X
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

ব্রেক্সিট: কিছু প্রশ্ন এবং উত্তর

আপডেট : ২৪ এপ্রিল ২০১৬, ১৭:২৪
image

আসছে ২৩ জুন যুক্তরাজ্যের ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকা না থাকার প্রশ্নে নিজেদের রায় দেবেন ব্রিটিশ জনগণ। ওইদিন অনুষ্ঠিত গণভোটেই নির্ধারিত হবে ব্রিটেনের পরিণতি। সুরাহা হবে আলোচিত ব্রেক্সিট ইস্যুর। কিন্তু এ ব্রেক্সিট আসলে কী? কিসের প্রেক্ষিতে এ সারসংক্ষেপের উৎপত্তি? কেন ব্রিটিশ নাগরিকদের কেউ কেউ ইউরোপীয় ইউনিয়ন ছাড়তে চান? কেনইবা আবার সব ব্রিটিশ নাগরিক ইইউ ছাড়তে চান না? এ ব্যাপারে ব্রিটিশ অর্থনীতি বিশ্লেষকদের মত কী? ব্রিটেনের গণভোটকে সামনে রেখে এমন সব প্রশ্ন ওঠাটাই স্বাভাবিক। এই প্রতিবেদনে সেইসব প্রশ্নের উত্তর খোঁজার চেষ্টা করা হয়েছে।

ব্রেক্সিট

 

ইউরোপীয় ইউনিয়ন প্রসঙ্গ

ইউরোপীয় ইউনিয়ন কিংবা ইইউ হলো ২৮টি সদস্য রাষ্ট্রবিশিষ্ট একটি অর্থনৈতিক জোট। কেবল জোটই নয়, বলা চলে এটি মুক্ত-বাণিজ্য অঞ্চলের চেয়েও বেশি কিছু। ইইউ’র জিডিপি ১৮ হাজার বিলিয়ন ডলারের চেয়েও বেশি। প্রতিষ্ঠার পর গত অর্ধ শতকেরও বেশি সময় ধরে ইইউ স্বাতন্ত্র্য বাড়িয়েছে। আলাদা করে গড়ে তুলেছে ইউরোপীয় কমিশন, ইউরোপীয় পার্লামেন্ট, ইউরোপিয়ান কোর্ট অব জাস্টিস। ১৯৭৩ সালের ১ জানুয়ারি যুক্তরাজ্য ইউরোপিয়ান ইকোনমিক কমিউনিটিতে যোগ দেয়। পরে এ কমিউনিটিই ইইউ নামে প্রতিষ্ঠা পায়।

আরও পড়ুন: ‘নিরাপত্তাজনিত কারণে’ মাতৃদুগ্ধ থেকে বঞ্চিত হলো শিশু

 

ব্রেক্সিট কী?

ব্রেক্সিট হলো ব্রিটিশ এক্সিটের সংক্ষেপিত রূপ। অর্থাৎ ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বের হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা তথা এক্সিট বোঝাতে ব্রেক্সিট শব্দটি ব্যবহার করা হয়। শব্দটি অনেকটা গ্রেক্সিটের মতো। গ্রিস ইউরোজোন থেকে ছিটকে পড়তে পারে বলে কয়েক বছর ধরে যে সম্ভাবনার গুঞ্জন চলছিল তা থেকেই গ্রেক্সিট শব্দটি চালু হয়েছিল। সে ধারাবাহিতায় ব্রিটেনের এক্সিট অর্থাৎ ব্রিটেনের ইইউ থেকে বের হয়ে যাওয়ার প্রশ্নে চালু হয় ব্রেক্সিট শব্দটি।

