X
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

সঞ্চয়পত্রের মুনাফা কমায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন যারা

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:২৯

সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগে মুনাফার হার কমানোর ফলে মধ্যবিত্তের আয় কমে যাবে। অর্থাৎ নতুন সিদ্ধান্তের ফলে সরকারি অবসরপ্রাপ্ত চাকরিজীবীদের একটি বড় অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। এছাড়া পরিবার সঞ্চয়পত্র কেনা নারীরাও সরকারের নতুন সিদ্ধান্তে ক্ষতির সম্মুখীন হবেন। একইভাবে নতুন সিদ্ধান্তে কমবে প্রাতিষ্ঠানিক সঞ্চয়কারীদের আয়ও। প্রবাসীরাও ওয়েজ আর্নার্স বন্ডের বিপরীতে মুনাফা কম পাবেন।

বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সরকারি অবসরপ্রাপ্ত চাকরিজীবীদের একটি বড় অংশ প্রাপ্ত টাকা সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ করে সে মুনাফা থেকে সংসার খরচ চালান। তাদের বিনিয়োগ ৩০ লাখ টাকার বেশি। ফলে তারা গড়ে ২ শতাংশ মুনাফা কম পাবেন। পরিবার সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ করা নারীরাও মুনাফা ২ শতাংশ হারে কম পাবেন। তবে সাধারণ সঞ্চয়কারীরা, যারা ১৫ লাখ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করেছেন, তাদের মুনাফার হার অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, অনেকেই সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগের মুনাফা থেকে জীবিকা নির্বাহ করে থাকে। সঞ্চয়পত্র ছাড়া মানুষের সঞ্চয়ের একটি নিরাপদ বিনিয়োগের জায়গা নেই। এর সুদের হার কমানোর ফলে বিনিয়োগ ঝুঁকিপূর্ণ কোনও খাতে চলে গেলে তা বিপজ্জনক হবে।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেন, সাধারণ ও নিম্ন আয়ের মানুষজন সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ করে না। সঞ্চয়পত্রের অধিকাংশ বিনিয়োগ মধ্যবিত্ত শ্রেণির। ফলে সরকার সঞ্চয়পত্রে মুনাফা কমানোর যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে মধ্যবিত্ত। তিনি বলেন, পেনশনভোগী মধ্যবিত্ত ও বয়স্ক নারীদের সঞ্চয়পত্রের আয় দিয়েই চলতে হয়। তাদের কথা মাথায় রেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।  তাদের সঞ্চয়ের বিকল্প নির্ভরযোগ্য কোনও কর্মসূচি নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, একেবারে প্রান্তিক গোষ্ঠীর জন্য ন্যূনতম সীমারেখা ১৫ লাখ যথেষ্ট নয়। এর পরিমাণ আরও বাড়ানো দরকার। পারলে দ্বিগুণ করা গেলে আরও ভালো হয়।

যারা সঞ্চয়পত্রের বিনিয়োগ করেন তাদের অধিকাংশই সরকারের সাবেক আমলা ও বিভিন্ন পেশার অবসর নেওয়া বয়স্ক ব্যক্তি। তারা বলছেন, মুনাফা কমানোর সঙ্গে নিরাপদ বিকল্প বিনিয়োগের ব্যবস্থা থাকা দরকার ছিল, কিন্তু বিকল্প কোনও জায়গা নেই। কারণ, ব্যাংকে টাকা রাখলে এখন শতকরা ছয় ভাগের বেশি সুদ পাওয়া যায় না। শেয়ার বাজারে আস্থার সংকট। এদের অধিকাংশই সরাসরি ব্যবসা করতে পারবে না।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, সঞ্চয়পত্রের মুনাফার হার কমানোর আগে লাভজনক নিরাপদ বিনিয়োগের ক্ষেত্র তৈরি করা জরুরি। সেটি না করে মুনাফায় হাত দেওয়া ঠিক হয়নি। এতে মধ্যবিত্ত শ্রেণি, বিশেষ করে সাবেক সরকারি কর্মকর্তারা বিপাকে পড়বেন।

