X
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

প্রধানমন্ত্রী কাউকে ফিরিয়ে দেন না: পরিকল্পনামন্ত্রী

আপডেট : ০৯ অক্টোবর ২০২১, ২০:৫৩

প্রধানমন্ত্রী কাউকে ফিরিয়ে দেন না উল্লেখ করে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে অসংখ্যবার প্রকল্প নিয়ে গিয়েছি, তিনি ফিরিয়ে দেননি। সর্বশেষ একনেকেও তিনি নেত্রকোনার একটি প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছেন।

শনিবার (৯ অক্টোবর) অফিসার্স ক্লাবে বৃহত্তর ময়মনসিংহ সমন্বয় পরিষদ আয়োজিত ‘বার্ষিক সন্মেলন ২০২১’ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘ময়মনসিংহ নানা কারণে আমার কাছে স্মরণীয়। তখন প্রধানমন্ত্রী বিরোধী দলীয় নেতা, সফরে গেলেন ময়মনসিংহ। আমি সেখানকার ডিসি। আমাকে ওপর মহল থেকে ফোন করা হলো যে, সফরে যাচ্ছেন পাত্তা দিয়েন না। আমি সে কথা শুনলাম না। আমি তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেতা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভালোভাবেই প্রটোকল দিলাম। তিনিও বেশ খুশি হলেন। আমি সেখানেই তাকে বললাম যে, আমি আপনার সঙ্গে কাজ করতে চাই, আর  সেই স্থানটি হলো ময়মনসিংহ সার্কিট হাউজ।’

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘ময়মনসিংহ তথা সারা দেশের উন্নয়নের জন্য কাজ করতে হবে। আমরা নানা পরিকল্পনা নিচ্ছি। তবে আমাদের দক্ষ হতে হবে, পরিশ্রমী হতে হবে। বেশি বেশি কাজ করতে হবে। আমি বৃহত্তর ময়মনসিংহ সমন্বয় পরিষদের বৃহৎ পরিকল্পনার কথা শুনলাম, যতটুকু পারি আমি আপনাদের সহায়তা করবো।’

এ সময় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বৃহত্তর ময়মনসিংহ পরিষদের সমন্বয় পরিষদের চেয়ারম্যান মো.আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আমরা বৃহত্তর ময়মনসিংহবাসী আমাদের এই অঞ্চলের জন্য কাজ করবো, আমাদের সকলের উদ্দেশ্য একটাই— এই অঞ্চলের উন্নয়ন।’

 

/ইএইচএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

ফ্রান্সের প্রযুক্তিতে বদলাবে এয়ার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা

ফ্রান্সের প্রযুক্তিতে বদলাবে এয়ার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা

ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট করায় প্রাথমিকের শিক্ষক বরখাস্ত

ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট করায় প্রাথমিকের শিক্ষক বরখাস্ত

সবাই দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার অধিকারী: প্রধান বিচারপতি

সবাই দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার অধিকারী: প্রধান বিচারপতি

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

ফ্রান্সের প্রযুক্তিতে বদলাবে এয়ার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৮:২৮

১৬ বছর পর দেশের আকাশসীমা নিয়ন্ত্রণে অত্যাধুনিক রাডার কিনতে ফ্রান্সের থ্যালেস টেকনোলজির সঙ্গে চুক্তি করেছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। তবে এবার শুধু রাডার নয়, চুক্তির আওতায় এয়ার ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট আধুনিকায়নে ৯টি সিস্টেম যুক্ত হবে। ১৮ মাসে রাডার, ৩২ মাসের মধ্যে এয়ার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার পুরো কাজ সম্পন্ন করবে থ্যালেস। নির্মাণ করা হবে আধুনিক এটিসি টাওয়ারও।

২১ অক্টোবর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সিএনএস-এটিএম সিস্টেমসহ অত্যাধুনিক রাডার স্থাপনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ ও ফ্রান্সের রাডার প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান থ্যালাস এলএএস-এর মধ্যে আনুষ্ঠানিক চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের পক্ষে স্বাক্ষর করেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান এবং থ্যালেসের পক্ষে স্বাক্ষর করেন প্রতিষ্ঠানটির ভাইস চেয়ারম্যান নিকোলাস।  

