X
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

কান্ট্রি ম্যানেজার পরিচয়ে চাকরির প্রলোভনে নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৪০

কুমিল্লায় চাকরির প্রলোভনে এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে কাউছার আহমেদ (৪১) নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। অভিযুক্ত কাউছার কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার দক্ষিণ তেতাভূমি গ্রামের মোল্লাবাড়ির মৃত আবদুল কাদেরের ছেলে।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) ভোরে কুমিল্লা সদর উপজেলার নিশ্চিন্তপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব-১১, সিপিপি-২ কুমিল্লার উপ-পরিচালক মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন জানান, চলতি বছরের ১৮ জুন থেকে ৮ আগস্ট পর্যন্ত চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সময় ওই নারীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে কাউছার। পরবর্তী সময়ে ওই নারী চাকরির জন্য তাকে চাপ দিলে সে ধর্ষণের ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। বিষয়টি নিয়ে ভুক্তভোগী ২৪ সেপ্টেম্বর র‌্যাব-১১-এর কাছে একটি অভিযোগ দায়ের করে।

অভিযোগের পর থেকে র‌্যাব গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ করে। প্রাথমিকভাবে জানতে পারে, ভুক্তভোগী একটি মোবাইল কোম্পানিতে চাকরিকালে কুমিল্লা সেনা মার্কেট এলাকায় কাউছারের সঙ্গে পরিচয় হয়। সে সময় কাউছার নিজেকে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর পরিচয় দেয়। এছাড়াও নিজেকে ফিলিপস ইলেকট্রনিকস প্রতিষ্ঠানের কান্ট্রি ম্যানেজার বলে পরিচয় দিয়ে ওই নারীকে অধিক বেতনে পিএস হিসেবে নিয়োগের কথা বলে। কুমিল্লায় ফিলিপস কোম্পানির কোনও অফিস না থাকায় অফিসের জন্য জায়গা খুঁজতে থাকে এবং তখন থেকেই বিভিন্ন স্থানে ওই নারীকে ধর্ষণ করে।

মেজর সাকিব জানান, গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে ওই নারীকে বিভিন্ন সময় ধর্ষণ এবং ছবি-ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ছেড়ে দেয়ার হুমকির বিষয়টি স্বীকার করেছে। এ বিষয়ে কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ২২:২৪

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী এক শিশুকে (৯) অপহরণের পর ধর্ষণ করে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার সদর ইউনিয়নের ভক্তবাড়ী এলাকায় ঘটে এ ঘটনা। পুলিশ এ ঘটনায় শনিবার (২৩ অক্টোবর) দুপুরে অভিযুক্ত প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেছে।

এ ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবিতে রূপগঞ্জ থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেন এলাকাবাসী। পরে পুলিশ এলাকাবাসীকে বুঝিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

নিহত শিশুটির মা জানান, শুক্রবার সকাল ৬টার দিকে তার দুঃসম্পর্কের চাচা কাঞ্চন পৌরসভার কেন্দুয়া এলাকার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে মোশারফ হোসেন তাদের বাড়িতে আসে। তাকে সকালের নাস্তা খাওয়ানোর জন্য তিনি খাবার রান্নাঘরে যান। সে সময় মোশারফ তার মেয়েকে দোকান থেকে চিপস কিনে দেওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে নিয়ে যায়। এরপর থেকে শিশুটি নিখোঁজ। বহু খোঁজাখুঁজির পর না পেয়ে রাতে শিশুটির মা রূপগঞ্জ থানায় অপরহরণের অভিযোগ এনে মোশারফসহ অজ্ঞাত চার জনকে আসামি করে রূপগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এদিকে, শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ভক্তবাড়ী এলাকায় মোশারফকে ঘুরতে দেখে এলাকাবাসী তাকে আটক করে পুলিশের কাছে সোর্পদ করে। পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করলে শিশুটিকে অপহরণের পর ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করে লাশ গুম করার উদ্দেশ্যে কাশবনে ফেলে রেখেছে বলে সে স্বীকার করে। পরে বিকালে জাঙ্গীর এলাকায় আনন্দ পুলিশ হাউজিং নামক এলাকার কাশবন থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করা হয়। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) হুমায়ুন কবির মোল্লা বলেন, ‘শিশুটিকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে ঘাতক প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে। তার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।’

/এমএএ/

সম্পর্কিত

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

ফরিদপুরে নির্বাচনি সহিংসতায় যুবক নিহত, ৫০ বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ

ফরিদপুরে নির্বাচনি সহিংসতায় যুবক নিহত, ৫০ বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যায় আজিজুলের দায় স্বীকার

