X
শুক্রবার, ২৩ জুলাই ২০২১, ৮ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

কলকাতার ফ্লাইওভার ধস

শেষকৃত্যের পর পাওয়া গেল নিহতের পায়ের খোঁজ

আপডেট : ০২ এপ্রিল ২০১৬, ১৯:৪৭
image






শনাক্তকরণ বৃহস্পতিবার রাতে। শুক্রবার ভোরে মৃতদেহের সৎকারও শেষ। এই অবস্থায় মৃতার ছেলের কাছে পুলিশের ফোন: ‘আপনার মায়ের পা পাওয়া গিয়েছে। নিয়ে যান।’ শুনেই হতভম্ব হয়ে যান সঞ্জয় জোশী। বৃহস্পতিবার বিবেকানন্দ রোডে নির্মীয়মাণ উড়ালপুল ভেঙে পড়ার ঘটনায় আশা জোশী নামে এক বৃদ্ধার পা-কাটা মৃতদেহ পাঠানো হয়েছিল কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। দেহটি শনাক্ত করেন তাঁর ছেলে সঞ্জয়। রাতে ময়না-তদন্তের পরে দেহটি তাঁর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এ দিন মায়ের শেষকৃত্য করেছেন সঞ্জয়।
তা হলে দুপুরে ওই ফোন কেন? পুলিশ কার পা উদ্ধারের কথা বলছে? এই প্রশ্ন উড়ে বেড়াচ্ছে মেডিক্যালে। সঞ্জয় এবং তাঁর পরিবারের প্রশ্ন, তাঁর মায়ের দেহ তো শুক্রবার ভোরেই সৎকার হয়ে গিয়েছে। তা হলে কীসের ভিত্তিতে প্রমাণিত হল যে, পরে পাওয়া পা-টি তাঁর মায়ের?
এই প্রশ্নের কোনও সুনির্দিষ্ট উত্তর দিতে পারেননি হাসপাতাল-কর্তৃপক্ষ। সুপার শিখা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশ্নটা শুনে বেশ কিছু ক্ষণ চুপ করে ছিলেন। তার পরে তাঁর জবাব, ‘‘ডিএনএ পরীক্ষার রিপোর্ট থেকে হয়তো প্রমাণ হবে। পা থেকে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষায় পাঠানো হয়েছে।’’
সঞ্জয়ের মায়ের দেহ থেকেও কি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল? ওই কাটা পা উদ্ধারের আগেই তো দেহ সৎকার হয়ে গিয়েছে। তা হলে?
এই প্রশ্নের জবাব পাওয়া যায়নি শিখাদেবীর কাছে। তিনি জানান, দেহ হোক বা কাটা অংশ, তা পরিবারের হাতে তুলে দেওয়ার দায়িত্ব পুলিশের। এটা তারাই বলতে পারবে।

কী বলছে পুলিশ?
পুলিশের বক্তব্য, হাসপাতাল তাদের জানিয়েছে, ওই কাটা পা আশা জোশীরই। হাসপাতালের বক্তব্যের ভিত্তিতেই তারা সেটি পরিবারের হাতে তুলে দিতে চেয়েছে। পা কার, তা মিলিয়ে দেখার দায়িত্ব তাদের নয়।
আপাতত কী করণীয়, ভেবে উঠতে পারছে না আশাদেবীর পরিবার। সঞ্জয়ের কথায়, ‘‘কখনও যে এমন ঘটনার মুখোমুখি হতে হবে, তা স্বপ্নেও ভাবিনি। মায়ের কাটা পা নিয়ে আবার দাহ করতে
যেতে হবে ভেবেই কেমন শিউরে উঠছি।’’ শুক্রবার রাতের বিমানে হায়দরাবাদে বড় ছেলের কাছে যাওয়ার কথা ছিল আশাদেবীর। ঠিক তার আগে, বৃহস্পতিবার যান বড়বাজারের কাছে একটি মন্দিরে পুজো দিতে। ফেরার পথে উড়ালপুল ভেঙে পড়ার ওই ভয়াবহ ঘটনার শিকার হন বৃদ্ধা।