চুক্তি প্রসঙ্গে বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান বলেন, ‘শুধু রাডার নয়, পুরো এয়ার ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট বদলে যাবে। প্রকল্পের আওতায় রাডার, এটিসি টাওয়ার,  কমিনিউকেশন, নেভিগেশন, সারভেইল্যান্সের জন্য আধুনিক এয়ার ট্রাফিক ম্যানেজমেন্টের যন্ত্রপাতি স্থাপন করা হবে। এর সঙ্গে যুক্ত কর্মীদের প্রশিক্ষণও দেওয়া হবে।’

জানা গেছে, হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এখন যে রাডার ব্যবহার হচ্ছে, সেটার কার্যক্ষমতা কমেছে। প্রায়ই বিকল হচ্ছে ওটা। আইনি লড়াই করে মিয়ানমার ও ভারতের কাছ থেকে বিশাল সমুদ্রসীমা জয়ের সাড়ে ৫ বছর পার হলেও আকাশসীমায় নিয়ন্ত্রণ নেই বাংলাদেশের। আমাদের আকাশসীমায় উড়ে যাওয়া উড়োজাহাজগুলো শনাক্ত করতে না পারায় কোনও চার্জ আদায় করতে পারছে না বেবিচক।

ভারত-মিয়ানমারের দখলে সমুদ্রের আকাশসীমা, ফিরে পেতে তৎপর বেবিচক

একইভাবে এসিটি টাওয়ারের সঙ্গে পাইলটদের কমিনিউকেশন, রানওয়ের নেভিগেশন ব্যবস্থা পুরাতন হওয়ায় প্রায়ই ত্রুটি দেখা দিচ্ছে। পুরনো যন্ত্রপাতি প্রায়ই বিকল হয়ে পড়ায় ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে কাজ করতে হয় এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলারদের। শনিবার দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত বন্ধ রাখতে হয় রাডারটির। কম জনবলে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে কাজ করতে গিয়ে মাত্রাতিরিক্ত চাপে থাকতে হয় এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলারদের।

মানসিক চাপে কন্ট্রোলাররা, ৩৭ বছর পর বদলাচ্ছে এটিসি ব্যবস্থাপনা

অন্যদিকে ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে টার্মিনাল ভবনের উত্তরে এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল টাওয়ার। উচ্চতা কম হওয়ায় টাওয়ার থেকে পুরো বিমানবন্দর দেখতে পারেন না কন্ট্রোলাররা।

চুক্তি সই অনুষ্ঠান

জানা গেছে, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের (পিপিপি) মাধ্যমে রাডার ক্রয়ের উদ্যোগ নিয়েছিল বেবিচক। এ প্রকল্পের আর্থিক প্রস্তাব ব্যয়বহুল ও অতিরঞ্জিত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বাতিল করে দেয় বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়।

যে কারণে সিভিল এভিয়েশনের পিপিপি’তে রাডার ক্রয়ের প্রস্তাব মন্ত্রণালয়ে বাতিল

১ হাজার ৭০০ কোটি টাকা ব্যয়ে করিম অ্যাসোসিয়েটস নামের একটি প্রতিষ্ঠান রাডার স্থাপনের চেষ্টা করলে সেটাও বাতিল হয়ে যায়। পরে সিদ্ধান্ত হয় ফ্রান্স ও বাংলাদেশ সরকারের মধ্যে সরাসরি (জিটুজি) ক্রয়চুক্তির আওতায় রাডার কেনা হবে। ৪ জানুয়ারি প্রতিষ্ঠানটির আর্থিক প্রস্তাব অনুমোদন করে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়।

