X
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

৩ অক্টোবর ওমান যাচ্ছেন মাহমুদউল্লাহরা, থাকতে হবে কোয়ারেন্টিনে

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৫৬

দামামা বেজে উঠেছে বিশ্বকাপের। আগামী ১৭ অক্টোবর পর্দা উঠবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের। অংশ নিতে আগামী ৩ অক্টোবর সকালে ওমানের উদ্দেশে যাত্রা করবে মাহমুদউল্লাহর দল। মঙ্গলবার বিকালে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এমন তথ্য জানিয়েছে, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

ওমানে প্রথম রাউন্ডে বাংলাদেশ দল খেলবে স্কটল্যান্ড, ওমান ও পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে। গ্রুপ পর্ব টপকে লাল-সবুজ জার্সিধারীদের যেতে হবে আরব আমিরাতে পরবর্তী রাউন্ডে।

এখন নিউজিল্যান্ড সিরিজের পর ক্রিকেটাররা ছুটিতে রয়েছেন। তবে বেশিরভাগ ক্রিকেটারই ঐচ্ছিক অনুশীলন করছেন মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে। ছুটি কাটিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে তারা মাঠে ফিরবেন ১ অক্টোবর। অবশ্য এই সময় আনুষ্ঠানিক কোন অনুশীলন হচ্ছে না, ওমানের গিয়েই বাংলাদেশ দল অনুশীলন সারবে। তার আগে ১ অক্টোবর বিশ্বকাপের ফটোসেশনে অংশ নেবেন মাহমুদউল্লাহ-মুশফিকরা। পরদিন করোনা টেস্টে অংশ নিতে হবে। করোনা নেগেটিভ হওয়া ক্রিকেটাররাই ৩ অক্টোবর সকালে বিমানে চড়বেন।

ওমানে পৌঁছানোর পর একদিনের রুম কোয়ারেন্টিন শেষ করে অনুশীলনের জন্য চারটি সেশন পাবেন মাহমুদউল্লাহরা। ওমানে চারদিনের অনুশীলন শেষে ৯ অক্টোবর আরব আমিরাতের উদ্দেশে যাত্রা করতে হবে। সেখানে একদিনের কোয়ারেন্টিন শেষে ১১ অক্টোবর আবার শুরু করবে অনুশীলন। এরপর ১২ অক্টোবর শ্রীলঙ্কা এবং ১৪ অক্টোবর আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি ওয়ার্মআপ খেলে পরদিন আবার ওমানে ফিরে আসবে বাংলাদেশ দল।

১৬ অক্টোবর একবেলা অনুশীলনের পরই দলটির বিশ্বকাপ মিশন শুরু হবে। ১৭ অক্টোবর স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে বাংলাদশের বিশ্বকাপ। ১৯ অক্টোবর স্বাগতিক ওমানের বিপক্ষে ম্যাচের পর ২১ অক্টোবর পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে ম্যাচ খেলবে। তিন ম্যাচ খেলে পরদিনই আবার রওয়ানা দিতে হবে আরব আমিরাতের উদ্দেশে।

উল্লেখ্য, ওমানে প্রথম পর্বে আট দল দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে লড়বে। সেখানকার শীর্ষ ও রানার্স-আপ সুযোগ পাবে সুপার-১২ রাউন্ডে।

‘বি’ গ্রুপের বাংলাদেশ ও ‘এ’ গ্রুপের শ্রীলঙ্কাকে সুপার-১২ নিশ্চিত করতে প্রথম পর্ব পেরিয়ে আসতে হবে। ‘বি’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন সুপার-১২ রাউন্ডে যাবে ভারত, পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড ও আফগানিস্তানের গ্রুপ-২-এ। রানার্স-আপ হলে যাবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের গ্রুপ-১-এ।

‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন না রানার্স-আপ হবে, সেটা জানা নেই। কিন্তু আইসিসি একটা ধারা যোগ করে দিয়েছে। যেখানে বলা আছে, বাংলাদেশ প্রথম কিংবা দ্বিতীয় যাই হোক, তাদেরকে ধরা হবে ‘বি’ গ্রুপের সেরা (বি-১)। গ্রুপ ‘এ’ তে থাকা শ্রীলঙ্কার ক্ষেত্রেও একই নিয়ম প্রযোজ্য। র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকার কারণে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কাকে গ্রুপের শীর্ষ বাছাই ধরা হয়েছে।

