X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

কুবির ৪০ শিক্ষার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিশে ১৪ ভুল

আপডেট : ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৫৩

সেশনজট নিরসন ও পরীক্ষা নেওয়ার দাবিতে ‘সরাসরি উপাচার্যের কাছে যাওয়া’, ‘আন্দোলন’ ও ফেসবুকে লেখালেখি করাসহ নানা অভিযোগে ৪০ শিক্ষার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দিয়েছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ। নোটিশে বেশ কয়েকটি বানান ভুল নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। অনলাইন-অফলাইনের এ আলোচনায় বলা হচ্ছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বিভাগীয় প্রধানের স্বাক্ষরিত নোটিশে বানান ভুল লজ্জাজনক।

বিভাগের দাফতরিক প্যাডে দেওয়া ও বিভাগীয় প্রধান মুহাম্মদ সোহরাব উদ্দীন স্বাক্ষরিত নোটিশে দেখা যায়, এতে অন্তত ১৪টি বানান ভুল লেখা হয়েছে। শুরুতে তারিখের ঘরে ২০২১ এর স্থলে লেখা হয়েছে '২০২-১'। নোটিশের দ্বিতীয় লাইনে অন্তত চারটি বানান ভুল দেখা গেছে। এর মধ্যে আছে, 'প্লাটফর্ম' শব্দটি। যার প্রচলিত সঠিক বানান 'প্ল্যাটফর্ম'। এছাড়া লেখা হয়েছে 'সোসাল' যার প্রচলিত বানান সোশ্যাল। আবার ফেসবুকে লিখতে গিয়ে লেখা হয়েছে 'ফেইজবুক' এবং ধরনের লিখতে গিয়ে ‘ধরণের’ লেখা হয়েছে।

অন্যদিকে, তৃতীয় লাইনের শুরুতেই কটূক্তি বানানটিকে লেখা হয়েছে 'কটুক্তি'। একই লাইনে এমনকি এর জায়গায় লেখা হয়েছে 'এমন কি', এছাড়া অভ্যন্তরীণ শব্দটিকে লেখা হয়েছে ‘আভ্যন্তরীণ’।

পরে চতুর্থ লাইনে স্ক্রিনশট শব্দটির বানান লেখা হয়েছে 'স্কিনশট'। তবে পঞ্চম লাইন থেকে শুরু করে সপ্তম লাইন পর্যন্ত আর বানান ভুল চোখে না পড়লেও অষ্টম লাইনে শরণাপন্ন বানানটিকে লেখা হয়েছে 'স্মরণাপন্ন'। এর পরের লাইনে আবার ধরনের স্থলে ‘ধরণের’ এবং লঙ্ঘনের বদলে 'লঙ্ঘণ' লেখা হয়েছে।

নোটিশের শেষ অংশের শুরুর লাইনে পাশাপাশি দুটি বানান ভুল লেখা হয়েছে। অনাকাঙ্ক্ষিত বানান লেখা হয়েছে 'অনাকাঙ্খিত', পরের বানানেই কর্মকাণ্ডের জায়গায় লেখা হয়েছে 'কর্মকান্ডের'।

নোটিশে এমন ভুল বানানের ছড়াছড়ি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে চলছে সমালোচনা, হাস্যরস। এন. সজীব নামে এক শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ফেসবুক গ্রুপে লিখেছেন, 'শিক্ষক হয়ে এমন ভুল কীভাবে করেন তারা? তাদেরই বরং কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া উচিত।'

ভুল বানানে লেখা নোটিশের সমালোচনা করে বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক শিক্ষার্থী নাজমুল হাসান বলেন, ঢালাওভাবে নোটিশ প্রদান করে ওনারা নিঃসন্দেহে ক্ষমতা ও স্বেচ্ছাচারিতা প্রকাশ করেছেন। আর নোটিশে এ ধরনের ভুলগুলোই যথেষ্ট প্রমাণ করে শিক্ষক হিসেবে ওনারা শিক্ষার্থীদের বিষয়ে কতটা যত্নশীল এবং গুরুত্ব দেন।

