X
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৬ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

বিশ্বকাপের পুরনো ইতিহাস পাল্টাতে চান মাহমুদউল্লাহ

আপডেট : ১৪ অক্টোবর ২০২১, ১৯:০৯

আগামী ১৭ অক্টোবর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মিশন শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের। এর আগে শ্রীলঙ্কা, আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি ওয়ার্মআপ ম্যাচ খেলে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ ছিল যদিও। কিন্তু দুটোতেই হেরে কিছুটা হলেও অস্বস্তি বিরাজ করছে দলটিতে।

তবে বাংলাদেশ দল হার সঙ্গী করে বিশ্বকাপের মঞ্চে যেতে চায়নি বলেই অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে স্লো ও টার্নিং উইকেট বানিয়ে সিরিজ জিতেছিল সম্প্রতি। মাহমুদউল্লাহর দাবি, ওই জয়ের আত্মবিশ্বাসই বিশ্বকাপে ভালো খেলতে সহায়তা করবে তাদের। বিশ্বকাপে যাওয়ার আগে বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে কুড়ি ওভারের টুর্নামেন্ট ঘিরে নিজের ভাবনার কথা জানিয়ে গেছেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ।

বাংলা ট্রিবিউন: ২০০৭ সালের পর মূল পর্বে কোনও ম্যাচ জিততে পারেনি বাংলাদেশ, এবার নিশ্চয়ই সেই আক্ষেপ দূর হবে?

মাহমুদউল্লাহ: অবশ্যই, এবার আমাদের সবার লক্ষ্যটা তেমনই। ২০০৭ সালে আমরা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছিলাম। গত ৫ বিশ্বকাপে যা পারিনি, এবার সেটিই করতে চাই। আশা করি, গ্রুপ পর্ব টপকানোর পর আমরা পরের রাউন্ডের ম্যাচ জিততে পারবো। দল হিসেবে খেলতে পারলে টুর্নামেন্টে ভালো করা সম্ভব। সেই আত্মবিশ্বাস আমাদের আছে।

বাংলা ট্রিবিউন: আপনিসহ সাকিব, মুশফিক সব টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ নিয়েছেন। তিন জন মিলে এবার ভিন্ন কিছু করার পরিকল্পনা নিশ্চয়ই?

মাহমুদউল্লাহ: দলের হয়ে সব সময়ই আমাদের দারুণ কিছু করার চেষ্টা থাকে। এই বিশ্বকাপেও থাকবে। সাকিব, মুশফিক ও আমি হয়তো সবক’টি বিশ্বকাপ খেলেছি। আগের আসরগুলোতে সেভাবে সফল হতে পারিনি। তাই বলে আমাদের চেষ্টা ছিল না, তেমন নয়। আমরা দলের জয়ে সব সময় অবদান রাখার চেষ্টা করি। হয়তো কখনও হয়, কখনও হয় না। এবারও আগের বারের মতোই চেষ্টা থাকবে। পুরনো অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে ভালো ফল আনার চেষ্টা থাকবে। আমরা দলগতভাবে ভালো খেলতে পারলে যেকোনও দলকেই হারাতে পারি, সেটি আগেও প্রমাণ হয়েছে। আমরা তিন জনসহ তরুণ ক্রিকেটারদের সম্মিলিত পারফরম্যান্সে বিশ্বকাপে ভালো কিছু অর্জন সম্ভব।

সাম্প্রতিক সিরিজগুলোতে ব্যাট হাতেও আগ্রাসী ছিলেন রিয়াদ। বাংলা ট্রিবিউন: বিশ্বকাপে দলের সাফল্যের মন্ত্র কী?

মাহমুদউল্লাহ: আমাদের সফল হতে হলে অবশ্যই ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলতে হবে। অবশ্যই ইতিবাচক মানসিকতা নিয়ে মাঠে নামতে হয়। টি-টোয়েন্টিতে দ্রুত ম্যাচের মোমেন্টাম পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে। ফলে প্রতিটি বলেই সতর্ক থাকতে হবে। সবকিছু ছাপিয়ে আমাদের নিজেদের সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে। সবাই জানে, নিজেদের দিনে আমাদের হারানো কতটা কঠিন!

বাংলা ট্রিবিউন: বিশ্বকাপে মাহমুদউল্লাহর লক্ষ্য কী থাকবে?