রাডারসহ আসছে আধুনিক এয়ার ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম

চলতি বছরে ৮ জুন বেবিচকের কমিনিউকেশন, নেভিগেশন, সারভেইল্যান্স ও এয়ার ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট আধুনিকায়নে গৃহীত প্রকল্প সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি কর্তৃক অনুমোদিত হয়। এখন এ প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় হবে প্রায় ৭০০ কোটি টাকা।

জানা গেছে, বহুল প্রতীক্ষিত রাডার প্রকল্প বাস্তবায়নে কাজ করেছে বেবিচকের ফ্লাইট স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড রেগুলেশনস বিভাগ। 

আন্তর্জাতিক বেসামরিক বিমান চলাচল সংস্থার (আইকাও) সঙ্গে সমন্বয় করে প্রকল্পের কর্মপদ্ধতি ঠিক করা হয়েছে। সাপ্লাই ইনস্টলেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন অব মাল্টি মোড সারভেইল্যান্স সিস্টেম (রাডার, এডিএস-বি) এটিএস অ্যান্ড কমিউনিকেশন সিস্টেম শীর্ষক প্রকল্পের বাস্তবায়নের রূপরেখা প্রণয়ণ করেছেন বেবিচকের সদস্য (ফ্লাইট স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড রেগুলেশনস) গ্রুপ ক্যাপ্টেন চৌধুরী মো. জিয়াউল কবীর।

একটি আধুনিক রাডারসহ ৯ ধরনের যন্ত্রপাতি এবং সফটওয়্যার সল্যুশনসহ এয়ার ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম স্থাপন করবে ফ্রান্সের থ্যালেস টেকনোলজি। রাডার ছাড়াও এডিএসবি, ওয়াম সারভেইল্যান্স অব ইইজেড, এইচএফ ট্রান্সমিটার, থ্রিডি টাওয়ার সিমুলেটর, নাভায়েডস, কন্ট্রোলার্স রোস্টার ম্যানেজমেন্ট টুল ও বিজেড টুলস যুক্ত হবে।

 


থ্যালেস প্রতিনিধির সঙ্গে বেবিচকের সদস্য  গ্রুপ ক্যাপ্টেন চৌধুরী মো. জিয়াউল কবীর এটিসি কন্ট্রোলারদের জন্য ৪৫ মিটার লম্বা টাওয়ার নির্মাণ হবে। এখনকার টাওয়ারটি বিমানবন্দরের সিআইপি গেটের উত্তর পাশে অবস্থতি। নতুন টাওয়ার নির্মাণ হবে অভ্যন্তরীণ টার্মিনালের পার্কিং জোনে।

গ্রুপ ক্যাপ্টেন চৌধুরী মো. জিয়াউল কবীর বলেন, ‘নতুন প্রযুক্তি এলে বাংলাদেশের স্থল ও সমুদ্রসীমা কাভারেজ দেওয়া সম্ভব হবে। আইকাওর একটি গাইডলাইন আছে কীভাবে এয়ার ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট করতে হবে। সেসব অনুসরণ করে এ প্রকল্প বায়স্তবায়ন হবে। এতে আমরা আইকাওর পরবর্তী রেটিংয়ে ভালো অবস্থানে যেতে পারবো।’

এ প্রসঙ্গে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদৃঢ় নেতৃত্ব ও নির্দেশনায় দেশের এভিয়েশন খাতের উন্নয়নে এবং  নিরাপদ ও সুষ্ঠু বিমান চলাচল নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাজ চলছে। নতুন প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে বিমান পরিবহন অবকাঠামো যুগোপযোগী হবে এবং একইসঙ্গে নিরাপদ যাত্রীসেবাও সম্ভব হবে।’

/এফএ/

সম্পর্কিত

ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট করায় প্রাথমিকের শিক্ষক বরখাস্ত

ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট করায় প্রাথমিকের শিক্ষক বরখাস্ত

সবাই দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার অধিকারী: প্রধান বিচারপতি

সবাই দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার অধিকারী: প্রধান বিচারপতি

