X
মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ৩ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

নজরদারির অভাবেই পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যু!

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:০৩

সাত মাসে আগে উঠান উঁচু করার জন্য মিজানুর রহমানের বাড়ির পাশের জমি থেকে মাটি কেটে নেন স্থানীয়রা। মাটি কাটার কারণে কয়েক দিনের বৃষ্টিতে সেই জায়গার গর্ত পানিভর্তি হয়ে যায়। আর সেই গর্তের পানিতে ডুবে গত ১৪ সেপ্টেম্বর মারা যায় মিজানুর রহমানের তিন বছরের মেয়ে ময়না।

এ ছাড়া গত ১৭ সেপ্টেম্বরে নীলফামারীর সৈয়দপুরে নদীতে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে নিখোঁজ হয়েছে জয়ন্ত শীল নামের ১৪ বছরের এক কিশোর। ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল নদীর ৫ কিমি এরিয়ায় উদ্ধারের চেষ্টা চালালেও কোনও হদিস মেলেনি।

গত নয় সেপ্টেম্বর ভোলার লালমোহন উপজেলায় পুকুরের পানিতে ডুবে মারা যায় পাঁচ বছরের সাঈদ আর চার বছরের মীম। দুপুরের দিকে শিশু দুটি খেলতে গিয়ে পাশের পুকুরে পড়ে যায়। অনেকটা সময় তাদের দেখতে না পেয়ে পরিবার খুঁজতে থাকে। পরে শিশু দুটির শরীর পুকুরে ভাসতে দেখা গেলে উদ্ধার করে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

কুমিল্লার দাউদকান্দি এলাকায় গত ১৪ সেপ্টেম্বর দুই শিশুর মৃত্যু হয় পুকুরের পানিতে পড়ে। পাঁচ বছরের তানিশা আর চার বছরের নুসরাত দুপুরে বাড়ির পাশে পুকুরঘাটে খেলছিল। কিন্তু দীর্ঘসময় তাদের সাড়া শব্দ না পেয়ে স্বজনরা খোঁজ শুরু করেন। এ সময় পুকুরপাড়ে গিয়ে শিশু দুটিকে পানিতে ভাসতে দেখে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা শিশু দুটিকে মৃত ঘোষণা করেন।

পানিতে ডুবে মৃত্যু দেশের তৃতীয় শিশুমৃত্যুর কারণ। কিন্তু কোনও এক অজানা কারণে পানিতে ডুবে মৃত্যু গুরুত্ব পায় না। থেকে যায় নীতিনির্ধারকদের আলোচনার বাইরে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২০১৪ সালের বৈশ্বিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, বাংলাদেশে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুমৃত্যুর ৪৩ শতাংশের কারণ পানিতে ডুবে মৃত্যু। তবে সংশ্লিষ্টরা বলছে, পানিতে ডুবে মৃত্যুর ঘটনাগুলো জাতীয়ভাবে কার্যকর তথ্যায়ন ব্যবস্থা না থাকায় বেশিরভাগ ঘটনাই গণমাধ্যমে উঠে আসে না। ফলে এ সংক্রান্ত পূর্ণাঙ্গ চিত্র পাওয়া যায় না।

পানিতে ডুবে মৃত্যু নিয়ে দেশে জাতীয়ভাবে সর্বশেষ জরিপটি হয়েছে ২০১৬ সালে। স্বাস্থ্য অধিদফতর এবং ইউনিসেফের সহযোগিতায় সেন্টার ফর ইনজুরি প্রিভেনশন অ্যান্ড রিসার্চ, বাংলাদেশ পরিচালিত আরেক জরিপে দেখা যায়, প্রতিবছর সব বয়সী প্রায় ১৯ হাজার মানুষ পানিতে ডুবে মারা যায়। এদের তিন-চতুর্থাংশেরও বেশি অর্থাৎ আনুমানিক ১৪ হাজার ৫০০ জনই ১৮ বছরের কম বয়সী শিশু।

