X
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

‘এখনও ভ্রাম্যমাণ আদালতের অপব্যবহার হচ্ছে’

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:০০

সফলতা এবং অপব্যবহার দুটো নিয়েই আলোচনা-সমালোচনায় আছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচার প্রক্রিয়া।এ নিয়ে বারবার সমালোচনা ও পর্যবেক্ষণ এসেছে দেশের উচ্চ আদালত থেকে।এসব মামলায় নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে বাংলা ট্রিবিউন-এর সঙ্গে কথা বলেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইশরাত হাসান। ইতোমধ্যে জনস্বার্থে মামলা পরিচালনার জন্য তিনি পেয়েছেন আন্তর্জাতিক প্রো-বোনো অ্যাওয়ার্ড।

বাংলা ট্রিবিউন: ভ্রাম্যমাণ আদালতের গুরুত্ব কতটুকু?

ইশরাত হাসান: অবশ্যই গুরুত্ব আছে। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জায়গায় যখন (ভ্রাম্যমাণ আদালত) পরিচালিত হয়, তখন অনেকে সতর্ক হয়ে যান। আদালত ভ্রাম্যমাণ হওয়ায় অনেকের মনেই সচেতনতা ও ভীতি কাজ করে। বিশেষ করে কাঁচাবাজারগুলোয় মূল্য তালিকা টানানো থেকে শুরু করে ভেজাল পণ্য সরবরাহকারীরাও ভয়ে থাকেন। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বিচার প্রক্রিয়া সঠিকভাবে হচ্ছে না।

বাংলা ট্রিবিউন: ভ্রাম্যমাণ আদালতের অপব্যবহার কীভাবে হচ্ছে?

ইশরাত হাসান: ভ্রাম্যমাণ আদালতের অপব্যবহার সবসময়ই হয়ে আসছে। বিচার বিভাগ পৃথকীকরণের মাধ্যমে ভ্রাম্যমাণ আদালতকে যে আইন দ্বারা গড়ে তোলা হয়েছে তার ৬ ধারায় বিচার প্রক্রিয়া সম্পর্কে বলা আছে। মূলত ছোট ছোট বিষয়ে বিচারের জন্য এই আদালত গঠন করা হয়েছে। কিন্তু নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা নিজেরাই অনেকসময় আইন মানছেন না।

তাদের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে যতবার মামলা এসেছে ততবারই সতর্ক করা হয়েছে। তাদের প্রশিক্ষণ দিতে বলা হয়েছে। তারা একজন প্রথম শ্রেণির ম্যাজিস্ট্রেটের বেশি ক্ষমতা ব্যবহার করতে পারবেন না বলে আইনে বলা আছে। কারণ ফৌজদারি কার্যবিধি অনুসারে তারা মূল বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট নন। ঘটনাস্থলে কিছু ঘটলে তখনই সাজা দিতে পারেন। সেক্ষেত্রে যিনি অপরাধ ঘটিয়েছেন তাকে দায় স্বীকার করতে হবে। সেটার ভিত্তিতেই সাজা দেওয়া যেতে পারে।

অনেকে শর্ত ভাঙছেন। কোনও অভিযোগে দ্রুত স্বীকারোক্তি নিয়ে অপরাধীদের জেলেও পাঠিয়ে দিচ্ছেন। অনেক সময় এমনও হয়েছে যে, ধর্ষণের অভিযোগকে যৌন হয়রানি দেখিয়ে বিচার করে ফেলছেন। ফলে পরে ধর্ষণের অভিযোগ তুললেও দ্বিতীয়বার বিচার পাওয়ার পথ বন্ধ হয়ে যাচ্ছে।

বাংলা ট্রিবিউন: ভ্রাম্যমাণ আদালত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের দিয়ে চালানোর যৌক্তিকতা কতটুকু?

ইশরাত হাসান: যারা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছেন তাদের অনেকেরই আইনের ব্যাকগ্রাউন্ড নেই। ভারত অনেক আগে থেকেই জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছে। কেননা, এ আদালতের পরিধি সীমিত। কিন্তু জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটদের ক্ষমতা বেশি। এ ছাড়াও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের আইনের স্থগিতাদের মূলভিত্তিগুলো সম্পর্কে অনেকাংশে ধারণা থাকে না। যার ফলে অনেক ক্ষেত্রেই তাদের কার্যক্রম আইনের দৃষ্টিতে প্রশ্নবিদ্ধ হয়। আমাদের দেশে হাইকোর্টের রায়ে অনেক আগেই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত চালানোর বিষয়টি অসাংবিধানিক হয়ে আছে। তবে সে রায় আপিল বিভাগে স্থগিত রয়েছে। স্থগিতাদেশ বাতিল হলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা সম্ভব হবে না।

বাংলা ট্রিবিউন: ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিরুদ্ধে কোনও মামলা পরিচালনার অভিজ্ঞতা আছে কি?

