X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

খুলনা ও বরিশাল বিভাগসহ ঢাকার ৫ জেলার আ.লীগের ইউপি প্রার্থী চূড়ান্ত

আপডেট : ১০ অক্টোবর ২০২১, ০১:৪১

দ্বিতীয় ধাপে আগামী ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের চেয়ারম্যান পদে খুলনা, বরিশাল ও ঢাকা বিভাগের ৫ জেলার প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ।

শনিবার (৯ অক্টোবর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত দলটির স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের মুলতবি সভায় প্রার্থীদের চূড়ান্ত করা হয়।

আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সভায় সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দ্বিতীয় ধাপের খুলনা বিভাগ, বরিশাল বিভাগ ও ঢাকা বিভাগের ৫টি (ঢাকা, গাজীপুর, মানিকগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ ও কিশোরগঞ্জ) জেলার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলের মনোনীত প্রার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়।

চূড়ান্ত মনোনীত প্রার্থীরা হলেন ‑ মেহেরপুর জেলার মুজিবনগর উপজেলার দারিয়াপুর ইউপিতে মো. মোস্তাকিম, মোনাখালীতে রফিকুল ইসলাম গাইন, বাগোয়ানে  কুতুব উদ্দীন, মহাজনপুরে আমাম হোসেন। গাংনী উপজেলার বামুন্দিতে ওবায়দুর রহমান, কাথুলীতে গোলজার হোসেন, মটমুড়ায়  আবুল হাশেম বিশ্বাস, তেঁতুলবাড়ীয়ায় আব্দুল্লাহ আল মামুন, সাহারবাটিতে মশিউর রহমান।

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আমলা ইউপিতে একলিমুর রেজা, সদরপুরে রবিউল হক, বারুইপাড়ায় শফিকুল ইসলাম, বহলবাড়ীয়ায় শহিদুল ইসলাম, তালবাড়ীয়ায় তৌসিক আহম্মেদ, ছাতিয়ানে তাছের আলী মণ্ডল, কুর্শায় আব্দুল হান্নান, ফুলবাড়ীয়ায় আতাহার আলী, মালিহাদে আকরাম হোসেন, আমবাড়ীয়াতে সাইফুদ্দিন মুকুল, পোড়াদহে শারমিন আক্তার নাসরিন।  ভেড়ামারা উপজেলার মোকারিমপুরে আব্দুস সামাদ, জুনিয়াদহে শওকত আলী, বাহাদুরপুরে সোহেল রানা, বাহিরচরে রওশন আরা বেগম, চাঁদগ্রামে বুলবুল কবির, ধরমপুরে শাহাবুল আলম লালু।

চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার জুড়ানপুরে সোহরাব হোসেন, কার্পাসডাঙ্গায় খলিলুর রহমান, কুড়ুলগাছিতে কাফি উদ্দীন, দামুড়হুদাতে হযরত আলী। জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউপিতে ইশাবুল ইসলাম (মিল্টন)।

ঝিনাইদহ মহেশপুর উপজেলার এস.বি.কে ইউপিতে শামীমা সুলতানা, ফতেপুরে সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, পান্তাপাড়ায় ইসমাইল হোসেন, স্বরূপপুরে মিজানুর রহমান, শ্যামকুড়ে আমানুল্লাহ হক,  নেপায় সামছুল আলম, কাজিরবেড়ে বি এম সেলিম রেজা, বাঁশবাড়িয়ায় নওশের আলী মল্লিক, যাদবপুরে সালাহ উদ্দীন, নাটিমাতে আবুল কাশেম, মান্দারবাড়ীয়ায় আমিনুর রহমান, আজমপুরে শাহাজাহান আলী।