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

রাজধানীর সবুজবাগে স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৮:০৭

রাজধানীর সবুজবাগে আশরাফুল আলী বাবু (১৬) নামে এক স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে স্থানীয় বাগানবাড়ি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্র ছিল।

সবুজবাগ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রবীন্দ্রনাথ সরকার বলেন, গতকাল শুক্রবার রাত ১১টায় দক্ষিণ মাদারটেকের বাগানবাড়ির নিজ বাসা থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের (ঢামেক) মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

মৃতের বাবা ইলেকট্রিক মিস্ত্রি ফরিদ হোসেন বলেন, স্থানীয় একটি বাড়ির নির্মাণ শ্রমিকদের সঙ্গে বিরোধের বিচার চেয়ে গত মঙ্গলবার মারধরের শিকার হয় তার ছেলে। সে কারণে অভিমান করে তার ছেলে আত্মহত্যা করতে পারে।

মৃত আশরাফুল দুই বোন, এক ভাইয়ের মধ্যে সবার ছোট ছিল।

/এআইবি/আরটি/এমএস/

সম্পর্কিত

সেন্টমার্টিন থেকে ৩২ হাজার ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

সেন্টমার্টিন থেকে ৩২ হাজার ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

যাত্রাবাড়ীতে সড়ক দুর্ঘটনায় যুবকের মৃত্যু

যাত্রাবাড়ীতে সড়ক দুর্ঘটনায় যুবকের মৃত্যু

রংপুরে হামলা: ‘অপপ্রচার চালিয়ে আলোচনায় আসতে চেয়েছিল সৈকত’

রংপুরে হামলা: ‘অপপ্রচার চালিয়ে আলোচনায় আসতে চেয়েছিল সৈকত’

‘সাংবিধানিক অধিকার নিয়ে বাঁচতে চাই’ (ফটো স্টোরি)

‘সাংবিধানিক অধিকার নিয়ে বাঁচতে চাই’ (ফটো স্টোরি)

ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট করায় প্রাথমিকের শিক্ষক বরখাস্ত

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৫২

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে উসকানিমূলক লেখা ও ছবি পোস্ট করায় মুন্সীগঞ্জের টংগিবাড়ী উপজেলার গোয়ারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সুমন হাওলাদার সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন। গত ২১ অক্টোবর মুন্সীগঞ্জ জেলা শিক্ষা অফিস এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করেছে। তবে সাময়িক বরখাস্তকালীন প্রচলিত নিয়মে খোরাকি ভাতা পাবেন তিনি।

আদেশে জানানো হয়, স্থানীয় একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ১৮ অক্টোবর ফেসবুকে সহকারী শিক্ষক সুমন হাওলাদারের লেখা ও ছবি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এবং ধর্মীয় অবমাননাকর ও উসকানিমূলক মনে করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মনিটরিং টিম। তার বিতর্কিত পোস্টের কারণে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অনুভূতিতে আঘাত লেগেছে।

মুন্সীগঞ্জ জেলা শিক্ষা অফিসার মো. মাসুদ ভূঁইয়া অফিস আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলা ট্রিবিউনকে। জনমনে বিরূপ প্রতিক্রিয়া ও এলাকায় শান্তি-শৃঙ্খলা বিঘ্নিত হওয়ার আশঙ্কার পরিপ্রেক্ষিতে ‘সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ২০১৮’র বিধি ১২ অনুযায়ী সুমন হাওলাদারকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। 

সম্প্রতি কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখার ঘটনায় দেশের বিভিন্ন স্থানে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনার আগে গত ৭ অক্টোবর শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার নজরদারিতে আনতে বিভাগ ও জেলা পর্যায়ে তিনিটি মনিটরিং টিম গঠন করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর।

/এসএমএ/জেএইচ/

সম্পর্কিত

সবাই দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার অধিকারী: প্রধান বিচারপতি

সবাই দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার অধিকারী: প্রধান বিচারপতি

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

সকাল ৬টা থেকে শাহবাগে গণঅবস্থানে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ  