/আরআই/এফআইআর/

সম্পর্কিত

‘চেষ্টা করছি, কিন্তু আমাদের দ্বারা হচ্ছে না’ 

‘চেষ্টা করছি, কিন্তু আমাদের দ্বারা হচ্ছে না’ 

সমালোচনা জীবনের অংশ, এটা সহ্য করাও আর্ট: মাশরাফি

সমালোচনা জীবনের অংশ, এটা সহ্য করাও আর্ট: মাশরাফি

শান্তর ২০তম সেঞ্চুরি

শান্তর ২০তম সেঞ্চুরি

ইংলিশ দাপটে সুযোগই পেলো না বাংলাদেশ

ইংলিশ দাপটে সুযোগই পেলো না বাংলাদেশ

‘চেষ্টা করছি, কিন্তু আমাদের দ্বারা হচ্ছে না’ 

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২৩:১৯

অফিসিয়াল প্রেস কনফারেন্সে এসে ম্যাচের সাফল্য-ব্যর্থতা কিংবা ভুল-ত্রুটিগুলোর ব্যাখ্যা দিয়ে থাকেন কোচিং স্টাফ কিংবা ক্রিকেটাররা। সাধারণত আইসিসির ইভেন্টে ম্যাচ সেরা কিংবা দলের বিষয়গুলো ঠিকভাবে তুলে ধরতে পারবেন- এমন কাউকেই পাঠানো হয়। চাপের ম্যাচ কিংবা হারের ম্যাচগুলোরতে দলের অধিনায়ক, সহ-অধিনায়ক কিংবা কোচিং স্টাফদের কেউ এসে প্রেস সামলান। কিন্তু বাংলাদেশে ক্রিকেট বোর্ড, ক্রিকেটারদের মতোই বরাবর উল্টো রথে চলছে। এই যেমন ইংলিশদের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ হেরে প্রেস সামলানোর দায়িত্ব দেওয়া হলো একেবারে আনকোরা নাসুম আহমেদকে। ফলে যা হওয়ার তাই হলো, প্রশ্নবাণে জর্জরিত নাসুম আহমেদ ম্যাচ হারের কারণ হিসেবে বারবার বোঝানোর চেষ্টা করে গেলেন, ‘আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি, কিন্তু আমাদের দ্বারা হচ্ছে না।’

নাসুমের মতো একজন ক্রিকেটারকে দ্বি-পাক্ষিক সিরিজে পাঠানো হলে না হয় মানা যেতো। কিন্তু বিশ্বকাপের মতো জায়গায়, ইংল্যান্ড বিপক্ষে এমন বড় ম্যাচে দল যখন অসহায় আত্মসমপর্ণের করে, তখন এমন একজনকে প্রেসে পাঠানো কতোটা যুক্তিযুক্ত!  বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্ট যেন পালিয়ে বাঁচতে চাইলেন। এমন ম্যাচে নাসুমকে পাঠিয়ে তরুণ এই ক্রিকেটারের সঙ্গে রীতিমতো অন্যায় করলো বিসিবি। দ্বি-পাক্ষিক সিরিজে প্রায় এমন ঘটনা দেখা গেলে, আইসিসির ইভেন্টে অন্তত বিসিবির মিডিয়া দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করে!  

৩৫ আগে ইংল্যান্ডের কাছে ৮ উইকেটের হারের চুলচেড়া বিশ্লেষণ করতে নাসুমকে পাঠানো হলেও নাসুম বারবারই আটকে যাচ্ছিলেন! আপনারা কেন পারছেন না? কেন হচ্ছে না বা কোথায় সমস্যা হচ্ছে? সাংবাদিকদের করা এসব প্রশ্নে তালগোল পাকিয়ে ফেলছিলেন নাসুম। নানা প্রশ্নে নাসুমের সোজাসাপ্টা উত্তর, ‘বল ভালো হয়নি, ব্যাটিং ভালো হয়নি। গরমেও সমস্যা হচ্ছে না। টানা খেলাতেও ক্লান্ত নই এবং কন্ডিশনও সমস্যা না।’

সাংবাদিকদের পাল্টা প্রশ্ন, তাহলে সমস্যা কোথায়? হুট করেই নাসুম মুখ ফসকে বলে ফেললেন, ‘বারবার একই প্রশ্ন। আমরা তো ভাই চেষ্টা করছি। হচ্ছে না… আমাদের ভাগ্য খারাপ। আমরা চেষ্টা করছি, কিন্তু আমাদের দিয়ে হচ্ছে না।’

