X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

দুর্গাপূজার বাদ‌্যের হাট, বায়না ছাড়া যায় না ঢাক

আপডেট : ১০ অক্টোবর ২০২১, ২০:০৪

রাত ফুরোলেই শোনা যাবে ষষ্ঠীর ঢাক। ছন্দে ছন্দে ছড়িয়ে পড়বে উৎসবের বার্তা। মহাষষ্ঠী থেকে বিসর্জন—ঢাকের তাল মাতাবে পূজার প্রতিক্ষণ। আর সেই ঢাক ও ঢাকি নিয়ে বসেছে হাট। কটিয়াদীর কয়েক শ’ বছরের ঐতিহ্য বলে কথা। পূজার আগের দিন থেকে ষষ্ঠীর দুপুর পর্যন্ত চলবে এ হাটের আয়োজন।

জনশ্রুতি আছে, ষোড়শ শতাব্দীর শুরুর দিকে রাজা নবরঙ্গ রায়ের আমলে কটিয়াদীতে প্রথম ঢাকের হাটের আয়োজন করা হয়। ওই সময় রাজপ্রাসাদে জাঁকজমকভাবে দুর্গাপূজার আয়োজন করতেন তিনি। একবার পূজার প্রয়োজনে সেরা ঢাকির সন্ধানে বিক্রমপুর পরগনায় বার্তা পাঠান। নৌপথে বহু ঢাকি কটিয়াদী আসেন তখন। রাজা নিজে বাজনা শুনে সেরা দল বেছে নেন। সেই থেকেই ঢাকের হাটের প্রচলন।

রবিবার (১০ অক্টোবর) সকাল থেকেই কটিয়াদী উপজেলার পুরান বাজারে জমে উঠেছে ঐতিহ‌্যবাহী ঢাকের হাট। চলবে সোমবার (১১ অক্টোবর) বিকাল পর্যন্ত।

নাম শুনে ঢাক-ঢোল বেচাকেনার হাট মনে হতে পারে। আসলে তা নয়। যারা ঢাক বাজান, সেই ঢাকিরা পূজা আয়োজকদের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন। পরে তারাই বাদ্যের তালে মাতিয়ে রাখেন পূজামণ্ডপ।

বংশ পরম্পরায় প্রতিবছরই এ হাটে ঢাক-ঢোল নিয়ে হাজির হন ঢাকিরা। কোন দলের চুক্তিমূল্য কত হবে, তা নির্ধারণ হয় ঢাকির দক্ষতার ওপর। হাটেই সেটা যাচাই করেন পূজার আয়োজকরা।

হাটে আসা বাদকরা জানান, সাধারণত দলগতভাবে পূজা আয়োজকদের সঙ্গে চুক্তি হয় তাদের। সর্বনিম্ন হাজার থেকে লাখ টাকাও ছাড়িয়ে যায় চুক্তিমূল্য।

কটিয়াদীর পুরান বাজারে গিয়ে দেখা যায়, দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে বাদ্যযন্ত্র নিয়ে হাটে হাজির অগণিত বাদকদল। শুধু ঢাক-ঢোলই নয়, বাঁশি, সানাই, করতাল, খঞ্জনি, মন্দিরা, কাঁশি, ঝনঝনিসহ নানা জাতের বাদ্যযন্ত্রও পূজায় ভাড়ায় নেওয়া হয়। বহু বাদকদল বাদ্যযন্ত্র সাজিয়ে তাদের দক্ষতা জাহির করছে। যেন সুরমূর্ছনা আসর বসেছে জাঁকিয়ে।

বাজিতপুর ‍উপজেলা থেকে সাতজনের একটি দল নিয়ে হাটে এসেছেন সুনীল কর্মকার। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, তার দল দক্ষতার পরীক্ষা দিচ্ছে নানা বাদ্য বাজিয়ে। চলছে দরদাম। আশা করছেন, ভালো দামেই এবার পূজা মাতাবেন তারা।

সুনীল আরও জানালেন, বহু বছর ধরে এ হাটে আসছেন তারা। কখনই নিরাশ হতে হয়নি। এবারও আশা করছেন, ৩০-৩৫ হাজার টাকায় চুক্তিবদ্ধ হবেন।

মুন্সীগঞ্জের বিক্রমপুর থেকে এসেছে পরিমল চন্দ্র দাসসহ ৩০ জন ঢাকি। ১৭ জনের সঙ্গে এরইমধ্যে বিভিন্ন মণ্ডপ কর্তৃপক্ষের বায়না হয়েছে। বাকিদের সঙ্গে চলছে দরদাম।