মাহমুদউল্লাহ: অধিনায়ক হিসেবে আমি চাই বিশ্বকাপে বিশেষ কিছু করতে। শুধু অধিনায়কত্ব নয়, ব্যাটিং-বোলিংয়ে আমার কিছু দায়িত্ব আছে। আগের ছয় বিশ্বকাপে যা পারিনি, আমি চেষ্টা করবো সেটি অর্জন করতে। বিগত বিশ্বকাপে আমার খুব একটা ভালো স্মৃতি নেই। আশা করি, বিশ্বকাপে ভালো কিছু অর্জন করে দেশে ফিরতে পারবো। ব্যক্তিগতভাবে যদি বলেন, চেষ্টা থাকবে দলের জয়ে অবদান রাখতে।

বাংলা ট্রিবিউন: অনেকটা তরুণ দল নিয়েই বিশ্বকাপ মিশনে নামবেন, তরুণদের নিয়ে আপনার মূল্যায়ন কী?

মাহমুদউল্লাহ: আমরা যে কয়জন সিনিয়র আছি, তাদের সঙ্গে তরুণদের মিলিয়ে দল অনেক ভারসাম্যপূর্ণ। তরুণরা সবাই বিশ্বমঞ্চে ভালো করতে মুখিয়ে আছে। আফিফ-মেহেদী-নুরুল-শামীম-শরিফুলরা ভালো কিছু উপহার দেবে বলেই বিশ্বাস আমার।

বাংলা ট্রিবিউন: সাম্প্রতিক সময় ঘরের মাঠে স্লো ও টার্নিং উইকেট বানিয়ে বাংলাদেশ সাফল্য পেয়েছে। বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশের এমন সাফল্য কি নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে?

মাহমুদউল্লাহ: ম্যাচ জয়ের যে আত্মবিশ্বাস, সেটি অন্য কিছুতেই পাওয়া সম্ভব নয়। টানা তিনটি সিরিজ জয় আমাদের অনুপ্রেরণা জোগাবে। হয়তো স্লো উইকেটে ব্যাটসম্যানদের প্রস্তুতিটা যথেষ্ট হয়নি। তবে আমাদের ব্যাটসম্যানরা ওই (ওমান ও আরব আমিরাত) কন্ডিশনেও মানিয়ে নিতে পারবে।

বাংলা ট্রিবিউন: তারপরও প্রস্তুতি নিয়ে বাইরের আলোচনা দলে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে কিনা?

মাহমুদউল্লাহ: ব্যাপারটা তো এমন নয় যে আমরা এমনি এমনি ম্যাচ জিতে গেছি। আমরা প্রতিপক্ষের চেয়ে ভালো ক্রিকেট খেলে জিতেছি। যারা এই জয়গুলোকে নেতিবাচকভাবে দেখছেন, তাদের ইতিবাচক বিষয়গুলোও দেখা উচিত। আমরা যে কন্ডিশনে খেলেছি, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড একই কন্ডিশনে খেলেছে। উইকেট আমাদের জন্য কঠিন হলে সেটা প্রতিপক্ষের জন্যও কঠিন ছিল। ওদের জন্য কঠিন আমাদের জন্য সহজ ছিল, বিষয়টা তো এমন না। এই জয়ে আমাদের বোলারদের কৃতিত্বটা বেশি। অবশ্যই ব্যাটসম্যানদের প্রশংসা করতে হবে, কঠিন কন্ডিশনে আমরা যেভাবে ব্যাটিং করে ম্যাচ জিতেছি। তবে বাইরের বিষয় নিয়ে খুব একটা আলোচনা করি না। নিজেদের খেলা নিয়েই আমাদের চিন্তা। বাইরের বিষয়গুলোর চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে নিজেদের প্রসেসগুলো ঠিকমতো হচ্ছে কিনা, সেটি নিশ্চিত করা।  

বাংলা ট্রিবিউন: ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের মতো সাকিবের কাছ থেকে একই পারফরম্যান্স নিশ্চয়ই আশা করছেন?

মাহদুউল্লাহ: অবশ্যই, তেমন কিছু হলে দলের জন্যই ভালো। আমি বিশ্বাস করি সাকিবের দ্বারা এমন কিছু সম্ভব। প্রত্যাশা তো কেবল সাকিব কিংবা মোস্তাফিজকে ঘিরেই নয়। সবাই মিলে পারফরম্যান্স না করলে দলের রেজাল্ট আশা করা কঠিন। ফলে সবাইকে কিছু না কিছু অবদান রাখতেই হবে। সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বিশ্বকাপে আমাদের ভালো কিছু সম্ভব।

বাংলা ট্রিবিউন: মোস্তাফিজের আইপিএলের পারফরম্যান্স নিয়ে উচ্ছ্বসিত কিনা?

