X
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

কারাগারে বিজয়ী প্রার্থী, শপথ না নিলে নির্বাচন বাতিল

আপডেট : ১০ অক্টোবর ২০২১, ২০:৫১

উপনির্বাচনে কারাগারে থেকে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) চকবাজার ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন অস্ত্র মামলার আসামি নুর মোস্তফা টিনু। গত ৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ২০ প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে হারিয়ে মিষ্টিকুমড়া প্রতীকে ৭৮৯ ভোট পেয়ে তিনি নির্বাচিত হয়েছেন। শিগগিরই নির্বাচিত প্রার্থীর শপথ অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। আর এই শপথ অনুষ্ঠানে নির্বাচিত প্রার্থী নুর মোস্তফা টিনু হাজির হতে না পারলে নির্বাচন বাতিল হবে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কামরুল আলম।

বাংলা ট্রিবিউনকে কামরুল আলম বলেন, ‘গেজেট প্রকাশ হওয়ার এক মাসের মধ্যে শপথ অনুষ্ঠান আয়োজনের বাধ্যবাধকতা আছে। নির্ধারিত শপথ অনুষ্ঠানে যদি বিজয়ী প্রার্থী উপস্থিত না থাকেন, সে ক্ষেত্রে নির্বাচনটি বাতিল হয়ে যায়। তখন নতুন করে ওই ওয়ার্ডে আবার নির্বাচনের আয়োজন করতে হবে।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘শপথ অনুষ্ঠান কবে হবে এটি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ঠিক করবে। আমাদের কাজ হচ্ছে নির্বাচন পরিচালনা করা। নির্বাচন অনুষ্ঠানের পর গেজেট প্রকাশ করার পরেই আমাদের কাজ শেষ।’

কবে নাগাদ গেজেট প্রকাশ হতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সাধারণত নির্বাচন শেষ হওয়ার ১০ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে গেজেট প্রকাশ করা হয়। আশা করছি, চলতি সপ্তাহে নির্বাচিত প্রার্থীর নাম-ঠিকানা সংবলিত গেজেট প্রকাশিত হবে। এরপর এক মাসের মধ্যে যেকোনও একদিন শপথ অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।’

কাউন্সিলর সাইয়্যেদ গোলাম হায়দার মিন্টু মারা যাওয়ায় গত ৭ অক্টোবর চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের চকবাজার ওয়ার্ডে উপনির্বাচনের আয়োজন করা হয়। নির্বাচনে অস্ত্র মামলায় গ্রেফতার হওয়া নুর মোস্তফা টিনুসহ ২১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এরমধ্যে ৭৮৯ ভোট পেয়ে টিনু মিষ্টিকুমড়া প্রতীকে নির্বাচিত হন। টিনুর বিরুদ্ধে চকবাজার এলাকায় সন্ত্রাস, ছিনতাই, চাঁদাবাজির একাধিক অভিযোগ রয়েছে। এসব ঘটনায় তার বিরুদ্ধে চকবাজার ও পাঁচলাইশ থানায় অন্তত চারটি মামলা আছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এরমধ্যে অস্ত্রসহ আটকের ঘটনায় দায়ের করা একটি মামলায় টিনু বর্তমানে চট্টগ্রাম কারাগারে রয়েছেন। ২০১৯ সালের ২২ অক্টোবর রাতে র‌্যাব তাকে অস্ত্রসহ গ্রেফতারের পর চকবাজার থানায় তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলাটি দায়ের করা হয়। ওই মামলায় অন্তর্বর্তীকালীন জামিনে কারাগার থেকে বের হওয়া পর উচ্চ আদালতের নির্দেশে গত ২০ জুন চট্টগ্রামের আদালতে আত্মসমর্পণ করেন টিনু। আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। তখন থেকে এখন পর্যন্ত টিনু কারাগারে রয়েছেন। কারাগারে থেকেই চকবাজার ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে অংশ নেন। এর আগে ২০০৩ সালে একে-৪৭ রাইফেলসহ পুলিশ টিনুকে গ্রেফতার করে। ওই বছরের ২৯ এপ্রিল নগরীর গোলপাহাড় এলাকা থেকে নগর গোয়েন্দা পুলিশ আরও এক সহযোগীসহ তাকে একে-৪৭ রাইফেলসহ আটক করে।