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যায় আজিজুলের দায় স্বীকার

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ২২:২২

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ, মন্দির, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা-ভাঙচুর ও মৃত্যুর ঘটনায় এ পর্যন্ত ২৫টি মামলা করা হয়েছে। এসব মামলায় ৪০৯ জনকে এজাহারনামীয় ও সাত হাজার ৫০০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। সেই সঙ্গে ১৭৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্যে এজাহারনামীয় আসামি ৮৯ ও সন্দেহভাজন ৮৫ জন।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৬টায় জেলা পুলিশ সুপারের কনফারেন্স হলে সাংবাদিক সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। 

পুলিশ জানায়, বেগমগঞ্জ থানার ১০ মামলায় এজাহারনামীয় আসামি ২১৯ জন। এর মধ্যে এজাহারনামীয় ৬৩ ও সন্দেহভাজন ৫৯ জনসহ ১২২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পাশাপাশি হাতিয়া থানার ১০টি মামলায় এজাহারনামীয় আসামি ১৬০ জন। এজাহারনামীয় ১২ জন ও সন্দেহভাজন ১৪ জনসহ ২৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সোনাইমুড়ি থানার একটি মামলায় এজাহারনামীয় আসামি ছয় জন। এজাহারনামীয় এক জন ও সন্দেহভাজন আটসহ নয় জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সেনবাগ থানার এক মামলায় এজাহারনামীয় আসামি ছয় জন। এজাহারনামীয় ছয় ও সন্দেহভাজন দুইসহ আট জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কবিরহাট থানার এক মামলায় এজাহারনামীয় আসামি না থাকলেও সন্দেহভাজন দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

কোম্পানীগঞ্জ থানায় এক মামলায় এজাহারনামীয় আসামি চার জন। এজাহারনামীয় একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। চাটখিল থানার এক মামলায় এজাহারনামীয় আসামি ১৪ জন। এর মধ্যে এজাহারনামীয় ছয় জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জেলা পুলিশ সুপার মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, হামলা চলাকালীন ভিডিও ফুটেজ দেখে শনাক্ত করে আট জন ও জড়িত সন্দেহে পাঁচসহ ১৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। এ পর্যন্ত ১৭৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

/এএম/

সম্পর্কিত

এখন জামায়াতের অস্তিত্ব বলতে কিছু নেই: গয়েশ্বর

এখন জামায়াতের অস্তিত্ব বলতে কিছু নেই: গয়েশ্বর

‘মুসল্লিদের সংঘবদ্ধ করে’ পূজামণ্ডপে হামলাচেষ্টার স্বীকারোক্তি

‘মুসল্লিদের সংঘবদ্ধ করে’ পূজামণ্ডপে হামলাচেষ্টার স্বীকারোক্তি

পূজামণ্ডপে কোরআন যে রেখেছে সে ওসিকে খবর দিয়েছে: গয়েশ্বর

পূজামণ্ডপে কোরআন যে রেখেছে সে ওসিকে খবর দিয়েছে: গয়েশ্বর

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

এখন জামায়াতের অস্তিত্ব বলতে কিছু নেই: গয়েশ্বর

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ২২:০৯

এখন জামায়াতের অস্তিত্ব বলতে কিছু নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেছেন, ‘সরকার পতন আন্দোলনের একটি রব চারদিকে আছে। জাতীয় ঐক্যের মিছিল যেকোনও সময় একত্রিত হবে। যেকোনও সময় নিশিরাতের সরকার টিকে থাকতে পারবে না। এই আশঙ্কাবোধ থেকে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের দুর্বল ভেবে, তাদের ওপর আক্রমণ করে একটি আতঙ্ক সৃষ্টি করা এবং বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের মাধ্যমে নিঃস্ব করে আজীবন রাজত্ব করতে চায়। এসব ঘটনায় বিএনপি-জামায়াতকে দোষারোপ করলেও জামায়াতকে তো খুঁজেই পাওয়া যায় না। দিনেও না, রাতেও খুঁজে পাওয়া যায় না। এখন জামায়াতের অস্তিত্ব বলতে কিছু নেই।’

শনিবার (২২ অক্টোবর) দুপুরে কুমিল্লার শহরে নগরীর ক্ষতিগ্রস্ত কাপড়িয়াপট্টি চাঁন্দমনি রক্ষাকারী মন্দির পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

