X
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় আহত ৩, ইউপি সদস্য গ্রেফতার

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৩০

বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে সদর ইউনিয়নে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় বসতবাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে। এ সময় তিন জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় নবনির্বাচিত এক ইউপি সদস্যকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ। বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) মোড়েলগঞ্জ থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

ক্ষতিগ্রস্তরা জানান, ২০ সেপ্টেম্বর ইউপি নিবার্চনকে কেন্দ্র করে বুধবার সদর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের বাদুরতলা গ্রামে মেম্বার প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. শহিদুল ইসলাম তালুকদার, ফুটবল প্রতীকের সমর্থক কাজী নজরুল ইসলাম, নূরুল ইসলাম কাজী, রফিকুল ইসলাম বিপ্লব কাজী ও কাঞ্চন কাজীর বসতবাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ির গাছপালা, ঘেরাবেড়া ও জানালার গ্লাস ভেঙে তছনছ করেন ওই ওয়ার্ডের বিজয়ী সদস্য শাহীন আজাদ কাজীর (মোরগ প্রতীক) সমর্থকরা।

একই সময় হামলাকারীরা শহিদুল ইসলামের নিবার্চনি অফিসে ভাঙচুর চালিয়ে চেয়ার-টেবিল ও কেন্দ্রীয় নেতাদের ছবি তছনছ করে। এ সময় হামলাকারীদের এলোপাতাড়ি মারপিটে রফিকুল ইসলাম বিপ্লব কাজী (৪৫), শ্রমিক ইমরান খান (২৪) ও জাকির খান (৪৫) আহত হন। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত রফিকুল ইসলাম বিপ্লব কাজীকে মোরেলগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

ইউপি সদস্য আব্দুর রউফ দাবি করেন, ঘটনার সময় তিনি ছিলেন না। তবে তার ভাইয়েরা ঘটনাটি ঘটিয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ৪০ বছর আগে শাহাদতের বাবার কাছ থেকে তার ভাই কুদ্দুস ১১ শতক জায়গা কিনেছিলেন। শাহাদতের বাবা ওই জায়গাতেই ঘরে করেছিলেন, তাই ভেঙে দেওয়া হয়েছে।

ওসি জানান, এ ঘটনায় বিপ্লব কাজী বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য শাহিন কাজীকে গ্রেফতার করে।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

আবাসিক হোটেলে গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ, স্বামী আটক

আবাসিক হোটেলে গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ, স্বামী আটক

আজ রুদ্রের জন্মদিন

আজ রুদ্রের জন্মদিন

২৬ বই-লিফলেটসহ শিবিরের ২ নেতা আটক

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:১৫

মৌলভীবাজারে বিশেষ অভিযান চালিয়ে ২৬ বই ও লিফলেটসহ শিবিরের দুই নেতাকে আটক করেছে মডেল থানা পুলিশ। শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) রাতে মৌলভীবাজার পৌর শহরের ৬৪১ পূর্ব সুলতানপুর এলাকায় চাঁদ মিয়ার বসত বাড়ি থেকে বৈঠক করার সময় তাদের আটক করা হয়।

আটকরা হলেন- মৌলভীবাজার টাউন সিনিয়র মাদ্রাসার ছাত্র শিবিরের সভাপতি সাব্বির ইসলাম তানভির ও সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দিন মোহাম্মদ বখতিয়ার। তাদের মধ্যে সাব্বিরের বাড়ি রাজনগর উপজেলায় ও কুতুব উদ্দিনের বাড়ি কুলাউড়া উপজেলার টাট্রিউলি গ্রামে।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার হলরুমে এক সংবাদ সম্মেলনে জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) হাসান মো. নাসের রিকাবদার জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদেরকে আটক করা হয়েছে। তারা ঘটনাস্থলে রাষ্ট্রদ্রোহী ও ধ্বংসাত্মক এবং সন্ত্রাসী কার্যক্রমের জন্য গোপনে বৈঠক করছিল। এ সময় অন্যান্যরা দৌড়ে পালিয়ে গেলেও তানভির ও বখতিয়ারকে পুলিশ আটক করতে সক্ষম হয়।