উল্লেখ্য, গত ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬-১৭ সেশন এবং ওই বিভাগের চতুর্থ ব্যাচের ৪০ শিক্ষার্থীকে কারণ দর্শানোর ওই নোটিশ দেওয়া হয়। ওই ব্যাচের শিক্ষার্থীরা ২০১৭ সালে ভর্তি হওয়ার পর থেকে প্রায় পাঁচ বছরে মাত্র চার সেমিস্টার শেষ করে পঞ্চম সেমিস্টারের পরীক্ষায় বসেছে। সেশনজট নিরসনের দাবি জানিয়ে ফেসবুকে লেখালেখি, আন্দোলন ও সরাসরি উপাচার্যের কাছে যাওয়ায় তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

কুবি শিক্ষার্থীর চোখে মরিচের গুঁড়া দিয়ে ফেলে যায় ছিনতাইকারীরা    

কুবি শিক্ষার্থীর চোখে মরিচের গুঁড়া দিয়ে ফেলে যায় ছিনতাইকারীরা    

নভেম্বরে কুবিতে ক্লাস শুরুর সুপারিশ

নভেম্বরে কুবিতে ক্লাস শুরুর সুপারিশ

পরিবহন ফি নিয়ে বিভ্রান্তি, ভোগান্তিতে কুবি শিক্ষার্থীরা

পরিবহন ফি নিয়ে বিভ্রান্তি, ভোগান্তিতে কুবি শিক্ষার্থীরা

৪ বছরে চতুর্থ সেমিস্টার, কুবি ছাত্রের আত্মহত্যার হুমকি

৪ বছরে চতুর্থ সেমিস্টার, কুবি ছাত্রের আত্মহত্যার হুমকি

শুভেচ্ছা জানানোকে কেন্দ্র করে জবিতে ছাত্রদল-ছাত্রলীগ হাতাহাতি

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫০

গুচ্ছ পরীক্ষার প্রথম দিন ভর্তিচ্ছুদের শুভেচ্ছা জানানোকে কেন্দ্র করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শাখা ছাত্রদল ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ছাত্রদলের দুই নেতা আহত হয়েছেন।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) গুচ্ছ পদ্ধতির এ ইউনিটের (বিজ্ঞান) ভর্তি পরীক্ষা শুরুর আগে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ নম্বর গেটের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ নং গেটে শিক্ষার্থীদের ফুল ও কলম দিচ্ছিলেন ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। সেখানে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রদলের নেতাকর্মী হিমেল, তাজ, রাতুল, নাহিদ, নাসিম, জামাল, শাহরিয়ার, মাহাবুব, আজিজ মোহাম্মদ, আলামিন, সরন ও ইমরানসহ কয়েকজন। একপর্যায়ে শাখা ছাত্রলীগের কর্মী মফিজুর রহমান হামিম, শেখ রাসেল, নাজমুল হাসান মুন্না, মেহেদী হাসান, নওশের বিন আলম ডেভিডসহ বেশ কয়েকজন তাদের ধাওয়া দেয়। এ নিয়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়। এতে আহত হন ছাত্রদলের নেতা মেহেদী হাসান হিমেল ও শাহরিয়ার হোসেন।

শাখা ছাত্রদলের আহ্বায়ক প্রার্থী তাজ বলেন, আমরা ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের ফুল ও কলম বিতারণ করছিলাম। ছাত্রলীগ আমাদের ওপর হামলা করে। আমার দুই সহকর্মী হিমেল ও শাহরিয়ার আহত হয়। পরে ন্যাশনাল মেডিক্যালে তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

শাখা ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশী জামাল উদ্দীন বলেন, ছাত্রদলের কিছু নেতাকর্মী পরীক্ষা চলাকালীন বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করেছিল, আমরা তাদের সরিয়ে দিয়েছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, ক্যাম্পাসের ভেতরে এমন কোনও ঘটনা ঘটেনি। কেউ এমন অভিযোগও করেনি।