যশোর  জেলার ঝিকরগাছা উপজেলার গঙ্গানন্দপুর ইউপিতে আমিনুর রহমান, মাগুরাতে আব্দুর রাজ্জাক, শিমুলিয়ায় মতিয়ার রহমান সর্দার, গদখালীতে আশরাফ উদ্দীন, পানিসারাতে নওশের আলী, ঝিকরগাছাতে আমির হোসেন, নাভারণে শাহাজাহান আলী, নির্বাসখোলাতে খায়রুজ্জামান, হাজিরবাগে আতাউর রহমান, শংকরপুরে গোবিন্দ চন্দ্র চ্যাটার্জী, বাঁকড়াতে  মো. নিছার। চৌগাছা উপজেলার ফুলসারা ইউপিতে মেহেদী মাসুদ চৌধুরী, পাশাপোলে অবাইদুল ইসলাম, সিংহঝুলিতে রেজাউর রহমান, ধুলিয়ানীতে    এস এম আব্দুস সবুর, চৌগাছাতে আবুল কাশেম, জগদীশপুরে তবিবর রহমান খান, পাতিবিলাতে তারিকুল ইসলাম, হাকিমপুরে মামুন কবির, স্বরূপদাহে সানোয়ার হোসেন, নারায়ণপুরে শাহিনুর রহমান, সুখপুকুরিয়াতে হবিবর রহমান নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন।

মাগুরা সদর উপজেলার হাজীপুর ইউপিতে মোজাহারুল হক, আঠারখাদাতে সঞ্জীবন বিশ্বাস, কছুন্দীতে আবুল কাশেম মোল্লা, বগিয়াতে মীর রওনক হোসেন, হাজরাপুরে কবির হোসেন, রাঘবদাইড়ে আশরাফুল আলম, মাঘীতে হাচনা হেনা, জগদলে সৈয়দ রফিকুল ইসলাম, চাউলিয়াতে হাফিজার রহমান, শত্রুজিৎপুরে সনজিৎ কুমার বিশ্বাস, বেরইল পলিতাতে খোন্দকার মহব্বত আলী, কুচিয়ামোড়াতে আবু হাসনাত মোঃ আলমগীর হোসেন, গোপালগ্রামে নাসিরুল ইসলাম।

নড়াইল সদর উপজেলার মাইজপাড়া ইউপিতে জসীম মোল্যা, হবখালীতে টিপু সুলতান, চণ্ডিবরপুরে সৈয়দ তারিকুল ইসলাম, আউড়িয়াতে এস, এম, পলাশ, শাহাবাদে আশরাফ খান (মাহমুদ), তুলারামপুরে বুলবুল আহমেদ, সেখহাটিতে গোলক বিশ্বাস, কলোড়াতে আশিস কুমার বিশ্বাস, সিংঙ্গাশোলপুরে সাইফুল ইসলাম, ভদ্রবিলাতে সৈয়দ আবিদুল ইসলাম, বাঁশগ্রামে সিরাজুল ইসলাম, বিছালীতে ইমারুল গাজী, মূলিয়াতে রবীন্দ্রনাথ অধিকারী।

বাগেরহাট সদর উপজেলার ষাট গুম্বজে শেখ আক্তারুজ্জামান বাচ্চু, গোটাপাড়ায় শেখ সমশের আলী, যাত্রাপুরে বেগ এমদাদুল হক। মোল্লাহাট উপজেলার গাংনীতে শিকদার উজির আলী, মুলঘরে হিটলার গোলদার।

খুলনা জেলার রূপসা উপজেলার নৈহাটিতে কামাল হোসেন বুলবুল, আইচগাতীতে আশরাফুজ্জামান বাবুল, শ্রীফলতলাতে ইসহাক সরদার, টিএসবিতে জাহাঙ্গীর সেখ। ফুলতলা উপজেলার ফুলতলা ইউপিতে মোল্যা আলী আজম মোহন, জামিরাতে আবু হেনা মোস্তফা কামাল চৌধুরী, দামোদরে শরীফ মোহাম্মদ ভূঁইয়া, আটরা গিলাতলাতে শেখ মনিরুল ইসলাম।  ডুমুরিয়া উপজেলার ধামালিয়াতে রেজোয়ান মোল্যা, রঘুনাথপুরে খান শাকুর উদ্দিন, রুদাঘরাতে মোস্তফা কামাল খোকন, খর্ণিয়াতে আফরোজা খানম, আটলিয়াতে এ বি এম শফিকুল ইসলাম, মাগুরাঘোনাতে রফিকুল ইসলাম হেলাল, শোভনাতে সরদার আব্দুল গনি, শরাফপুরে এইচ এ আই এম উবাঈদ উল্লাহ, সাহসে শেখ আব্দুল কুদ্দুস, ভান্ডারপাড়াতে               হিমাংশু বিশ্বাস, ডুমুরিয়াতে গাজী মো. হুমায়ুন কবির, রংপুরে  রাম প্রসাদ জোদ্দার, গুটুদিয়াতে কাজী আলমগীর হোসেন, মাগুরখালীতে বিমল কৃষ্ণ সানা।

