X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

বই ছেড়ে সংসার জীবনে ৩০ শতাংশ ছাত্রী 

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:৫৩

কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার নিশ্চিন্তপুর এলাকার বাসিন্দা নিমি আক্তার। স্থানীয় আসলাম খান উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী ছিল সে। এক ভাই ও দুই বোনের মধ্যে নিমি সবার ছোট। তার বাবা কুমিল্লার কোটবাড়ির একজন ব্যবসায়ী। নিমি ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের এসএসসির পরীক্ষার্থী ছিল। পরীক্ষা দেওয়ার খুব ইচ্ছে থাকলেও গত জুন মাসে করোনায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পরিবার তাকে বিয়ে দিয়ে দেয়। 

পড়ালেখা বন্ধ করে কেন বিয়ে দেওয়া হলো, জানাতে চাইলে তার ভাই রাকিব জানান, বোনকে দিয়ে তারা চাকরি করাবে না, তাই বিয়ে দিয়েছেন। এছাড়া অন্য কোনও সমস্যা নেই।

সুবরাতি শাহজাদী মোমোরিয়াল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ নূরে আলম সিদ্দিকী বলেন, নিমি নিশ্চিন্তপুর আসলাম খান উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। ওই স্কুলের পরীক্ষার্থীরা আমাদের বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন করেন। করোনায় স্কুল বন্ধ থাকায় গত জুন মাসে নিমিকে বিয়ে দিয়ে দেয় তার পরিবার।  বিয়ের সংবাদ শুনে তার পরিবারের সঙ্গে নানাভাবে যোগাযোগ ও অনুরোধ করেও বিয়ে ঠেকানো যায়নি। 

তিনি আরও বলেন, শুধু নিমি নয় তার বিদ্যালয়ের নবম ও দশম শ্রেণির আরও একাধিক ছাত্রীর করোনাকালে বিয়ে হয়ে গেছে। বিয়ে হয়ে যাওয়া ছাত্রীরা আর স্কুলে ফিরছেন না। এদিকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালুর ১০ দিন অতিবাহিত হলেও ৩০ শতাংশ ছাত্রী এখনও ক্লাসে অনুপস্থিত বলে জানান তিনি। এছাড়া গড়ে ৩৫ ভাগ ছাত্রছাত্রী অনুপস্থিত বলে দাবি তার।

এদিকে করোনাকালে দীর্ঘ ছুটির পর ফের আনুষ্ঠানিক পাঠদান শুরু হলেও কুমিল্লা জেলার ৬০৫টি সরকারি ও আধা সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নিমির মতো বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী আর বিদ্যালয়ে ফেরেনি। করোনার কারণে শহরাঞ্চলের অনেক পরিবার গ্রামে চলে গেছে। সামর্থ্য না থাকায় সেখানেও কোনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছাত্র-ছাত্রীরা ভর্তি হতে পারেনি। আবার অনেক ছাত্রীর বিয়ে হয়ে গেছে, ছাত্ররা প্রবাসে কিংবা কর্মজীবনে ঢুকে পড়েছেন।

একাধিক স্কুলের প্রধান শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিদ্যালয় খোলার মাত্র কয়েকদিন হলেও বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী ঝরে পড়ার আলামত তারা দেখতে পাচ্ছেন। অনেক শিক্ষার্থীর অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে না আসা এবং শিক্ষকদের সঙ্গে কোনও যোগাযোগ না রাখা এবং এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ না করা বিষয়টিকে স্পষ্ট করেছে।
 
কুমিল্লা আদর্শ সদর রাজাপুর ফয়েজুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া ৬৪ জন ছাত্রীর মধ্যে করোনার বন্ধের পর গত ১০ দিনে গড়ে উপস্থিতি ৫২। বাকি ১২ জন ছাত্রী ক্লাসে অনুপস্থিত। একই অবস্থা নবম শ্রেণিতেও। নবম শ্রেণির ৫৩ জন ছাত্রীর মধ্যে গড়ে উপস্থিত ৪২ জন। ধারাবাহিকভাবে অনুপস্থিত ১১ জন ছাত্রী। উপস্থিত ছাত্রীরাই কেবল ক্লাস অ্যাসাইমেন্ট জমা দিয়েছেন বলে জানান প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম।

তিনি বলেন, করোনার বন্ধের পর স্কুলের নবম ও দশম শ্রেণির ছাত্রীদের মধ্যে গড় উপস্থিতি ৭০ শতাংশ। অনুপস্থিত ছাত্রীদের অভিভাবকদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে পরিবার থেকে জানানো হয়, তারা দেশে চলে গেছেন। সত্য গোপন করলেও আমরা খবর নিয়ে দেখেছি অনুপস্থিত অধিকাংশ ছাত্রীর বিয়ে হয়ে গেছে। 