/এএম/

সম্পর্কিত

জবিতে ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত 

জবিতে ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত 

জবির মাঠ রক্ষায় প্রগতিশীল ছাত্রজোটের সমাবেশ 

জবির মাঠ রক্ষায় প্রগতিশীল ছাত্রজোটের সমাবেশ 

বাড়ির পাশে গাছে ঝুলছিল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর লাশ

বাড়ির পাশে গাছে ঝুলছিল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর লাশ

খেলার মাঠ রক্ষার দাবিতে জবি শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

খেলার মাঠ রক্ষার দাবিতে জবি শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় উপস্থিতির হার ৯০ শতাংশ

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৫৫

ময়মনসিংহের ত্রিশালের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের এ ইউনিটের (বিজ্ঞান) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরীক্ষায় উপস্থিতির হার ছিল শতকরা প্রায় ৯০ শতাংশ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবন, বিজ্ঞান ভবন, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ ভবন ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভবনের ১২৩ কক্ষে ভর্তি পরীক্ষায় সাত হাজার ৬৮৮ পরীক্ষার্থীর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ছয় হাজার ৯১৪ পরীক্ষার্থী। অনুপস্থিত ছিলেন ৭৭৪ জন।

ভর্তি পরীক্ষা শুরু হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান কেন্দ্রের বিভিন্ন কক্ষ পরিদর্শন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভিজিল্যান্স উপ-কমিটির সদস্য ট্রেজারার ড. জালাল উদ্দিন, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড. মো. নজরুল ইসলাম, কলা অনুষদের ডিন ড. আহমেদুল বারী, এআইএস বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. সুব্রত কুমার দে, দর্শন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. মুশাররাত শবনম, কৃষিবিদ ড. হুমায়ুন কবীর, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মুহাম্মদ এমদাদুর রাশেদ, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) মো. আব্দুল হালিম ও কর্মকর্তা পরিষদের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন।

২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৮ কেন্দ্রে গুচ্ছ পদ্ধতির এই ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। এবারের ভর্তি পরীক্ষায় ২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২২ হাজার আসনের বিপরীতে দুই লাখ ৩২ হাজার ৪৫৫ পরীক্ষার্থী আবেদন করেছেন। এর মধ্যে এ ইউনিটে আবেদন করেছেন এক লাখ ৩১ হাজার ৯০১, বি ইউনিটে আবেদন করেছেন ৬৭ হাজার ১১৭ ও সি ইউনিটে আবেদন করেছেন ৩৩ হাজার ৪৩৭ পরীক্ষার্থী। 

বি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ২৪ অক্টোবর (দুপুর ১২টা থেকে-১টা), সি ইউনিটের (বাণিজ্য) ভর্তি পরীক্ষা ১ নভেম্বর (দুপুর ১২টা থেকে-১টা) অনুষ্ঠিত হবে।

/এএম/

সম্পর্কিত

জবিতে ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত 

জবিতে ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত 

‘এ’ ইউনিটে প্রতি আসনে লড়বেন ১১ শিক্ষার্থী

‘এ’ ইউনিটে প্রতি আসনে লড়বেন ১১ শিক্ষার্থী

যবিপ্রবিতে ‘এ’ ইউনিটে আসন পড়েছে ৬ হাজার শিক্ষার্থীর

যবিপ্রবিতে ‘এ’ ইউনিটে আসন পড়েছে ৬ হাজার শিক্ষার্থীর

রাবির ‘বি’ ইউনিটের সংশোধিত ফলেও ‘সমস্যা’

রাবির ‘বি’ ইউনিটের সংশোধিত ফলেও ‘সমস্যা’

দেড় বছর পর ঢাবিতে ছাত্রদল-ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি স্লোগান