বটিয়াঘাটা উপজেলার বটিয়াঘাটা ইউপিতে  পল্লব কুমার বিশ্বাস, সুরখালীতে এস কে জাকির হোসেন, ভান্ডারকোটে আবুল কালাম আজাদ।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বাঁশদহা ইউপিতে মফিজুর রহমান, কুশখালীতে তাজউল ইসলাম, বৈকারীতে আসাদুজ্জামান, ঘোনা তে ফজলুর রহমান, শিবপুরে শওকত আলী, ভোমরা তে শহিদুল ইসলাম, ধুলিহরে মিজানুর রহমান, ব্রহ্মরাজপুরে আলাউদ্দীন, আগরদাঁড়ীতে মঈনুল ইসলাম, ঝাউডাংগাতে আজমল উদ্দীন, বল্লীতে বজলুর রহমান, লাবসাতে নজরুল ইসলাম, ফিংড়ীতে সামছুর রহমান।

বরগুনা সদর উপজেলার এমবালিয়াতলীতে নাজমুল ইসলাম। পটুয়াখালী সদর উপজেলার লোহালিয়া ইউপিতে কবির হোসেন, আউলিয়াপুরে হুমায়ুন কবির, মরিচবুনিয়াতে আসাদুল ইসলাম (আসাদ), মাদারবুনিয়াতে আমিনুল ইসলাম মাসুম, ছোটবিঘাইতে আলতাফ হোসাইন হাওলাদার, বদরপুরে তানজিন নাহার সোনিয়া, বড়বিঘাইতে ওয়াহিদুজ্জামান। বাউফল উপজেলার নওমালা ইউপিতে কামাল হোসেন, সূর্যমনিতে আনোয়ার হোসেন।

দশমিনা উপজেলার দশমিনা ইউপিতে ইকবাল মাহামুদ, বেতাগী সানকিপুরে মসিউর রহমান, কলাগাছিয়াতে দুলাল চৌধুরী, বকুলবাড়িয়াতে আবু জাফর খান, গজালিয়াতে খালিদুল ইসলাম, ডাকুয়াতে  বিশ্বজিৎ রায়, গলাচিপাতে জাহাঙ্গীর হোসেন টুটু, পানপট্টিতে আবুল কালাম, চরকাজলে সাইদুর রহমান, চরবিশ্বাসে তোফাজ্জেল হোসাইন বাবুল।

ভোলা জেলার দৌলতখান উপজেলার মদনপুর ইউপিতে এ.কে.এম নাছির উদ্দিন, মেদুয়াতে মনজুর আলম, চরপাতায় কাজল ইসলাম তালুকদার, উত্তর জয়নগরে মোঃ বশির, দক্ষিণ জয়নগরে আলমগীর হাং, চরখলিফাতে শামীম হোসেন, ভবানীপুরে গোলাম নবী (নবু)।

বরিশাল সদর উপজেলার রায়পাশা কড়াপুর ইউপিতে আহম্মদ শাহরিয়ার, শায়েস্তাবাদে আরিফুজ্জামান মুন্না, চরমোনাইয়ে নুরুল ইসলাম, চরকাউয়াতে মনিরুল ইসলাম, চাঁদপুরাতে হেলাল উদ্দীন খান, চন্দ্রমোহনে এস এম মতিউর রহমান। আগৈলঝাড়া উপজেলার রাজিহারে ইলিয়াস তালুকদার, বাকালে বিপুল দাস, বাগদাতে আমিনুল ইসলাম বাবুল, গৈলাতে শফিকুল হোসেন, রত্নপুরে গোলাম মোস্তফা সরদার। বানারীপাড়া উপজেলার সৈয়দকাঠী আনোয়ার হেসেন মৃধা।

পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলার পাড়েরহাটে কামরুজ্জামান শাওন, পত্তাশীতে হাওলাদার মো. মোয়াজ্জেম হোসেন, ইন্দুরকানীতে মোবারক আলী হাওলাদার। পিরোজপুর সদর উপজেলার শিকদারমল্লিকে শহীদুল ইসলাম, দূর্গাপুরে রামপ্রসাদ রায়, শংকরপাশাতে তোফাজ্জেল হোসেন মল্লিক স্বপন। নাজিরপুর উপজেলার দীর্ঘাতে আশুতোষ বেপারী, শাখারীকাঠীতে শেখ আখতারুজজামান, শ্রীরামকাঠীতে উত্তম কুমার মৈত্র।

ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলার চৌহাটে আনোয়ার হোসেন, আমতাতে আরিফ হোসেন, বালিয়াতে মজিবর রহমান, যাদবপুরে আ. মজিদ, বাইশাকান্দাতে অধ্যাপক মো. মিজানুর রহমান মিজান, গাংগুটিয়াতে আব্দুল কাদের মোল্লা, সানোড়াতে খালেদ মাসুদ খান (লাল্টু),  সোমভাগে আজাহার আলী, ভাড়ারিয়াতে শাহ্ আলম, ধামরাইতে শাহাবদ্দিন, কুল্লাতে কালী পদ সরকার, সূয়াপুরে কফিল উদ্দিন, রোয়াইলে কাজিম উদ্দিন খান, নান্নারে আবুল বাশার।

কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ উপজেলার কাদিরজঙ্গল ইউপিতে শফিকুল ইসলাম, গুজাদিয়াতে সৈয়দ মাসুদ, কিরাটনে সিদ্দিক মিঞা, বারঘরিয়াতে কামরুল আহসান (কাঞ্চন), নিয়ামতপুরে হেলিম, দেহুন্দাতে শফিকুল ইসলাম, সুতারপাড়াতে কামাল হোসেন, গুনধরে আবু ছায়েম রাসেল, জয়কাতে শফিকুল ইসলাম, জাফরাবাদে আবুসাদাৎ মো. সায়েম, নোয়াবাদে আবুল কালাম। তাড়াইল উপজেলার তালজাঙ্গা ইউপিতে সেলিম খান, রাউতিতে ইকবাল হোসেন (তারিক), ধলাতে আফরোজ আলম (ঝিনুক), জাওয়ারতে  মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান, দামিহাতে এ কে মাইনুজ্জামান নবাব, দিগদাইড়তে গোলাপ হোসেন ভূঞা, তাড়াইল সাচাইলে কামরুজ্জামান।

বাজিতপুর উপজেলার হুমাইপুর ইউপিতে রফিকুল ইসলাম, দিলালপুরে গোলাম কিবরিয়া নোভেল, বলিয়ারদিতে আবুল কাশেম, সরারচরে হাবিবুর রহমান স্বপন, হালিমপুরে ওমর ফারুক (রাসেল), হিলচিয়াতে মাজহারুল হক নাহিদ, দিঘীরপাড়ে আঃ কাইয়ুম, পিরিজপুরে জাফর ইকবাল, মাইজচরে তাবারক মিয়া, গাজিরচরে জুয়েল মিয়া, কৈলাগে  কায়ছার-এ-হাবীব ।

মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর উপজেলার সিংগাইর ইউপিতে শেখ মো. জাহিদুল ইসলাম, বায়রাতে দেওয়ান জিন্নাহ্, বলধারাতে আব্দুল মাজেদ খান, চান্দহরে শওকত হোসেন, চারিগ্রামে রিপন হোসেন, জার্মিত্তাতে আ. হালিম , জয়মন্টপে শাহাদৎ হোসেন, জামশাতে গাজী কামরুজ্জামান, শায়েস্তাতে মুসলেমউদ্দিন চোকদার, তালেবপুরে রমজান আলী, ধল্লাতে মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম।

গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার সিংহশ্রী ইউপিতে আনোয়ার পারভেজ, রায়েদে শফিকুল হাকিম মোল্লা, টোকে  এম এ জলিল, বারিষাবে রমিজ উদ্দিন সরকার, ঘাগটিয়াতে হারুন অর রশিদ, সনমানিয়াতে আব্দুল মালেক ভূইয়া, কড়িহাতাতে মাহবুবুল আলম মোড়ল, তরগাঁওতে আয়বুর রহমান, কাপাসিয়াতে সাখাওয়াত হোসেন. চাঁদপুরে মিজানুর রহমান সরকার, দূর্গাপুরে এম, এ গাফফার।

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার আলীরটেক ইউপিতে মতিউর রহমান, বক্তাবলীতে শওকত আলী, এনায়েতপুরে আসাদুজ্জামান, গোগনগরে জসীম উদ্দিন আহমেদ, কাশীপুরে এম সাইফুল্লাহ বাদল, কুতুবপুরে মনিরুল আলম সেন্টু। বন্দর উপজেলার মুছাপুরে মোহাম্মদ মজিবুর রহমান, ধামগড়ে মাসুম আহম্মেদ, মদনপুরে মোহাম্মদ সালাম মিয়া, কলাগাছিয়াতে কাজিম উদ্দিন, বন্দরে মোক্তার হোসেন। রূপগঞ্জের ভুলতা ইউপিতে আরিফুল হক ভূইয়া, ভোলাবে মোহাম্মদ তায়েবুর রহমান, গোলাকান্দাইলে কামরুল হাসান ভূঞা, মুড়াপাড়াতে তোফায়েল আহমেদ (আলমাছ), কায়েতপাড়াতে জাহেদ আলী আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন।

ঢাকা বিভাগের অবশিষ্ট জেলাগুলোসহ, ময়মনসিংহ, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের ইউপি নির্বাচনের প্রার্থী চূড়ান্ত হতে মঙ্গলবার পর্যন্ত সময় গড়াতে পারে বলে আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে।

/পিএইচসি/এমএস/

সম্পর্কিত

মন্দিরে যারা হামলা করেছে তারা মুক্তিযুদ্ধের শত্রু: ওবায়দুল কাদের

মন্দিরে যারা হামলা করেছে তারা মুক্তিযুদ্ধের শত্রু: ওবায়দুল কাদের

কোনও ধর্মীয় সম্প্রদায়ের ওপর হামলা বরদাস্ত করা হবে না: ওবায়দুল কাদের

কোনও ধর্মীয় সম্প্রদায়ের ওপর হামলা বরদাস্ত করা হবে না: ওবায়দুল কাদের

বিএনপি সাম্প্রদায়িকতা উসকে দিচ্ছে: ওবায়দুল কাদের

বিএনপি সাম্প্রদায়িকতা উসকে দিচ্ছে: ওবায়দুল কাদের

তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে আ.লীগের মনোনয়ন ফরম বিতরণ শনিবার শুরু

তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে আ.লীগের মনোনয়ন ফরম বিতরণ শনিবার শুরু

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:০০

উগ্র সম্প্রদায়ের কেউ দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা-হাঙ্গামা বাধানোর চক্রান্ত করছে বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী আন্দোলনের প্রেসিডিয়াম সদস্য মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী। তিনি বলেন,  কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে মূর্তির পায়ের নিচে পবিত্র কোরআন রেখে যারা ঘোলাপানিতে মাছ শিকার করতে চায় তাদের খুঁজে বের করে কঠোর শাস্তির আওতায় আনা সরকারের দায়িত্ব।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকালে কোরআন অবমাননাকারীদের বিচারের দাবিতে  বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

নিত্যপয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের  ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদ জানিয়ে সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী বলেন,  কোনও কারণ ছাড়াই বার বার নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধির কারণে জনজীবন চরম দুর্বিষহ হয়ে উঠছে। সরকার সিন্ডিকেটের কাছে মাথা নত করেছে। তিনি অবিলম্বে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণ করার দাবি জানান।

