X
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

আরব ভাইদের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু

আপডেট : ০৭ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ৭ অক্টোবরের ঘটনা।)

 

১৯৭৩ সালের অক্টোবরের শুরুতে যুদ্ধ শুরু হলে বাংলাদেশের সকল স্তরের মানুষ ইসরায়েলের আগ্রাসী হামলার নিন্দা করে আরবদের ন্যায্য অধিকারের প্রতি সমর্থন জ্ঞাপন করে। দেশের বিভিন্ন স্থানে আরবদের বিজয় কামনায় বিশেষ মোনাজাত হয়। প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মিসর ও সিরিয়ার ওপর আক্রমণের তীব্র নিন্দা জানান। প্রধানমন্ত্রী মিসরের প্রেসিডেন্ট আনোয়ার সাদাত এবং সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট হাফিজ আল আসাদ, এহং গাদ্দাফিকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে যুদ্ধ করার জন্য বাংলাদেশ থেকে গেরিলা পাঠানোর প্রস্তাব দেন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শীর্ষ ছয়জনও মিসর ও সিরিয়ার ওপর আক্রমণের তীব্র নিন্দা জানান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী কামাল হোসেন আরব দেশগুলোয় ইসরায়েলি হামলার নিন্দা করেন এবং পরিস্থিতির ন্যায়সঙ্গত সমাধানের আহ্বান জানান। তিনি আরব ভূমি প্রত্যার্পণ এবং ফিলিস্তিনিদের আত্মনিয়ন্ত্রণাধিকারের স্বীকৃতি প্রদানের আহ্বান জানান।

পূর্ব জার্মানির জাতীয় দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী ভাষণে তিনি এ কথা বলেন।

দৈনিক বাংলা, ৮ অক্টোবর ১৯৭৩

ইসরায়েলের ভাষ্য

ইসরায়েলি বিমানবাহিনী মিসর ও সিরিয়া অভ্যন্তরে প্রচণ্ড আক্রমণ চালায় এবং সিরিয়ার গোলান মালভূমি থেকে বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র আক্রমণ প্রতিহত করে বলে ইসরায়েলের সামরিক মুখপাত্র জানান। পূর্ব দিক থেকে হামলা শুরু করেছে বলে তারা দাবি করে। সামরিক মুখপাত্র বলেন, মিসর ও সিরিয়ার জনগণ ইসরায়েলের ২৩ জনকে আটক করে। মুখপাত্র দাবি করেন, একটি হেলিকপ্টার অবতরণ করতে বাধ্য করা হয় এবং তিনটি গানবোট যখন অতিক্রম করছিল তখনই বিমান ও নৌবাহিনী তাদের ডুবিয়ে দিয়েছে।

 

নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক আয়োজন

বিবিসির খবরে প্রকাশ লন্ডনে আলোচনারত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী এডওয়ার্ড হিথ পশ্চিম জার্মান চ্যান্সেলর ব্রান্ড নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক অনুষ্ঠানের আহ্বান জানান। গভীর রাতে প্রচারিত বিবিসির জাতিসংঘ প্রতিনিধি ভাষ্যে বলা হয়, নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক অনুষ্ঠানে এ পর্যন্ত কোনও মহল থেকে আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব আসেনি।

রিপোর্টে বলা হয়েছে, মহাসচিব নিউ ইয়র্কে তাদের অফিসে অবস্থান করছেন এবং মধ্যপ্রাচ্যের সর্বশেষ পরিস্থিতি সম্পর্কে অবহিত আছেন। সোভিয়েত ইউনিয়ন ও চীনের বিরোধিতার কারণে নিরাপত্তা পরিষদের পক্ষে মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব নাকচ হয়ে গেছে বলে জানা যায়। এ ব্যাপারে নিরাপত্তা পরিষদের কিছু করা উচিত কিনা তা নিয়ে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট নিরাপত্তা পরিষদের আলোচনা চলছে।

গভীর রাতে বিবিসির খবরে বলা হয়, মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধ সম্পর্কে ইসরায়েল ও মিসরে পরস্পরবিরোধী বিভ্রান্তিকর খবর পরিবেশন হচ্ছে। ইসরায়েল বলছে তারা সুয়েজ খালের পূর্বতীরে মিসরীয় বাহিনীকে কাবু করেছে। অপরদিকে মিসর দাবি করছে তারা পূর্ব তীরে প্রবেশ করেছে।

ডেইলি অবজারভার, ৮ অক্টোবর ১৯৭৩

অসুস্থ জিল্লুরের পাশে বঙ্গবন্ধু ও অন্য নেতারা

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এদিন পিজি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমানকে ও একই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী আব্দুল মান্নানের কাছে কিছুক্ষণ অবস্থান করেন। তাঁর সঙ্গে ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মালেক উকিল, ভূমিমন্ত্রী আব্দুর রব সেরনিয়াবাত, জাহাজ চলাচল বিষয়কমন্ত্রী জেনারেল এম এ জি ওসমানী। জন্ডিসে আক্রান্ত জিল্লুর রহমানের অবস্থা বর্তমানে উন্নতির দিকে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়।

 

