X
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

তুরস্কের রাষ্ট্রদূতের আইসিডিডিআরবি পরিদর্শন

'করোনার টিকা তৈরিতে কাজ করছে তুরস্ক'

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:০৩

বাংলাদেশে নিযুক্ত তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মুস্তাফা ওসমান তুরান আইসিডিডিআরবি'র জীবন রক্ষাকারী গবেষণাকে অনুপ্রেরণামূলক বলে আখ্যায়িত করেছেন। কোভিড-১৯ সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, “তুরস্ক বর্তমানে টার্কোভ্যাক নামে কোভিড-১৯ এর একটি টিকা তৈরিতে কাজ করছে। এই কাজ সম্পন্ন হলে আমরা এটিকে অন্যান্য দেশের জন্য সহজপ্রাপ্য করতে চাই এবং কিভাবে এবিষয়ে বাংলাদেশের সাথে সহযোগিতামূলক সম্পর্ক স্থাপন করা যায় তার উপায় অনুসন্ধান করছি।"

তিনি সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ঢাকার মহাখালীতে অবস্থিত আইসিডিডিআর,বি পরিদর্শনকালে এসব কথা বলেন। এসময় রাষ্ট্রদূত আইসিডিডিআর,বি এবং এর সাম্প্রতিক কোভিড-১৯ সংক্রান্ত গবেষণা কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

আইসিডিডিআর,বি জানায়, রাষ্ট্রদূত এবং তুরস্ক দূতাবাসের সেকেন্ড সেক্রেটারি গিজেম আইডিন আরডেমকে আইসিডিডিআর,বি-র নির্বাহী পরিচালক ড. তাহমিদ আহমেদ স্বাগত জানান। ড. আহমেদ তাঁদের উদ্দেশ্যে আইসিডিডিআর,বি সম্পর্কিত একটি সামগ্রিক চিত্র উপস্থাপন করেন এবং কিভাবে এই প্রতিষ্ঠান বৈশ্বিক জনস্বাস্থ্য গবেষণা ও উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে অবদান রেখেছে এবং দক্ষিণ বিশ্বে একটি সেন্টার অব এক্সিলেন্সে পরিণত হয়েছে সে সম্পর্কে আলোকপাত করেন। সাধারণ ও বাস্তবায়নমুখী গবেষণাকে কাজে লাগিয়ে এবং এর জ্ঞানকে জনস্বাস্থ্য কার্যক্রমে পরিণত করে আইসিডিডিআর,বি কিভাবে বিশ্বের নিম্ন ও মাঝারি আয়ের দেশগুলো যেসব জটিল সমস্যার সম্মুখীন তা সমাধান করে থাকে তা তিনি ব্যাখ্যা করেন।

রাষ্ট্রদূত আইসিডিডিআর,বি-র মিউকোজাল ইমিউনোলজি অ্যান্ড ভ্যাক্সিনোলজি ল্যাবরেটরি ঘুরে দেখেন। আইসিডিডিআর,বি-র সিনিয়র সায়েন্টিস্ট ড. ফেরদৌসী কাদরী ল্যাবের অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা প্রদর্শন করেন, যা কোভিড-১৯ সংক্রান্ত গবেষণাসহ টিকা গবেষণায় কার্যকর ভূমিকা পালন করে।

প্রতিষ্ঠানটি জানায়, রাষ্ট্রদূত তুরান কেবল আইসিডিডিআর,বি-র গবেষণা কর্মকাণ্ডের বিশাল পরিধি দেখেই মুগ্ধ হননি, বরং তিনি বাংলাদেশ ও বহির্বিশ্বের বিপন্ন মানুষের সেবায় কত সহজে গবেষণাকে কাজে লাগিয়ে স্বল্প খরচের সমাধানে আইসিডিডিআর,বি ভূমিকা রাখে তা দেখেও অভিভূত হন। তিনি আরও গবেষণা, অর্থায়ন ও সহযোগিতামূলক কাজের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। তাঁর মন্তব্যে তিনি ড. তাহমিদ আহমেদ এবং আইসিডিডিআর,বি-র বিজ্ঞানী ও গবেষকদেরকে ধন্যবাদ জানান।

তিনি বলেন, 'আজ আমরা এই সুপ্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠানের কাজ সম্পর্কে সরাসরি তথ্য জানতে পারলাম। প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশ ও সারা বিশ্বে লাখ লাখ মানুষের জীবন রক্ষা করে চলেছে। আপনারা যা করেন তা সত্যিই অনুপ্রেরণামূলক।