এদিকে সরকারের নতুন সিদ্ধান্তের কারণে ক্ষতির মুখে পড়ছেন  বড় ও প্রাতিষ্ঠানিক সঞ্চয়কারীরাও। বিশেষ করে প্রভিডেন্ট ফান্ডের অর্থ তারা এতে বিনিয়োগ করে যে মুনাফা পান তা কর্মীদের মধ্যেই বণ্টন করে দেওয়া হয়। নতুন সিদ্ধান্তের ফলে তাদের মুনাফা গড়ে ২ শতাংশ কমবে।

প্রসঙ্গত, সরকার ব্যাংক থেকে ঋণ নিলে ২ থেকে ৫ শতাংশ সুদে পাচ্ছে। বিদেশি ঋণও পাচ্ছে ১ থেকে ২ শতাংশ সুদে। অথচ সঞ্চয়পত্র থেকে ঋণ নিয়ে সরকার সুদ দিচ্ছে গড়ে ১০ থেকে ১২ শতাংশ। অর্থাৎ সঞ্চয়পত্রের বিপরীতে প্রতিবছর সরকার গড়ে ৩০ থেকে ৩৫ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি হিসেবে দিচ্ছে।

এছাড়া সঞ্চয়পত্রের সুদের হার বেশি থাকায় মুদ্রা বাজারে অস্থিরতা বিরাজ করছিল। আবার ঝুঁকির কারণে শেয়ার বাজারেও টাকা কম যেত। এসব কারণে সঞ্চয়পত্রের সুদের হার কমানোর জন্য ব্যাংক ও শেয়ার বাজারের নীতিনির্ধারকদের পক্ষ থেকে একটি চাপ ছিল। অর্থনীতিবিদদের অনেকে সঞ্চয়পত্রের সুদের হার কমানোর পরামর্শ দিয়েছেন কয়েক বছর ধরে। এনবিআর চেয়ারম্যান ও আইআরডি সচিব আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম সম্প্রতি একটি সারসংক্ষেপ উপস্থাপন করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের কাছে। এতে বলা হয়েছে, সঞ্চয়পত্রের মুনাফা দিতে গিয়ে সরকারের সুদ ব্যয় বেড়ে যাচ্ছে। এতে অর্থনীতিতে তৈরি হচ্ছে ভারসাম্যহীনতা। তিনি আরও লিখেছেন, সঞ্চয় কর্মসূচিতে অতিমাত্রায় বিনিয়োগ এবং বিনিয়োগের ক্রমবর্ধমান ঊর্ধ্বগতি রোধ করা প্রয়োজন।

এ প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বুধবার সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের বলেছেন, সঞ্চয়পত্রের মুনাফার হার তুলনামূলক বেশি থাকায় এর হার কমানো হয়েছে। এর মুনাফার হার বেশি হওয়ায় অর্থনীতির অন্য চালিকাশক্তিগুলো সমস্যায় পড়ছিল। মুনাফার হার কমানোর ফলে সার্বিক অর্থনীতির সুদের হারে একটি ভারসাম্য আসবে।

এদিকে মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) অর্থ মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংকের সাধারণ হিসাব ও দুটি ডলার বন্ড ছাড়া সব ধরনের সঞ্চয়পত্রের মুনাফার হার কমানো হয়েছে। তবে এবারই প্রথম স্তর পদ্ধতি আরোপ করে ছোট সঞ্চয়কারীদের সুরক্ষা দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ ১৫ লাখ টাকা বিনিয়োগ পর্যন্ত সঞ্চয়পত্রের ওপর মুনাফার হার কমানো হয়নি।

১৫ লাখ টাকার বেশি থেকে ৩০ লাখ পর্যন্ত বিনিয়োগে মুনাফার হার কমানো হয়েছে ১ শতাংশ এবং ৩০ লাখ টাকার বেশি হলে মুনাফার হার কমানো হয়েছে ২ শতাংশ।