তারা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘গতবছর করোনার কারণে হাটে আসা হয়নি। এ বছর পূজা হচ্ছে, তাই আমরাও এসেছি। ঢাকের এ হাট থেকে ভালো বায়নায় চুক্তি করতে পারি।’

ঢাকার গুলশান থেকে ঢাকির দল ভাড়া করতে এসেছেন কাঞ্চন কুমার দত্ত। ৬০ হাজার টাকায় দল ঠিক করেছেন। বাংলা টিব্রিউনকে বলেন, ‘প্রতি বছর এ হাট থেকেই ঢাকি নিয়ে যাই। ঘুরে ঘুরে বাজনা শুনেছি। একটি দলের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে। হাটটা বেশ উপভোগও করি আমি।’

কটিয়াদী উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের বেনী মাধব ঘোষ বলেন, ‘ঢাকের হাটে চার থেকে পাঁচ শ’ বাদক আসে। গতবছর করোনায় কেউ আসেনি বললেই চলে। এবছর সারাদেশে পূজা বেড়েছে। আগের মতোই অনেক বাদকদল এসেছে। যারা দক্ষ, তারাই এ হাটে আসে। যারা চুক্তিবদ্ধ হতে পারে না, তাদের আমরা টাকা-পয়সা দিয়ে বাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করি।’

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

নিখোঁজের ৯ ঘণ্টা পর বুড়িগঙ্গা থেকে মাদ্রাসাছাত্রের লাশ উদ্ধার

নিখোঁজের ৯ ঘণ্টা পর বুড়িগঙ্গা থেকে মাদ্রাসাছাত্রের লাশ উদ্ধার

টিকিট ছাড়া ট্রেনে ওঠায় ৩২৮ যাত্রীকে জরিমানা

টিকিট ছাড়া ট্রেনে ওঠায় ৩২৮ যাত্রীকে জরিমানা

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

‘মোস্তফা’ পুরস্কার নিতে ইরান যাচ্ছেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী

‘মোস্তফা’ পুরস্কার নিতে ইরান যাচ্ছেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী

ছবি তোলার কথা বলে প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে কাশবনে ধর্ষণ 

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৯:২৫

গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার দুর্গম বালু চরের কাশবনে ছবি তোলার কথা বলে এক কিশোরীকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত প্রেমিকসহ দুই জনকে গ্রেফতার করেছে। শনিবার (১৬ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১০টার দিকে সাঘাটা উপজেলার ভাঙ্গামোড় এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করে পুলিশ। 

গ্রেফতাররা হলেন কথিত প্রেমিক মাহবুব রহমান (২১) ও তার বন্ধু পলাশ মিয়া (২০)। তাদের বাড়ি সাঘাটা উপজেলায়। 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ফুলছড়ি থানার ওসি কাওসার আলী। তিনি বলেন, গাইবান্ধা জেলা শহরের এক কিশোরীর সঙ্গে সাঘাটা উপজেলার মাহবুব নামের এক যুবকের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। শুক্রবার বিকালে মাহবুব তার বন্ধু পলাশকে নিয়ে মেয়েটির সঙ্গে দেখা করতে আসে। পরে মেয়েটিকে ফুসলিয়ে ফুলছড়ি উপজেলার গজারিয়া চরে নিয়ে যায়।

এ সময় দুর্গম চরের কাশবনে ছবি তোলার সময় প্রেমিক মাহবুব প্রথমে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। পরে তার বন্ধু পলাশও কিশোরীকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন মেয়েটিকে উদ্ধার করে বাড়িতে পৌঁছে দেয়।

ওসি আরও জানান, ঘটনা ধামাচাপা থাকলেও শনিবার রাতে বিষয়টি জানাজানি হয়। পরে মেয়েটির মা থানায় অভিযোগ দিলে অভিযান চালিয়ে প্রেমিক মাহবুব ও তার বন্ধু পলাশকে গ্রেফতার করা হয়।

রাতেই কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে তার মা বাদী হয়ে ফুলছড়ি থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগটি মামলা হিসেবে রেকর্ডভুক্ত করা হয়েছে। রবিবার (১৭ অক্টোবর) সকালে গ্রেফতার দুই আসামিকে আদালতে নেওয়া হবে বলেও জানান ওসি।