ফ্লাইওভারটি যখন ধসে পড়ে তখন বেশকিছু যানবাহন এর নিচে চাপা পড়ে।
দুর্ঘটনায় আহতেরা কলকাতার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন। এ দিন দুপুরে মেডিক্যাল চত্বরে উদ্‌ভ্রান্তের মতো পায়চারি করছিলেন পরমাত্মা যাদব। তিনি মারোয়াড়ি রিলিফ সোসাইটি হাসপাতালের কর্মী। বৃহস্পতিবার দুপুরে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে আচমকাই বুকটা কেঁপে উঠেছিল তাঁর। কিছু ক্ষণের মধ্যেই অপারেশন থিয়েটার থেকে খবর আসে, তাঁর স্ত্রী সবিতা ওই দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে ভর্তি আছেন তাঁদের হাসপাতালেই। বৃহস্পতিবার মারোয়াড়ি রিলিফ সোসাইটিতেই ছিলেন সবিতা। শুক্রবার অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় মেডিক্যাল কলেজে। এখন আকণ্ঠ উদ্বেগ নিয়ে মেডিক্যালেই প্রতিটি মুহূর্ত কাটছে পরমাত্মার। উড়ালপুলের নীচে ডিউটি করতে গিয়ে আহত হন জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডের সার্জেন্ট সন্দীপ হালদার। মাথায় আঘাত লাগায় প্রথমে তাঁকে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে স্থানান্তরিত করা হয় একটি বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউ-এ। তাঁর মাথার ভিতরে রক্ত জমাট বেঁধে রয়েছে এখনও। কোনও কথা বলছেন না সন্দীপ। সারা দিন শুধু ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে রয়েছেন সিলিংয়ের দিকে। আর সমানে কেঁপে চলেছে ডান হাত।
এই ‘ট্রমা’র ছবিই সর্বত্র। কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসাধীন অনিল সরকার বৃহস্পতিবার সারা রাত দু’চোখের পাতা এক করতে পারেননি।
ঘুমের ওষুধ খাওয়ার পরেও ছটফট করেছেন সমানে। ওয়ার্ডের ডাক্তার-নার্সেরা জানান, ভর্তির পর থেকে একটা শব্দও উচ্চারণ করেননি তিনি। বছর চল্লিশের কচি দাস রাতে ঘুমোতে পেরেছেন ঠিকই। কিন্তু ঘুমের মধ্যেই বারবার চিৎকার করে উঠেছেন আতঙ্কে। শারীরিক চিকিৎসার সঙ্গে সঙ্গে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি ওই আহতকে মানসিক ভাবে স্থিতিশীল করাটা এই মুহূর্তে খুবই জরুরি বলে মনে করছেন চিকিৎসকেরা। সৌজন্য: আনন্দবাজার পত্রিকা


/বিএ/

সম্পর্কিত

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

ভারতে বার্ড ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মানুষের মৃত্যু

ভারতে বার্ড ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মানুষের মৃত্যু

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ২১:২৪

আফগানিস্তানের পশ্চিমাঞ্চলীয় বৃহত্তম শহর হেরাতে তালেবানের উত্থানে অর্থনৈতিক দুর্ভোগ দেখা দিচ্ছে এবং মানুষ বাধ্য হয়ে অস্ত্র হাতে তুলে নিচ্ছে।

ঈদুল আজহার আগে আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি দেশটির জনগণকে আশ্বস্ত করতে অনেক সময় ব্যয় করেছেন। দেশজুড়ে বিভিন্ন জেলায় তালেবানের দখল ঠেকাতে সরকারিবাহিনী যখন লড়াই করছে তখন তিনি এমন উদ্যোগ নিলেন।

সোমবার পশ্চিমাঞ্চলীয় হেরাত শহরের সড়কের হাঁটতে দেখা গেছে। তিনি পথচারীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন, শিশুদের কোলে তুলে নেন। এমনকি স্থানীয় একটি মিষ্টির দোকানকে অবাক করে দেন। তার এই সংক্ষিপ্ত সফর হেরাতের জনগণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ সময়ে হলো।

এই মাসের শুরুতে তালেবানরা প্রাদেশিক রাজধানী হেরাত থেকে ৪৩ কিলোমিটার দূরে জিন্দা জান নামের একটি শহরের নিয়ন্ত্রণ নেয়। এর পরে তারা ইরানের সঙ্গে সীমান্ত ক্রসিং ইসলাম কালা দখল করে। সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে যেসব সীমান্ত ক্রসিং তালেবান দখল করেছে এটি সেগুলোর একটি। এই দুটি দখলের খবর ৪ লাখ বাসিন্দার প্রাচীন শহরটিকে বড় ধরনের ধাক্কা দিয়েছে।

