর্তন রোধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি

জলবায়ু পরিবর্তন রোধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি

নতুন কুঁড়িসহ শিশুতোষ অনুষ্ঠানগুলো আবারও চালু করা হবে: হাছান মাহমুদ

নতুন কুঁড়িসহ শিশুতোষ অনুষ্ঠানগুলো আবারও চালু করা হবে: হাছান মাহমুদ

প্রেমিক থেকে ধর্ষণ মামলার আসামি

প্রেমিক থেকে ধর্ষণ মামলার আসামি

দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য মক্কার দুই মসজিদে ব্রেইল কোরআন শরিফ

দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য মক্কার দুই মসজিদে ব্রেইল কোরআন শরিফ

সিউলে বাংলাদেশ দূতাবাসে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন

সিউলে বাংলাদেশ দূতাবাসে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন

‘বিচার বিলম্ব হওয়ায় মৌলবাদী শক্তি সাহস পাচ্ছে’

‘বিচার বিলম্ব হওয়ায় মৌলবাদী শক্তি সাহস পাচ্ছে’

সর্বশেষ

সহকর্মীকে গুলি, পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিচ্ছেন না নার্সরা

সহকর্মীকে গুলি, পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিচ্ছেন না নার্সরা

শুটিং সেটে অ্যালেক বল্ডউইনের প্রপ গানের গুলিতে চিত্রগ্রাহক নিহত

শুটিং সেটে অ্যালেক বল্ডউইনের প্রপ গানের গুলিতে চিত্রগ্রাহক নিহত

সিরাজগঞ্জে মনসুর আলীর নাতির ওপর হামলা

সিরাজগঞ্জে মনসুর আলীর নাতির ওপর হামলা

সহিংসতার বিরুদ্ধে সংগীত 

সহিংসতার বিরুদ্ধে সংগীত 

ডাচদের হারিয়ে বাংলাদেশের গ্রুপসঙ্গী শ্রীলঙ্কা

ডাচদের হারিয়ে বাংলাদেশের গ্রুপসঙ্গী শ্রীলঙ্কা

© 2021 Bangla Tribune