তিনি আরও জানান, তাদের কাছ থেকে জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্র শিবিরের জিহাদি বই, লিফলেট, চাঁদা আদায়ের রশিদ, মোবাইল ফোনসহ ২৬ ধরনের বই উদ্ধার করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, সম্প্রতি পূজামণ্ডপে হামলার সঙ্গে তাদের কোনও সম্পৃক্ততা নেই। রিমান্ডের জন্য আদালতে আবেদন জানানো হবে। এছাড়া দুর্গাপূজার সময় সংঘটিত কর্মকাণ্ডে কুলাউড়া ও কমলগঞ্জ উপজেলায় পৃথক পাঁচটি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

সন্তানদের সাঁতার শেখাতে গিয়ে পাইলটের মৃত্যু

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:০৩

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে সন্তানদের পুকুরে সাঁতার শেখানোর সময় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে কাজি মফিজুর রহমান (৪৪) নামে বিমান বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত এক উইং কমান্ডারের (পাইলট) মৃত্যু হয়েছে। শনিবার দুপুর ১২টায় উপজেলার মধ্য কেরোয়া গ্রামের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

মফিজুর রহমান ওই গ্রামের মৃত কাজি সিদ্দিকুর রহমানের তৃতীয় সন্তান। তার স্ত্রীসহ এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

পাইলট মফিজুর রহমানকে দুপুর আড়াইটার দিকে তার ঢাকার বসুন্ধরা গ্রিন সিটির বাসায় নেওয়া হয়েছে। বিকালে বিমানবাহিনীর সদর দফতরে জানাজা শেষে তাকে ঢাকাতেই দাফন করা হবে বলে পারিবারিক সূত্র জানা গেছে।

মৃতের স্বজন কাজি ফরিদ হোসেন ও কাজি এরফান জানান, মফিজুর রহমান ১৯ বছর চাকরিজীবন শেষে স্বেচ্ছায় অবসর নেন। গত দুই বছর ধরে তিনি একটি বেসরকারি বিমান সংস্থায় পাইলট হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার স্ত্রীসহ এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। বৃহস্পতিবার ছুটিতে মধ্য কেরোয়া গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে আসেন তিনি। শনিবার সকাল ১১টায় ওই এলাকার সাত জন অসহায় পরিবারকে সেলাইমেশিন দান করেন। দুপুর ১২টার সময় নিজেদের বাড়ির পুকুরে ছেলেমেয়েকে সাঁতার শেখাচ্ছিলেন। এ সময় বুকে হঠাৎ ব্যথা উঠে ডুবে যান তিনি। ছেলেমেয়ের চিৎকারে স্বজনরা এগিয়ে গিয়ে মফিজকে উদ্ধার করে রায়পুর সরকারি হাসপাতালে নেন। কর্তব্যরত ডাক্তার তাহমিনা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রায়পুর পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হোসেন বলেন, ‘বেসরকারি বিমানের পাইলট মফিজুর রহমান ভালো লোক ছিলেন। তার মৃত্যুতে আমরা শোকাহত।’

/এমএএ/

সম্পর্কিত

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫৯

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ত্রিশালের চেলেরঘাটে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে সাত জনে দাঁড়িয়েছে। শনিবার (১৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৪৫ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি মারা যান।

এর আগে, বিকাল ৩টায় মহাসড়কে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকের পেছনে শেরপুরগামী রহিম পরিবহনের বাসটি (ময়মনসিংহ গ ১১-০৯৪৮) ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই একই পরিবারের চার জনসহ পাঁচ জন নিহত হন। এ ঘটনায় ১০ জন আহত হয়েছে। তাদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে আরেকজন মারা যান। এই নিয়ে হাসপাতালে দুই জনের প্রাণ গেছে। ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. জাকিউল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলেন- ফুলপুর উপজেলা হুজু (৩০), তার স্ত্রী ফাতেমা (২৮), ছেলে আব্দুল্লাহ (১০) ও মেয়ে আজমিনা (৮)। বাকি তিন জনের নাম-পরিচয় এখনও জানা যায়নি। এ ঘটনায় আহতদের ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ত্রিশাল থানার ওসি মাইন উদ্দিন জানান, উপজেলার চেলেরঘাট নামক স্থানে দাঁড়িয়ে থাকা ড্রাম ট্রাকের পেছনে শেরপুরগামী বাস ধাক্কা দিলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। মহাসড়কে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