ড. আহমেদ রাষ্ট্রদূতকে জনস্বাস্থ্য গবেষণায় নিয়োজিত তুরস্কের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সাথে সহযোগিতা গড়ে তুলতে আইসিডিডিআর,বি-কে সহায়তা করার অনুরোধ জানান। আইসিডিডিআর,বি-র সিনিয়র লিডারশিপ টিমের সদস্যরাও এসময়ে উপস্থিত ছিলেন।

/এসও/এমএস/

সম্পর্কিত

টিকার সমতা নিশ্চিত না হলে বিপদ: ডা. মুশতাক হোসেন

টিকার সমতা নিশ্চিত না হলে বিপদ: ডা. মুশতাক হোসেন

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

ডিসেম্বরের মধ্যে করোনা টিকার আওতায় ৩০ শতাংশ মানুষ: সালমান এফ রহমান

ডিসেম্বরের মধ্যে করোনা টিকার আওতায় ৩০ শতাংশ মানুষ: সালমান এফ রহমান

সব ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে শতভাগ কার্যকর ‘বঙ্গভ্যাক্স’, দাবি গ্লোবের

সব ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে শতভাগ কার্যকর ‘বঙ্গভ্যাক্স’, দাবি গ্লোবের

রোগীর স্বজন সেজে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলো নারী

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫৫

‘হাসপাতালে রোগী ভর্তি আছেন’- এই কথা বলে নাসির নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তোলেন এক নারী। নাসিরেরও এক রোগী ভর্তি রয়েছেন একই হাসপাতালে। দুজনই রোগীর স্বজন হিসেবে প্রথমে নানা বিষয়ে গল্পগুজব করেন। হাসপাতালের বারান্দায় বসে আলাপ আলোচনার এক পর্যায়ে দুজনে বাইরে বের হন। একসঙ্গে নাস্তা খেয়ে হাসপাতালে ফিরে অচেতন হয়ে পড়েন নাসির। আর এই সুযোগে তার কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে পালিয়ে যায় অজ্ঞাত সেই নারী। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ঘটেছে এই ঘটনা।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, ব্রাহ্মণবাবাড়িয়া থেকে গোলেনা বেগম নামে এক রোগীকে নিয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আসেন নাসির। গাইনি ওয়ার্ডে রোগী ভর্তি করার পর বারান্দায় বসে ছিলেন নাসির। এসময় সেখানে অজ্ঞাত এক নারীর সঙ্গে পরিচয়। ওই নারী তাদের জানান, তারও রোগী আছে গাইনি ওয়ার্ডে। রোগী ও চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়ে নানা কথাবার্তা বলার পর তারা একসঙ্গে হাসপাতাল থেকে বাইরে বের হন। ফুটপাতের চায়ের দোকানে বসে একসঙ্গে খাবার খান তারা। এরপর আবার গাইনি ওয়ার্ডের বারান্দায় ফিরে এসে ধীরে ধীরে অচেতন হয়ে পড়েন নাসির। এসময় আরেক স্বজন তাকে ডাকাডাকি করে সাড়া না পেয়ে উদ্ধার করে জরুরি বিভাগে নিয়ে যান। কর্তব্যরত চিকিৎসক তার পাকস্থলী পরিষ্কার করেন।

নাসিরের স্বজনরা জানান, নাসিরের কাছে চিকিৎসা খরচ বাবদ ২০ হাজার টাকা ছিল, তা আর পাওয়া যায়নি। আর ঘটনার পর থেকে ওই নারীকেও হাসপাতাল এলাকায় দেখা যায়নি। তাদের ধারণা অজ্ঞাত ওই নারী কৌশলে নাসিরকে হাসপাতালের বাইরে নিয়ে চেতনানাশক কিছু খাইয়ে টাকাগুলো নিয়ে গেছে।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপ-পরিদর্শক এএসআই আব্দুল খান বলেন, বিষয়টি শুনেছি। ওই রোগীর পাকস্থলী পরিষ্কার করা হয়েছে। তিনি চিকিৎসাধীন। অজ্ঞাত ওই নারীর খোঁজ করা হচ্ছে। ঢামেক হাসপাতালের নিরাপত্তা কাজে নিয়োজিত থাকা আনসারের প্লাটুন কমান্ডার মো. শাহ আলম বলেন, বিষয়টি জানার পর যথাযথ কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। ওই নারীকে খোঁজা হচ্ছে।