মাহমুদউল্লাহ: মোস্তাফিজ বিশ্বমানের বোলার। সে কয়েক বছর ধরেই দারুণ ছন্দে আছে। আইপিএলের প্রথম পর্বের মতো দ্বিতীয় পর্বে গিয়েও সে ফর্ম ধরে রেখেছে। আইপিএলে তার অভিজ্ঞতা আমাদের দারুণ কাজে দেবে। মোস্তাফিজ আমাদের বড় অস্ত্র। সে আমাদের দলের এক্স-ফ্যাক্টর। আশা করি, বর্তমান পারফরম্যান্স বিশ্বকাপেও থাকবে।

বাংলা ট্রিবিউন: এই মুহূর্তে কুড়ি ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল অধিনায়ক আপনি। এই অর্জনকে কীভাবে দেখেন?

মাহমুদউল্লাহ: অধিনায়ক হিসেবে যত ম্যাচ জিতেছি, পুরো কৃতিত্ব দলের। দল ভালো করেছে, আমরা ম্যাচ জিতেছি। আলহামদুলিল্লাহ, তবে এখানে নির্ভার হওয়ার সুযোগ নেই। আমি মনে করি, এই ফরম্যাটে আরও ভালো করার সুযোগ আছে। আশা করি, সামনেই আমরা আরও ভালো কিছু অর্জন করতে পারবো।

/এফআইআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশের সঙ্গী কারা?

সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশের সঙ্গী কারা?

বাংলাদেশকে ‘গ্রুপ রানার্স আপ’ বানিয়ে সুপার টুয়েলভে স্কটল্যান্ড

বাংলাদেশকে ‘গ্রুপ রানার্স আপ’ বানিয়ে সুপার টুয়েলভে স্কটল্যান্ড

ঢাকাতেও রোনালদোদের কাছে হারের বর্ণনা দিতে হলো গ্রান্টকে

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ০০:২৮

২৪ ঘণ্টারও বেশি সময় পার হয়ে গেছে আব্রাহাম গ্রান্ট ঢাকায় পা রেখেছেন। ইসরায়েলে জন্ম নেওয়া পোলিশ নাগরিক আবার ইংলিশ জায়ান্ট চেলসির একসময় কোচও ছিলেন। এখানে এসেই বাংলাদেশ ফুটবলের অবকাঠামোসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থান ঘুরে দেখছেন। ইসরায়েল ও ঘানা জাতীয় দলে কোচিং করানোর অভিজ্ঞতা থাকায় আজ বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনে মিডিয়ার মুখোমুখি হয়েছিলেন। কথা বলতে গিয়ে ৬৬ বছর বয়সী গ্রান্টকে ফিরে যেতে হয় ১৩ বছর আগের চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালের দিনটিতেও! 

২০০৮ সালে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল দুই ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও চেলসি। মস্কোতে ১-১ গোলে নির্ধারিত সময়ের লড়াইয়ের পর ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। সেখানে ৬-৫ গোলে চ্যাম্পিয়ন হয় স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসনের ইউনাইটেড। সেই দলে ছিলেন রোনালদো-তেভেজরা। আর ল্যাম্পার্ড-দ্রগবাদের নিয়ে হেরে যায় আব্রাহাম গ্র্যান্টের দল চেলসি। সেই প্রসঙ্গ উঠতেই গ্রান্ট পিছনে ফিরে তাকালেন, ‘সেটি ছিল চেলসির জন্য দারুণ এক মৌসুম। আমরা চাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল জেতার যোগ্য দাবিদার ছিলাম। কিন্তু ফাইনালে টাইব্রেকারে হেরে যাই। সত্যি বলতে সেদিন চেলসির জয় প্রাপ্য ছিল। আমার কাছে সেই স্মৃতিটা এখনও অমলিন। যেখানেই যাই, সেই পেনাল্টি শুটআউটে হেরে যাওয়া নিয়ে লোকেরা জিজ্ঞাসা করে।’