কারাগারে থাকায় শপথ অনুষ্ঠানে তার অংশগ্রহণ নিয়ে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। জেলা নির্বাচন কার্যালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নিয়ম অনুযায়ী গেজেট প্রকাশের পর নির্ধারিত শপথ অনুষ্ঠানের দিনে বিজয়ী প্রার্থীকে সশরীরে উপস্থিত থেকে শপথ গ্রহণ করতে হয়। ওই দিন কোনও বিজয়ী প্রার্থী অনুপস্থিত থাকলে সেই নির্বাচন বাতিল হয়ে যায়। ওই ওয়ার্ডে তখন পুনরায় নির্বাচনের আয়োজন করতে হবে।

তবে শপথ অনুষ্ঠানের আগেই যদি নুর মোস্তফা টিনু জামিন পেয়ে যান, সেই ক্ষেত্রে নির্বাচন বাতিল হওয়ার অনিশ্চয়তা কেটে যাবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের উপ-সচিব (চলতি দায়িত্ব) মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘নির্বাচনের গেজেট প্রকাশ করার পর আমাদের দায়িত্ব শেষ। শপথ অনুষ্ঠান করে স্থানীয় মন্ত্রণালয়। সে ক্ষেত্রে শপথ অনুষ্ঠানে বিজয়ী প্রার্থী অংশ নিতে না পারলে কী হবে সেটি তাদের ওপর নির্ভর করছে। তবে আমি যতদূর জানি, নিয়ম অনুযায়ী বিজয়ী প্রার্থী শপথ অনুষ্ঠানে অংশ না নিলে ওই ওয়ার্ড শূন্য ঘোষণা করা হয়।’

স্থানীয় মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব দীপক চক্রবর্তী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘গেজেট প্রকাশের ৩০ দিনের মধ্যে শপথ অনুষ্ঠানের একটি বাধ্যবাধকতা আছে। শপথ অনুষ্ঠানে বিজয়ী প্রার্থীকে সশরীরে অংশ নিতে হবে। এখনও তো সময় আছে, গেজেট প্রকাশ হয়নি। তাই হয়তো ওই প্রার্থী জামিন পেয়েও যেতে পারেন। আবার তিনি শপথ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য প্যারোলে মুক্তির আবেদনও করতে পারেন। শপথ অনুষ্ঠানে অংশ নিতে না পারলে তখন নিয়ম অনুযায়ী যা করা দরকার, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে সেই ব্যবস্থা করা হবে।’

/এমএএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

আ.লীগ নেতাকে পিষে দিলো বেপরোয়া গতির গাড়ি   

আ.লীগ নেতাকে পিষে দিলো বেপরোয়া গতির গাড়ি   

চার দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ব্যবসায়ীর

চার দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ব্যবসায়ীর

ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে সিঙ্গাপুর প্রবাসীর আত্মহত্যা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮:৩৬

টাঙ্গাইলের বাসাইলে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে শরিফুল ইসলাম (২৮) নামের এক সিঙ্গাপুর প্রবাসী আত্মহত্যা করেছেন। শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার সোনালিয়া রেলক্রসিং এলাকায় বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দেন তিনি।

নিহত শরিফুল ইসলাম সখীপুর উপজেলার দেওবাড়ী গ্রামের আলাল মিয়ার ছেলে। বাবা আলাল মিয়া বলেন, ‘ছয় মাস আগে শরিফুল সিঙ্গাপুর থেকে ছুটিতে বাড়িতে আসে। সে তিন মাস আগে বাসাইল উপজেলার নাইকানীবাড়ী গ্রামের আমেনা নামের এক মেয়েকে বিয়ে করে। শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) শরিফুল শ্বশুর বাড়িতে যায়। আজ খবর পাই, শরিফুল মারা গেছে।’