প্রবাসীদের জন্য ওয়েজ আর্নার্স বন্ডে তিন ধাপে মুনাফার হার কমেছে ৩ শতাংশ। অর্থাৎ ১৫ লাখ টাকা পর্যন্ত বিদ্যমান ১২ শতাংশ, ১৫ লাখের বেশি থেকে ৩০ লাখ টাকা পর্যন্ত ১১ শতাংশ, ৩০ লাখের বেশি থেকে ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত ১০ শতাংশ এবং ৫০ লাখ টাকার বেশি হলে ৯ শতাংশ মুনাফা দেওয়া হবে। আগে এতে যেকোনও অঙ্কের বিনিয়োগের ওপর ১২ শতাংশ মুনাফা দেওয়া হতো।

/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২১:২১

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়াতে চায় ভোজ্যতেল পরিশোধনকারী মিল মালিকরা। আন্তর্জাতিক বাজারের দোহাই দিয়ে তারা বোতলজাত ও খোলা সয়াবিন তেলের দাম প্রতি লিটারে ৭ টাকা বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে। তবে বাণিজ্যমন্ত্রী ও সচিব এই প্রস্তাব অনুমোদন দিলে ভোজ্যতেল পরিশোধনকারী মিল মালিকরা তা জানিয়ে দেবে।

 রবিবার (১৭ অক্টোবর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত নিত্যপণ্যের মজুত পরিস্থিতি, আমদানি ও দাম নির্ধারণ নিয়ে বৈঠকে সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর এই প্রস্তাব করা হয়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আমদানি ও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য (আইআইটি) অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব এএইচএম সফিকুজ্জামান সভায় সভাপতিত্ব করেন।

তিনি বলেন, ‘সয়াবিন তেল পরিশোধনকারী মিল মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রস্তাব ছিল বোতলজাত প্রতি লিটার সয়াবিন তেল ১৬৮ টাকা করার। ট্যারিফ কমিশন একাধিকবার বসে অ্যানালাইসিস করে ১৬২ টাকা (বোতলজাত সায়াবিন তেল) করার সুপারিশ করেছে। এটা ছিল সেপ্টেম্বর মাসের অ্যাভারেজ রিপোর্ট। আজকে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা করে প্রতি লিটার বোতলজাত তেলের দাম ঠিক করা হয়েছে ১৬০ টাকা, যেটার আগে দাম ছিল ১৫৩ টাকা।

সভায় খোলা সয়াবিন তেল প্রতি লিটার ১৩৬ টাকা, বোতলজাত ৫ লিটার তেলের দাম ৭৬০ টাকা, আর পাম অয়েল প্রতি লিটার ১১৯ টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

বাণিজ্যমন্ত্রী ও সচিব এই প্রস্তাব অনুমোদন দিলে তা বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন আনুষ্ঠানিকভাবে সয়াবিনের দাম জানাবে।

বৈঠকে ভোজ্যতেল উৎপাদন ও বিতরণকারী কোম্পানিগুলোর শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বর্তমানে নির্ধারিত দাম হচ্ছে খোলা সয়াবিন তেল প্রতি লিটার ১২৯ টাকা, ৫ লিটারের বোতল ৭২৮ টাকা ও পাম তেল প্রতি লিটার ১১৬ টাকা।

অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘চিনির রেগুলেটরি ডিউটি কবে থেকে কার্যকর হচ্ছে, তা অ্যাসেসমেন্ট করে মানুষকে জানিয়ে খুব শিগগিরই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

/এসআই/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:০৯

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে আগামী ২০ অক্টোবর দেশের সব আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। এর আওতায় দেশের সব ব্যাংক এবং শেয়ারবাজারে কোনও কার্যক্রম হবে না। রবিবার (১৭ অক্টোবর) বাংলাদেশ ব্যাংক এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করেছে।

আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো সার্কুলারে বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়েছে, পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে ১৯ অক্টোবর ছুটি ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে ঘোষিত ছুটি ১৯ অক্টোবরের পরিবর্তে ২০ অক্টোবর নির্ধারণ করা হলো।

