X
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

১৯৭৩ সালেও দ্বিতীয়বারের মতো জাতিসংঘভুক্তিতে চীনের আপত্তি

আপডেট : ০৩ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ৩ অক্টোবরের ঘটনা।)

 

১৯৭২-এর পর ১৯৭৩ সালেও বাংলাদেশের জাতিসংঘভুক্তির বিরোধিতা করে চীন। জাতিসংঘে বাংলাদেশের অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে জাতিসংঘের সংশ্লিষ্ট প্রস্তাবসমূহ হুবহু বাস্তবায়নের আগে বিবেচনা করা যায় না। চীনের সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী চিয়াও কুয়ান হুয়া জাতিসংঘে একথা বলেন।

সাধারণ পরিষদের ভাষণে ১৯৭১ সালের যুদ্ধে সৃষ্ট সমস্যাগুলোর সমাধানের ব্যাপারে সাম্প্রতিক দিল্লিচুক্তিকেও তিনি স্বাগত জানান। তিনি অভিযোগ করেন, সোভিয়েত ইউনিয়ন অতীতের আবর্জনার স্তূপ থেকে এশিয়ার জন্য যৌথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা বেছে নিয়েছে। এ ব্যাপারে ১৯৫৪ সালে ইন্দোচীন যুদ্ধের পর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া চুক্তি সংস্থা গঠনের তাৎপর্যের বিষয়ে উল্লেখ করেন চিয়াও।

দৈনিক বাংলা, ৪ অক্টোবর ১৯৭৩

চিয়াও বলেন, এটা বোঝা মুশকিল- কেন সোভিয়েত ইউনিয়ন এশিয়ার যৌথ নিরাপত্তার ব্যাপারে এত উদ্বিগ্ন। তিনি বলেন, সোভিয়েত যদি আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে সত্যিকার অর্থে উত্তেজনা প্রশমনে উদ্যোগী হয়ে থাকে তবে চেকোস্লোভিয়া ও মঙ্গোলীয় গণপ্রজাতন্ত্র হতে সেনাবাহিনী প্রত্যাহার করে অথবা জাপানকে উত্তর দিকের চারটি দ্বীপ প্রদান করে আন্তরিকতা প্রমাণ করা উচিত।

কুয়ান হুয়া বলেন, সোভিয়েত ইউনিয়ন যদি সত্যিকার অর্থে উন্নয়নশীল দেশসমূহের বন্ধু হয়ে থাকে তা হলে তাদের খোলাখুলিভাবে ঘোষণা করা উচিৎ যে বিদেশি হামলা প্রতিহত করতে তারা বিনামূল্যে সামরিক সাহায্য প্রদান করবে। সামরিক বাজেট শতকরা ৮০ ভাগ করার সোভিয়েত পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রস্তাবও প্রত্যাখ্যান করেন তিনি। চিয়াও উল্লেখ করেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রীর সময় থেকে এই প্রস্তাব চলে আসছে।

 

মৈত্রী সমিতির সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর সাক্ষাৎ

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশ ও সোভিয়েত ইউনিয়নের মধ্যে বন্ধুত্ব আরও সুদৃঢ় করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। বঙ্গবন্ধু দেশব্যাপী বাংলাদেশ মৈত্রী সমিতির কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাতে এই আকাঙ্ক্ষা প্রকাশ করেন। ১৯৭৩ সালের এদিন বাংলাদেশ সোভিয়েত মৈত্রী সমিতির সভানেত্রী বেগম সুফিয়া কামাল ও সাধারণ সম্পাদকসহ অন্যান্য কর্মকর্তা গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করলে বঙ্গবন্ধু এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সমিতির এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।

১৪ জন প্রতিমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ

এদিন বঙ্গভবনে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে ১৪ জন প্রতিমন্ত্রী শপথ গ্রহণ করেন। প্রতিমন্ত্রীদের মধ্যে জাতীয় সংসদের ১৫ জন সদস্যের মধ্যে থেকে দুজন নারীকে রাখা হয়। তারা হচ্ছেন বদরুন্নেসা আহমেদ এবং নূরজাহান মুরশিদ। রাষ্ট্রপতি বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরী তাদের শপথ বাক্য পাঠ করান। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মন্ত্রিপরিষদের সদস্যবৃন্দ ও উচ্চপদস্থ সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখযোগ্য যে, দেশ স্বাধীন হওয়ার পর এই প্রথম নারী সদস্য মন্ত্রিসভায় অন্তর্ভুক্ত হলো।