সাবেক চেলসি কোচের ঢাকায় আসা প্রসঙ্গে বাফুফে সভাপতি বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘গ্র্যান্ট এখানে এসেছেন বাফুফের আমন্ত্রণে। আমাদের ফুটবল অবকাঠামো, আমাদের ফুটবলের সুযোগ–সুবিধা ইত্যাদি দেখবেন। আমাদের সঙ্গে কথা বলে প্রাথমিক ধারণা নেবেন। তারপর ফিরে গিয়ে একটা পরিকল্পনা দেবেন।’

গ্র্যান্ট বাংলাদেশ সফর নিয়ে বলেছেন, ‘আমি এখানে এসে খুশি। আমি ফুটবল ভালোবাসি, ফুটবলেই আছি। বাংলাদেশের ফুটবলে কীভাবে উন্নতি করা যায়, সেটা দেখতেই আসা। আমি দেখছি, এখানে ফুটবলের প্রতি অনেক ভালোবাসা। এই ভালোবাসা কাজে লাগিয়ে কীভাবে বাংলাদেশ এগিয়ে যেতে পারে, সেটাই দেখার।’

/টিএ/এফআইআর/

সম্পর্কিত

দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখে রোনালদো বললেন...

দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখে রোনালদো বললেন...

এবার বাংলাদেশ ফুটবল দলের কোচ মারিও লেমস

এবার বাংলাদেশ ফুটবল দলের কোচ মারিও লেমস

পিকের গোলে বার্সেলোনায় স্বস্তি

পিকের গোলে বার্সেলোনায় স্বস্তি

চেলসির সাবেক কোচ এখন বাংলাদেশে

চেলসির সাবেক কোচ এখন বাংলাদেশে

সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশের সঙ্গী কারা?

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০

আগামী ২৩ অক্টোবর আরব আমিরাতের তিনটি ভেন্যুতে শুরু হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ। বৃহস্পতিবার প্রাথমিক পর্বে ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচ শেষ হয়েছে। এই গ্রুপ থেকে স্কটল্যান্ড গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সুপার টুয়েলভ খেলবে। আর বাংলাদেশ গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে খেলার সুযোগ পেয়েছে।

শুক্রবার ‘এ’ গ্রুপের দুটি ম্যাচের পর দুটি দল ‘আসল’ বিশ্বকাপের টিকিট কাটবে। ‘এ’ গ্রুপ থেকে দুই ম্যাচ জিতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পথে শ্রীলঙ্কা। তবে রানার্সআপ দলটির জন্য কালকের দিন পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে।

নির্ধারিত নিয়ম অনুযায়ী ‘এ’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন দল সুপার টুয়েলভ যাবে গ্রুপ-১-এতে। এছাড়া ‘বি’ গ্রুপের রানার্সআপ দলও সুযোগ পাবে এই গ্রুপেই।

বাংলাদেশ দল ‘বি’ গ্রুপের রার্নাসআপ হওয়াতে সুপার টুয়েলভে প্রতিপক্ষ হিসেবে পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড এবং প্রথম পর্বের ‘এ’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়নকে। ‘এ’ গ্রুপের সম্ভাব্য চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কা।

শুক্রবারের ম্যাচের পর চূড়ান্ত সূচি জানা যাবে। তবে যেই যেই আসুক, ২৪ অক্টোবর বাংলাদেশ তাদের প্রথম ম্যাচে শারজাতে মাঠে নামবে। সেখানে তাদের প্রতিপক্ষ গ্রুপ ‘এ’ চ্যাম্পিয়ন। 

এরপর ২৭ অক্টোবর আবুধাবিতে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ২০১০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। ২৯ অক্টোবর শারজাতে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজে। ২ নভেম্বর আবুধাবিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। একদিন বিরতি দিয়ে ৪ নভেম্বর বাংলাদেশের শেষ ম্যাচ দুবাইতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশের প্রতিটি ম্যাচ বাংলাদেশ সময় বিকাল ৪টায়।

এছাড়া ‘বি’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হওয়া স্কটল্যান্ড সুপার টুয়েলভে পাবে গ্রুপ-১-এতে থাকা ভারত, পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড ও আফগানিস্তানকে। এছাড়া গ্রুপ ‘এ’ রানার্সআপ দলও সুযোগ পাবে এখানে।

সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশ ম্যাচের সূচি-

২৪ অক্টোবর: বাংলাদেশ ও এ-১, ভেন্যু-শারজা

২৭ অক্টোবর: বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ড, ভেন্যু-আবুধাবি