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৪৫

দীর্ঘ ১৮ মাস বন্ধ থাকার পর আজ রবিবার (১৭ অক্টোবর) থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) শুরু হয়েছে সশরীরে ক্লাস। শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসে ফেরাকে উপলক্ষ করে দীর্ঘদিন পরে ক্যাম্পাসের মধুর ক্যান্টিনে পাল্টাপাল্টি স্লোগান দিয়েছে ক্যাম্পাসের অন্যতম প্রধান দুটি ছাত্রসংগঠন ছাত্রদল ও ছাত্রলীগ।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল ১০টার দিকে কেন্দ্রীয় সভাপতি ফজলুর রহমান খোকনের নেতৃত্বে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা মধুর ক্যান্টিনে প্রবেশ করেন। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয় কমিটির আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিব, সদস্য সচিব আমান উল্লাহ আমানসহ দুই শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

তবে এর আগে থেকে সেখানে অবস্থান নিতে দেখা যায় ছাত্রলীগকে। ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয় ও হল শাখার প্রায় তিন-চার শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। ছাত্রদল প্রবেশের পর দুই পক্ষের স্লোগান-পাল্টা স্লোগানে মধুর ক্যান্টিনে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তবে কোনোধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

এরপর বেলা ১১টার দিকে মধুর ক্যান্টিন থেকে বের হয়ে ক্যাম্পাসে মিছিল বের করে ছাত্রদল।

এ বিষয়ে ছাত্রদল সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বলেন, করোনায় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় আমরা মধুর ক্যান্টিনে যাইনি। এর আগে আমরা নিয়মিত যেতাম। এখন ক্যাম্পাস খুলেছে, ক্লাস শুরু হয়েছে তাই আমরা আবার মধুর ক্যান্টিনে অবস্থান নিয়েছি। এখন থেকে আমরা নিয়মিত মধুর ক্যান্টিনে বসবো।

ঢাবি শাখার আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিব বলেন, আজ থেকে ক্যাম্পাসের সব কিছু আগের রূপে ফিরে এসেছে, শিক্ষার্থীদের কোলাহলে মুখরিত ক্যাম্পাস। তাই আমরাও মধুর ক্যান্টিনে বসেছি, আড্ডা দিয়েছি। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, কেন্দ্রীয় সংসদ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল ক্যাম্পাসে ঐক্যবদ্ধ ভূমিকা পালন করব। মধুর ক্যান্টিনে আমরা যে জায়গা নিয়ে বসি, সেটা সম্পূর্ণ পাইনি। বেশিরভাগ অংশ ছাত্রলীগের দখলে ছিল। আমাদের চারপাশে ছাত্রলীগের স্লোগান দিচ্ছিল, আমরাও স্লোগান দিয়েছি। অপ্রীতিকর কোনও ঘটনা ঘটেনি।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদের সাহিত্য সম্পাদক আসিফ তালুকদার বলেন, ‘মধুর ক্যান্টিনে আমরা আমাদের নিয়মিত কর্মসূচি পালন করেছি। ছাত্রদলের কাউকে আমরা কোনো বাধা দেইনি। আমাদের যে সংখ্যক নেতা-কর্মী মধুর ক্যান্টিনে ছিলেন, আমরা চাইলে পুরো ক্যান্টিন কানায় কানায় পূর্ণ করে রাখতে পারতাম। সেটি হলে ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা ক্যান্টিনে ঢুকতেই পারতো না। কিন্তু আমরা তা করিনি। আমাদের পক্ষ থেকে সহযোগিতাপূর্ণ মনোভাব আগেও ছিল, সামনেও থাকবে। ছাত্রদল নেতা-কর্মীদের কাছ থেকেও আমরা দায়িত্বশীল আচরণ প্রত্যাশা করি।’

/ইউএস/

সম্পর্কিত

দেড় বছর পর শ্রেণিকক্ষে ঢাবি শিক্ষার্থীরা

দেড় বছর পর শ্রেণিকক্ষে ঢাবি শিক্ষার্থীরা

ঢাবিতে আজ থেকে শুরু সশরীরে ক্লাস

ঢাবিতে আজ থেকে শুরু সশরীরে ক্লাস

শহীদ শেখ রাসেল দিবস পালন করবে ঢাবি

শহীদ শেখ রাসেল দিবস পালন করবে ঢাবি

স্বাস্থ্য ও জীবন বিমার আওতায় ঢাবি শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

