X
শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ৫ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

বঙ্গোপসাগরে ভারতের ব্যালাস্টিক মিসাইল পরীক্ষায় যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ

আপডেট : ২৬ মার্চ ২০১৬, ১৪:৪৩
image

চলতি মাসে বঙ্গোপসাগরে ডুবোজাহাজ (সাবমেরিন) থেকে পরমাণু বোমা বহনে সক্ষম ব্যালাস্টিক মিসাইলের পরীক্ষা চালায় ভারত। আর এ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। সমুদ্রগর্ভ থেকে ভারত যে মিসাইলের পরীক্ষা চালিয়েছে, তাতে আঞ্চলিক নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে বলে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর জানিয়েছে।

বৃহস্পতিবার মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র মার্ক টোনার ভারতের ব্যালাস্টিক মিসাইল পরীক্ষা সম্পর্কে বলেন, ‘আমরা পারমাণবিক এবং মিসাইল উন্নয়নের যে কোনও ঘটনায় অবগত রয়েছি, যা আঞ্চলিক স্থিতিশীলতাকে ক্ষুণ্ন করে। এজন্য সকল রাষ্ট্রের কাছে আমরা পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার ও উন্নয়ন কমিয়ে আনার আহ্বান জানাই।’

তিনি জানান, মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নয়া দিল্লিকে তাদের উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। টোনার বলেন, আমি ভারতের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা সম্পর্কে নির্দিষ্ট করে কিছু বলতে চাইছি না। তবে আমরা কোনওভাবেই আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা ভঙ্গ হোক, এমনটা চাইনা। আমি এ সম্পর্কে সচেতন রয়েছি।

ভারতের কে-৪ ব্যালাস্টিক মিসাইল

উল্লেখ্য, ২২ মার্চ মঙ্গলবার ভারত আবার কে-৪ ব্যালাস্টিক মিসাইলের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে। বঙ্গোপসাগরে ৯ মিটার লম্বা একটি ডুবোজাহাজের প্রতিরূপ (রেপ্লিকা) থেকে ওই মিসাইল ছোড়া হয়। পরমাণু বোমা বহনে সক্ষম মিসাইলটি প্রায় সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করতে সক্ষম। এই পরীক্ষার মধ্য দিয়ে ভারত জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচ স্থায়ী সদস্য এবং জার্মানির পাশে নাম লেখাতে পারলো। যারা ভূমি, আকাশ এবং পানি – এই তিন স্থান থেকেই পরমাণু আক্রমণ চালাতে সমর্থ।

প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞদের মতে, সমুদ্রের গভীর থেকে পরমাণু হামলা চালানোর ক্ষমতা থাকলে তবেই একটি দেশকে প্রকৃত পরমাণু শক্তিধর বলা যায়। কারণ কোনো দেশের মূল ভূখন্ড প্রতিপক্ষের পরমাণু হামলার শিকার হয়ে গেলে, পাল্টা হামলা সমুদ্রপথেই চালাতে হয়। মূল ভূখণ্ডের সব পরমাণু পরিকাঠামো নষ্ট করে দেয়ার লক্ষ্য নিয়েই প্রতিপক্ষ পরমাণু হামলা চালানোর ছক কষে থাকে। কিন্তু সমুদ্রে লুকিয়ে থাকা সকল পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্রকে ধ্বংস করা সম্ভব হয় না। তবে সাম্প্রতিক সময়ে ভারতের ঘনঘন মিসাইল পরীক্ষা আঞ্চলিক অস্থিতিশীলতার কারণ হতে পারে বলেও সতর্ক করেছেন নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা। সূত্র: পিটিআই, আইবি টাইমস, ডেকান ক্রনিকল। 

/এসএ/

সম্পর্কিত

পুরনো মারুতি হয়ে গেলো ল্যাম্বরগিনি

পুরনো মারুতি হয়ে গেলো ল্যাম্বরগিনি

ভোটগ্রহণ শেষ, নতুন প্রেসিডেন্টের অপেক্ষায় ইরান

ভোটগ্রহণ শেষ, নতুন প্রেসিডেন্টের অপেক্ষায় ইরান

টিকা নিতে কৃষ্ণাঙ্গদের প্রতি কমলা হ্যারিসের আহ্বান

টিকা নিতে কৃষ্ণাঙ্গদের প্রতি কমলা হ্যারিসের আহ্বান

ভারতে নদী ও লেকের পানিতে মিলেছে করোনা: আইআইটি

ভারতে নদী ও লেকের পানিতে মিলেছে করোনা: আইআইটি

ফলাফল চ্যালেঞ্জ করে মমতার মামলার পরবর্তী শুনানি ২৪ জুন

ফলাফল চ্যালেঞ্জ করে মমতার মামলার পরবর্তী শুনানি ২৪ জুন

ওবামাকেয়ারের বৈধতা বহাল রাখলো সুপ্রিম কোর্ট

ওবামাকেয়ারের বৈধতা বহাল রাখলো সুপ্রিম কোর্ট

ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

আম পাহারায় ৯ কুকুর ও ৩ রক্ষী

আম পাহারায় ৯ কুকুর ও ৩ রক্ষী

আসছে মন পড়তে পারা হেলমেট

আসছে মন পড়তে পারা হেলমেট

কাবুল বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় প্রধান ভূমিকা নেবে তুরস্ক: বাইডেন প্রশাসন