সমাবেশ শেষে একটি  মিছিল বায়তুল মোকাররম উত্তর গেইট, পল্টন মোড় ও বিজয়নগর মোড়ে পৌঁছলে পুলিশ মিছিলের গতি রোধ করে। সেখানে মিছিল শেষ হয়।

সংগঠনের ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন  মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম, মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, মাওলানা নেছার উদ্দিন,  শরীফুল ইসলাম রিয়াদ, মাওলানা আরিফুল ইসলাম, ডা. শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

/সিএ/এমআর/

সম্পর্কিত

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৭

বিএনপির নেতাদের মধ্যে বিভেদ ও বিভাজন এবং আওয়ামী লীগ রাজনীতিতে নেই বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। তার দাবি, রাজনীতিতে একমাত্র সোচ্চার জাতীয় পার্টি।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) দলের চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয় মিলনায়তনে গাজীপুর মহানগর ও অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের এ কথা বলেন।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, নিবন্ধিত প্রায় ৪০টি দলের মধ্যে মাত্র আওয়ামী লীগ, বিএনপি এবং জাতীয় পার্টি সক্রিয় আছে। বাকি দলগুলো সাইনবোর্ড বা নেতা সর্বস্ব রাজনৈতিক দলে পরিণত হয়েছে। বিএনপি নেত্রী মুচলেকা দিয়ে জেল থেকে বের হয়ে রাজনীতির মাঠে নেই। আবার তাদের আরেক নেতা দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে বিদেশে। বাকী নেতাদের মধ্যে বিভেদ ও বিভাজনের অভাব নেই। আবার আওয়ামী লীগ সরকার পরিচালনা ও উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে ব্যস্ত। রাজনীতির মাঠেও আওয়ামী লীগ নেই বললেই চলে। কিন্তু গণমানুষের দাবি আদায়ে রাজনীতিতে সোচ্চার আছে শুধু জাতীয় পার্টি।’

কাদের দাবি করেন, ৩১ বছর রাষ্ট্র ক্ষমতার বাইরে থেকেও জাতীয় পার্টি রাজনীতিতে টিকে আছে। নানা অপবাদ ও ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে জাতীয় পার্টি এগিয়ে চলছে। দেশের মানুষ আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কর্মকাণ্ডে রাজনীতি নিয়ে হতাশাগ্রস্ত। দেশের মানুষ আগামী দিনে জাতীয় পার্টিকে রাষ্ট্র পরিচালনায় দেখতে চায়।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, বর্তমান সংবিধান অনুযায়ী গণতান্ত্রিক চর্চা সম্ভব নয়। বর্তমান সংবিধান গণতান্ত্রিক চর্চার সাথে সাংঘর্ষিক। গণতন্ত্র চর্চা করতে হলে সংবিধানের অনেক ধারা সংশোধন করতে হবে। সংবিধানের ৭০ ধারার কারণে সরকার দলীয় কোনও সংসদ সদস্য সরকারের কোনও সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করতে পারে না। এতে এক ব্যক্তির হাতে সকল ক্ষমতা কেন্দ্রীভূত হয়েছে। দেশের নির্বাহী বিভাগ, আইন সভা ও রাষ্ট্রপতির মাধ্যমে বিচার বিভাগের প্রায় ৯০ ভাগই সরকার প্রধানের নিয়ন্ত্রণে। তাই সরকার প্রধান যা চাইবেন, তার বাইরে কিছুই সম্ভব নয়।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, অবাধ, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন নিশ্চিত করতে সংবিধান অনুযায়ী আইন করতে হবে। আইন না করে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হচ্ছে, ফুটবল খেলায় একটি দলের পক্ষ থেকে রেফারি নিয়োগ দেওয়ার মতো। আইন করে, উপযুক্ত ব্যক্তিদের নিয়ে নির্বাচন কমিশন গঠন করে সংবিধান অনুযায়ী সকল ক্ষমতা নির্বাচন কমিশনকে দিতে হবে।

