X

সেকশনস

নিয়মিত আদালত না খোলা পর্যন্ত ওয়াসার বর্ধিত মূল্য আদায় করা যাবে

আপডেট : ০৭ জুলাই ২০২০, ১৩:৪০

সুপ্রিম কোর্ট সেবার মান না বাড়িয়ে গত ১ এপ্রিল থেকে ঢাকা ওয়াসার পানির ২৫ শতাংশ মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছিলেন হাইকোর্ট। হাইকোর্টের ওই আদেশ ১৬ সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছিলেন সুপ্রিম কোর্ট আপিল বিভাগের ভার্চুয়াল চেম্বার আদালত। আদালত সে আদেশ সংশোধন করে ১৬ সপ্তাহের পরিবর্তে নিয়মিত কোর্ট না খোলা পর্যন্ত হাইকোর্টের আদেশটি স্থগিত করেছেন। এছাড়া নিয়মিত কোর্ট খোলার পর এ মামলার পরবর্তী শুনানি হবে বলেও আদেশ দিয়েছেন। এর ফলে নিয়মিত কোর্ট না খোলা পর্যন্ত ওয়াসার গ্রাহকদের কাছে পানির ২৫ শতাংশ বর্ধিত মূল্য নিতে বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

মঙ্গলবার (৭ জুলাই) চেম্বার বিচারপতি মো. নুরুজ্জামানের ভার্চুয়াল চেম্বার আদালত এ আদেশ দেন। পরে মামলার রিটকারী আইনজীবী মো. তানভীর আহমেদ বাংলা ট্রিবিউনকে আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

গত ৩০ জুন হাইকোর্টের আদেশ ১৬ সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেন সুপ্রিম কোর্ট আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত। চেম্বার বিচারপতি মো. নুরুজ্জামানের ভার্চুয়াল চেম্বার আদালত স্থগিতের এ আদেশ দেন। আদালতে ওয়াসার পক্ষে শুনানিতে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। অন্যদিকে রিটকারী আইনজীবী মো. তানভীর আহমেদের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার অনীক আর হক।

গত ১ এপ্রিল থেকে ঢাকা ওয়াসার পানির ২৫ শতাংশ মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত আগামী ১০ আগস্ট পর্যন্ত স্থগিতের আদেশ দেন হাইকোর্ট। ২২ জুন এক রিটের শুনানি শেষে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এরপর এ আদেশ স্থগিত চেয়ে গত ২৩ জুন আবেদন জানানো হয়।

প্রসঙ্গত, গত ১ এপ্রিল থেকে আবাসিক গ্রাহকদের পানির বিল ২৫ শতাংশ বৃদ্ধি করে ওয়াসা কর্তৃপক্ষ। আর বাণিজ্যিক গ্রাহকের বিল প্রায় ৮ শতাংশ বৃদ্ধি করা হয়। নতুন মূল্যহার অনুযায়ী প্রতি হাজার লিটার পানির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১৪ টাকা ৪৬ পয়সা, যা আগে ছিল ১১ টাকা ৫৭ পয়সা। আর বাণিজ্যিকে প্রতি হাজার লিটারে ৩৭ টাকা ৪ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৪০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। সর্বশেষ গত সেপ্টেম্বরে পানির মূল্য ৫ শতাংশ বাড়ানো হয়েছিল।

 

/বিআই/এমএএ/

সম্পর্কিত

নীলফামারীতে ৬৩৭ গৃহহীন পরিবার পাবে ঘর

নীলফামারীতে ৬৩৭ গৃহহীন পরিবার পাবে ঘর

ডলার আয় করলে কার্ডে নিতে ঘোষণা দিতে হবে না

ডলার আয় করলে কার্ডে নিতে ঘোষণা দিতে হবে না

‘উচ্চশিক্ষার বিস্তার হয়েছে, এখন প্রয়োজন গুণগত মান নিশ্চিত করা’

‘উচ্চশিক্ষার বিস্তার হয়েছে, এখন প্রয়োজন গুণগত মান নিশ্চিত করা’

স্বামীর প্ররোচনায় ভয়ংকর হয়ে ওঠেন রেখা

স্বামীর প্ররোচনায় ভয়ংকর হয়ে ওঠেন রেখা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্বরূপে ফিরে আসুক: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্বরূপে ফিরে আসুক: প্রধানমন্ত্রী

খুলনায় নতুন ঘরসহ জমি পাচ্ছে ৯২২ পরিবার

খুলনায় নতুন ঘরসহ জমি পাচ্ছে ৯২২ পরিবার

স্বল্পসুদে ২০৮৯ ক্ষুদ্র-মাঝারি উদ্যোক্তাকে ১১৩ কোটি টাকা ঋণ দিলো এসএমই ফাউন্ডেশন

স্বল্পসুদে ২০৮৯ ক্ষুদ্র-মাঝারি উদ্যোক্তাকে ১১৩ কোটি টাকা ঋণ দিলো এসএমই ফাউন্ডেশন

অপহৃত প্রবাসী উদ্ধার, গ্রেফতার ৬

অপহৃত প্রবাসী উদ্ধার, গ্রেফতার ৬

হিলিতে অন্যান্য টিকার সঙ্গে করোনার ভ্যাকসিন সংরক্ষণের প্রস্তুতি

হিলিতে অন্যান্য টিকার সঙ্গে করোনার ভ্যাকসিন সংরক্ষণের প্রস্তুতি

নৌ-পর্যটনের উন্নয়নে কাজ করছে সরকার: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