স্বাস্থ্য ও জীবন বিমার আওতায় ঢাবি শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

জবিতে ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত 

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৬:১২

দেশের ২০টি সাধারণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের গুচ্ছ পদ্ধতির ‘এ’ ইউনিটের (বিজ্ঞান) ভর্তি পরীক্ষা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) কেন্দ্রে সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে।
 
রবিবার (১৭ অক্টোবর) বেলা ১২টা হতে ১টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় বিভিন্ন বিভাগ ও পোগোজ ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

পরীক্ষার হল পরিদর্শন শেষে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক সাংবাদিকদের বলেন, দেশে প্রথমবারের মতো  সাধারণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির পরীক্ষা গুচ্ছ পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কষ্ট লাঘব করতেই গুচ্ছ পদ্ধতিতে পরীক্ষার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। শিক্ষার্থীরা আনন্দঘন পরিবেশে পরীক্ষা দিচ্ছে। আমাদের উদ্যোগ সফল হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ, রেজিস্ট্রার ও গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার সদস্য সচিব প্রকৌশলী ড. ওহিদুজ্জামান, ছাত্র কল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. আইনুল ইসলাম, প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল, বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের সভাপতি জাহিদ সাদেক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
 
উল্লেখ্য, দেশের মোট ২৬টি কেন্দ্রে একযোগে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গুচ্ছভুক্ত ভর্তি পরীক্ষায় বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগ মোট তিনটি ইউনিট রয়েছে। আসন রয়েছে মোট ২২ হাজার ১৩টি। এর বিপরীতে আবেদন করেছিলেন দুই লাখ ৩২ হাজার ৪৫৫ জন শিক্ষার্থী। ‘এ’ ইউনিটে এক লাখ ৩১ হাজার ৯০১ জন, ‘বি’ ইউনিটে ৬৭ হাজার ১১৭ জন এবং ‘সি’ ইউনিটে ৩৩ হাজার ৪৩৭ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য মনোনীত হয়েছেন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

শুভেচ্ছা জানানোকে কেন্দ্র করে জবিতে ছাত্রদল-ছাত্রলীগ হাতাহাতি

শুভেচ্ছা জানানোকে কেন্দ্র করে জবিতে ছাত্রদল-ছাত্রলীগ হাতাহাতি

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় উপস্থিতির হার ৯০ শতাংশ

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় উপস্থিতির হার ৯০ শতাংশ

‘এ’ ইউনিটে প্রতি আসনে লড়বেন ১১ শিক্ষার্থী

‘এ’ ইউনিটে প্রতি আসনে লড়বেন ১১ শিক্ষার্থী

যবিপ্রবিতে ‘এ’ ইউনিটে আসন পড়েছে ৬ হাজার শিক্ষার্থীর

যবিপ্রবিতে ‘এ’ ইউনিটে আসন পড়েছে ৬ হাজার শিক্ষার্থীর

দেড় বছর পর শ্রেণিকক্ষে ঢাবি শিক্ষার্থীরা

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১২:২০

করোনা পরিস্থিতিতে দেড় বছর বন্ধ থাকার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) সশরীরে ক্লাস শুরু হয়েছে। দীর্ঘদিন পর ক্লাসে ফিরে উচ্ছ্বসিত শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

আজ রবিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল থেকে শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে ঢাবি ক্যাম্পাস। বিভিন্ন অনুষদের শ্রেণিকক্ষগুলোতে প্রবেশমুখে শরীরের তাপমাত্রা মাপার ব্যবস্থা ও হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রীর ব্যবস্থা করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের মাস্ক পরিধানও নিশ্চিত করা হচ্ছে।

