X
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কারের জন্য নাটোরের মাহমুদ মনোনীত

আপডেট : ১২ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৪৮

শিশুদের নোবেলখ্যাত আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কার-২০২১-এর জন্য মনোনীত হয়েছে নাটোরের শেখ রিফাদ মাহমুদ। শিশুদের অধিকার উন্নয়ন ও নিরাপত্তায় অসাধারণ অবদানের জন্য প্রতিবছর এই পুরস্কার দেওয়া হয়। শিশুশ্রম ও স্বাস্থ্য ক্যাটাগরিতে বিশ্বের অন্যান্য শিশুর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করছে মাহমুদ।

রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে কম্পিউটার টেকনোলজি বিষয়ে তৃতীয় পর্বে অধ্যয়নরত মাহমুদ শহরের কানাইখালী এলাকায় বসবাস করে। তার বাবা-মা শিক্ষক। 

২০১৭ সালে নবম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘ নামে স্বেচ্ছাসবী সংগঠন গড়েছে মাহমুদ। ওই সংগঠনের ব্যানারে শিশুশ্রম বন্ধের পক্ষে পথ শিশুদের নিয়ে কাজ শুরু করে। বিভিন্ন সময় বিতরণ করে শিক্ষা উপকরণ, করোনা সচেতনতা বিষয়ক লিফলেট। শিশুদের নিয়ে স্বাস্থ্য সচেতনতা ক্যাম্পেইন করে।

গত এপ্রিল মাসে শিশু শান্তি পুরস্কারের আবেদন করে। এরপর  ‘কিডস রাইটস ফাউন্ডেশন’র ওয়েবসাইটে বিষয়টি প্রকাশ করা হয়। ওয়েব সাইটে দেখা যায়, সবুজ উন্নয়ন সংঘের জন্য মনোনীত হয়েছে মাহমুদ।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে শেখ রিফাদ মাহমুদ জানায়, অংশগ্রহণকারী শিশুদের মধ্যে থেকে এক জনকে বিজয়ী ঘোষণা করবে আয়োজক কমিটি। আমি বিজয়ী হওয়ার আশাবাদী।

মাহমুদের লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘ পথ শিশুদের নিয়ে কাজ করে

জানা যায়, ২০০৫ সালে রোমে অনুষ্ঠিত নোবেল শান্তি পুরস্কার বিজয়ীদের এক শীর্ষ সম্মেলন থেকে এই পুরস্কার চালু করে ‘কিডস-রাইটস’ নামে ফাউন্ডেশন। শিশুদের অধিকার, উন্নয়ন ও নিরাপত্তায় অনবদ্য অবদানের জন্য প্রতিবছর আন্তর্জাতিক শিশুশান্তি পুরস্কার দেওয়া হয়। ১২-১৮ বছর বয়সীরা পুরস্কার পাওয়ার যোগ্য। ২০১৩ সালে এই পুরস্কার বিজয়ী মালালা ইউসুফজাই পরের বছর জয় করেছিলেন নোবেল শান্তি পুরস্কার। এ ছাড়া ২০২০ সালে বাংলাদেশ থেকে সাদাত রহমান এই পুরস্কার অর্জন করেন।

পুরস্কারটির অর্থমূল্য এক লাখ ইউরো। এটিকে বিশ্বের সবচেয়ে সম্মানজনক শিশুদের পদক হিসেবে বিবেচনা করা হয়। আগামী ১৩ নভেম্বর নেদারল্যান্ডসে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান হওয়ার কথা।

এক প্রশ্নের জবাবে শেখ রিফাদ মাহমুদ জানায়, আমি ভবিষ্যতে শিশু অধিকার নিশ্চিত ও শিশুশ্রম বন্ধে কাজ করতে চাই। শুধু আমাদের মুখের কথায় এবং সচেতনতার বার্তায় শিশুশ্রম রোধ হবে না। রোধ করতে হলে প্রথমে কর্মহীন অভিভাবকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে। তবেই প্রকৃতপক্ষে শিশুশ্রম বন্ধ সম্ভব। এক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে চাই। জাতিসংঘ প্রণীত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নে সামাজিক কার্যক্রমে ভূমিকা রাখতে চাই।

