X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

‘রানি এলিজাবেথের মতো শেখ হাসিনার শাসনকালও স্মরণীয় থাকবে’

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:০৩

শেখ হাসিনার শাসনকাল ইংল্যান্ডের রানি প্রথম এলিজাবেথের শাসনকালের মতো আজ থেকে ৫০০ বছর পরও বাঙালির ইতিহাসে স্বর্ণযুগ হিসেবে স্মরণীয় হয়ে থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি বলেছেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালিকে হাজার বছরের ইতিহাসে প্রথম স্বাধীন রাষ্ট্র প্রদান করেছেন। তাঁরই কন্যা শেখ হাসিনা সেই রাষ্ট্রটি আজ বিশ্বের মানচিত্রে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করেছেন। শেখ হাসিনার শাসনকালেই বাঙালি বিশ্বসভায় উন্নত মস্তকে দাঁড়াতে পেরেছে।’

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিকালে কক্সবাজার পাবলিক লাইব্রেরির শহীদ দৌলত ময়দানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘শেখ হাসিনা প্রথম হাঁটতে শিখেছেন, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আঙুল ধরে। জাতির জনকের দেখিয়ে দেওয়া পথ ধরে তিনি হাঁটছেন। আজও হাঁটছেন। হাঁটতে হাঁটতে পার করে দিয়েছেন ৭৪টি বছর। আর এই ৭৪ বছরের সবটুকু ন্যস্ত করেছেন দেশমাতৃকার জন্য।’

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘‘দুঃখ-সুখে গড়া জীবনে বেড়ে ওঠা তার। বিস্মৃতি স্পর্শ করে না বলে সবকিছু গোছানো। ভাষণে-বক্তৃতায় শেখ হাসিনা তুলে আনেন, সত্য ইতিহাসের সোনালি-রুপালি এবং ট্র্যাজিক ইতিহাস। দেশের সমকালে তিনিই একমাত্র রাজনৈতিক নেত্রী, যাকে হারাতে হয়েছে সব। আর তার এই হারানো আসলে পুরো জাতির জন্যই হারানো। বাঙালি জীবনে একমাত্র ট্র্যাজেডি পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের নৃশংসতা। পিতার হত্যাকারীরা চেয়েছে তার বিনাশ। স্বয়ং রাষ্ট্র ব্যবস্থা থেকেও তার প্রাণ হরণের চেষ্টা চলেছে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালিয়ে। হত্যার অপচেষ্টা চলে আসছে সেই ৮১ সাল থেকে দেশে ফেরার পর থেকেই। কিন্তু শেখ হাসিনা পিতা বঙ্গবন্ধুর মতোই ‘জীবন মৃত্যু পায়ের ভৃত্য’ করে এগিয়ে চলেছেন বিশ্বমানবের মুক্তির সাধনায়। ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত, উন্নত-সমৃদ্ধ, অসাম্প্রদায়িক বঙ্গবন্ধুর আজীবনের লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন দ্রুত গতিতে।’

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন দলটির জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান।

জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এম এ মনজুরের সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- সাইমুম সরওয়ার কমল, আশেক উল্লাহ রফিক, রেজাউল করিম, মাহবুবুল হক মুকুল, অ্যাড. রনজিত দাশ, মাহবুবুর রহমান চৌধুরী, কাজী মোস্তাক আহমদ শামীম, অ্যাড. সুলতানুল আলম, এ টি এম জিয়া উদ্দিন চৌধুরী, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. নজিবুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল কর, জেলা যুবলীগের সভাপতি সোহেল আহমদ বাহাদুর, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম সিকদার, সাধারণ সম্পাদক শফিউল্লাহ আনসারী, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হামিদা তাহের, যুব মহিলা লীগের সভাপতি আয়েশা সিরাজ, সাধারণ সম্পাদক তাহমিনা চৌধুরী লুনা, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এস এম সাদ্দাম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মারুফ আদনান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- জেলা আওয়ামী লীগ নেতা জাফর আলম চৌধুরী, সাবেক সাংসদ আবদুর রহমান বদি, খোরশেদ আলম কুতুবী, ইউনুছ বাঙালি, ইঞ্জিনিয়ার বদিউল আলম, অ্যাড. আয়াছুর রহমান, হেলাল উদ্দিন কবির, অ্যাড. তাপস রক্ষিত, মকসুদ মিয়া, মিজানুর রহমান, শাহেনা আক্তার পাখি, রেবেকা সুলতানা আইরিনসহ আওয়ামী অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এর আগে, সকালে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে কোরআন খতম, দোয়া মাহফিল, মসজিদ, মন্দির ও গির্জায় বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও শত শত বেলুন উড়িয়ে ও আতশবাজি উৎসবের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন পালন করেছে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ।

