X
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

তদন্ত কর্মকর্তার গাফিলতিতে ৩ মাস ধরে ডোম ঘরে ভিসেরা স্যাম্পল 

আপডেট : ১০ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৩১

দীর্ঘ সাড়ে তিন মাস অতিবাহিত হলেও কবর থেকে উত্তোলন হওয়া এক গৃহবধূর ভিসেরা স্যাম্পল ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়নি। ময়নাতদন্ত শেষে শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের লাশঘরেই পড়ে রয়েছে ওই স্যাম্পল। এ বিষয়ে সেখানকার ডোম বানারীপাড়া থানায় দশবারের বেশি সময় যোগাযোগ করেও কোনও জবাব পাননি। তবে তদন্ত কর্মকর্তা এসআই ওসমান বলছেন এখনও রিপোর্ট আসেনি। আর ফরেনসিক বিভাগ বলছে তাদের কাছে ওই গৃহবধূর ভিসেরা স্যাম্পলই জমা পড়েনি। 

সংশ্লিষ্টরা স্যাম্পল জমা না হওয়ার পেছনে তদন্ত কর্মকর্তার গাফিলতিকেই দায়ী করছেন। 

বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার বাকপুর গ্রামের মমতাজ বেগমের (৬৫) ভিসেরা স্যাম্পল নিয়ে এ অবস্থা চলছে। তিনি ওই গ্রামের মৃত কাজী মোশারেফ হোসেনের স্ত্রী।

বাদী নিহতের ছেলে জুয়েল কাজী বলেন, এ বছরের ৫ এপ্রিল সকালে ঘরের পেছনে একটি পানিশূন্য ডোবা থেকে মায়ের লাশ উদ্ধার করা হয়। মাকে যারা গোসল করিয়েছেন তারা জানান মায়ের মাথা থেকে মগজ বের হয়ে গিয়েছিল। এছাড়া দাঁতেও আঘাতের চিহ্ন ছিল। এমনকি তার মুখমন্ডল ফোলা ছিল। মৃত্যুকালে তার মায়ের কানে ৪০ হাজার টাকা মূল্যের সোনার দুল ছিল। তাও পাওয়া যায়নি। 

জুয়েলের ধারণা তার মাকে হত্যা করে ওই স্থানে ফেলে রাখা হয়। এ জন্য গত ২৭ মে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মায়ের অস্বাভাবিক মৃত্যুর অভিযোগ দিয়ে মামলা দায়ের করেন তিনি। ওই মামলায় ১৩ জনকে সাক্ষী করে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করা হয়। মামলাটি গ্রহণ করে আদালতের বিচারক লাশ উত্তোলনের নির্দেশ দেন।

২৭ জুন বানারীপাড়ার ইউএনও, এসিল্যান্ড এবং ওসির উপস্থিতিতে লাশ উত্তোলন করে মর্গে পাঠানো হয়। এরপর ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

জুয়েল আরও বলেন, ময়নাতদন্ত শেষে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই ওসমানকে রিপোর্টের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান যতা সময়ে তা পেয়ে যাবো। তবে সাড়ে তিন মাস পার হলেও রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। এরপর মেডিক্যালের ফরেনসিক বিভাগে যোগাযোগ করি তারাও বলেন রিপোর্ট আসেনি। পরবর্তীতে ফরেনসিক বিভাগ থেকে জানানো হয় মায়ের ভিসেরা স্যাম্পলই জমা দেওয়া হয়নি।

এরপর আবার এসআই ওসমানের সঙ্গে যোগাযোগ করি। তখনও তিনি তাকে জানান রিপোর্ট না আসলে কীভাবে দেবেন। ঢাকা থেকে ফরেনসিক বিভাগে রিপোর্ট আসেনি। তার কাছে খবর রয়েছে।

তবে শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ডোম বিজয় বলেন, মমতাজ বেগমের ময়নাতদন্ত শেষে ভিসেরা স্যাম্পল পুলিশ নেয়নি। এ জন্য বানারীপাড়া থানার বকশি থেকে শুরু করে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই ওসমান সাহেবকে কমপক্ষে ১০ বার ফোন করে স্যাম্পল নেওয়ার অনুরোধ করেছি। এতে তারা বিরক্ত হয়েছেন। সর্বশেষ গত পরশু (৭ অক্টোবর) বকশিকে ভিসেরা স্যাম্পল নেওয়ার জন্য বলেছি।