গত ১৪ অক্টোবর ব্যাংকগুলোর জন্য পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবীর (সা.) ছুটি সংক্রান্ত আরেকটি সার্কুলার জারি করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক।

/জিএম/জেএইচ/

সম্পর্কিত

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৪০

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে একটি মহল কাজ করেছে এবং তাদের কারসাজিতে দাম বেড়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন। রবিবার (১৭ অক্টোবর) নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রীর মজুত, আমদানি, সরবরাহ ও মূল্য পরিস্থিতির বিষয়ে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘আমদানিতে শুল্ক কমানোর ঘোষণা দেওয়ার পরপরই পেঁয়াজের দাম কেজিতে ১৫ টাকা কমে এসেছে। মাত্র একদিনের ব্যবধানে ১৫ টাকা কমে কি? কমে না। এর মানে দাঁড়ায়, দাম বাড়ানোর পেছনে কারসাজি ছিল।’

তিনি বলেন, ‘পেঁয়াজের দাম নির্ধারণে বাজারে একটা সমস্যা ছিল। এটি না হলে একদিনে এত টাকা কমে না। আমরা সম্মানের সঙ্গে ব্যবসা পরিচালনা করতে চাই, কোনও কারসাজির প্রশ্রয় মানা হবে না। এখানে সংশ্লিষ্টদের যদি কোনও সমস্যা থাকে আমাদের জানান। আমরা আলোচনার মাধ্যমে আপনাদের সমস্যার সমাধান করবো।’

অনুষ্ঠানে পাইকার ও আড়তদার পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা বলেন, ‘আমদানির একটা বড় অংশ প্রতিবেশী দেশ ভারত থেকে আসে। সেখানে সম্প্রতি অতিবৃষ্টি আর বন্যায় পেঁয়াজ নষ্ট হয়েছে। আমাদের দেশেও এর প্রভাব পড়েছে।’

তবে শুল্ক কমানোর ঘোষণার একদিনের মাথায় দাম কমা নিয়ে এফবিসিসিআই সভাপতির প্রশ্নের যৌক্তিক উত্তর দিতে পারেননি পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা।

এ সময় ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ করে এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, ‘ব্যবসায় লাভ-লোকসানের হিসাব থাকে। তাই বলে সুযোগ পেলেই দাম বাড়াবেন এটা হতে পারে না। এসব কারণে কতিপয় ব্যবসায়ী কিছু অর্থ পেলেও প্রকৃতপক্ষে আমাদের (ব্যবসায়ী) জন্য খুবই অসম্মানজনক।’

শ্যামবাজার ও কাওরান বাজার অপেক্ষা অন্যান্য কাঁচাবাজারে দাম ১০ থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত বেশি রাখা হয়, এর কারণ কী? এই প্রশ্নে ব্যবসায়ীরা এফবিসিসিআই সভাপতিকে জানান, এলাকাভেদে দোকান ভাড়া বেশি। গুলশান আর কাওরান বাজারের ভাড়ার পার্থক্য অনেক। এছাড়া বিদ্যুতের ইউনিটপ্রতি মূল্য বেশি ও ট্রেড লাইসেন্সের খরচ বৃদ্ধিকে দায়ী করেন তারা।

 

/জিএম/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩৩

বেঙ্গল হারবাল গার্ডেন লিমিটেড তাদের পণ্য উৎপাদনের গুণগত মান রক্ষায় বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের গবেষণাগার ব্যবহার করবে। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের সঙ্গে চু্ক্তি করেছে জেমকন গ্রুপের প্রতিষ্ঠান বেঙ্গল হারবাল গার্ডেন লিমিটেড। রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে  বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের এ চুক্তি সাক্ষরিত হয়।

বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের সচিব শাহ আবদুল তারিক এবং বেঙ্গল হারবাল গার্ডেন লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার কৃষ্ণ কান্ত গোলদার নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে সই  করেন। এ সময় দুই প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের সচিব শাহ আবদুল তারিক এবং বেঙ্গল হারবাল  গার্ডেন লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার কৃষ্ণ কান্ত গোলদার নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে সই  করেন