স্থানীয়রা জানান, বিকালে বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা থেকে ছেড়ে রাজশাহী যাওয়ার সময় সোনালিয়া রেলক্রসিং এলাকায় এলে শরিফুল ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন। খবর পেয়ে তার বাবাসহ পরিবারের লোকজন এসে সেখানেই কান্নায় ভেঙে পড়েন এবং বারবার মূর্ছা যান।

বাসাইল থানার এসআই মজিবুর রহমান বলেন, ‘খবর পেয়ে নিহতের লাশ রেলওয়ে পুলিশ নিয়ে গেছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক কোনও ঝামেলার কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

ইজিবাইকে ছিনতাইয়ের জন্যই কি হত্যা?  

ইজিবাইকে ছিনতাইয়ের জন্যই কি হত্যা?  

ক্রিকেট বল কুড়াতে গিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

ক্রিকেট বল কুড়াতে গিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী আটক

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮:১৫

নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার মোমিনপুর গ্রামে স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রীকে আটক করেছে পুলিশ। ওই নারীর বিরুদ্ধে বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের অভিযোগ করেছে নিহতের পরিবার। শনিবার উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ এবং নলডাঙ্গা থানার ওসি শফিকুল ইসলাম মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহত ব্যক্তি আব্দুর রাজ্জাক মুদি ব্যবসায়ী। আটক নারীর নাম সালমা বেগম।

নিহতের বাবা হামেদ আলী বলেন, ‘নিহত রাজ্জাক এক ছেলে ও এক মেয়ের বাবা। ছেলেমেয়েরা পড়ালেখা করে। বেশ কিছুদিন থেকে মোমিনপুর বাজারের আসামপাড়ার তুলা নামে এক ব্যক্তির ছেলে অবিবাহিত আহমদ আলীর সঙ্গে সালমার প্রেমের সম্পর্ক হয়। বিষয়টি জানার পর রাজ্জাকের সঙ্গে সালমার মনোমালিন্য শুরু হয়। এক পর্যায়ে তারা পৃথক ঘরে থাকতো। শুক্রবার রাত ১১টার দিকে রাজ্জাক তার ঘরে ঘুমিয়েছিল, সকালে তার মৃত্যুর কথা প্রচার করে সালমা। খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে।’ হামেদ আলীর দাবি, প্রেমের জেরে আব্দুর রাজ্জাককে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে সালমা।

ওসি জানান, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সালমাকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন। তদন্তের পর হত্যার সঠিক কারণ জানা যাবে।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

আবাসিক হোটেলে গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ, স্বামী আটক

আবাসিক হোটেলে গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ, স্বামী আটক

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮:১৫

দিনাজপুর সদর ও বিরল উপজেলায় বজ্রাঘাতে শিশুসহ দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছেন আরও তিন জন। তাদের মধ্যে দুই জনকে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বজ্রাঘাতের ঘটনা ঘটে। মৃতরা হলো সদরের চেহেলগাজী ইউনিয়নের রামনগর মাঝাডাঙ্গা গ্রামের মৃত কামিল উদ্দীনের ছেলে বুলবুল হোসেন (৩৪) ও বিরলের রাজারামপুর ইউনিয়নের গফরাইল গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে সুজ্জাত (১২)। সুজ্জাত পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র। 

আহতরা হলেন রামনগর মাঝাডাঙ্গা গ্রামের আইয়ুব আলীর ছেলে জামাল (৩৮), একই এলাকার সিরাজুল আলীর ছেলে নাঈম (২৫) ও গফরাইল গ্রামের রবিউল ইসলাম (৪০)।

চেহেলগাজী ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য পাভেল ইমরান ও রাজারামপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য জামিল উদ্দীন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, বিকালে রামনগর মাঝাডাঙ্গা এলাকার আলুর ক্ষেতে কাজ করছিলেন কয়েকজন কৃষক। বজ্রাঘাত শুরু হলে তারা একটি গাছের নিচে আশ্রয় নেন। সেখানে বজ্রাঘাত হলে তিন জন আহত হন। স্থানীয়রা ঘটনাস্থল থেকে বুলবুলের লাশ উদ্ধার করে এবং বাকি দুই জনকে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল হাসপাতালে পাঠায়।