ইশরাত হাসান: বেশকিছু মামলা পরিচালনার অভিজ্ঞতা রয়েছে। বিশেষ করে, ভ্রাম্যমাণ আদালত কর্তৃক ১২১টি শিশুকে সাজা দেওয়ার বৈধতা নিয়ে হাইকোর্টে মামলা করেছিলাম। ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওই কার্যক্রম নিয়ে দেশের বাইরে অনেক সমালোচনা হয়েছিল। মামলাটিতে হাইকোর্ট আমাদের পক্ষে রায় দিয়েছিলেন। কেননা, শিশু আইন থাকা সত্ত্বেও তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে বিচার হয়। কলা চুরির অপরাধেও ৭-৮ বছরের শিশুদের সাজা দেওয়া হয়েছিল। তাদের অনেকের স্বীকারোক্তি না থাকা সত্ত্বেও সাজা হয়েছিল।

সম্প্রতি আরেকটি মামলা নিয়ে কাজ করছি। দেখা গেছে, ইদানিং ভোক্তা অধিকার আইনের ওপর তারা ভ্রাম্যমাণ আদালত চালিয়ে জরিমানা করছেন। জরিমানার এখতিয়ায়া সর্বোচ্চ ২ লাখ টাকা নির্ধারিত থাকার পরও অনেকাংশে তারা এর কয়েকগুণ বেশি জরিমানা করছেন। আইনের ধারার সঠিক ব্যাপ্তি না জেনেই তারা এসব করছেন।

বাংলা ট্রিবিউন: ভ্রাম্যমাণ আদালতের অপব্যবহার রোধে করণীয় কী?

ইশরাত হাসান: ভ্রাম্যমাণ আদালতের অপব্যবহার রোধ করতে হলে কোনও ব্যক্তি ম্যাজিস্ট্রেট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তাকে অন্তত একবছর প্রশিক্ষণ দেওয়া উচিৎ। তাদের সিডিউলে প্রায় দেড় শ’ আইন রয়েছে। সেসব আইন সম্পর্কে তাদের প্রশিক্ষণ দিতে হবে।

পাশাপাশি জনগণকেও আইন সম্পর্কে জানাতে হবে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট স্বাক্ষর দিতে বললেই না বুঝে কেউ স্বাক্ষর দিতে পারেন না। সেটাও জনসাধারণকে জানানো উচিৎ। আবার অপরাধ স্বীকার না করলে সাজা দেওয়া যাবে না। গুরুতর অপরাধের ক্ষেত্রে সেটাকে লঘু না বানিয়ে বিচারের জন্য স্থানীয় পুলিশকে এজাহার করে ব্যবস্থা নিতে হবে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে বিচার করে সাজা দিতেই হবে- এমন মানসিকতা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। পরে যদি ভুল বিচারের শিকার ভুক্তভোগী ক্ষতিপূরণ চেয়ে বসে, তবে তা সরকারের দায় বাড়াবে।

বাংলা ট্রিবিউন: সময় দেওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।
ইশরাত হাসান: বাংলা ট্রিবিউনকেও ধন্যবাদ।

/এফএ/এমএস/

সম্পর্কিত

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

মিরপুরে ১১৬ লিটার চোলাই মদসহ একজন গ্রেফতার

মিরপুরে ১১৬ লিটার চোলাই মদসহ একজন গ্রেফতার

ওয়ারীতে নারীর মরদেহ উদ্ধার

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২১:২৩

রাজধানীর ওয়ারীর ওয়ান্ডারল্যান্ড পার্কের ফোয়ারার বেষ্টনীর ওপর থেকে শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকালে একজন নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার বয়স আনুমানিক ৪৫-৫০ বছর। তবে পরিচয় জানা যায়নি। কালো কামিজ ও পালাজ্জো পরা অবস্থায় পাওয়া গেছে তাকে। 

ওয়ারী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জিয়াউর রহমান জানান, ৯৯৯ নম্বরে খবর পেয়ে বিকাল সাড়ে ৩টায় ওই নারীকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে। তার শরীরে কোনও আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

পুলিশ সদস্যরা আশেপাশের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানতে পেরেছেন, মৃত ওই নারী ভবঘুরে প্রকৃতির ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, অসুস্থতা ও বার্ধক্যজনিত কারণে তার মৃত্যু হতে পারে।

