X
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

যেসব ভিডিও ভুলেও ইউটিউবে প্রকাশ করা যাবে না

আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০২১, ২১:২৫

শিক্ষামূলক বিষয় থেকে শুরু করে বিনোদন বা সংবাদ, এমন কোনও বিষয় নেই যা ইউটিউবে পাওয়া যায় না। তবে এই সবকিছু বললেও এর একটি লাগাম আছে। এই ভিডিও প্ল্যাটফর্মটি একটি গণমাধ্যমের মতোই ভূমিকা পালন করে। তাই মন চাইলেই যেকোনও কনটেন্ট এখানে দেওয়া যাবে, বিষয়টি তা নয়।

মূলত সামাজিক এবং পরিবেশগত দায়বদ্ধতায় তাদের ভিডিও আপলোডের জন্য রয়েছে নির্দিষ্ট গাইডলাইন। গাইডলাইনটির মূল বিষয় হলো, কোনও ক্ষতিকর ভিডিও এই প্ল্যাটফর্মে দেওয়া যাবে না। তারপরও এসব কনটেন্ট আপলোড করলে ইউটিউব যা যা করতে পারে তার মধ্যে রয়েছে বিজ্ঞাপন বন্ধ করে দেওয়া, ভিডিও সরিয়ে নেওয়া এবং অ্যাকাউন্ট নিষিদ্ধ করে দেওয়া। এসব নিয়ে বিস্তারিত গাইডলাইন ইউটিউবের সাইটেই দেওয়া আছে।

জানা দরকার, বিশেষ কোন ধরনের ভিডিও ইউটিউবে দেওয়া যাবে না। ভ্যাকসিন নিয়ে কোনও ভুল তথ্য বা অপপ্রচার করা যাবে। অনুমোদিত ভ্যাকসিন নিয়ে ভুল বা মিথ্যা তথ্য দিলেই সেই ভিডিও বাতিল করবে ইউটিউব।

গুগল জানায়, এ পর্যন্ত প্রায় দেড় লাখ ভিডিও সরানো হয়েছে এ কারণে। করোনা নিয়েও ভুল বা মিথ্যা তথ্য ছড়ালেও একই ব্যবস্থা। করোনা নিয়ে স্থানীয় স্বাস্থ্য সেবাদাতা সংস্থা কিংবা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যের সঙ্গে অসঙ্গতিমূলক তথ্য প্রচার করা যাবে না। এমনকি, করোনা আছে বা নেই এমন প্রশ্নও করা যাবে না এখানে। করোনা নিয়ে নীতিমালাও করেছে ইউটিউব। এছাড়া নির্বাচন নিয়ে মিথ্যা তথ্য প্রচার করলেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কোনও এলাকার নির্বাচন নিয়ে অপপ্রচার বা ভুল তথ্য প্রচার করা যাবে না ইউটিউবে। নির্বাচিত হওয়ার আগে কাউকে জয়ী ঘোষণা করলেও রয়েছে বিপদ। এছাড়াও রয়েছে হয়রানি বা সাইবার বুলিং। হয়রানি বা হুমকিমূলক কোনও ভিডিও দেওয়া যাবে না ইউটিউবে। ক্ষতি করার উদ্দেশ্যে বা বিদ্বেষপরায়ণ হয়ে কোনও ভিডিও আপলোড করা নিষেধ।

ইউটিউবের বিধি অনুযায়ী, কম বয়সী বা ১৮-এর নিচে বয়সী কাউকে লজ্জা দেওয়া, ছোট করে বা অপমান করে ভিডিও দেওয়া যাবে না। প্রতারণা করার ভিডিও প্রচার করা যাবে না। অন্য কোনও ভিডিওতে বিদ্বেষমূলক কমেন্ট করার জন্যও কাউকে কিছু বলা যাবে না প্রকাশিত ভিডিওতে।

মানুষের পরে আছে প্রকৃতি। জলবায়ু নিয়ে অবৈজ্ঞানিক ভিডিও প্রচার করা যাবে না। জলবায়ুর পরিবর্তনকে অস্বীকার করে ভিডিও দিলে তাতে বিজ্ঞাপন বন্ধ করবে ইউটিউব।

প্রকাশক এবং নির্মাতাদের মনিটাইজেশনের নতুন নীতিমালায় বলা হয়েছে, জলবায়ু পরিবর্তনের অস্তিত্ব এবং কারণ নিয়ে সুপ্রতিষ্ঠিত বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা অস্বীকার করে তৈরি কোনও ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেখানো হবে না।