অন্যদিকে কুমিল্লা শহরতলীর সুবরাতি শাহজাদী মোমোরিয়াল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী ১৮৯ জন। তাদের মধ্যে গত দশ দিনে গড়ে উপস্থিতি ১৩০ থেকে ১৪০। বাকি প্রায় ৪৯ জন শিক্ষার্থী ধারাবাহিক অনুপস্থিত রয়েছেন। তারা অ্যাসাইনমেন্টও জমা দেয়নি। 

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ নূরে আলম সিদ্দিকী বলেন, স্কুলের প্রতিটি ক্লাসে এখনও গড়ে ৩০ থেকে ৩৫ শতাংশ শিক্ষার্থী অনুপস্থিত। স্কুল থেকে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে নবম ও দশম শ্রেণির অনুপস্থিত শিক্ষার্থীদের মধ্যে অধিকাংশ ছাত্রীর বিয়ে হয়ে গেছে। 

সদর দক্ষিণ উপজেলার কমলপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মো. মমিনুল ইসলাম জানান, করোনার দীর্ঘ বন্ধ কাটিয়ে পুনরায় চালুর পর তার বিদ্যালয়ে নবম-দশম শ্রেণির প্রায় ৩৫ ভাগ শিক্ষার্থী অনুপস্থিত এখনও। তাদের মধ্যে অধিকাংশই ছাত্রী। তার ধারণা করোনার দীর্ঘ বন্ধের পর ক্লাসে অনুপস্থিত এই শিক্ষার্থীরা ঝরে পড়েছেন। আবার অনেক ছাত্রীর বিয়ে হয়ে গেছে। তারপরও তারা অভিভাবকদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন।

কুমিল্লা শহরতলীর আরেক স্কুল আলেকজান মেমোরিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল মান্নান জানান, তার বিদ্যালয়ের নবম-দশম এবং এসএসসি পরীক্ষার্থীদের মধ্যে প্রায় ৩০ ভাগ শিক্ষার্থী ক্লাসে এখনও অনুপস্থিত। শিক্ষকদের বিভিন্ন জনের মুখ থেকে শুনছেন অনুপস্থিত শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনেক ছাত্রীর বিয়ে হয়ে গেছে। তারা আরও স্কুলে ফিরছেন না। তবে এই ধরনের কোনও তালিকা করা হয়নি।

এ বিষয়ে কুমিল্লা জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবদুল মজিদ জানান, কুমিল্লা জেলায় ৬০৫টি সরকারি ও আধা সরকারি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে। করোনায় দীর্ঘ বন্ধের পর উপজেলা এবং জেলা শিক্ষা কর্মকর্তারা বিভিন্ন উচ্চবিদ্যালয় পরিদর্শন করেছে। পরিদর্শনে দেখা গেছে বিদ্যালয়ে গড়ে ৭০-৭৫ ভাগ শিক্ষার্থী উপস্থিত হয়েছেন। প্রতিদিনই স্ব স্ব বিদ্যালয়কে তাদের প্রত্যেক ক্লাসে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি রেকর্ড করে অনলাইনের মাধ্যমে কেন্দ্রে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। 

/টিটি/ 

সম্পর্কিত

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৬

চুয়াডাঙ্গায় ৭৩ বস্তা ভেজাল টিএসপি সার জব্দ করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে সদর উপজেলার দত্তাইল এলাকায় একটি দোকানে অভিযান চালিয়ে এসব ভেজাল সার জব্দ করা হয়। এ সময় ওই দোকানি নয়ন আহমেদকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

নয়ন দত্তাইল গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে। 

জানা গেছে, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে দত্তাইল বাজারের নয়ন ট্রেডার্সে অভিযান চালায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর এবং সদর উপজেলা কৃষি বিভাগের যৌথ একটি দল। এ সময় ওই দোকান থেকে ভেজাল টিএসপি সার জব্দ করা হয়। 

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের চুয়াডাঙ্গা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সজল আহমেদ জানান, ঝিনাইদহের শৈলকুপা এলাকার জনৈক নাজমুলের কাছ থেকে এসব সার সংগ্রহ করেছেন নয়ন। এগুলো সংরক্ষণের দায়ে দোকান মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই সঙ্গে ভেজাল সার ধ্বংস ও দোকানের সার বিক্রির লাইসেন্স জব্দ করা হয়েছে।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৪

