ইডিএফ থেকে ২ শতাংশ সুদে ঋণ পাবেন রফতানিকারকরা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৫:৩২, এপ্রিল ০৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৩৩, এপ্রিল ০৭, ২০২০

বাংলাদেশ ব্যাংকবিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে অর্থনৈতিক ক্ষতি মোকাবিলায় বাংলাদেশ ব্যাংকের এক্সপোর্ট ডেভেলপমেন্ট ফান্ডের (রফতানি উন্নয়ন তহবিল বা ইডিএফ) আকার বাড়িয়ে ৫ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। একইসঙ্গে ঋণের সুদ হারও কমানো হয়েছে। ফলে এখন এ তহবিল থেকে মাত্র দুই শতাংশ সুদে ঋণ পাবেন রফতানিকারকরা। মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা ও নীতি বিভাগ এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সার্কুলারে বলা হয়, ২০১৭ সালের নির্দেশনা অনুযায়ী এক্সপোর্ট ডেভেলপমেন্ট ফান্ড (ইডিএফ)-এর ঋণের বিপরীতে বাংলাদেশ ব্যাংকের সুদের হার ছিল লাইবর প্লাস এক শতাংশ। এক্ষেত্রে গ্রাহকদের কাছ থেকে লাইবর (লন্ডনের আন্তব্যাংক অফার রেট)-এর সঙ্গে ২ দশমিক ৫০ শতাংশ মুনাফা রাখতো ব্যাংকগুলো। তবে ২০১৯ সালে এই সুদহার পরিবর্তন করে বাংলাদেশ ব্যাংক। চলতি বছরের জুন পর্যন্ত গ্রাহক পর্যায় থেকে ইডিএফের সুদের হার নির্ধারণ করা হয় লাইবর প্লাস ১ দশমিক ৫ শতাংশ।

করোনাভাইরাসের কারণে ফান্ডের আকার ও সুদ হারে পরিবর্তন এনেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, পরবর্তী নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত ইডিএফের ঋণের বিপরীতে লাইবর + ১ শতাংশ হারে সুদ রাখবে বাংলাদেশ ব্যাংক। পাশাপাশি আমদানি-রফতানির সঙ্গে যুক্ত ব্যাংকের এডি শাখাগুলো গ্রাহক পর্যায় থেকে ২ শতাংশ মুনাফা করতে পারবে।

এর আগে গত ৫ এপ্রিল দেশের সম্ভাব্য অর্থনৈতিক ক্ষতি মোকাবিলায় ৫টি প্যাকেজের আওতায় মোট ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী, যা জিডিপির ২ দশমিক ৫২ শতাংশ। এরমধ্যে অন্যতম ছিল বাংলাদেশ ব্যাংকের এক্সপোর্ট ডেভেলপমেন্ট ফান্ডের (ইডিএফ) সুবিধা বাড়ানো। প্যাকেজ-৩ ঘোষণা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ব্যাক টু ব্যাক এলসির আওতায় কাঁচামাল আমদানি সুবিধা বাড়াতে ইডিএফের বর্তমান আকার ৩ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার থেকে বাড়িয়ে ৫ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করা হবে। এর ফলে ১ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলারের সমপরিমাণ অতিরিক্ত ১২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকা ইডিএফ তহবিলে যুক্ত হবে।’ ইডিএফের বর্তমান সুদের হার লাইবর প্লাস ১ দশমিক ৫ শতাংশ (যা প্রকৃতপক্ষে ২ দশমিক ৭৩ শতাংশ) থেকে কমিয়ে ২ শতাংশ নির্ধারণ করা হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

/জিএম/এপিএইচ/এমওএফ/

লাইভ

টপ