অন্যভাবে বলা যায়, দেশে গড়ে প্রতিদিন প্রায় ৪০ জন অনূর্ধ্ব ১৮ বছরের শিশুরা পানিতে ডুবে প্রাণ হারায়। পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের ক্ষেত্রে এই সংখ্যা প্রতিদিন প্রায় ৩০ জন। অর্থাৎ বছরে প্রায় ১০ হাজার। আর সকল বয়সের মধ্যে গড়ে ৫১ জন পানিতে ডুবে মারা যান।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যানুযায়ী, নিম্ন ও মধ্য আয়ের দেশের তুলনায় বাংলাদেশে পানিতে ডুবে মৃত্যুর হার পাঁচ গুণ বেশি।
বাংলাদেশ সেন্টার ফর ইনজুরি প্রিভেনশন অ্যান্ড রিসার্চের (সিআইপিআরবি) করা জরিপে দেখা গেছে, ৬৮ শতাংশ পানিতে ডোবার ঘটনা ঘটে সকাল নয়টা থেকে দুপুর একটার মধ্যে। আর বেশিরভাগই ঘটে পুকুরে (৬৬ শতাংশ) এবং বাড়ি থেকে ৪০ কদমের মধ্যে অবস্থিত খাদে (১৬ শতাংশ)। আর রয়েল লাইফ সেভিং সোসাইটি (আরএলএসএস) প্রতিবেদন অনুযায়ী, কমনওয়েলথ দেশগুলোর মধ্যে পানিতে ডুবের মৃত্যুর ঘটনায় বাংলাদেশ পঞ্চম শীর্ষ দেশ।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর ২০২০ সালের স্যাম্পল ভাইটাল স্টাটিসটিকস এর তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশের গ্রাম এলাকায় পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের পানিতে ডুবে মৃত্যুর হার নয় দশমিক সাত শতাংশ। সেই তুলনায় শহরাঞ্চলে এই হার সাত শতাংশ। একই বয়সী শিশুদের নিউমোনিয়ায় মৃত্যু হারের পরই পানিতে ডুবে মৃত্যুর হারের অবস্থান।

বাংলাদেশে পানিতে ডুবে মৃত্যু নিয়ে কাজ করছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা সমষ্টি। তাদের গবেষণায় এসেছে, গত ১৯ মাসে পানিতে ডুবে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে কুড়িগ্রাম জেলায় আর বিভাগ ভিত্তিক পরিসংখ্যানে চট্টগ্রাম বিভাগে। ২০০২ সালের ১ জানুয়ারি থেকে চলতি বছরের ২৩ জুলাই পর্যন্ত করা এ গবেষণায় দেখা গেছে, পানিতে ডুবে মৃতদের ৯১ শতাংশের বয়স ১৮ বছরের কম।

আর চার বছর বা কম বয়সীদের মধ্যে পানিতে ডুবে মৃত্যু সবচেয়ে বেশি, ৫৬২ জন (৪২ শতাংশ)। পাঁচ থেকে নয় বছর বয়সের রয়েছে ৪৬২ জন, (৩৫ শতাংশ), ১০-১৪ বছরের ১৫২ জন এবং ১৫-১৮ বছরের ৩৮ জন। ১১৮ জনের বয়স ছিল ১৮ বছরের বেশি।

গবেষণায় দেখা গেছে, পানিতে ডুবে যাওয়ার ৭৯ শতাংশ ঘটনা দিনের বেলায় হয়। তার মধ্যে আবার  সকাল থেকে দুপুরের মধ্যে ৫৩৭ জন এবং দুপুর থেকে সন্ধ্যার আগে ৫১৭ জন মারা যায়। তবে রাতেও পানিতে ডুবে মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে।

সমষ্টি জানায়, বর্ষাকাল ও এর আগে-পরের মাসগুলোতে (জুন-অক্টোবর) পানিতে ডুবে মৃত্যুর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। ২০২০ সালে সর্বোচ্চ ১৩২ জন মারা যায় আগস্ট মাসে, দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ছিল জুলাই মাসে ১২৪ জন।
পরিবারের সদস্যদের যথাযথ নজরদারি না থাকায় সবচেয়ে বেশি সংখ্যক পানিতে ডোবার ঘটনা ঘটে জানিয়ে সমষ্টি জানাচ্ছে, পানিতে ডুবে এক হাজার ৩৩২টি মৃত্যুর ৯৭ শতাংশ (এক হাজার ৩০৫) ঘটেছে পরিবারের সদস্যদের অগোচরে।  