/টিটি/

সম্পর্কিত

বাসা থেকে ডেকে নিয়ে এক ব্যক্তিকে হত্যা

বাসা থেকে ডেকে নিয়ে এক ব্যক্তিকে হত্যা

হিলি স্থলবন্দরে ৩ মাসে রাজস্ব ঘাটতি ২৩ কোটি টাকা

হিলি স্থলবন্দরে ৩ মাসে রাজস্ব ঘাটতি ২৩ কোটি টাকা

স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী আটক

স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী আটক

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

মুহিবুল্লাহ হত্যা: বান্দরবানে রোহিঙ্গা যুবক আটক

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২৩:০৫

আলোচিত রোহিঙ্গা নেতা মোহাম্মদ মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার সন্দেহে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি থেকে আবদু নবী (৪০) নামের এক রোহিঙ্গা যুবক‌কে আটক করা হয়েছে। সে কক্সবাজারের উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প-১ এর বাসিন্দা ইমাম হোসেনের ছেলে।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে এনএসআই-এর সদস্যরা উপজেলার বিছামারা এলাকা থেকে তাকে আটক করে পুলিশে দেয়। আটক আবদু নবী মহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডে জড়িত ও সশস্ত্র রোহিঙ্গা মুসলিম গোষ্ঠী আরসার সদস্য বলে সন্দেহ করছে গোয়েন্দারা।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে আরসার সক্রিয় সদস্য বলে স্বীকারও করেছে। সম্প্রতি রোহিঙ্গা নেতা মোহাম্মদ মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের পর জড়িতদের আটকে ক্যাম্প এলাকায় বিশেষ অভিযান চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ধারণা করা হচ্ছে, গ্রেফতার এড়াতে আরসার এই সদস্য বান্দরবা‌নের নাইক্ষ্যংছড়িতে আশ্রয় নিয়েছিল।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি (তদন্ত) মো. শরীফ ইবনে আলম জানান, আবদু নবী নামে এক আসামিকে নাইক্ষ্যংছড়ি থানা থেকে উখিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে সে আরসার সদস্য কি-না জানেন না তিনি।

/এফআর/

সম্পর্কিত

কুমিল্লার সেই ভিডিও আমাদের কাছে আছে: হাছান মাহমুদ

কুমিল্লার সেই ভিডিও আমাদের কাছে আছে: হাছান মাহমুদ

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

পেঁয়াজ আমদানি নিয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠক

পেঁয়াজ আমদানি নিয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠক

‘ঘটনা ঘটান আপনারা আর বলেন বিএনপির হাত আছে’

‘ঘটনা ঘটান আপনারা আর বলেন বিএনপির হাত আছে’

নিখোঁজের ৯ ঘণ্টা পর বুড়িগঙ্গা থেকে মাদ্রাসাছাত্রের লাশ উদ্ধার

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২৩:৩৯

ফতুল্লার বরফকল এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীতে পড়ে নিখোঁজ হওয়া আতিফ আফনানের (১২) নামে এক মাদ্রাসাছাত্রের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় লাশটি উদ্ধার করেন ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা।

এর আগে সকাল ৯টায় সে নিখোঁজ হয়। আফনান বাবা-মায়ের সঙ্গে ফতুল্লার হরিহরপাড়া আমতলা এলাকায় থাকতো। সে ধর্মগঞ্জ ইসলামীয়া আরাবিয়া দাখিল মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শনিবার সকালে সে মাদ্রাসা থেকে সহপাঠীদের সঙ্গে নদীর তীরে ঘুরতে যায়। এরপর নদীতে নোঙর করা এক বাল্কহেড থেকে আরেক বাল্ডহেডে লাফিয়ে যাওয়ার সময় পড়ে গিয়ে নিখোঁজ হয়। পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল তল্লাশি চালিয়ে সন্ধ্যায় লাশ উদ্ধার করে।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মো. রাকিবুজ্জামান ঘটনাটি নিশ্চিত করে বলেন, ‘লাশ উদ্ধার করে ওই ছাত্রের পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

টিকিট ছাড়া ট্রেনে ওঠায় ৩২৮ যাত্রীকে জরিমানা

টিকিট ছাড়া ট্রেনে ওঠায় ৩২৮ যাত্রীকে জরিমানা

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

‘মোস্তফা’ পুরস্কার নিতে ইরান যাচ্ছেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী

‘মোস্তফা’ পুরস্কার নিতে ইরান যাচ্ছেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী

বাসা থেকে ডেকে নিয়ে এক ব্যক্তিকে হত্যা

বাসা থেকে ডেকে নিয়ে এক ব্যক্তিকে হত্যা

কুমিল্লার সেই ভিডিও আমাদের কাছে আছে: হাছান মাহমুদ

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২২:৫৮

কুমিল্লার ঘটনার পেছনে বিএনপির ইন্ধন ছিল বলে অভিযোগ করে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, মির্জা ফখরুল বলেছেন সরকার নাকি দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অপচেষ্টা চালাচ্ছে। তার এই বক্তব্যের মাধ্যমে প্রমাণিত হয় কুমিল্লার ঘটনার পেছনে তাদের ইন্ধন ছিল। এই কথার মধ্য দিয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেব কি বাংলাদেশের সব মানুষকে বোকা ভেবেছেন। তিনি মনে করেছেন এই কথা বলে দেশের মানুষকে বোকা বানাবেন। তার কথায় দেশের মানুষ যেমন হাসছে, হনুমানও হাসে।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকালে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন। উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নুরুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর হোসেন তপু। সাধারণ সম্পাদক শিমুল গুপ্তের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ রেজাউল করিম।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আজকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টের অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে, কুমিল্লার ঘটনায় কারা মিছিল বের করেছে, সেই ভিডিও ফুটেজ আমাদের কাছে আছে। তারা কোন দলের সমর্থক, তারা কোন মতাদর্শে বিশ্বাস করে সেগুলো বের করে সবার সামনে প্রকাশ করবো। এদেশের শান্তি-শৃঙ্খলা কোনোভাবেই নষ্ট হতে দেবো না।

তিনি বলেন, যারা বিশৃঙ্খলার সঙ্গে যুক্ত ছিল, এখনও যুক্ত আছে, ফেসবুকে যারা অপপ্রচার চালিয়েছে কিংবা চালাচ্ছে, সবার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কারা ঘটনা ঘটিয়েছে তা পরিষ্কার হয়ে যাবে, তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে সরকার বদ্ধপরিকর।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার প্রশংসা পছন্দ হয়নি বিধায় নানা ধরনের ষড়যন্ত্র হয়। বিএনপি-জামায়াত রাজনৈতিকভাবে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে মোকাবিলা করতে ব্যর্থ হয়ে নানা ষড়যন্ত্রের পথ বেছে নিয়েছে। কুমিল্লায় যে ঘটনা ঘটিয়ে সারাদেশে সাম্প্রদায়িক উসকানি দেওয়া হয়েছে, এর পেছনে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য ছিল। এর পেছনে বিএনপি-জামায়াতসহ ধর্মান্ধ গোষ্ঠী যুক্ত। তারা এই ঘটনা ঘটিয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চেয়েছিল। শেখ হাসিনার সরকার বিশৃঙ্খলা দমন করেছে।

ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে সতর্ক দৃষ্টি রাখার অনুরোধ জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ক্ষমতায় থাকলে বিনয়ী হতে হয়। ছাত্রলীগের তরুণ ভাইবোনদের বিনয়ী হতে হবে। কারণ উদ্যত আচরণ কেউ পছন্দ করে না। পাশাপাশি লেখাপড়ায় মনোযোগ দিতে হবে। লেখাপড়া বাদ দিয়ে শুধু ছাত্রলীগের কাজ করার প্রয়োজন নেই।

বর্তমানে বাংলাদেশের উন্নয়ন দেখে পাকিস্তান দীর্ঘশ্বাস ফেলে জানিয়ে হাছান মাহমুদ  বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের উন্নয়নের প্রশংসায় বিশ্বময় পঞ্চমুখ। এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা আগেই অর্জন করার জন্য জাতিসংঘ আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনাকে পুরস্কৃত করে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী স্বীকার করে বলেছেন মানব উন্নয়ন, সামাজিক ও অর্থনৈতিকসহ সব সূচকে আজকে বাংলাদেশ পাকিস্তানকে পেছনে ফেলেছে। মানব উন্নয়ন, সামাজিক সূচকসহ মাথাপিছু আয়ের ক্ষেত্রে আমরা ভারতকেও পেছনে ফেলেছি।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ নেতা স্বজন কুমার তালুকদার, আবুল কাশেম চিশতী, শাহজাহান সিকদার, নজরুল ইসলাম তালুকদার, মুহাম্মদ আলী শাহ, ডা. মোহাম্মদ সেলিম, আকতার হোসেন খাঁন, শফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদার, গিয়াস উদ্দিন খাঁন স্বপন ও যুবলীগের সভাপতি আরজু সিকদার প্রমুখ।