/এএম/

সম্পর্কিত

যমুনার খালে গোসলে নেমে মেডিক্যাল ছাত্রের মৃত্যু

যমুনার খালে গোসলে নেমে মেডিক্যাল ছাত্রের মৃত্যু

এবারও ‘বউ মেলায়’ উপচে পড়া ভিড়

এবারও ‘বউ মেলায়’ উপচে পড়া ভিড়

কলকাতার সিনেমা দিয়েই মধুবন সিনেপ্লেক্সের যাত্রা শুরু

কলকাতার সিনেমা দিয়েই মধুবন সিনেপ্লেক্সের যাত্রা শুরু

ঈশ্বরদীতে ট্রাকচাপায় প্রাণ গেলো ৩ জনের

ঈশ্বরদীতে ট্রাকচাপায় প্রাণ গেলো ৩ জনের

মাগুরায় চার খুন

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩১

চার খুনের ঘটনায় মাগুরার জগদল এখন আতঙ্কের জনপদ। হামলা-লুটপাট আর গ্রেফতার আতঙ্কে নারী-পুরুষরা গ্রাম ছাড়ছে। প্রায় পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে জগদালের মাঝিপাড়া।

আগামী ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য জগদল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। এতে মেম্বার প্রার্থী হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার বিকালে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত হন চার জন।

সেই রোমহর্ষক ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী জগদল গ্রামের শিউলি ও শাবানা বলেন, ‘হামলাকারীরা ধারালো রামদা দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করতে থাকে প্রতিপক্ষের লোকদের। একের পর এক আঘাতে রক্তাক্ত রহমান ও কবির এক পর্যায়ে হামলাকারীদের পা জড়িয়ে ধরে বাঁচার আকুতি জানায়। কিন্তু হামলাকারীদের হৃদয়ে সেই আকুতি সামান্যতম রেখাপাত করেনি। হামলাকারীরা লাথি দিয়ে রহমান ও কবিরসহ অনেককেই ফেলে দেয় পার্শ্ববতী পুকুরে। পুকুরে ফেলে দেওয়ার পর তাদের মৃত্যু নিশ্চিত করতে আবার নতুন করে শুরু হয় হামলা। অন্যদিকে রামদার আঘাতে মৃতপ্রায় সবুর মোল্লা পানি পানি বলে কাতরাতে থাকেন। প্রত্যক্ষদর্শী নারীরা পানি নিয়ে এগিয়ে গেলে তাদের প্রতি উদ্ধত হয়ে ওঠে হামলাকারীরা।’

নিহত কবিরের কলেজপড়ুয়া মেয়ে চাঁদনী আক্তার বলেন, ‘আমার বাবা মানুষের বিপদ-আপদের কথা শুনলে সঙ্গে সঙ্গে ছুটে যেতেন। বাবার চাচাতো ভাইকে মারা হচ্ছে এ খবর শোনার সঙ্গে সঙ্গে বাবা ছুটে যান তাকে উদ্ধার করতে। ভাইকে উদ্ধার করতে যাওয়া মাত্রই হামলাকারীরা ঝাঁপিয়ে পড়ে বাবার ওপর। হামলাকারীদের নৃশংসতায় আমার বাবাও ফিরলো লাশ হয়ে।’

নিহত সবুরের ভাই হাবিবুর বলেন, ‘এবার দুর্বৃত্তরা একই সঙ্গে হত্যা করলো আমার দুই ভাইসহ চার জনকে। এর আগেও এই দুর্বৃত্তরাই ২০০৩ সালে আমার আরেক ভাই জরিপ মোল্লাকে হত্যা করে। প্রভাবশালীদের চাপে আমরা মামলা তুলে নিতে বাধ্য হই। জরিপ ভাইয়ের হত্যাকারীদের বিচার হলে আবারও দুই ভাইকে হারাতাম না। জানি না এবারও ন্যায়বিচার পাবো কিনা?’