সমষ্টির পরিচালক মীর মাসরুর জামান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, পানিতে ডুবে মৃত্যুরোধে শিশুদের সাতার শেখানো খুবই জরুরি। সেইসঙ্গে যেহেতু পরিবারের সদস্যদের অগোচরে সবচেয়ে বেশি ঘটনা ঘটে তাই শিশুদের এ সময়ে দেখাশোনা করে রাখার মতো ব্যবস্থা করতে হবে। বাড়ির পাশে কোনও জলাশয় থাকলে তাকে ঘেরাও দিয়ে রাখতে হবে। আবার সাতার শেখার আগের বয়সেই যেহেতু শিশুদের ডুবে মৃত্যু হচ্ছে; আবার অনেক সময় বালতি, হাড়ির পানিতেও ডুবে যাওয়ার মতো ঘটনা ঘটছে; সেজন্য অভিভাবকদের অনেক বেশি সচেতন থাকতে হবে।

শহরের ডে কেয়ার সেন্টারের মতো, যেখানে বাবা-মা কাজ করতে গেলে যেন বাচ্চাকে কেউ দেখে রাখতে পারে, বলেন তিনি।

তবে এসব কার্যক্রমের কিছু কাজ হচ্ছে, সেটা সরকারি এবং বেসরকারি উদ্যোগে কিন্তু এ কার্যক্রমকে স্থায়ীত্বশীল করার জন্য সরকারের নিজস্ব উন্নয়ন প্রকল্প জরুরি বলে মনে করেন তিনি। যদিও সরকার ইতোমধ্যে পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যুর বিষয়টি একটি বড় সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করে এ নিয়ে ডিপিপি (ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট প্রপোজাল) তৈরি হয়েছে এবং সেটি এখন একনেকে অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে, বলেন মীর মাসরুর জামান।

পানিতে ডুবে মৃত্যু নিয়ে পলিসি অ্যাক্টিভিস্ট সদরুল হাসান মজুমদার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, শিশু মৃত্যুর ক্ষেত্রে পানিতে ডুবে মৃত্যু তৃতীয় কারণ। আর পানিতে ডুবে সবচেয়ে বেশি শিশুর মৃত্যু হচ্ছে পরিবারের সদস্যদের অগোচরে দুপুর একটার ভেতরে। তাই পাঁচ বছরের শিশুদের সকাল নয়টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত দেখভাল করার মতো প্রাতিষ্ঠানিক সুপারভিশনের ব্যবস্থা করতে হবে। আর এটা করতে হবে মহল্লাভিত্তিক থেকে শুরু করে গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত।

আর প্রাতিষ্ঠানিক সুপারভিশনের ব্যবস্থা করা গেলে শতকরা ৮০ শতাংশ আর পাঁচ বছর হবার সঙ্গে সঙ্গে শিশুকে সাতার শেখানো গেলে প্রায় ৯০ শতাংশ মৃত্যু ঝুঁকি কমে যায়, বলেন সদরুল হাসান মজুমদার।

/এনএইচ/

সম্পর্কিত

সোনারগাঁয়ে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় পথচারী নিহত

সোনারগাঁয়ে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় পথচারী নিহত

সাতক্ষীরার ভূমিহীনদের জানমাল রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি

সাতক্ষীরার ভূমিহীনদের জানমাল রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি

পোশাককর্মী দম্পতির লাশ উদ্ধার

পোশাককর্মী দম্পতির লাশ উদ্ধার

শাহবাগে যান চলাচল স্বাভাবিক

শাহবাগে যান চলাচল স্বাভাবিক

ড্রেনে পড়ে দু’জনের মৃত্যু, কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে আইনি নোটিশ