/এইচএএইচ/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

ভিডিও মিউট করা যাবে গুগল মিটে

ভিডিও মিউট করা যাবে গুগল মিটে

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৩৯

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ‘ডিজিটাইজেশনের প্রসারের পাশাপাশি ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার বদ্ধপরিকর। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন সাম্প্রদায়িক দাঙ্গাসহ সামাজিক-রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে বড় একটি চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সেই সংকট অতিক্রমের জন্য আমরা কাজ করছি।’ গতকাল শুক্রবার (২২ অক্টোবর) রাতে অনলাইনে ডিজিটাল সিকিউরিটি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন তিনি। অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশি ডিজিটাল প্রযুক্তি উদ্যোক্তারা।

মোস্তাফা জব্বার উল্লেখ করেন, ২০১৮ সালের পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনাসহ সরকারের সুসম্পর্ক গড়ে উঠেছে। ফলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কর্তৃপক্ষ এখন সরকারের যেকোনও পরামর্শ গুরুত্বের সঙ্গে আমলে নিচ্ছে। ভবিষ্যতে তা আরও কার্যকর হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রযুক্তিগত সক্ষমতা অর্জন এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণয়নসহ সরকারের গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচি তুলে ধরেন মন্ত্রী। তার মন্তব্য, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জিং হলেও আমরা এটি মোকাবিলায় পিছিয়ে নেই। অতীতের তিনটি শিল্প-বিপ্লব হাতছাড়া করায় সৃষ্ট পশ্চাদপদতা অতিক্রম করে বাংলাদেশ ডিজিটাল প্রযুক্তি বিকাশে বৈশ্বিক নেতৃত্বের জায়গায় উপনীত হয়েছে।’

টেলিযোগাযোগমন্ত্রী জানান, সৌদি আরবে আইওটি ডিভাইস রফতানি হচ্ছে। বিশ্বের ৮০টি দেশে বাংলাদেশ সফটওয়্যার রফতানি করছে।

সামিটে বক্তারা ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিতের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। ডিজিটাল নিরাপত্তার জন্য প্রযুক্তিগত সক্ষমতা গড়ে তোলার পাশাপাশি ব্যাপক জনসচেতনতা তৈরির প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন তারা।

যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী উদ্যোক্তা মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দেন বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ এবং টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিটিআরসি) স্পেক্ট্রাম ব্যবস্খাপনা বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাসিম পারভেজ।

অর্ধশতাধিক আন্তর্জাতিক বক্তা অংশ নিচ্ছেন টানা ২৮ ঘণ্টার এই আয়োজনে। ২০টির বেশি দেশ থেকে পাঁচ হাজারের বেশি অংশগ্রহণকারী অনলাইনে যুক্ত হচ্ছেন। বৈশ্বিক সাইবার হুমকির সুরক্ষা, শনাক্তকরণ ও প্রতিক্রিয়া জানতে বাংলাদেশে সরকার ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো এই সামিটে অংশ নিচ্ছে।

/এইচএএইচ/জেএইচ/

সম্পর্কিত

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

সাক্ষাৎকার

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৩:০০

করোনাকালে গভীর সংকটে পড়েছিল বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং তথা বিপিও খাত। স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা খাত দিয়েই সংকটকালে টিকেছিল এ শিল্প। এখন দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ায় নতুন করে কাজ আসছে। তাতে খাতটি ঘুর দাঁড়াচ্ছে বলে জানালেন বাক্কোর (বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কলসেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিং) মহাসচিব তৌহিদ হোসেন। তিনি আরও জানান, করোনাকালে কোনও কলসেন্টার তো বন্ধ হয়নি, উল্টো ৭০টি নতুন প্রতিষ্ঠান সংগঠনের সদস্য হয়েছে। দেশের বাইরে নতুন বাজারের খোঁজও মিলেছে। 

 

বাংলা ট্রিবিউন: বিপিও শিল্পের বর্তমান অবস্থা কেমন?