অন্যদিকে, চার খুনের ঘটনায় চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে জগদল গ্রামে। বাড়ির আসবাবপত্র ধান, চাল, গবাদিপশু নিয়ে নিরাপদ স্থানে ছুটে যাচ্ছেন গ্রামের নারী-পুরুষ। জগদাল গ্রামের মো. সুমনের স্ত্রী-সন্তানকে দেখা গেলো তল্পি-তল্পাসহ গ্রাম ত্যাগ করতে। গ্রাম ছেড়ে যাওয়ার বিষয়ে জিজ্ঞেস করতেই তিনি বলেন, ‘আমার স্বামীসহ পরিবারের পুরুষ সদস্যরা গতকালই বাড়ি ছেড়েছে। আমি মেয়ে মানুষ। বাড়িতে একা অবস্থান করায় চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছিলাম। অন্যদিকে, পুনরায় হামলা ও লুটতরাজের ভয়ে আসবাপত্র চাল-ডাল নিয়ে গ্রাম ত্যাগ করছি।’

পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র নাঈমকে দেখা গেলো, ভ্যানে করে কিছু জিনিসপত্র নিয়ে গ্রাম ছাড়তে। জিজ্ঞেস করলে সে বলে, ‘আমার বাবা-মা গতকাল সন্ধ্যায় বাড়ি ছেড়েছেন। আমি একাই বাড়িতে অবস্থান করছিলাম। বাবা কিছুক্ষণ আগে ফোন করে চাল-ডাল, আসবাবপত্র, গবাদিপশুসহ আমাকে নানাবাড়িতে যেতে বলেছে। আমি ছোট মানুষ, এত কিছু নিয়ে যাওয়া আমার পক্ষে সম্ভব নয়। তাই চাল-ডাল, গবাদিপশু ফেলে রেখে শুধু কিছু আসবাবপত্র নিয়ে আমি নানাবাড়িতে যাচ্ছি।’

মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরুল হাসান বলেন, ‘হত্যার ঘটনায় ইতোমধ্যে জিজ্ঞাসবাদের জন্য চার জনকে আটক করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। সাধারণ মানুষের আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই। শুধু হত্যাকাণ্ডে জড়িতদেরই গ্রেফতার করা হবে।’

উল্লেখ্য, আগামী ১১ নভেম্বর জগদল ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে জগদল ৩নং ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার নজরুল ইসলাম প্রার্থী হবেন। একই সঙ্গে সৈয়দ হাসানও ওই ওয়ার্ডে মেম্বার প্রার্থী। প্রার্থিতা নিয়েই নজরুল ও হাসানের সমর্থকদের মধ্যে শুক্রবার বিকালে সংঘর্ষ বাঁধে। সংঘর্ষে চার জন নিহত এবং কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন।

আরও খবর: মাগুরায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ৪

 
/এমএএ/

সম্পর্কিত

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

আবাসিক হোটেলে গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ, স্বামী আটক

আবাসিক হোটেলে গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ, স্বামী আটক

ইজিবাইকে ছিনতাইয়ের জন্যই কি হত্যা?  

ইজিবাইকে ছিনতাইয়ের জন্যই কি হত্যা?  