ফরেনসিক বিভাগ সূত্র জানায়, ভিসেরা স্যাম্পল দীর্ঘদিন হয়ে গেলে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া স্বাভাবিক। ওই ভিসেরা স্যাম্পল ঢাকায় পাঠানো হয়। সেখান থেকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে প্রতিবেদন তৈরি হয়। পরে রিপোর্ট সেখান থেকে পুলিশের কাছে সরবরাহ করা হয়। সারাদেশ থেকে ঢাকায় ভিসেরা স্যাম্পল যাওয়ায় একটি রিপোর্ট পেতে কমপক্ষে আড়াই থেকে তিনমাস সময় লাগে। আর মমতাজ বেগমের ভিসেরা স্যাম্পলই জমা দেওয়া হয়নি। এ কারণে তার রিপোর্ট দেওয়ার প্রশ্নই আসে না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বানারীপাড়া থানার ওসি হেলাল উদ্দিন বলেন, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই ওসমানের ধারণা ছিল ডোমরা ফরেনসিক বিভাগে ভিসেরা স্যাম্পল সরবরাহ করবে। এ কারণে তিনি খবর রাখেননি।

ওসিকে প্রশ্ন করা হয় ডোম আপনার থানার বকশি ও এসআই ওসমানকে ১০ বার ফোন করে ভিসেরা স্যাম্পল নেওয়ার জন্য অনুরোধ করলে তাতে সায় দেওয়া হয়নি কেন, জবাবে কিছুক্ষণ নিশ্চুপ থেকে ওসি বলেন, আমি দীর্ঘ তিন মাস ছুটিতে ছিলাম এ কারণে সমস্যাটি হয়েছে। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখবেন বলে জানান তিনি।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই ওসমানের কাছে ভিসেরা স্যাম্পলের রিপোর্টের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান ফরেনসিক বিভাগের রিপোর্ট আসেনি। এত সময় কেন লাগছে প্রশ্ন করা হলে বলেন, এতে সময় লাগে। রবিবার ফরেনসিক বিভাগে গিয়ে বিষয়টি জানবেন এবং প্রতিবেদন আনার ব্যবস্থা করবেন বলে জানান তিনি। এ সময় তিনি ভিসেরা স্যাম্পল ডোম ঘরে পড়ে থাকার বিষয়টি এড়িয়ে যান।

/টিটি/ 

সম্পর্কিত

পায়রা সেতু উদ্বোধন রবিবার, অনুষ্ঠানে থাকবেন ৪০০ অতিথি

পায়রা সেতু উদ্বোধন রবিবার, অনুষ্ঠানে থাকবেন ৪০০ অতিথি

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

বিশেষ ট্রাইব্যুনালে বিশৃঙ্খলায় জড়িতদের বিচার চান রানা দাশগুপ্ত

বিশেষ ট্রাইব্যুনালে বিশৃঙ্খলায় জড়িতদের বিচার চান রানা দাশগুপ্ত

দেড় হাজার কোটি টাকার সেতুতে গাড়ি চলবে রবিবার    

দেড় হাজার কোটি টাকার সেতুতে গাড়ি চলবে রবিবার    

রাজশাহীতে ২৪ ঘণ্টায় ৮৬ জন গ্রেফতার

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৭:১৬

রাজশাহীতে পুলিশের নিয়মিত অভিযানে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শনিবার (২৩ অক্টোবর) দুপুরে তাদের আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ। এর মধ্যে রাজশাহী মহানগরের ৪৬ ও জেলার বিভিন্ন স্থানের ৪০ জন রয়েছেন।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের অভিযানে মোট ৪৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বোয়ালিয়া মডেল থানা ৯, রাজপাড়া থানা ৬, চন্দ্রিমা থানা ২, মতিহার থানা ৫, কাটাখালী থানা ২, বেলপুকুর থানা ১, শাহমখদুম থানা ২, পবা থানা ৫, কাশিয়াডাঙ্গা থানা ৩, কর্ণহার থানা ৭, দামকুড়া থানা ১ ও ডিবি পুলিশ ৩ জনকে গ্রেফতার করে। এর মধ্যে ১২ জন ওয়ারেন্টভুক্ত, ২৪ জন মাদকদ্রব্যসহ ও অন্যান্য অপরাধে ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মাদক মামলার আসামিদের হেফাজত থেকে মোট ১০১.৩ গ্রাম হেরোইন, ১৪.৪ লিটার দেশি মদ, ৪৭ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ২৬৫ গ্রাম গাঁজা ও এক লিটার ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়।