এ চুক্তির আওতায় বেঙ্গল হারবাল গার্ডেন লিমিটেড তাদের পণ্য উৎপাদনের বিভিন্ন পর্যায়ে বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের গবেষণাগারে পণ্যের উপদান পরীক্ষা করে মান নিয়ন্ত্রণ করবে।

এ প্রসঙ্গে বেঙ্গল হারবাল গার্ডেন লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার কৃষ্ণ কান্ত গোলদার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আমাদের পণ্য উৎপদানের জন্য কাঁচামাল নিজস্ব ল্যাবে পরীক্ষা করা হয়। গুণগত মান নিশ্চিত করেই পণ্য উৎপাদন করা হয়। এখন আমরা নিজস্ব ল্যাবের পাশাপাশি  বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের ল্যাব ব্যবহার করবো। ফলে পণ্যের গুণগত আরও নিশ্চিত হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে ফেব্রুয়ারিতে যাত্রা শুরু করে বেঙ্গল হারবাল  গার্ডেন লিমিটেড।

/সিএ/এমআর/

সম্পর্কিত

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৩২

বিক্রেতাদের শেয়ার বিক্রির চাপে সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রবিবার (১৭ অক্টোবর) দেশের পুঁজিবাজারে বড় দরপতন হয়েছে। এদিন বেশির ভাগ কোম্পানির শেয়ারের দাম কমেছে। এতে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ডিএসইর প্রধান সূচক কমেছে ৫৬ পয়েন্ট। অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সূচক কমেছে ৯৪ পয়েন্ট। সূচকের পাশাপাশি কমেছে বেশিরভাগ শেয়ারের দামও। এর ফলে টানা পাঁচ দিন পুঁজিবাজারে দরপতন হয়েছে।  বিশেষ করে অতিমূল্যায়িত কোম্পানির শেয়ারের দাম এখন কমতে শুরু করেছে। এই দুই কারণে পুঁজিবাজারে দরপতন অব্যাহত রয়েছে। আর দরপতনে বিনিয়োগকারীদের মাঝে বাজার নিয়ে হতাশা সৃষ্টি হয়েছে। তারা হঠাৎ করেই শেয়ার বিক্রি করে দিচ্ছেন।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, রবিবার ব্যাংক খাতের ৩২টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ১৮টির, কমেছে সাতটির, আর অপরিবর্তিত  রয়েছে সাতটির। এর বিপরীতে বিমা খাতের ৫১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম কমেছে ৪৮টির। আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতের ২৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম কমেছে ২১টির। বস্ত্র খাতের ৫৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে সাতটি প্রতিষ্ঠানের। এদিকে দাম কমেছে ওষুধ, রসায়ন এবং বিদ্যুৎ জ্বালানি খাতসহ প্রায় সব খাতের শেয়ারের। 

ফলে রবিবার ডিএসইতে ৩৭৬টি কোম্পানির ৩৭ কোটি ৪৭ লাখ ৩৫ হাজার ১৪৮টি শেয়ার হাতবদল হয়েছে। এর মধ্যে ৬৫টি কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েছে, কমেছে ২৮৭টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ২৪টির।

দিন শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ৫৬ পয়েন্ট কমে ৭ হাজার ১৮৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। প্রধান সূচকের পাশাপাশি ডিএসইর অন্য সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ২১ দশমিক ১১ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৫৪৬ পয়েন্টে ও ডিএসই-৩০ সূচক ১৪ পয়েন্ট বেড়ে দুই হাজার ৭০৫ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

এদিন ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৬৫৫ কোটি ৩৭ লাখ ৭৮ হাজার টাকা। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৪৩৩ কোটি ৮৭ লাখ ৭৬ হাজার টাকা। অর্থাৎ, আগের দিনের চেয়ে লেনদেন কিছুটা বেড়েছে।