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৩৫

স্ত্রী সুমিতা খাতুনসহ দুই সন্তানের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় স্বামী সোহেল রানাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে সুমিতার ফুফার করা মামলায় শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাদেকুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, এসএস হাউজিংয়ের চারতলার ফ্ল্যাট থেকে মা ও দুই সন্তানের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় ওই নারীর ফুফা শুক্রবার রাতে আত্মহত্যার ঘটনায় প্ররোচনার অভিযোগ এনে সোহেল রানার বিরুদ্ধে মামলা করেন। ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে শুক্রবার দুপুরে নগরীর পাঁচলাইশ থানার মোহাম্মদপুর এলাকার এসএস হাউজিংয়ের একটি ফ্ল্যাট থেকে সুমিতা খাতুন ও তার দুই সন্তানের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সোহেল রানাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সুমিতা খাতুন সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ থানা পাঙ্গাশিয়া এলাকার সোহেল রানার স্ত্রী। নগরীর মুরাদপুর এলাকায় তার ইউনানি ওষুধের দোকান আছে। সোহেল রানা বিয়ের পর থেকে পরিবার নিয়ে চট্টগ্রাম নগরীতে বসবাস করছেন। দুই বছর আগে তিনি এসএস হাউজিংয়ের ওই ফ্ল্যাটে ভাড়ায় ওঠেন। শুক্রবার সকালে বাসা থেকে সুমিতা খাতুন ও তার ছেলে-মেয়ের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ

সোহেল রানার দুলাভাই নজরুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার দুপুরে ভাত খেয়ে ৩টার দিকে দোকানে যায়। রাত ৯টায় বাসায় ফিরে দরজা ভেতর থেকে বন্ধ পায়। আধা ঘণ্টার মতো চেষ্টা করেও ভেতরে প্রবেশ করতে না পেরে চলে যায়। রাত ১১টার দিকে এসে আবার চেষ্টা করে। কিন্তু তখনও বাসায় ঢুকতে না পেরে ফিরে যায়। ওই সময় সোহেল আমার ভায়রা-ভাইকে কল করে বিষয়টি জানায়। পরে আমাদের সবাইকে জানায়। খবর পেয়ে আমরা বাসায় যাই। 

তিনি আরও বলেন, ১০ বছর আগে সোহেলের সঙ্গে সুমিতার বিয়ে হয়। এরপর থেকে চট্টগ্রামে বসবাস করছেন। গত ১০ বছরে তাদের মনোমালিন্য হয়নি।

একই কথা জানিয়েছে ভবনের দারোয়ান ফোরকান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, রাত সাড়ে ১১টার দিকে সোহেল বাসায় ঢুকতে না পেরে আমার কাছে বাসার চাবি চেয়েছেন। পরে চাবি নিয়ে আমিসহ গিয়ে অনেকক্ষণ চেষ্টা করেও ভেতরে ঢুকতে পারিনি। ভেতর থেকে দরজা আটকানো ছিল। পরে তিনি ফিরে যান। আমি রুমে এসে ঘুমিয়ে পড়ি। সকালে দরজা ভেঙে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