/এআইবি/এনএল/এমআর/

সম্পর্কিত

বেতার ভবনে দুদকের ঝটিকা অভিযান

বেতার ভবনে দুদকের ঝটিকা অভিযান

নিম্ন আয়ের মানুষকে টার্গেট করে ‘মাল্টিপারপাস প্রতারণা’

নিম্ন আয়ের মানুষকে টার্গেট করে ‘মাল্টিপারপাস প্রতারণা’

মডেল তিন্নি হত্যা মামলার রায় আগামী ১৫ নভেম্বর

মডেল তিন্নি হত্যা মামলার রায় আগামী ১৫ নভেম্বর

ফ্রি ফায়ার গেমসের পক্ষে লড়তে পারবে না সিঙ্গাপুরের গ্যারিনা

ফ্রি ফায়ার গেমসের পক্ষে লড়তে পারবে না সিঙ্গাপুরের গ্যারিনা

শিশুদের স্কুলে ফেরা নিরাপদ করতে ১৯ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগ

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫৪

শিশুদের স্কুলে ফেরাকে নিরাপদ করার লক্ষ্যে সরকারের সঙ্গে সম্মিলিতভাবে ‘নিরাপদ ইশকুলে ফিরি’ ক্যাম্পেইন চালু করেছে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক মোট ১৯টি উন্নয়ন সংস্থা। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সালাম হলে সংবাদ সম্মেলনে ১৯টি উন্নয়ন সংস্থা তাদের ক্যাম্পেইন পরিকল্পনা এবং ফলাফল তুলে ধরে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ব্র্যাকের সিনিয়র ডিরেক্টর ও অ্যাডভোকেসি কেএএম মোর্শেদ বলেন, ‘শিশুদের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ বিবেচনায় করোনা মহামারির দুঃসময় পার করে দীর্ঘ প্রায় ১৮ মাস পর গত ১২ সেপ্টেম্বর সারাদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিয়েছে সরকার, যা একটি সময়োপযোগী ও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত। তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার পর সবচেয়ে বড় বিবেচ্য বিষয় হচ্ছে, শিশুদের স্কুলে ফেরাকে নিরাপদ করা, যাতে করে তারা কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঝুঁকি থেকে সুরক্ষিত থেকে নিয়মিত আগের মতো লেখাপড়া চালিয়ে যেতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘শিশুদের নিরাপদে স্কুলে ফেরা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশে শিশু, অভিভাবকসহ সমাজের সর্বস্তরের মানুষের কাছে সচেতনার বার্তা পৌঁছে দিতে ক্যাম্পেইনটি ‘৩৬০ ডিগ্রি এডুটেইনমেন্ট’ বা আনন্দের সঙ্গে শিক্ষা পদ্ধতিতে সাজানো হয়েছে। যাতে এর বার্তা যেকোনও মাধ্যমে, যেকোনও উপায়ে সব শিশু এবং তাদের পরিবারের কাছে পৌঁছানো যায়। ক্যাম্পেইনটির বার্তা মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে যোগাযোগের সব মাধ্যম ব্যবহার করা হচ্ছে।’

কেএএম মোর্শেদ বলেন, ‘দেশব্যাপী সচেতনতামূলক প্রচারণার অংশ হিসেবে স্কুল এবং কর্ম এলাকায় পোস্টার, স্টিকার, লিফলেট বিতরণ; স্থানীয় পর্যায়ে রেডিও অনুষ্ঠান, গান, নাটক, শিশু থিয়েটার, এলাকাভিত্তিক মাইকিং রিকশা ও অটোরিকশা পেইন্ট, টিভি বিজ্ঞাপন এবং মোবাইল ভয়েস এসএমএস-এর মাধ্যমে বার্তা পাঠানো হচ্ছে। এমনকি গানে গানে শিশুদের সচেতন করতে আমাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে জলের গান। এছাড়াও ক্যাম্পেইনে আরও যুক্ত হয়েছেন ক্রীড়া এবং সাংস্কৃতিক অঙ্গনের অনেকে।’

দেশব্যাপী সচেতনতামূলক প্রচারণা ছাড়াও ৫৬ জেলার ১০ হাজারের বেশি স্কুলে ক্যাম্পেইন পরিচালিত হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘উল্লেখযোগ্য প্রত্যন্ত অঞ্চলে অবস্থিত স্কুলের শিক্ষকদের জন্য কোভিড-১৯ নিরাপত্তা বিষয়ক প্রশিক্ষণ স্কুলগুলোতে মাস্ক, হাত ধোয়ার স্যানিটাইজেশন উপকরণ, থার্মাল ডিটেক্টর, শিক্ষা উপকরণ ইত্যাদি সরবরাহসহ হতদরিদ্র পরিবারের শিশুদের শিক্ষা কার্যক্রমে ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে সহযোগিতা করা হচ্ছে।’