তৌহিদ হোসেন: পরিসংখ্যান বলছে গত বছর করোনাকালে আমাদের সংগঠনে (বাক্কো) নতুন ৭০টি প্রতিষ্ঠান নিবন্ধিত হয়েছে। এই সময়ে কোম্পানিগুলোর ব্যবসা গুটিয়ে চলে যাওয়ার কথা। কিন্তু যায়নি। বিপিও (বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং) খাতে ভয়াবহ বিপর্যয় এসেছিল। লকডাউনে দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল। কাজ ছিল না। অনেকে কোনোমতে টিকেছিল। কিন্তু এই খাত নিয়ে যে শঙ্কা ছিল তা কাটিয়ে ওঠা গেছে।

করোনাকালে স্বাস্থ্যখাতের কলসেন্টারে সেবা প্রত্যাশীদের চাহিদা বেড়েছে। অপরদিকে পর্যটন খাতের অবস্থা ভয়াবহ ছিল। সেই খাতও ঘুরে দাঁড়িয়েছে। হোটেল বুকিংয়ের জন্য কলসেন্টারে এখন প্রচুর কোয়েরি আসছে। শুক্র ও শনিবার সবাই বেড়াতে যেতে চান। কিন্তু হোটেল তো খালি নেই। কোয়েরির সংখ্যা কয়েকগুণ বেড়েছে। তবে মাঠ পর্যায়ে ডাটা এন্ট্রির যে কাজ ছিল তাতে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

 

বাংলা ট্রিবিউন: এখন পরিস্থিতি কীভাবে সামাল দিচ্ছেন?

তৌহিদ হোসেন: আমরা আশাবাদী ২০২২ সালের মধ্যে বিপিও খাত পুরোপুরি ঘুরে দাঁড়াবে। যেসব কাজ জমেছিল, এতদিন করা সম্ভব হয়নি, সেগুলো এখন আসছে। ফলে নতুন-পুরনো কাজ মিলিয়ে ভালো একটা অবস্থার মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। কাজের চাপ বাড়ছে দিন দিন।

 

বাংলা ট্রিবিউন: বিপিওর বাজারে করোনার কেমন প্রভাব পড়লো?

তৌহিদ হোসেন: করোনার সময় ৫৫ শতাংশ বাজার আমরা হারিয়েছিলাম। যা প্রায় ৩০ কোটি ডলার। এই ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে শুরু করেছে। তবে আগের অবস্থায় ফিরতে সময় লাগবে। আমরা হতাশ নই। করোনাকালে কেউ যখন এ খাত থেকে চলে যায়নি, আর কেউ যাবেও না। 

 

বাংলা ট্রিবিউন: কলসেন্টার ও আউটসোর্সিং খাতে নতুন কী যুক্ত হলো?

তৌহিদ হোসেন: এ সময়ে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মগুলোর বাজার বেড়েছে। স্বাস্থ্য, শিক্ষা খাতের পরিবর্তন ও উন্নতি চোখে পড়ার মতো। ভোক্তা বিশ্বে বহুমুখী চাহিদা দেখা দিয়েছে। ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ টার্মটা এবার স্বীকৃতি পেয়ে গেলো। এটা সংস্কৃতিতে রূপান্তর করা গেলে আগামীতে বড় বড় অফিস, ওয়ার্ক ফোর্স প্রয়োজন হবে না। এতে প্রাতিষ্ঠানিক খরচ কমবে। করোনার সময় (বিশেষ করে লকডাউনে) অনেক কল সেন্টারের কর্মী ঘরে বসে কাজ সামলেছেন। এটা চালিয়ে নেওয়া গেলে প্রতিষ্ঠানগুলো করোনার ধাক্কা সহজে কাটিয়ে উঠতে পারবে। লাভের মুখও দেখবে।

 

বাংলা ট্রিবিউন: বিপিও সামিট আবার কবে হবে?

তৌহিদ হোসেন: ২০২০ সালে করতে পারিনি। এ বছরও করা যাবে না। আমাদের টার্গেট ২০২২ সালের এপ্রিলে বিপিও সামিট করা। এই সামিট দেশের জন্য অনেক সুফল বয়ে আনবে।

 

বাংলা ট্রিবিউন: বাক্বো তার সদস্যদের জন্য কী করলো?