/এএম/

সম্পর্কিত

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

আ.লীগ নেতাকে পিষে দিলো বেপরোয়া গতির গাড়ি   

আ.লীগ নেতাকে পিষে দিলো বেপরোয়া গতির গাড়ি   

চার দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ব্যবসায়ীর

চার দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ব্যবসায়ীর

১১ বছর পর লক্ষ্মীপুরে বিএনপির নতুন কমিটি

১১ বছর পর লক্ষ্মীপুরে বিএনপির নতুন কমিটি

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৬:২৭

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে এক স্কুলছাত্রকে কালীগঙ্গা নদীর তীরের কাশবনে নিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহত রাজু (১৪) উপজেলার সায়েস্তা ইউনিয়নের দক্ষিণ সাহরাইল গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মোবাইলে ফোনে পাবজি খেলা নিয়ে নিহত রাজু ও বন্ধু আলিফের (১৬) মধ্যে বিবাদের সৃষ্টি হয়। নিহতের বাবার মোসলেম উদ্দিনের অভিযোগ, উপজেলার দক্ষিণ সাহরাইলের রাজু কোরাইশির ছেলে আলিফ পাবজি গেম ও বিভিন্ন আইডি হ্যাক করতো। এটি রাজু সবাইকে জানিয়ে দেবে বলে জানায়। এর জেরে বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) সন্ধ্যায় কৌশলে রাজুকে সাইকেলযোগে পার্শ্ববর্তী নবাবগঞ্জ উপজেলার শোল্লা ইউনিয়নের রুপারচর এলাকার কালীগঙ্গা নদীর তীরে কাশবনে নিয়ে যায়। সেখানে রাজুকে ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এরপর গায়ের জামা খুলে মুখে ভরে গলার ভেতরে ঢুকিয়ে দেয়। পরে মাথা ও মুখ থেঁতলে দেয়। এরপর দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।  রাজু দক্ষিণ সাহরাইল কিন্ডার গার্টেনের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র।

অভিযুক্ত আলিফের বাড়ি ঘেরাও

এদিকে, পরিবার রাজুকে খুঁজে না পেয়ে আলিফের বাড়িতে যায়। আলিফ ও তার পরিবার বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে। ঘটনার দিন রাত ৯টার দিকে স্থানীয় কাঁচামালের ব্যবসায়ী নুরু মিয়া রুপারচর বাজার থেকে বাড়িতে যাওয়ার পথে কাশবন থেকে গোঙ্গানির শব্দ পান। সেখানে গিয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় রাজুকে উদ্ধার করে সাহরাইল ইব্রাহিম মেমোরিয়াল হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার (১৬ অক্টোবর) ভোরে মারা যায়।

ঘটনাকে কেন্দ্র করে শনিবার বেলা ১১টার দিকে নিহতের স্বজন ও গ্রামবাসীরা মিলে অভিযুক্ত আলিফের বাড়ি ঘেরাও করে এবং তাকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কয়েক ঘণ্টার চেষ্টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। অভিযুক্ত আলিফ ও তার বোন জামাইসহ তিনি জনকে পুলিশ থানায় নিয়ে যায়। উত্তেজিত জনতা আলিফকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টাকালে বাধা দিলে পুলিশের ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। এতে তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ জানান, উত্তেজিত জনতা আলিফের বাড়ি ঘেরাও করেছে- এমন খবর পেয়ে সকালের দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে বিক্ষুব্ধ জনতা পুলিশের ওপর চড়াও হয়। এতে তিন পুলিশ আহত হন। এ ঘটনায় আলিফসহ তিনজনকে পুলিশ আটক করে সিংগাইর থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৫

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৫

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

ইজিবাইকে ছিনতাইয়ের জন্যই কি হত্যা?  

ইজিবাইকে ছিনতাইয়ের জন্যই কি হত্যা?  

৪২ টাকার নিচে নামছে না পেঁয়াজের দাম

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৬:২০

অস্থিতিশীল পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার করে ইতোমধ্যে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার। তবে শুল্ক কমানো হলেও ভারতে পেঁয়াজের উৎপাদন কম এবং দাম বেশি থাকায় দেশের বাজারে দাম খুব একটা কমবে না বলে দাবি করেছেন ব্যবসায়ীরা। তারা বলছেন শুল্ক প্রত্যাহারের পরেও ৪২ থেকে ৪৬ টাকা কেজি দরে পাইকারি বিক্রি করতে হবে। 

তবে শীতে দেশে নতুন পেঁয়াজ ওঠা শুরু করলে দাম কমবে বলে জানিয়েছেন হিলি বন্দরের আমদানিকারকরা। 

বন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারক মোবারক হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে অতিবৃষ্টি ও বন্যার কারণে পেঁয়াজের উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে। এ কারণে সরবরাহ কমে যাওয়ায় বেড়েছে দাম। দেশে বাড়তি দামে আনা পেঁয়াজ বেশি দামেই বিক্রি করতে হবে। 