নৌ-পর্যটনের উন্নয়নে কাজ করছে সরকার: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

ভ্যাকসিনবিষয়ক ‘সুরক্ষা অ্যাপ’ ২৫ জানুয়ারি হস্তান্তর

ভ্যাকসিনবিষয়ক ‘সুরক্ষা অ্যাপ’ ২৫ জানুয়ারি হস্তান্তর

সর্বশেষ

যমুনায় তীব্র নাব্য সংকট, ডুবচরে আটকা অর্ধশত পণ্যবাহী জাহাজ

যমুনায় তীব্র নাব্য সংকট, ডুবচরে আটকা অর্ধশত পণ্যবাহী জাহাজ

নীলফামারীতে ৬৩৭ গৃহহীন পরিবার পাবে ঘর

নীলফামারীতে ৬৩৭ গৃহহীন পরিবার পাবে ঘর

ডলার আয় করলে কার্ডে নিতে ঘোষণা দিতে হবে না

ডলার আয় করলে কার্ডে নিতে ঘোষণা দিতে হবে না

ভেঙে ফেলা হবে আমিনবাজার, সালেহপুর ও নয়ারহাট ব্রিজ

ভেঙে ফেলা হবে আমিনবাজার, সালেহপুর ও নয়ারহাট ব্রিজ

‘উচ্চশিক্ষার বিস্তার হয়েছে, এখন প্রয়োজন গুণগত মান নিশ্চিত করা’

‘উচ্চশিক্ষার বিস্তার হয়েছে, এখন প্রয়োজন গুণগত মান নিশ্চিত করা’

নমুনা দিলেন টেস্ট দলের ক্রিকেটাররা

নমুনা দিলেন টেস্ট দলের ক্রিকেটাররা

ইফুডে যুক্ত হলো কেএফসি-পিৎজা হাট

ইফুডে যুক্ত হলো কেএফসি-পিৎজা হাট

মায়েদের বাঁচাতে তিন চাকার গ্রামীণ অ্যাম্বুলেন্স

মায়েদের বাঁচাতে তিন চাকার গ্রামীণ অ্যাম্বুলেন্স

স্বামীর প্ররোচনায় ভয়ংকর হয়ে ওঠেন রেখা

স্বামীর প্ররোচনায় ভয়ংকর হয়ে ওঠেন রেখা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্বরূপে ফিরে আসুক: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্বরূপে ফিরে আসুক: প্রধানমন্ত্রী

লন্ডনে বাঙালির ঘরে ঘরে স্বজন হারানোর আর্তনাদ

লন্ডনে বাঙালির ঘরে ঘরে স্বজন হারানোর আর্তনাদ

নারীর স্নানদৃশ্য ধারণের অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা কারাগারে

নারীর স্নানদৃশ্য ধারণের অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা কারাগারে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘উচ্চশিক্ষার বিস্তার হয়েছে, এখন প্রয়োজন গুণগত মান নিশ্চিত করা’

‘উচ্চশিক্ষার বিস্তার হয়েছে, এখন প্রয়োজন গুণগত মান নিশ্চিত করা’

স্বামীর প্ররোচনায় ভয়ংকর হয়ে ওঠেন রেখা

স্বামীর প্ররোচনায় ভয়ংকর হয়ে ওঠেন রেখা

তিন এসপির বদলি ও পদায়ন

তিন এসপির বদলি ও পদায়ন

খুবির তিন শিক্ষকরে স্বপদে বহালের দাবিতে ৬৬ শিক্ষকের বিবৃতি

খুবির তিন শিক্ষকরে স্বপদে বহালের দাবিতে ৬৬ শিক্ষকের বিবৃতি

সব ওয়ার্ডে একটি করে কমিউনিটি সেন্টার হবে: তাপস

সব ওয়ার্ডে একটি করে কমিউনিটি সেন্টার হবে: তাপস

অভিজিৎ রায় হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ

অভিজিৎ রায় হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ

হাইড্রোলিক হর্নের শব্দদূষণ রোধে পদক্ষেপ জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

হাইড্রোলিক হর্নের শব্দদূষণ রোধে পদক্ষেপ জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

পিপলস লিজিংয়ের ২৮০ ঋণখেলাপিকে হাইকোর্টে তলব

পিপলস লিজিংয়ের ২৮০ ঋণখেলাপিকে হাইকোর্টে তলব


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.