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৫৬

চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে সবজি বিক্রেতা সালেহ আহমেদ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী সেহরীন মাহবুব সাদিয়ার মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনায় তাদের পরিবারকে এক কোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে একটি আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানসহ ১৩ জনকে এই নোটিশ পাঠানো  হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) মানবাধিকার সংগঠন চিলড্রেন চ্যারিটি বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন (সিসিবি) এর পক্ষে ব্যারিস্টার আব্দুল হালিম ও আইনজীবী ইশরাত হাসান এই নোটিশ পাঠান।

এ বিষয়ে সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের উদ্বৃতি দিয়ে নোটিশে বলা হয়, গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ থেকে জানতে পারি, সবজি ব্যবসায়ী সালেহ আহমদের পর চট্টগ্রাম নগরীতে নালায় পড়ে সেহেরীন মাহবুব সাদিয়ার মৃত্যুতেও দায় নিতে চাইছে না সিটি করপোরেশন কিংবা সিডিএ।

নোটিশে আরও বলা হয়, সরকারি দু’টি সংস্থাই একে অপরকে দোষ দিচ্ছে। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন বলছে, দু’দিকে ফুটপাত করলেও খালের মুখটি অরক্ষিত রেখেছে সিডিএ। তাই এর দায় সিডিএ’র। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-সিডিএ বলছে, খালের মালিকানা চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের। তাই খালের মুখে সুরক্ষা নিশ্চিতের দায়িত্বও তাদের। নালা ও খালে পড়ে একের পর এক মৃত্যুতে ক্ষুব্ধ নগরবাসী। তারা বলছেন, দায় এড়ানোর এই প্রবণতা প্রমাণ করে যে, সেবা সংস্থার মধ্যে কোনও সমন্বয় নেই। চলমান উন্নয়ন প্রকল্পগুলো স্বাচ্ছন্দ্যের পরিবর্তে নগরবাসীর ‘মৃত্যুফাঁদে’ পরিণত হয়েছে।

‘গত ২৫ আগস্ট মুরাদপুর এলাকায় খালে পড়ে তলিয়ে যান সালেহ আহমদ। তার খোঁজ আর মেলেনি। তার আগে গত ৩০ জুন ষোলশহর চশমা হিল এলাকাতেও এমন দুর্ঘটনায় মারা যান দু’জন। আবার আগ্রাবাদে নবী টাওয়ারের কাছাকাছি নাছিরছড়া খালে পড়ে তলিয়ে যান বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী সাদিয়া। পাঁচ ঘণ্টার চেষ্টায় কয়েক টন আবর্জনার স্তূপ সরিয়ে ১৯ বছর বয়সী সাদিয়ার লাশ উদ্ধার হয়।’

তাই নোটিশে সালেহ আহমেদ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী সেহরীন মাহবুব সাদিয়া ড্রেনে পড়ে মর্মান্তিক মৃত্যের ঘটনায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন ও চট্টগ্রাম  উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কী ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে, তা জানাতে বলা হয়েছে। এছাড়া এই ধরনের দুর্ঘটনা রোধে নোটিশগ্রহীতারা কী ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে, তার রিপোর্ট প্রকাশ করতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি দু’জনের মৃত্যুর ঘটনায় ক্ষতিপূরণও চাওয়া হয়েছে।

 

/বিআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

বিবিআইএন মোটর ভেহিকেল চুক্তি বাস্তবায়নে গুরুত্বারোপ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

বিবিআইএন মোটর ভেহিকেল চুক্তি বাস্তবায়নে গুরুত্বারোপ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

খুলনায় মন্দির ভাঙচুরের মামলায় তিন আসামির জামিন স্থগিত

খুলনায় মন্দির ভাঙচুরের মামলায় তিন আসামির জামিন স্থগিত

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব রটনাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব রটনাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

ইভ্যালির রাসেল-শামীমাসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে আবারও মামলা

ইভ্যালির রাসেল-শামীমাসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে আবারও মামলা

শনাক্তের হার আবারও ২ শতাংশের ওপরে

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৭:০৬

গত তিনদিন ধরে করোনাতে রোগী শনাক্তের দৈনিক হার দুই শতাংশের নিচে থাকলেও গত ২৪ ঘণ্টায় তা আবারও বেড়েছে। এসময়ে করোনাতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন সাতজন।