তাহলে কী আপনাদের সামর্থ্যের ঘাটতি আছে। এবার নাসুমের উত্তর, ‘পারছি না বলতে- সেটা না, আমাদের দ্বারা হচ্ছে না। আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি। ভালোভাবে প্রয়োগ করতে পারছি না।'

শুধু ‘শিশুসুলভ’ উত্তর দিয়েই ক্ষান্ত হননি নাসুম। ভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে বারবার বলার চেষ্টা করেছেন বাইরের কোনও সমালোচনা তাদের গায়ে লাগছে না। হয়তো সিনিয়র ক্রিকেটারদের শিখিয়ে দেওয়া কথাই তিনি সংবাদ সম্মেলনে আওড়ালেন। অথচ এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ হেরে তার মতো স্বল্পভাষী একজনের প্রেস সামলাতে পারার কথা নয়। তারপরও বিসিবিরি মিডিয়া বিভাগে কী ভেবে, কীভাবে এমন সিদ্ধান্ত নেয় সেটাই বড় প্রশ্ন? বাংলাদেশের সবচেয়ে ধনী ক্রীড়া সংগঠনে পেশাদারিত্ব ফিরলেই কেবল ক্রিকেটারদের মধ্যে পেশাদারিত্ব ফেরানো সম্ভব হবে। নয়তো এভাবেই অদ্ভুত উঠের পিঠে চলতে থাকবে বাংলাদেশের ক্রিকেট!

/আরআই/ইউএস/

সম্পর্কিত

সমালোচনা জীবনের অংশ, এটা সহ্য করাও আর্ট: মাশরাফি

সমালোচনা জীবনের অংশ, এটা সহ্য করাও আর্ট: মাশরাফি

শান্তর ২০তম সেঞ্চুরি

শান্তর ২০তম সেঞ্চুরি

ইংলিশ দাপটে সুযোগই পেলো না বাংলাদেশ

ইংলিশ দাপটে সুযোগই পেলো না বাংলাদেশ

আমার অলিম্পিক পদক বাংলাদেশিদের অনুপ্রাণিত করবে: মার্গারিটা মামুন

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:২৬

২০১৬ সালে রিও অলিম্পিকে রিদমিক জিমন্যাস্টিকসে সোনার পদক জিতেছিলেন মার্গারিটা মামুন। রাশিয়ার হয়ে পদক জিতলেও সেখানে আছে বাংলাদেশের ছোঁয়া! কেননা মার্গারিটার বাবা যে বাংলাদেশি। সেই মার্গারিটা বঙ্গবন্ধু পঞ্চম সেন্ট্রাল এশিয়ান আর্টিস্টিক জিমন্যাস্টিকস চ্যাম্পিয়নশিপে শুভেচ্ছা দূত হিসেবে বাংলাদেশে এসেছেন। নিজের অভিজ্ঞতা ভাগাভাগি করে এই বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রাশিয়ান অনুপ্রাণিত করেছেন স্বাগতিক জিমন্যাস্টদের।

মঙ্গলবার মিরপুর শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে নিজের পাওয়া সোনার পদক দেখতে দিয়েছেন। এছাড়া কসরতও করে দেখিয়েছেন। আজ (বুধবার) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব নিয়ে সংবাদমাধ্যমের সামনে মার্গারিটা বলেছেন, ‘গতকাল (মঙ্গলবার) আমি বাংলাদেশি জিমন্যাস্টদের সঙ্গে দেখা করেছি। তাদের দেখে আমি আসলেই বিস্মিত হয়েছি। তারা খুবই সুন্দর। এই আয়োজন দেখতে ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপের মতো। আমি আসলেই খুশি এখানে আসতে পেরে। অনেক জিমন্যাস্টদের দেখে খুশি। কিছু মুভ দেখেছি, যেটা ছিল চমৎকার।’

রিওতে নিজের পাওয়া সোনার পদক বাংলাদেশের জিমন্যাস্টদের দেখানোর পর মার্গারিটার উপলব্ধি, ‘জিমন্যাস্টরা আমার অলিম্পিক মেডেল দেখেছে, সেটা ছুঁয়ে দেখেছে, অনেকে চুমো খেয়েছে। আমি মনে করি, এটা তাদেরকে (বাংলাদেশিদের) অনুপ্রাণিত করবে। আগামীকালও (বৃহস্পতিবার) আমি এখানে থাকবো। তাদেরকে আরও কিছু পরামর্শ দেবো। চমৎকার কিছু শেখানোর চেষ্টা করবো।’

নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মার্গারিটা বলেছেন, ‘এটা লম্বা পথ চলা ছিল। ছোট একটা মেয়ের অনেকটা পথ পেরিয়ে অলিম্পিকে চ্যাম্পিয়ন হওয়া- এটা অবশ্যই দীর্ঘ ও কঠিন পথ চলা ছিল।’

১৫ বছর আগে সবশেষ ঢাকায় এসেছিলেন এই জিমন্যাস্ট। এতদিন পর এসে দেখলেন বদলে গেছে অনেক কিছু, ‘বাংলাদেশ অনেক বদলেছে। এই ১৫ বছরে বাংলাদেশ অনেক উন্নতি করেছে বলে মা আমাকে বলেছেন।’

জিমন্যাস্টিকস ফেডারেশনের সভাপতি শেখ বশির আহমেদ মামুন জানালেন ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা, ‘এবার সে (মার্গারিটা) দূত হিসেবে এখানে এসেছে। ১৫ বছর পর বাংলাদেশে এসেছে। এখানকার অনেক কিছু সম্পর্কেই সে জানে না। কিন্তু পরেরবার আমরা যখন তাকে নিয়ে আসবো, তখন তাকে নিয়ে আমাদের পরিকল্পনা থাকবে।’

সেন্ট্রাল এশিয়ান আর্টিস্টিক জিমন্যাস্টিকস চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ ছাড়াও অংশ নিচ্ছে নেপাল, শ্রীলঙ্কা, ভারত, উজবেকিস্তান ও পকিস্তান।

/টিএ/কেআর/

সম্পর্কিত

সমালোচনা জীবনের অংশ, এটা সহ্য করাও আর্ট: মাশরাফি

সমালোচনা জীবনের অংশ, এটা সহ্য করাও আর্ট: মাশরাফি

শান্তর ২০তম সেঞ্চুরি

শান্তর ২০তম সেঞ্চুরি

কুয়েতের কাছে হারলো বাংলাদেশ

কুয়েতের কাছে হারলো বাংলাদেশ

ইংলিশ দাপটে সুযোগই পেলো না বাংলাদেশ

ইংলিশ দাপটে সুযোগই পেলো না বাংলাদেশ

সমালোচনা জীবনের অংশ, এটা সহ্য করাও আর্ট: মাশরাফি

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২১:০৬

টানা হারের বৃত্তে আটকে বাংলাদেশ। সুপার টুয়েলভে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হারের পর ইংল্যান্ডের সামনে তো পাত্তাই পায়নি। ব্যাটিং ব্যর্থতায় ইংলিশদের বিপক্ষে ১২৪ রানে অলআউট হওয়ার পর বোলিংয়ে ব্যর্থ হয়েছেন সাকিব-মোস্তাফিজরা। ফলে ইংলিশরা ৩৫ বল হাতে রেখে ৮ উইকেটের বড় জয় পেয়েছে। বাজে হারের পরও মাহমুদউল্লাহ-মুশফিকদের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছেন সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা। আজ (বুধবার) ম্যাচ শেষে নিজের ফেসবুকে দেওয়া পোস্টে তেমনটাই জানিয়েছেন এই পেসার।

পোস্টের শুরুতেই সবার সমালোচনা ক্রিকেটারদের সহজভাবে নেওয়ার আহ্বান তার, ‘সমালোচনা জীবনের একটা অংশ, এটা সহ্য করাও একটা আর্ট। যে যত সমালোচনা নিতে পারে সে তত ভালো থাকে। ঠিক এই মুহূর্তে তোমাদের সমালোচনা সবাই করবে, এমনকি আমিও, তাতে তোমাদের কিছু যায়-আসার কথা নয়। শুধু তোমাদের চিন্তা করা উচিত তোমরা কী করতে চেয়েছিলে আর তা কেন করতে পারোনি। পরের ম্যাচে যেন সেরাটা দিতে পারো সেই চিন্তা করা শুরু করো। কারণ, পরের ম্যাচটাও তোমরা বাংলাদেশের জন্যই খেলবে আর দেশের সবাই আবার নতুন কোনও আশা নিয়ে খেলা দেখতে বসবে। মাঝখান দিয়ে হয়তো কেউ গঠনমূলক সমালোচনা অথবা আরও বেশি নেতিবাচক কথা বলবে।’