এদিকে, বেলা ১১টার দিকে হেলিকপ্টারযোগে কক্সবাজারের মহেশখালীর মাতারবাড়ি কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন ও নিরাপত্তা বিষয়ক আলোচনা সভায় যোগ দেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

কাঠের গুঁড়া ও বিষাক্ত কেমিক্যালে হচ্ছে ‘শ্রীমঙ্গলের চা পাতা’

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৮:০৯

নিম্নমানের চা পাতার সঙ্গে কাঠের গুঁড়া ও বিষাক্ত কেমিক্যাল মিশিয়ে ‘শ্রীমঙ্গলের বিখ্যাত চা পাতা’ তৈরি করা হচ্ছে। এই চা পাতা কিনে ঠকছেন দেশ-বিদেশ থেকে আসা পর্যটকরা। এতে বিপাকে পড়েছেন প্রকৃত চা ব্যবসায়ীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শ্রীমঙ্গল উপজেলায় একটি চক্র চা গাছের পরিত্যক্ত শুকনো পাতা, অন্যান্য গাছের পাতা, কাঠের গুঁড়া ও চা কারখানার ময়লা সংগ্রহ করে। এসব উপকরণের সঙ্গে কেমিক্যাল মিশিয়ে বিষাক্ত চা পাতা তৈরি করা হয়। ওই চা শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর।

এ অবস্থায় ভেজাল চা পাতার ব্যবসায়ীদের ধরতে শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত সিন্দুরখান ইউনিয়নের ভারতীয় সীমান্তবর্তী ১৯৪৫ পিলার এম সংলগ্ন সিক্কা গ্রামে অভিযান চালান ৫৫ বিজিবির সদস্যরা। অভিযানে বিপুল পরিমাণ ভেজাল চা পাতা উদ্ধার হয়।

শ্রীমঙ্গল ৫৫-বিজিবির অধিনায়ক এস এন এম সামীউন্নবী চৌধুরী বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সীমান্তবর্তী সিক্কা গ্রামের মৃত আব্দুল করিমের ছেলে মো. নুরু মিয়া ও মৃত আব্দুল বারীর ছেলে আব্দুর রহিম এবং একই গ্রামের আব্দুল মজিদের বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ পরিত্যক্ত চা পাতা উদ্ধার করা হয়। তারা দীর্ঘদিন ধরে ভেজাল চা পাতা দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করছিলেন। অভিযানের সময় বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে ওই চক্রের সদস্যরা পালিয়ে যান।

৫৫ বিজিবির সহকারী পরিচালক মো. নাসির উদ্দিন চৌধুরী বলেন, পচা পাতা, চা পাতার গুঁড়া ও কয়লার গুঁড়াসহ বিভিন্ন ক্ষতিকর কেমিক্যাল মিশিয়ে চা পাতা তৈরি করা হয়। এসব চা পাতা হকার ও দেশের বিভিন্ন এলাকার কিছু চা ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করা হচ্ছে।

শ্রীমঙ্গলের ফিনলে টি কোম্পানির পরিবেশক ফাহিম এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর কারণে স্বনামধন্য কোম্পানির প্যাকেটজাত ফিনলে চাসহ বিভিন্ন চা বাগানের মানসম্মত চা বিক্রি করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। ক্রেতারা ভেজাল চা পাতা কিনে প্রতারিত হওয়ার কারণে দ্বিতীয়বার চা কিনতে দ্বিধা করেন।

উল্লেখ্য, গত ২৭ জুন শ্রীমঙ্গল সেক্টরের নিয়ন্ত্রণাধীন ৫৫ বিজিবির সদস্যরা উপজেলার সিন্দুরখান ইউনিয়নের হামিদপুরের মৃত ছাবু মিয়ার ছেলে ভুটু মিয়ার বাড়িতে ও একই গ্রামের আবু ছায়েদ মিয়ার ছেলে সুহেল মিয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ছোট-বড় ২৪টি বস্তায় প্রায় ৫০০ কেজি ভেজাল চা ও ২০০ কেজি কাঠের গুঁড়া জব্দ করেছিলেন।