এদিকে, রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) ইফতেখার আলম জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী জেলা পুলিশের নিয়মিত মাদকবিরোধী অভিযানে মোট ৪০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গোদাগাড়ী মডেল থানা ১০, তানোর থানা ১০, মোহনপুর থানা ২, বাগমারা থানা ৭, দুর্গাপুর থানা ৩, পুঠিয়া থানা ২, চারঘাট মডেল থানা ২ ও বাঘা থানা ৪ জনকে গ্রেফতার করে। এর মধ্যে ১৪ জন ওয়ারেন্টভুক্ত, ১৮ জন মাদকদ্রব্যসহ ও ৮ জনকে অন্যান্য মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে। মাদক মামলার আসামিদের কাছ থেকে বিভিন্ন মাদক উদ্ধার করা হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

২ মিনিটেই শেষ মুহিবুল্লাহ কিলিং মিশন, অংশ নেয় ১৯ জন

২ মিনিটেই শেষ মুহিবুল্লাহ কিলিং মিশন, অংশ নেয় ১৯ জন

রাজশাহীতে জামায়াত-শিবিরের ১২ সদস্য গ্রেফতার

রাজশাহীতে জামায়াত-শিবিরের ১২ সদস্য গ্রেফতার

২ মিনিটেই শেষ মুহিবুল্লাহ কিলিং মিশন, অংশ নেয় ১৯ জন

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৭:০০

প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত করতেই রোহিঙ্গাদের শীর্ষনেতা মো. মুহিবুল্লাহকে হত্যা করা হয়েছে। মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডে অংশ নেয় ১৯ জন। এর মধ্যে পাঁচ জন ছিল অস্ত্রধারী। দুই মিনিটেই শেষ কিলিং মিশন। হত্যায় সরাসরি অংশ নেওয়া চার জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) দুপুর ১টায় ১৪ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক ও পুলিশ সুপার (এসপি) নাঈমুল হক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন।

হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনার বিবরণ তুলে ধরে তিনি বলেন, মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডে ১৯ জন সন্ত্রাসী অংশ নেয়। হত্যার দুই দিন আগে মরগজ পাহাড়ে বৈঠক করে তারা। সেখানে পাঁচ জনকে কিলিং মিশন শেষ করার নির্দেশ দেওয়া হয়। মুহিবুল্লাহকে গুলি করার সময় পাঁচ জন অংশ নেয়। দুই মিনিটেই হত্যার মিশন শেষ করে তারা। বাকিরা বাইরে পাহারায় ছিল।

শনিবার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে লম্বাশিয়া লোহার ব্রিজ এলাকা থেকে একটি ওয়ান শুটারগানসহ মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডে জড়িত আজিজুল হককে গ্রেফতার করা হয়। তার স্বীকারোক্তিতে মোহাম্মদ রশিদ প্রকাশ মুর্শিদ আমিন, মো. আনাছ ও নুর মোহাম্মদকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হত্যায় সরাসরি অংশ নেয়।

গ্রেফতার আজিজুল

গ্রেফতার আজিজুল হক উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা, রশিদ প্রকাশ মুর্শিদ আমিন কুতুপালং ক্যাম্প-১-এর ডি ৮ ব্লকের আব্দুল মাবুদের ছেলে, মো. আনাছ একই ক্যাম্পের বি ব্লকের ফজল হকের ছেলে ও নুর মোহাম্মদ একই ব্লকের নুর ইসলামের ছেলে। তাদের উখিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

এর আগে সন্দেহভাজন পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে মোহাম্মদ ইলিয়াছ নামের এক রোহিঙ্গা কক্সবাজার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাত পৌনে ৯টার দিকে মুহিবুল্লাহকে তার নিজ কার্যালয়ে ঢুকে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। লম্বাশিয়া ক্যাম্প ওয়ান ওয়েস্টে বাসার সামনে প্রতিদিনের অফিস করছিলেন। ওই সময় একদল লোক এসে তাকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি করে পালিয়ে যায়। পরে অন্যরা দ্রুত উদ্ধার করে পাশের এমএসএফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মুহিবুল্লাহকে মৃত ঘোষণা করেন।

