X
রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

বঙ্গবন্ধু আরও দায়িত্ব নিলেন

আপডেট : ০৪ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ৪ অক্টোবরের ঘটনা।)

 

১৯৭৩ সালের এই দিন নতুন ১৪ প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব নির্ধারণ করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মন্ত্রিসভার দফতর সামান্য রদবদল করার ঘোষণা দেন। বর্তমান ব্যবস্থায় প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রিপরিষদ, প্রাতিষ্ঠানিক দফতর, প্রতিরক্ষা ও পরিকল্পনা ছাড়াও নিজে তথ্য ও বেতার এবং ত্রাণ ও পুনর্বাসন দফতরের দায়িত্বভার গ্রহণ করবেন বলে ঘোষণা দেন।

প্রধানমন্ত্রী প্রতিমন্ত্রীদের দফতর বণ্টন বিষয়ক ঘোষণাও করেন। প্রতিমন্ত্রীরা বিভিন্ন দফতরের মন্ত্রীর সঙ্গে যুক্ত থাকবেন। প্রতিমন্ত্রীরা তাদের দায়িত্ব পালন করবেন বলে ঘোষণা করা হয়। তাহেরউদ্দিন ঠাকুর হবেন তথ্য ও বেতার দফতরের প্রতিমন্ত্রী। আবদুল আজিজকে ডাক তার ও টেলিফোন দফতরের দায়িত্ব দেওয়া হয়।

দৈনিক বাংলা, ৫ অক্টোবর ১৯৭৩

আটকে পড়াদের পুনর্বাসনে ব্যাপক সহায়তার আশ্বাস

পাকিস্তান থেকে বাঙালিদের প্রত্যাবর্তন এবং পরে স্বদেশে পুনর্বাসনের বিরাট কাজে আন্তর্জাতিক সাহায্যের জন্য বাংলাদেশ সরকারের আবেদনে জাতিসংঘ সাড়া দিয়েছে। তারা বিশাল সহায়তা দান করবে বলে আশা করা হয়। এক্ষেত্রে বাংলাদেশের চাহিদা যাচাই করার উদ্দেশ্যে জাতিসংঘের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল রবার্ট জ্যাকসনের শিগগিরই ঢাকা আসার কথা।

অন্যদিকে, আনরব প্রধান ক্রালিস লা কস্টে ত্রাণ ও পুনর্বাসনমন্ত্রী সোহরাব হোসেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে পুনর্বাসন কর্মসূচি সম্পর্কে আলোচনা করেন। ব্যাপকভিত্তিতে আন্তর্জাতিক সাহায্যের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করে তিনি উল্লেখ করেন, প্রত্যাবর্তনকারী বাঙালিদের অনেকেই নিঃস্ব অবস্থায় স্বদেশে ফিরে আসছে। তিনি সব শোনেন ও মন্ত্রীকে সম্ভাব্য সকল প্রকারের সাহায্যের আশ্বাস দেন।

এদিকে পাকিস্তান থেকে বাঙালি এবং বাংলাদেশ থেকে পাকিস্তানের সদস্য পৌঁছে দেওয়ার জন্য জাতিসংঘের উদ্বাস্তু হাইকমিশনার আরও একটি উড়োজাহাজ ভাড়া করেছে। পরে এই বিমানযোগে লোক বিনিময় শুরু হবে। সোভিয়েত থেকে বিমান পাওয়ার পর এ কাজ আরও ত্বরান্বিত হবে বলে জানানো হয়।

ডেইলি অবজারভার, ৫ অক্টোবর ১৯৭৩

রক্ষীবাহিনীর সঙ্গে গোলাগুলিতে আটজন নিহত

১৯৭৩ সালের এই দিন রাতে শাহজাদপুর থানা এলাকায় রক্ষীবাহিনীর সঙ্গে গোলাগুলিতে ৮ জন সশস্ত্র ব্যক্তি নিহত হয় বলে খবরে প্রকাশ হয়। এদের মধ্যে সাতজন ঘটনাস্থলে নিহত হয়। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সিরাজগঞ্জে নিয়ে আসার সময় আরেকজন মারা যায়।

ঘটনার বিবরণে প্রকাশ- সশস্ত্র ব্যক্তিদের সন্ধান গোপনসূত্রে পেয়ে রক্ষীবাহিনী তাদের গমন পদ্ধতি আত্মগোপনে থেকে দেখে। গভীর রাতে যখন নৌকা বেয়ে স্থান অতিক্রম করছিল তখন সশস্ত্র ব্যক্তিরা গুলি ছুড়লে রক্ষীবাহিনীও পাল্টা গুলি চালায় এবং সাতজন ঘটনাস্থলে মারা যায়।

 