গয়েশ্বর বলেন, ‘হিন্দু-মুসলিম নয়, মূলত সরকার নাগরিকদের নিরাপত্তা দিতে অনাগ্রহী। কারণ সরকারের জনপ্রিয়তা এবং দায়বদ্ধতা নেই। তবে বিএনপির দায়বদ্ধতা আছে বিধায় সবসময় জনগণের পাশে থাকে। শত বছরের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে চায় আওয়ামী লীগ। না হলে কুমিল্লার ঘটনায় সারা দেশে এক সপ্তাহের তাণ্ডবে হাজারও ঘটনা ঘটেছে। সরকার আন্তরিক হলে এতো ঘটনা ঘটতো না।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী নিতাই রায় চৌধুরী, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় বিএনপির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সম্পাদক হাজী আমিনুর রশিদ ইয়াছিন ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক মিয়া।

/এফআর/

সম্পর্কিত

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

‘মুসল্লিদের সংঘবদ্ধ করে’ পূজামণ্ডপে হামলাচেষ্টার স্বীকারোক্তি

‘মুসল্লিদের সংঘবদ্ধ করে’ পূজামণ্ডপে হামলাচেষ্টার স্বীকারোক্তি

পূজামণ্ডপে কোরআন যে রেখেছে সে ওসিকে খবর দিয়েছে: গয়েশ্বর

পূজামণ্ডপে কোরআন যে রেখেছে সে ওসিকে খবর দিয়েছে: গয়েশ্বর

‘মুসল্লিদের সংঘবদ্ধ করে’ পূজামণ্ডপে হামলাচেষ্টার স্বীকারোক্তি

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ২১:৪৭

চট্টগ্রামের জেএম সেন হলের পূজামণ্ডপে হামলা চেষ্টার ঘটনায় গ্রেফতার হাবিবুল্লাহ মিজান আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। শনিবার (২৩ অক্টোবর) বিকালে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শফি উদ্দিনের আদালতে তিনি জবানবন্দি দেন।

কোতোয়ালি থানার ওসি নেজাম উদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘জেএম সেন হলে হামলার ঘটনায় গ্রেফতার সাত জনকে আমরা রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি। রিমান্ড শেষে আজ তাদের আদালতে তোলা হলে হাবিবুল্লাহ মিজান আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে মিজান জানিয়েছেন, পরিকল্পিতভাবে তারা এ ঘটনাটি ঘটিয়েছেন। সাধারণ মুসল্লিদের সংঘবদ্ধ করে এরপর জেএম সেন হলে হামলার চেষ্টা চালায়।’

কুমিল্লার ঘটনার জের ধরে গত ১৬ অক্টোবর দুপুরে জুমার নামাজের পর একটি মিছিল থেকে ঐতিহাসিক জেএম সেন হলের পূজামণ্ডপের গেটে হামলা চালায়। হলের গেটের ব্যানার ও কাপড় ছেঁড়ার পাশাপাশি ওই দিন মিছিল সহকারে আসা যুবকরা মণ্ডপে ঢিল ছোড়ে। পরে এ ঘটনায় ৮৪ জনের নাম উল্লেখ করে কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করা হয়। থানার এসআই আকাশ মাহমুদ ফরিদ বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলাটি দায়ের করেন। মামলা অজ্ঞাতনামা আরও অন্তত ৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এই মামলায় ইতোমধ্যে ১০০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্যে বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে এই ঘটনায় জড়িত যুব পরিষদের ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়। পরদিন তাদের আদালতে তোলা হলে সাত জনকে এক দিনের রিমান্ডে পাঠানোর আদেশ দেয় আদালত।

রিমান্ডে যাওয়া সাত জন হলেন- যুব অধিকার পরিষদের চট্টগ্রাম মহানগর শাখার আহ্বায়ক মো. নাছির, সদস্য সচিব মিজানুর রহমান, বায়েজিদ থানার আহ্বায়ক মো. রাসেল, কর্মী ইয়াসিন আরাফাত, হাবিবুল্লাহ মিজান, ইমন ও ইমরান হোসেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

এখন জামায়াতের অস্তিত্ব বলতে কিছু নেই: গয়েশ্বর

এখন জামায়াতের অস্তিত্ব বলতে কিছু নেই: গয়েশ্বর

পূজামণ্ডপে কোরআন যে রেখেছে সে ওসিকে খবর দিয়েছে: গয়েশ্বর

পূজামণ্ডপে কোরআন যে রেখেছে সে ওসিকে খবর দিয়েছে: গয়েশ্বর

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যায় আজিজুলের দায় স্বীকার

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যায় আজিজুলের দায় স্বীকার

মিতু হত্যা মামলায় এহতেশামুল হক ভোলার স্বীকারোক্তি

মিতু হত্যা মামলায় এহতেশামুল হক ভোলার স্বীকারোক্তি

ফরিদপুরে নির্বাচনি সহিংসতায় যুবক নিহত, ৫০ বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ২১:১৯