এদিন ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে ফরচুন সুজের শেয়ারের। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে আইএফআইসি ব্যাংকের শেয়ার। তৃতীয় স্থানে ছিল ওরিয়ন ফার্মাসিউটিক্যালসের শেয়ার।

এদিকে  পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৯৪ পয়েন্ট কমেছে। সূচক এখন ২১ হাজার ২২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। সিএসইতে লেনদেন করা ৩১০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৭৮টির শেয়ারের দাম বেড়েছে, কমেছে ২০৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৬টি কোম্পানির শেয়ারের দাম।

 

/জিএম/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

সম্পর্কিত

‘রাসেল নামটি শুনলেই যে ছবি সামনে ভেসে আসে...’

‘রাসেল নামটি শুনলেই যে ছবি সামনে ভেসে আসে...’

প্রথমবার জাতীয়ভাবে ‘শেখ রাসেল দিবস’ পালিত হচ্ছে আজ

প্রথমবার জাতীয়ভাবে ‘শেখ রাসেল দিবস’ পালিত হচ্ছে আজ

প্রাথমিক-ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা হচ্ছে না

প্রাথমিক-ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা হচ্ছে না

স্পিকার দেশে ফিরেছেন

স্পিকার দেশে ফিরেছেন

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

মডার্নার টিকা কেউ পাননি আজ 

মডার্নার টিকা কেউ পাননি আজ 

তিন শতাধিক উসকানিদাতা শনাক্ত, হোতাদের খুঁজছে পুলিশ

পূজামণ্ডপে হামলা-ভাঙচুরতিন শতাধিক উসকানিদাতা শনাক্ত, হোতাদের খুঁজছে পুলিশ

পুলিশের কর্মক্ষেত্রে যৌন নির্যাতন বন্ধে ব্যাপক প্রচারণার নির্দেশ সদর দফতরের

পুলিশের কর্মক্ষেত্রে যৌন নির্যাতন বন্ধে ব্যাপক প্রচারণার নির্দেশ সদর দফতরের

সর্বশেষ

আমেরিকান মিশনারি অপহরণে হাইতির গ্যাং জড়িত: কর্মকর্তা

আমেরিকান মিশনারি অপহরণে হাইতির গ্যাং জড়িত: কর্মকর্তা

প্রাণঘাতী বন্যায় ভারতে বহু মানুষ নিখোঁজ

প্রাণঘাতী বন্যায় ভারতে বহু মানুষ নিখোঁজ

ফাতির নৈপুণ্যে পিছিয়ে পড়েও বার্সেলোনার দুর্দান্ত জয়

ফাতির নৈপুণ্যে পিছিয়ে পড়েও বার্সেলোনার দুর্দান্ত জয়

হাসপাতাল ছাড়লেন বিল ক্লিন্টন

হাসপাতাল ছাড়লেন বিল ক্লিন্টন

ভারতের প্রথম অ্যালকোহল জাদুঘরের যাত্রা শুরু

ভারতের প্রথম অ্যালকোহল জাদুঘরের যাত্রা শুরু

এবার মরুর বুকে ক্ষত-বিক্ষত মাহমুদউল্লাহরা

এবার মরুর বুকে ক্ষত-বিক্ষত মাহমুদউল্লাহরা

কাশ্মিরে বন্দুকযুদ্ধে পাকিস্তানি কমান্ডোদের হাত দেখছে ভারত: এনডিটিভি

কাশ্মিরে বন্দুকযুদ্ধে পাকিস্তানি কমান্ডোদের হাত দেখছে ভারত: এনডিটিভি

গিটার সঙ্গী স্বপনের স্মৃতিতে আইয়ুব বাচ্চু

গিটার সঙ্গী স্বপনের স্মৃতিতে আইয়ুব বাচ্চু

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

আবারও সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

২০ অক্টোবর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে কারসাজি: এফবিসিসিআই

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

পণ্যের মান রক্ষায় বিসিএসআইআর’র ল্যাব ব্যবহার করবে বেঙ্গল হারবাল

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

© 2021 Bangla Tribune