ব্রিটেন ও ইইউ`র পতাকা

 ব্রেক্সিট ইস্যুর প্রেক্ষাপট

 যুক্তরাজ্যে অভিবাসীদের আধিক্য নিয়ে ব্রিটিশ নাগরিকদের মধ্যে এক ধরণের অস্বস্তি রয়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিয়ম অনুযায়ী ইইউভুক্ত ২৮টি দেশের নাগরিক ভিসা ছাড়াই এক দেশ থেকে আরেক দেশে প্রবেশ করতে পারে। আর সে কারণে গত মেয়াদে ডেভিড ক্যামেরন সরকার ইইউর বাইরের দেশ থেকে আসা অভিবাসীদের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে কমিয়ে আনতে সক্ষম হলেও ইইউভুক্ত নাগরিকদের প্রবেশ ঠেকাতে পারেনি। নির্বাচনি প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী এবারের মেয়াদে ইইউভুক্ত দেশের নাগরিকদের যুক্তরাজ্যে প্রবেশ নিরুৎসাহিত করতে চার বছরের জন্য সুবিধা ভাতা বন্ধ রাখার প্রস্তাব দেন ক্যামেরন। এতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানান ইইউভুক্ত দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা। তাদের দাবি, সদস্য দেশের নাগরিকদের সুবিধা ভাতা প্রদানে বৈষম্য করা হলে তা হবে ইইউর প্রতিষ্ঠার মূল উদ্দেশ্যের সাথে সাংঘর্ষিক।

আর তা নিয়ে যুক্তরাজ্যকে ইইউতে রাখা না রাখার ব্যাপারে প্রশ্ন তৈরি হয়।

আরও পড়ুন: মার্কিন জোটের বিমান হামলায় চারমাসে নিহত মাত্র ২০ বেসামরিক ব্যক্তি!

গণভোট প্রসঙ্গ

ব্রেক্সিট প্রশ্নে ইইউভুক্ত নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় অংশ নিয়ে অভিবাসীদের সুবিধা সীমিত করাসহ চারটি সংস্কার প্রস্তাব দেন ক্যামেরন। পরে সে প্রস্তাব নিয়ে ক্যামেরনের সঙ্গে সমঝোতায় পৌঁছান ইইউ নেতারা। ইইউ’র সঙ্গে সমঝোতার পর দেশে ফিরে গণভোটের তারিখ ঘোষণা করেন ক্যামেরন। ব্রিটিশ আইন অনুযায়ী, গণভোটের ১৬ সপ্তাহ আগে তারিখ ঘোষণা করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সে হিসেবে ২৩ জুন তারিখটি নির্ধারণ করা হয়। ব্রিটেনের ইইউতে থাকা না থাকার প্রশ্নে দেশটির জনগণই ওই গণভোটে চূড়ান্ত রায় দেবেন। ব্রেক্সিট প্রশ্নে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য তাই ওই গণভোটের রায় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। আর তাই ২৩ জুন হয়ে উঠেছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

 

১৮ কিংবা তার চেয়ে বেশি বয়সী ব্রিটিশ, আইরিশ কিংবা কমনওয়েলথ নাগরিকেরা এ গণভোটে অংশ নিতে পারবেন।  ভোট দিতে পারবেন ১৫ বছরের কম সময় ধরে বিদেশে থাকা ব্রিটিশ নাগরিকরাও।

ইইউতে থাকার পক্ষে ক্যামেরনের উদ্যোগকে ভালোভাবে নিচ্ছেন না খোদ রক্ষণশীলদের (কনজারভেটিভ) অনেকে। তবে লেবার পার্টি শুরু থেকেই ইইউ তে থাকার পক্ষে প্রচার চালাচ্ছে।  লিবারেল ডেমোক্র্যাটস (লিবডেম), এসএনপি এবং গ্রিন পার্টিও চায় যুক্তরাজ্য ইইউতে থাকুক। অপর পক্ষে ইউকেআইপি যুক্তরাজ্যের ইইউতে থাকার ঘোরতর বিরোধী।  