আজ মঙ্গলবার (১৯ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনা বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

অধিদফতর জানাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টা (১৮ অক্টোবর সকাল ৮টা থেকে ১৯ অক্টোবর সকাল ৮টা) পর্যন্ত করোনাতে রোগী শনাক্তের হার দুই দশমিক ২০ শতাংশ।

এর আগে গত শনিবার চলতি বছরে প্রথম দিনের মতো দৈনিক শনাক্তের হার নেমে আসে দুই শতাংশের নিচে। তারপর থেকে গতকাল (১৮ অক্টোবর) পর্যন্ত শনাক্তের হার টানা তিনদিন ধরে দুই এর নিচেই ছিল।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৪৬৯ জন আর গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন সাতজন।

তাদের নিয়ে দেশে সরকারি হিসেবে করোনাতে এখন পর্যন্ত মোট শনাক্ত হলেন ১৫ লাখ ৬৬ হাজার ২৯৬ জন আর মারা গেলেন ২৭ হাজার ৭৮৫ জন।

করোনাতে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৬৯৭ জন, তাদের নিয়ে দেশে করোনাতে আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়ে উঠলেন মোট ১৫ লাখ ২৯ হাজার ৬৮ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ২১ হাজার ৫৫৯টি আর নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২১ হাজার ৩০৮টি।

দেশে এখন পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে এক কোটি এক লাখ ৩৫ হাজার ৪২টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ৭৪ লাখ ১১ হাজার ৮৫২টি আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ২৭ লাখ ২৩ হাজার ১৯০টি।

দেশে এখন পর্যন্ত করোনাতে রোগী শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৪৫ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৬২ শতাংশ আর শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৭৭ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া সাতজনের মধ্যে পুরুষ পাঁচজন আর নারী দুইজন।

দেশে করোনাতে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত মোট পুরুষ মারা গেলেন ১৭ হাজার ৭৯৮ জন আর নারী মারা গেলেন ৯ হাজার ৯৮৭ জন।

তাদের মধ্যে বয়স বিবেচনায় ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে রয়েছেন দুইজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে একজন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে একজন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে একজন আর ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে রয়েছেন দুইজন। আর এই সাতজনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের আছেন তিনজন, চট্টগ্রাম বিভাগের দুইজন আর খুলনা ও রংপুর বিভাগের আছেন একজন করে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানাচ্ছে, মারা যাওয়া সাতজনের মধ্যে ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে সরকারি হাসপাতালে আর একজন মারা গেছেন বেসরকারি হাসপাতালে।

/জেএ/এমএস/

সম্পর্কিত

করোনার বেড নিয়ে হ-য-ব-র-ল অবস্থা

করোনার বেড নিয়ে হ-য-ব-র-ল অবস্থা

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় এক কোটি ৯৪ লাখ মানুষ

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় এক কোটি ৯৪ লাখ মানুষ

বিবিআইএন মোটর ভেহিকেল চুক্তি বাস্তবায়নে গুরুত্বারোপ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৫৫

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক যোগাযোগ বাড়ানোর লক্ষ্যে বিবিআইএন (বাংলাদেশ, ভুটান, ইন্ডিয়া, নেপাল) মোটর ভেহিকেল চুক্তি দ্রুত বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন।

মঙ্গলবার (১৯ অক্টাবর) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশে নিযুক্ত নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত ড. বংশীধর মিশ্র সোমবার ফরেন সার্ভিস অ্যাকাডেমিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে এলে তিনি এ কথা বলেন।

বৈঠকে ড. মোমেন বাংলাদেশ ও নেপালের মধ্যে জলবিদ্যুৎ, জ্বালানি খাতে যোগাযোগ বাড়ানোর পাশাপাশি পারস্পরিক স্বার্থে ব্যবসা-বাণিজ্যে সহযোগিতার ওপর জোর দেন।

এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশ ও নেপালের মধ্যে চমৎকার দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে  সন্তোষ প্রকাশ করেন।