তৌহিদ হোসেন: লকডাউনের সময় যাতে এজেন্টদের (কলসেন্টার কর্মী) নির্বিঘ্নে চলাচল করাটা নিশ্চিত করা হয়। কাজের বেলায় বিশেষ নেতিবাচক প্রভাব পড়েনি। অসুস্থ কর্মীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা, সহযোগিতা করা, সদস্য প্রতিষ্ঠানগুলোকে মনিটর করা, মেনটরিং ইত্যাদি চালিয়ে গেছি।

 

বাংলা ট্রিবিউন: বিপিওতে আগামীতে কী ধরনের চ্যালেঞ্জ আসছে?

তৌহিদ হোসেন: বিপিও খাতের ১৫-২০ শতাংশ হলো কলসেন্টার। চ্যাটবট এসেছে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাভিত্তিক (এআই) ভয়েস আসছে। এগুলো কলসেন্টারগুলোকে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি করবে। সেসময় এসব কাজে মানুষের ব্যবহার কমবে। কলসেন্টারগুলোর আপ-স্কেলিং হবে। মানুষ তখন আরও ভালো কাজ, উচ্চতর কাজগুলো করবে।

 

বাংলা ট্রিবিউন: আপনার প্রতিষ্ঠান ফিফোটেক নতুন কোনও কাজ পেলো? শোনা যাচ্ছে অনেকেই নতুন নতুন কাজ পাচ্ছে।

তৌহিদ হোসেন: আমরাও পেয়েছি। লন্ডনের একটি ডিপ্লোমা ইনস্টিটিউটের অনলাইন প্ল্যাটফর্ম নিয়ে কাজ করছি। এই কাজের বাজার ভালো।

 

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

নতুন ম্যাকবুক প্রো’তে থাকতে পারে নচ ডিসপ্লে

নতুন ম্যাকবুক প্রো’তে থাকতে পারে নচ ডিসপ্লে

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১২:৫২

দেশে এখন ১৭ কোটি মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী এবং ১১ কোটি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী রয়েছেন বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ‘সাইবার সিকিউরিটি সামিট ২০২১’ এর ভার্চুয়াল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ তথ্য জানান। সন্ধ্যা ৬টা থেকে শুরু হওয়া এখনও চলছে, চলবে টানা ২৮ ঘণ্টা।

আন্তর্জাতিক এ সামিটে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, বাংলাদেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা যে কোনো ইস্যু হতে পারে এটা আগে কেউ চিন্তা করতো না। তার কারণ বাংলাদেশ ইতিপূর্বে তিনটি শিল্পবিল্পব মিস করছে। সরকারের দক্ষ পদক্ষেপের কারণে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব আমরা মিস করি নাই। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের ফলে দেশে আধুনিক স্মার্ট প্রযুক্তি ব্যবহার করে প্রচলিত উৎপাদন এবং শিল্প ব্যবস্থার স্বয়ংক্রিয়করণের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। বাংলাদেশ এখন সব ক্ষেত্রে প্রযুক্তির ব্যবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বাংলাদেশে এখন ডিজিটাল ফাইন্যান্স সিস্টেম থেকে শুরু করে সকল ক্ষেত্রে ডিজিটাল রূপান্তর হচ্ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, যে বাংলাদেশ সম্পূর্ণ কৃষিভিত্তিক ছিল, সেই বাংলাদেশ কিন্তু এখন বিশ্বের ৮০টা দেশে সফটওয়্যার রফতানি করে। এই বাংলাদেশ কিন্তু শুধু চাহিদা মতো সফটওয়ার বানাতেই পারে না, এটা সুরক্ষা দেওয়ার মতো ব্যবস্থাও রয়েছে। আমাদের দেশের মেধা দিয়েই আমার প্রযুক্তি ক্ষেত্রে সৃষ্ট সংকটগুলো অতিক্রম করতে পারবো এটা আমার বিশ্বাস।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, এই প্রযুক্তিগত সক্ষমতা অর্জন করতে সময় লাগছে। আমাদের দেশে দক্ষ মানুষ তৈরি করতে হবে যারা আমাদের প্রযুক্তি ক্ষেত্রে শতভাগ নিরাপত্তা দিতে পারে। আমাদের দেশের জনগণ প্রযুক্তি ক্ষেত্রে ভালোভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। ভবিষ্যতের কোনও সংকট আমরাই মোকাবিলা করতে পারবো।’