ব্রিটিশ এক্সিটের প্রতিকী ছবি

ব্রিটেন ইইউ থেকে বের হয়ে গেলে পরবর্তীতে কী হতে পারে


ইইউ থেকে বের হয়ে গেলে ব্রিটেনের পরিণতি কী হতে পারে তা নিয়ে দুই ধরনের মতামত রয়েছে।  ইইউবিরোধীদের কেউ কেউ বলছেন, এ জোট থেকে বের হয়ে আসলে ব্রিটেনের একক বাজার তৈরি হবে এবং জনগণ অবাধ চলাচলের সুযোগ পাবে। অন্যদিকে বিরোধীরা বলছেন, এ ধরনের ভাবনা অনেক বেশি কাল্পনিক। তাদের মতে, ইইউ থেকে বের হলে ব্রিটেনকে হয় নরওয়ের মতো ইইউ’র বাজেটে অর্থের যোগান দিয়ে যাওয়া এবং জোটের বিধিনিষেধ বাস্তবায়ন করে যেতে হবে কিংবা বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার বিধিমালার আওতায় এসে ইইউ’র সঙ্গে দূরত্ব তৈরি করতে হবে। ব্রেক্সিটের প্রভাব কী হতে পারে তা দুটো বিষয়ের ওপর নির্ভর করছে। তার একটি হলো, ব্রেক্সিটের পর যুক্তরাজ্য ইইউ’র সঙ্গে কেমন ধরনের সম্পর্ক রাখতে চায় এবং অন্যটি হলো ইইউ আদৌ সে ধরনের সম্পর্কে রাজি হবে কিনা। তবে যতটুকু বোঝা যাচ্ছে তাতে ইইউ’র সঙ্গে যুক্তরাজ্যের নরওয়ে ধাঁচের সম্পর্ক রাখার সম্ভাবনা কম। সেক্ষেত্রে তাদের মধ্যে দূরবর্তী সম্পর্ক গড়ে ওঠার সম্ভাবনাই জোরালো হয়ে উঠেছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বের হওয়া না হওয়া প্রশ্নে গণভোট ২৩ জুন

অর্থনীতি বিশ্লেষকরা কী মনে করেন

ব্রিটিশ অর্থনীতিবিদদের অনেকেই বিশ্বাস করেন যে ইইউ থেকে বের হয়ে আসাটা যুক্তরাজ্যের অর্থনীতির জন্য খারাপ হবে। ১শ জনেরও বেশি প্রভাবশালী চিন্তাবিদের ওপর ফিনান্সিয়্যাল টাইমসের চালানো জরিপে দেখা গেছে ব্রেক্সিট হলে ২০১৬ সালে যুক্তরাজ্যের প্রবৃদ্ধি বাড়বে না। জরিপে অংশ নেওয়া প্রায় তিন-চতুর্থাংশ অর্থনীতিবিদ মনে করেন ইইউ থেকে বের হয়ে আসলে বহির্বিশ্বে ব্রিটেনের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে। মাত্র ৮ শতাংশ মনে করেন ইইউ থেকে আলাদা হলে ব্রিটেন লাভবান হবে। ২০ শতাংশেরও কম অর্থনীতিবিদ মনে করছেন ইইউ ছাড়লে খুব সামান্যই পরিবর্তন ঘটবে।

আরও পড়ুনঃ বিয়ের পাত্রী হিসেবে চীনে পাচার হচ্ছেন ভিয়েতনামের নারী 

ইউরোপীয় ই্উনিয়নে যুক্তরাজ্যের থাকা না থাকার প্রশ্নে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া গণভোটকে সামনে রেখে চলছে 'ভোট লিভ' এবং 'কনজারভেটিভস ফর ব্রিটেন' নামে আলাদা দুটি ক্যাম্পেইন। 'ভোট লিভ'ক্যাম্পেইনটি চালাচ্ছে যুক্তরাজ্যের স্বাধীন ধারার বেশ কয়েকটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান। আর 'কনজারভেটিভস ফর ব্রিটেন' ক্যাম্পেইনটি চালাচ্ছেন ইইউবিরোধী টোরি রক্ষণশীল নেতারা,যারা ক্যামেরনের দলেরই লোক। তবে ক্যামেরন সরকারের বেশ কয়েকজন মন্ত্রী ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকার পক্ষে সম্মতি জানালেও অনেকেই আবার ক্যামেরনের বিপক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছেন। লন্ডনের মেয়র বরিস জনসনও চান যুক্তরাজ্য ইইউ থেকে বেরিয়ে আসুক। শেষ পর্যন্ত কাদের জয় হয় তা দেখার জন্য ২৩ জুন পর্যন্ত অপেক্ষার পালা। সূত্র: ফিনান্সিয়াল টাইমস, গার্ডিয়ান, বিবিসি

/এফইউ/বিএ/

সম্পর্কিত

৩ দেশের চুক্তি চরম দায়িত্বজ্ঞানহীনতা: চীন

৩ দেশের চুক্তি চরম দায়িত্বজ্ঞানহীনতা: চীন

তালেবানকে হটাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

তালেবানকে হটাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে ফ্রান্স

অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে ফ্রান্স

সাবমেরিন চুক্তি ‘পিঠে ছুরিকাঘাত’: ক্ষুব্ধ ফ্রান্স

সাবমেরিন চুক্তি ‘পিঠে ছুরিকাঘাত’: ক্ষুব্ধ ফ্রান্স

বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিবেদন বদলের কথা অস্বীকার করলেন আইএমএফ প্রধান