এদিকে, বাবার সঙ্গে মাঠে কাজ করছিল সুজ্জাত। বৃষ্টির পাশাপাশি বজ্রাঘাতের সময় মারা যায় সে। এ ঘটনায় তার বাবা রবিউল ইসলাম আহত হয়েছেন।

/এএম/

সম্পর্কিত

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

৪২ টাকার নিচে নামছে না পেঁয়াজের দাম

৪২ টাকার নিচে নামছে না পেঁয়াজের দাম

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৬

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৬

ত্রিশালে সড়ক দুর্ঘটনা

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮:১২

‘ব্যস্ততার কারণে কোরবানির ঈদে বাড়িতে যাওয়া হয়নি। ফলে নাতি আব্দুল্লাহর খৎনাও করানো সম্ভব হয়নি। ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়িতে সবাই একসঙ্গে যাচ্ছিলাম। আশা ছিল, আব্দুল্লাহর খৎনা করিয়ে এলাকাবাসীকে দাওয়াত করে ধুমধাম অনুষ্ঠান করবো। কিন্তু কপালে আর সইলো না। পরিবারের বাবা, মা, ছোটবোনসহ আব্দুল্লাহ বাস দুর্ঘটনায় দুনিয়া ছেড়েই চলে গেলো। এখন বাড়ি গিয়ে বড় ভাইকে কী জবাব দেবো?’

কথাগুলো বলছিলেন ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ত্রিশালের চেলেরঘাটে ট্রাকের সঙ্গে বাসের ধাক্কায় নিহত ফজলুল হক ওরফে হুজু’র চাচা আব্দুর রশিদ। এই দুর্ঘটনায় নিহত ছয় জনের চার জনই ওই পরিবারের।

আব্দুর রশিদ রাস্তায় বসে বিলাপ করতে করতে জানান, নিহত ফজলুল হক তার আপন বড় ভাই কমর উদ্দিনের ছেলে। ভাতিজার পরিবারসহ তিনি ঢাকায় সবজির ব্যবসা করেন। সবাই একসঙ্গেই থাকেন। সুযোগ পেলেই তারা বাড়িতে যান। করোনার কারণে গত কোরবানির ঈদে বাড়ি যাননি। ১০ বছর বয়সী আব্দুল্লাহ প্রাইমারি স্কুলে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র। আর নিহত আজমিনা (৮) প্রথম শ্রেণিতে পড়তো।

তিনি আরও জানান, ভাতিজা ফজলুর বড় শখ ছিল, গ্রামের বাড়িতে গিয়ে ছেলের খৎনা করিয়ে আত্মীয়-স্বজন ও এলাকাবাসীকে দাওয়াত করে খাওয়াবেন। এটা আর হয়ে উঠলো না। মনের দুঃখ রয়েই গেলো।

উল্লেখ্য, শনিবার (১৬ অক্টোবর) ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কের চেলেরঘাটে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের চার জনসহ ছয় জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। 

শেরপুরগামী রহিম পরিবহনের একটি বাস (ময়মনসিংহ গ ১১-০৯৪৮) ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ত্রিশাল উপজেলার চেলেরঘাট নামক স্থানে ওভারটেকের সময় দাঁড়িয়ে থাকা বালুবাহী ড্রাম ট্রাককে (ঢাকা মেট্রো ট ১৫-৮৪৪৩) ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই পাঁচ জন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন ১০ জন। তাদের ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে সেখানে আরেকজন মারা যান।

নিহতরা হলেন- ফুলপুর উপজেলা হুজু (৩০), তার স্ত্রী ফাতেমা (২৮), ছেলে আব্দুল্লাহ (১০) ও মেয়ে আজমিনা (৮)। বাকি দুই জনের নাম-পরিচয় এখনও জানা যায়নি। আহতরা ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। এর মধ্যে নিগোরকান্দা গ্রামের ফাহাদ, বাবুল ও ফুলপুর উপজেলার রফিকের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