রাজনৈতিক কারণে কাউকে আটক রাখা হয়নি

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মালেক উকিল এদিন সুস্পষ্টভাবে বলেন যে, রাজনৈতিক কারণে কাউকে আটক রাখা হয়নি। সন্ধ্যায় রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন বিভিন্ন সংবাদপত্রের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে আলোচনায় মিলিত হন তিনি।

এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আটক সকলের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ রয়েছে। ৩০ হাজার ‘জাসদকর্মী’ আটক করেছে বলে কোনও কোনও রাজনৈতিক মহল থেকে যে অভিযোগ উত্থাপন করা হচ্ছে মন্ত্রী সেটাকে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিহীত করেন। তিনি আশ্বাস দিয়ে বলেন, কাউকে আটক রাখা হবে না এবং আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ ছাড়া কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হবে না। মন্ত্রী সম্পাদকদের সাথে প্রায় তিন ঘণ্টা জাতীয় সমস্যা ও দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতিসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলোচনা করেন।

 

আরও ৮৪০ জন পাকিস্তানি যুদ্ধবন্দির স্বদেশ যাত্রা

বন্দি বিনিমযয়ের দ্বিতীয় পর্যায় শেষে ভারত সকালে ১৪০ জন যুদ্ধাপরাধী ও অন্তরীণ বেসামরিক নাগরিককে পাকিস্তান কর্তৃপক্ষের নিকট অর্পণ করে। এর মধ্যে রয়েছে ২ জন পাকিস্তানি সামরিক অফিসার, ১৯৯ জন জুনিয়র কমিশন্ড অফিসার, ২৪৪ জন অন্যান্য পর্যায়ের সামরিক ব্যক্তি, ৩৯৯ জন বেসামরিক নাগরিক।

 

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

‘জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর উত্থাপিত প্রস্তাব বিশ্বে শান্তি নিশ্চিত করতে পারে’

‘জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর উত্থাপিত প্রস্তাব বিশ্বে শান্তি নিশ্চিত করতে পারে’

এখনও পিছিয়ে টিকায়

এখনও পিছিয়ে টিকায়

বঙ্গবন্ধুর নির্দেশনায় তিয়াত্তরে জাতীয় দিবস পালনে ব্যাপক আয়োজন

বঙ্গবন্ধুর নির্দেশনায় তিয়াত্তরে জাতীয় দিবস পালনে ব্যাপক আয়োজন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

‘জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর উত্থাপিত প্রস্তাব বিশ্বে শান্তি নিশ্চিত করতে পারে’

‘জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর উত্থাপিত প্রস্তাব বিশ্বে শান্তি নিশ্চিত করতে পারে’

এখনও পিছিয়ে টিকায়

এখনও পিছিয়ে টিকায়

বঙ্গবন্ধুর নির্দেশনায় তিয়াত্তরে জাতীয় দিবস পালনে ব্যাপক আয়োজন

বঙ্গবন্ধুর নির্দেশনায় তিয়াত্তরে জাতীয় দিবস পালনে ব্যাপক আয়োজন

প্রায় ৯ লাখ স্কুল শিক্ষার্থী প্রথম ডোজের আওতায়

প্রায় ৯ লাখ স্কুল শিক্ষার্থী প্রথম ডোজের আওতায়

সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছে সাত দেশের সামরিক দল

সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছে সাত দেশের সামরিক দল

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর নিয়ে শ্রিংলার সঙ্গে আলোচনা হতে পারে

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর নিয়ে শ্রিংলার সঙ্গে আলোচনা হতে পারে

এলডিসি’র সুবিধা অব্যাহত রাখার ওপর জোর দিয়েছে বাংলাদেশ

এলডিসি’র সুবিধা অব্যাহত রাখার ওপর জোর দিয়েছে বাংলাদেশ

কমিউনিস্ট পার্টির কংগ্রেসের বক্তৃতায় যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

কমিউনিস্ট পার্টির কংগ্রেসের বক্তৃতায় যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

সর্বশেষ

জাপানি দুই শিশুকে নিয়ে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে মায়ের আপিল

জাপানি দুই শিশুকে নিয়ে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে মায়ের আপিল

ভোলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ জন নিহত

ভোলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ জন নিহত

আগের অবস্থানে গভীর নিম্নচাপ, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি 

আগের অবস্থানে গভীর নিম্নচাপ, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি 

বিদ্রোহী ভেবে ৬ বেসামরিককে গুলি করে হত্যার পর নাগাল্যান্ডে উত্তেজনা

বিদ্রোহী ভেবে ৬ বেসামরিককে গুলি করে হত্যার পর নাগাল্যান্ডে উত্তেজনা

এলএনজি টার্মিনাল অচল, গ্যাসের ঘাটতি টের পাওয়া যাবে কিছুদিন পরই

এলএনজি টার্মিনাল অচল, গ্যাসের ঘাটতি টের পাওয়া যাবে কিছুদিন পরই

© 2021 Bangla Tribune