এরপরই মাশরাফি মাঠের পারফরম্যান্সকে পেছনে ফেলে মাহমুদউল্লাহদের সঙ্গে থাকার ঘোষণা দেন, ‘তোমাদের ভালোবাসে বলেই এত কথা বলে, নেক্সট ম্যাচেই সেরাটা দিয়ে জিতে আসলে, দেখবা সবাই আনন্দে পেছনের জিনিস ভুলে যাবে। একমাত্র ইতিবাচক মানসিকতাই সেরাটা বের করে আনতে পারবে আমার বিশ্বাস। মাঠে যা কিছুই ঘটুক না কেন, তোমাদের পাশেই আছি। মনপ্রাণ দিয়েই থাকবো। সবাই বিশ্বাস করে তোমরাই আনন্দের উপলক্ষ।’

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাজে দিন ভুলে যাওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন সাবেক এই অধিনায়ক, ‘বাজে দিন ভুলে যাওয়াই উত্তম, তবে বাজে দিন যে শিক্ষা দিয়ে যাবে তা মনে রাখা আরও উত্তম। গুডলাক বাংলাদেশ ক্রিকেট। আল্লাহ ভরসা।’

/আরআই/কেআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

‘চেষ্টা করছি, কিন্তু আমাদের দ্বারা হচ্ছে না’ 

‘চেষ্টা করছি, কিন্তু আমাদের দ্বারা হচ্ছে না’ 

শান্তর ২০তম সেঞ্চুরি

শান্তর ২০তম সেঞ্চুরি

ইংলিশ দাপটে সুযোগই পেলো না বাংলাদেশ

ইংলিশ দাপটে সুযোগই পেলো না বাংলাদেশ

শান্তর ২০তম সেঞ্চুরি

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:২০

বৃষ্টির প্রভাবে কক্সবাজারে জাতীয় ক্রিকেট লিগের দুটি ম্যাচই নিষ্প্রাণ ড্রতে শেষ হয়েছে। প্রথম রাউন্ডের মতো দ্বিতীয় রাউন্ডে ঢাকা মেট্রো ও রাজশাহী বিভাগের ম্যাচেরও একই পরিণতি। আজ (বুধবার) নিষ্প্রাণ ড্রয়ের ম্যাচে সেঞ্চুরি পেয়েছেন রাজশাহীর নাজমুল হোসেন শান্ত। পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের আগে শান্তর ব্যাটে রান নিশ্চিতভাবেই আত্মবিশ্বাস জোগাবে।

বাঁহাতি ব্যাটার ১৯৯ বলে ৮ চার ও ১ ছক্কায় ১০৩ রানে অপরাজিত ছিলেন। এই ইনিংসের মাধ্যমে শান্ত তুলে নেন প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের ২০তম সেঞ্চুরি। এর আগে প্রথম ইনিংসে ৬৭ রান করেছিলেন তিনি। এছাড়া জুনায়েদ সিদ্দিকী ১২৫ বলে পেয়েছেন ৫০ রান।

অফ স্পিনার শরিফউল্লাহ আগের দিনের ১ উইকেটের সঙ্গে আজ তৌহিদ হৃদয়ের উইকেট নেন। সব মিলিয়ে ম্যাচে হ্যাটট্রিকসহ ৭ উইকেট ও ব্যাট হাতে হাফসেঞ্চুরি পাওয়ায় ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছেন তিনি।

জাতীয় লিগের অন্য ম্যাচে জয়ের জন্য স্বাগতিক সিলেটের প্রয়োজন ছিল ৯১ রান। খুলনার ৭ উইকেট। এই লড়াই জিতে যায় সিলেট। অধিনায়ক জাকির হাসান ৩৭ ও জাকের আলী ৪১ রানে দলের জয় নিশ্চিত হয়।

বল হাতে আল আমিন হোসেন ও মেহেদী হাসান মিরাজ ২টি করে উইকেট পেয়েছেন। একটি করে উইকেট নেন জিয়াউর রহমান ও নাহিদুল ইসলাম। ম্যাচে ৮ উইকেট নিয়ে সিলেটের জয়ের নায়ক রেজাউর রহমান রাজা।