/এফআর/

সম্পর্কিত

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৬

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৬

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫১

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন। আবার এই সরকারের বিরুদ্ধে নানা ধরনের ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। শারদীয় দুর্গাপূজায় যে ঘটনা ঘটিয়েছে তা ষড়যন্ত্রের অংশ। ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণভাগ বাজারে প্রধান অতিথি হিসেবে উন্নয়নকাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে সংক্ষিপ্ত সভায় এসব কথা বলেন তিনি। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের বাস্তবায়নে এই কাজে ব্যয় হবে ৪৪ লাখ ৪১ হাজার ৪৯০ টাকা।

পরিবেশমন্ত্রী বলেন, কোনও অবস্থায় দেশের উন্নয়ন ব্যাহত করতে দেওয়া যাবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এখন বিশ্বনেত্রী, মানবতার মা। আমাদের নেত্রীকে বিশ্বের সব দেশ স্বীকৃতি দিচ্ছে। কাজেই দেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি অবিচল আস্থা রাখতে হবে।

বেলা ১১টায় পরিবেশমন্ত্রী বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়নের মামুদতকী বাজারে উন্নয়নকাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এ সময় পরিবেশমন্ত্রীর সঙ্গে মৌলভীবাজার এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মো. অজিম উদ্দিন সরদার, বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার মুদাচ্ছির বিন আলী, বড়লেখা পৌরসভার মেয়র আবুল ইমাম মো. কামরান চৌধুরী, নারী শিক্ষা একাডেমি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ একেএম হেলাল উদ্দিন এবং উপজেলা প্রকৌশলী সামসুল হক ভূঞা উপস্থিত ছিলেন।

/এএম/

সম্পর্কিত

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

কক্সবাজার সৈকতে ৪ শতাধিক প্রতিমা বিসর্জন

কক্সবাজার সৈকতে ৪ শতাধিক প্রতিমা বিসর্জন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

আ.লীগ নেতাকে পিষে দিলো বেপরোয়া গতির গাড়ি   

আ.লীগ নেতাকে পিষে দিলো বেপরোয়া গতির গাড়ি   

চার দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ব্যবসায়ীর

চার দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ব্যবসায়ীর

১১ বছর পর লক্ষ্মীপুরে বিএনপির নতুন কমিটি

১১ বছর পর লক্ষ্মীপুরে বিএনপির নতুন কমিটি

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

এবার উপকূল এক্সপ্রেসে পাথর নিক্ষেপ, শিশুসহ আহত ৩ 

এবার উপকূল এক্সপ্রেসে পাথর নিক্ষেপ, শিশুসহ আহত ৩ 

বিশৃঙ্খলা এড়াতে চৌমুহনী পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা

বিশৃঙ্খলা এড়াতে চৌমুহনী পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা

কনেকে সাজিয়ে বাড়ি ফেরার পথে মাইক্রোবাসের চাপায় নিহত ২

কনেকে সাজিয়ে বাড়ি ফেরার পথে মাইক্রোবাসের চাপায় নিহত ২

অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে মুহিবুল্লাহর পরিবারকে

অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে মুহিবুল্লাহর পরিবারকে

সর্বশেষ

ফের ৪ বিভাগে মৃত্যু নেই

ফের ৪ বিভাগে মৃত্যু নেই

ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে সিঙ্গাপুর প্রবাসীর আত্মহত্যা

ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে সিঙ্গাপুর প্রবাসীর আত্মহত্যা

রাশিয়ায় করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড

রাশিয়ায় করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং

ওমানে বিশ্বকাপে নামছে বাংলাদেশ, দেশে বসে থাকছেন না মুমিনুল-শান্তরাও

ওমানে বিশ্বকাপে নামছে বাংলাদেশ, দেশে বসে থাকছেন না মুমিনুল-শান্তরাও

© 2021 Bangla Tribune