এসআই জিয়াউর রহমান জানান, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে ওই নারীর মৃত্যুর সঠিক কারণ বলা যাবে। তার পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। 

/এআইবি/আরটি/জেএইচ/

সম্পর্কিত

দুই ডোজ টিকার আওতায় ১ কোটি ৮৯ লাখ মানুষ

দুই ডোজ টিকার আওতায় ১ কোটি ৮৯ লাখ মানুষ

ভ্যাপসা গরমের পর বৃষ্টিতে স্বস্তি

ভ্যাপসা গরমের পর বৃষ্টিতে স্বস্তি

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু ২১ অক্টোবর

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু ২১ অক্টোবর

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দাবা টুর্নামেন্ট বিজয়ী আলিমুজ্জামান

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দাবা টুর্নামেন্ট বিজয়ী আলিমুজ্জামান

দুই ডোজ টিকার আওতায় ১ কোটি ৮৯ লাখ মানুষ

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২১:১৫

দেশে এখন পর্যন্ত টিকা এসেছে ৬ কোটি ৯৫ লাখ ৭২ হাজার ৪২০ ডোজ। এর মধ্যে ৫ কোটি ৬৯ লাখ ৭২ হাজার ৩০৫ ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। টিকা মজুত আছে ১ কোটি ২৫ লাখ ৯৮ হাজার ১১২ ডোজ। এখন পর্যন্ত প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ৩ কোটি ৮০ লাখ ৪৬ হাজার ৫৫৪ জনকে এবং দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন ১ কোটি ৮৯ লাখ ২৫ হাজার ৭৫১ জন। আর শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুই ডোজ মিলিয়ে দেওয়া হয়েছে ৪ লাখ ৭২ হাজার ৭৫০ ডোজ টিকা।

এগুলো দেওয়া হয়েছে অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকা, চীনের তৈরি সিনোফার্ম, ফাইজার এবং মডার্নার টিকা। শনিবার স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো টিকাদান বিষয়ক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের দেওয়া তথ্য মতে,আজ অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ৩০ হাজার ৩১১ জনকে এবং দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ৪৭১ জনকে।

পাশাপাশি আজ ফাইজারের প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ২১ হাজার ৪৬৬ জনকে এবং দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ৩২ জনকে।

এছাড়া সিনোফার্মের টিকা আজ প্রথম ডোজ নিয়েছেন দুই লাখ ৪৮ হাজার ২৩৬ জন এবং দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন এক লাখ ৭২ হাজার ২১১ জন।  

মডার্নার টিকা আজ প্রথম ডোজ নিয়েছেন ১০ জন এবং দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ১৩ জনকে।

এছাড়া এখন পর্যন্ত নিবন্ধন করেছেন ৫ কোটি ৪৩ লাখ ৩৫ হাজার ৭৩৪ জন। 

/এসও/এমআর/

সম্পর্কিত

১৫ দিনে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

১৫ দিনে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

৬২ জেলায় শনাক্ত এক অঙ্কের ঘরে

৬২ জেলায় শনাক্ত এক অঙ্কের ঘরে

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট সংকটে চালু হয় না আইসিইউ

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট সংকটে চালু হয় না আইসিইউ

ডেঙ্গু: ১ থেকে ২০ বছর বয়সী রোগী বেশি

ডেঙ্গু: ১ থেকে ২০ বছর বয়সী রোগী বেশি

ভ্যাপসা গরমের পর বৃষ্টিতে স্বস্তি

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:৪২

গত কয়েকদিনের ভ্যাপসা গরমের পর শনিবার (১৬ অক্টোবর) সন্ধ্যার বৃষ্টিতে কিছুটা স্বস্তি পেলো রাজধানীবাসী। তাপমাত্রা দিনের তুলনায় অনেকখানি কমে এসেছে। আগামী কয়েকদিন তাপমাত্রা গত কয়েকদিনের তুলনায় কমে আসবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

এর আগে গতকাল রাতের ঢাকাসহ বেশ কয়েকটি বিভাগে বৃষ্টি হয়েছে। এতে গত কয়েকদিনের ভ্যাপসা গরম আজ কিছুটা কম ছিল। সন্ধ্যা সাতটা থেকেই টিপ টিপ করে শুরু হওয়া বৃষ্টি সাড়ে সাতটা নাগাদ মুষলধারে শুরু হয়। আবার পৌনে আটটায় এসে তা কমে যায়। এতে করে সারাদিনের ভ্যাপসা গরম এখন আর একেবারেই নেই।