/এএম/

সম্পর্কিত

রাজশাহীতে জামায়াত-শিবিরের ১২ সদস্য গ্রেফতার

রাজশাহীতে জামায়াত-শিবিরের ১২ সদস্য গ্রেফতার

এখন সবার আর্থিক অবস্থা আগের চেয়ে ভালো: শিক্ষামন্ত্রী

এখন সবার আর্থিক অবস্থা আগের চেয়ে ভালো: শিক্ষামন্ত্রী

ফেসবুকে একাধিক উসকানিমূলক পোস্ট, যুবক গ্রেফতার

ফেসবুকে একাধিক উসকানিমূলক পোস্ট, যুবক গ্রেফতার

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

পায়রা সেতু উদ্বোধন রবিবার, অনুষ্ঠানে থাকবেন ৪০০ অতিথি

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৫৫

বরিশাল-পটুয়াখালী সড়কের লেবুখালীর পায়রা নদীর ওপর নির্মিত পায়রা সেতু রবিবার (২৪ অক্টোবর) সকাল ১০টায় গণভবন থেকে উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর পরপরই যানবাহন চলাচলের জন্য সেতুটি উন্মুক্ত করে দেবে সড়ক ও জনপথ বিভাগ।

সেতুর পটুয়াখালী প্রান্তে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন- পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক এমপি। এছাড়া বরিশাল সিটি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ, বরিশাল ও পটুয়াখালী জেলার সংসদ সদস্যরা, সড়ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আবদুল্লাহ আল হাসান চৌধুরী ও প্রধান প্রকৌশলী আবদুস সবুর, শেখ হাসিনা সেনা নিবাসের জিওসি মেজর জেনারেল আবুল কালাম মো. জিয়াউর রহমান, বিভাগীয় কমিশনার সাইফুল হাসান বাদল, ডিআইজি এস এম আক্তারুজ্জামান, পুলিশ কমিশনার শাহাবুদ্দিন খান, সড়ক বিভাগ বরিশাল জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আবু হেনা মো. তারেক ইকবালসহ সরকারি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দুমকী প্রান্তে উপস্থিত থাকবেন।

বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি এস এম আক্তারুজ্জামান বলেন, ‘সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ৪০০ আমন্ত্রিত অতিথি উপস্থিত থাকবেন। আনন্দঘন এবং কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সম্পন্নের যাবতীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।’

পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী ও বরিশাল সদর আসনের এমপি জাহিদ ফারুক বলেন, ‘এই সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে মাওয়া এবং কাঁঠালবাড়ি থেকে দেশের সর্ব দক্ষিণের কুয়াকাটা পর্যন্ত ফেরিবিহীন সরাসরি সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু হবে এবং এতে দক্ষিণের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গতি বাড়বে।’

সেতুটি নির্মাণের কাজ শুরু হয় ২০১৬ সালের ২৪ জুলাই। এক হাজার ১১৮ কোটি টাকা ব্যয়ে এক্সট্রা ডোজ ক্যাবল স্ট্রেট নকশায় নির্মিত সেতুর দৈর্ঘ্য এক হাজার ৪৭০ মিটার এবং প্রস্থ ১৯.৭৬ মিটার।

চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান লং জিয়ান রোড অ্যান্ড ব্রিজ কোম্পানি লিমিটেড সেতুটি নির্মাণ করেছে। পায়রা সেতুর নান্দনিকতা ইতোমধ্যে দৃষ্টি কেড়েছে পর্যটকদের। দিনে এবং রাতের পায়রা সেতুর নৈসর্গিক দৃশ্য উপভোগ করতে প্রতিদিন ভিড় করছে পর্যটকরা।

/এফআর/

সম্পর্কিত

দেড় হাজার কোটি টাকার সেতুতে গাড়ি চলবে রবিবার    

দেড় হাজার কোটি টাকার সেতুতে গাড়ি চলবে রবিবার    

রাতে স্ত্রীকে হত্যা করে সকালে মেয়েকে নিয়ে থানায়

রাতে স্ত্রীকে হত্যা করে সকালে মেয়েকে নিয়ে থানায়

পিকআপে করে গরু চুরির সময় ৪ চোর গ্রেফতার

পিকআপে করে গরু চুরির সময় ৪ চোর গ্রেফতার

জমি নিয়ে বিরোধে ইউপি সদস্যকে মারধর, কাটা হলো বাড়ির সড়ক 

জমি নিয়ে বিরোধে ইউপি সদস্যকে মারধর, কাটা হলো বাড়ির সড়ক 

রাজশাহীতে জামায়াত-শিবিরের ১২ সদস্য গ্রেফতার

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৪৬

রাজশাহী মহানগরীতে জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্র শিবিরের ১২ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার (২৩ অক্টোবর) দুপুরে রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার (সদর) গোলাম রহুল কুদ্দুস এ তথ্য জানান।