হিলি স্থলবন্দরে ৩ মাসে রাজস্ব ঘাটতি ২৩ কোটি টাকা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫০

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরে চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথম তিন মাস (জুলাই-সেপ্টেম্বর) রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৩ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। এই সময়ে বন্দর থেকে রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারিত ছিল ১১৮ কোটি ২৪ লাখ টাকা। বিপরীতে আহরণ হয়েছে ৯৪ কোটি ৫৮ লাখ টাকা। 

রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা পুনরায় নির্ধারণ করায় ঘাটতি দেখা দিয়েছে। তবে সামনের মাসগুলোতে আমদানি বাড়লে রাজস্ব আহরণ বাড়বে বলে জানিয়েছে শুল্ক স্টেশন কর্তৃপক্ষ।

শুল্ক স্টেশন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) নির্ধারিত ২০২১-২২ অর্থবছরের জুলাই মাসে হিলি স্থলবন্দর থেকে রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩৬ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। বিপরীতে আহরণ হয়েছে ৩২ কোটি ৭৭ লাখ টাকা। আগস্ট মাসে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৪৩ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। বিপরীতে আহরণ হয়েছে ২৬ কোটি ৬২ লাখ টাকা। সেপ্টেম্বর মাসে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩৭ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। বিপরীতে আহরণ হয়েছে ৩৫ কোটি ১৯ লাখ টাকা।

স্থল শুল্ক স্টেশনের রাজস্ব কর্মকর্তা এসএম নুরুল আলম খান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, বন্দর থেকে রাজস্ব আহরণের নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা পূরণের বিষয়টি নির্ভর করে পণ্য আমদানি-রফতানির ওপর। পণ্য আমদানি-রফতানি বাড়লে রাজস্ব আহরণ বাড়বে। পণ্য আমদানি-রফতানি কমলে রাজস্ব আহরণ কমবে। প্রথমে রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা কম নির্ধারণ করলেও পরে আবার নির্ধারণ করায় লক্ষ্যমাত্রা বেড়ে যায়। এ জন্য লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি। 

তিনি বলেন, প্রথমে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল গতবছরের রাজস্ব আদায়ের ওপর। পরে রংপুর কমিশনারেট সারাদেশের মধ্যে রাজস্ব আহরণে প্রথম হওয়ায় আবার কমিশনারেটের ওপর ৩০০ কোটি টাকা বাড়তি লক্ষ্যমাত্রা দেওয়া হয়। বাড়তি লক্ষ্যমাত্রা হিলি স্থল শুল্ক স্টেশনের ওপরে নির্ধারণ করা হয়। যেহেতু লক্ষ্যমাত্রা বেশি নির্ধারণ করা হয়েছে, তাই লক্ষ্যমাত্রা পূরণে আমরা বন্দর দিয়ে পণ্য আমদানি-রফতানি সেবা সহজ করেছি। আমদানিকৃত পণ্যের পরীক্ষণ শুল্কায়নসহ খালাস কার্যক্রম যত সহজ হবে ততই দেশের অন্যান্য বন্দরের চেয়ে হিলি ব্যবহারে আমদানিকারকরা উৎসাহিত হবেন। এতে বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বাড়বে। রাজস্ব আহরণ বাড়বে।

এসএম নুরুল আলম খান আরও বলেন, আমাদের উপ-কমিশনার পণ্য আমদানি-রফতানি বাণিজ্য যাতে আরও সহজ করা যায় সে জন্য নতুন সফটওয়্যার চালু করেছেন। এ ছাড়া পণ্য আমদানি-রফতানির ক্ষেত্রে কোনও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ও আমদানিকারক অহেতুক যেন হয়রানির শিকার না হন, তাদের সমস্যা যেন দ্রুত সমাধান হয় সে নির্দেশনা দিয়েছেন উপ-কমিশনার। আমরা সে মোতাবেক কাজ করে যাচ্ছি।

 