এসময় আরও বক্তব্য রাখেন- জাতীয় পার্টি মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহিদুর রহমান টেপা, অ্যাডভোকেট শেখ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, মীর আব্দুস সবুর আসুদ, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভুঁইয়া, অনুষ্ঠানে সভপতিত্ব করেন চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা এমএম নিয়াজ উদ্দিন।

/এসটিএস/এমআর/

সম্পর্কিত

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫২

আগামী নভেম্বর থেকে দল পুনর্গঠনের কাজে সারাদেশের জেলা সফর শুরু করবেন জাতীয় পার্টি মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু। শনিবার (১৬ অক্টোবর) দলের চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয় মিলনায়তনে গাজীপুর মহানগর ও অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় চুন্নু এ কথা জানান।

সভায় মুজিবুল হক বলেন, দেশের কোটি কোটি বেকারদের জন্য কারও মাথা ব্যথা নেই। বিএনপি হাওয়া ভবন আর খাওয়া ভবন করে রাজনীতি থেকে ছিটকে পড়েছে। আর আওয়ামী লীগের উন্নয়নের ধাক্কায় মানুষের জীবন ওষ্ঠাগত।

চুন্নু বলেন, দেশ ও দেশের মানুষের কথা মাথায় রেখেই জাতীয় পার্টির রাজনীতি। জাতীয় পার্টি আগামী দিনে গণমানুষের কল্যাণে কর্মসূচি ঘোষণা করে মাঠে থাকবে। দেশের মানুষের প্রত্যাশা পূরণে জাতীয় পার্টি কাজ করবে। গণমানুষের আস্থা নিয়েই জাতীয় পার্টি আগামী দিনে সরকার পরিচালনা করবে।

/এসটিএস/এমআর/

সম্পর্কিত

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৪৯

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সম্পর্কে মন্তব্যের কারণে তথ্য প্রতিমন্ত্রী ড. মুরাদ হাসানকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান জিএম কাদের। তিনি বলেন, ‘সরকারের একজন প্রতিমন্ত্রী হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে কটূক্তি করে এবং রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম পরিবর্তন করার ঘোষণা দিয়ে গর্হিত কাজ করেছেন। এজন্য তাকে ক্ষমা চাইতে হবে।’

শনিবার (১৬ অক্টোবর) দলের চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয় মিলনায়তনে গাজীপুর মহানগর ও অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের এ কথা বলেন।

জিএম কাদের আরও বলেন, ‘২০১১ সালে পঞ্চদশ সংশোধনী করেছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার। তাতেও রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম সমুন্নত আছে। তাই কটূক্তি করে  প্রতিমন্ত্রী আওয়ামী লীগের দলীয় শৃঙ্খলাও ভঙ্গ করেছেন। তাকে অবশ্যই ক্ষমা চাইতে হবে, তা না হলে দেশের মানুষ একদিন এর বিচার করবে।’

তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম ঘোষণার সঙ্গে সকল ধর্মের অধিকার সাংবিধানিকভাবেই নিশ্চিত করেছিলেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম পরিবর্তন করার সাহস আর ক্ষমতা কারও নেই।’

/এসটিএস/এমআর/

সম্পর্কিত

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩০

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি আ স ম রব বলেছেন, ‘সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার নামে রাষ্ট্রের মৌলিক কাঠামো বিনষ্ট করে, গণতন্ত্র হত্যা করে,  ভোটাধিকারকে প্রহসনে পরিণত করে  মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে। সরকারের অপশাসনের কারণে বাঙালি জাতীয়তাবাদ চরম ঝুঁকিতে পড়ছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট হচ্ছে, সমাজে হিংসা প্রতিহিংসা নিষ্ঠুরতা বিস্তার লাভ করছে।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকালে  জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জেএসডি ঢাকা মহানগর সমন্বয় কমিটি আয়োজিত মানববন্ধন -সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলে রব এসব কথা বলেন।