গ্রেফতারকৃতরা হলো– মনিরুল ইসলাম (৫০), কলিম উদ্দিন (৬৮), আব্দুল মতিন (২৫), আব্দুল মমিন (২৫), ফয়সাল আহমেদ (২০),  আজাহার আলী (৩৫), আবু বক্কর (৪২), আব্দুর রব (৩০), উজ্জ্বল হোসেন (৩৪), আব্দুল হালিম (৩৫), ওবেদ (৫০) ও  আবুল হোসেন (৬১)।

গোলাম রহুল কুদ্দুস জানান, শুক্রবার (২২ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭টায় পবা থানার পালোপাড়া মধ্যপাড়া গ্রামের একটি বাড়িতে জামায়াত-শিবিরের কয়েকজন সদস্য দেশ ও সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্র এবং নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনার লক্ষ্যে গোপন বৈঠক করছিল। আরএমপির গোয়েন্দা বিশেষ টিম সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় সেখানে অভিযান পরিচালনা করে দেশ ও সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্র এবং নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনার লক্ষ্যে গোপন বৈঠক করাকালে জামায়াত-শিবিরের ১২ সক্রিয় কর্মীদেরকে গ্রেফতার করে। আসামিদের কাছ থেকে বিভিন্ন উগ্রবাদি বই, মিছিলের ব্যানার, জামায়াত-শিবিরের সদস্য সংগ্রহ ফরম, ইয়ানত আদায়ের হিসাব বই এবং চাঁদা আদায়ের রশিদ বই উদ্ধার হয়।

তিনি আরও বলেন, ‘গ্রেফতার আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।’

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

২ মিনিটেই শেষ মুহিবুল্লাহ কিলিং মিশন, অংশ নেয় ১৯ জন

২ মিনিটেই শেষ মুহিবুল্লাহ কিলিং মিশন, অংশ নেয় ১৯ জন

ফেসবুকে একাধিক উসকানিমূলক পোস্ট, যুবক গ্রেফতার

ফেসবুকে একাধিক উসকানিমূলক পোস্ট, যুবক গ্রেফতার

চুল কেটে দেওয়া শিক্ষিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত না আসায় ফের অনশন 

চুল কেটে দেওয়া শিক্ষিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত না আসায় ফের অনশন 

সিরাজগঞ্জে মনসুর আলীর নাতির ওপর হামলা

সিরাজগঞ্জে মনসুর আলীর নাতির ওপর হামলা

এখন সবার আর্থিক অবস্থা আগের চেয়ে ভালো: শিক্ষামন্ত্রী

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৬:১৯

আগের সরকারগুলোর আমলে বিদ্যুৎ মাঝে মাঝে আসতো। আর এখন হঠাৎ কখনও যায় বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি বলেছেন, ‘সবসময় বিদ্যুৎ থাকে। এটিই হলো শেখ হাসিনার নেতৃত্বের সৌন্দর্য। মানুষের যা প্রয়োজন, উন্নয়নের জন্য যা প্রয়োজন তার সবকিছুই তিনি করছেন। এখন সবারই আর্থিক অবস্থা আগের চেয়ে অনেক ভালো। এ জন্য আমরা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।’

শনিবার (২৩ অক্টোবর) দুপুরে চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির নবনির্মিত কার্যালয় উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

দীপু মনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন ৯৬ সালে প্রথম সরকার গঠন করেছিলেন, তার আগের ১০০ বছরে বিদ্যুৎ উৎপাদন হয়েছিল ১৬০০ মেগাওয়াট। শেখ হাসিনার ১৭ বছরে প্রায় ২৫ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে। এটিকেই বলে নেতৃত্ব। এই নেতৃত্বর ফলে বাংলাদেশ আজ এ অবস্থানে এসেছে।’

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রথম পাঁচ বছরে ১৬০০ মেগাওয়াট থেকে চার হাজার ৩০০ মেগাওয়াটে উন্নীত করেছিলেন। পাঁচ বছরে বিদ্যুৎ উৎপাদন করেছিলেন প্রায় তিনগুণেরও বেশি। এরপর বিএনপি জামায়াতের পাঁচ এবং অবৈধ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দুই মিলিয়ে সাত বছরে বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়াতো দূরে থাক, তা কমে হলো তিন হাজার ৮০০ মেগাওয়াট। এই হলো বিএনপি-জামায়াত এবং সুশীলদের সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার সেই তিন হাজার ৮০০ মেগাওয়াট থেকে প্রায় ২৫ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুতে উন্নীত করেছেন। তিনি যোগ্য পিতার যোগ্য কন্যা।’

