X
শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ৫ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকা না থাকা

আসন্ন গণভোটকে কেন্দ্র করে জমজমাট যুক্তরাজ্যের রাজনীতি

আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৬, ২১:৪৯
image

ইউরোপীয় ইউনিয়নে যুক্তরাজ্যের থাকা না থাকাকে কেন্দ্র করে গণভোট অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা চলতি বছরের ২৩ জুন। এ নিয়ে জমে উঠেছে সেখানকার জাতীয় রাজনীতি। প্রভাবশালী ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, আসন্ন গণভোটে লন্ডনের মেয়র এবং কনজার্ভেটিভ পার্টির নেতা বরিস জনসনের ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে আসার পক্ষে প্রচারণা করবেন। লন্ডনের আরেক সম্ভাব্য মেয়র পদপ্রার্থী জ্যাক গোল্ডস্মিথও একইভাবে ক্যামেরনের বিপক্ষে অবস্থান নেওয়ার কথা জানিয়েছেন। তবে ক্যামেরনের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন বরিস জনসন

বরিস জনসন বলেন, ‘আমি এক নতুন ধরনের সম্পর্ক দেখতে চাই, যাতে প্রাধান্য পাবে বাণিজ্য এবং সহযোগিতা। আর তাতে উন্মুক্ত সীমান্তের বিষয়টি হবে অনেক কম গুরুত্বপূর্ণ। আমি এই অবস্থান থেকেই ক্যামেরন সরকারের বিপক্ষে অবস্থান নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমি মনে করি না, এর বেশি কিছু করা আমার পক্ষে সম্ভব।’

তিনি বলেন, ‘দলের পক্ষ থেকে যা-ই বলা হোক না কেন, আমি না-থাকার পক্ষেই প্রচারণা চালাবো। আমি জানি এর পক্ষে অনেক জনসমর্থন রয়েছে। কারণ আমি চাই এমন এক চুক্তি, যা দেশের জনগণের পক্ষে যাবে। যেখানে জনগণের অর্থের সাশ্রয় হবে এবং তার উপর জনগণের নিয়ন্ত্রণ থাকবে। আর এটাই হলো মোদ্দা কথা।’  

এর আগে প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন ইউরোপীয় ইউনিয়নে ব্রিটেনের থাকা – না থাকার প্রশ্নে চলতি বছরের ২৩ জুন গণভোটের ঘোষণা দেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে ক্যামেরন বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নে থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে আসা (ব্রেক্সিট) হবে ‘অন্ধকারে ঝাঁপ দেয়ার সামিল।’ ক্যামেরন জানান, সংস্কার হওয়া ইউরোপীয় ইউনিয়নে যুক্ত থাকার পক্ষেই প্রচারণা চালাবেন তিনি। উল্লেখ্য, গণভোটে বেরিয়ে আসা শিবিরকে ‘ব্রেক্সিট’ নামে ডাকা হচ্ছে।

ডেভিড ক্যামেরন

বিবিসির রাজনৈতিক বিশ্লেষক লরা কুয়েনসবার্গ মনে করেন, বরিস জনসনের সিদ্ধান্ত ‘ব্রেক্সিট’ বা ‘আউট’ শিবিরের জন্য মনোবল বৃদ্ধিতে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। আর এর বিপরীতে প্রধানমন্ত্রী ক্যামেরনের জন্য এটা হবে বড় একটা ধাক্কা। কারণ বরিস ইতিমধ্যেই তার বন্ধু ও প্রতিপক্ষদের মধ্যে ব্রিটেনের ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকার বিষয়টিকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছেন।

বিবিসির খবরে বলা হয়, বেশ কয়েকজন মন্ত্রী ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকার পক্ষে সম্মতি জানালেও অনেকেই আবার ক্যামেরনের বিপক্ষে প্রচারণা চালানোর ঘোষণা দিয়েছেন। ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে থাকার প্রশ্নে যেসকল মন্ত্রী সমর্থন জানিয়েছেন তাদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থেরেসা মে।

লন্ডনের মেয়র বরিস জনসন গত বছর শহরের একটি নির্বাচনী কেন্দ্র থেকে এমপি নির্বাচিত হন। ইতিমধ্যে তিনিসহ ক্যামেরনের মন্ত্রীসভার আরও ছয়জন সদস্য ‘আউট’ শিবিরকে সমর্থন জানিয়েছেন।