নেপালি রাষ্ট্রদূত মানুষে মানুষে যোগাযোগ বাড়ানোর জন্য ভিসা প্রক্রিয়া সহজ করার জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি প্রিফারেন্সিয়াল ট্রেড অ্যাগ্রিমেন্ট (পিটিএ) দ্রুত বাস্তবায়নের মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য জোরদার করার প্রয়োজনীয়তার ওপরও গুরুত্ব আরোপ করেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, উভয় পক্ষ থেকে ভবিষ্যৎ সহযোগিতার অঙ্গীকার করে বৈঠকটি শেষ হয়।

উল্লেখ্য, রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন শেষে ২০২১ সালের ২১ অক্টোবর ড. বংশীধর মিশ্র তার দেশে ফিরে যাবেন। খবর: বাসস

/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

ড্রেনে পড়ে দু’জনের মৃত্যু, কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে আইনি নোটিশ

ড্রেনে পড়ে দু’জনের মৃত্যু, কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে আইনি নোটিশ

খুলনায় মন্দির ভাঙচুরের মামলায় তিন আসামির জামিন স্থগিত

খুলনায় মন্দির ভাঙচুরের মামলায় তিন আসামির জামিন স্থগিত

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব রটনাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব রটনাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

ইভ্যালির রাসেল-শামীমাসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে আবারও মামলা

ইভ্যালির রাসেল-শামীমাসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে আবারও মামলা

পুনর্বাসনের দাবিতে ফুলবাড়ীয়া রেলওয়ে কলোনি বস্তিবাসীদের বিক্ষোভ

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৪২

পুনর্বাসন ছাড়া কোনও বস্তি উচ্ছেদ না করার দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করেছে ফুলবাড়ীয়া রেলওয়ে কলোনি বস্তিবাসীরা।

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সমাবেশ করেন তারা।

সমাবেশে জরিনা বলেন, পুনর্বাসন ছাড়াই আমাদের উচ্ছেদ করা হচ্ছে। গত তিন-চার মাস ধরে আমাদের বিদ্যুৎ-পানির সংযোগ বন্ধ করে রাখা হয়েছে। সামনে আমাদের সন্তানদের পরীক্ষা এই অবস্থায় আমরা কোথায় যাবো।

তিনি আরও বলেন, দুই বছর আগে মেয়র পুনর্বাসনের কথা দিলেও এখন পর্যন্ত আমাদের পুনর্বাসন হয়নি। এখন আগামী ২৪ তারিখ আমাদের বস্তি ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের পুনর্বাসনের আবেদন জানাচ্ছি। পুনর্বাসিত হলে আমাদের বস্তি ছাড়তে আপত্তি নেই।

/জেডএ/এমএস/

সম্পর্কিত

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪৭

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪৭

সোনারগাঁয়ে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় পথচারী নিহত

সোনারগাঁয়ে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় পথচারী নিহত

বিদেশ যেতে বিমানবন্দরে এসে না ফেরার দেশে আবু মুসা

বিদেশ যেতে বিমানবন্দরে এসে না ফেরার দেশে আবু মুসা

শেখ রাসেল ছিল বন্ধুবৎসল: আতিকুল ইসলাম

শেখ রাসেল ছিল বন্ধুবৎসল: আতিকুল ইসলাম

ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত দফতর সম্পাদক আব্দুস সাত্তার কারাগারে

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৬:২৬

রাজধানীর পল্টন থানায় দায়ের করা মামলায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের ভারপ্রাপ্ত দপ্তর সম্পাদক আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মঈনুল ইসলামের আদালতে আব্দুস সাত্তার আইনজীবীর মাধ্যমে আত্মসমর্পণ করে জামিনের জন্য আবেদন করেন। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে তার বিরোধিতা করা হয়। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

২০১৭ সালের ২ এপ্রিল কাজী মহিদুল ইসলাম নামে এক ব্যবসায়ী তৎকালীন ছাত্রদলের সভাপতি রাজিব আহসান, সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসানসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলাটি দায়ের করেন। এরপর মামলাটি তদন্ত করে ১০ দিন পর ১১ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন পল্টন মডেল থানার এসআই (নি.) শামীম আকতার। মামলাটি বর্তমানে সাক্ষ্য গ্রহণের পর্যায়ে রয়েছে।