স্থানীয় আশঙ্কা করেন, পরের দিন সূর্যোদয়ের পর তালেবানরা হেরাতের দিকে এগিয়ে আসা শুরু করবে। এই আতঙ্ক এমন পর্যায়ে ছিল যে, অনেকেই ঈদুল আজহার ছুটির দিনে মার্কেট ও বাজারে যাওয়া বন্ধ করে দেন।

ঘানির এই সফরের পর ঈদের দিন ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রীও শহরটি সফর করেন। এতে হেরাতের বাসিন্দাদের একটি স্পষ্ট বার্তা দেওয়া হয়েছে: সহযোগিতা আসছে।

যদিও হেরাতের অনেক বাসিন্দার জন্য এই আতঙ্ক এখনও একেবারে বাস্তব।

১২টির বেশি জেলায় তালেবানের বড় ধরনের উপস্থিতি রয়েছে বলে জানান হেরাতের স্থানীয়রা

কাবুল ও হেরাতে বসবাস করা ফরোগ মোহাম্মদি তালেবানের জিন্দা জান শহরের দখল নেওয়ার স্মৃতিচারণ করেন। ৮ জুলাইয়ের সন্ধ্যাটি তার জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ বাক বলে উল্লেখ করেন। ওই দিন সন্ধ্যায় তিনি সিদ্ধান্ত নেন তালেবানের উত্থান ঠেকাতে যে বিদ্রোহী আন্দোলন শুরু হয়েছে তাতে যোগ দেবেন। আফগানিস্তানজুড়ে কয়েক হাজার মানুষ এই সশস্ত্র আন্দোলনে শামিল হচ্ছেন।  

পরের দিন সকালে একটি অফিসে ম্যানেজারের দায়িত্বে থাকা ফরোগ কাঁধে একে-৪৭ নিয়ে হাঁটতে শুরু করেন। শহর ঘিরে রাখা বিভিন্ন জেলায় তালেবানের এগিয়ে আসা ঠেকানোর লড়াইয়ে যোগ দেওয়া লক্ষ্য তার।

তিনি বলেন, আপনি ওই রাতে সেখানে থাকতেন তাহলে বুজতে পারতেন যে তালেবানের প্রতিটি লক্ষ্যই হলো বড় শহর দখল করা।

বেশ কয়েকজন স্থানীয় জানিয়েছেন, হেরাতের এক ডজনের বেশি জেলায় তালেবানের ব্যাপক উপস্থিতি রয়েছে। শহরটিকে তুলে ধরতে তারা অবরুদ্ধে ও ফাঁদে আটকা শব্দ ব্যবহার করছেন। তাদের আশঙ্কা, এখনও সশস্ত্র গোষ্ঠটি শহরের পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ নিতে পারে।

হেরাতের এক বাসিন্দা নিজের পরিবারকে নিয়ে কাবুল পালিয়েছেন। তালেবানের কাছে থেকে হুমকি পাওয়ার পর তিনি শহরটি ছেড়ে যান। তার কথা, শহরের বিমানবন্দর যাওয়ার রাস্তা ও এক বা দুটি শহর কেবল নিরাপদ।

স্থানীয়রা বলছেন, তালেবানকে হেরাত শহরের দখল নিতে তারা দেবেন না

গত মাসে সাংবাদিক, মানবাধিকারকর্মী ও প্রখ্যাত নারীরা তালেবানের কাছ থেকে হুমকি পেয়েছেন। অনেকেই দেশটি ছাড়ার সুযোগ না পেলেও অন্তত শহরটি ছাড়তে চাইছেন।

ফরোগ মোহাম্মদি জানান, তালেবানের এই অবস্থান বড় অংকের অর্থ সংগ্রহ করা। আর সম্ভব হলে শহরের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া। তার কথা, শহরের সব জায়গায় অর্থ ছড়িয়ে রয়েছে। তারা যদি শহরটির দখল নিতে পারে তাহলে তা অর্থের খনিতে পরিণত হতে পারে।