ক্যাম্পেইনের সঙ্গে জড়িত সংস্থাগুলো হলো—ব্র্যাক, গণসাক্ষরতা অভিযান, ঢাকা আহছানিয়া মিশন, এডুকো বাংলাদেশ, এফআইডিডিবি, ফ্রেন্ডশিপ, হ্যাবিট্যাট ফর হিউম্যানিটি বাংলাদেশ, হ্যান্ডিক্যাপ ইন্টারন্যাশনাল, হিউম্যানিটি অ্যান্ড ইনক্লুশন, জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশন, প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ, রুম টু রিড বাংলাদেশ, সেভ দ্য চিলড্রেন ইন বাংলাদেশ, সাইটসেভারস বাংলাদেশ, সিনেমি ওয়ার্কশপ বাংলাদেশ, অষ্টমী ফাউন্ডেশন, টিচ ফর বাংলাদেশ, ভিএসও, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এবং ইপসা।

 

/জেডএ/আইএ/

সম্পর্কিত

ফের বিমান কর্তৃপক্ষের আশ্বাস, কাজে ফিরবেন ক্ষুব্ধ পাইলটরা

ফের বিমান কর্তৃপক্ষের আশ্বাস, কাজে ফিরবেন ক্ষুব্ধ পাইলটরা

‘নগদ-ডিআরইউ’ বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড পেলেন বাংলা ট্রিবিউনের শাহেদ শফিকসহ ২২ জন

‘নগদ-ডিআরইউ’ বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড পেলেন বাংলা ট্রিবিউনের শাহেদ শফিকসহ ২২ জন

ক্যাবল টিভি খাতে নীতিমালা প্রণয়নে ফিড অপারেটরদের অন্তর্ভুক্তির দাবি

ক্যাবল টিভি খাতে নীতিমালা প্রণয়নে ফিড অপারেটরদের অন্তর্ভুক্তির দাবি

জলবায়ু পরিবর্তনে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণে পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি

জলবায়ু পরিবর্তনে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণে পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি

উন্নয়ন প্রকল্পে অনিয়ম ও ধীরগতিতে সংসদীয় কমিটির ক্ষোভ

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৩৩

প্রকল্প বাস্তবায়নে ধীরগতি, আর্থিক ও ভৌত অগ্রগতি সমান, বার বার সময় বাড়ানোসহ উন্নয়ন প্রকল্পের অনিয়মে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সংসদীয় কমিটি। এসব অনিয়ম নিয়ে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়কে প্রশ্নবানে জর্জরিত করেছে কমিটি। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মন্ত্রণালয় কোনও সদুত্তর দিতে পারেনি। পরে সংসদীয় কমিটির পক্ষ থেকে আগামী এক মাসের মধ্যে সার্বিক বিষয়ে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। বৈঠকে সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের অধীন ঢাকা, সিলেট, ময়মনসিংহ ও গোপালগঞ্জ জোন এবং সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের চলমান প্রকল্প নিয়ে আলোচনা হয়।

জানা গেছে, বৈঠকের বেশিরভাগ সময় সড়ক বিভাগের চলমান প্রকল্প নিয়ে আলোচনা হয়। এ সময় প্রকল্প কেন সময় মতো বাস্তবায়ন হয় না, বার বার কেন সময় বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়, বাস্তবে হওয়ার কথা না থাকলেও প্রকল্পের আর্থিক ও ভৌত অগ্রগতি কেন সমান হয়েছে, তার ব্যাখ্যা চাওয়া হয় কমিটির পক্ষ থেকে। এ সময় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে তাদের মত ও যুক্তি দিলে কমিটি তাতে সন্তুষ্ট হয়নি। এ সময় কয়েকটি প্রকল্পে ব্যয় না বাড়িয়ে মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে বলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ব্যাখ্যা দেওয়ার চেষ্টা হয়। অবশ্য কমিটি ব্যয় না বাড়িয়ে মেয়াদ বাড়ানোকেও এক ধরনের অনিয়ম বলে উল্লেখ করে। এ বিষয়ে কমিটির এক সদস্য বলেন, বুঝলাম ব্যয় বাড়ছে না। কিন্তু প্রকল্প সময় মতো শেষ না হওয়ায় জনগণ তো সুবিধা বঞ্চিত হচ্ছে। তাছাড়া ওই প্রকল্প শেষ না হওয়ার কারণে মানুষকে দুর্ভোগও পোহাতে হচ্ছে।  