সকাল ৬টা থেকে শাহবাগে গণঅবস্থানে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ  

সবাই দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার অধিকারী: প্রধান বিচারপতি

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৬:২৫

সব বিচারপ্রার্থী দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার অধিকারী বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) রাজধানীর ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলে মামলা মেডিয়েশন বিষয়ে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সারা দেশের ২৮০ জন বিচারককে সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। প্রশিক্ষণ ও সনদ প্রদান অনুষ্ঠিানটির আয়োজন করে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল মেডিয়েশন সোসাইটি (বিমস)।

সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, ‘মূলত মেডিয়েশন হলো বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তির একটি পদ্ধতি। যে পদ্ধতি কিনা আদালত-ট্রাইব্যুনালের প্রচলিত পদ্ধতির বাইরে থেকে অভিযোগ নিষ্পত্তিতে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। বর্তমানে ভারতীয় উপমহাদেশে মেডিয়েশন পদ্ধতি খুবই গুরুত্বের অনুসরণ করা হচ্ছে। এর  মধ্যে পঞ্চায়েত অন্যতম। পঞ্চায়তের সিদ্ধান্ত বিচার বিভাগেও সমাদৃত হয়ে থাকে।’

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘মেডিয়েশন পদ্ধতে একজন মেডিয়েটরের মাধ্যমেই কোনও অভিযোগ নিষ্পত্তি করা হয়ে থাকে। যেখানে উভয়পক্ষের অংশগ্রহণের মাধ্যমে সমস্যার সমাধান খুঁজে বের করা হয়। ফলে উভয়পক্ষের সর্বসম্মতিতে সিদ্ধান্তের পৌঁছানো সম্ভব হয়। এটি বিচার বিভাগের ওপর থেকে মামলার চাপ নিরসনে কাজ করে এবং বিচারে সমতা নির্ণয় করে।’

তিনি বলেন, ‘মূলত মেডিয়েশন পদ্ধতির চালু হয় পক্ষগণের মধ্যকার বিরোধ নিষ্পত্তির মাধ্যমে আদালতে মামলার চাপ ও খরচ কমিয়ে আনা এবং দ্রুত সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর জন্য।’ 

প্রধান বিচারপতি আরও বলেন, ‘কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্রে সফলভাবে দেওয়ানি-ফৌজদারি মামলায় মেডিয়েশনের প্রয়োগ হচ্ছে। বর্তমানে নিউইয়র্কে ১০ শতাংশ দেওয়ানি মামলা বিচারের বিভিন্ন পর্যায়ে থেকেও মেডিয়েশনের মাধ্যমে নিষ্পত্তি হচ্ছে। কানাডায় প্রায় ৮০ শতাংশ মামলা এভাবে নিষ্পত্তি হচ্ছে। অস্ট্রেলিয়াতেও মেডিয়েশনের মাধ্যমে মামলা নিষ্পত্তিতে জোর দেওয়া হয়েছে।’

সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন,  ‘আইনজীবী, বিচারক ও এর সঙ্গে সম্পৃক্ত সকলকে অবশ্যই মেডিয়েশনের মাধ্যমে মামলা নিষ্পত্তিতে আগ্রহী হয়ে এগিয়ে আসতে হবে। কেননা, মামলা নিষ্পত্তিতে বিলম্ব হলে তা বিচারের ব্যাপ্তিকে ক্ষুণ্ণ করে। এতে মামলার পক্ষগুলোর খরচ বেড়ে যায় এবং আদালতে মামলার জট বৃদ্ধি পেতে থাকে। একপর্যায়ে  মামলার সেই জট বিচার বিভাগের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়ায়। সকল বিচারপ্রার্থী দ্রুত ও সুষ্ঠ বিচার পাওয়ার অধিকারী।’ সে ক্ষেত্রে মেডিয়েশনের প্রক্রিয়া অনন্য ভূমিকা রাখতে পারে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন প্রধান বিচারপতি।