মেহরাবুদ্দিন নামের ব্যক্তি কাঁধে রকেট লঞ্চার নিয়ে ইনজিল জেলার কাছে রাস্তায় অবস্থান করছেন। তিনি জানান, সম্প্রতি তালেবান শহরটির ১০ কিলোমিটার কাছাকাছি চলে আসে। এরপর থেকে বেশ কয়েকবার তাকে রকেট ছুড়তে হয়েছে।

হেরাতের বিভিন্ন জেলার পাহাড়ি এলাকায় তালেবান অবস্থান নেয়। সেখান থেকে তারা জাতীয় নিারপত্তা ও বিদ্রোহী বাহিনীকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে।

রকেট লঞ্চার সঙ্গে রাখার বিষয়ে মেহরাবুদ্দিন জানান, দিনের বেলা এলাকাটি শান্ত থাকে। কিন্তু রাতে লড়াই শুরু হয়। তিনি বলেন, তালেবান যোদ্ধাদের বাড়ি এই এলাকায়। আমি বাজি ধরে বলতে পারি তাদের বাড়িগুলো ভর্তি। হয়ত এই মুহূর্তে বাড়ি থেকে নজর রাখছে।

বিদ্রোহী বাহিনীর সদস্যরা বলছেন, তারা তালেবানের সঙ্গে লড়াইয়ের সময় পাকিস্তানি ও ইরানি যোদ্ধাদের মোকাবিলা করেছেন। তবে বাস্তবতা হলো স্থানীয় তালেবান সদস্যদের বিরুদ্ধেই মূলত তাদের লড়াই করতে হচ্ছে। এর ফলে লড়াইটি হয়ে দাঁড়িয়েছে আফগানের বিরুদ্ধে আফগান।

এরপরও হেরাতের মানুষেরা বলছেন, তালেবানরা শহরের দখল নিতে চাইলে তারা তা হতে দিবেন না।

১৯৮০-এর দশকে সাবেক কমান্ডার ইসমাইল খান সোভিয়েত ইউনিয়নের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন। তিনি জানান, এই মাসের শুরুতে প্রদেশের ১৫টির মধ্যে ৮টি জেলার দখল নিয়েছে তালেবানরা। এরপর তিনি হেরাতে প্রতিরোধ আন্দোলন গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নেন।  

ইসমাইল খান জানান, তালেবানের কাছ থেকে শহর রক্ষায় আফগানবাহিনীর পাশে দাঁড়াবে হেরাতের জনগণ। যদিও সব আফগান শান্তি চায়। কিন্তু দোহায় চলমান শান্তি আলোচনা সময়ের অপচয় কারণ তালেবানরা নিজেদের সামরিক লক্ষ্য অর্জন করছে।   

গত মাসে সাংবাদিক, মানবাধিকারকর্মী ও প্রখ্যাত নারীদের হুমকি দেওয়া হয়েছে তালেবানের পক্ষ থেকে

সাবেক এই কমান্ডার নিজের দেশ রক্ষায় জনগণকে রুখে দাঁড়ানোর সুযোগ দেওয়ার পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। দুই সপ্তাহ আগে তিনি এই প্রতিরোধ আন্দোলন শুরু করেন। তালেবানের লড়াই করার জন্য তিনি কয়েকশ’ পুরুষ, তরুণ ও বয়স্কদের আহ্বান জানিয়েছেন। হেরাতে তার বাড়িতে কয়েক ডজন মানুষ বাগানে অপেক্ষা করছেন, তাদের হাতে বন্দুক এবং লড়াইয়ে যোগ দিতে চান।

মোহাম্মদ ইয়াসিনি একজন প্রবীন ব্যবসায়ী। ১২ বছর বয়সে সোভিয়েত ইউনিয়নের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ আন্দোলনে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। ওই সময় কয়েক হাজার আফগানের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করেন তিনি। তখন তার সঙ্গে ছিলেন ২৭ বছরের ইসমাইল খান।

এখন ৬০ বছরের ইয়াসিনি আবারও খানের বাহিনীতে যোগ দিয়েছেন। তার মতে, এতে হেরাতের বীরত্বের কথা তালেবানকে মনে করিয়ে দেবে।

