খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম সেভাবে কমছে না

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০৩:৩৭, নভেম্বর ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৩:৪৫, নভেম্বর ২০, ২০১৯

পেঁয়াজপেঁয়াজের দাম পাইকারি বাজারে যে হারে কমছে সে হারে কমছে না খুচরা বাজারে। যে কারণে বাজারে পেঁয়াজের দাম কমার সুফল পুরোপুরি পাচ্ছে না সাধারণ ক্রেতারা। এক্ষেত্রে খুচরা বাজারে সরকারের নজরদারিতে আরও কঠোর হওয়ার পরামর্শ ক্রেতাদের। রাজধানীর কয়েকটি খুচরা বাজারে ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এসব অভিমত পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) রাজধানীর পাইকারি বাজার বিশেষ করে পেঁয়াজের পাইকারি বাজার নামে পরিচিত শ্যামবাজারে প্রতি কেজি ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। রাজধানীর কাওরানবাজারে পেঁয়াজের পাইকারি দর ছিল ১৬০ টাকা। কিন্তু খুচরা বাজারে দামের পার্থক্য ছিল সর্বোচ্চ ৭০ থেকে ৮০ টাকা।  

খুচরা পর্যায়ে একই দিন বেলা ১১টায় রাজধানীর শান্তিনগর বাজারের সোহেল ট্রেডার্স নামের দোকানে দেখা গেছে, প্রতিকেজি পেঁয়াজের দাম চাওয়া হচ্ছে ২৩০ টাকা। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ৯ টায় রাজধানীর রায়েরবাজার মুসলিমনগর এলাকায় প্রতিকেজি পেঁয়াজের দাম চাওয়া হয়েছে ২৪০ টাকা। খিলগাঁও বাজারে বেলা দেড়টায় প্রতিকেজি পেঁয়াজের দাম চাওয়া হয়েছে ২১০ টাকা। তবে বিক্রেতার চাওয়া দামে কোনও ক্রেতাই পেঁয়াজ কেনেননি বলে জানা গেছে।

এ ক্ষেত্রে বিক্রেতাদের ভাষ্য, বেশি দামে কেনা পেঁয়াজ, তাই সেভাবেই দাম চেয়েছি। কিন্তু ক্রেতারা সে দামে না কিনতে চাইলে আমাদের কী করার আছে? আমরা কম দামে কিনতে পারলে কম দামে বিক্রি করবো বলেও জানান দোকানদাররা। 

তবে তারা বলেছেন, পেঁয়াজের প্রতি মানুষের আগ্রহ কমে গেছে, অপরদিকে বাজারে নতুন পেঁয়াজও উঠতে শুরু করেছে, আবার বিদেশ থেকে উড়োজাহাজে করে পেঁয়াজ আনা হচ্ছে- এসব সংবাদের কারণেই পেঁয়াজের চাহিদা কমে গেছে বলে জানিয়েছেন খিলগাঁও এলাকার খুচরা ব্যবসায়ী মোবারক হোসেন। 

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শান্তিনগর এলাকার বাসিন্দা তোফাজ্জেল হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন, আমরা শুনেছি এবং টিভিতে দেখেছি পেঁয়াজের দাম পাইকারি বাজারে কমছে। কিন্তু আমরা মহল্লার দোকানে তো এর তেমন প্রভাব দেখি না। পাইকারি বাজারে কেজিতে ৮০ টাকা কমলেও খুচরা বাজারে কমছে মাত্র ১০ থেকে ২০ টাকা। এ বিষয়টির দিকে সরকারের নজরদারি বাড়ানো প্রয়োজন।      

এদিকে রাজধানীর বেশ কিছু বাজার ঘুরে দেখা গেছে, দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বাজারে আসতে শুরু করেছে অপরিপক্ব নতুন পেঁয়াজ। বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ পাতাও। দেখা গেছে, আমদানি এবং নতুন পেঁয়াজ ওঠার সংবাদে পেঁয়াজের বাজার অনেকটাই ক্রেতাশূন্য। মঙ্গলবার কাওরান বাজার ঘুরে দেখা গেছে, দেশি পেঁয়াজ ২৫০ টাকা থেকে নেমে এখন ১৯০ থেকে ২০০ টাকা, মিয়ানমারের পেঁয়াজ ১৮০ থেকে ১৯০ টাকা ও মিসরের পেঁয়াজ ১৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। 

এ বাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, গত তিনদিনে পাইকারি বাজারে ৮০ থেকে ১০০ টাকা কমে এখন দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৩০ থেকে ১৫০ টাকা। দেশি নতুন পেঁয়াজ ৮০ টাকা থেকে ১০০ টাকা। আমদানি করা মিয়ানমার ও মিসরের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা থেকে ১১৫ টাকা আর চায়না পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৯০ টাকায়।

এদিকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, মিসর ও তুরস্ক থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ বিমানযোগে কাল বুধবার নাগাদ দেশে পৌঁছাবে। এসব পেঁয়াজ টিসিবি’র মাধ্যমে সারাদেশে বিক্রি হবে।

 

 

 
/এসআই/ওআর/টিএন/

লাইভ

টপ