লন্ডনের আরেক সম্ভাব্য মেয়র পদপ্রার্থী জ্যাক গোল্ডস্মিথও বলেছেন, তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে আসার পক্ষেই ভোট দেবেন। ইউরোপীয় ইউনিয়নে (ইইউ) থাকলে যুক্তরাজ্যে প্যারিস-ধাঁচের সন্ত্রাসী হামলার ঝুঁকি বাড়বে বলে সতর্ক করেছেন দেশটির কর্ম ও পেনশন মন্ত্রী আয়ান ডানক্যান স্মিথ। তিনি বলেন, ‘ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য থাকলে যুক্তরাজ্যে গত বছর ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে হওয়া সন্ত্রাসী হামলার মতো হামলা হওয়ার দ্বার খোলা থাকবে।’

ইয়ান ডানক্যান স্মিথ

শরণার্থী সমস্যাকে চিহ্নিত করে স্মিথ বলেন, ‘প্যারিসে কী ঘটেছে, তা আমরা দেখেছি। সেখানে তারা সময় নিয়ে হামলা পরিকল্পনা করেছে। আর এখন যেভাবে সীমান্ত খোলা রাখা হচ্ছে, তাতে আমরা অনেকেই মনে করছি যে, এর মা্ধ্যমে আসলে সন্ত্রাসী তৎপরতার দ্বার খোলা রাখা হচ্ছে। আমাদের এ বিষয়টির সমাধান করা দরকার।’

তবে ক্যামেরনের পক্ষেও যে সমর্থন একেবারেই নাই, এমনটি নয়। ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী মাইকেল ফ্যালনের মতে, ইউরোপীয় ইউনিয়নে থেকেই দেশকে নিরাপদ আর শক্তিশালী করা সম্ভব। রেডিওতে দেওয়া এক বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘ইইউ, ন্যাটো বা জাতিসংঘের মতো আন্তর্জাতিক অংশীদারিত্বমূলক সংস্থা দ্বারা যুক্তরাজ্য সবসময়ই লাভবান হয়েছে।’

লন্ডনের মেয়র বরিস জনসন এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী মাইকেল ফ্যালন

তিনি নিরাপত্তা বিষয়ক শঙ্কাকে ভিত্তিহীন বলে উল্লেখ করে বলেন, ‘এই মুহূর্তে প্রতিরক্ষা এবং নিরাপত্তা মূলত ন্যাটোর ওপর নির্ভরশীল, ইইউ-র ওপর নয়। তবে ইইউ যে নিরাপত্তা বিধান করতে পারে, তা ন্যাটোর পক্ষেও সম্ভব নয়। কারণ ইইউ-র মাধ্যমে আপনি অপরাধীদের নথিপত্র, যাত্রীদের প্রয়োজনীয় কাগজ আদান-প্রদান করতে পারেন, যা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কাজ করতে কার্যকর হবে। আমরা রাশিয়ার আগ্রাসন বা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে গেলে ইউরোপীয় ইউনিয়নের যৌথতার শক্তিকে বুঝতে হবে। আমাদের ওই বৃহৎ অংশীদারিত্বের অংশ হতে হবে।’ সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান, বিবিসি।

/এসএ/বিএ/

সম্পর্কিত

যুক্তরাজ্যে ডেল্টা তাণ্ডব: ১১ দিনে আক্রান্ত দ্বিগুণ

যুক্তরাজ্যে ডেল্টা তাণ্ডব: ১১ দিনে আক্রান্ত দ্বিগুণ

রান্নাঘরের দেয়ালে ঝুলছে সাড়ে ৫ কোটি টাকার ‘মুদ্রা’

রান্নাঘরের দেয়ালে ঝুলছে সাড়ে ৫ কোটি টাকার ‘মুদ্রা’

যে কারণে একই পোশাক তৃতীয়বার পরেছেন ব্রিটিশ রানি

যে কারণে একই পোশাক তৃতীয়বার পরেছেন ব্রিটিশ রানি

যুক্তরাজ্যে এবছর সবচেয়ে জনপ্রিয় যে নামগুলো

যুক্তরাজ্যে এবছর সবচেয়ে জনপ্রিয় যে নামগুলো

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ঝুঁকি,  যুক্তরাজ্যে লকডাউন প্রত্যাহার হবে দেরিতে

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ঝুঁকি, যুক্তরাজ্যে লকডাউন প্রত্যাহার হবে দেরিতে

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার প্রতিশ্রুতি জি-৭ নেতাদের

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার প্রতিশ্রুতি জি-৭ নেতাদের

ম্যাক্রোঁর সঙ্গে বিতর্কে জড়ালেন বরিস জনসন

ম্যাক্রোঁর সঙ্গে বিতর্কে জড়ালেন বরিস জনসন

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টে হুমকির মুখে যুক্তরাজ্যের ‘ফ্রিডম ডে’

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টে হুমকির মুখে যুক্তরাজ্যের ‘ফ্রিডম ডে’