আয়োজনে ৫০ জনের বেশি আন্তর্জাতিক বক্তা অংশগ্রহণ করবেন। টানা ২৮ ঘণ্টার এ আয়োজনে ২০টির বেশি দেশের ৫ থেকে ৮ হাজারের বেশি অংশগ্রহণকারী অনলাইনে যুক্ত হবে। বৈশ্বিক সাইবার হুমকির সুরক্ষা, শনাক্তকরণ এবং প্রতিক্রিয়া জানতে বাংলাদেশে সরকার ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো এ সামিটে অংশ নেবে।

/এসটিএস/ইউএস/

সম্পর্কিত

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

১৬ ডিসেম্বর ফাইভ-জি চালু করতে পারে টেলিটক

১৬ ডিসেম্বর ফাইভ-জি চালু করতে পারে টেলিটক

তৃতীয় সাবমেরিন ক্যাবল সংযোগের চুক্তি সই, বেসরকারিভাবেও আসছে ২টি

তৃতীয় সাবমেরিন ক্যাবল সংযোগের চুক্তি সই, বেসরকারিভাবেও আসছে ২টি

ভিডিও গেমসের বিষয়ে আদালতের নির্দেশনা পেলে ব্যবস্থা: মোস্তাফা জব্বার

ভিডিও গেমসের বিষয়ে আদালতের নির্দেশনা পেলে ব্যবস্থা: মোস্তাফা জব্বার

ভিডিও মিউট করা যাবে গুগল মিটে

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ২১:২৩

চলতি বছরের শুরুতে গ্রুপ কলের ক্ষেত্রে হোস্টকে একসঙ্গে সবাইকে অডিও মিউট করার একটি অপশন দিয়েছিল গুগল মিট। এবার এই অ্যাপে আরও বেশি নিয়ন্ত্রণ রাখার সুযোগ করে দিলো বিখ্যাত প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি।

গুগল মিটে এখন থেকে অডিওর পাশাপাশি ভিডিও মিউট করে দিতে পারবেন হোস্ট। এর মাধ্যমে মাইক্রোফোন ও ক্যামেরা দুটোই অফ করে দেওয়া যাবে। নির্দিষ্ট করে দেওয়া কিছু অংশগ্রহণকারীর ক্ষেত্রেও এই সুযোগ থাকছে। ফলে অংশগ্রহণকারী চাইলেও তার ক্যামেরা অন করতে পারবেন না।

সংবাদ মাধ্যম এনগেজেট জানায়, কেউ যদি গুগল মিটের অ্যান্ড্রয়েড বা আইওএসের এমন কোনও সংস্করণ ব্যবহার করে যেখানে অডিও এবং ভিডিও লক সাপোর্ট করে না তাদের ক্ষেত্রে হোস্ট এই ফিচার চালু করা মাত্র তারা কল থেকে বাদ পড়ে যাবে। একইসঙ্গে তাদের অ্যাপ আপডেট করার জন্য জানানো হবে।

গুগল অবশ্য আজই এর রি-পেইড রিলিজ ডোমেইন চালু করতে যাচ্ছে। আর শিডিউল করা রিলিজ ডোমেইনগুলোর অ্যাকসেস শুরু হবে ১ নভেম্বর।

লকের এই সুবিধা উচ্ছৃঙ্খল অংশগ্রহণকারীদের নিয়ন্ত্রণে সহায়ক হবে বলে মন্তব্য করেছে সংবাদমাধ্যমটি। এছাড়া এর মাধ্যমে হোস্ট কোনও নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে বারবার অংশগ্রহণ করতে উৎসাহ দিতে পারবেন।

/এইচএএইচ/জেএইচ/

সম্পর্কিত

পরিবেশবান্ধব রাস্তা দেখাবে গুগল ম্যাপস

পরিবেশবান্ধব রাস্তা দেখাবে গুগল ম্যাপস

গুগল ফটোজে নতুন ফিচার

গুগল ফটোজে নতুন ফিচার

২০০ কোটি ক্রোম ব্যবহারকারীকে যে কারণে সতর্ক করলো গুগল

২০০ কোটি ক্রোম ব্যবহারকারীকে যে কারণে সতর্ক করলো গুগল

ভুল নিয়ে গুগলের জন্ম 

ভুল নিয়ে গুগলের জন্ম 

প্লে-স্টোরের সাবস্ক্রিপশন ফি অর্ধেক করছে গুগল

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ১৯:২১

অ্যাপল ও গুগলের মতো প্রতিষ্ঠান অ্যাপ ডেভেলপারদের কাছে থেকে সাবস্ক্রিপশনের জন্য ফি নিয়ে থাকে। ফির বিনিময়ে ডেভেলপাররা প্লে-স্টোরে তাদের অ্যাপ অবমুক্ত করে থাকে। কিন্তু গত কয়েক বছর হলো ডেভেলপাররা ফি কমানোর জন্য আবেদন করে আসছিলো। সে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত বছর গুগল এই ফির পরিমাণ ৩০ শতাংশ কমায়। পরে প্রতিষ্ঠানটি এই ফি থেকে আরও ১৫ শতাংশ কমাবে বলে জানিয়েছে।