আবহাওয়া বিদ আব্দুল মান্নান বলেন, আজকের বৃষ্টিতে তাপমাত্রা আরও কিছুটা কমেছে। আগামী ১৮ অক্টোবর থেকে ২০ অক্টোবর বৃষ্টির পরিমাণ বেশি হতে পারে। এতে করে তাপমাত্রা আরও কমে আসবে তাপমাত্রা। 

গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা, টাঙ্গাইল, ফরিদপুর,  ময়মনসিংহ, কুমিল্লা, নোয়াখালী,  ফেনী, চাঁদপুর,  পাবনা,বগুড়া, সিরাজগঞ্জ,  দিনাজপুর,  পঞ্চগড়,  যশোর, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছিল। এখন তা কমে কেবল চার জেলায় আছে। জেলাগুলো হলো- পঞ্চগড়, দিনাজপুর,  রাজশাহী এবং নীলফামারী।

সন্ধ্যায় আবহাওয়া অধিদফতরের পূর্বাভাসে বলা হয়, সাগরে সৃষ্টি হওয়া লঘুচাপটি এখন ভারতের উড়িষ্যা উপকূলে অবস্থান করছে।  এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

এর প্রভাবে , খুলনা,  বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায় এবং ঢাকা,  রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল বগুড়ায় ৩৮ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সন্ধ্যায় তা কমে হয়েছে তেতুলিয়ায় ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  এছাড়া বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে ঢাকায় ছিল ৩৭ দশমিক ৪, এখন তা দুই ডিগ্রি কমে ৩৫ দশমিক ৫ সেলসিয়াস  হয়েছে। এছাড়া  ময়মনসিংহে ছিল ৩৬ দশমিক ৫, এখন দুই ডিগ্রি কমে ৩৪ দশমিক ৫, চট্টগ্রামে ছিল ৩৫ দশমিক ৬, এখন ৩৫, সিলেটে ছিল ৩৬ দশমিক ৪, এখন ৩৫ দশমিক ৫, রাজশাহীতে ছিল  ৩৫ দশমিক ৭, এখন কিছুটা বেড়ে ৩৬, রংপুরে  ছিল ৩৪ দশমিক ৩, এখন ৩৪ দশমিক ৬ খুলনায় ছিল  ৩৬ দশমিক ৫, এখন দুই ডিগ্রি কমে ৩৪ দশমিক ২ এবং বরিশালে ছিল  ৩৬ দশমিক ৩,  এখন তা দুই ডিগ্রি কমে ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমেছে।

/এসএনএস/এমআর/

সম্পর্কিত

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন

ভ্যাপসা গরমের পর রাজধানীতে স্বস্তির বৃষ্টি

ভ্যাপসা গরমের পর রাজধানীতে স্বস্তির বৃষ্টি

বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকায় ভ্যাপসা গরম

বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকায় ভ্যাপসা গরম

পুরো মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টির শঙ্কা

পুরো মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টির শঙ্কা

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু ২১ অক্টোবর

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:২১

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সকল কলেজ ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোয় আগামী ২১ অক্টোবর থেকে অনলাইনের পাশাপাশি শ্রেণিকক্ষে সরাসরি পাঠদান কার্যক্রম শুরু হবে। একইদিন ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তি শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের গাজীপুরস্থ ক্যাম্পাসে বিকাল ৩টায় উপাচার্যের কনফারেন্স রুম থেকে ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে এই প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হবে।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় এ সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারির কথা জানান জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতরের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মো. ফয়জুল করিম।

অফিস আদেশে বলা হয়েছে, সরাসরি ক্লাস শুরু হওয়ার আগে অবশ্যই কলেজের শ্রেণিকক্ষ, বিজ্ঞানাগারসহ পুরো ক্যাম্পাস যথাযথভাবে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে ক্লাস নেওয়ার উপযোগী করতে হবে। সংশ্লিষ্ট সকলকে স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে হবে। প্রয়োজনে কলেজ টিকাদান কেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ নিতে হবে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, সঠিকভাবে মাস্ক ব্যবহার, সামাজিক দূরত্ব রক্ষাসহ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ ও সচেতনতা বজায় রাখার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে।  

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, একইদিনে (২১ অক্টোবর) আয়োজিত ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. মশিউর রহমান।

শিক্ষামন্ত্রী ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রাম উদ্বোধন ঘোষণা করার পরপরই অধিভুক্ত কলেজগুলোর অধ্যক্ষদের সংশ্লিষ্ট শিক্ষক ও প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদেরকে নিয়ে ওরিয়েন্টেশন কর্মসূচি পালন করবেন।