ইয়াসিনি বলেন, ‘তারা কখনও হেরাত দখল করতে পারবে না। কারণ এটি মুজাহিদিনের শহর’। সূত্র: আল জাজিরা

/এএ/

সম্পর্কিত

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ নিয়ে যা বললো তালেবান

আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ নিয়ে যা বললো তালেবান

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

দ্বিতীয় ঢেউয়েও বাংলাদেশের অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো অব্যাহত: এডিবি

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ২১:২০

বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারিতেও থেমে নেই বাংলাদেশের অর্থনীতির সমৃদ্ধির চাকা। কোভিড-১৯-এর দ্বিতীয় ঢেউয়ের মধ্যেও দেশের অর্থনীতি পুনরুদ্ধার হচ্ছে, এমন আশা-জাগানিয়া খবর দিলো এশিয়ান ডেভলপমেন্ট ব্যাংক- এডিবি। তাদের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রফতানি ও রেমিট্যান্সের উপর ভর করে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার অব্যাহত বাংলাদেশে।

স্থানীয় সময় শুক্রবার (২৩ জুলাই) ফিলিপিন্সের রাজধানী ম্যানিলা থেকে প্রকাশিত এশিয়ান ডেভলপমেন্ট আউটলুক (এডিও) সাপ্লিমেন্ট প্রতিবেদনে এশিয়ার অর্থনীতির ২০২১-২০২২ সালের পূর্বাভাস রয়েছে। গত এপ্রিলেও এডিও প্রকাশ করে এডিবি। তবে জুলাইতে এর সম্পুরক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হলো। ২০২০-২১ অর্থবছরে রপ্তানি, রেমিট্যান্স এবং রাজস্ব আয়ে উল্লেখযোগ্য প্রবৃদ্ধির পরিসংখ্যান উল্লেখ করেছে তারা।

জুলাইয়ের আউটলুকে বলা হয়েছে, গত অর্থবছরের ২০২১ সালের জুনে শেষ হয়েছে। প্রথম ১১ মাসে বাংলাদেশের রফতানি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ দশমিক ৬ শতাংশে। প্রবাসীদের পাঠানো বৈদেশিক মুদ্রার আয়ে ৩৯ দশমিক ৫ শতাংশে উন্নতি হয়েছে। ২০২১ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে দেশের রাজস্ব আদায় বেড়েছে ১২ দশমিক ৯ শতাংশ। আর এভাবেই বাংলাদেশের অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার অব্যাহত রয়েছে।

তবে বাংলাদেশ, ভারতসহ কয়েকটি দেশে নতুন করে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় এডিবি ২০২১ সালে এশিয়ার অর্থনীতিতে প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস আগের চেয়ে কিছুটা কমিয়েছে। এপ্রিলে ৭ দশমিক ৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস ছিল, যা এখন ৭ দশমিক ২ শতাংশে নামিয়ে এনেছে। 

যদিও ২০২২ সালের জন্য আগের পূর্বাভাস ৫ দশমিক ৩ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৫ দশমিক ৪ শতাংশ ধরা হয়েছে। ২০২১ সালে দক্ষিণ এশিয়ার প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস ৯ দশমিক ৫ থেকে ৮ দশমিক ৯ শতাংশে নামিয়েছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক।

/এলকে/

সম্পর্কিত

ব্লুমবার্গ-এ বাংলাদেশের প্রশংসায় ভারতীয় অর্থনীতিবিদ

ব্লুমবার্গ-এ বাংলাদেশের প্রশংসায় ভারতীয় অর্থনীতিবিদ

কোলের সন্তানকে বাঁচিয়ে চলে গেলেন মা

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৯:৫৯

সন্তানের জন্য মায়ের ভালোবাসা ও আত্মত্যাগের নজির বারবার সামনে এসেছে। চীনের হেনান প্রদেশে ভয়াবহ বন্যার কবল থেকে সন্তানকে বাঁচাতে পারলেও নিজেকে রক্ষা করতে পারেননি মা। এমন হৃদয় বিদারক ঘটনা ছড়িয়ে পড়েছে সবর্ত্র।

গত কয়েদিন ধরে চীনের বেশ কয়েকটি অঞ্চল বন্যার পানিতে ভাসছে। প্রবল বর্ষণে হেনান প্রদেশেরও একই অবস্থা। বানের পানিতে তলিয়ে গেছে বহু ঘর-বাড়ি। আশ্রয়হীন বহু বাসিন্দা।