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:১১

বিশ্ব ব্যাংকে কর্মরত থাকা অবস্থায় প্রতিবেদন বদলে দেওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) প্রধান ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা। বুধবার এক স্বাধীন অনুসন্ধানে দেখা গেছে, চীনের র‌্যাংকিং বাড়াতে কর্মীদের চাপ দিয়ে প্রতিবেদন বদলাতে বাধ্য করেছিলেন তিনি।

বিশ্ব ব্যাংকের অনুসন্ধানে দেখা গেছে, ২০১৮ ও ২০১৯ সালের ডুয়িং বিজনেস প্রতিবেদন তৈরিতে অনিয়ম হয়েছে। এরপরই প্রতিবেদন দুটি সরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সংস্থাটি। অনিয়মের ঘটনায় বিশ্ব ব্যাংকের তৎকালিন প্রধান নির্বাহী ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভার সম্পৃক্ততাও পাওয়া গেছে।

তবে বৃহস্পতিবার বুলগেরিয়ার নাগরিক ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা ওই প্রতিবেদনটি প্রত্যাখান করেছেন। ২০১৯ সালের অক্টোবরে আইএমএফ-এ যোগ দেন তিনি। এক বিবৃতিতে জর্জিয়েভা বলেন, ‘বিশ্ব ব্যাংকের ২০১৮ সালের ডুয়িং বিজনেস রিপোর্টের ডাটা অনিয়ম তদন্ত এবং এর সঙ্গে আমার সম্পৃক্ততা নিয়ে দেওয়া বর্ণনার সঙ্গে আমি মৌলিকভাবে দ্বিমত পোষণ করছি।’

জর্জিয়েভা জানিয়েছেন তিনি আইএমএফ বোর্ডকে পরিস্থিতি জানিয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে এই ইস্যুতে বৈঠকে বসবে বোর্ড। তবে কখন এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে তা এখনও স্পষ্ট নয়।

সেন্টার ফর গ্লোবাল ডেভেলপমেন্ট এর জাস্টিন স্যান্ডেফার ওই প্রতিবেদনের মেথোডোলজি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের তার দিকের গল্পটা জানা প্রয়োজন, কিন্তু এই মুহূর্তে ভালো কিছু মনে হচ্ছে না।’

জাস্টিন স্যান্ডেফার বলেন, ‘আন্তর্জাতিকভাবে ম্যাক্রোইকোনোমিক ও ফিনান্সিয়াল তথ্য পর্যবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছে আইএমএফ, আর এর প্রধান ডাটা অনিয়মে জড়িত ছিলেন এই অভিযোগ মারাত্মক।’

/জেজে/

সম্পর্কিত

আফগানিস্তানে তালেবান শাসনে ‘কঠিন পরীক্ষা’র মুখে ত্রাণ সংস্থাগুলো

তালেবান শাসনে ত্রাণ সংস্থাগুলোর ‘কঠিন পরীক্ষা’

জলবায়ু পরিবর্তনে ‘চরম ঝুঁকিতে’ বাংলাদেশের শিশুরা: ইউনিসেফ

জলবায়ু পরিবর্তনে ‘চরম ঝুঁকিতে’ বাংলাদেশের শিশুরা: ইউনিসেফ

করোনা টিকার বুস্টার ডোজ বন্ধের আহ্বান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

করোনা টিকার বুস্টার ডোজ বন্ধের আহ্বান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

দ্বিতীয় মেয়াদে জাতিসংঘের মহাসচিব গুতেরেস

দ্বিতীয় মেয়াদে জাতিসংঘের মহাসচিব গুতেরেস

দিল্লিতে বাড়ছে ডেঙ্গুর প্রকোপ

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:১৭

ভারতের রাজধানী শহর দিল্লিতে ডেঙ্গু আক্রান্ত বাড়তে শুরু করেছে। এই বছর শহরটিতে ১৫৮ রোগী পাওয়া গেছে। গত বছর এই সময় পর্যন্ত রোগীর পরিমাণ ছিলো ১৩১ জন। এর মধ্যে এবছর সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহেই পাওয়া গেছে ৩৪ ডেঙ্গু রোগী।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আবহাওয়া দফতর সামনের কয়েক মাসে আরও বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়ায় মশার বংশবৃদ্ধির সুযোগও বাড়বে। তবে নগর কর্মকর্তাদের দাবি আক্রান্তের পরিমাণ স্বাভাবিকের চেয়ে ২/৩ গুণ বাড়লেই কেবল পরিস্থিতি আশঙ্কাজনক বলে মনে করা হয়।