একইসঙ্গে মামলা নিষ্পত্তিতে বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তির পন্থা হিসেবে মেডিয়েশন ভবিষ্যতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলেও তিনি জানান।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আন্তর্জাতিক মেডিয়েশন অ্যাওয়ার্ড-প্রাপ্ত বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল মেডিয়েশন সোসাইটির (বিমস) চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট এস এন গোস্বামী।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন— ভারতের সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি কুরিয়ান জোসেফ, জম্মু-কাশ্মিরের সাবেক প্রধান বিচারপতি গীতা মিতাল, জাতিসংঘের অম্বুডসম্যান ড. কেভিন বেরি ব্রাউন, সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান, সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ ফজলে খোদা মোহাম্মদ নাজির, সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ জয়শ্রী সমাদ্দার ও বাংলাদেশ ইন্ডিয়া মেডিয়েটর্স ফোরামের চেয়ারম্যান জর্জ যিশু ফিদা ভিক্টর।

এসময় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া, বিচারপতি জাফর আহমেদ ও বিচারপতি আহমেদ সোহেল।

প্রসঙ্গত, বিমস এর সহযোগিতায় কয়েক ধাপে অধস্তন আদালতের বিচারকদের মেডিয়েশন বিষয়ে প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। সারা দেশের বাছাই করা মোট ২৮০ জন বিচারক এ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন। আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি আহমেদ সোহেলসহ আন্তর্জাতিক মেডিয়েশন বিশেষজ্ঞরা এসব প্রশিক্ষণ দেন।

/বিআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট করায় প্রাথমিকের শিক্ষক বরখাস্ত

ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট করায় প্রাথমিকের শিক্ষক বরখাস্ত

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

সকাল ৬টা থেকে শাহবাগে গণঅবস্থানে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ  

সকাল ৬টা থেকে শাহবাগে গণঅবস্থানে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ  

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৬:০৬

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদেরকে সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকায় ‘১০টায় ১০ মিনিট প্রতি শনিবার, নিজ নিজ বাসাবাড়ি করি পরিষ্কার’ স্লোগান বাস্তবায়ন এবং রামচন্দ্রপুর খাল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম সরেজমিনে পরিদর্শনকালে তিনি একথা বলেন।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, ‘খালটির দুই পাড়ের বেশ কয়েকটি ভবন পরিদর্শনকালে সেগুলোর কোনোটিতেই সেপটিক ট্যাংক কিংবা সোক ওয়েল খুঁজে পাওয়া যায়নি। তাই সেপটিক ট্যাংকবিহীন ভবনগুলোতে আগামী ৬ মাসের মধ্যে কার্যকর সেপটিক ট্যাংক নিশ্চিত করতে না পারলে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘অপরিকল্পিত ঢাকার অধিকাংশ ভবনেই কার্যকর সেপটিক ট্যাংক ও সোক ওয়েল না থাকায় অপরিশোধিত পয়ঃবর্জ্য সরাসরি ড্রেন কিংবা খালে পতিত হওয়ায় পানিসহ সার্বিক পরিবেশ দূষিত হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘খাল কোনও ডাস্টবিন নয়, ময়লা-আবর্জনা, বর্জ্য নিক্ষেপের স্থান‌ও নয়, এটি জলাধার। তাই কোনও সচেতন নাগরিক খাল কিংবা অন্য কোনও জলাশয়ে বর্জ্য নিক্ষেপ করতে পারে না।’

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, ‘নগরীর বাসাবাড়িগুলোতে আধুনিক সেপটিক ট্যাংক ও সোক ওয়েল স্থাপন করতে হবে এবং পরিশোধন ব্যবস্থা সচল রাখতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘ডেভেলপার কোম্পানিগুলোকেও বিল্ডিং ডেভেলপ করার পাশাপাশি বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য‌ও কার্যকর ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।’

আতিক বলেন, ‘আগামী নভেম্বর মাসের মধ্যেই বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় ডিএনসিসি এলাকার খালগুলোর সীমানা নির্ধারণ করা হবে। অবৈধভাবে খাল দখল করে যেসব স্থাপনা নির্মিত হয়েছে, সেগুলো ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হবে। বিনা নোটিশেই অবৈধ দখলদারদেরকে উচ্ছেদ করা হবে।’