যে কারণে রানি এলিজাবেথের জন্মদিন দুইটা

যে কারণে রানি এলিজাবেথের জন্মদিন দুইটা

চীনের প্রভাব মোকাবিলায় জি ৭’র বিশাল প্রকল্প

চীনের প্রভাব মোকাবিলায় জি ৭’র বিশাল প্রকল্প

৬০ শতাংশ বেশি সংক্রামক ভারতীয় স্ট্রেইন, কমায় টিকার কার্যকারিতা

৬০ শতাংশ বেশি সংক্রামক ভারতীয় স্ট্রেইন, কমায় টিকার কার্যকারিতা

সম্মেলনের আগে পুতিনকে হুমকি দিলেন বাইডেন

সম্মেলনের আগে পুতিনকে হুমকি দিলেন বাইডেন

সর্বশেষ

কিংবদন্তি দৌড়বিদ মিলখা সিং মারা গেছেন

কিংবদন্তি দৌড়বিদ মিলখা সিং মারা গেছেন

ইউরোয় আজ জমজমাট লড়াই: কখন, দেখবেন কোথায়

ইউরোয় আজ জমজমাট লড়াই: কখন, দেখবেন কোথায়

রাজধানীতে একই পরিবারের ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার

রাজধানীতে একই পরিবারের ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার

দেশের উন্নয়ন-অর্জনই বিএনপির গাত্রদাহের কারণ: ওবায়দুল কাদের

দেশের উন্নয়ন-অর্জনই বিএনপির গাত্রদাহের কারণ: ওবায়দুল কাদের

পাগলা মসজিদের দানবাক্সে পাওয়া গেছে ১২ বস্তা টাকা

পাগলা মসজিদের দানবাক্সে পাওয়া গেছে ১২ বস্তা টাকা

দুটি এনজিও’র বিরুদ্ধে হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ

দুটি এনজিও’র বিরুদ্ধে হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ

বাবাকে নিয়ে প্রথম গাইলাম: নোলক বাবু

বাবাকে নিয়ে প্রথম গাইলাম: নোলক বাবু

চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন শুরু

চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন শুরু

বর্ধিত ভাড়াতেও সব সিটে যাত্রী বহন!

বর্ধিত ভাড়াতেও সব সিটে যাত্রী বহন!

সিনোফার্মের টিকা প্রয়োগ শুরু

সিনোফার্মের টিকা প্রয়োগ শুরু

চট্টগ্রামের রাস্তায় হাঁটুপানি

চট্টগ্রামের রাস্তায় হাঁটুপানি

১৬ কোটি টাকা ভাতা নিতে অস্বীকৃতি ডাচ রাজকুমারীর

১৬ কোটি টাকা ভাতা নিতে অস্বীকৃতি ডাচ রাজকুমারীর

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

যুক্তরাজ্যে ডেল্টা তাণ্ডব: ১১ দিনে আক্রান্ত দ্বিগুণ

যুক্তরাজ্যে ডেল্টা তাণ্ডব: ১১ দিনে আক্রান্ত দ্বিগুণ

রান্নাঘরের দেয়ালে ঝুলছে সাড়ে ৫ কোটি টাকার ‘মুদ্রা’

রান্নাঘরের দেয়ালে ঝুলছে সাড়ে ৫ কোটি টাকার ‘মুদ্রা’

যে কারণে একই পোশাক তৃতীয়বার পরেছেন ব্রিটিশ রানি

যে কারণে একই পোশাক তৃতীয়বার পরেছেন ব্রিটিশ রানি

যুক্তরাজ্যে এবছর সবচেয়ে জনপ্রিয় যে নামগুলো

যুক্তরাজ্যে এবছর সবচেয়ে জনপ্রিয় যে নামগুলো

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ঝুঁকি,  যুক্তরাজ্যে লকডাউন প্রত্যাহার হবে দেরিতে

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ঝুঁকি, যুক্তরাজ্যে লকডাউন প্রত্যাহার হবে দেরিতে

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার প্রতিশ্রুতি জি-৭ নেতাদের

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার প্রতিশ্রুতি জি-৭ নেতাদের

ম্যাক্রোঁর সঙ্গে বিতর্কে জড়ালেন বরিস জনসন

ম্যাক্রোঁর সঙ্গে বিতর্কে জড়ালেন বরিস জনসন

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টে হুমকির মুখে যুক্তরাজ্যের ‘ফ্রিডম ডে’

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টে হুমকির মুখে যুক্তরাজ্যের ‘ফ্রিডম ডে’

যে কারণে রানি এলিজাবেথের জন্মদিন দুইটা

যে কারণে রানি এলিজাবেথের জন্মদিন দুইটা

চীনের প্রভাব মোকাবিলায় জি ৭’র বিশাল প্রকল্প

চীনের প্রভাব মোকাবিলায় জি ৭’র বিশাল প্রকল্প

© 2021 Bangla Tribune