কুষ্টিয়ায় স্বর্ণ চোরাচালানের মামলায় নির্মল দত্ত (৬৪) নামে একজনকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সেই সঙ্গে তিন লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এই রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। দণ্ডপ্রাপ্ত নির্মল দত্ত কুষ্টিয়া শহরের আমলাপাড়া এলাকার মৃত মনিন্দ্র নাথ দত্তের ছেলে। 

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১ মার্চ বিকালে আমলাপাড়া এলাকার নুরুল ইসলাম লেনের বাসায় তল্লাশি করে সোনার বারসহ নির্মল দত্তকে গ্রেফতার করে র‍্যাব-১২। সে সময় তল্লাশি করে র‍্যাব তিনটি বড় ও আটটি ছোট স্বর্ণের বার উদ্ধার করে। উদ্ধার ওই স্বর্ণের ওজন ছিল ৩৮৭ দশমিক ৬৫ গ্রাম। 

এ ঘটনায় কুষ্টিয়া র‍্যাব-১২ বাদি হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় তার বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেন। পরে মামলার তদন্ত শেষে পুলিশ আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। তদন্ত শেষে ২০১৯ সালের ১৩ মার্চ অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। আদালত সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে ১৭ অক্টোবর রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পর দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি নির্মল দত্তকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকার পক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী বলেন, মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় নির্মল দত্তকে ১৪ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন বিচারক।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫২

বিশেষ ক্ষমতাসহ এ জাতীয় আইনের আওতায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে চিহ্নিত করে অনতিবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবির জানিয়েছেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারে বিভিন্ন মণ্ডপ-মন্দিরে হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত জায়গা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এই দাবি জানান।

রানা দাশগুপ্ত বলেন, বিভিন্ন জায়গায় হামলার মাধ্যমে তারা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে। তাদের উদ্দেশ্য হলো, দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করে মুক্তিযুদ্ধের দেশে যে উন্নয়ন হয়েছে, সেই উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করা। সেই সঙ্গে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি বিদেশে বিনষ্ট এবং এই জাতীয় হামলার মধ্য দিয়ে সংখ্যালঘুদের দেশত্যাগে বাধ্য করা তাদের উদ্দেশ্য।

এ সময় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ, আহতদের চিকিৎসা ব্যবস্থার জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানান তিনি।সেই সঙ্গে হামলার ঘটনার প্রতিবাদে আগামী ২৩ অক্টোবর সারাদেশে সকাল ৬টা থেকে ১২টা পর্যন্ত গণ-অনশন ও অবস্থান কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল ইসলামের পাঠানো এক বার্তায় জানানো হয়, চৌমুহনীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় ইসকনের পক্ষ থেকে প্রাপ্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তিনি জানান, হামলার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা করে এবং ইসকনের মামলায় ১৫ জনসহ মোট ৪৪ জনকে গ্রেফতার করে। অন্যান্য ঘটনায় মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩৩

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নার্সরা। সেই সঙ্গে হাসপাতালের পরিচালককে অবরুদ্ধ করে আগামী সাত দিনের মধ্যে প্রণোদনার টাকা না দিলে কর্মবিরতিতে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তারা। স্বাস্থ্যসেবা বন্ধ রেখে কর্মসূচি পালন করায় চিকিৎসাবঞ্চিত হয়েছেন রোগীরা।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত আড়াই ঘণ্টা এ কর্মসূচি পালন করেন নার্সরা। এর আগে একই দাবিতে বিক্ষোভ করেছিলেন তারা।

আন্দোলনরত নার্সদের নেত্রী আফরোজা আখতার বলেন, সারাদেশের মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফ্রন্টলাইনার হিসেবে নার্স, ওয়ার্ডবয়সহ স্বাস্থ্যকর্মীরা করোনাকালীন প্রণোদনা পেলেও রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক প্রায় এক বছর ধরে নানা অজুহাতে প্রণোদনা দিচ্ছেন না।

তিনি বলেন, পরিচালক মনে হয় নিজের টাকা দেবেন। করোনাকালীন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রোগীদের সেবা করতে গিয়ে অনেক নার্স জীবন দিয়েছেন, করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। অথচ আমাদের প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে না। পরিচালকের সঙ্গে এর আগে কয়েকবার দেখা করে আমাদের দাবি উত্থাপন করেছি। প্রণোদনা দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছি। শুধু আশ্বাস দিয়েছেন, কোনও পদক্ষেপ নেননি। এ জন্য বিক্ষোভ করে পরিচালকের কার্যালয় ঘেরাও করেছি আমরা।