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কমিটির সভাপতি আব্দুস শহীদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা সড়কের চারটি জোন নিয়ে আলোচনা করেছি। প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে, কিন্তু কাজ শেষ হয়নি। ওই কাজ কবে শেষ হবে, সেটাও তারা জানাতে পারেনি।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে যে প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়েছে, সেখানে দেখা গেছে— প্রকল্পের আর্থিক ও বাস্তব অগ্রগতি সমান। কিন্তু কোনোভাবেই সমান হওয়ার কথা নয়। এক শতাংশ হলেও তো পার্থক্য থাকবে। এসব বিষয়ে তারা যুক্তি দিতে পারেনি। আমাদের অনেক প্রশ্নের তারা সন্তোষজনক জবাব দিতে পারেনি। কোথায় কী অনিয়ম বা সমস্যা হয়, তার বিষয়ে আমরা এক মাসের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলেছি।’

আপনারা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে আব্দুস শহীদ বলেন, ‘উনারা শিক্ষিত মানুষ। আমরা তাদের অশ্রাব্য ভাষায় কিছু বলিনি। তবে এটা বলেছি যে, আপনারা মেধা কাজে লাগিয়ে তামাশা করতেছেন।’

সংসদ সচিবালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বৈঠকে সড়কের ঢাকা জোনের অসমাপ্ত ৯টি প্রকল্পের সময় বৃদ্ধির কারণ ও ব্যাখ্যাসহ প্রতিবেদন কমিটির কাছে পাঠানোর সুপারিশ করা হয়। ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের যাত্রাবাড়ী ইন্টারসেকশন থেকে মাওয়া পর্যন্ত এবং পাচ্চর-ভাঙ্গা প্রকল্পে কাজ শেষ না হওয়ার কারণ তদন্ত করে প্রতিবেদন পাঠানোর সুপারিশ করা হয়।

কমিটির সভাপতি মো. আব্দুস শহীদের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটি সদস্য চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী, ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন, এ বি তাজুল ইসলাম, আহসান আদেলুর রহমান, ওয়াসিকা আয়শা খান এবং খাদিজাতুল আনোয়ার অংশগ্রহণ করেন।

/ইএইচএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

স্ত্রীকে নির্যাতন না করার শর্তে স্বামীর চাকরি ফেরানোর আদেশ

স্ত্রীকে নির্যাতন না করার শর্তে স্বামীর চাকরি ফেরানোর আদেশ

সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে রিট

সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে রিট

সংশোধন হচ্ছে আরপিও, কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী নেতৃত্বের ক্ষেত্রে সময় বাড়ছে

সংশোধন হচ্ছে আরপিও, কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী নেতৃত্বের ক্ষেত্রে সময় বাড়ছে

ফের বিমান কর্তৃপক্ষের আশ্বাস, কাজে ফিরবেন ক্ষুব্ধ পাইলটরা

ফের বিমান কর্তৃপক্ষের আশ্বাস, কাজে ফিরবেন ক্ষুব্ধ পাইলটরা

‘ঢাকা মেয়র কাপ আন্তওয়ার্ড ক্রীড়া প্রতিযোগিতা’র দ্বিতীয় আসর ২২ ডিসেম্বর

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫৬

আগামী ২২ ডিসেম্বর ‘ঢাকা মেয়র কাপ আন্তঃওয়ার্ড ক্রীড়া প্রতিযোগিতা’ টানা দ্বিতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে নগর ভবনের মেয়র হানিফ অডিটোরিয়ামে দক্ষিণ সিটি  করপোরেশনের দ্বিতীয় পরিষদের ১০ম বোর্ড সভায় ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস এই তথ্য জানান।

শেখ তাপস বলেন, ধারাবাহিক এই আয়োজন আরও বড় করে অনুষ্ঠিত হবে। আশা করছি আরও বেশি উৎসাহ-উদ্দীপনার মাধ্যমে এবারের আয়োজন সম্পন্ন করতে পারবো।