ইউনিয়ন পরিষদের দ্বিতীয় দফার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে মারিজ সিকদার (৩০) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। এতে উভয় প্রার্থীর অন্তত ২০ সমর্থক আহত হন। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভাঙচুর করা হয়েছে অন্তত ৫০টি বসতঘর।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) দুপুর ২টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত উপজেলার যদুনন্দী ইউনিয়নের খারদিয়া এলাকায় দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে সালথা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্থানীয় বাসিন্দা আরিফুল ইসলাম জানান, যদুনন্দী ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে গত ১৮ অক্টোবর আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুর বর মোল্লা মনোনয়নপত্র জমা দেন। তার বিপরীতে স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেন আওয়ামী লীগ সমর্থক গ্রাম্য মাতবর মো. রফিক মোল্লা ও নুরুজ্জামান টুকু ঠাকুর। রফিক মোল্লা ও টুকু ঠাকুর খারদিয়া এলাকায় স্থানীয় পর্যায়ে একসঙ্গে নেতৃত্ব দেন কয়েক বছর। তাদের বাড়িও একই গ্রামে।

তবে গত এক মাস আগে নির্বাচনে অংশ নেওয়া নিয়ে বিরোধের জেরে বিদ্রোহী প্রার্থী রফিক মোল্লার কাছ থেকে আলাদা হয়ে টুকু ঠাকুর নৌকার মনোনীত প্রার্থী বর মোল্লা ও তার সমর্থক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আলমগীর মিয়ার দলে যোগ দেন।

ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ

এ নিয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থী রব মোল্লার সমর্থক আলমগীর মিয়া ও টুকু ঠাকুরের সঙ্গে বিদ্রোহী প্রার্থী রফিক মোল্লার বিরোধ চলছিল। এরই জের ধরে শনিবার সকাল থেকে খারদিয়া এলাকায় উভয় প্রার্থীর হাজারও সমর্থক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে জড়ো হতে থাকেন। একপর্যায় দুপুর ২টার দিকে সংঘর্ষ শুরু হয়। চলে সন্ধ্যা পর্যন্ত। সংঘর্ষ চলাকালে কয়েকটি বসতঘরে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়।

এতে মারিজ সিকদার, নাসির মোল্লা, রহিম মণ্ডল, রশিদ শেখ, সাকির মোল্লা ও টেপু শেখসহ উভয় প্রার্থীর অন্তত ২০ আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বিকাল ৪টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রফিক মোল্লার সমর্থক মারিজ সিকদার মারা যান। তিনি খারদিয়া গ্রামের সওরাফ সিকদারের ছেলে।

মারিজের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে নৌকার মনোনীত প্রার্থীর সমর্থকরা অন্তত ৫০টি বসত বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাটের খবর পাওয়া গেছে।

জেলার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সুমিনুর রহমান বলেন, ‘সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

রিজার্ভ ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেলো মামা-ভাগ্নের

রিজার্ভ ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেলো মামা-ভাগ্নের

এক মোটরসাইকেলে ৪ জন, ট্রেনের ধাক্কায় মা-ছেলে নিহত

এক মোটরসাইকেলে ৪ জন, ট্রেনের ধাক্কায় মা-ছেলে নিহত

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

এখন জামায়াতের অস্তিত্ব বলতে কিছু নেই: গয়েশ্বর

এখন জামায়াতের অস্তিত্ব বলতে কিছু নেই: গয়েশ্বর

‘মুসল্লিদের সংঘবদ্ধ করে’ পূজামণ্ডপে হামলাচেষ্টার স্বীকারোক্তি

‘মুসল্লিদের সংঘবদ্ধ করে’ পূজামণ্ডপে হামলাচেষ্টার স্বীকারোক্তি

পূজামণ্ডপে কোরআন যে রেখেছে সে ওসিকে খবর দিয়েছে: গয়েশ্বর

পূজামণ্ডপে কোরআন যে রেখেছে সে ওসিকে খবর দিয়েছে: গয়েশ্বর

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

মিতু হত্যা মামলায় এহতেশামুল হক ভোলার স্বীকারোক্তি

মিতু হত্যা মামলায় এহতেশামুল হক ভোলার স্বীকারোক্তি

সর্বশেষ

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

অন্তর্ভুক্তিমূলক জাতিসংঘ গড়ে তুলতে সম্মিলিত প্রচেষ্টার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

অন্তর্ভুক্তিমূলক জাতিসংঘ গড়ে তুলতে সম্মিলিত প্রচেষ্টার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

আবারও মুখর ঢাবির টিএসসি

আবারও মুখর ঢাবির টিএসসি

এখন জামায়াতের অস্তিত্ব বলতে কিছু নেই: গয়েশ্বর

এখন জামায়াতের অস্তিত্ব বলতে কিছু নেই: গয়েশ্বর

© 2021 Bangla Tribune