২৯ অক্টোবর: বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ভেন্যু- শারজা

২ নভেম্বর: বাংলাদেশ ও দক্ষিণ আফ্রিকা, ভেন্যু-আবুধাবি

৪ নভেম্বর: বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া, ভেন্যু-দুবাই

/আরআই/এফআইআর/

সম্পর্কিত

বাংলাদেশকে ‘গ্রুপ রানার্স আপ’ বানিয়ে সুপার টুয়েলভে স্কটল্যান্ড

বাংলাদেশকে ‘গ্রুপ রানার্স আপ’ বানিয়ে সুপার টুয়েলভে স্কটল্যান্ড

সাকিব স্বীকার করলেন, টানা খেলায় কিছুটা ক্লান্ত তিনি

সাকিব স্বীকার করলেন, টানা খেলায় কিছুটা ক্লান্ত তিনি

বাংলাদেশকে ‘গ্রুপ রানার্স আপ’ বানিয়ে সুপার টুয়েলভে স্কটল্যান্ড

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২৩:৩৫

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আজ বাংলাদেশ শ্রেয়তর রান রেটে জেতায় স্কটল্যান্ড-ওমান ম্যাচটি হয়ে দাঁড়ায় নকআউট লড়াই। প্রথম পর্বের বাঁচা-মরার এই লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত জিতেছে স্কটল্যান্ড। ওমানকে ৮ উইকেটে হারিয়ে ‘বি’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সুপার ‍টুয়েলভে পা রাখলো তারা। আর বাংলাদেশ হয়ে গেলো গ্রুপ রানার্স আপ।  

‘বি’ গ্রুপে স্কটল্যান্ড তিন ম্যাচে ৩টি জেতায় তাদের পয়েন্ট ৬। তাতে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বড় কোন টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় পর্বে স্কটিশরা পা রাখলো। তাদের পরেই বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ ম্যাচে ২ জয়ে ৪ পয়েন্ট। ওমানের সংগ্রহ ৩ ম্যাচে ২ পয়েন্ট। পাপুয়া নিউগিনি ৩ ম্যাচের তিনটিতেই হেরেছে। তাদের পয়েন্ট ‍শূন্য।     

গ্রুপ রানার্স আপ হওয়ায় বাংলাদেশ পড়েছে গ্রুপ-১ এ। সেখানে তাদের প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও সম্ভবত শ্রীলঙ্কা। আর স্কটল্যান্ড পড়েছে গ্রুপ-২ এ। তাদের প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড, ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও প্রথম পর্বে ‘এ’ গ্রুপ থেকে আসা অন্য একটি দল।  

মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে টস জিতে ব্যাট করা ওমানের পুঁজি ছিল সবকটি উইকেট হারিয়ে ১২২ রান। ওপেনার আকিব ইলিয়াসের ৩৫ বলে ৩৭, মোহাম্মদ নাদিমের ২১ বলে ২৫ ও অধিনায়ক জিশান মাকসুদের ৩০ বলে করা ৩০ রানই মূলত স্বাগতিকদের স্কোরবোর্ড সমৃদ্ধ করেছে।বাকিরা স্কটিশ বোলিংয়ে দাঁড়াতে পারেনি। জশ ডেভি ২৫ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন। ম্যাচসেরাও হন তিনি। মাইকেল লিস্ক ১৩ রানে ২টি ও সাফইয়ান শারিফও ২৫ রানে দুটি উইকেট নিয়েছেন।

জবাবে স্কটল্যান্ড দুর্দান্ত ব্যাটিং প্রদর্শনীতেই ২ উইকেট হারিয়ে ১৭ ওভারে জয় নিশ্চিত করেছে। জর্জ মুনসে ২০ রানে ফেরার পর জয়ের ভিত গড়েছেন অধিনায়ক কাইল কোয়েটজার। তিনি ২৮ বলে ৪১ রানে ফিরলে বাকি কাজ সারেন ম্যাথিউ ক্রস ও রিচি বেরিংটন। ক্রস ৩৫ বলে ২৬ রানে অপরাজিত ছিলেন। ২১ বলে ৩১ রানে অপরাজিত ছিলেন বেরিংটন।    

/এফআইআর/  

সম্পর্কিত

সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশের সঙ্গী কারা?

সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশের সঙ্গী কারা?