গুগল জানায়, এর আগে ডেভেলপারদের জন্য সুযোগ ছিল ১৫ শতাংশ কমানোর। কিন্তু এই সুযোগটি শুধু ধারাবাহিকভাবে যারা ১২ মাসের সাবস্ক্রিপশন করবে তাদের জন্য।

কিন্তু পরে গুগল অভিযোগ পায় ফি কমানোর পরেও ব্যবসায়ীদের জন্য মুনাফা করা বেশ কঠিন হয়ে যাচ্ছে। ফলে এই ফি আরও সহজ করার সিদ্ধান্ত নেয় গুগল।

প্রতিষ্ঠানটি জানায়, নতুন এই নিয়ম আগামী ১ জানুয়ারি থেকে কার্যকর হবে। সেই দিন থেকে গুগলের সব সাবস্ক্রিপশন ফি আর ১৫ শতাংশ কমিয়ে মোট ৪৫ শতাংশ কার্যকর করা হবে।

সংবাদ মাধ্যম উবার গিজমো জানায়, সিদ্ধান্তটি ডেভেলপারদের জন্য বেশ আশাব্যঞ্জক। আবার নিয়ন্ত্রকদের দৃষ্টিকোণ থেকে এই সিদ্ধান্ত গুগলের জন্যও ভালো। এতে প্রমাণিত হয় যে, গুগল ছাড় দেওয়ার ব্যাপারে কোনও কার্পণ্য করে না। শুধু তাই নয় এটি গুগলকে ভবিষ্যৎ যাচাই-বাছাই বা মামলার মতো বিষয় থেকেও রেহাই দেবে।

/এইচএএইচ/এমএস/

সম্পর্কিত

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

ভিডিও মিউট করা যাবে গুগল মিটে

ভিডিও মিউট করা যাবে গুগল মিটে

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

সাক্ষাৎকার‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

ভিডিও মিউট করা যাবে গুগল মিটে

ভিডিও মিউট করা যাবে গুগল মিটে

প্লে-স্টোরের সাবস্ক্রিপশন ফি অর্ধেক করছে গুগল

প্লে-স্টোরের সাবস্ক্রিপশন ফি অর্ধেক করছে গুগল

ওটিটি অ্যাপস নিয়ন্ত্রণ নিয়ে কী হচ্ছে?

ওটিটি অ্যাপস নিয়ন্ত্রণ নিয়ে কী হচ্ছে?

অবৈধ মোবাইল ফোন বন্ধ হচ্ছে না

অবৈধ মোবাইল ফোন বন্ধ হচ্ছে না

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

বাংলাদেশের কারখানায় বছরে ৩০ লাখ ফোন তৈরি করবে শাওমি

বাংলাদেশের কারখানায় বছরে ৩০ লাখ ফোন তৈরি করবে শাওমি

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

সর্বশেষ

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশের সিনেমা!

দেশের মানুষ কখনোই সাম্প্রদায়িকতাকে প্রশ্রয় দেয়নি: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

দেশের মানুষ কখনোই সাম্প্রদায়িকতাকে প্রশ্রয় দেয়নি: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

প্রশান্ত মহাসাগরে চীন-রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ

প্রশান্ত মহাসাগরে চীন-রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ

শ্রীলঙ্কার রহস্যময় স্পিনার ‘খেলছেন না’ বাংলাদেশ ম্যাচে

শ্রীলঙ্কার রহস্যময় স্পিনার ‘খেলছেন না’ বাংলাদেশ ম্যাচে

১২ হাজার ভর্তি পরীক্ষার্থীর ৩৮০০ জনই অনুপস্থিত

১২ হাজার ভর্তি পরীক্ষার্থীর ৩৮০০ জনই অনুপস্থিত

© 2021 Bangla Tribune