লোক বিনিময় কর্মসূচিতে ভালো সাড়া পাওয়া গেছে

বাংলাদেশ-সংক্রান্ত জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল ওয়াল্ডহেইম এইদিন বলেন যে, দিল্লিচুক্তি মোতাবেক বাঙালি ও পাকিস্তানের প্রত্যাবর্তন ত্বরান্বিত করার জন্য জাতিসংঘের সেক্রেটারি জেনারেলের সাহায্যের আবেদনের ভালো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। তিনদিনের সফরে ঢাকা আগমনের পর তেজগাঁও বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, অস্ট্রেলিয়া ও নরওয়ে এ পর্যন্ত যথাক্রমে ৫ লক্ষ ও এক লক্ষ ৭৯ হাজার ৯১১ টাকা দান করেছে। আবু সাঈদ চৌধুরী এবং প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। বিমানবন্দরে পররাষ্ট্র দফতরের ডিরেক্টর জেনারেল সুভাষ ধর ও বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিরা তাঁকে অভ্যর্থনা জানান। ঢাকা আসার পর তারা কামাল হোসেনের সঙ্গে তার বাসভবনে সাক্ষাৎ করেন।

 

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

বাংলাদেশ থেকে ডাক্তার-নার্স নিতে চায় মালদ্বীপ

বাংলাদেশ থেকে ডাক্তার-নার্স নিতে চায় মালদ্বীপ

সাত ধাপ পেরিয়ে কনস্টেবল পদে তিন হাজার জনের নিয়োগ চূড়ান্ত

সাত ধাপ পেরিয়ে কনস্টেবল পদে তিন হাজার জনের নিয়োগ চূড়ান্ত

আতঙ্কের নাম ডাম্প ট্রাক

আতঙ্কের নাম ডাম্প ট্রাক

‘ক্র্যাক প্লাটুন’ বীরদের সংবর্ধনা দিলো পর্যটন মন্ত্রণালয়

‘ক্র্যাক প্লাটুন’ বীরদের সংবর্ধনা দিলো পর্যটন মন্ত্রণালয়

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

বাংলাদেশ থেকে ডাক্তার-নার্স নিতে চায় মালদ্বীপ

বাংলাদেশ থেকে ডাক্তার-নার্স নিতে চায় মালদ্বীপ

সাত ধাপ পেরিয়ে কনস্টেবল পদে তিন হাজার জনের নিয়োগ চূড়ান্ত

সাত ধাপ পেরিয়ে কনস্টেবল পদে তিন হাজার জনের নিয়োগ চূড়ান্ত

আতঙ্কের নাম ডাম্প ট্রাক

আতঙ্কের নাম ডাম্প ট্রাক

‘ক্র্যাক প্লাটুন’ বীরদের সংবর্ধনা দিলো পর্যটন মন্ত্রণালয়

‘ক্র্যাক প্লাটুন’ বীরদের সংবর্ধনা দিলো পর্যটন মন্ত্রণালয়

ঝুলে রইলো হাফ ভাড়ার সিদ্ধান্ত

ঝুলে রইলো হাফ ভাড়ার সিদ্ধান্ত

ঢাকাসহ সারাদেশে আবারও ভূমিকম্প

ঢাকাসহ সারাদেশে আবারও ভূমিকম্প

‘চট্টগ্রামের উন্নয়নের দায়িত্ব মেয়রকেই নিতে হবে’

‘চট্টগ্রামের উন্নয়নের দায়িত্ব মেয়রকেই নিতে হবে’

গোষ্ঠীগত ও জমিজমার বিরোধে নির্বাচনি সহিংসতা: সংসদে আইনমন্ত্রী

গোষ্ঠীগত ও জমিজমার বিরোধে নির্বাচনি সহিংসতা: সংসদে আইনমন্ত্রী

কারা বিদেশে টাকা পাচার করে জানি না: অর্থমন্ত্রী

কারা বিদেশে টাকা পাচার করে জানি না: অর্থমন্ত্রী

পঞ্চম ধাপে ৭০৭ ইউপি নির্বাচন ৫ জানুয়ারি

পঞ্চম ধাপে ৭০৭ ইউপি নির্বাচন ৫ জানুয়ারি

সর্বশেষ

নারায়ণগঞ্জে আগুনের ঘটনায় আরও একজনের মৃত্যু

নারায়ণগঞ্জে আগুনের ঘটনায় আরও একজনের মৃত্যু

শেষ মুহূর্তের দুই গোলে ভিয়ারিয়ালকে হারালো বার্সেলোনা

শেষ মুহূর্তের দুই গোলে ভিয়ারিয়ালকে হারালো বার্সেলোনা

৪০ টাকার বিনিময়ে বার্ষিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস

৪০ টাকার বিনিময়ে বার্ষিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস

ভোটের সরঞ্জাম নিয়ে কেন্দ্রে যাওয়ার পথে সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তার মৃত্যু

ভোটের সরঞ্জাম নিয়ে কেন্দ্রে যাওয়ার পথে সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তার মৃত্যু

মোবাইল নম্বর ব্লকলিস্টে রাখায় স্কুলছাত্রীকে হত্যাচেষ্টা, যুবক গ্রেফতার 

মোবাইল নম্বর ব্লকলিস্টে রাখায় স্কুলছাত্রীকে হত্যাচেষ্টা, যুবক গ্রেফতার 

© 2021 Bangla Tribune