সাকিব স্বীকার করলেন, টানা খেলায় কিছুটা ক্লান্ত তিনি

সাকিব স্বীকার করলেন, টানা খেলায় কিছুটা ক্লান্ত তিনি

সাকিব স্বীকার করলেন, টানা খেলায় কিছুটা ক্লান্ত তিনি

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২৩:০০

গত কয়েক মাস ধরেই খেলার মধ্যে আছেন সাকিব আল হাসান। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ শেষে ক্রিকেটাররা কয়েক সপ্তাহের বিশ্রাম পেলেও সাকিব ছিলেন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে ব্যস্ত। তবে টানা খেলার কারণে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রভাব না পড়লেও সাকিব যে ক্লান্ত, সেটি স্পষ্টভাবেই বোঝা যাচ্ছে। ওমানের বিপক্ষে সিঙ্গেল নিতে গিয়ে রান আউট হয়েছিলেন। বৃহস্পতিবারও পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে ‘রানিং বিটুইন দ্য উইকেটে’ অস্বস্তিতে ভুগতে দেখা গেছে। পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে সাকিব নিজেই স্বীকার করলেন, টানা খেলায় কিছুটা ক্লান্ত তিনি।

টানা খেলার প্রসঙ্গ টেনে সাকিব পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে বলেছেন, ‘আমি কিছুটা ক্লান্ত। শেষ পাঁচ-ছয় মাস ধরে টানা ক্রিকেট খেলছি, ক্লান্তি আসাটা স্বাভাবিক। দীর্ঘ মৌসুম যাচ্ছে আমার। তার পরেও আশা করছি, টুর্নামেন্টে ভালো কিছু করবো।’

ওমানের বিপক্ষে জয়ের নায়ক ছিলেন সাকিব। বৃহস্পতিবার পিএনজির বিপক্ষে জয়ের নায়কও তিনি। এনিয়ে আইসিসি ইভেন্টে বাংলাদেশের টানা ছয় জয়ের সবগুলোতে ছিল ম্যাচসেরা অবদান। আজ ব্যাট হাতে ৪৬ রান করার পর বল হাতেও চার উইকেট নিয়েছেন।

ম্যাচ সেরার পুরস্কার হাতে পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে নিজের অনুভূতি জানাতে গিয়ে সাকিব বলেছেন, ‘প্রত্যেকেটি ম্যাচই আমাদের আত্মবিশ্বাস বাড়াচ্ছে। প্রথম ম্যাচের পর ধারাবাহিক ভাবে ভালো করা, আমাদের জন্য দারুণ কিছুই। এই ফরম্যাটে আসলে যেদিন যে ভালো খেলবে, তারাই জিতবে। এখন চাপ নেই, নিজেদের স্বাভাবিক খেলাটাই খেলতে পারবো। এ ফরম্যাটে ফর্মে ফিরে আসা কঠিন। ভাগ্য ভালো আমি টপ অর্ডারে ব্যাটিং করার সুযোগ পাচ্ছি।’

/আরআই/এফআইআর/

সম্পর্কিত

সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশের সঙ্গী কারা?

সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশের সঙ্গী কারা?

বাংলাদেশকে ‘গ্রুপ রানার্স আপ’ বানিয়ে সুপার টুয়েলভে স্কটল্যান্ড

বাংলাদেশকে ‘গ্রুপ রানার্স আপ’ বানিয়ে সুপার টুয়েলভে স্কটল্যান্ড

ভুল করতে পারি, তাই বলে ছোট করা উচিত নয়: মাহমুদউল্লাহ 

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২২:৪৬

সহযোগী সদস্য স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে হার দিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু করেছিল বাংলাদেশ। এরপর ওমানে জরুরি সভায় বসেন নাজমুল হাসান পাপনসহ বিসিবির বেশ কয়েকজন পরিচালক। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ১৪১ রান তাড়া করে ৬ রানে হারের কারণ জানাতে গিয়ে তিন সিনিয়র ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহর কড়া সমালোচনা করেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। বোর্ড সভাপতির এমন সমালোচনা মোটেও পছন্দ হয়নি বাংলাদেশের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের!