সকাল থেকেই ক্যাম্পাসে আসার শুরু করেন শিক্ষার্থীরা

তবে অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের নির্দেশনা অনুযায়ী শ্রেণিকক্ষে শারীরিক দূরত্বের নিয়ম মানতে দেখা যায়নি। বেশিরভাগ শ্রেণিকক্ষেই এক বেঞ্চে তিন থেকে পাঁচ জন পর্যন্ত বসতে দেখা গেছে।

শোডাউন দিয়েছে বিভিন্ন ছাত্রসংগঠনগুলো

গত ৭ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের জরুরি সভায় সশরীরে ক্লাস শুরুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আর ৫ অক্টোবর অনার্স চতুর্থ বর্ষ ও মাস্টার্সের শিক্ষার্থীদের জন্য এবং ১০ অক্টোবর সব আবাসিক শিক্ষার্থীদের জন্য হলগুলো খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তও হয় সভায়।

ক্লাসে ঢোকার আগে শিক্ষার্থীদের দেওয়া হয় স্বাস্থ্য সুরক্ষাসামগ্রী

কর্তৃপক্ষ বলছে, আজ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘স্বাস্থ্যবিধি’ মেনে চলবে সশরীরে পাঠদান ও পরীক্ষা কার্যক্রম। তবে সশরীরে ক্লাসের পাশাপাশি কোনও বিভাগ বা ইনস্টিটিউট চাইলে সর্বোচ্চ ৪০ শতাংশ ক্লাস অনলাইনেও নিতে পারবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, অনলাইন ও অফলাইন সমন্বয়ে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা করা যাবে। এক্ষেত্রে ন্যূনতম ৬০ ভাগ ক্লাস সশরীরে নিতে হবে। সেশনজটে কাটাতে ছয় মাসের সেমিস্টার চার মাসে সম্পন্ন করার কথাও বলা হয়েছে।

দীর্ঘদিন পর দেখা হওয়া বন্ধুদের সঙ্গে চলছে কুলশ বিনিময়

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে উপস্থিত হয়ে ক্লাস ও পরীক্ষায় অংশ নিতে মানতে হবে বেশ কিছু নিয়ম। এগুলোর মধ্যে রয়েছে ‑

* সকলকে বাধ্যতামূলকভাবে নিয়মিত ও সার্বক্ষণিক মাস্ক নাক-মুখ ঢেকে পরিধান করতে হবে।

* স্বাস্থ্যবিধি পালনের জন্য সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করতে হবে।

দীর্ঘদিন পর শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীরা

* স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী পরস্পরের কাছ থেকে কমপক্ষে ১ মিটার (৩ ফুট) শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

* শ্রেণিকক্ষে স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে বসার ব্যবস্থা করতে হবে।

* ল্যাবে কাজের ক্ষেত্রে ল্যাবরেটরির ধারণ ক্ষমতা, বসার ব্যবস্থা, কাজের বিন্যাস এবং যাতায়াতের পথযুক্ত নকশা তৈরি করতে হবে ও সর্বত্র প্রদর্শন করতে হবে।

* সমস্ত নির্দেশনাবলী শিক্ষার্থীদের আগেই জানাতে হবে।

* শিক্ষার্থীদের ছোট ছোট দলে ভাগ করে ল্যাবে প্রতিটি শিক্ষার্থীর অবস্থান চিহ্নিত করতে হবে।

* ব্যবহৃত পিপিই যথাযথ ব্যবস্থাপনা ও অপসারণের ব্যবস্থা করতে হবে।

* পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে এবং শৌচাগারগুলো নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে।

* কোভিড-১৯ লক্ষণ থাকলে বাসা বা হলের কক্ষে থাকতে হবে ও কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে।

* লক্ষণযুক্ত ব্যক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের যানবাহনে চলাচলের সময় অবশ্যই সার্বক্ষণিক মাস্ক পরতে হবে।

* বাসে ওঠার আগে দেহের তাপমাত্রা পরিমাপ বাধ্যতামূলক করতে হবে।

* বাস এবং অন্যান্য যানবাহনে প্রবেশ ও বহির্গমন পথে ভিড় এড়িয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