তার দাবি, আমদানি শুল্ক প্রত্যাহারের কারণেও খুব একটা দাম কমবে না। কারণ প্রতি কেজিতে দুই টাকা ৭০ পয়সা শুল্ক কমবে। এদিকে ভারতে পূজার কারণে পেঁয়াজের বাজার এবং পোর্টে লোডিং বন্ধ থাকায় সরবরাহ কম হয়েছে। সব মিলিয়ে দাম খুব একটা কমবে না। 

তিনি আরও বলেন, এখন ভারতে যে বাজার, তাতে করে শুল্ক প্রত্যাহার হলেও বন্দরে ৪৫ থেকে ৪৬ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করতে হবে। 

আমদানিকারক মোবারক হোসেন বলেন, পেঁয়াজের দাম কমার জন্য শীত পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তখন নতুন পেঁয়াজ ও পাতা বাজারে এলে এবং ভারতের বিভিন্ন এলাকায় নতুন জাতের পেঁয়াজ ওঠা শুরু হলে দাম কমে আসবে। 

এই ব্যবসায়ীর মতে দেশে পেঁয়াজের যথেষ্ঠ মুজত রয়েছে। ব্যবসায়ীরা ধীরে ধীরে তা বাজারে ছাড়ছেন। তবে মজুত পেঁয়াজে শীত পড়া মাত্র চারা গজাবে। তখন বাধ্য হয়ে ২০ টাকা দরে হলেও পেঁয়াজ ছেড়ে দেবেন ব্যবসায়ীরা।  

/টিটি/

সম্পর্কিত

শুধু বাহবায় বড় ক্রিকেটার হওয়া যায় না, সাদিদ প্রসঙ্গে তার মা 

শুধু বাহবায় বড় ক্রিকেটার হওয়া যায় না, সাদিদ প্রসঙ্গে তার মা 

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

আজ রুদ্রের জন্মদিন

আজ রুদ্রের জন্মদিন

আবাসিক হোটেলে গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ, স্বামী আটক

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৬:১৫

বাগেরহাটে একটি আবাসিক হোটেল থেকে নাজমা ওরফে নাসিমা (৩৩) নামের গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে শহরের রাহাতের মোড় এলাকার হোটেল বিলাশের ২নং কক্ষ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম আজিজুল ইসলাম জানান, নাসিমার স্বামী রবিউল ইসলাম রুবেলকে (২৪) পুলিশ আটক করেছে।

নাসিমা ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার ত্রিবেনি দক্ষিণপাড়া গ্রামের ওয়ালিদ মিয়ার মেয়ে। রুবেল একই উপজেলার চতুরা গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে।

বাগেরহাট মডেল থানার এসআই দেলোয়ার হোসেন পিপিএম জানান, হোটেল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে খবর পেয়ে দরজা ভেঙে নাসিমার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ সময় ওই হোটেল থেকে তার স্বামী রুবেলকে আটক করা হয়েছে।

গ্রেফতার রুবেলের বরাত দিয়ে তিনি জানান, প্রেমের সম্পর্কের মাধ্যমে ২০১৫ সালে বয়সে বিধবা নাসিমার সঙ্গে রুবেলের বিয়ে হয়। এরপর সংসারে বনিবনা না হওয়ায় ২০১৬ সালে রুবেলের বিরুদ্ধে মামলা করেন নাসিমা। ২০১৮ সালে রুবেল দ্বিতীয় বিয়ে করেন। ২০১৮ সাল থেকে আবার তারা মোবাইল ফোনে যোগাযোগ শুরু করেন। এরপর তারা বিভিন্ন স্থানে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে থেকেছেন। শুক্রবার তারা এই হোটেলে ওঠেন। শনিবার সকালে নাস্তা আনার জন্য রুবেল বাইরে যান। ফিরে এসে রুমের দরজা বন্ধ পান। কিছু সময় অপেক্ষা করার পর বিষয়টি হোটেল কর্তৃপক্ষকে জানান রুবেল। কর্তৃপক্ষ কোনও সাড়া না পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।