গত বুধবার হেনানের ওয়াংজংডিয়ান গ্রামে বন্যা-ভূমিধসে ক্ষতিগ্রস্ত একটি বাড়ির ভেতর থেকে এক শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে। প্রায় ২৪ ঘণ্টা ধ্বংসস্তূপ আর কাঁদামাটির নিচে আটকা থেকেও অলৌকিকভাবে উদ্ধার হয় তিন থেকে চার মাস বয়সী শিশুটিকে। আর বৃহস্পতিবার মৃত অবস্থায় তার মাকে খুঁজে পাওয়া যায়।

খবরে বলা হয়েছে, ধ্বংসস্তূপে চাপা পড়ে শিশু সন্তানসহ মা। কিন্তু সন্তানকে সুক্ষিত জায়গায় রেখে দেন তিনি। আর মায়ের দুই হাত উঁচু করা ছিল, ঠিক যেদিকে তার সন্তান সুরক্ষিত অবস্থায় বেঁচে রয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা ঝৌহু স্থানীয় এক সংবদামাধ্যমকে বলেন, আমি শিশুটির কান্নার আওয়াজ শুনি। পরে উদ্ধারকর্মীরা ওই বাড়িতে এসে পৌঁছায় এবং শিশুটিকে বাঁচাতে সক্ষম হয়। তার মা তাকে সুরক্ষিত জায়গায় রেখে দিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি আর বেঁচে নেই। শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

চীনে বন্যায় এখন পর্যন্ত ৫১ জনের মৃত্যু হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত কয়েক লাখ বাসিন্দাকে উদ্ধার করে নিরাপদ আশ্রয় নেওয়া হয়েছে। ভারী বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় বন্যা পরিস্থিতি সামনে আরও অবনিত আশঙ্কা করছে কর্তৃপক্ষ।

/এলকে/

সম্পর্কিত

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

ভূমধ্যসাগরে ১৭ বাংলাদেশির মৃত্যু

ভূমধ্যসাগরে ১৭ বাংলাদেশির মৃত্যু

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৯:০২
video

উত্তর ভারতে বরযাত্রায় নাচ ও আতশবাজি ছাড়া বিয়ে অপূর্ণ থেকে যায়। তবে সম্প্রতি রাজস্তানে এমন একটি উদযাপনের আনন্দ মাঠে মারা গেছে যখন আতশবাজির শব্দে চমকে যাওয়া বিয়ের ঘোড়া বরকে দৌড় দেয়। ঘটনাটির ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিওটি আজমির জেলার নাসিরাবাদ শহরে রামপুরা গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে। বরযাত্রীরা যাত্রা শুরুর প্রস্তুতি নিতে রীতি হিসেবে ঘোড়াকে খাওয়াচ্ছিলেন। এমন সময় এক ব্যক্তি ঘোড়ার খুব কাছে একটি আতশবাজি ফোটান। এতে ওই প্রাণীটি ভয় পেয়ে যায়।

অকস্মাৎ ঘোড়াটি দৌড় দেয়। তখন পিঠে সওয়ার ছিলেন বর।

ভিডিওতে দেখা গেছে, ঘোড়ার মালিক পিছনে ছুটছেন লাগাম ধরতে। তবে প্রাণীটিকে নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ হন তিনি।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ঘোড়াটি বরকে নিয়ে প্রায় চার কিলোমিটার দৌড়ানোর পর অবশেষে বরের পরিবার এটিকে ধরতে সক্ষম হন। তখন বরকে ঘোড়া থেকে নামানো হয়।

ভাগ্যবশত বর ও ঘোড়ার কোনও ক্ষতি হয়নি। কিছু সময় পর জয়পুরের উদ্দেশে ঘোড়ায় চড়েই বরযাত্রা শুরু করেন বর। সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

/এএ/

সম্পর্কিত

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ নিয়ে যা বললো তালেবান

আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ নিয়ে যা বললো তালেবান

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

পাকিস্তানে একে-৪৭ কাঁধে নিয়ে কাজ করছে চীনারা!