দক্ষিণ দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। আমাদের কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণ মশা নিরোধক ওষুধ রয়েছে। সেগুলো নিম্নাঞ্চল, নদীর তীর এবং অন্যান্য এলাকায় ছিটানো হবে। যেসব স্থানে মশা থাকতে পারে সেসব বাড়ি এবং আশেপাশের এলাকাতেও আমরা ফগার ম্যাশিন ব্যবহার করছি।’ ওই কর্মকর্তা জানান, সম্প্রতি নির্মাণাধীন এলাকা এবং সরকারি কার্যালয়ের যেসব স্থানে মশা বংশবৃদ্ধি করতে পারে সেসব স্থানে ব্যাপক আকারে মশা নিধন কার্যক্রম চালানো হয়েছে।

ওই কর্মকর্তা জানান, ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়া এবং ম্যালেরিয়া নিয়ন্ত্রণে মোট ১ হাজার ১৩০ কর্মকর্তা, এক হাজার তিনশ’ মাঠ কর্মী কাজ করছেন। এর পাশাপাশি ৫৫০টি ফগিং মেশিন, আটটি ভারি গাড়ি, চারটি পাওয়ার ট্যাঙ্কার, এক হাজার ৭০টি হ্যান্ড পাম্প এবং ৪৬টি মোটর পাম্প ওষুধ ছিটানোর কাজে নিয়োজিত রয়েছে।

এদিকে, পূর্ব দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন মাসব্যাপী মশা নিধন কার্যক্রম শুরু করেছে। এছাড়া সেখানে চারটি জ্বর চিকিৎসার হাসপাতাল চালু করা হয়েছে। এক কর্মকর্তা বলেন, ‘আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে আর আমরা নতুন গাইডলাইন জারি করেছি।’

/জেজে/

সম্পর্কিত

জ্বরে কোনও শিশুর মৃত্যু হয়নি: মমতা

জ্বরে কোনও শিশুর মৃত্যু হয়নি: মমতা

মোদির ঘুম কেড়ে নেওয়ার হুঁশিয়ারি এসএফজে-র

মোদির ঘুম কেড়ে নেওয়ার হুঁশিয়ারি এসএফজে-র

বাংলাদেশকে ভারতের কূটনৈতিক স্বীকৃতির দিনে পালিত হবে ‘মৈত্রী দিবস’  

বাংলাদেশকে ভারতের কূটনৈতিক স্বীকৃতির দিনে পালিত হবে ‘মৈত্রী দিবস’  

ভারতে প্রতিদিন গড়ে খুন ৮০, ধর্ষণ ৭৭

ভারতে প্রতিদিন গড়ে খুন ৮০, ধর্ষণ ৭৭

রাশিয়ার পার্লামেন্ট নির্বাচনে ভোট গ্রহণ শুরু

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:০৯

তিন দিনের পার্লামেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার পূর্বাঞ্চলে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। এই নির্বাচনের আগে বিরোধীদের ওপর ব্যাপক দমন পীড়ন চালানোর অভিযোগ রয়েছে। নির্বাচনে অংশ নিতে দেওয়া হয়নি ক্রেমলিনের সবচেয়ে কঠোর সমালোচক আলেক্সাই নাভালনিকেও।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় দেশ রাশিয়া। ১১টি টাইম জোনে বিস্তৃত অঞ্চলে শুক্রবার পার্লামেন্ট ও স্থানীয় নির্বাচনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। মস্কোর বাসিন্দারা যখন ঘুমাতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তখন পূর্বাঞ্চলীয় চুকুতখা এবং কামচাটকা এলাকার বাসিন্দারা ভোট দিতে কেন্দ্রে দৌড়াচ্ছেন।

কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের প্রধান ইলা পামফিলোভা এক সরাসরি সম্প্রচারে বলেন, ‘চলুন ভোট দেই।’ রবিবার পর্যন্ত ভোট দিতে পারবেন ভোটাররা।

প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের অনুগত দল ইউনাইটেড রাশিয়ার পার্লামেন্টের প্রভাব কমার কোনও ইঙ্গিত এই নির্বাচনে নেই। ১৪টি দল এই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

আফগানিস্তান পরিস্থিতি নিয়ে পুতিন ও ইমরান খানের ফোনালাপ

এক মাসের মধ্যে পুতিন-ইমরান দ্বিতীয় ফোনালাপ

পুতিনের সম্ভাব্য উত্তরসূরি রুশ প্রতিরক্ষা প্রধান?