* যানবাহনে প্রবেশ ও বহির্গমণের জন্য আলাদা দরজা নির্ধারণ করতে হবে।

* শুধু ক্লাস থাকলেই নিয়মিত ছাত্র-ছাত্রীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের যানবাহন ব্যবহার করে বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ এবং প্রস্থান করতে পারবে।

* সম্ভব হলে গণপরিবহন ব্যবহার পরিহার করতে হবে।

ছবি: নাসিরুল ইসলাম

/ইউএস/

সম্পর্কিত

দেড় বছর পর ঢাবিতে ছাত্রদল-ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি স্লোগান

দেড় বছর পর ঢাবিতে ছাত্রদল-ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি স্লোগান

ঢাবিতে আজ থেকে শুরু সশরীরে ক্লাস

ঢাবিতে আজ থেকে শুরু সশরীরে ক্লাস

শহীদ শেখ রাসেল দিবস পালন করবে ঢাবি

শহীদ শেখ রাসেল দিবস পালন করবে ঢাবি

স্বাস্থ্য ও জীবন বিমার আওতায় ঢাবি শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

স্বাস্থ্য ও জীবন বিমার আওতায় ঢাবি শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

কুবি শিক্ষার্থীর চোখে মরিচের গুঁড়া দিয়ে ফেলে যায় ছিনতাইকারীরা    

কুবি শিক্ষার্থীর চোখে মরিচের গুঁড়া দিয়ে ফেলে যায় ছিনতাইকারীরা    

নভেম্বরে কুবিতে ক্লাস শুরুর সুপারিশ

নভেম্বরে কুবিতে ক্লাস শুরুর সুপারিশ

পরিবহন ফি নিয়ে বিভ্রান্তি, ভোগান্তিতে কুবি শিক্ষার্থীরা

পরিবহন ফি নিয়ে বিভ্রান্তি, ভোগান্তিতে কুবি শিক্ষার্থীরা

৪ বছরে চতুর্থ সেমিস্টার, কুবি ছাত্রের আত্মহত্যার হুমকি

৪ বছরে চতুর্থ সেমিস্টার, কুবি ছাত্রের আত্মহত্যার হুমকি

গণমাধ্যমে দেওয়া বক্তব্য ‘অসম্পূর্ণ ও অর্ধসত্য’ দাবি কুবি প্রশাসনের

গণমাধ্যমে দেওয়া বক্তব্য ‘অসম্পূর্ণ ও অর্ধসত্য’ দাবি কুবি প্রশাসনের

কুবির সেই ২ শিক্ষকের বিরুদ্ধে নেওয়া সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি

কুবির সেই ২ শিক্ষকের বিরুদ্ধে নেওয়া সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি

‘বন্ধ’ হলেও দিব্যি আছেন তারা

‘বন্ধ’ হলেও দিব্যি আছেন তারা

সর্বশেষ

আইস ও অস্ত্রসহ আটক দু’জন ৯ দিনের রিমান্ডে

আইস ও অস্ত্রসহ আটক দু’জন ৯ দিনের রিমান্ডে

১৫ নভেম্বর মুক্তি পাচ্ছে ঢাকাই মিথিলার বলিউড ছবি

১৫ নভেম্বর মুক্তি পাচ্ছে ঢাকাই মিথিলার বলিউড ছবি

রাশিয়ায় ভেজাল মদ পানে ১৮ জনের মৃত্যু

রাশিয়ায় ভেজাল মদ পানে ১৮ জনের মৃত্যু

ভাইবার নিয়ে আসছে অনেক ফিচার

ভাইবার নিয়ে আসছে অনেক ফিচার

শেখ রাসেল দিবসে দেওয়া হচ্ছে ১০টি স্বর্ণপদক ও ৪ হাজার ল্যাপটপ 

শেখ রাসেল দিবসে দেওয়া হচ্ছে ১০টি স্বর্ণপদক ও ৪ হাজার ল্যাপটপ 

© 2021 Bangla Tribune