যুক্তরাষ্ট্রে বিমানযাত্রীর লাগেজে ১৫টি দৈত্যকার শামুক

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৮:৫১

পশ্চিম আফ্রিকার নিষিদ্ধ ১৫টি দৈত্যকার জীবন্ত শামুক, পাতা এবং গরুর মাংস পাওয়া গেছে একটি লাগেজের ভেতর। অবৈধভাবে বহন করায় যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস বিমানবন্দর থেকে এসব উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক এসব শামুক যুক্তরাষ্ট্রে আসায় চিন্তা পড়েছে প্রশাসন।

নাইজেরিয়া থেকে ফেরা যাত্রীর লাগেজের ভেতরে মাংস থাকার কথা উল্লেখ করলেও জীবন্ত শামুক পাওয়া যায়। পুলিশ শামুকগুলো উদ্ধার করে মার্কিন কৃষি বিভাগ (ইউএসডিএ)-এর কাছে হস্তান্তর করেছে। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, এগুলো অনুমতি ছাড়াই বহন করেছিল। এসব থেকে মানবদেহে মেনিনজাইটিস হতে পারে।

বিশ্বের সবেচেয় ক্ষতিকারক শামুকের তালিকায় রয়েছে। এগুলো পশ্চিম আফ্রিকায় পাওয়া যায়। সেখানকার লোকেরা এসব ক্ষতিকারক বড় শামুক তাদের খাদ্য তালিকায় রেখেছেন। এসব মস্তিষ্ক এবং মেরুদণ্ডকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে।

মার্কিন রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি)-এর তথ্য অনুসারে, এই রোগে বিশ্বের ৩০টি দেশের প্রায় ৩ হাজার মানুষ আক্রান্ত। এই শামুক পরিবেশে গুরুতর ক্ষতির করার সক্ষমতা রয়েছে। ভবনেরও ক্ষতি করে থাকে। এটি পাঁচশ প্রকারের উদ্ভিদ খেতে পছন্দ করে, কিন্তু সবজি এবং ফল সহজে পাওয়া না গেলে গাছের ছাল এবং ভবনের রঙ নষ্ট করে থাকে।

ফ্লোরিডার দক্ষিণাঞ্চলে ১৯৬০ সালে এই আফ্রিকার শামুকের অস্তত্বি পাওয়া যায়। নির্মূল করতে ১০ বছর সময় লেগে যায়। ২০১১ সালে এই নিষিদ্ধ শামুক আবারও ফ্লোরিডায় ধরা পরে। এই শামুক বছরে ১২শ’ ডিম উৎপাদন করতে পারে। এখন নতুন করে অপসারণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কর্তৃপক্ষ।

/এলকে/

সম্পর্কিত

বিরল রোগে আক্রান্ত সিআইএ-এর শতাধিক কর্মকর্তা!

বিরল রোগে আক্রান্ত সিআইএ-এর শতাধিক কর্মকর্তা!

তালেবানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক বিমান হামলা

তালেবানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক বিমান হামলা

উত্তেজনার মধ্যেই চীন সফরে মার্কিন উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী!

উত্তেজনার মধ্যেই চীন সফরে মার্কিন উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী!

'মানকি পক্স': যুক্তরাষ্ট্রে আতঙ্ক

'মানকি পক্স': যুক্তরাষ্ট্রে আতঙ্ক

সম্পর্কিত

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

ভারতে বার্ড ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মানুষের মৃত্যু

ভারতে বার্ড ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মানুষের মৃত্যু

করোনা আতঙ্কে দেড় বছর তাঁবুতে

করোনা আতঙ্কে দেড় বছর তাঁবুতে

ভারতে ‘ব্ল্যাক ফাঙ্গাস’ সংক্রমণের মৃতের সংখ্যা ৪,৩০০

ভারতে ‘ব্ল্যাক ফাঙ্গাস’ সংক্রমণের মৃতের সংখ্যা ৪,৩০০

‘খেলা হবে’ কেন্দ্র থেকে বিজেপি উৎখাত না হওয়া পর্যন্ত: মমতা

‘খেলা হবে’ কেন্দ্র থেকে বিজেপি উৎখাত না হওয়া পর্যন্ত: মমতা

কাশ্মিরে জঙ্গি হামলা ‘সাজানো’র অভিযোগে গ্রেফতার দুই বিজেপি কর্মী

কাশ্মিরে জঙ্গি হামলা ‘সাজানো’র অভিযোগে গ্রেফতার দুই বিজেপি কর্মী

দ্বিতীয় ঢেউয়ে অক্সিজেনের অভাবে কারও মৃত্যু হয়নি: ভারতের স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী

দ্বিতীয় ঢেউয়ে অক্সিজেনের অভাবে কারও মৃত্যু হয়নি: ভারতের স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী

করোনায় ভারতে মারা গেছে ৪০ লাখ!

