২৯৩ কোটি টাকা কর দিলো ২১ প্রতিষ্ঠান

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০১:৩৯, নভেম্বর ২১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:৪৮, নভেম্বর ২১, ২০১৯

ব্যাংক

সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলায় ২১টি ব্যাংক, বীমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান ২৯৩ কোটি টাকার আয়করের পে-অর্ডার জমা দিয়েছে। বুধবার (২০ নভেম্বর) রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে ‘আমরা স্বাবলম্বী হবো, সকলে কর দেবো’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার কাছে ব্যাংকগুলোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি), সিইও এবং প্রতিনিধিরা চেক প্রদান করেন। অনুষ্ঠানে সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী আবুল হোসেন, মেলা কমিটির প্রধান ও এনবিআর-এর সদস্য কালিপদ হালদার উপস্থিত ছিলেন।

ব্যাংক ছাড়াও করপোরেট প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে মেলায় সাধারণ বীমা করপোরেশন, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, বেক্সিমকো এবং হেলথ কেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস কর দিয়েছে। মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোন ও বৃটিশ আমেরিকান টোবাকো কর দিয়েছে।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘আয়কর মেলায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে করদাতারা কর জমা দিচ্ছেন। আয়কর মেলাকে তারা নির্ভরযোগ্য বলে মনে করেন। আমরা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, মেলার মতো কর অঞ্চলেও নির্ভরযোগ্য ও বিশ্বস্ততার সঙ্গে কর দিতে পারবেন। কোনও প্রকার হয়রানি হবে না। যদি কেউ হয়রানি করতে চায়, তবে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেবো।’

৩০ নভেম্বরের মধ্যে রিটার্ন দাখিলের অনুরোধ জানিয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘নির্ধারিত সময়ে আয়করের রিটার্ন না দিলে পরবর্তীতে জরিমানা দিতে হবে।’

অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘মেলার মতো হয়রানিমুক্ত কর সেবা আয়কর অফিসেও পাওয়া যাবে।’ ঝামেলাবিহীনভাবে কর রিটার্ন জমা দেওয়ার অনুকূল পরিবেশ পাওয়ার কারণে করদাতারা আয়কর মেলাকে নির্ভরযোগ্য মনে করেন বলে তিনি জানান।

আয়কর মেলা আজ শেষ হলেও ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত কর অঞ্চলে আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়া যাবে। মেলার পরিবেশে যেন কর অফিসগুলোতে করদাতারা করসেবা গ্রহণ করতে পারেন, সেজন্য কর বিভাগের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নির্দেশ দিয়েছি। আমরা করের আওতা বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন ব্যবস্থা নিচ্ছি, করদাতাদের উদ্বুদ্ধ করছি। আয়কর মেলা আয়োজন তারই একটি অংশ।

প্রসঙ্গত, আয়কর মেলায় সর্বমোট ৬ লাখ ৫৫ হাজার ৯৫ জন করদাতা তাদের আয়কর রিটার্ন দাখিল করেছেন। গত ২০১৮ এর কর মেলায় দাখিলকৃত রিটার্ন সংখ্যা ছিল ৪ লাখ ৮৭ হাজার ৫৭৩।

 

/জিএম/এএইচ/

লাইভ

টপ