/এসএমএ/এমআর/

সম্পর্কিত

জানুয়ারি থেকে দুই সেমিস্টারে ভর্তি নিতে ইউজিসির নতুন কৌশল

জানুয়ারি থেকে দুই সেমিস্টারে ভর্তি নিতে ইউজিসির নতুন কৌশল

অবশেষে ভিকারুননিসার সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের শোকজ প্রত্যাহার

অবশেষে ভিকারুননিসার সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের শোকজ প্রত্যাহার

১২ থেকে ১৭ বছরের শিক্ষার্থীদের তালিকা চেয়েছে সরকার

১২ থেকে ১৭ বছরের শিক্ষার্থীদের তালিকা চেয়েছে সরকার

শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে ‘আগস্ট ১৯৭৫’ চলচ্চিত্রটি দেখানোর নির্দেশনা

শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে ‘আগস্ট ১৯৭৫’ চলচ্চিত্রটি দেখানোর নির্দেশনা

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দাবা টুর্নামেন্ট বিজয়ী আলিমুজ্জামান

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:১৫

বঙ্গবন্ধুর ছোট ছেলে শেখ রাসেল স্মৃতি র‌্যাপিড দাবা টুর্নামেন্ট পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক আলিমুজ্জামান চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। শনিবার (১৬ অক্টোবর) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আয়োজিত দিনব্যাপী টুর্নামেন্টে ৩০ জন বাংলাদেশি কূটনীতিক অংশ নেন। টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় হয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দফতরের পরিচালক আলাউদ্দিন ভূইয়া।

এদিকে সকালে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, এই প্রথমবারের মতো প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। ঢাবি এসএম হলের প্রাক্তন ছাত্র আব্দুল মোমেন বলেন, অনেক আগে থেকে দাবা খেলতাম।

পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, সামনের বছর বিদেশি কূটনীতিকদের নিয়ে আরেকটি টুর্নামেন্ট আয়োজন করার চেষ্টা করবো।

/এসএসজেড/এমআর/

সম্পর্কিত

ভ্যাপসা গরমের পর বৃষ্টিতে স্বস্তি

ভ্যাপসা গরমের পর বৃষ্টিতে স্বস্তি

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু ২১ অক্টোবর

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু ২১ অক্টোবর

‘হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গা লাগানোর ষড়যন্ত্র করছে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি’ 

‘হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গা লাগানোর ষড়যন্ত্র করছে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি’ 

১৫ দিনে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

১৫ দিনে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

মিরপুরে ১১৬ লিটার চোলাই মদসহ একজন গ্রেফতার

মিরপুরে ১১৬ লিটার চোলাই মদসহ একজন গ্রেফতার

আরও নাশকতার আশঙ্কায় সতর্ক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

আরও নাশকতার আশঙ্কায় সতর্ক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

‘প্রযুক্তির সঙ্গে বদলাচ্ছে সাইবার অপরাধ’

‘প্রযুক্তির সঙ্গে বদলাচ্ছে সাইবার অপরাধ’

যাত্রাবাড়ীতে ফেনসিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ফেনসিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জে মাদকসহ ৩ জন আটক

নারায়ণগঞ্জে মাদকসহ ৩ জন আটক

মুসা বিন শমসের প্রতারিত না প্রতারক?

মুসা বিন শমসের প্রতারিত না প্রতারক?

চাকরি দেওয়ার নামে কোটি টাকা আত্মসাৎ, গ্রেফতার ২

চাকরি দেওয়ার নামে কোটি টাকা আত্মসাৎ, গ্রেফতার ২

সর্বশেষ

মিয়ানমারে বিদ্রোহীদের কাছে জান্তা সমর্থিত সশস্ত্র গোষ্ঠীর আত্মসমর্পণ

মিয়ানমারে বিদ্রোহীদের কাছে জান্তা সমর্থিত সশস্ত্র গোষ্ঠীর আত্মসমর্পণ

এই স্কটল্যান্ডের কাছে কিন্তু হেরেছে বাংলাদেশ!

এই স্কটল্যান্ডের কাছে কিন্তু হেরেছে বাংলাদেশ!

ওয়ারীতে নারীর মরদেহ উদ্ধার

ওয়ারীতে নারীর মরদেহ উদ্ধার

দুই ডোজ টিকার আওতায় ১ কোটি ৮৯ লাখ মানুষ

দুই ডোজ টিকার আওতায় ১ কোটি ৮৯ লাখ মানুষ

ইয়েমেনে সৌদি জোটের হামলায় ১৬০ হুথি বিদ্রোহী নিহত

ইয়েমেনে সৌদি জোটের হামলায় ১৬০ হুথি বিদ্রোহী নিহত

© 2021 Bangla Tribune