বৃহস্পতিবার পাপুয়া নিউ গিনিকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে সুপার-টুয়েলভ নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। এরপর সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন মিস্টার কুল খ্যাত মাহমুদউল্লাহ। রাগ, ক্ষোভ, কষ্ট নিয়ে প্রশ্ন করতেই তিনি বললেন, ‘শক্ত হওয়াটাই তো স্বাভাবিক। বিগত কয়েক দিনে...ঠিক আছে আমরাও মানুষ। আমরাও ভুল করি। এ কারণে একদম ছোট করে ফেলা ঠিক না। এটা আমাদের দেশ। আমরা সবাই এক দেশের জন্য খেলি। সবারই প্রত্যাশা থাকে এবং আমাদের যে পরিমাণ বেশি অনুভূতি, তা আর কারও নাই মনে করি। খারাপ খেললে সমালোচনা হবেই। কিন্তু একেবারে ছোট করে ফেলা ঠিক নয়। সব সেক্টরেই এমন হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, গণমাধ্যম ও বাইরে থেকেও।’

মাহমুদউল্লাহ মনে করেন সমালোচনা করতে গিয়ে কাউকে ছোট যেন করা না হয়, ‘সমালোচনা আমাদের স্পর্শ করে। আমরাও মানুষ, পরিবার আছে। আমাদের বাবা-মা রা’ও বসে থাকেন টিভির সামনে। আমাদের বাচ্চারাও খেলা দেখে। তারাও মন খারাপ করে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম তো এখন মানুষের হাতের নাগালে। সবার মোবাইল আছে, সমালোচনা তো হবেই। আমরাও আশা করি সমালোচনা হোক। আমরা খারাপ খেলেছি, সমালোচনা হবেই। কিন্তু সমালোচনার মাধ্যমে কেউ কাউকে ছোট করে ফেললে, সেটা কিন্তু খারাপ লাগে।’ 

সমালোচনা হলে সেটা যেন সুস্থ প্রকৃতির-ই হয়, এমনটি মনে করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক, ‘অনেক প্রশ্ন এসেছে। আমাদের ব্যাটিংয়ের স্ট্রাইক রেট, আমাদের তিন সিনিয়র ক্রিকেটারের স্ট্রাইক রেট নিয়ে। আমরা তো চেষ্টা করেছি। চেষ্টার বাইরে তো আমাদের কাছে কিছু নেই। এরকম না যে আমরা চেষ্টা করিনি। আপ্রাণ চেষ্টা করেছি। কিন্তু ফল আমাদের পক্ষে আনতে পারিনি। সমালোচনা হবেই, এটা কাম্য। কিন্তু সুস্থ সমালোচনা হলে সবার জন্য ভালো। আমরাও অনুভব করি, বাংলাদেশের জার্সিটা যখন আমরা গায়ে দেই, তখন আমাদেরও সম্মান অনুভব হয়।’

ক্রিকেটপ্রেমী সাধারণ মানুষের সমালোচনা ক্রিকেটাররা গায়ে মাখেন না। কিন্তু বোর্ড সভাপতির বক্তব্য কষ্ট দিচ্ছে ক্রিকেটারদের, ‘সবারই ত্যাগ থাকে, কারো ব্যথা থাকে। কারো অনেক ইনজুরি থাকে। ওগুলো নিয়েই আমরা খেলি। দিনের পর দিন খেলি। পেছনের গল্পগুলো অনেকেই জানে না। এজন্য কমিটমেন্ট নিয়ে প্রশ্ন করা ঠিক না। আশা করি, এখন কিছুটা স্বস্তি পাবো। সবচেয়ে বড় কথা, দলের ভেতরে যে উদ্বেগ ছিল ওটা নেই। এজন্য খেলোয়াড় এবং প্রত্যেক টিম ম্যানেজমেন্টকে কৃতিত্ব দেওয়া উচিত। শুধু আমরাই নই, আমাদের স্টাফ, সোহেল ভাই (ম্যাসাজম্যান), রমজান (থ্রোয়ার) প্রত্যেককে ক্রেডিট দিতে হবে। আশা করছি, ভালো কিছু হবে সামনে।’
 

/আরআই/এফআইআর/

সম্পর্কিত

সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশের সঙ্গী কারা?

সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশের সঙ্গী কারা?

বাংলাদেশকে ‘গ্রুপ রানার্স আপ’ বানিয়ে সুপার টুয়েলভে স্কটল্যান্ড

বাংলাদেশকে ‘গ্রুপ রানার্স আপ’ বানিয়ে সুপার টুয়েলভে স্কটল্যান্ড

quiz
সর্বশেষসর্বাধিক
© 2021 Bangla Tribune