এবারের আয়োজনের নিবন্ধন প্রক্রিয়াসহ অন্যান্য প্রাথমিক কার্যক্রম দ্রুতই শুরু করা হবে জানিয়ে ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস বলেন, আগামী ২২ ডিসেম্বর প্রতিযোগিতা শুরু হবে। গতবার আমরা যে সফলতা দেখাতে পেরেছি, আশা করি এবার তার চাইতেও বেশি সফলতা আসবে।

করপোরেশনের কাউন্সিলররা ছাড়াও সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহাম্মদ, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমডোর সিতওয়াত নাঈম, সচিব আকরামুজ্জামান প্রমুখ।

/এসএস/এমআর/

সম্পর্কিত

রাজধানীর বংশালে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

রাজধানীর বংশালে ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

‘জনপ্রতিনিধিদের সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া উচিত’

‘জনপ্রতিনিধিদের সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া উচিত’

জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ পালনে মাঠ পর্যায়ের কর্মসূচি স্থগিত

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:১৬

জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ ২০২১ পালন উপলক্ষে আগামী রবিবার (৩১ অক্টোবর) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি স্থগিত করা হয়েছে।  মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর অনুষ্ঠানটি স্থগিত করে অফিস আদেশ জারি করে।

অফিস আদেশে আরও জানানো হয়, জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ ২০২১ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানসহ মাঠ পর্যায়ের সকল কর্মসূচি স্থগিত রাখাসহ বিষয়টি ‘প্রাথমিক শিক্ষা পদক ২০১৯’ এর জন্য নির্বাচিত শিশু শিল্পী, ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠানসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অবহিত করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

অফিস আদেশে বিভাগীয় সকল উপ-পরিচালক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে এই নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে।

/এসএমএ/এমআর/

সম্পর্কিত

উন্নীত স্কেলে বেতন নিশ্চিত করতে তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

উন্নীত স্কেলে বেতন নিশ্চিত করতে তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

‘বঙ্গমাতা’র নামে সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণের প্রস্তাব অনুমোদন

‘বঙ্গমাতা’র নামে সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণের প্রস্তাব অনুমোদন

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

টিকার সমতা নিশ্চিত না হলে বিপদ: ডা. মুশতাক হোসেন

সাক্ষাৎকারটিকার সমতা নিশ্চিত না হলে বিপদ: ডা. মুশতাক হোসেন

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

ডিসেম্বরের মধ্যে করোনা টিকার আওতায় ৩০ শতাংশ মানুষ: সালমান এফ রহমান

ডিসেম্বরের মধ্যে করোনা টিকার আওতায় ৩০ শতাংশ মানুষ: সালমান এফ রহমান

সব ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে শতভাগ কার্যকর ‘বঙ্গভ্যাক্স’, দাবি গ্লোবের

সব ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে শতভাগ কার্যকর ‘বঙ্গভ্যাক্স’, দাবি গ্লোবের

দুই ডোজ টিকার আওতায় ১ কোটি ৮৯ লাখ মানুষ

দুই ডোজ টিকার আওতায় ১ কোটি ৮৯ লাখ মানুষ

টিকায় অগ্রাধিকার যাদের, তারাই পাচ্ছেন কম!

টিকায় অগ্রাধিকার যাদের, তারাই পাচ্ছেন কম!

৫ কোটি ৬০ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

৫ কোটি ৬০ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

স্কুল শিক্ষার্থীদের পরীক্ষামূলক টিকা বৃহস্পতিবার

স্কুল শিক্ষার্থীদের পরীক্ষামূলক টিকা বৃহস্পতিবার

টিকা নিলো আরও সাড়ে ৪ লাখ মানুষ  

টিকা নিলো আরও সাড়ে ৪ লাখ মানুষ  

দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ৮২ লাখ মানুষ

দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ৮২ লাখ মানুষ

সর্বশেষ

জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোকে বাঁচাতে প্যারিস চুক্তির বাস্তবায়ন জরুরি: স্পিকার

জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোকে বাঁচাতে প্যারিস চুক্তির বাস্তবায়ন জরুরি: স্পিকার

রোগীর স্বজন সেজে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলো নারী

রোগীর স্বজন সেজে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলো নারী

শিশুদের স্কুলে ফেরা নিরাপদ করতে ১৯ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগ

শিশুদের স্কুলে ফেরা নিরাপদ করতে ১৯ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগ

‘ফেক নিউজ’ ভারতে বেশি

‘ফেক নিউজ’ ভারতে বেশি

হেসেখেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা

হেসেখেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা

© 2021 Bangla Tribune