/আরআই/কেআর/

সম্পর্কিত

সমালোচনা জীবনের অংশ, এটা সহ্য করাও আর্ট: মাশরাফি

সমালোচনা জীবনের অংশ, এটা সহ্য করাও আর্ট: মাশরাফি

ইংলিশ দাপটে সুযোগই পেলো না বাংলাদেশ

ইংলিশ দাপটে সুযোগই পেলো না বাংলাদেশ

হতাশা বাড়ছে মাহমুদউল্লাহদের

হতাশা বাড়ছে মাহমুদউল্লাহদের

বাটলার-ঝড় তুলতে দেননি নাসুম

বাটলার-ঝড় তুলতে দেননি নাসুম

এএফসি অনূর্ধ্ব-২৩ ফুটবল

কুয়েতের কাছে হারলো বাংলাদেশ

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:০১

আত্মবিশ্বাসী ছিলেন কোচ মারুফুল হক। কুয়েতের বিপক্ষে জয়ের প্রত্যাশা করেছিলেন তিনি। কিন্তু প্রত্যাশা মতো দল খেলতে পারেনি। এএফসি অনূর্ধ্ব-২৩ ফুটবলের বাছাই পর্বে ‘ডি’ গ্রুপে প্রথম ম্যাচটি তাই হার দিয়ে শুরু করতে হয়েছে। আজ (বুধবার) উজবেকিস্তানের তাসখন্দে জার একাডেমি মাঠে কুয়েতের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে বাংলাদেশ।

বলের নিয়ন্ত্রণে শুরু থেকে এগিয়ে ছিল কুয়েত। প্রতিপক্ষের আক্রমণ প্রতিহত করে মাঝেমধ্যে পাল্টা আক্রমণে উঠেছে দল, কিন্তু সুফিল-ফাহিমরা লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি।

ম্যাচের ১৭ মিনিটে ফ্রি কিক আটকাতে গিয়ে অনেক লাফিয়ে ওঠা টুটুল হোসেন বাদশার হাতে বল লাগলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। ইদ আল রাশিদির দুর্বল স্পট কিক তালুবন্দি করে বাংলাদেশের ত্রাতা গোলকিপার পাপ্পু হোসেন।

কিন্তু একটু পরই গোল হজম করে বসে বাংলাদেশ। এ গোলে কিছুটা দায় আছে পাপ্পুরও। সতীর্থের লংস পাস ধরে ডান দিক দিয়ে আক্রমণে ওঠা ইউসুফ আল রাশেদিকে আটকাতে পোস্ট ছেড়ে বেরিয়ে যান গোলকিপার। কুয়েতের ফরোয়ার্ড নিখুঁত চিপে পাপ্পুর মাথার ওপর দিয়ে জাল খুঁজে নেন।

৩২ মিনিটে ইউসুফ আল রাশেদির শট ক্রসবারে লেগে ফিরে আসলে ব্যবধান দ্বিগুণ হয়নি।

বিরতির পরও কুয়েতের দাপট চলতে থাকে। যদিও ৫৮ মিনিটে বাংলাদেশ গোল শোধ দেওয়ার সুযোগ পায়। রহমত মিয়ার কর্নার থেকে মাথা ছোঁয়াতে না পারায় পেনাল্টির দাবি ওঠে। কিন্তু রেফারি তাতে সায় দেননি।

৭২ মিনিটে কুয়েতের ইউসুফের শট গোলকিপার পাপ্পু প্রতিহত করে হারের ব্যবধান বাড়তে দেননি। শেষ পর্যন্ত স্কোরলাইন ১-০ রেখে মাঠ ছেড়েছে কুয়েত।

/টিএ/কেআর/

সম্পর্কিত

ম্যারাডোনা কাপে খেলবে বার্সা-বোকা

ম্যারাডোনা কাপে খেলবে বার্সা-বোকা

বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব নিয়ে রোমাঞ্চিত পর্তুগিজ কোচ

বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব নিয়ে রোমাঞ্চিত পর্তুগিজ কোচ

বাংলাদেশ দলে জায়গা পেলেন কাতার প্রবাসী নবাব

বাংলাদেশ দলে জায়গা পেলেন কাতার প্রবাসী নবাব

১০ জন নিয়ে ড্র করলো পিএসজি

১০ জন নিয়ে ড্র করলো পিএসজি

quiz
সর্বশেষসর্বাধিক
© 2021 Bangla Tribune