/এএম/

সম্পর্কিত

মুহিবুল্লাহ হত্যা: বান্দরবানে রোহিঙ্গা যুবক আটক

মুহিবুল্লাহ হত্যা: বান্দরবানে রোহিঙ্গা যুবক আটক

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

পেঁয়াজ আমদানি নিয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠক

পেঁয়াজ আমদানি নিয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠক

‘ঘটনা ঘটান আপনারা আর বলেন বিএনপির হাত আছে’

‘ঘটনা ঘটান আপনারা আর বলেন বিএনপির হাত আছে’

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২২:৪৮

কুমিল্লায় যাত্রীবাহী বাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষে নারীসহ দুই জন নিহত ও অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। শনিবার (১৬ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে কুমিল্লা-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়কের বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বুড়িচং উপজেলার দেবপুর পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই জহিরুল ইসলাম বলেন, ‘রাত সাড়ে ৮টার দিকে মহাসড়কের কুমিল্লার ময়নামতি এলাকায় সিলেটগামী তিশা গোল্ডেন পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসের (ঢাকা মেট্রো-ব ১৫-৩৬৯১) সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। বাসটি সিএনজিটিকে চাপা দিয়ে সড়কের পাশে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এতে ঘটনাস্থলে এক নারী নিহত হব। এছাড়াও ময়নামতি জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পর আরেকজন মারা যান।’

ময়নামতি হাইওয়ে থানার ওসি আনিসুর রহমান বলেন, ‘আমরা ঘটনাস্থলে এসেছি। যারা মারা গেছে তাদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ বিষয়ে বিস্তারিত পরে জানাবো।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

মুহিবুল্লাহ হত্যা: বান্দরবানে রোহিঙ্গা যুবক আটক

মুহিবুল্লাহ হত্যা: বান্দরবানে রোহিঙ্গা যুবক আটক

কুমিল্লার সেই ভিডিও আমাদের কাছে আছে: হাছান মাহমুদ

কুমিল্লার সেই ভিডিও আমাদের কাছে আছে: হাছান মাহমুদ

পেঁয়াজ আমদানি নিয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠক

পেঁয়াজ আমদানি নিয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠক

‘ঘটনা ঘটান আপনারা আর বলেন বিএনপির হাত আছে’

‘ঘটনা ঘটান আপনারা আর বলেন বিএনপির হাত আছে’

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

নিখোঁজের ৯ ঘণ্টা পর বুড়িগঙ্গা থেকে মাদ্রাসাছাত্রের লাশ উদ্ধার

নিখোঁজের ৯ ঘণ্টা পর বুড়িগঙ্গা থেকে মাদ্রাসাছাত্রের লাশ উদ্ধার

টিকিট ছাড়া ট্রেনে ওঠায় ৩২৮ যাত্রীকে জরিমানা

টিকিট ছাড়া ট্রেনে ওঠায় ৩২৮ যাত্রীকে জরিমানা

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

‘মোস্তফা’ পুরস্কার নিতে ইরান যাচ্ছেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী

‘মোস্তফা’ পুরস্কার নিতে ইরান যাচ্ছেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী

বাসা থেকে ডেকে নিয়ে এক ব্যক্তিকে হত্যা

বাসা থেকে ডেকে নিয়ে এক ব্যক্তিকে হত্যা

ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে সিঙ্গাপুর প্রবাসীর আত্মহত্যা

ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে সিঙ্গাপুর প্রবাসীর আত্মহত্যা

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

ইজিবাইকে ছিনতাইয়ের জন্যই কি হত্যা?  

ইজিবাইকে ছিনতাইয়ের জন্যই কি হত্যা?  

সর্বশেষ

ছবি তোলার কথা বলে প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে কাশবনে ধর্ষণ 

ছবি তোলার কথা বলে প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে কাশবনে ধর্ষণ 

টিকায় ভালো পরিকল্পনার ঘাটতি আছে: অধ্যাপক ডা. বে-নজির

টিকায় ভালো পরিকল্পনার ঘাটতি আছে: অধ্যাপক ডা. বে-নজির

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বদনজর থেকে শিশুকে বাঁচাতে টিপ দেওয়া যাবে?

বদনজর থেকে শিশুকে বাঁচাতে টিপ দেওয়া যাবে?

ফেনীতে ত্রিমুখী সংঘর্ষ, আহত ৩০

ফেনীতে ত্রিমুখী সংঘর্ষ, আহত ৩০

© 2021 Bangla Tribune