করোনায় ভারতে মারা গেছে ৪০ লাখ!

ভারতে ৪০ কোটি মানুষ এখন বাহুবলী: মোদি

ভারতে ৪০ কোটি মানুষ এখন বাহুবলী: মোদি

মোদির মাথায় তো ছাতা, পায়ের তলায় কী?

মোদির মাথায় তো ছাতা, পায়ের তলায় কী?

সর্বশেষ

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

করোনার মাঝেও অলিম্পিকের বর্ণাঢ্য উদ্বোধন

করোনার মাঝেও অলিম্পিকের বর্ণাঢ্য উদ্বোধন

অলিম্পিক গেমস উপলক্ষে গুগলের ডুডল

অলিম্পিক গেমস উপলক্ষে গুগলের ডুডল

দ্বিতীয় ঢেউয়েও বাংলাদেশের অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো অব্যাহত: এডিবি

দ্বিতীয় ঢেউয়েও বাংলাদেশের অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো অব্যাহত: এডিবি

কোরবানির মাংস সংগ্রহ করেন প্রকৌশলী রিমন, কিন্তু কেন?

কোরবানির মাংস সংগ্রহ করেন প্রকৌশলী রিমন, কিন্তু কেন?

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

ক্লাউড উইন্ডোজ আনলো মাইক্রোসফট

ক্লাউড উইন্ডোজ আনলো মাইক্রোসফট

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

বাংলাদেশকে হারিয়ে সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে

বাংলাদেশকে হারিয়ে সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে

একদিনে ঢাকায় ফিরলো ৮ লাখ সিম কার্ড

একদিনে ঢাকায় ফিরলো ৮ লাখ সিম কার্ড

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

বেতন ৩০ হাজার, ব্যাংকে লেনদেন শত কোটি টাকা!

বেতন ৩০ হাজার, ব্যাংকে লেনদেন শত কোটি টাকা!

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

বরকে নিয়ে বিয়ের ঘোড়ার চম্পট (ভিডিও)

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

অতি বর্ষণে ভূমিধস, মহারাষ্ট্রে ৩৬ জনের মৃত্যু

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

আগস্টে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

ভারতে বার্ড ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মানুষের মৃত্যু

ভারতে বার্ড ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মানুষের মৃত্যু

করোনা আতঙ্কে দেড় বছর তাঁবুতে

করোনা আতঙ্কে দেড় বছর তাঁবুতে

ভারতে ‘ব্ল্যাক ফাঙ্গাস’ সংক্রমণের মৃতের সংখ্যা ৪,৩০০

ভারতে ‘ব্ল্যাক ফাঙ্গাস’ সংক্রমণের মৃতের সংখ্যা ৪,৩০০

‘খেলা হবে’ কেন্দ্র থেকে বিজেপি উৎখাত না হওয়া পর্যন্ত: মমতা

‘খেলা হবে’ কেন্দ্র থেকে বিজেপি উৎখাত না হওয়া পর্যন্ত: মমতা

কাশ্মিরে জঙ্গি হামলা ‘সাজানো’র অভিযোগে গ্রেফতার দুই বিজেপি কর্মী

কাশ্মিরে জঙ্গি হামলা ‘সাজানো’র অভিযোগে গ্রেফতার দুই বিজেপি কর্মী

দ্বিতীয় ঢেউয়ে অক্সিজেনের অভাবে কারও মৃত্যু হয়নি: ভারতের স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী

দ্বিতীয় ঢেউয়ে অক্সিজেনের অভাবে কারও মৃত্যু হয়নি: ভারতের স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী

করোনায় ভারতে মারা গেছে ৪০ লাখ!

করোনায় ভারতে মারা গেছে ৪০ লাখ!

© 2021 Bangla Tribune