/এএম/

সম্পর্কিত

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

৪২ টাকার নিচে নামছে না পেঁয়াজের দাম

৪২ টাকার নিচে নামছে না পেঁয়াজের দাম

মাদকসেবনে বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে হত্যা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:২২

বগুড়ার ধুনটে স্বামীকে মাদকসেবনে বাধা দেওয়ায় রেহেনা আকতার (১৮) নামের এক নববধূকে মারধরের পর শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) রাতে উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

পুলিশ ঘটনার পরপরই হত্যায় জড়িত সন্দেহে মাদকাসক্ত স্বামী আলিফ হাসানকে (২২) আটক করেছে। নিহতের বাবা শনিবার (১৬ অক্টোবর) সকালে ধুনট থানায় মেয়ের জামাই ও শ্বশুরের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। এরপর আটক আলিফ হাসানকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। গ্রেফতার স্বামী ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে রাজি হলে বিকালে বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোমিন হাসানের আদালতে হাজির করা হয়েছে।

পুলিশ, মামলার এজাহার ও স্বজনদের কাছ থেকে জানা গেছে, নির্মাণশ্রমিক আলিফ হাসান বগুড়ার ধুনট উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি গ্রামের মঞ্জুরুল হকের ছেলে। প্রায় দুই মাস আগে একই গ্রামের রেজাউল করিমের মেয়ে রেহেনা আকতারকে বিয়ে করেন। প্রায়ই মাদকসেবন করে বাড়ি ফিরতেন আলিফ। এ নিয়ে রেহেনার সঙ্গে তার ঝগড়া শুরু হয়। মাদকসেবন নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে তাদের মধ্যে বাগবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে ক্ষুব্ধ আলিফ গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে করে স্ত্রীকে হত্যা করেন। পরে এটিকে আত্মহত্যা হিসেবে প্রচার চালিয়ে তড়িঘড়ি করে লাশ দাফনের চেষ্টা করেন। প্রতিবেশীদের সন্দেহ হলে দাফনে বাধা ও আলিফকে আটকে রাখেন। খবর পেয়ে ধুনট থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার ও স্বামী আলিফ হাসানকে আটক করে থানায় নিয়ে যান। এ সময় তার বাবা মঞ্জুরুল হক বাড়ি থেকে পালিয়ে যান।

ধুনট থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) জাহিদুল হক জানান, নিহত রেহেনার গলায় দাগ রয়েছে। মাদকসেবন নিয়ে
স্বামী-স্ত্রীর মাঝে কলহ চলছিল। এ নিয়ে ঝগড়ার জেরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আলিফ হত্যার দায় স্বীকার করেন। শনিবার বিকালে তাকে বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোমিন হাসানের আদালত হাজির করা হয়। অপর আসামি শ্বশুর মঞ্জুরুল হককে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী আটক

স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী আটক

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

মাগুরায় চার খুনপুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

আবাসিক হোটেলে গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ, স্বামী আটক

আবাসিক হোটেলে গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ, স্বামী আটক

আজ রুদ্রের জন্মদিন

আজ রুদ্রের জন্মদিন

বাগেরহাটে ১৮টি হরিণের চামড়াসহ আটক ২

বাগেরহাটে ১৮টি হরিণের চামড়াসহ আটক ২

মাগুরায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ৪

মাগুরায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ৪

মাটিতে পড়ে থাকা বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে কৃষকের মৃত্যু

মাটিতে পড়ে থাকা বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে কৃষকের মৃত্যু

সর্বশেষ

সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশনা ছাড়া প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর নয়: তালেবান

সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশনা ছাড়া প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর নয়: তালেবান

কার্বন নিয়ন্ত্রণে মানসম্মত বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি ব্যবহার জরুরি

কার্বন নিয়ন্ত্রণে মানসম্মত বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি ব্যবহার জরুরি

২৬ বই-লিফলেটসহ শিবিরের ২ নেতা আটক

২৬ বই-লিফলেটসহ শিবিরের ২ নেতা আটক

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

সন্তানদের সাঁতার শেখাতে গিয়ে পাইলটের মৃত্যু

সন্তানদের সাঁতার শেখাতে গিয়ে পাইলটের মৃত্যু

© 2021 Bangla Tribune