/টিটি/

সম্পর্কিত

ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী বদলালেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি

ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী বদলালেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি

২৬ বই-লিফলেটসহ শিবিরের ২ নেতা আটক

২৬ বই-লিফলেটসহ শিবিরের ২ নেতা আটক

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৬

চুয়াডাঙ্গায় ৭৩ বস্তা ভেজাল টিএসপি সার জব্দ করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে সদর উপজেলার দত্তাইল এলাকায় একটি দোকানে অভিযান চালিয়ে এসব ভেজাল সার জব্দ করা হয়। এ সময় ওই দোকানি নয়ন আহমেদকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

নয়ন দত্তাইল গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে। 

জানা গেছে, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে দত্তাইল বাজারের নয়ন ট্রেডার্সে অভিযান চালায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর এবং সদর উপজেলা কৃষি বিভাগের যৌথ একটি দল। এ সময় ওই দোকান থেকে ভেজাল টিএসপি সার জব্দ করা হয়। 

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের চুয়াডাঙ্গা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সজল আহমেদ জানান, ঝিনাইদহের শৈলকুপা এলাকার জনৈক নাজমুলের কাছ থেকে এসব সার সংগ্রহ করেছেন নয়ন। এগুলো সংরক্ষণের দায়ে দোকান মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই সঙ্গে ভেজাল সার ধ্বংস ও দোকানের সার বিক্রির লাইসেন্স জব্দ করা হয়েছে।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৪

কুষ্টিয়ায় স্বর্ণ চোরাচালানের মামলায় নির্মল দত্ত (৬৪) নামে একজনকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সেই সঙ্গে তিন লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এই রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। দণ্ডপ্রাপ্ত নির্মল দত্ত কুষ্টিয়া শহরের আমলাপাড়া এলাকার মৃত মনিন্দ্র নাথ দত্তের ছেলে। 

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১ মার্চ বিকালে আমলাপাড়া এলাকার নুরুল ইসলাম লেনের বাসায় তল্লাশি করে সোনার বারসহ নির্মল দত্তকে গ্রেফতার করে র‍্যাব-১২। সে সময় তল্লাশি করে র‍্যাব তিনটি বড় ও আটটি ছোট স্বর্ণের বার উদ্ধার করে। উদ্ধার ওই স্বর্ণের ওজন ছিল ৩৮৭ দশমিক ৬৫ গ্রাম। 

এ ঘটনায় কুষ্টিয়া র‍্যাব-১২ বাদি হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় তার বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেন। পরে মামলার তদন্ত শেষে পুলিশ আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। তদন্ত শেষে ২০১৯ সালের ১৩ মার্চ অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। আদালত সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে ১৭ অক্টোবর রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পর দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি নির্মল দত্তকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকার পক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী বলেন, মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় নির্মল দত্তকে ১৪ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন বিচারক।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫২

বিশেষ ক্ষমতাসহ এ জাতীয় আইনের আওতায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে চিহ্নিত করে অনতিবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবির জানিয়েছেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারে বিভিন্ন মণ্ডপ-মন্দিরে হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত জায়গা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এই দাবি জানান।

রানা দাশগুপ্ত বলেন, বিভিন্ন জায়গায় হামলার মাধ্যমে তারা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে। তাদের উদ্দেশ্য হলো, দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করে মুক্তিযুদ্ধের দেশে যে উন্নয়ন হয়েছে, সেই উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করা। সেই সঙ্গে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি বিদেশে বিনষ্ট এবং এই জাতীয় হামলার মধ্য দিয়ে সংখ্যালঘুদের দেশত্যাগে বাধ্য করা তাদের উদ্দেশ্য।

এ সময় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ, আহতদের চিকিৎসা ব্যবস্থার জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানান তিনি।সেই সঙ্গে হামলার ঘটনার প্রতিবাদে আগামী ২৩ অক্টোবর সারাদেশে সকাল ৬টা থেকে ১২টা পর্যন্ত গণ-অনশন ও অবস্থান কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল ইসলামের পাঠানো এক বার্তায় জানানো হয়, চৌমুহনীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় ইসকনের পক্ষ থেকে প্রাপ্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তিনি জানান, হামলার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা করে এবং ইসকনের মামলায় ১৫ জনসহ মোট ৪৪ জনকে গ্রেফতার করে। অন্যান্য ঘটনায় মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩৩

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নার্সরা। সেই সঙ্গে হাসপাতালের পরিচালককে অবরুদ্ধ করে আগামী সাত দিনের মধ্যে প্রণোদনার টাকা না দিলে কর্মবিরতিতে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তারা। স্বাস্থ্যসেবা বন্ধ রেখে কর্মসূচি পালন করায় চিকিৎসাবঞ্চিত হয়েছেন রোগীরা।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত আড়াই ঘণ্টা এ কর্মসূচি পালন করেন নার্সরা। এর আগে একই দাবিতে বিক্ষোভ করেছিলেন তারা।

আন্দোলনরত নার্সদের নেত্রী আফরোজা আখতার বলেন, সারাদেশের মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফ্রন্টলাইনার হিসেবে নার্স, ওয়ার্ডবয়সহ স্বাস্থ্যকর্মীরা করোনাকালীন প্রণোদনা পেলেও রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক প্রায় এক বছর ধরে নানা অজুহাতে প্রণোদনা দিচ্ছেন না।

তিনি বলেন, পরিচালক মনে হয় নিজের টাকা দেবেন। করোনাকালীন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রোগীদের সেবা করতে গিয়ে অনেক নার্স জীবন দিয়েছেন, করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। অথচ আমাদের প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে না। পরিচালকের সঙ্গে এর আগে কয়েকবার দেখা করে আমাদের দাবি উত্থাপন করেছি। প্রণোদনা দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছি। শুধু আশ্বাস দিয়েছেন, কোনও পদক্ষেপ নেননি। এ জন্য বিক্ষোভ করে পরিচালকের কার্যালয় ঘেরাও করেছি আমরা।

হাসপাতালের পরিচালক ডা. রেজাউল ইসলাম বলেন, হাসপাতালে ২৩১ নার্সের মধ্যে যারা করোনাকালে দায়িত্বরত ছিলেন, তারাই প্রণোদনা পাবেন। প্রণোদনা ও ভাতাসহ যাবতীয় বকেয়া পরিশোধের চেষ্টা করছি। কবে নাগাদ তারা প্রণোদনা পাবেন জানতে চাইলে নিশ্চিত করে বলতে পারেননি ডা. রেজাউল।

/এএম/

সম্পর্কিত

পঞ্চগড়ে চায়ের অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনা

পঞ্চগড়ে চায়ের অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনা

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার আজ থেকেই কার্যকর

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার আজ থেকেই কার্যকর

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

মুহিবুল্লাহ হত্যা: বান্দরবানে রোহিঙ্গা যুবক আটক

মুহিবুল্লাহ হত্যা: বান্দরবানে রোহিঙ্গা যুবক আটক

কুমিল্লার সেই ভিডিও আমাদের কাছে আছে: হাছান মাহমুদ

কুমিল্লার সেই ভিডিও আমাদের কাছে আছে: হাছান মাহমুদ

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

পেঁয়াজ আমদানি নিয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠক

পেঁয়াজ আমদানি নিয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠক

‘ঘটনা ঘটান আপনারা আর বলেন বিএনপির হাত আছে’

‘ঘটনা ঘটান আপনারা আর বলেন বিএনপির হাত আছে’

সর্বশেষ

‘তুরস্কের কাছ থেকে ড্রোন কিনতে আগ্রহী যুক্তরাজ্য’

‘তুরস্কের কাছ থেকে ড্রোন কিনতে আগ্রহী যুক্তরাজ্য’

টুর্নামেন্টের প্রথম ফিফটি পিএনজি অধিনায়কের 

টুর্নামেন্টের প্রথম ফিফটি পিএনজি অধিনায়কের 

নিজের দেহকে ঢাল বানিয়ে শিলাবৃষ্টি থেকে গাড়ি রক্ষার চেষ্টা

নিজের দেহকে ঢাল বানিয়ে শিলাবৃষ্টি থেকে গাড়ি রক্ষার চেষ্টা

ইউএনওদের জন্য কেনা হচ্ছে ৫০টি পাজেরো জিপ

ইউএনওদের জন্য কেনা হচ্ছে ৫০টি পাজেরো জিপ

শম্পা রেজার গান ‘দেখলে ছবি পাগল হবি’!

শম্পা রেজার গান ‘দেখলে ছবি পাগল হবি’!

© 2021 Bangla Tribune