কাবুল বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় প্রধান ভূমিকা নেবে তুরস্ক: বাইডেন প্রশাসন

নন্দীগ্রামে শুভেন্দুর জয়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আদালতে মমতা

নন্দীগ্রামে শুভেন্দুর জয়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আদালতে মমতা

ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে চোখ হারালো ভারতের তিন শিশু

ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে চোখ হারালো ভারতের তিন শিশু

সর্বশেষ

রাবিতে অ্যাডহকে নিয়োগ পাওয়াদের বাধায় সভা স্থগিত

রাবিতে অ্যাডহকে নিয়োগ পাওয়াদের বাধায় সভা স্থগিত

বাবা দিবসে বিশ্বরঙ-এ মূল্য ছাড়

বাবা দিবসে বিশ্বরঙ-এ মূল্য ছাড়

মৃত বাবাকে ফিরে পাওয়ার ‌গল্প

মৃত বাবাকে ফিরে পাওয়ার ‌গল্প

কিংবদন্তি দৌড়বিদ মিলখা সিং মারা গেছেন

কিংবদন্তি দৌড়বিদ মিলখা সিং মারা গেছেন

ইউরোয় আজ জমজমাট লড়াই: কখন, দেখবেন কোথায়

ইউরোয় আজ জমজমাট লড়াই: কখন, দেখবেন কোথায়

রাজধানীতে একই পরিবারের ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার

রাজধানীতে একই পরিবারের ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার

দেশের উন্নয়ন-অর্জনই বিএনপির গাত্রদাহের কারণ: ওবায়দুল কাদের

দেশের উন্নয়ন-অর্জনই বিএনপির গাত্রদাহের কারণ: ওবায়দুল কাদের

পাগলা মসজিদের দানবাক্সে পাওয়া গেছে ১২ বস্তা টাকা

পাগলা মসজিদের দানবাক্সে পাওয়া গেছে ১২ বস্তা টাকা

দুটি এনজিও’র বিরুদ্ধে হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ

দুটি এনজিও’র বিরুদ্ধে হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ

বাবাকে নিয়ে প্রথম গাইলাম: নোলক বাবু

বাবাকে নিয়ে প্রথম গাইলাম: নোলক বাবু

চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন শুরু

চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন শুরু

বর্ধিত ভাড়াতেও সব সিটে যাত্রী বহন!

বর্ধিত ভাড়াতেও সব সিটে যাত্রী বহন!

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পুরনো মারুতি হয়ে গেলো ল্যাম্বরগিনি

পুরনো মারুতি হয়ে গেলো ল্যাম্বরগিনি

ভোটগ্রহণ শেষ, নতুন প্রেসিডেন্টের অপেক্ষায় ইরান

ভোটগ্রহণ শেষ, নতুন প্রেসিডেন্টের অপেক্ষায় ইরান

টিকা নিতে কৃষ্ণাঙ্গদের প্রতি কমলা হ্যারিসের আহ্বান

টিকা নিতে কৃষ্ণাঙ্গদের প্রতি কমলা হ্যারিসের আহ্বান

ভারতে নদী ও লেকের পানিতে মিলেছে করোনা: আইআইটি

ভারতে নদী ও লেকের পানিতে মিলেছে করোনা: আইআইটি

ফলাফল চ্যালেঞ্জ করে মমতার মামলার পরবর্তী শুনানি ২৪ জুন

ফলাফল চ্যালেঞ্জ করে মমতার মামলার পরবর্তী শুনানি ২৪ জুন

ওবামাকেয়ারের বৈধতা বহাল রাখলো সুপ্রিম কোর্ট

ওবামাকেয়ারের বৈধতা বহাল রাখলো সুপ্রিম কোর্ট

ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

আম পাহারায় ৯ কুকুর ও ৩ রক্ষী

আম পাহারায় ৯ কুকুর ও ৩ রক্ষী

আসছে মন পড়তে পারা হেলমেট

আসছে মন পড়তে পারা হেলমেট

কাবুল বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় প্রধান ভূমিকা নেবে তুরস্ক: বাইডেন প্রশাসন

কাবুল বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় প্রধান ভূমিকা নেবে তুরস্ক: বাইডেন প্রশাসন

© 2021 Bangla Tribune