X
শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

সাম্প্রদায়িক উসকানির ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবি আসকের

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৪৮

সাম্প্রদায়িক উসকানির ঘটনায় জড়িতদের বিচার এবং কর্তৃপক্ষের জবাবদিহি নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছে আইন ও সালিশ কেন্দ্র-আসক।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি জানানো হয়।

লিখিত বক্তব্যে সংগঠনের জ্যেষ্ঠ সমন্বয়ক আবু আহমেদ ফয়জুল কবির বলেন, ‘গত ১৩ অক্টোবর কুমিল্লা শহরের নানুয়ারদীঘি পূজামণ্ডপে কোরআন অবমাননার অভিযোগ তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধর্মীয় উসকানিমূলক প্রচারণা চালানো হয়। এরপরই ধর্মীয় উগ্রবাদী গোষ্ঠী কুমিল্লারসহ দেশের বিভিন্ন পূজা মণ্ডপসহ হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ি-ঘরে হামলা ও ভাঙচুরসহ ব্যাপক তাণ্ডব চালায়।এ ধরনের সাম্প্রদায়িক উসকানির ঘটনায় আমরা মর্মাহত।’ 

তিনি বলেন, ‘সরকারের পক্ষ থেকে সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে দায়ী করা হলেও প্রশ্ন উঠেছে, এত বছর ক্ষমতায় থাকার পরও কেন সরকার এসব সাম্প্রদায়িক উগ্রবাদী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে পারছে না। এছাড়া সরকারের পক্ষ থেকে কঠোর নিরাপত্তার প্রতিশ্রুতি দেওয়া সত্ত্বেও সংশ্লিষ্টরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থেকে কীভাবে এমন সহিংসতা ঘটানোর পরিকল্পনা করার এবং সেটি বাস্তবায়ন করার সুযোগ পেয়েছে, তা আমরা জানতে চাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘গত এক দশক ধরে আমরা লক্ষ্য করছি, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বিশেষত ফেসবুক ব্যবহার করে নানা গুজব রটিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টির মাধ্যমে সংহিস হামলার ঘটনা ঘটছে। যেখানে আমাদের স্থানীয় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাদের ওপর দায়িত্ব সঠিকভাবে পালনে কার্যত ব্যর্থ বলে প্রতীয়মান হচ্ছে।’

সংবাদ সম্মেলনে আসকের পক্ষ থেকে গত কয়েকদিন কুমিল্লা, চাঁদপুর ও নোয়াখালীর ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় তথ্যানুসন্ধান তুলে ধরে বলা হয়, সহিংস হামলার ঘটনার সময় ‘৯৯৯’ নম্বরে  ফোন করেও যথাসময়ে সহযোগিতা না পাওয়া, হামলাকারীদের অধিকাংশই তরুণ এবং কিশোরদের উপস্থিতি, শৃঙ্খলা রক্ষায় প্রশাসনের প্রশ্নবিদ্ধ ভূমিকাসহ বিভিন্ন অভিযোগ পাওয়া যায়।

সাম্প্রদায়িক হামলা রোধে আইন ও সালিশ কেন্দ্র থেকে সুপারিশ করা হয়— দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলার ঘটনায় অবিলম্বে জাতীয় পর্যায়ে করণীয় নির্ধারণ করতে হবে। প্রতিটি ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করা এবং আইনের আওতায় এনে বিচার নিশ্চিত করতে হবে। ক্ষতিগ্রস্তদের পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসন নিশ্চিত করতে হবে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় রাজনৈতিক দলগুলোকে নিয়ে একটি জাতীয় সংলাপের আয়োজনের উদ্যোগ নিতে হবে। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হওয়ায় স্থানীয় প্রশাসনের জবাবদিহি নিশ্চিত এবং দায়িত্বে অবহেলা প্রমাণিত হলে তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিতে হবে। ফেসবুক, ইউটিউব, টুইটারসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অপব্যবহার বন্ধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সামাজিক দায়বদ্ধতা ও জবাবদিহি নিশ্চিত করাসহ সাম্প্রদায়িক হামলা ও উগ্রবাদ প্রতিহত করতে সকল পেশাজীবীর সমন্বয়ে জাতীয় পর্যায়ে একটি প্লাটফর্ম তৈরি করতে হবে, যারা স্বল্প মেয়াদী ও দীর্ঘমেয়াদী করণীয় নির্ধারণ করবে।

সংবাদ সম্মেলনে আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক গোলাম মনোয়ার কামালের সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন— সংগঠনের মহাসচিব মো. নূর খান, কর্মসূচি পরিচালক নীনা গোস্বামী।

/জেডএ/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ঢাবির যত আয়োজন

বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ঢাবির যত আয়োজন

রামপুরায় আজও শিক্ষার্থীদের অবস্থান 

রামপুরায় আজও শিক্ষার্থীদের অবস্থান 

দুর্ঘটনা তহবিলে ১০০ কোটি টাকা চায় বিআরটিএ

দুর্ঘটনা তহবিলে ১০০ কোটি টাকা চায় বিআরটিএ

আসছে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ, সাগরে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্কতা 

আসছে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ, সাগরে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্কতা 

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ঢাবির যত আয়োজন

বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ঢাবির যত আয়োজন

রামপুরায় আজও শিক্ষার্থীদের অবস্থান 

রামপুরায় আজও শিক্ষার্থীদের অবস্থান 

দুর্ঘটনা তহবিলে ১০০ কোটি টাকা চায় বিআরটিএ

দুর্ঘটনা তহবিলে ১০০ কোটি টাকা চায় বিআরটিএ

আসছে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ, সাগরে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্কতা 

আসছে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ, সাগরে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্কতা 

বিমানবন্দরের রানওয়েতে গরু এলো কী করে?

বিমানবন্দরের রানওয়েতে গরু এলো কী করে?

বাল্যশিক্ষায় কী শিখছে শিশু?

বাল্যশিক্ষায় কী শিখছে শিশু?

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রথম দিন অনুপস্থিত সাড়ে ১৫ হাজার

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রথম দিন অনুপস্থিত সাড়ে ১৫ হাজার

সহকারী জজ পদে নিয়োগ পাওয়া শাহ্ পরানের যোগদান স্থগিত

সহকারী জজ পদে নিয়োগ পাওয়া শাহ্ পরানের যোগদান স্থগিত

‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যার চেয়ে বিশ্বমান গুরুত্বপূর্ণ’

‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যার চেয়ে বিশ্বমান গুরুত্বপূর্ণ’

নির্যাতনের শিকার ব্যক্তিদের তথ্য সহায়তায় ব্র্যাকের নতুন উদ্যোগ

নির্যাতনের শিকার ব্যক্তিদের তথ্য সহায়তায় ব্র্যাকের নতুন উদ্যোগ

সর্বশেষ

বিছানায় গৃহবধূর লাশ, স্বামী পলাতক

বিছানায় গৃহবধূর লাশ, স্বামী পলাতক

কারাগারে থেকেও খালেদা জিয়া গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করছেন: মির্জা ফখরুল

কারাগারে থেকেও খালেদা জিয়া গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করছেন: মির্জা ফখরুল

বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ঢাবির যত আয়োজন

বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ঢাবির যত আয়োজন

শিক্ষকের মৃত্যুর জেরে বন্ধ হলো কুয়েট

শিক্ষকের মৃত্যুর জেরে বন্ধ হলো কুয়েট

রামপুরায় আজও শিক্ষার্থীদের অবস্থান 

রামপুরায় আজও শিক্ষার্থীদের অবস্থান 

© 2021 Bangla Tribune