দুই নারীমন্ত্রী ছাড়া বাকিরা হচ্ছেন আব্দুল মোমেন, আব্দুল মোমিন তালুকদার, দেওয়ান ফরিদ গাজী, অধ্যাপক নূরুল ইসলাম চৌধুরী, ব্যারিস্টার আমিরুল ইসলাম, তাহের উদ্দিন ঠাকুর, মোসলেম উদ্দিন খান, নজরুল ইসলাম মঞ্জু, ওবায়দুর রহমান, শাহজাদা আব্দুল মালেক খান, ক্ষিতীশ চন্দ্র মন্ডল ও রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ। এদিকে শপথ গ্রহণের পরপরই নতুন মন্ত্রীরা বঙ্গভবন থেকে সরাসরি পিজি হাসপাতালের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যান। জিল্লুর রহমান জন্ডিসে আক্রান্ত হয়ে সেসময় হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন।

/এফএ/

সম্পর্কিত

তিয়াত্তরের ১৬ ডিসেম্বর: পালন হবে ‘জাতীয় দিবস’

তিয়াত্তরের ১৬ ডিসেম্বর: পালন হবে ‘জাতীয় দিবস’

বঙ্গবন্ধু ও ৪ নেতার খুনিকে রাষ্ট্রদূত বানান খালেদা জিয়া: জয় 

বঙ্গবন্ধু ও ৪ নেতার খুনিকে রাষ্ট্রদূত বানান খালেদা জিয়া: জয় 

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

তিয়াত্তরের ১৬ ডিসেম্বর: পালন হবে ‘জাতীয় দিবস’

তিয়াত্তরের ১৬ ডিসেম্বর: পালন হবে ‘জাতীয় দিবস’

বঙ্গবন্ধু ও ৪ নেতার খুনিকে রাষ্ট্রদূত বানান খালেদা জিয়া: জয় 

বঙ্গবন্ধু ও ৪ নেতার খুনিকে রাষ্ট্রদূত বানান খালেদা জিয়া: জয় 

শেষ হলো সংসদের পঞ্চদশ অধিবেশন

শেষ হলো সংসদের পঞ্চদশ অধিবেশন

সবাই মিলেই জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ করেছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সবাই মিলেই জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ করেছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

খালেদা জিয়া সরকারের কাস্টডিতে নেই: আইনমন্ত্রী

খালেদা জিয়া সরকারের কাস্টডিতে নেই: আইনমন্ত্রী

নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে বঙ্গবন্ধুর ছবি সংযোজনে হাইকোর্টের রুল

নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে বঙ্গবন্ধুর ছবি সংযোজনে হাইকোর্টের রুল

নিরাপত্তা ও বাবুর্চি ভাতা পাবেন বিচারপতিরা

সংসদে বিল পাসনিরাপত্তা ও বাবুর্চি ভাতা পাবেন বিচারপতিরা

সর্বশেষ

তিয়াত্তরের ১৬ ডিসেম্বর: পালন হবে ‘জাতীয় দিবস’

তিয়াত্তরের ১৬ ডিসেম্বর: পালন হবে ‘জাতীয় দিবস’

অবিলম্বে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে: দ. আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট

অবিলম্বে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে: দ. আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট

৩ বছরে তৃতীয়বার লটারি জয়

৩ বছরে তৃতীয়বার লটারি জয়

যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ‘গুরুতর’ আলোচনা চায় ফ্রান্স

যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ‘গুরুতর’ আলোচনা চায় ফ্রান্স

এক জেলার ১৭ ইউপির ১৫টিতেই নৌকার পরাজয় 

এক জেলার ১৭ ইউপির ১৫টিতেই নৌকার পরাজয় 

© 2021 Bangla Tribune