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। এর মধ্যে কিছু বিষয়ে আমাদের নিজেদের একটু সচেতন ও সাশ্রয়ী হতে হবে। বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে কিন্তু অনেক পয়সা লাগে। যে মূল্যে সরকার আমাদের বিদ্যুৎ দেয়, একেক মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে তার চেয়ে আরও বেশি খরচ হয়। দেশে শুধু বিদ্যুৎ নয়, অবকাঠামো, রাস্তাঘাট, স্কুল-কলেজসহ সব ক্ষেত্রে উন্নয়ন হয়েছে। নদীর তলদেশ দিয়ে চরে বিদ্যুৎ দেওয়া হয়েছে- এটি কেউ কোনও দিন চিন্তা করেছিল?’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ, পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, পৌর মেয়র মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নূরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, ফরিদগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম রোমান, কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ অঞ্চলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. আতাউর রহমান, চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম দেব কুমার মালু, প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী প্রমুখ।

/এফআর/

সম্পর্কিত

২ মিনিটেই শেষ মুহিবুল্লাহ কিলিং মিশন, অংশ নেয় ১৯ জন

২ মিনিটেই শেষ মুহিবুল্লাহ কিলিং মিশন, অংশ নেয় ১৯ জন

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পায়রা সেতু উদ্বোধন রবিবার, অনুষ্ঠানে থাকবেন ৪০০ অতিথি

পায়রা সেতু উদ্বোধন রবিবার, অনুষ্ঠানে থাকবেন ৪০০ অতিথি

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

বিশেষ ট্রাইব্যুনালে বিশৃঙ্খলায় জড়িতদের বিচার চান রানা দাশগুপ্ত

বিশেষ ট্রাইব্যুনালে বিশৃঙ্খলায় জড়িতদের বিচার চান রানা দাশগুপ্ত

দেড় হাজার কোটি টাকার সেতুতে গাড়ি চলবে রবিবার    

দেড় হাজার কোটি টাকার সেতুতে গাড়ি চলবে রবিবার    

রিজার্ভ ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেলো মামা-ভাগ্নের

রিজার্ভ ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেলো মামা-ভাগ্নের

ইকবাল ও মাজারের খাদেমদের ৭ দিনের রিমান্ড

ইকবাল ও মাজারের খাদেমদের ৭ দিনের রিমান্ড

‘সাম্প্রদায়িক হামলার পেছনে বিএনপি-জামায়াতসহ কিছু অপশক্তি জড়িত’

‘সাম্প্রদায়িক হামলার পেছনে বিএনপি-জামায়াতসহ কিছু অপশক্তি জড়িত’

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ৬ জনকে হত্যা, আটক ৮

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ৬ জনকে হত্যা, আটক ৮

ইকবাল ও মাজারের দুই খাদেম আদালতে, রিমান্ড চাইবে পুলিশ

ইকবাল ও মাজারের দুই খাদেম আদালতে, রিমান্ড চাইবে পুলিশ

সর্বশেষ

রাজশাহীতে ২৪ ঘণ্টায় ৮৬ জন গ্রেফতার

রাজশাহীতে ২৪ ঘণ্টায় ৮৬ জন গ্রেফতার

মৃত্যু ও শনাক্ত বেড়েছে

মৃত্যু ও শনাক্ত বেড়েছে

কৃষি উদ্যোক্তা তৈরিতে সেল গঠন করা হবে: কৃষিমন্ত্রী

কৃষি উদ্যোক্তা তৈরিতে সেল গঠন করা হবে: কৃষিমন্ত্রী

২ মিনিটেই শেষ মুহিবুল্লাহ কিলিং মিশন, অংশ নেয় ১৯ জন

২ মিনিটেই শেষ মুহিবুল্লাহ কিলিং মিশন, অংশ নেয় ১৯ জন

ভক্তকে নিয়ে মিউজিক ভিডিওতে প্রথমবার ওমর সানী

ভক্তকে নিয়ে মিউজিক ভিডিওতে প্রথমবার ওমর সানী

© 2021 Bangla Tribune