বিলাশ হোটেলের ম্যনেজার হুমায়ুন কবির জানান, এই দম্পতি এর আগেও তাদের হোটেলে দু বার এসে থেকেছেন। শুক্রবার তারা এসে হোটেলের ২নং কক্ষে ওঠেন।

ওসি জানান, হোটেল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। মৃত নারীর স্বজনদের সংবাদ দেওয়া হয়েছে। তারা এসে মামলা করবেন।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

আজ রুদ্রের জন্মদিন

আজ রুদ্রের জন্মদিন

হাসপাতালে চিকিৎসক পরিচয়ে রোগীর মোবাইলফোন চুরি

হাসপাতালে চিকিৎসক পরিচয়ে রোগীর মোবাইলফোন চুরি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

যমুনার খালে গোসলে নেমে মেডিক্যাল ছাত্রের মৃত্যু

যমুনার খালে গোসলে নেমে মেডিক্যাল ছাত্রের মৃত্যু

এবারও ‘বউ মেলায়’ উপচে পড়া ভিড়

এবারও ‘বউ মেলায়’ উপচে পড়া ভিড়

কলকাতার সিনেমা দিয়েই মধুবন সিনেপ্লেক্সের যাত্রা শুরু

কলকাতার সিনেমা দিয়েই মধুবন সিনেপ্লেক্সের যাত্রা শুরু

ঈশ্বরদীতে ট্রাকচাপায় প্রাণ গেলো ৩ জনের

ঈশ্বরদীতে ট্রাকচাপায় প্রাণ গেলো ৩ জনের

তিন দিন পর যানজটমুক্ত হচ্ছে সিরাজগঞ্জের মহাসড়ক

তিন দিন পর যানজটমুক্ত হচ্ছে সিরাজগঞ্জের মহাসড়ক

কিশোর গ্যাং নির্মূল করতে চান এক ঘণ্টার জেলা প্রশাসক 

কিশোর গ্যাং নির্মূল করতে চান এক ঘণ্টার জেলা প্রশাসক 

বগুড়ায় দুই প্লাটুন বিজিবি সদস্য মোতায়েন

বগুড়ায় দুই প্লাটুন বিজিবি সদস্য মোতায়েন

অর্থের বিনিময়ে বগুড়ার মহিলা লীগের কমিটি দেওয়ার অভিযোগ

অর্থের বিনিময়ে বগুড়ার মহিলা লীগের কমিটি দেওয়ার অভিযোগ

সিরাজগঞ্জে মহাসড়কে ৫০ কিলোমিটার যানজট

সিরাজগঞ্জে মহাসড়কে ৫০ কিলোমিটার যানজট

প্রেমিক সেজে তরুণীর সাড়ে ৭ লাখ টাকা নিয়ে গরুর খামার

প্রেমিক সেজে তরুণীর সাড়ে ৭ লাখ টাকা নিয়ে গরুর খামার

সর্বশেষ

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

সরকার মুক্তিযুদ্ধের গৌরবকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে: আ স ম রব

খাদ্যে ভেজাল বন্ধে বৈষম্য ছাড়াই আইন প্রয়োগের সুপারিশ

খাদ্যে ভেজাল বন্ধে বৈষম্য ছাড়াই আইন প্রয়োগের সুপারিশ

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

মাগুরায় চার খুনপুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

‘কূটিল রাজনীতির কারণে সাম্প্রদায়িক শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে’

‘কূটিল রাজনীতির কারণে সাম্প্রদায়িক শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে’

অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপে সরাসরি সুপার-১২ পর্বে খেলবে বাংলাদেশ যদি...

অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপে সরাসরি সুপার-১২ পর্বে খেলবে বাংলাদেশ যদি...

© 2021 Bangla Tribune