আতিকুল ইসলামের উপস্থিতিতেই মোহাম্মদপুর এলাকায় মোহাম্মদিয়া হাউজিং লিমিটেডের ৩ নম্বর রোডে রাস্তা দখল করে অবৈধভাবে নির্মিত নকশাবহির্ভূত ভবনের অংশবিশেষ বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দিয়ে রাস্তা থেকে উচ্ছেদ করা হয়।

এসময় ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা, প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুহাম্মদ আমিরুল ইসলাম, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমোডর এসএম শরীফ উল ইসলাম, স্থানীয় কাউন্সিলর আসিফ আহমেদ এবং সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

/এসএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট করায় প্রাথমিকের শিক্ষক বরখাস্ত

ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট করায় প্রাথমিকের শিক্ষক বরখাস্ত

সবাই দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার অধিকারী: প্রধান বিচারপতি

সবাই দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার অধিকারী: প্রধান বিচারপতি

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

সকাল ৬টা থেকে শাহবাগে গণঅবস্থানে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ  

সকাল ৬টা থেকে শাহবাগে গণঅবস্থানে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ  

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফ্রান্সের প্রযুক্তিতে বদলাবে এয়ার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা

ফ্রান্সের প্রযুক্তিতে বদলাবে এয়ার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা

ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট করায় প্রাথমিকের শিক্ষক বরখাস্ত

ফেসবুকে উসকানিমূলক পোস্ট করায় প্রাথমিকের শিক্ষক বরখাস্ত

সবাই দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার অধিকারী: প্রধান বিচারপতি

সবাই দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার অধিকারী: প্রধান বিচারপতি

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

‘খালে বর্জ্য নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

সকাল ৬টা থেকে শাহবাগে গণঅবস্থানে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ  

সকাল ৬টা থেকে শাহবাগে গণঅবস্থানে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ  

জাতীয় প্রেসক্লাব বহুমাত্রিক সমাজ নির্মাণে ভূমিকা রাখবে, প্রত্যাশা তথ্যমন্ত্রীর

জাতীয় প্রেসক্লাব বহুমাত্রিক সমাজ নির্মাণে ভূমিকা রাখবে, প্রত্যাশা তথ্যমন্ত্রীর

টিকার সমতা নিশ্চিত না হলে বিপদ: ডা. মুশতাক হোসেন

সাক্ষাৎকারটিকার সমতা নিশ্চিত না হলে বিপদ: ডা. মুশতাক হোসেন

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কা ও কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যু

রাজনৈতিক দলগুলো পুরনো অভ্যাসে লিপ্ত, বিবৃতিতে ৪৭ নাগরিক

রাজনৈতিক দলগুলো পুরনো অভ্যাসে লিপ্ত, বিবৃতিতে ৪৭ নাগরিক

সর্বশেষ

ফ্রান্সের প্রযুক্তিতে বদলাবে এয়ার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা

ফ্রান্সের প্রযুক্তিতে বদলাবে এয়ার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা

সঞ্চালনব্যবস্থা আধুনিক ও সমন্বিত করার উদ্যোগ অব্যাহত রয়েছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

সঞ্চালনব্যবস্থা আধুনিক ও সমন্বিত করার উদ্যোগ অব্যাহত রয়েছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

কোরআন রেখে হনুমানের গদা নিয়ে পুকুরে ফেলে দেন ইকবাল

কোরআন রেখে হনুমানের গদা নিয়ে পুকুরে ফেলে দেন ইকবাল

ইরানের বিরুদ্ধে পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘনের অভিযোগ ফ্রান্সের

ইরানের বিরুদ্ধে পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘনের অভিযোগ ফ্রান্সের

৫৬ জেলা মৃত্যুহীন

৫৬ জেলা মৃত্যুহীন

© 2021 Bangla Tribune