রব বলেন, ‘ক্ষমতা দীর্ঘস্থায়ী করার জন্য বর্তমান সরকার বাঙালি জাতীয়তাবাদ এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনা দুটোকেই পরিত্যাগ করেছে। এখন রাষ্ট্রের একমাত্র পথ হচ্ছে গণজাগরণের মাধ্যমে জাতীয় নৈতিক শক্তির পুনরুজ্জীবন করা। এই পুনরুজ্জীবিত শক্তিই জাতীয় সরকার গঠন করবে। বিদ্যমান সংকট নিরসনের একমাত্র বিকল্প  জাতীয় সরকার গঠন করা।’

ঢাকা মহানগর কমিটির সমন্বয়ক কামাল উদ্দিন পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে বিক্ষোভে আরও বক্তব্য রাখেন- সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. ছানোয়ার হোসন তালুকদার, সা কা ম আনিসুর রহমান খান কামাল, তানিয়া রব, অ্যাড. কে এম জাবির, অ্যাড. সৈয়দ বেলায়েত হোসেন বেলা প্রমুখ।

/এসটিএস/এমআর/

সম্পর্কিত

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘দেশে ধর্মীয় দাঙ্গা বাধানোর চক্রান্ত হচ্ছে’

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

‘বিএনপি নেতাদের মধ্যে বিরোধ, আ.লীগ রাজনীতিতে নেই’ 

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

নভেম্বর থেকে জেলা সফর শুরু করবেন জাপা মহাসচিব

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

তথ্য প্রতিমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: জিএম কাদের

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মন্দিরে যারা হামলা করেছে তারা মুক্তিযুদ্ধের শত্রু: ওবায়দুল কাদের

মন্দিরে যারা হামলা করেছে তারা মুক্তিযুদ্ধের শত্রু: ওবায়দুল কাদের

কোনও ধর্মীয় সম্প্রদায়ের ওপর হামলা বরদাস্ত করা হবে না: ওবায়দুল কাদের

কোনও ধর্মীয় সম্প্রদায়ের ওপর হামলা বরদাস্ত করা হবে না: ওবায়দুল কাদের

বিএনপি সাম্প্রদায়িকতা উসকে দিচ্ছে: ওবায়দুল কাদের

বিএনপি সাম্প্রদায়িকতা উসকে দিচ্ছে: ওবায়দুল কাদের

তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে আ.লীগের মনোনয়ন ফরম বিতরণ শনিবার শুরু

তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে আ.লীগের মনোনয়ন ফরম বিতরণ শনিবার শুরু

নাসিরনগরে নৌকার দুই প্রার্থী বদলে দিয়েছে আ. লীগ

নাসিরনগরে নৌকার দুই প্রার্থী বদলে দিয়েছে আ. লীগ

'নির্বাচনকে সামনে রেখে সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী সম্প্রীতি বিনষ্টের পাঁয়তারা করছে'

'নির্বাচনকে সামনে রেখে সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী সম্প্রীতি বিনষ্টের পাঁয়তারা করছে'

নৌকা পেলো ‘বিতর্কিত’ অনেকে, তৃণমূলের ক্ষোভ

নৌকা পেলো ‘বিতর্কিত’ অনেকে, তৃণমূলের ক্ষোভ

নির্বাচন বর্জন বিএনপির জন্য আত্মঘাতী হবে: ওবায়দুল কাদের

নির্বাচন বর্জন বিএনপির জন্য আত্মঘাতী হবে: ওবায়দুল কাদের

চট্টগ্রাম বিভাগের ইউপির আ. লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

চট্টগ্রাম বিভাগের ইউপির আ. লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

সর্বশেষ

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বদনজর থেকে শিশুকে বাঁচাতে টিপ দেওয়া যাবে?

বদনজর থেকে শিশুকে বাঁচাতে টিপ দেওয়া যাবে?

ফেনীতে ত্রিমুখী সংঘর্ষ, আহত ৩০

ফেনীতে ত্রিমুখী সংঘর্ষ, আহত ৩০

ফরিদা মজিদের কথা

ফরিদা মজিদের কথা

রাজধানীর নিকুঞ্জ থেকে চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার

রাজধানীর নিকুঞ্জ থেকে চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার

© 2021 Bangla Tribune