রাশিয়ায় কে হচ্ছেন পুতিনের উত্তরসূরি?

ঘনিষ্ঠদের করোনা, সেলফ-আইসোলেশনে পুতিন

সেলফ-আইসোলেশনে পুতিন

আসাদের সঙ্গে বৈঠক পুতিনের

আসাদের সঙ্গে বৈঠক পুতিনের

৩ দেশের চুক্তি চরম দায়িত্বজ্ঞানহীনতা: চীন

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৩

যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ার বিশেষ নিরাপত্তা চুক্তি স্বাক্ষরের কঠোর সমালোচনা করেছে চীন। বেইজিং এই চুক্তিকে চরম দায়িত্বজ্ঞানহীনতা এবং সংকীর্ণমনস্কতার পরিচয় বলে অভিহিত করেছে।

ওই চুক্তির আওতায় অস্ট্রেলিয়াকে প্রথমবারের মতো পারমাণবিক ক্ষমতাসম্পন্ন সাবমেরিন তৈরির প্রযুক্তি দেবে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য। মূলত বিরোধপূর্ণ দক্ষিণ চীন সমুদ্রে বেইজিংয়ের প্রভাব খর্ব করতেই এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বলেছেন, ওই জোটটি আঞ্চলিক শান্তির মারাত্মক ক্ষতি সাধন করবে এবং অস্ত্র প্রতিযোগিতা জোরালো করে তুলবে। তিনি এই চুক্তিকে অচল স্নায়ু যুদ্ধের মানসিকতা বলে অভিহিত করে বলেন তিনটি দেশই নিজেদের স্বার্থের ক্ষতি করলো।

চুক্তিটির সমালোচনা করে একই ধরনের সম্পাদকীয় প্রকাশ করেছে চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদপত্র। গ্লোবাল টাইমস বলেছেন অস্ট্রেলিয়া এখন চীনের শত্রুদের সঙ্গে মিলিত হয়েছে।

গত ৬০ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো নিজেদের সাবমেরিন প্রযুক্তি অন্যদের দিতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এর আগে কেবল যুক্তরাজ্যকেই এই প্রযুক্তি দেয় তারা। এই প্রযুক্তি পাওয়ার মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া পারমাণবিক শক্তি চালিত সাবমেরিন তৈরি করতে পারবে যা প্রচলিত সাবমেরিনের চেয়ে বেশি দ্রুত গতিতে চলতে সক্ষম এবং শনাক্ত করা কঠিন। নতুন সাবমেরিন কয়েক মাস পর্যন্ত পানিতে ডুবে থাকতে পারবে আর বেশি দূরত্বে ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়তে পারবে। তবে অস্ট্রেলিয়ার দাবি সাবমেরিনে অস্ত্র মোতায়েনের কোনও ইচ্ছা তাদের নেই।

/জেজে/

সম্পর্কিত

তালেবানকে হটাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

তালেবানকে হটাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে ফ্রান্স

অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে ফ্রান্স

জ্বরে কোনও শিশুর মৃত্যু হয়নি: মমতা

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৩২

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের পুরুলিয়া ও উত্তরবঙ্গে শিশুদের মধ্যে অজানা জ্বর নিয়ে ক্রমেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। এই রাজনৈতিক চাপানউতোরের মধ্যে জ্বরের জেরে শিশুমৃত্যুর খবর অস্বীকার করলেন মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন রাজ্যের পাঁচ মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষের সঙ্গে বৈঠক করে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মমতা জ্বরে শিশুমৃত্যু সংক্রান্ত সব দাবি উড়িয়ে দেন। তিনি বলেন, ‘দন্ত করে দেখেছি, যেই শিশুরা মারা গেছে, তাদের অন্য রোগ ছিল। জ্বরে কোনও শিশুর মৃত্যু হয়নি।’