হাসপাতালের পরিচালক ডা. রেজাউল ইসলাম বলেন, হাসপাতালে ২৩১ নার্সের মধ্যে যারা করোনাকালে দায়িত্বরত ছিলেন, তারাই প্রণোদনা পাবেন। প্রণোদনা ও ভাতাসহ যাবতীয় বকেয়া পরিশোধের চেষ্টা করছি। কবে নাগাদ তারা প্রণোদনা পাবেন জানতে চাইলে নিশ্চিত করে বলতে পারেননি ডা. রেজাউল।

/এএম/

সম্পর্কিত

পঞ্চগড়ে চায়ের অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনা

পঞ্চগড়ে চায়ের অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনা

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার আজ থেকেই কার্যকর

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার আজ থেকেই কার্যকর

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

পঞ্চগড়ে চায়ের অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনা

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:০৯

সরকার পঞ্চগড়ে চায়ের অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনা করছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ চা বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মো. আশরাফুল ইসলাম। রবিবার (১৭ অক্টোবর) তেঁতুলিয়া উপজেলার চায়ের গ্রাম পেদিয়াগজে ক্ষুদ্র চা-চাষিদের জন্য হাতে-কলমে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে চা আবাদ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালায় এসব কথা বলেন তিনি। 

উন্নত জ্ঞান উন্নত চা প্রতিপাদ্য নিয়ে বিভিন্ন এলাকায় ‘ক্যামেলিয়া খোলা আকাশ স্কুল’ শিরোনামে এই প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করছে বাংলাদেশ চা বোর্ডের পঞ্চগড় আঞ্চলিক কার্যালয়। 

কর্মশালায় চা বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, ‘আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে দেশে ১৪০ মিলিয়ন মেট্রিক টন চা উৎপাদনের পরিকল্পনা করেছে সরকার। দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে রফতানির জন্য নানা উদ্যোগও নেওয়া হয়েছে। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম চা অঞ্চল পঞ্চগড়ে অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনাও করছে সরকার। চা উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য ক্ষুদ্র চা-চাষিদের সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়া হচ্ছে। তাদের প্রশিক্ষণের আওতায়ও আনা হয়েছে।’

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বাংলাদেশ চা বোর্ডের পরিচালক ড. এ কে এম রফিকুল হক, পঞ্চগড় স্মল টি গার্ডেন অনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আমিরুল ইসলাম খোকন, বাংলাদেশ চা বোর্ড পঞ্চগড় আঞ্চলিক কার্যালয়ের প্রকল্প পরিচালক এবং মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. শামিম আল মামুন, উন্নয়ন কর্মকর্তা আমির হোসেন, পেদিয়াগজ গ্রাম চা সমিতির সাধারণ সম্পাদক ঈমান আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 
কর্মশালায় শতাধিক চা-চাষিকে নিয়ে দিনব্যাপী হাতে-কলমে চা চাষ সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। পরে পঞ্চগড় সার্কিট হাউজে চা-চাষিদের সঙ্গে এক মত বিনিময় অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি। 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার আজ থেকেই কার্যকর

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার আজ থেকেই কার্যকর

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

ছবি তোলার কথা বলে প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে কাশবনে ধর্ষণ 

ছবি তোলার কথা বলে প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে কাশবনে ধর্ষণ 

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

মুহিবুল্লাহ হত্যা: বান্দরবানে রোহিঙ্গা যুবক আটক

মুহিবুল্লাহ হত্যা: বান্দরবানে রোহিঙ্গা যুবক আটক

কুমিল্লার সেই ভিডিও আমাদের কাছে আছে: হাছান মাহমুদ

কুমিল্লার সেই ভিডিও আমাদের কাছে আছে: হাছান মাহমুদ

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

সর্বশেষ

‘একদল-একনেতা’ ও ‘অনিবন্ধিত’দের ২০ দলীয় জোট, অনেকের অফিসও নেই 

‘একদল-একনেতা’ ও ‘অনিবন্ধিত’দের ২০ দলীয় জোট, অনেকের অফিসও নেই 

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

ভারতের কাছে ৫০ কোটি ডলার ঋণ চাইলো শ্রীলঙ্কা

ভারতের কাছে ৫০ কোটি ডলার ঋণ চাইলো শ্রীলঙ্কা

শুভেচ্ছা জানানোকে কেন্দ্র করে জবিতে ছাত্রদল-ছাত্রলীগ হাতাহাতি

শুভেচ্ছা জানানোকে কেন্দ্র করে জবিতে ছাত্রদল-ছাত্রলীগ হাতাহাতি

© 2021 Bangla Tribune