এদিন আব্দুস সাত্তারের পক্ষে জামিন শুনানিতে তার আইনজীবী মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার বলেন, আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী নির্দোষ, নিরাপরাধ। ঘটনার সাথে কোনোভাবেই জড়িত নন বরং যে ধারার অভিযোগ আনা হয়েছে সেই ধারার কোনও অপরাধ সংঘটন করেননি। তিনি বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত, মামলা সম্পর্কে অবগতই ছিলেন না। মামলার বিষয়ে জানার পর তিনি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেছে। তিনি অসুস্থ, ভারতের চেন্নাইয়ের বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নিচ্ছেন। সদ্য করোনামুক্ত হয়েছেন। তার জামিনের প্রার্থনা করছি।

পরে শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। মামলার শুরু থেকেই আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী পলাতক ছিলেন।

 

/এমএইচজে/ইউএস/

সম্পর্কিত

খুলনায় মন্দির ভাঙচুরের মামলায় তিন আসামির জামিন স্থগিত

খুলনায় মন্দির ভাঙচুরের মামলায় তিন আসামির জামিন স্থগিত

অনলাইনে ডলার কেনা-বেচা নিয়ন্ত্রণে আইনি নোটিশ

অনলাইনে ডলার কেনা-বেচা নিয়ন্ত্রণে আইনি নোটিশ

শপথ নিলেন হাইকোর্টে স্থায়ী হওয়া ৯ বিচারপতি

শপথ নিলেন হাইকোর্টে স্থায়ী হওয়া ৯ বিচারপতি

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪৭

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪৭

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সোনারগাঁয়ে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় পথচারী নিহত

সোনারগাঁয়ে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় পথচারী নিহত

সাতক্ষীরার ভূমিহীনদের জানমাল রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি

সাতক্ষীরার ভূমিহীনদের জানমাল রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি

পোশাককর্মী দম্পতির লাশ উদ্ধার

পোশাককর্মী দম্পতির লাশ উদ্ধার

শাহবাগে যান চলাচল স্বাভাবিক

শাহবাগে যান চলাচল স্বাভাবিক

২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে আন্দোলন স্থগিত

২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে আন্দোলন স্থগিত

ওষুধ শিল্পের কাঁচামাল উৎপাদনে আয়কর অব্যাহতি ২০৩২ সাল পর্যন্ত

ওষুধ শিল্পের কাঁচামাল উৎপাদনে আয়কর অব্যাহতি ২০৩২ সাল পর্যন্ত

বনানীতে ট্রেনে কাটা পড়ে ২ জনের মৃত্যু

বনানীতে ট্রেনে কাটা পড়ে ২ জনের মৃত্যু

সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রতিবাদ সমাবেশ

সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রতিবাদ সমাবেশ

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট সংকটে চালু হয় না আইসিইউ

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট সংকটে চালু হয় না আইসিইউ

সাম্প্রদায়িকতা হলো উগ্র জঙ্গিবাদ: সুলতানা কামাল

সাম্প্রদায়িকতা হলো উগ্র জঙ্গিবাদ: সুলতানা কামাল

সর্বশেষ

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ডাক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের 

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ডাক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের 

ক্লুজনারের কাছে বিশ্বকাপের অন্যতম ‘ডার্ক হর্স’ আফগানিস্তান  

ক্লুজনারের কাছে বিশ্বকাপের অন্যতম ‘ডার্ক হর্স’ আফগানিস্তান  

রেললাইন থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার

রেললাইন থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার

ড্রেনে পড়ে দু’জনের মৃত্যু, কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে আইনি নোটিশ

ড্রেনে পড়ে দু’জনের মৃত্যু, কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে আইনি নোটিশ

শনাক্তের হার আবারও ২ শতাংশের ওপরে

শনাক্তের হার আবারও ২ শতাংশের ওপরে

© 2021 Bangla Tribune