এদিকে মালদহ মেডিক্যাল কলেজে আরও তিন শিশুর মৃত্যুর খবর মিলেছে। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে শুক্রবার স্বাস্থ্যভবন থেকে বিশেষ দল যাচ্ছে উত্তরবঙ্গে। এর আগে জলপাইগুড়ি হাসপাতালে তিন শিশুর মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছিল। তবে এই সব শিশু অজানা জ্বরে মারা যায়নি বলে দাবি করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী দাবি করেছেন, উত্তরবঙ্গে অজানা জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি প্রায় ৭৫০ জন শিশু। তার মধ্যে ছয় জন মারা গিয়েছে। শুধু মালদহ জেলাতেই ২০০-র বেশি শিশু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

চিঠিতে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে ছাড়েননি শুভেন্দু। বিরোধী দলনেতার অভিযোগ, পশ্চিমবঙ্গ সরকার কোনওরকম গুরুত্ব দিচ্ছে না বিষয়টি নিয়ে। কারণ, সরকার ভবানীপুরের উপনির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত। তাই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপ এবং স্বাস্থ্য প্রতিনিধিদল পশ্চিমবঙ্গে পাঠানোর বিশেষ অনুরোধে করে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানসুখ মান্ডভিয়াকে চিঠি দেন শুভেন্দু অধিকারী। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস।

/এমপি/

সম্পর্কিত

দিল্লিতে বাড়ছে ডেঙ্গুর প্রকোপ

দিল্লিতে বাড়ছে ডেঙ্গুর প্রকোপ

লেবাননে ইরানি তেল ট্যাংকারের বহর

লেবাননে ইরানি তেল ট্যাংকারের বহর

মোদির ঘুম কেড়ে নেওয়ার হুঁশিয়ারি এসএফজে-র

মোদির ঘুম কেড়ে নেওয়ার হুঁশিয়ারি এসএফজে-র

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

৩ দেশের চুক্তি চরম দায়িত্বজ্ঞানহীনতা: চীন

৩ দেশের চুক্তি চরম দায়িত্বজ্ঞানহীনতা: চীন

তালেবানকে হটাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

তালেবানকে হটাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে ফ্রান্স

অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে ফ্রান্স

সাবমেরিন চুক্তি ‘পিঠে ছুরিকাঘাত’: ক্ষুব্ধ ফ্রান্স

সাবমেরিন চুক্তি ‘পিঠে ছুরিকাঘাত’: ক্ষুব্ধ ফ্রান্স

চীন মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ার চুক্তি স্বাক্ষর

চীন মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ার চুক্তি স্বাক্ষর

ব্রিটেনে ফের আলোচনায় আইএস বধূ শামীমা বেগম

ব্রিটেনে ফের আলোচনায় আইএস বধূ শামীমা বেগম

এক বছরে আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রে হামলার সক্ষমতা অর্জন করবে আল কায়েদা

আফগানিস্তানে আল কায়েদার কর্মকাণ্ড নিয়ে মার্কিন গোয়েন্দাদের শঙ্কা

আফগানিস্তান ইস্যুতে পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক পর্যালোচনা করবে যুক্তরাষ্ট্র

পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক পর্যালোচনা করবে যুক্তরাষ্ট্র

চীনের প্রস্তাব নাকচের খবর অস্বীকার করলেন বাইডেন

চীনের প্রস্তাব নাকচের খবর অস্বীকার করলেন বাইডেন

যুক্তরাষ্ট্রে মসজিদে বোমা হামলাকারীর ৫৩ বছরের কারাদণ্ড

যুক্তরাষ্ট্রে মসজিদে বোমা হামলাকারীর ৫৩ বছরের কারাদণ্ড

সর্বশেষ

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের মামলায় ‘পীর’ গ্রেফতার

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের মামলায় ‘পীর’ গ্রেফতার

ড্রেনে পড়েছিল ২ যুবকের লাশ

ড্রেনে পড়েছিল ২ যুবকের লাশ

বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিবেদন বদলের কথা অস্বীকার করলেন আইএমএফ প্রধান

প্রতিবেদন বদলানোর কথা অস্বীকার করলেন আইএমএফ প্রধান

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ইভ্যালি বিক্রির পরিকল্পনা ছিল রাসেলের

ইভ্যালি বিক্রির পরিকল্পনা ছিল রাসেলের

© 2021 Bangla Tribune